নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

https://www.facebook.com/bicharmani

বিচার মানি তালগাছ আমার

বিচার মানি তালগাছ আমার › বিস্তারিত পোস্টঃ

আওয়ামী লীগ ছাড়াও একটা বিশাল অংশ চায় না বিএনপি ক্ষমতায় আসুক...

০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:৪৯



১. আওয়ামী লীগের জনপ্রিয়তা অনেক কম। শেয়ার বাজার, ব্যাংক লুটপাট, গুম, খুনের কারণে এবং ১০ বছর টানা ক্ষমতায় থাকার কারণে স্বাভাবিক ভাবে সবাই পরিবর্তন চাইছে। আওয়ামী লীগের সমর্থকরা কখনোই চাইবে না হারতে। কিন্তু এর বাইরে জনগণের বিশাল একটা অংশ চায় আওয়ামী লীগ থেকে যাক। ফেসবুক, ব্লগ, পত্রিকায় বিভিন্ন মন্তব্য পড়ে এটা জানা যায়। তাদের একটাই কথা - শান্তি চাই, হরতাল-অবরোধ, জ্বালাও-পোড়াও, ভাঙচুর চাই না। তাদের মতে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকাতে এসব এখন আর নেই। বিরোধী দলে গেলে এসব আবার শুরু হবে। তাদের আরও একটা যুক্তি হল, বিএনপি ক্ষমতায় এসেই প্রতিশোধের রাজনীতি শুরু করবে। মোট কথা, সরকার বদল হলে ক্ষতি হবে সাধারণ মানুষেরই...

২. আমি নিজেও হরতাল-অবরোধ, জ্বালাও-পোড়াও, ভাঙচুরের বিরোধী। আগেও এক লেখায় বলেছি - ২০১৪ সালের অবরোধের আমি একজন প্রত্যক্ষ ভূক্তভোগী। আমিও শান্তি চাই। আমার প্রশ্ন ঐ গ্রুপের কাছে - শান্তি চাইলে একই ভাবে বিএনপি আসলে কী ক্ষতি? বিএনপি এসেও না হয় আওয়ামী লীগের মত জেল, হত্যা, গুম, মামলা দিয়ে পুলিশ, আর্মি, বিচার বিভাগ নিয়ন্ত্রণ করে বিরোধী মতকে দমন করবে। আফটার অল, শান্তিই তো চাই আমরা!

৩. তাহলে সমাধান কী? সমাধান কিন্তু ২০০১ সালেই বিএনপি ক্ষমতায়(দুই তৃতীয়াংশ আসন) এসে দিয়েছিল। গোল্ড ফিস মেমোরির জনতা তো মনে রাখবে না। তাই মনে করিয়ে দেই আরেকবার -

* বিজয়ী হওয়ার পর জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে খালেদা জিয়া সব নেতা-কর্মী, সমর্থকদের মানা করেছিলেন বিজয় মিছিল করতে। কারণ, এসব বিজয় মিছিলে প্রতিপক্ষের সাথে ঝামেলা হওয়ার আশংকা থাকে। এই সিদ্ধান্ত নিয়ে বিএনপি পন্থী প্রিন্ট মিডিয়াগুলো সমালোচনা করেছিল খালেদা জিয়ার। এখন কেউ কেউ বলবেন, ঐ সময়ের বিজয়ের পর পর সংখ্যালঘু নির্যাতনের কথা। এগুলো এলাকাভিত্তিক বিচ্ছিন্ন ঘটনা মাত্র...

*জাতির উদ্দেশ্যে খালেদা জিয়া একটা ভাষণে(সম্ভবত প্রথম ভাষণে) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে শ্রদ্ধা জানিয়েছিলেন...

