নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমি শুভ্র তারা, চাঁদের পাশে থাকি।

ওমেরা

শালীনতাই সৌন্দর্য্য

ওমেরা › বিস্তারিত পোস্টঃ

পথে চলতে চলতে

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:৩০




Tack, Tack, nej tack :

আমাদের দেশের মত এসব দেশে তো দারোয়ান নেই, শীতে যত কষ্টই হোক তবু হাত বের করেই বাসা,স্কুল,কলেজ বা অফিস আদালতের গেট নিজেকেই খুলে ভিতরে ঢুকতে হবে । এখানে আসার পর থেকেই দেখেছি কেউ যখন গেট খুলে ভিতরে ঢুকবে পিছনে তাকিয়ে দেখে কাছা কাছি কেউ আছে নাকি, যদি কেউ থাকে তাহলে সে গেট খুলে অপেক্ষা করে। এটা বেশ ভাল একটা ভদ্রতা।

আমি তখনো খুব পুরোনো হয়নি, সকাল বেলা স্কুলে আসছি, আমার আগেই একটা মেয়ে গেট খুলেছে, আমাকে দেখে সে দরজাটা ধরে দাড়িয়ে আছে, দরজা ফাঁকা পেয়ে আমি সুন্দর ঢুকে সামনে এগিয়েছি আচমকা পেছন থেকে জ্যাকেটে টান পরাতে পিছন ফিরে তাকিয়েছি, মেয়েটা খুব সিরিয়াস ভাবে, আমি তোমাকে দরজা খুলে দিলাম, তুমি আমাকে থাক বল নাই, থাক বলে যাও।
আমি মুখটা বাঁকা করে বল্লাম থাক।


Artificial :

এরপর থেকে “থাক” আর “নেই থাক” বলতে বলতে এমন অভ্যাস হয়ে গেল প্রতি কথায়ই এটা চলে আসে। কলেজে আমার ক্লাসেরই এক মেয়ে, একদিন কথার বলার সময় আমার দিকে তাকিয়ে, তুমি একটু বেশী থাক, থাক বল ।

জী, এটা তোমাদের ক্যালচার, আমি তোমাদের কাছেই শিখেছি।
মেয়েটা না মানে, তুমি এত বেশী থাক থাক বল, এটাকে এক্কেবারে ফলস বানিয়ে ফেলছ।
আস্তে করে বল্লাম, খাঁটি বলে তোমাদের কিছু আছে নাকি!!

আমাদের svenskaর টিচার, উনি খুব সুন্দর করে সুইডিশ ক্যালচারের উপর অনেকটা আমার মত সহজ সরল ভাষায় সুন্দর আলোচনা করতেন ।একদিন উনি মানুষের ব্যবহার নিয়ে আলোচনা করার পর উদাহরন দিলেন,” মনে কর তোমাদের বাসায় কোন মেহেমান আসল কোন গিফ্ট নিয়ে, গিফ্ট খুলে তোমার পছন্দ হল না, কিন্ত তুমি এমন ভাবে উচ্ছাস প্রকাশ করবা যেন এর আগে এত সুন্দর, এত ভাল গিফ্ট তুমি পাওনি, সেটা যদি তোমার জন্য কোন পোশাক হয় সাথে সাথে পরবা, যদি কোন সুপিচ হয় তাহলে এমন জায়গায় রাখবা যাতে সবার নজরে পরবে । এতে সে অনেক খুশী হবে। এর পর সে চলে যাবার পর সেটা তুমি ফেলেও দিতে পার বা আরালে কোথাও রেখেও দিতে পার। এটা আমাদের সুইডিস ক্যালচারে হয় ।

মেয়েটা আমার পাশেই ছিল আমি ঘুরে তার দিকে তাকাতেই মুখটা কেমন যেন করল, মনে হল একটু লজ্জাই পেল।

Discrimination :

