নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

লেখালেখি

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম › বিস্তারিত পোস্টঃ

রম্যরচনাঃ বাচ্চা ভয়ংকর

৩০ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ৮:৩৭

কোন এক অজ্ঞাত কারণে বাচ্চা কাচ্চাদের সাথে আমার বনিবনা বেশ ভালো। চকোলেট ও আইসক্রিমের প্রতি এই বুড়ো বয়সেও আমার তীব্র আকর্ষণ এর একটা কারণ হতে পারে। আমার নিজের দুটো বাচ্চা এখন আর বাচ্চা নেই। একজন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে, আর একজন বিশ্ববিদ্যালয়ের পাট চুকিয়ে দিয়ে চাকরি করছে। তাই আত্মীয়স্বজন ও প্রতিবেশিদের বাচ্চা কাচ্চাই আমার ভরসা।

তো এদের মধ্যে ঢাকা নিবাসী আমার এক শ্যালিকার দুটো বাচ্চার কথা বলি। তারা পাঁচ ও সাত বছরের দুই বোন একদিন তাদের মগবাজারের সরকারি ফ্ল্যাটের দোতলায় সিঁড়ির ল্যান্ডিং-এ বসে খেলা করছিল। আমি ঢাকায় গেলে কখনো কখনো এদের বাসায় থাকি। আমার ভায়রাভাই একজন সরকারি কর্মকর্তা। সেদিন ছিল শুক্রবার। ছুটির দিন। বেলা সাড়ে দশটার দিকে মগবাজার পৌঁছে ফ্ল্যাটের বাইরে ল্যান্ডিং-এ বসে বাচ্চাদের খেলতে দেখে আমি আনন্দের সাথে বললাম, ‘হ্যালো আম্মারা, আপনারা কেমন আছেন?’
ওরা খেলতে খেলতে মাথা না তুলেই বললো, ‘ভালো।’

আমি ওদের পাশে ধপ করে বসে পড়লাম। তারপর সাইড ব্যাগ খুলে চারটা চকোলেট, দুটো চিপস্ আর দুটো ম্যাঙ্গো ফ্রুটি বের করে ওদের হাতে ধরিয়ে দিতেই ওদের সাথে আমার পুরনো বন্ধুত্ব চাঙ্গা হয়ে উঠলো। ওরা দু’বোন আমার চকোলেট প্রীতির কথা জানে। তাই একটা চকোলেট আমাকে ফিরিয়ে দিয়ে বললো, ‘এটা তুমি খাও।’
দেখলাম, ওদের ফ্ল্যাটের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ। আমি চকোলেট খেতে খেতে বললাম, ‘আপনারা বাইরে বসে খেলছেন কেন? এ সময় না আপনাদের কার্টুন দেখার কথা!’
বড় বোনটি কাঁদো কাঁদো স্বরে বললো, ‘আব্বু ছুটির দিনেও বাসায় বসে অফিসের কাজ করে। আমাদেরকে কার্টুন দেখতে দেয় না।’
আমি কলিং বেল টেপার জন্য উঠে দাঁড়ালে ছোট বোনটি মুখভর্তি চকোলেট নিয়ে থড়বড় করে বললো, ‘টলিং (কলিং) বেল টিপো না খালু। আব্বু আম্মু দু’জনেই লেগে (রেগে) যাবে।’
‘কেন, রেগে যাবে কেন?’
বড় বোনটি বললো, ‘অফিসের কাজ করছে যে! আমাদেরকে বলেছে কেউ যেন কলিং বেল না টিপে।’
‘ও, আচ্ছা।’
আধা ঘণ্টা পর অফিসের কাজ শেষ হলো। আমার শ্যালিকা ফ্ল্যাটের দরজা খুলে ‘আম্মুরা এসো’ বলে আমার দিকে চোখ পড়তেই ভুত দেখার মতো চমকে গেল। থতমত খেয়ে কোনমতে বললো, ‘দু দু দুলাভাই, আপনি?’