* পরের বছর সম্ভবত স্বাধীনতা পুরস্কার(মরণোত্তর) দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু ও জিয়াউর রহমান কে। তাদের প্রতি সম্মান জানিয়ে সে বছর আর কাউকে পুরস্কার দেয়া হয়নি...
(বিএনপি অন্তত চেষ্টা করেছিল বিভাজন কমিয়ে আনার)

৪. এবার আসি বিএনপি'র ক্যাডার, সন্ত্রাসীদের প্রসঙ্গে। ২০০১ সালে ক্ষমতায় আসার কিছুদিনের মধ্যেই বিএনপি শুরু করে 'অপারেশন ক্লিন হার্ট'-এর। যেখানে অনেক শীর্ষস্থানীয় সন্ত্রাসী 'হার্ট এ্যাটাক'-এ মারা যায়। বিএনপি'র অনেক কর্মী হতাশ হয়েছিল তখন, কারণ বেশ কয়েকজন বিএনপি নিবেদিত(!) সন্ত্রাসীও ঐ অপারেশনে মারা যায়। বিএনপি আমলেই প্রথম ক্রসফায়ারে মৃত্যু হয় পিচ্চি হান্নানের। RAB, দ্রুত বিচার ট্রাইবুনাল - ও বিএনপি'র করা...

৫. কাজেই, আমাদের ফোকাস করতে হবে আইনের দিকে। আইন সবার জন্য সমান আছে কিনা। বিএনপি বা অন্য দল এসে অন্যায় করলে আমাদের এখনকার মতই প্রতিবাদ করতে হবে। তার আগ পর্যন্ত জোর করে কোন দলকে ক্ষমতায় রাখার সমর্থন জানানো যায় না...

মন্তব্য ৩৭ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (৩৭) মন্তব্য লিখুন

১| ০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:০২

শাহিন-৯৯ বলেছেন:


আওয়ামলীগের বর্তমান অবস্থায় সবচেয়ে বড় সুবিধা দিচ্ছে আমলাগ্রুপগুলো সাথে বড় বড় দূর্নীতি করা রাঘব-বোয়ালরা। তাঁরা কোনভাবেই চাচ্ছে না বিএনপি নির্বাচনে আসুক। কারণ বিএনপি নির্বাচনে এলে যদি জয়লাভ করে তাহলে তাদের অবস্থা তাঁরা এখনই টের পাচ্ছে।

০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:১৬

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: সেটা হওয়াই স্বাভাবিক। অনেক লুটপাট-এর প্রমাণ আছে যা শুধু সরকার বদল হলেই প্রকাশ পাবে। প্রতিটা সুবিধাভোগী গ্রুপ এখন আর চাইছে না আওয়ামী লীগের পতন...

২| ০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:০২

নতুন নকিব বলেছেন:



কেমন অাছেন? সুন্দর প্রস্তাবনা।

০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:১৭

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: আলহামদুলিল্লাহ! দেশের বিভাজন কমাতে হবে। দেশ চলবে আইন অনুযায়ী। কোন পরিবার দেশকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে না...

৩| ০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:০৯

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: ৫ম ধাপে এসে আমি পুরাই টাস্কি খেলাম। প্রশাসন আপনার নিয়ন্ত্রণে থাকলে আইন আপনার।

০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:২০

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: একই আদালতে মায়া খালাস, খালেদা জেলে। তুচ্ছ ঘটনায় মঈনুল, শহীদুল আলম জেলে। উনার উচিত পিতার মত বাকশাল করা। তাও শান্তি পেতাম। গণতন্ত্রের নামে রাজতন্ত্র ভাল লাগে না...

৪| ০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:১৮

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
কথা সত্য !!

০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:২১

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: সত্যকে সত্য, মিথ্যাকে মিথ্যা মানলেই দেশ শান্তির হবে...

৫| ০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:২০

রাজীব নুর বলেছেন: হে মানুষ, তোমরা যারা ঈমান এনেছো ধৈর্য ও নামাযের মাধ্যমে তোমরা সাহায্য প্রার্থনা করো, অবশ্যই আল্লাহ তায়ালা ধৈর্যশীল মানুষদের সাথে আছেন।
(সূরা আল বাকারাঃ আয়াত ১৫৩)

০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:২১

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: ইনশাআল্লাহ ধৈর্য্যশীলদের বিজয় হবে...

৬| ০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:২৫

ব্লগার_প্রান্ত বলেছেন: এই এলাকায় রাজা মহারাজা থাকা দরকার ছিলো, গনতন্ত্র খাওয়ার মতো পৌষ্টিকতন্ত্র আমাদের নাই।

০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:৩০

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: তাও সই। গণতন্ত্রের নামে এই রাজতন্ত্র ভাল লাগে না...