ছোট্ট এই জীবনে অনেক ভাল মানুষের সংস্পর্শ পেয়েছি, যারা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ভাবে আমাকে সাহায্য করেছে সামনে এগিয়ে যেতে। তেমনি একজন ড: টুমাস, সে বৃটিশ নাগরিক, আমার কলেজ শিক্ষক। কলেজে প্রথম দুই বছর সে আমার ক্লাস টিচার ছিল।
এখানে স্কুল থেকে কলেজ পর্যন্ত বছরে সাধারনত দুইবার ষ্টুডেন্টদের গার্জিয়ানদের ডাকা হয়। ক্লাস টিচার প্রতিটা ষ্টুডেন্টকে সাথে নিয়ে তার গার্জিয়ানদের সাথে তার লিখা পথেকে শুরু করে, স্কুলে উপস্থিতি কেমন, অন্যদের সাথে তার আচরন, চাল চলন এসব নিয়ে খোলাখুলি কথা বলেন ও পরামর্শ দেন ,গার্জিয়ান বা ষ্টুডেন্ট এর যদি কোন কথা বা পরামর্শ থাকে সেটাও শুনেন।

কলেজে যখন আমাকে প্রথম বার ডাকা হল, এরা প্রথমে কখনোই নিগেটিভ কথা বলবে না। ড: টুমাস ও এর ব্যাতিক্রম নন ।উনি প্রথমেই বলা শুরু করলেন, তুমি সব বিষয়েই ভাল করেছ, আমি যতটুকু আশা করি নাই তুমি তার চেয়েও ভাল করেছ, তোমার লিখা পরা আগ্রহ আছে এটা খুব ভাল একটা, ক্লাসে টিচারকে অনেক প্রশ্ন কর এটাও অনেক ভাল, তবে তোমার একটু সমস্যা সেটা হল তুমি তোমার তোমার ক্লাসমেটদের সাথে ফ্রীভাবে মিশ না, আমি খেয়াল করেছি তুমি নিজেকে সব সময় সংকোচিত করে রাখ, তবে আমি আশা করি এটা আস্তে আস্তে ঠিক হয়ে যাবে।
তোমার মনে একটা হুপ আছে তোমার চোখে,মুখে আমি সেটা দেখতে পাই,আমি বিস্বাসও করি তুমি অনেক চেষ্টাও কর, তাই আমি আরও একটু কথা বলতে চাই, এই কথাটা আমি কোন সুইডিস ষ্টুডেন্টকে বলব না, বা আমি নিজে যদি সুইডিস হতাম তাহলে তোমাকে বলতাম না।

আমি বেশ অবাক হয়েই উনার কথাগুলো মনোযোগের সাথে শুনছিলাম।
তুমি সব বিষয়েই ভাল করেছ,কিন্ত এই ভাল দিয়ে তুমি তোমার স্বপ্নকে ছুঁতে পারবে না।

কেন পারব না ?

তুমি সুইডিশ হলে আগামী তিন বছর তুমি তোমার এই রেজাল্ট ধরে রাখতে পারলেই তুমি তোমার কাংখিত লক্ষে পৌঁছে যেতে কিন্ত তুমি তো ইনভান্দ্ররা।এখানে কি পরিমান ডিসক্রেমিনাশন হয় সেটা তুমি এখনো বুঝতেছ না,তুমি সামনে যত আগাবা ততই বুঝতে পারবে, সেটা হোক ভাল কোন সাবজেক্ট এ ভর্তি বা জব। এরা তোমার ফ্যামেলী নেইম দেখেই বুঝে যাবে তুমি সুইডিশ নও।
যে কোন ব্যপারে তুমি আর একজন সুইডিশ যদি একই মানের হও তাহলে তুমি বাদ পরে যাবা, আবার কখনো তোমার পয়েন্ট একটু বেশী হলেও সুইডিশ বলে সে উতরে যাবে, আবার কখনো লটারী করে তোমাকে আটকে দিবে।কাজেই তোমাকে আরো অনেক বেশী পরিশ্রম করতে হবে তোমার কাংখিত লক্ষে পৌছাঁতে ।
তোমার আশা আছে, চেষ্টা আছে আমার বিস্বাস তুমি পারবে, শুধু আশাটাকে সামনে রেখে তুমি চেষ্টা কর। এর পরও তার সাথে কয়েকবার উনার সাথে কন্ট্রাক হয়েছে, সব সময় উনার কাছ থেকে উৎসাহ আর সাহস পেয়েছি যা আমার চলার পথের পাথেয় হয়ে আছে ।

মন্তব্য ৫৭ টি রেটিং +৯/-০

মন্তব্য (৫৭) মন্তব্য লিখুন

১| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:৩৬

মোস্তফা সোহেল বলেছেন: খুব সুন্দর লিখেছেন ওমেরা।
পড়ে অনেক ভাল লাগল।

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:৪১

ওমেরা বলেছেন: থাক ভাইয়া। অনেক অনেক থাক প্রথম কমেন্টের জন্য ভাইয়া।

২| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:৪১

সম্রাট ইজ বেস্ট বলেছেন: ভাল!