চাকরি জীবনে আমার এক কলিগের ছয় বছর বয়সী ছেলের কথা বলি। কলিগ ভদ্রলোক ভীষণ রাশভারি স্বভাবের মানুষ। বাসায় বা অফিসে সব সময় গম্ভীর মুখে থাকেন। কথাবার্তা প্রায় বলেন না বললেই চলে। ফলে বাচ্চার সাথে তার কোন বন্ধুত্ব নেই। কিন্তু একদিনের দেখাতেই বাচ্চাটির সাথে আমার বন্ধুত্ব হয়ে গেল। কীভাবে জানেন?
আমার বাসায় একটা ছোট খাটো ম্যারেজ ডে’র অনুষ্ঠান ছিল। অনুষ্ঠানে অফিস কলিগদের কয়েকজনকে কাপল্ ওয়াইজ দাওয়াত দিয়েছিলাম। রাশভারি ভদ্রলোক বাচ্চাটিকে সাথে নিয়ে এসেছিলেন। কেক কাটাকুটি শেষ হলে ডাইনিং-এ বসে খাওয়া দাওয়ার সময় বাচ্চাটি ‘এটা খাবো না’, ‘ওটা খাবো না’ বলে তার মাকে খুব বিরক্ত করছিল। আমি ফ্রিজ খুলে একটা আইসক্রিম আর একটা চকোলেট এনে ওর হাতে দিলে সে মহাখুশি। জিব দিয়ে আইসক্রিম চাটতে চাটতে সে টুপ করে আমার কোলে বসে পড়লো। আমি ওকে আদর করতে করতে বললাম, ‘তোমাকে কে বেশি আদর করে? আব্বু না আম্মু?’
বাচ্চার সোজা সাপটা জবাব, ‘কেউ না।’
বাচ্চার বাবা মা বিব্রত। আমরাও বাচ্চার চটপটে জবাব শুনে একটু থমকে গেছি। পরিবেশ হালকা করার জন্য অন্য একজন কলিগের স্ত্রী হাসতে হাসতে বললেন, ‘ও, বুঝেছি। তোমার আব্বু আম্মু তোমার ছোট বোনটিকে বেশি আদর করে, তাই না?’
‘না।’ বাচ্চাটি চিৎকার করে বললো, ‘আব্বু শুধু আম্মুকে আদর করে।’

আমার ছয়জন ভাড়াটিয়ার মধ্যে একজনের থ্রি মেম্বার ফ্যামিলী। স্বামী, স্ত্রী ও পাঁচ বছরের একটি ভয়ানক বাচ্চা। বাচ্চাটি প্রায়ই তার মায়ের কষ্ট করে বেঁটে রাখা রান্নার মশলাগুলো তিন তলার জানালা দিয়ে বাইরে ফেলে দেয়। আর শুধু মশলা নয়, জানালা বা বারান্দার গ্রিল দিয়ে ছুঁড়ে ফেলা যাবে এমন প্রায় সব জিনিষই সে ছুঁড়ে ফেলে। রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাওয়া লোকজনের গায়ে পড়ে মাঝে মাঝে এ নিয়ে ভীষণ হাউ কাউ হয়।

