নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

কষ্ট দিয়ে কষ্ট পেতে চাই না।

হাফিজ বিন শামসী

কষ্টটা ভুলে সবাইকে আপন ভেবে ভালবাসতে চাই।

হাফিজ বিন শামসী › বিস্তারিত পোস্টঃ

বন্ধুর গুলিতে রক্তাক্ত সীমান্ত।

১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৭

চুয়াডাঙ্গা সীমান্তে বাংলাদেশি গরু ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যা।

পাশের বাসার বিড়ালটা এসে যদি দুধের হাঁড়ি বা হাজার টাকা কেজি মূল্যের ইলিশ মাছ ভাজা সাবাড় করে দেয় তাও বিড়ালটার গায়ে কেউ আঘাত করে না প্রতিবেশীর সাথে সুসম্পর্কটা নষ্ট হয়ে যাওয়ার ভয়ে। প্রতিবেশীর সাথে সুসম্পর্কটা অটুট থাকার কথা চিন্তা করে আর্থিক ক্ষতির কথাটা ভুলে যাওয়ার চেষ্টা করে। আর বন্ধুর বিড়াল হলে তো কথাই নেই। বন্ধু বলে কথা। যে থাকে অন্তরের অনেকটা জায়গা দখল করে। শুনেছি লাইলীর বাড়ির কুকুরটা মজনুর বাড়িতে এলে মজনু তার পায়ে চুমু খেত।

দুদিন আগে আমরা যাদের সাথে বন্ধুত্বের নিদর্শন স্বরূপ মিষ্টি বিনিময় করলাম। সেই বন্ধুরাই আজ আমাদের লাশ উপহার দিল। আমাদেরই বুঝতে ভুল। আমরা তাদের ভাষা বুঝতে ব্যর্থ হয়েছি। আমরা তাদের নয় প্যাকেট মিষ্টি দিয়েছিলাম।আর তারা দিয়ছিল সাত প্যাকেট। তখনই তারা আমাদের হিসেবটা বুঝিয়ে দিয়েছিল। কিন্তু সে হিসেবটা আমরা বুঝিনি।যা আমরা বুঝিনি তাহলো, বাকী দুই প্যাকেট মিষ্টির প্রতিটির বিনিময়ে আমাদের এক একটি লাশ উপহার দেয়া হবে।

আমরা রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে শুনতে পাই তাদের সাথে আমাদের বর্তমানের সম্পর্ক যে কোন সময়ের থেকে উষ্ণ। সর্বকালের সর্বোচ্চ পর্যায়ে গিয়ে পৌঁছেছে। সর্বোচ্চ পর্যায়ের বন্ধুত্বের সম্পর্ক যখন আমাদের সীমান্তে অসহায়, গরীব, বুভুক্ষু হত্যা থামাতে পারেনা।যে সম্পর্ক জনসাধারণের জন্য নয়। তখন অবশ্যই প্রশ্ন জাগে সে সম্পর্ক তাহলে কার স্বার্থে?
যে সম্পর্ক সাধারণ মানুষের চোখে জল এনে দেয়।যে সম্পর্কের বন্দুকের নালা থাকে জনগণের মাথা বরাবর আর নজর থাকে এ দেশের সম্পদের দিকে তাকে অন্য কেউ বন্ধুত্বের সম্পর্ক বললেও আমি বলি না। আমার কাছে বন্ধুত্বের সংজ্ঞা ভিন্ন।

মন্তব্য ১১ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (১১) মন্তব্য লিখুন

১| ১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:১৯

রাজীব নুর বলেছেন: আসলে সীমান্ত যারা পাহাড়ে দেয়, তারা সমস্ত ইন্ডিয়ার বিভিন্ন এলাকা থেকে এসেছে। তাদের মধ্যে মায়া দয়া কম। সীমান্ত রক্ষীরা যদি বাঙ্গালী হতো তাহলে এরকম ভাবে মারতে পারতো না।

১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:২৭

হাফিজ বিন শামসী বলেছেন: আমাদের বন্ধুত্ব কি শুধু বাঙ্গালীর সাথে?
বিভিন্ন প্রদেশ থেকে যাদের সীমান্তে পাঠানো হয় তাদেরকে অবশ্যই সীমান্তের বিধিমালা সম্পর্কে শিক্ষা দেয়া হয়।

২| ১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:২২

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনি পায়ে হেঁটে কতবার সীমান্ত পার হয়েছেন? কতজন ভারতীয় পায়ে হেঁটে বাংলাদেশে প্রবেশ করে?
সীমান্ত বিশাল সমস্যা আছে, সীমান্তের সমস্যা আপনার লেখায় ধরা পড়েনি।

১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৩৩

হাফিজ বিন শামসী বলেছেন: স্বীকার করি অনেক সমস্যা আছে এবং সে সমস্যাগুলো আমি এখানে উল্লেখ করিনি। কিন্তু সমস্যার সমাধান তো মানুষ হত্যা করে হয় না। এতে আরো জটিলতা সৃষ্টি করে।

৩| ১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৪০

শায়মা বলেছেন: :( :( :(

১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:০২

হাফিজ বিন শামসী বলেছেন: জ্বী, বড়ই দুঃখজনক। বড়ই কষ্টের।

৪| ১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৪৯

ঢাবিয়ান বলেছেন: যে সম্পর্ককে বন্ধুত্ব বলে আখ্যা দেয়া হচ্ছে তা আসলে বন্ধুত্বের নয়, গোলামীর।

১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:০৭

হাফিজ বিন শামসী বলেছেন: বন্ধুত্ব বলে যারা আখ্যা দিচ্ছেন তারা ও মনে হয় বুঝতে পারছেন। তবে পিছনে ফিরে আসতে পারছেন না । কারণ, পিছনে ও বিপদ অপেক্ষা করছে।

৫| ১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:২৬

চাঁদগাজী বলেছেন:

লেখক বলেছেন, " স্বীকার করি অনেক সমস্যা আছে এবং সে সমস্যাগুলো আমি এখানে উল্লেখ করিনি। কিন্তু সমস্যার সমাধান তো মানুষ হত্যা করে হয় না। এতে আরো জটিলতা সৃষ্টি করে। "

-প্রথমত: ভারতের বর্তমান সরকার বাংলাদেশের সাথে অসম-সম্পর্কের সরকার; দ্বিতীয়ত: বিএসএফ'এর নিয়ম আলাদা।
-সীমান্তের নিয়ম হলো, আপনি পায়ে হেঁটে সীমান্ত ক্রস করবেন না।

১৫ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৩:৪৮

হাফিজ বিন শামসী বলেছেন: পায়ে হেঁটে সীমান্ত ক্রস করার পক্ষে আমি নই। এটা অপরাধ। চোরাই পথে গরুসহ যে কোন পণ্য আনা অপরাধ। তবে সেই অপরাধের শাস্তি নিশ্চয় পিটিয়ে হত্যা বা গুলি করে কাঁটা তারে ঝুলিয়ে রাখা নয়।

১৫ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৩:৫১

হাফিজ বিন শামসী বলেছেন: ভারতের বর্তমান সরকার যদি বাংলাদেশের সাথে অসম সম্পর্কের সরকার হয়ে থাকে তবে কেন ঢাক ঢোল পিটিয়ে মিথ্যা সম্পর্কের কথা প্রচার করা হয়?

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.