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:৪৩

ওমেরা বলেছেন: হি হি হি হি ———— কালকেরটা ফিরত দিলেন ভাইয়া। থাক ভাইয়া।

৩| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:৪৪

সম্রাট ইজ বেস্ট বলেছেন: আমি আবার কারো দেনার নিচে থাকতে চাই না।

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:৫০

ওমেরা বলেছেন: আমি যা দেই ফি- সাবিলিল্লাহ করেই দেই, ফিরত পাওয়ার জন্য দেই না ভাইয়া । আরেকবার থাক ভাইয়া।

৪| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:৫৩

সম্রাট ইজ বেস্ট বলেছেন: হি হি হি হি ———— , আপনার এই হাসিটাই সবসময় আপনার মুখে লেগে থাকা দেখতে চাই। গোমড়া মুখ নয়। পাব?

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:৫৭

ওমেরা বলেছেন: আমি তো আপনাদের সাথে সব সময় হাসি খুশী থাকতে চাই, শুধু সুন্দর একটু সময় আপনাদের সাথে কাটানোর জন্যই ব্লগে আসি । অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া ।

৫| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:৫৭

জাহিদ অনিক বলেছেন:


চলতি পথের গল্প ভালো লাগলো ওমেরা !
পথচলা সুন্দর হোক।

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:৫৮

ওমেরা বলেছেন: অনেক অনেক থাক আপনাকে ভাইয়া।

৬| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৩:০০

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন: সত্যি উনি খুব সুন্দর পরামর্শ দিয়েছিলেন আপনাকে যা আপনার পাথেয়।

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৩:০৫

ওমেরা বলেছেন: জী ভাইয়া তার জন্য আমি উনার কাছে সারাজীবন কৃতজ্ঞ থাকব । অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া ।

৭| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:০০

সামিয়া বলেছেন: খুব সুন্দর করে গুছিয়ে লেখা। ভালোলাগা রইলো ++++

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:০৮

ওমেরা বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ আপু ।

৮| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:৩৪

তারেক মাহমু৩২৮ বলেছেন: ভাল লাগলো

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:১৭

ওমেরা বলেছেন: থাক ।

৯| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:৩৪

তারেক মাহমু৩২৮ বলেছেন: ভাল লাগলো

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:১৮

ওমেরা বলেছেন: থাক, থাক।

১০| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:০০

নতুন নকিব বলেছেন:



৬. ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৩:০০ ০
মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন: সত্যি উনি খুব সুন্দর পরামর্শ দিয়েছিলেন আপনাকে যা আপনার পাথেয়।


-সহমত।
সুন্দর লেখায় অভিনন্দন।

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:২৫

ওমেরা বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া ।

১১| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:২৬

রাজীব নুর বলেছেন: খুব সুন্দর লিখেছেন। লেখাটা পরে খুব ভাক্লো লাগলো।
এতই ভালো লাগ্লো যে পর-পর দুইবার পড়লাম।

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:২৯

ওমেরা বলেছেন: রাজীব ভাইয়া জিন্দাবাদ! আমারও খুব ভাল লাগল ভাইয়া আপনার কথা শুনে তাই আপনাকে tusen tack ভাইয়া।

১২| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:০২

কামালপা বলেছেন: ওই সব দেশেও তাহলে প্রচুর বৈষম্য হয়। অথচ ব্লগে একদল লোক ইউরোপ আমেরিকার গুণগান করতে করতে মুখে ফেনা তুলে ফেলে।

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:৩০

ওমেরা বলেছেন: বৈষম্য সব জায়গায়ই আছে কম আর বেশী । ধন্যবাদ ভাইয়া

১৩| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:০২

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ভালো লিখেছ। থাক ওমেরা বুবু।

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:৩৭

ওমেরা বলেছেন: Tusen, tusen tack দাদু ভাইয়া।

১৪| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:১৪

ধ্রুবক আলো বলেছেন: ভালো লিখেছেন, কিছু টাইপো ছিলো থাক

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:৩৯

ওমেরা বলেছেন: ভাইয়া আমাকে কি মাফ করা যায় না ? আমি আসলে অনেক চেষ্টা করে পারি না কি করব এখন । ধন্যবাদ ভাইয়া।