একদিন বাচ্চাটি তার বাবার মোবাইল ফোন গ্রিলের ফাঁক দিয়ে ছুঁড়ে নিচে ফেলে দিল। পাকা রাস্তার ওপর পড়ে মোবাইলের দফা রফা। আমার পরিবার গ্রাউন্ড ফ্লোরে থাকে। ওর বাবার হাতে ‘দুম’, ‘দুম’ করে মার খেয়ে বাচ্চার আকাশ পাতাল চিৎকার আমরা গ্রাউন্ড ফ্লোর থেকেই শুনতে পেলাম। আমার ও আমার মিসেসের খুব কষ্ট হলো। বাচ্চাটিকে ওর বাবার হাত থেকে রক্ষা করার জন্য আমি অস্ট্রেলিয়া থেকে আমার এক আত্মীয়ের পাঠানো প্রায় আধা হাত লম্বা একটা চকোলেট নিয়ে ধুপ ধাপ করে তিন তলায় উঠে ওর বাবার উদ্দেশ্যে রাগতঃ স্বরে বললাম, ‘ছোট বাচ্চা। একটা ভুল না হয় করেই ফেলেছে। তাই বলে এভাবে মারতে হবে?’
বাচ্চাটিকে ওর বাবার কবল থেকে মুক্ত করে আমি কোলে তুলে নিলাম। আদর করে চকোলেটটা ওর হাতে দিয়ে বললাম, ‘তুমি তো ভালো ছেলে। এই কাজ আর কখনো করো না, কেমন?’
ভালো ছেলে চকোলেটটা হাতে নিয়ে লাফিয়ে কোল থেকে নেমে দৌড়ে গিয়ে বারান্দার গ্রিল দিয়ে সেটা বাইরে ফেলে দিল। আমি নিচে গিয়ে দেখি, রাস্তার পাশে স্ল্যাববিহীন নর্দমার নোংরা পানিতে পড়ে চকোলেটটা একবার ডুবছে, আর একবার ভাসছে।

কিছুদিন থেকে আমার বড় ছেলেকে বিয়ে দেওয়ার জন্য প্রস্তুতি চলছে। প্রস্তুতির অংশ হিসাবে তার ঘরের পুরনো ফার্নিচার বদলে নতুন ফার্নিচার কেনা হচ্ছে। চার পাল্লার (দরজার) একটা চমৎকার আলমারি কেনা হয়েছে। বাড়ির সবার পছন্দ। মোবাইলের যুগে এই যৎসামান্য খবরও কী আর চাপা থাকে? আত্মীয়স্বজন যে যখন আসছে, সেই দেখে বলছে, ফ্যান্টাসটিক! কিন্তু আমার সম্বন্ধীর (স্ত্রীর বড় ভাইয়ের) আট বছরের ছোট মেয়েটি আলমারি দেখে কী বললো, জানেন?
চার পাল্লা আলমারির দুটো অংশ থাকে। এক অংশে সেলফ, অন্য অংশে হ্যাঙ্গার ও ড্রয়ার। মেয়েটি তার আঙ্গুল দিয়ে দুই অংশ দেখিয়ে বললো, ‘একটা ভাইয়ার জন্য, আর একটা ভাবীর জন্য। বেবীর জন্য কই? বেবীর কাপড় চোপড় রাখতে হবে না?’
********************************************************************************************************************
রি-পোস্ট

মন্তব্য ৫৪ টি রেটিং +১৩/-০

মন্তব্য (৫৪) মন্তব্য লিখুন

১| ৩০ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ৯:০৩

জেন রসি বলেছেন: হাহাহাহাহাহা.......

আসলেই বাচ্চা ভয়ংকর! :P

৩০ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ৯:০৯

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই জেন রসি।


ভালো থাকুন। শুভকামনা রইল।

২| ৩০ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ৯:০৮

কল্পদ্রুম বলেছেন: বাচ্চাদের যা দেখে সেটাই বলে।তাদের মনটা যে সরল প্রকৃতির।আর একটা সরল মনের মানুষের সাথে আর একটা সরল মনের মানুষের খাতিরই সবচেয়ে সহজে হয়।

৩০ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ৯:১২

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: বাচ্চাদের যা দেখে সেটাই বলে।তাদের মনটা যে সরল প্রকৃতির।আর একটা সরল মনের মানুষের সাথে আর একটা সরল মনের মানুষের খাতিরই সবচেয়ে সহজে হয়।