৭| ০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:৩৪

আলআমিন১২৩ বলেছেন: সঠিক বলার জন্য অভিনন্দন।

০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:৩৯

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: আপনাকেও ধন্যবাদ...

৮| ০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১১:৫১

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: ভালো কথা বলেছেন। আলোচনায় ভালো-মন্দ দুটো দিকই উঠে এসেছে। এ জন্য আলোচনাটা আমার কাছে একটি পূর্ণাঙ্গ আলোচনা বলে মনে হয়েছে। রাজনৈতিক আলোচনায় এমন নিরপেক্ষ আলোচনায় কাম্য বলে আমার বিশ্বাস। ++

শুভকামনা ও ভালবাসা আপনাকে।

০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১১:৫৭

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: আমাদের কারো কোন স্বার্থ দুই পরিবার পূরণ করে না। আমাদের নিরপেক্ষ ভাবে সব কিছু বিচার করতে হবে...

৯| ০৯ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১:২৪

হাসান কালবৈশাখী বলেছেন:
নেত্রী হিসেবে খালেদা খুবই দুর্বল, কখনোই সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দিতেন না।
মুলত সফিক রেহমান, নিজামী-মোজাহিদরা লিখে না দিলে কিছুই বলতে পারতেন না ।

আওয়ামীলীগ যেখানে ৫০ বছরের পরিকল্পনা করা, বিম্পি নেতারা পরিকল্পনা বিহীন, আগামীকাল কি করবে সেটাই জানে না,
সাংবাদিকরা জিজ্ঞেস করেছিল "আপনাদের প্রধানমন্ত্রী কে হবে?" উত্তর এসেছে - জিতার পর ভাববো।

বিএনপি নেতা নেত্রীরা শুরু থেকেই টেকনোলজি অনিচ্ছুক দল।
এ দলটির জন্যই ইন্টারনেট ও মোবাইল টেলিকমে দেশ ১৫ বছর পিছিয়ে গেছিল।
বিএনপি জোট তুচ্ছ কারনে ভীত (ভর্তুকি + অলাভজনক কারনে) বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়ায়নি। বাড়ানোর কোন পরিকল্পনাও ছিলনা, চলমান প্রজেক্টগুলো বন্ধ করে দিছিল, ৫ বছরে। ৩ হাজার মেগা দিয়ে একটা দেশ চলতে পারে না , এটা তাদের ধারনাই নেই। নেক্সক্ট কোন পরিকল্পনাও নেই, পরিকল্পনা শুধু বন্ধ করা, আদমজি বন্ধ করার মত।
সাইফুর রহমানের ৪টি বাজেট ভাষণ দেখলেই বুঝতে অসুবিধা হওয়ার কথা না।

তার বিপরিতে
হাসিনার সেই রকম দুঃসাহসি ঝুকিপুর্ন পরিকল্পনায় দেসজ উৎপাদন অর্থনীতিকে অকল্পনীয় বিশাল করেছেন

গতিশীল সমৃদ্ধের পথে চলা দেশটিতে অশিক্ষিত ভীতু অপরিকল্পিত নেতৃত্ব আসলে সকল পক্ষই ক্ষতিগ্রস্থ হবে। আপনিও ..

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১:৩৮

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: যুক্তিযুক্ত মন্তব্যর জন্য ধন্যবাদ...

১০| ০৯ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১:৫০

রাফা বলেছেন: ডাহা মিথ্যা দিয়ে শুরু আপনার পোষ্ট।খালেদা ২০০১-এর নির্বাচনের পর কখনই কোথাও বলে নাই বিজয় মিছিল করা যাবেনা।বরং হাসিনা ২০০৮-এর নির্বাচনের পর বিজয় মিছিল নিষিদ্ধ করে ২০০১-এর অভিজ্ঞতার আলোকে।

নির্বাচনের পরে নয়, হাসিনা পদত্যাগ করার সাথে সাথে জামাত/শিবির /ছাত্রদল ও বিএনপি‘র গুন্ডা বাহিনি ঝাপিয়ে পড়েছিলো সংখাগুরু ও আওয়ামি লীগের সমর্থকদের উপর।

শেখ মুজিবুর রহমানকে পদক দিয়ে অপমান করার অধিকার কে দিয়েছে বিএনপি‘কে ? জিয়ার সাথে একই সমান্তরালে নামিয়ে আনা কি সন্মান প্রদর্শণ করা হয় ?