১৫| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:১৫

মিথী_মারজান বলেছেন: থাক মানে ধন্যবাদ, একটা নতুন শব্দ শিখলাম।
ভাল লাগল।
তবে ছোট মিষ্টি একটা ধন্যবাদ কিন্তু মাঝে মাঝে সম্পর্ক অনেক সহজ করে তোলে।
বৈষম্য ব্যপারটা ভাল লাগে না।
কিন্তু আপনার টিচারের কথাগুলো খুব সুন্দর।

ভাললাগা জানবেন। :)

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:৪১

ওমেরা বলেছেন: জী আপু এটা ঠিক বলেছেন তাই বলে কি পিছন থেকে টেনে ধরতে হবে, এরকম আমার কয়েক বার হয়েছে ।অনেক অনেক ধন্যবাদ আপু ।

১৬| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:৩২

জুন বলেছেন: অতিথির পাওয়া গিফটের ব্যপারে যা বল্লেন ওমেরা তাকে আমি ফলস বলবো না । সবার পছন্দতো এক না । তারপর ও সামান্য একটু প্রচেষ্টায় তার যে খুশীটা আপনি দেখলেন এটাই আমার কাছে অনেক বড় ব্যাপার। এটাতো আমার দেয়া উপহারের ক্ষেত্রেও ঘটতে পারে তাই নয় কি ? আমার উপহার পেয়ে সে যদি অবহেলা ভরে রেখে দেয় সেটা আমারো খারাপ লাগবে । অল্প আয়াসে আমি একজনার মুখে হাসি ফোটাতে পারি আর দেখতেও পারি সেই হাসিভরা মুখ :)
আপনার পথ চলতি দিনপন্জী ভালোলাগলো ওমেরা ।

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:০৩

ওমেরা বলেছেন: আপু আপনার কথায় যুক্তি আছে । আপু গিফ্ট তো গিফ্ট ই যে আনবে সে তার পছন্দ ও সামর্থ অনুযায়ী আনবে। আমি গিফ্ট পেলাম আমি এতেই খুশীই হব আমার পছন্দ হোক বা না হোক । সামনে খুশীতে গদ গদ করব আড়ালে ফেলে দিব এটা আমি পারব না ।

অনেক ধন্যবাদ আপু।

১৭| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:৪৩

কলাবাগান১ বলেছেন: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেনীতে প্রথম হওয়ার সময় দেখতাম হিন্দু ছেলে মেয়েদের শিক্ষক বানাতে কি বৈষম্য...। ১৫ জন প্রথম হলে (বিভিন্ন বিভাগে), ২-১ জন ও শিক্ষক হতে পারত না...যেখানে নিজের দেশের লোকদের ই বৈষম্যের শিকার হতে হয় সেখানে 'ভিনদেশী' হিসাবে সাটল রেসিজম কে গন্য করা ছাড়া কোন উপায় নাই

এখন লাফ দিয়ে কানাডা থেকে মন্তব্য আসবে বাংলাদেশে চাকরীতে হিন্দু তে সয়লাব...উনার কাছে মানুষ হল হিন্দু আর মসুলমান... যোগ্যতার কোন দাম নাই

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:২০

ওমেরা বলেছেন: ভাইয়া আপনি এক্কেবারে আমার মনের কথাই বলেছেন , সুইডেন এ ১ কোটির মত জনসংখ্যা তার মধ্যে ১২ লাখের উপরে বিদেশী। অন্ন, বাসস্থান, শিক্ষা, চিকিৎসা সব সুযোগ সুবিধা একই দিচ্ছে কোন বৈষম্য নেই । ভিতরে ভিতরে কিঁছু বৈষম্য তো থাকবেই । অনেক সময় আবার কষ্ট ও পাই এই বৈষম্যের কারনে তখন মনকে এটা বলেই শান্তনা দেই এদের কল্যানে অনেক তো পেয়েছি । আবার নিজের দেশের কথাও ভাবি আমার দেশে যদি এরকম বিদেশীরা আশ্রয় নিত, এত সুযোগ সুবিধা দিতে হত আমি নিজেই তো সহ্য করতে পারতাম না , এখন যেমন রোহিংগাদের নিয়ে নানা জনের নানা ধরনের কথা শুনছি ।

অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া ।

১৮| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:৩২

আবু তালেব শেখ বলেছেন: আপনার প্রত্যেকটা লেখাই আমার বেশ পছন্দনীয়

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:২৫

ওমেরা বলেছেন: তাই নাকি ভাইয়া !! অনেক খুশী হয়েছি ভাইয়া । অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া ।

১৯| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:৪০

মনিরা সুলতানা বলেছেন: হোয়াইট দের মাঝে অনেক বৈষম্য !

