নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমি একজন ছাত্র। পদার্থ বিজ্ঞান নিয়ে সম্মান শ্রেণিতে পড়ছি।

তাওহিদ হিমু

.

তাওহিদ হিমু › বিস্তারিত পোস্টঃ

মুভি রিভিউ : পিকে (বহুব্রীহি পোস্ট)

২৯ শে আগস্ট, ২০১৬ বিকাল ৫:০৪

আমাদের খোদা এত ক্ষুদ্র না যে, বাচ্চা মেয়েরা স্কুলে গেলেই তাঁর সিংহাসন উলটে যাবে (-পিকে মুভির সংলাপ অনুসারে)।

অসাধারন একটি মুভি #PK! দুয়েকজন ছাড়া প্রায় সবাই দেখেছেন। এই 'পিকে' মুভি নিয়ে অনেক বিতর্ক। আমি কিছু বিষয় খেয়াল করেছি। নিচে পয়েন্ট আকারে বলছি। তারও নিচে ব্যাখ্যা দিচ্ছি।
১) পিকে মুভিতে সবরকম পৌত্তলিকতা ও ধর্মব্যবসাকে নগ্ন করে তাদের অসারতা দেখান হয়েছে।
২) এখানে নাস্তিক্যবাদকেও সমর্থন করা হয় নি।
৩) সম্ভবত খুব সূক্ষ্মভাবে ইসলামকে সমর্থন করা হয়েছে।এখানে শিয়া/খারেজি মতবাদ, মাজারপূজা, সন্ত্রাস, জঙ্গিপনা, গোঁড়ামি ইত্যাদিকে পঁচানো হয়েছে, যেসবের সাথে মূলত ইসলামের কোনো সম্পর্ক নেই।

উপরের তিন পয়েন্ট অনুযায়ী নিচে কয়েকটি সংলাপ/উক্তি লক্ষ করুন।
¤আমির খান ও একজন মূর্তিবিক্রেতার সংলাপ::
মূর্তি বিক্রেতা: মূর্তি পূজার মাধ্যমে ভগবানের কাছে মনের কথা পৌঁছানো যায়।
আমির খান: মূর্তির পেছনে কি ট্রান্সমিটার লাগানো আছে? পূজার (মনের) কথা ভগবানের কাছে কেমনে পৌঁছবে?
মূ বি: আরেহ ভাই, ট্রান্সমিটার লাগে না। ভগবান সরাসরি আমাদের কথা শুনতে পান।
আ খান: ভগবান সরাসরি আমাদের কথা শুনতে পেলে এই মূর্তির কাজ কি আর??
মূ বি: ভাই! আপনি আমাদের (ধর্মব্যবসার) ধান্দা বন্ধ করে দিবে নাকি?

¤ মুভির শেষ দিকের এক বিতর্কে আমির খানের উক্তি- "যে ভগবান সবাইকে বানিয়েছেন, তাকেই বিশ্বাস কর।" এর দ্বারা বুঝা যায় যে, এখানে নাস্তিক্যবাদকে প্রত্যাখ্যান করে 'বিশ্বাস' বা আস্তিক্যবাদকে সমর্থন করা হয়েছে।

