নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আপাতত থাক, পরে এসে লিখব।

ফারিহা নোভা

আজ রাতে স্বপ্নেরা ভেঙ্গেছে বাঁধ, মুগ্ধতার আকাশে তাই একফালি চাঁদ।

ফারিহা নোভা › বিস্তারিত পোস্টঃ

স্টাডি ইন লিথুয়ানিয়া Klaipeda University পর্ব-১

২৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ দুপুর ১:৪৯




ক্লাইপেডা- লিথুয়ানিয়ার তৃতীয় বৃহত্তম শহর। শহরটি নয়নাভিরাম বাল্টিক সাগরের তীরে অবস্থিত। এর আয়তন ১১০ বর্গ কিলোমিটার। জনসংখ্যা প্রায় ১,৫৭,০০০ জন। রাজধানী ভিলনিয়াস থেকে এর দূরত্ব প্রায় ৩০০ কিলোমিটার।



Klaipeda University: একটি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৯১ সালে। বর্তমানে ছাত্র সংখ্যা প্রায় ৫৮০০। এখানে পড়ালেখা ও জীবন যাত্রার ব্যয় বলতে গেলে আমাদের বাংলাদেশের মতই।



যেসব বিষয় পড়তে পারবেনঃ



থাকা খাওয়ার ব্যয়ঃ ইউনিভার্সিটি ডরমেটরি ৪৫ থেকে ৫৫ ইউরো মাসিক।
আর বাসা ভাড়া নিয়ে থাকলে ১২০ থেকে ২৫০ ইউরো লাগতে পারে।
খাবার খরচ ৬০ ইউরো থেকে ১০০ ইউরো।
বাস কার্ড ৫-৬ ইউরো (প্রতি মাস)
সেশনঃ সেপ্টেম্বর ও ফেব্রুয়ারি।

ভর্তি প্রক্রিয়াঃ ইউনিভার্সিটির ওয়েবসাইট থেকে অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।
আবেদন করতে যা যা লাগবে।
১।অনলাইন ফর্ম পূরণ করতে হবে।
২। SKVC থেকে পাওয়া সার্টিফিকেট এটাচ করতে হবে।
৩।সার্টিফাইড একাডেমিক ডকুমেন্টস।
৪। ইংরেজির দক্ষতা সার্টিফিকেট।
৫। ২০০ ইউরো এপ্লিকেশন ফি ট্রান্সফার এর ব্যাংক ডিটেইলস।
৬। পাসপোর্টের কপি।
এসব কিছু পাঠানোর পর ইউনিভার্সিটি প্রাইমারী অফার লেটার দিবে। এরপর টিউশন ফি ট্রান্সফার করতে হবে। ভিসার জন্য সব পেপারস রেডি করে পাঠাতে ১-২ সপ্তাহ সময় লাগতে পারে। সব কাগজপত্র হাতে পাবার পর ভিসা আবেদনের জন্য আপনাকে প্রস্তুতি নিতে হবে।

ভিসা আবেদন প্রক্রিয়া পরবর্তী পর্বে।
স্টাডি ইন লিথুয়ানিয়া Klaipeda University পর্ব-২

মন্তব্য ১৫ টি রেটিং +১০/-০

মন্তব্য (১৫) মন্তব্য লিখুন

১| ২৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ রাত ৮:০৮

মুহাম্মদ জহিরুল ইসলাম বলেছেন: স্কলারশিপ আছে না নিজের খরচে পড়তে হবে?

২৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ রাত ৮:৪১

ফারিহা নোভা বলেছেন: নিজের খরচে, আমিতো তাই করছি।

২| ২৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ রাত ১০:০৭

আবু শাকিল বলেছেন: স্টাডি ইন লিথুয়ানিয়া এর ব্যাপারে জানতে আপনার ফেবুতে নাকি ইন্সট্রাগ্রামে নক করেছিলাম ।
যাই হোক -পাওয়া গেল ।
এজেন্সীর চেয়ে ব্লগাদের দেয়া তথ্য গুলা অনেক নিরাপদ ;)
ধন্যবাদ অনেক ।

৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ দুপুর ১২:০২

ফারিহা নোভা বলেছেন: সরি আমার হয়তো খেয়াল ছিলো না, পাশে থাকার জন্য অনেক ধন্যবাদ,
পরে এসব বিষয়ের উপর আরো বিস্তারিত পোস্ট পাবেন।

৩| ২৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ রাত ১১:৪৪

দিশেহারা রাজপুত্র বলেছেন: অনেককে সাহায্য করবে। ধন্যবাদ।

৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ দুপুর ১২:০৩

ফারিহা নোভা বলেছেন: আপনাকেও ধন্যবাদ। ভাল থাকবেন।

৪| ২৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ রাত ১১:৪৫

দিশেহারা রাজপুত্র বলেছেন: অনেককে সাহায্য করবে। ধন্যবাদ।

৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ দুপুর ১২:০৫

ফারিহা নোভা বলেছেন: :D

৫| ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ সকাল ১০:১৯

সম্রাট৯০ বলেছেন: বাইরে পড়তে ইচ্ছুকদের জন্য অবশ্যই দরকারি পোস্ট, ধন্যবাদ

৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ সন্ধ্যা ৭:৫৫

ফারিহা নোভা বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ।

৬| ০৪ ঠা অক্টোবর, ২০১৬ সকাল ৭:৫৮

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: ধন্যবাদ পোস্টটির জন্য । এটা অনেকের উপকারে লাগবে । টিউশন ফিস কি অভারসিস স্টুডরন্টদের জন্য নাকি দেশী ও বিদেশী সকলের জন্যই এক রেট ?
শুভেচ্ছা রইল

০৪ ঠা অক্টোবর, ২০১৬ সকাল ৮:৫০

ফারিহা নোভা বলেছেন: টিউশন ফি সবার জন্য এক রেট।
অনেক অনেক ধন্যবাদ, ভাল থাকবেন।

৭| ০৫ ই অক্টোবর, ২০১৬ রাত ২:০০

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: ধন্যবাদ তথ্য দেয়ার জন্য । নিন্মে দেয়া তথ্য দেখে কিছুটা দ্বিধান্বিত হয়েছিলাম , সময় অভাবে Study programmes এ ভিজিট না করে আপনাকে অনুরোধ করেছিলাম ।

http://www.studyinlithuania.lt/en/how_to_apply/tuitionfees

TUITION FEES

“Knowledge is priceless; however, studies have to be paid for”.


At Higher Education institutions in Lithuania, tuition fees differ from institution to institution, depending on level of studies and study programme chosen by the student. Educational institutions announce their tuition fees annually.

On average, the cost of studies at higher education institutions is approximately between 1.000 – 5.300 EUR per year for Bachelor studies, from 2.200 to 6.500 EUR per year – for Master studies and from 7.100 to 8.500 EUR per year -for postgraduate studies. This fee structure applies to you if you are a Lithuanian or EU citizen.

If you come from other countries different tuition fees may apply. You can find more detailed information on tuition fees in the section: Study programmes.

Students at higher education institutions in Lithuania may be awarded a state scholarship and may also participate in international exchange programmes (e.g. Erasmus). Those who participate in students’ exchange programmes do not have to pay any extra tuition fees for the exchange programme. Find out more in the section: Scholarships.


শুভেচ্ছা রইল ।

০৫ ই অক্টোবর, ২০১৬ সকাল ১১:১৮

ফারিহা নোভা বলেছেন: আপনাকেও শুভেচ্ছা, ভাল থাকবেন।

৮| ২৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৬ সকাল ১০:৩৩

খায়রুল আহসান বলেছেন: আপনি কি এখনো ওখানে পড়াশুনা করছেন? কী বিষয়ে?
Electrical/Electronics Engineering /Informatics/Computer Engineering ইত্যাদি বিষয়ে Masters করতে গেলে খরচ কেমন হবে? কোন Scholarship পাবার সম্ভাবনা আছে কি?
অনেকদিন ধরে কোন কবিতা পোস্ট করছেন না। নতুন একটা কবিতা দেখতে চাই।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.