আপনার মন্তব্যটি খুবই তাৎপর্যপূর্ণ। ধন্যবাদ ভাই কল্পদ্রুম। ভালো থাকুন। শুভকামনা রইল।

৩| ৩০ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ৯:২৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


১ম ও ২য়টি চলমান জীবন থেকে

৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ সকাল ১০:৫৫

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই চাঁদগাজী।


ভালো থাকুন। শুভেচ্ছা রইল।

৪| ৩০ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ৯:৩৪

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: !:#P

৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ সকাল ১০:৫৭

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই সেলিম আনোয়ার।


ভালো থাকুন। শুভেচ্ছা রইল।

৫| ৩০ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ১০:৪৬

সুমন কর বলেছেন: হাহাহা......মজার :P

+।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ সকাল ১০:৫৮

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই সুমন কর।


ভালো থাকুন। শুভকামনা রইল।

৬| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ১:১৪

নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন বলেছেন: প্রথমটায় অবাক হয়েছি (হাসিটা মনে মনে ছিল), দ্বিতীয়াতে ভাবনায় ডুবেছি (মাঝেমধ্যে বাচ্চাকাচ্চাদের দুএকটা চুমাটুমা দিতে হয়), তৃতীয়াংশে হেসে উঠেছি গা ঝাঁকিয়ে, শেষমেশ ভাবীর জন্য শুভকামনা রেখেছি।

শ্রদ্ধেয় গুরুজির অপারেশন সফল ভেবে অত্যন্ত খুশি অনুভব করছি।
অগ্রিম ঈদ মোবারক

৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ সকাল ১১:০০

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ঈদ মোবারক।

ধন্যবাদ ভাই নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন। ভালো থাকুন। শুভকামনা রইল।

৭| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ সকাল ১০:১৭

মোস্তফা সোহেল বলেছেন: হেনা ভাই রম্য ফাটাফাটি হইছে।
ঈদের শুভেচ্ছা রইল।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ সকাল ১১:০১

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ঈদের শুভেচ্ছা আপনাকেও।


ধন্যবাদ ভাই মোস্তফা সোহেল। ভালো থাকুন।

৮| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ সকাল ১০:৩৭

শাহাদাৎ হোসাইন (সত্যের ছায়া) বলেছেন: চার পাল্লা আলমারির দুটো অংশ থাকে। এক অংশে সেলফ, অন্য অংশে হ্যাঙ্গার ও ড্রয়ার। মেয়েটি তার আঙ্গুল দিয়ে দুই অংশ দেখিয়ে বললো, ‘একটা ভাইয়ার জন্য, আর একটা ভাবীর জন্য। বেবীর জন্য কই? বেবীর কাপড় চোপড় রাখতে হবে না?’-

স্মার্ট চিন্তা ভাবনা।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ সকাল ১১:০৩

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: তাহলেই দেখুন আজকালকার বাচ্চারা কত স্মার্ট!


ধন্যবাদ ভাই শাহাদাৎ হোসাইন। ভালো থাকুন। শুভেচ্ছা রইল।

৯| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ সকাল ১১:০৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম ,




বাচ্চা ভয়ংকর কিন্তু তার চেয়েও ভয়ংকর বাচ্চার বাপ - আ মো আ ই............ খালি আম্মুকে আদর করে। :P B-) X(

৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ সকাল ১১:২৮

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: না রে ভাই, সেই বয়স কী আর আছে? হাঃ হাঃ হাঃ।


ধন্যবাদ ভাই আহমেদ জী এস। ভালো থাকুন। শুভেচ্ছা রইল।

১০| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ সকাল ১১:১৫

ওমেরা বলেছেন: দাদু ভাইয়া আমিও এখনো বাচ্চাই রয়েছি , কারো বাসায় নতুন কোন কিছু দেখলে আমারও মনে এই ধরনের প্রশ্ন আসে আবার অনেক সময় আবার ফট করে বলেও ফেলি । ঈদ- মোবারক দাদুভাইয়া।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ সকাল ১১:৩৩