চমৎকার কিছু কথা আছে লেখায় ।

শুভ কামনা ।

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:২৭

ওমেরা বলেছেন: অনেক অনেক ধনবাদ আপুনি ।

২০| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:১৬

আখেনাটেন বলেছেন: গিফট পেলে উচ্ছ্বাস প্রকাশ একটি উত্তম পন্থা। এটা পরিবার থেকে বাচ্চাদের শিখানো উচিত।

আর রেসিজম সব দেশেই নানাভাবে নানা আঙ্গিকে বিদ্যমান।


ভালো লেগেছে লেখা।

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:২৯

ওমেরা বলেছেন: জী ভাইয়া গিফ্ট পেয়ে আমরা খুশী হব আড়ালে ও সেটাকে আমরা সন্মান করব , হোক সেটা কমদামী বা অপছন্দনীয় । অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া ।

২১| ০৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১২:১২

চানাচুর বলেছেন: আপনার লেখা পড়তে বেশ ভাল লাগে।

০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১২:৪০

ওমেরা বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ আপু ।

২২| ০৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১২:৩২

সুমন কর বলেছেন: প্রথম ২টি পড়ে মজা পেলাম। শেষেরটিতে এসে সিরিয়াস হলাম। আপনার সুইডিশ শিক্ষক কিন্তু মিথ্যে সান্ত্বনা দেননি। সত্য বলেছেন।
লেখা ভালো লাগল।

০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১২:৪১

ওমেরা বলেছেন: জী সত্য বলেছেন ভাইয়া। অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া।

২৩| ০৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:৩৭

মাহমুদুর রহমান সুজন বলেছেন: এতো সুন্দর করে লিখার জন্য ওমেরা বুবুকেও থাক।

০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১২:৪১

ওমেরা বলেছেন: আপনাকে মিলিয়ন গংগের থাক ভাইয়া।

২৪| ০৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:২২

অলিউর রহমান খান বলেছেন: আপনার লিখাটি সাজানো, গোছানো, স্বচ্ছ ও সুন্দর। একজন লেখকের লিখা পড়লেই তার মননশীল চেতনার পরিচয় পাওয়া যায়। আমি ফেইসবুক ব্যবহার করে আসছি ২০১০ সাল থেকে এবং ব্লগিং সম্পর্কে অনেক কথাই শুনতাম কিন্তু এর সাথে পরিচয় ছিলো না। ফেইসবুকে খুঁজে খুঁজে লেখকদের বের করতে চাইতাম কিন্তু এখানে এসে দেখি সব জ্ঞানী গুণী লেখকদের মেলা। প্রতিনিয়ত তাদের লিখা পাঠে মুগ্ধ হচ্ছি ও কিছু শেখার চেষ্টা করছি। আপনাদের লেখা দেখলে মনে হয় আমি এখানে কি জন্য লিখতে এসেছি আবার ভাবি চেষ্টা তো করা যায়।

আপনাক লিখা পড়ে গল্প, কবিতার রাজ্যে হারিয়ে......”থাক কথা গুলো ভবিষ্যতের জন্য রেখে দিলাম....

০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১২:৪৪

ওমেরা বলেছেন: আপনি কে গো ভাইয়া এক্কেবার বাধভাংগা প্রশংসায় আমাকে ভাষিয়ে দিলেন । ওকে বাকি কথা গুলো শুনার অপেক্ষায় থাকলাম ।অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া ।

২৫| ০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ২:৫৫

অলিউর রহমান খান বলেছেন: আমি আপনাদের সাথে নতুন যোগ দিয়েছি কিছু লিখা লিখির চিন্তা নিয়ে কিন্তু এখানে ঠিকে থাকা এতটা সহজ নয় মনে হচ্ছে। তবু আপনাদের পাঠক হয়ে থাকতে চাই কারণ লিখা গুলো আমি মিস করতে চাই না।

আমি সত্য প্রকাশ করতে ভালোবাসি, তা যতো কঠিনই হোক। ভাসাইনি, কথা গুলো সত্যি বলেছি! জ্বী! ভবিষ্যতের জন্য রেখে দিলাম। আপনাকে ও ধন্যবাদ।