এগুলো হোচ্ছে রাজাকারদের অভিলাষ।

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ২:০৯

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: ডাহা মিথ্যা বললে তো আর ডাহা মিথ্যা হয় না। রাজনীতি সম্পর্কে ওয়াকিবহাল যারা ঐ ভাষণ শুনেছে তারা জানে। এখন সবাই যে সব ভাষণ শুনতে হবে বা পড়তে হবে সেটাও কথা নয়। কম জানলে কম বলাই ভাল...
রাজাকার, মুক্তিযুদ্ধ, চেতনা - এসব ব্যবসা এখন আর নেই। এই বুদ্ধি দিয়ে রাজনৈতিক পোস্টে মন্তব্য করেন?

১১| ০৯ ই নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:১৪

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: আর জেনে রাখ, নিশ্চয় আল্লাহ আজাব প্রদানে কঠোর।' [সূরা আনফাল-২৫]

মূলত এই আজাব হচ্ছে জুলুমকারীদের কাজের দুনিয়াবি শাস্তি। আল্লাহ বলেন, 'অতঃপর যে উপদেশ তাদেরকে দেওয়া হয়েছিল, যখন তারা তা ভুলে গেল তখন আমি মুক্তি দিলাম তাদেরকে, যারা মন্দ হতে নিষেধ করে। আর যারা জুলম করেছে তাদেরকে কঠিন আজাব দ্বারা পাকড়াও করলাম।

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৫১

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: সেটা যদি রাজনীতিবিদরা বুঝত...

১২| ০৯ ই নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:১৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


জেনারেল জিয়া, এরশাদ ও বেগম জিয়া, এরা সবাই ক্ষমতায় এসেছিল ১৯৭৫ সালের হত্যাকান্ডের বেনেফিসারী হিসেবে; জিয়ার বিচার হয়েছে, এরশাদ ও বেগম জিয়ার বিচার বাকী আছে।

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৫৩

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: এরশাদ-ও তেমন সুখে ছিল না। ক্ষমতা ছাড়ার পর থেকেই জেল নয়তো দুই দলের অদৃশ্য শিকলে বাঁধা ছিল...

১৩| ০৯ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:০৭

ইমরান আশফাক বলেছেন: সবাই খারাপ, কোন টা কম খারাপ ভোট টি তাদেরই দেব। আমাদের বিচার ব্যবস্হা, শিক্ষা, ব্যাংকিং খাতটি সম্পূর্ন ধ্বংস করে দিয়েছে বর্তমান ক্ষমতাশীল দলটি। তবে তারপরেও এই দলটি বিএনপি থেকে অনেক ভাল, অন্তত: বিএনপির মত অথর্ব নয়। এরা ভারত ও বার্মাকে আন্তর্জাতিক আদালতে টেনে নিয়ে আমাদের সামুদ্রিক এলাকা উদ্ধার করে এনেছে, আধুনিক ত্রিমাত্রিক নৌবাহিনী তৈরী করেছে, পদ্দা সেতু, পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র, সাটেলাইট নিক্ষেপ করেছে এইরকম আরও অনেক কিছু।

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:১২

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: ভাল কথা। আপনি অবশ্যই আপনার পছন্দের দলকে ভোট দিবেন। কিন্তু সেটা যেন নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠভাবে হয়। একটা দল ভাল বলেই তারা জোর করে, অন্যায় ভাবে, প্রশাসন নিয়ন্ত্রণ করে নিজেদের ব্যালটে ভোট দিবে - সেটা তো হতে পারে না...

১৪| ০৯ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:২৬

ঢাবিয়ান বলেছেন: হাসান কালবৈশাখী, আপনি প্লিজ নিয়মিত ব্লগে থাকবেন। ব্লগ ইদানিং বড় পানসে হয়ে গেছে। বিনোদনের বড় অভাব। =p~

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:৩৬

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: কলাবাগানকে মিস করছি কিছুদিন...

১৫| ০৯ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:৩৫

জাযেদ বিন সোহান বলেছেন: এরশাদকে তো দু,দু বানাই রাখছে। কার বিচার কে করবে??

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:৩৭

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: এরশাদ তার শিকল কখনোই ছিঁড়তে পারবে না...