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ঈদ মোবারক ওমেরা বুবু। তুমি এখনো বাচ্চাই আছো জেনে ভালো লাগলো। বাচ্চারা পাপমুক্ত বেহেশতের ফুল। তাদেরকে এ জন্যেই আমার খুব ভালো লাগে।


ধন্যবাদ বুবু। ভালো থেক। শুভকামনা রইল।

১১| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৬

সানহিমেল বলেছেন: অনেক সুন্দর হয়েছে আগে একবার পরেছিলাম মনে হয় তবে তারপরও আজকে আবার পরলাম, ভালোই লেগেছে। বাচ্চাদের সাথে মিশতে আমার ও ভালো লাগে।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৫৮

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: হাঁ ভাই, এটি রি-পোস্ট। পুনরায় পড়ার আপনাকে ধন্যবাদ।


ভালো থাকুন। শুভেচ্ছা রইল।

১২| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৩:১৫

জাহিদ অনিক বলেছেন: ফেসবুকে আপনার সুস্থ্যতার খবর পেয়েই মনে মনে ভেবেছিলাম এবার একটা খাসা রম্য আসবে আবুহেনা ভাইয়ের থেকে।
আশা পূরণ হয়েছে।
গল্প খাসা হয়েছে ।

ছুটির দিনে বাবা মায়ের প্রাইভেট অফিস করাকে সাপোর্ট দিয়ে বাইরে খেলাধুলা করছিল পিচ্চিরা ! আপনি আবার বেরসিকের মত সেখানেই গিয়ে উপস্থিত হলেন ! ;) B-)

৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ৮:০১

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: হাঃ হাঃ হাঃ। ভালো বলেছেন। রসের গল্প লিখতে গিয়ে আমি নিজেই বেরসিক হয়ে গেলাম।


ধন্যবাদ ভাই জাহিদ অনিক। ভালো থাকুন। শুভেচ্ছা রইল।

১৩| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৪:২২

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন: এখনও পড়া হয়নি। প্রিয়তে রাখলাম। পরে পড়ে নেব। ধন্যবাদ।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ৮:০২

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই মাইদুল সরকার।


ভালো থাকুন। শুভকামনা রইল।

১৪| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৪:৩৩

বিষাদ সময় বলেছেন: ব্লগে আপনাকে দেখেই যথেষ্ট খুশি হয়েছি, আর লেখা পড়ে সে আনন্দ চারগুন হয়েছে........
ভাল থাকুন সব সময় সেই কামনা হেনা ভাই....

৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ৮:০৩

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই বিষাদ সময়।


আপনিও ভালো থাকুন। শুভকামনা রইল।

১৫| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:০৩

কাছের-মানুষ বলেছেন: চমৎকার হয়েছে ভাই।
বাচ্চা–কাচ্চা সত্যিই মাঝে মাঝে ভয়ংকর হয়ে উঠে! আমার ছোট ছেলে ইতিমধ্যেই একটা জলজ্যান্ত মোবাইল ভেঙ্গে ফেলেছে, আর আর আমার নতুন মোবাইলের হায়াত কমিয়ে দিয়েছে নিচে ফেলতে ফেলতে ।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ৮:০৬

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: হাঃ হাঃ হাঃ। এই না হলে বাচ্চা! আপনার ছোট ছেলের জন্য অনেক শুভকামনা রইল।


ধন্যবাদ ভাই কাছের মানুষ। ভালো থাকুন। শুভেচ্ছা রইল।

১৬| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:১০

সামিউল ইসলাম বাবু বলেছেন: কমেন্টের অবস্থা দেখে না পড়ে পারলামনা।

চমৎকার।

তবে ঘটনাগুলা কি সত্যি!!!