০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৩:০৯

ওমেরা বলেছেন: আপনার ব্লগে আপনার যা ইচ্ছা তাই লিখতে পারেন শুধু ব্লগনীতিমালা লংগন না হলেই হল। আমার প্রতিটা লিখায় অনেক বানান ভুল হয় নানাজনে নানা কথা বলে আমি কিছু মনে করি না , আমি যা পারি তা লিখি কেউ কমেন্ট করুক বা না করুক । আপনি ও আপনার লিখুন অন্যদের পোষ্টে কমেন্ট করুন দেখবেন সবাই আপনাকে আপন করে নিবে ।

২৬| ০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ভোর ৫:৫৯

মলাসইলমুইনা বলেছেন: ওমেরা খুবই ভালো লাগলো এই লেখাটা | আই রিপিট খুবই ভালো লাগলো | বিদেশের এই অভিজ্ঞতাগুলোতো সবার হয় না |তাই খুব ইউনিক এই লেখাগুলো | শুনতে ভালো লাগে খুব | আপনার এই লেখাগুলো খুবই আলাদা ব্লগের সবার লেখার চেয়ে | তাই সবসময়ই ভালো লাগে |একঘেয়ে মনে হয় না কখনো | হ্যাটস অফ টু ইউ !

০৯ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১:৩২

ওমেরা বলেছেন: ভাপু কেমন আছেন ? ভাপু এত প্রশংসা না করলে ও আমি খুশী আছি আপনার উপর। আর আপনার তো অবশ্যই এসব অভিজ্ঞতা আছে নিশ্চয়। ধন্যবাদ ভাপু।

২৭| ২৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১:৩৫

শুভ_ঢাকা বলেছেন: হাই ওমেরা, কেমন আছেন। গত প্রায় এক মাস খুব ব্যস্ত ছিলাম। খুব একটা সামুতে আসিনি। পথে চলতে চলতে নামে আপনি সুইডেনের উপর বেইস করে একটা সিরিজ লিখছেন। আমি বেশ আগ্রহ নিয়ে সিরিজটি ফলো করি। যেহেতু আপনি পথে চলতে চলতে নামে এই সিরিজটি লিখছেন, তাই পাঠকদের সুবিধার্থে আপনি এর শিরনাম পথে চলতে চলতে ১, ২, ৩ এই সিকুয়েন্সে দিতে পারেন। অবশ্য এটা আমার একান্তই ব্যক্তিগত অপিনিয়ন। আপনি ডিফ্যার করতে পারেন বা এই সিরিজ নিয়ে আপনার ব্যক্তিগত অন্য কোন পরিকল্পনাও থাকতে পারে। এনি ওয়ে, পাঠক হিসাবে আপনার সহজ সরল লেখার সাথে আমি সব সময়ই আছি। খুব ভাল থাকবেন।

২৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১:৫২

ওমেরা বলেছেন: হেই সেয়ানা !! আলহামদুল্লিলাহ ! আমি ঘুব ভাল আছি । আপনি কেমন আছেন ভাইয়া ? ব্যাস্ত ছিলেন আসেন নাই, কিন্ত আমি আপনাকে খুঁজেছি অনেক ভাইয়া ! কিন্ত আপনার ব্লগে তো কোন পোষ্ট নেই তাই আপনাকে খুঁজা অনেক কঠিন ভাইয়া !! আপনার অপিনিয়নে খুব খুশী হয়েছি ভাইয়া । অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া ।

২৮| ২৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১:৫০

শুভ_ঢাকা বলেছেন: এইমাত্র এই পর্বটি পড়লাম। খুব ভাল লাগলো। মনে হল সময়ের সঠিক ব্যবহার করলাম।

আপনার সার্বিক কল্যাণ হোক বোন ওমেরা।

২৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১:৫৭

ওমেরা বলেছেন: আল্লাহ আপনার দোওয়া কবুল করুন আপনার জন্য ও আমার জন্য । আমীন

Tujen tack ভাইয়া ।

২৯| ২৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ২:০০

শুভ_ঢাকা বলেছেন: লেখালেখি আমার কম্ম নয় বা সেই যোগ্যতাও আমার নেই। তাই আমার ব্লগবাড়ি ফাঁকা মরুভূমি। আমি একজন সাধারণ পাঠক। আমার পছন্দের বিষয় পেলে খুব আগ্রহ নিয়ে পড়ি। :)

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.