নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমি একজন ছাত্র। পদার্থ বিজ্ঞান নিয়ে সম্মান শ্রেণিতে পড়ছি।

তাওহিদ হিমু

.

তাওহিদ হিমু › বিস্তারিত পোস্টঃ

বিজয়ের ৪৬ বছরে কতটুকু এগুলাম : \'সমৃদ্ধশালী\' বাংলা কেন এখনো দরিদ্র?

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:৪৪

বাংলাদেশ পাকিস্তানকে নানান সূচকে টপকে যাওয়ায় ইদানীং অনেকেই বড়াই করছে। পত্রপত্রিকাতেও এ নিয়ে লেখাজোখা হচ্ছে। প্রশ্ন হলো, আমাদের বাংলাদেশ কি আসলেই যথাযোগ্য উন্নতি অর্জন করেছে?

স্বাধীনতার ৪৬ বছর পর পাকিস্তানের প্রায় সমান হওয়া আসলেই গৌরবজনক নয়। ১৯৭২-১৯৯১ এই দুই দশকে বাংলাদেশে উল্লেখযোগ্য উন্নতি হয় নি, হয়েছিল ক্ষমতালিপ্সুদের ক্ষমতা দখলের ধ্বংসাত্মক দ্বন্দ্ব। ১৯৭২-৭৫ এই চার বছর ছিল কমিউনিস্টদের সন্ত্রাস ও তাদের বিপরীতে বঙ্গবন্ধু কর্তৃক ক্ষমতা কুক্ষিগত করার দুঃখজনক অধ্যায়; সেই সাথে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ পরপর প্রাকৃতিক দুর্যোগেও আক্রান্ত হচ্ছিল।

১৯৭৫'র আগস্ট থেকে শুরু হলো সরাসরি সামরিক শাসন। পৃথিবীর অল্পকিছু দেশ অগণতান্ত্রিক সামরিক শাসনে থেকে উন্নত হলেও বেশিরভাগ দেশ গরিব থেকেছে। বাংলাদেশও সামরিক শাসনে যথেষ্ট ভুগেছিল। প্রগতিশীল আদর্শ থেকে শুরু করে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা পর্যন্ত সব নষ্ট হয়েছিল। অর্থনীতিতেও তেমন উন্নতি হয় নি। সমরনায়কেরা জনপ্রিয়তা পেতে কতগুলো লোকদেখানো উন্নতি করেছিল বটে, তবে সেসবে কাজের কাজ কিছুই হয় নি। স্বাধীনতার পরের দুই দশকে ডিক্টেটর আর স্বৈরাচারীরা নষ্টভ্রষ্ট করে ফেলেছিল দেশকে; ঠিক একই সময়ে পাকিস্তান দ্রুত উন্নতি করেছিল।

যদিও ২০১৪-তে গণতন্ত্র আবারও হোঁচট খেয়েছে, ১৯৯১ থেকে দেশে গণতন্ত্র চালু থাকায় অর্থনীতি আলোর মুখ দেখে। এ সময়ে জিডিপি-তে গড় বার্ষিক প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৬.৫% এর মত। এটি আশাজাগানিয়া। কিন্তু এই প্রবৃদ্ধি কি আমাদের জন্য যথেষ্ট? না। আমাদের প্রবৃদ্ধি আরো ২ থেকে ৪ পার্সেন্ট বেশি হওয়া উচিত ছিল, এবং সেটাই হত আমাদের যোগ্য উন্নতি। প্রশ্ন হলো, কেন তা হয় নি? সোজা উত্তর: দুর্নীতি। আওয়ামীলীগ-বিএনপি দুনো দলই দুর্নীতি করছে লাগামহীনভাবে। লুট, চুরি, দখল, দলীয়করণ, স্বজনপ্রীতি, সমর্থন লাভের জন্য কর্তৃপক্ষগুলোকে অযোগ্য চোরদের হাতে ছেড়ে দেওয়া, অর্থপাচার, নিজেরা অনৈতিকভাবে সুবিধাভোগ, ঋণখেলাপ, প্রতিপক্ষকে দমন, দলন, নিপীড়ন ইত্যাদি সবই তাদের দুর্নীতি। দুর্নীতিতে দু'দলই সমান। সন্দেহ নেই এসবে প্রবৃদ্ধি কয়েক শতাংশ কম হয়ে গিয়েছে। প্রচারমুখো দল আওয়ামীলীগের আমলে বিএনপি'র সমান উন্নতি হলেও তারা এমভাবে প্রচার করে, যেন তারা বাংলাদেশকে জাপান বানিয়ে ফেলেছে। পদ্মাসেতু, ফ্লাইওভার, SEZ, মেট্রোরেল, টানেল ইত্যাদি অবকাঠামো প্রশংসার দাবিদার। কিন্তু এগুলো মোটেই আহামরি কিছু নয়। ভারত-পাকিস্তান এজাতীয় অবকাঠামোতে অনেক এগিয়ে আছে।