রম্য চমৎকার লেগেছে

৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ৮:০৯

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ১০০% সত্য ঘটনা। ব্লগে আমার যেসব লেখা প্রথম পুরুষে বর্ণিত, সেগুলো সবই সত্য ঘটনা অবলম্বনে।


ধন্যবাদ ভাই সামিউল ইসলাম বাবু। ভালো থাকুন। শুভকামনা রইল।

১৭| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:১৫

শুভ্র বিকেল বলেছেন: বাস্তবতার সাথে হাসির ঝিলিক মোড়ানো। অসাধরণ, সহজ ভাষায় এতো সুন্দর! অনেক অনেক ধন্যবাদ হেনা ভাই। দীর্ঘ সময় পর আপনাকে পেলাম। আমি বেশ কিছুটা অনিয়মিয়ত। আপনার শারিরীক কি অবস্থা? লম্বা সময় মনে হয় অসুস্থ ছিলেন।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ৮:১২

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: হাঁ ভাই, আমার দুই চোখে অপারেশন হওয়ায় আমি নিজেই অনেক দিন অনিয়মিত ছিলাম। এখন ভালো আছি।


ধন্যবাদ ভাই শুভ্র বিকেল। ভালো থাকুন। শুভকামনা রইল।

১৮| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ৮:১৮

সামু পাগলা০০৭ বলেছেন: হাহাহা! হাসতে হাসতে শেষ হেনাভাই। মজার সব অভিজ্ঞতা অনেক সরল, সুন্দরভাবে বর্ণিত! উফফ! বাচ্চারা পারেও!
দোয়া রইল সুস্থ ও সুখী থাকুন।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ৮:২৭

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: আলহামদুলিল্লাহ। তোমাদের দোয়ার বরকতে এবং মহান আল্লাহর ইচ্ছায় আমি সুস্থ ও সুখী আছি ম্যাডাম।


ভালো থেকো। শুভকামনা রইল।

১৯| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ৯:৩৫

সোহানী বলেছেন: হেনা ভাই পারেন ও বটে.............

তবে আমার সাথে বাচ্চাদের দারুন খাতির। আশেপাশের সব বাচ্চাদের মোটামুটি আশ্রয় কেন্দ্র আমার বাসা। ছুটির দিনে যে একটু বিশ্রাম নিবো তা হবে না কারন ওইদিনে তারা ঘুম থেকে উঠেই আমার বাসায়। আর নিজেরতো ৬ বছরের মেয়ে আছেই ..... তাদের সম্মিলিত দুস্টুমি যদি দেখেন তাহলে বাসা ছেড়ে পালাবেন। আমার যাবতীয় শোপিস অর্ধেক ভাঙ্গা, টবের গাছের দফারফা, সেলফের বই এর পাতা প্রায় ছেঁড়া, সারা ঘর তছনছ.............. মাঝে মাঝে ভয় পাই পাশের থেকে না জানি কেউ ৯১১ এ কল দেয়।

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৭ সকাল ৯:৩৯

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: আশেপাশের সব বাচ্চাদের মোটামুটি আশ্রয় কেন্দ্র আমার বাসা। ছুটির দিনে যে একটু বিশ্রাম নিবো তা হবে না কারন ওইদিনে তারা ঘুম থেকে উঠেই আমার বাসায়। আর নিজেরতো ৬ বছরের মেয়ে আছেই ..... তাদের সম্মিলিত দুস্টুমি যদি দেখেন তাহলে বাসা ছেড়ে পালাবেন। আমার যাবতীয় শোপিস অর্ধেক ভাঙ্গা, টবের গাছের দফারফা, সেলফের বই এর পাতা প্রায় ছেঁড়া, সারা ঘর তছনছ.............. মাঝে মাঝে ভয় পাই পাশের থেকে না জানি কেউ ৯১১ এ কল দেয়।

হাঃ হাঃ হাঃ। দারুন! এই বাচ্চাদের পুরস্কার দেওয়া উচিৎ।

ধন্যবাদ বোন সোহানী। ভালো থাকবেন। শুভকামনা রইল।

২০| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৭ রাত ১০:১৬

প্রামানিক বলেছেন: আধা ঘণ্টা পর অফিসের কাজ শেষ হলো। আমার শ্যালিকা ফ্ল্যাটের দরজা খুলে ‘আম্মুরা এসো’ বলে আমার দিকে চোখ পড়তেই ভুত দেখার মতো চমকে গেল। থতমত খেয়ে কোনমতে বললো, ‘দু দু দুলাভাই, আপনি?’