¤ খোদাকে বা ভগবানকে রক্ষার দোহাই দিয়ে কতিপয় মৌলবাদী মুসলিম বোমাহামলা, হত্যাযজ্ঞ ও সন্ত্রাস চালায়; একইভাবে কতিপয় মৌলবাদী হিন্দু/বৌদ্ধ দাঙ্গা বা সংঘাত বাঁধিয়ে মানুষ খুন করে। এজন্য জনৈক ভন্ড হিন্দু তপস্বীকে আমির খান বললেন- "তুমি ছোট একটা গ্রহের ছোট একটা শহরের ছোট একটা গলিতে বসে বলছ যে, তুমি তাকেই রক্ষা করবে, যিনি সারা জাহান বানিয়েছেন?!"
এই প্রশ্নবোধক বাক্যটি না-বোধক অর্থ দেয়। যার মানে: স্রষ্টা এতই মহা, এতই বিপুল, এতই বিশাল, এতই অসীম যে, তারই ইঙ্গিতে সৃষ্ট এই সীমাহীন বিশ্বের তুলনায় বিন্দুবৎ একটি গ্রহের কোণায় ছোট একটি শহরের পঁচা গলির শেষপ্রান্তে দুর্গন্ধময় কোনো বাসায় বসে থাকা জ্ঞানপ্রজ্ঞাহীন মূর্খ জিঘাংসু কোনো (অ)মানুষের প্রয়োজন নেই সেই স্রষ্টা বা তার ধর্মকে রক্ষার জন্য। যেমন কুরানে আয়াতুল কুর্সিতে আছে: "বিস্তৃত তাঁর সিংহাসন নভোমণ্ডল ও ভূমণ্ডল জুড়ে, যে-দুই অঞ্চলের রক্ষণাবেক্ষণে তিনি কখনো শ্রান্ত বোধ করেন না।"
যেখানে তাঁর সৃষ্টিকে রক্ষা করার জন্য তিনি কারো সাহায্যের প্রয়োজন বোধ করেন না, সেখানে তাঁর ধর্মকে রক্ষা করবে কিছু মস্তিষ্কবিকৃত মূর্খ ভগ্নগাল ছোকরা? তাও আবার তাঁরই সৃষ্ট সৃষ্টির সেরা নিরপরাধ বেসামরিক মানুষকে বোমাহামলায় (পাকিস্তানে) বা পিটিয়ে (ভারতে) কিংবা কোপিয়ে (বাংলাদেশে) হত্যা করে??
আমাদের খোদা এত ক্ষুদ্র না যে, বাচ্চা মেয়েরা স্কুলে গেলেই তার সিংহাসন উলটে যাবে (-পিকে মুভির সংলাপ অনুসারে); নারীশিক্ষায় উলটে তো যাবে আল-কায়েদা আর শিবসেনাদের আসন। তাহলে স্রষ্টার স্বার্থে না, বরং নিজেদের স্বার্থেই তারা প্রগতি ও অগ্রসরতায় বাঁধ সাধে।

বলতে গেলে অনেক কথা বলার আছে। তবে বলব না বেশি কথা। এবার নায়কের কথা বলি। ব্যাক্তিগত জীবনে আমির খান একজন আদর্শ মানুষ। অধ্যবসায়, ধৈর্য, আন্তরিকতা, বাস্তববাদিতা ইত্যাদি সব ভাল গুণই তার মাঝে আছে। তার প্রতিটি মুভিতে সমাজের জন্য গুরুত্বপূর্ণ কোনো শিক্ষা থাকে, থাকে অনুপ্রেরণাও। এখনো পর্যন্ত আমার সবচে' প্রিয় মুভি হলো '3idiots'। ভলিউডের প্রেমকাহিনীভিত্তিক গৎবাঁধা মুভির গণ্ডি থেকে বেরিয়ে আমির খান প্রতিবারই নতুন কিছু নিয়ে আসেন দর্শকদের জন্য।

মন্তব্য ৬ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (৬) মন্তব্য লিখুন

১| ২৯ শে আগস্ট, ২০১৬ বিকাল ৫:১৬

অ‌প্রিয় সত্য বলেছেন: ভলিউডের প্রেমকাহিনীভিত্তিক গৎবাঁধা মুভির গণ্ডি থেকে বেরিয়ে আমির খান প্রতিবারই নতুন কিছু নিয়ে আসেন দর্শকদের জন্য।

২৯ শে আগস্ট, ২০১৬ সন্ধ্যা ৬:২৯

তাওহিদ হিমু বলেছেন: ধন্যবাদ।

২| ২৯ শে আগস্ট, ২০১৬ সন্ধ্যা ৬:১০

দ্যা ফয়েজ ভাই বলেছেন: ছবিটা সুন্দর ছিল,এবং শিক্ষনীয় অনেক কিছুই ছিল। :)

২৯ শে আগস্ট, ২০১৬ সন্ধ্যা ৬:৩১

তাওহিদ হিমু বলেছেন: ঠিক বলেছেন, ভাই। :) ধন্যবাদ আপনাকে।

৩| ২৯ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ৮:২২

মিঃ অলিম্পিক বলেছেন: হুম ছবিটা আমার কাছে দারুন লেগেছে....

২৯ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১১:৪৬

তাওহিদ হিমু বলেছেন: হুঁম। দারুণই। ধন্যবাদ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.