আমরা এখন যেমন গরিব, আমাদের পূর্বপুরুষেরা তেমন ছিল না। হাজার বছরের ইতিহাসে পূর্ব বাংলা ছিল পৃথিবীর সমৃদ্ধতম অঞ্চলগুলোর একটি। মোঘল আমলে বাংলার নাম মুখে আনলেই নামের আগে 'সমৃদ্ধশালী' শব্দটি জুড়ে দেওয়া হতো। ১৭শ শতকে ইউরোপের মধ্যে সবচেয়ে উন্নত ছিল ব্রিটেন, আর ব্রিটেনের সমান উন্নত ছিল পূর্ববাংলা। বাঙালিরা এখন যেমন ইউরোপ-আমেরিকা-মালয়েশিয়া পাড়ি দেয়ার স্বপ্ন দেখে, তেমনি সে-কালে ইউরোপীয়রা স্বপ্ন দেখত দুর্লঙ্ঘ ভারত মহাসাগর পাড়ি দিয়ে এদেশে পৌঁছানোর। তাদের অনেকে মাসের পর মাস সমুদ্রে থেকে মারা যেত, অনেকে শেষতক এদেশে এসে অল্পকিছুকাল ব্যবসা করে কিংবা এদেশের নবাবের কাজ করে অর্থ জমিয়ে নিজ দেশে ফিরে যেত। কিন্তু ব্রিটিশ আমল থেকে আমরা গরিব হতে থাকলাম। ব্রিটিশেরা এদেশে তাদের Captive market বা বন্দি বাজার সৃষ্টি করেছিল;- অর্থাৎ, ব্রিটিশের পণ্য বেশি দামে কিনতে বাধ্য ছিল এদেশের মানুষ, অন্য কারো থেকে কিছু কেনবার অনুমিত ছিল না; আবার এদেশে উৎপাদিত পণ্য কম দামে তাদের কাছেই বেচতে হত, অন্য কারো কাছে বেচতে দিত না ব্রিটিশেরা। তাদের ১৯০ বছরে ধনবান বাঙালি জাতি এক ভিক্ষুক জাতিতে পরিণত হলো। পাকিস্তানি আমলে বাংলা আরো পিছিয়ে গেল।

ইতিহাসে দেখা যাচ্ছে, আড়াই শ' বছর আগেও পৃথিবীর সেরা ধনী জাতিগুলোর একটি ছিলাম আমরা। তাহলে বিদেশীরা বিতাড়িত হবার অল্প সময়েই আমাদের দ্রুত উন্নতি করার কথা। তা কি আমরা আদৌ করতে পেরেছি? স্বাধীনতার ৪৬ বছর পর ১৫০০ ডলার মাথাপিছু আয় বা ৭৩% শিক্ষার হার কিংবা HDI 0.579 নিয়ে গর্ব করা কি আমাদের মানায়?

এখন আমরা যত উন্নত, তার চেয়ে দ্বিগুণ উন্নত হওয়া উচিত ছিল আমাদের। আশা রাখি, বাংলাদেশ অল্প কয়েক দশকে পৃথিবীর সমৃদ্ধতম দেশ গুলোর একটি হবে, ঠিক যেমন ছিল ব্রিটিশ শোষণের আগে হাজার ধরে।

সবাইকে বিজয়দিবসের শুভেচ্ছা।

মন্তব্য ১ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (১) মন্তব্য লিখুন

১| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:০১

সাইন বোর্ড বলেছেন: উত্তর অাছে উত্তর নাই ...

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.