১৬| ০৯ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:০৬

পল্লব কুমার বলেছেন: পড়লাম। আপনি বলেছেন ২০০১ এর নির্বাচনের পর সংখ্যালঘু নির্যাতন ছিল এলাকাভিত্তিক বিচ্ছিন্ন ঘটনা। ব্যপারটা কখনোই এমন ছিল না। প্রায় প্রতিটি এলাকায় একই ভাবে চলছে সব।

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:১৩

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: মিডিয়া ও বুদ্ধিজীবি মহল এসব ঘটনাকে বড় করিয়ে প্রচার করে। ঘটনা হয়েছিল সেটা অস্বীকার করছি না...

১৭| ১০ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১২:০৭

অপু দ্যা গ্রেট বলেছেন:

রাজনীতি আমার ভাল লাগে আবার লাগে না । কখনো ভাল কাজ দেখলে মনে হয় বাহ রাজনীতি করাই ভাল । আবার খারাপ দেখলে মনে হয় ধুরর এসব মানুষ করে ।

দুই দল ই তাদের নিজ নিজ জায়গা থেকে চিন্তা করেছে । তবে এটা বলব যে লীগের সবচেয়ে বড় দুর্বলতা হতে নিচের দিকের আইন ব্যবস্থা । তারা দখলদারী, খুন, ধর্ষন এসব কিছুই কমাতে পারেনি । অন্যদিকে বিএনপি অতীতে টাকা পয়সার জন্য হেন কোন কাজ বাধ রাখেনি ।

যদিও লীগ অনেক বড় বড় প্রোজেক্ট বাংলাদেশ কে দিয়েছে, তবে আইন ব্যবস্থার সক্ষমতা নিয়ে সব সময় প্রশ্ন বিদ্ধ থেকে যাচ্ছে । যেটা খুব জরুরী । এবার নির্বাচন হবে এই আশা যদি জনতা করে থাকে তবে সবচেয়ে বড় ভুল করবে ।

আপাতত পপকর্ন নিয়ে বসে মুভি দেখা ভাল ।

১০ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১:৩২

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: সমস্যা হল সিস্টেমটা নষ্ট হয়ে গিয়েছে। স্বাভাবিকভাবে এক পক্ষ আরেক পক্ষকে ক্ষমতায় আসেত বা থাকতে দিবে না। ফলাফল, যখন দুই পক্ষ মারামারি করবে তখন জনগণের ভোগান্তি। তাই সিস্টেমটা ভাল করতে হবে। যাতে সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণের পছন্দের দলই ক্ষমতায় যেতে পারে...

১৮| ১০ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১২:২১

স্বপ্নের শঙ্খচিল বলেছেন: গণতন্ত্রের নামে বিএনপি
গোপনে অনেক অকাজ কুকাজ করেছে যা আজ দৃশ্যমান ।
আমরা মাহাথিরের মতো একজন ব্যক্তি চাই যে
সকল অনাচার অত্যাচার রুখে দিবে ।

১০ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১:৩৩

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: সবাই তো সেই স্বপ্ন দেখি। কিন্তু সঠিক গণতন্ত্র চর্চা না হওয়ার কারণে আওয়ামী লীগ, বিএনপি যেই ক্ষমতায় আসে অপকর্ম করে বেড়ায়...

১৯| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৩:১৮

অনল চৌধুরী বলেছেন: বিজয়ী হওয়ার পর জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে খালেদা জিয়া সব নেতা-কর্মী, সমর্থকদের মানা করেছিলেন বিজয় মিছিল করতে। কারণ, এসব বিজয় মিছিলে প্রতিপক্ষের সাথে ঝামেলা হওয়ার আশংকা থাকে। এই সিদ্ধান্ত নিয়ে বিএনপি পন্থী প্রিন্ট মিডিয়াগুলো সমালোচনা করেছিল খালেদা জিয়ার। এখন কেউ কেউ বলবেন, ঐ সময়ের বিজয়ের পর পর সংখ্যালঘু নির্যাতনের কথা। এগুলো এলাকাভিত্তিক বিচ্ছিন্ন ঘটনা মাত্র..-পূর্ণিমা রাণী যদি বিচ্ছিন্ন ঘটনা হয়,তাহলে এখন এসব হচ্ছে না কোন?

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.