শ্যালিকার গোপন কথাটা ফাঁস করে দিলেন হেনা ভাই।

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৭ সকাল ৯:৪১

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: না, না, গোপন কথা ফাঁস করিনি, প্রকাশ করে দিয়েছি। হাঃ হাঃ হাঃ।


ধন্যবাদ প্রামানিক ভাই। ভালো থাকুন। শুভকামনা রইল।

২১| ০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৭ রাত ১:১৮

নিওফাইট নিটোল বলেছেন: হুট করে অাপনার লেখাটা চোখে পড়ল অার "বাচ্চা ভয়ংকর" টাইটেলও কিছুটা অাকর্ষণ করল......চলে এলাম.....অাপনার ব্লগবাড়িতেও প্রথম কমেন্টাইতে বসলাম :D

আধা ঘণ্টা পর অফিসের কাজ শেষ হলো
হা হা ম গে অবস্থা হয়েছে এইখানে এসে.......জব্বর বলেছেন.......টিপ্পনীটা দারুণ ছিল......ভাগ্যিস সেদিন কাজের লোডটা কমই ছিল- না হলে দরজা খুলতে বোধহয় ঘন্টাখানেক লাগতই :P

আব্বু শুধু আম্মুকে আদর করে =p~
কিছু বাচ্চা অাসলে হয়ই ড্রামাটিক.......জায়গা বুঝে বেফাঁস কথা বলাতে জুড়ি নেই.......বাচ্চা নিয়ে অামারও বোধহয় এমন দু'একটা ভয়ংকর মেমোরী অাছে.....কিন্তু অামার অাবার গোল্ডফিস মেমোরী কি না- সময়মত বাড়ি দিলেও রেসপন্ড করে না!!!

পিচ্চি অামিও খুব পছন্দ করি.......অাপনার মতো অামি হয়তো তেমন কথা বলি না- কখনো চকলেট সাধিও নাই.......অামি শুধু মুখের দিকে তাকিয়ে থাকি- কেন জানি মন দিয়েই সব কথা বলতে এবং বলাতে চেষ্টা করি- চুপ থেকে মনের কথা পড়তে এবং পড়াতে চাওয়ার একটা চেষ্টা থাকে........কখনোই সাকসেসফুল হইনি- তবে পিচ্চিরা অামার কোলে থাকলে কেন জানি চুপ হয়ে যায়- কখনো কখনো মুখের দিকে তাকিয়েই চুপ মেরে যায়- নো ডিষ্টার্বিং নো ক্যাচাল.....খুব ভালো লাগে তখন- বাচ্চাদের নিষ্পাপ নিস্তব্ধতা.......অপার্থিব-অতুলনীয় 8-|

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৭ সকাল ৯:৪৭

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: পিচ্চি অামিও খুব পছন্দ করি.......অাপনার মতো অামি হয়তো তেমন কথা বলি না- কখনো চকলেট সাধিও নাই.......অামি শুধু মুখের দিকে তাকিয়ে থাকি- কেন জানি মন দিয়েই সব কথা বলতে এবং বলাতে চেষ্টা করি- চুপ থেকে মনের কথা পড়তে এবং পড়াতে চাওয়ার একটা চেষ্টা থাকে........কখনোই সাকসেসফুল হইনি- তবে পিচ্চিরা অামার কোলে থাকলে কেন জানি চুপ হয়ে যায়- কখনো কখনো মুখের দিকে তাকিয়েই চুপ মেরে যায়- নো ডিষ্টার্বিং নো ক্যাচাল.....খুব ভালো লাগে তখন- বাচ্চাদের নিষ্পাপ নিস্তব্ধতা.......অপার্থিব-অতুলনীয় 8-|

হাঁ,বাচ্চারা বেহেশতের ফুল। ওরা নিস্পাপ ও সরল।
ধন্যবাদ ভাই নিওফাইট নিটোল। আমার ব্লগবাড়িতে আপনাকে স্বাগতম। ভালো থাকুন। শুভকামনা রইল।

২২| ০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:০৪

উম্মে সায়মা বলেছেন: হাহাহা =p~

০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:০৬

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ধন্যবাদ বোন উম্মে সায়মা।


ভালো থাকুন। শুভকামনা রইল।

২৩| ০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৭ সকাল ৭:৪৬

বিজন রয় বলেছেন: ঈদ মোবারক।

০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:০৭

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ঈদ মোবারক বিজন দাদা।


ভালো থাকুন। শুভেচ্ছা রইল।

২৪| ০৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:৪৫

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: সুন্দরম।

০৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:৪০

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন।


ভালো থাকুন। শুভকামনা রইল।

২৫| ১০ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৭ রাত ১২:২৯

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: বয়স বাড়ার সাথে মানুষ নীজেও বাচ্চাদের মত হতে থাকে , এসময় মানুষের মনে শিশুর সরলতা চলে আসে বিবিধ কারনে ।
পার্থিবের তুলনায় অপার্থিব বিষযাবলী এ সময় বেশি কার্যকরি হওয়ায় নিশ্পাপ শিশুদের মাঝে থাকাকেই মানুষ বেশীমাত্রায় পছন্দ করে ও তাদের সাথে নীজকে সহজেই মানিয়ে নেয় । গল্পের মাঝে বিষয়গুলি ফুটে উঠেছে দেখে ভাল লেগেছে । রম্য বিষয়গুলিও বেশ আনন্দ দিয়েছে ।

শুভেচ্ছা রইল ।

১০ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৭ সকাল ৯:১৯

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: পার্থিবের তুলনায় অপার্থিব বিষযাবলী এ সময় বেশি কার্যকরি হওয়ায় নিশ্পাপ শিশুদের মাঝে থাকাকেই মানুষ বেশীমাত্রায় পছন্দ করে ও তাদের সাথে নীজকে সহজেই মানিয়ে নেয়


খুব সুন্দর একটা কথা বলেছেন আলী ভাই। আসলেই মূল ব্যাপারটা এরকমই।

ধন্যবাদ ডঃ এম এ আলী। ভালো থাকুন। শুভ কামনা রইল।

২৬| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৭ সকাল ১১:৪৩

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
বাচ্চাটি চিৎকার করে বললো, ‘আব্বু শুধু আম্মুকে আদর করে।’

ডিজিটাল যুগের পোলাপান, বাবা মায়ের আপডেট হওয়া আবশ্যক।
তবে আপনার শ্যালিকাকে ধন্যবাদ দিতেই হয়,অফিসের কাজতো !!
ধন্যবাদ আপনাকে বাচ্চাবন্ধব হেনা ভাই

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৭ সকাল ১১:৪৯

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: হাঃ হাঃ হাঃ। ভালো বলেছেন নূর মোহাম্মদ ভাই।


ভালো থাকুন। শুভকামনা রইল।

২৭| ২৬ শে অক্টোবর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৫৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আগে পড়েছি, তবুও ভাল লাগলো ।

২৮ শে অক্টোবর, ২০১৭ দুপুর ১২:২৯

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই গিয়াস উদ্দিন লিটন।


ভালো থাকুন। শুভেচ্ছা রইল।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.