নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সম্পদহীনদের জন্য শিক্ষাই সম্পদ

চাঁদগাজী

শিক্ষা, টেকনোলোজী, সামাজিক অর্থনীতি ও রাজনীতি জাতিকে এগিয়ে নেবে।

চাঁদগাজী › বিস্তারিত পোস্টঃ

ধিক আমেরিকা, গুয়ামের মানুষের জন্য \'এটমিক শেলটার \'নেই!

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৪:৫২




গুয়ামের মানুষকে মানসিকভাবে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হতে বলেছে আমেরিকা আজকে; ট্রাম্প সেখানকার গভর্ণরের সাথে টেলিফোনে কথা বলেছে; সেখানকার লোকেল পত্রিকায় সাধারণ প্রস্তুতি নেয়ার জন্য বলা হয়েছে; এতে কিন্তু একটা গোপন বিষয় বেরিয়ে এসেছে, সেখানকার মানুষের জন্য এটমিক শেলটার নেই; পত্রিকায় বলা হয়েছে বাড়ীতে অবস্হান করতে, নিজকে লুকিয়ে রাখতে ও নিজকে ঢেকে রাখতে, বিস্ফোরণের ফ্লাশের দিকে না তাকাতে, ২৪ ঘন্টার ভেতর গোসল করে নিতে, গোসলের সময় কনডিশনার ব্যবহার না করতে। এখানে আমেরিকার মানুষ মার খাবে, ক্যাপিটেলিজমের আসল রূপ প্রকাশ পেয়েছে; রাশিয়ার ১০০ ভাগ মানুষের জন্য শেলটার আছে; চীনের কি পরিমাণ মানুষের জন্য শেকটার আছে বুঝা মুশকিল, ওরা মানুষের জন্য চিন্তিত নয়, পার্টির লোকদের জন্য ব্যবস্হা আছে। উত্তর কোরিয়ার সেনাদের জন্য ব্যবস্হা আছে।

গুয়ামে এখন দেড় লাখ মানুষ আছে, ৪৫ হাজারের মতো সৈন্য, ৫ হাজারের মতো টুরিস্ট বাকীগুলো সাধারণ মানুষ; কিন্তু এদের জন্য কোন এটমিক শেলটার নেই। আমেরিকা সাধারণ মানুষের জন্য কোন ব্যবস্হা না করেই যুদ্ধের কথা বলছে? গুয়ামের সাধারণ মানুষ এই দ্বীপ ত্যাগ করে কোথায়ও যেতে পারবে না।

চীন চাচ্ছে আমেরিকাকে কমপক্ষে একটা বড় ধরণের হোঁচট খাওয়াতে, রাশিয়াও সেটাতে বিশ্বাস করে; চীন ও রাশিয়াই যুদ্ধটা বেশী চাচ্ছে; ওরাই কিমকে যুদ্ধের দিকে নিয়ে যাচ্ছে; ওদের ধারণা, এতে জাপান, দ: কোরিয়া ও আমেরিকা বিশালভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে; উত্তর কোরিয়ার মানুষ সম্পুর্ভাবে মুছে গেলেও ওদের কোন দু:খ নেই' ওরা জানে যে, এতে সাধারণ আমেরিকানরাও প্রাণ হারাবে।

আমরিকান এক জেনারেল বলেছে যে, কোরিয়া থেকে গুয়ামে মিসাইল আসতে ১৮ মিনিট সময় লাগবে; তারা মিসাইলকে অনুসরণ করে ধ্বংস করতে সমর্থ হবে; তবে, মিসাইল টেকনোলোজীর এক দক্ষ লোক বললো, এসব মিসাইল সেই দিকে খেয়াল রেখেই তৈরি করা হয়েছে; ফলে, আমেরিকা সব টেকনোলোজী সম্পর্কে জানে বলে ধরে নেয়া ভুল হবে।

আমেরিকা বিশ্বাস করছে যে, আমেরিকা প্রথমে আঘাত করে কোরিয়ার উৎক্ষেপন কেন্দ্র ও আর্টিলারীগুলোকে ধ্বংস করে দেবে; তবে, আমেরিকা চীন ও রাশিয়াকে বিশ্বাস করছে না; আমেরিকা ভাবছে যে, যুদ্ধ লেগে গেলে, চীন ও রাশিয়া আমেরিকান বিরোধী ভুমিকায় নামতে পারে।

মন্তব্য ৯৪ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (৯৪) মন্তব্য লিখুন

১| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৫:০৬

স্বতু সাঁই বলেছেন: এতো কথা কেন? যুদ্ধ বাধলে না বুঝতাম কার জোর কতো। ওরা এতোদিন মেরেছে ওরাও দুই চার লাখ মরুক।

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৫:১০

চাঁদগাজী বলেছেন:


যুদ্ধ লাগলে, এমন কি শেষ হয়ে গেলেও, লম্বা দুর্ভিক্ষ হবে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফ্রিকায়

২| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৫:১৪

স্বতু সাঁই বলেছেন: আমরা বহুবার দূর্ভিক্ষ দেখেছি। ঐ ডর বাঙ্গালীর নাই। আমেরিকাকে পেদাতে পরলেই বাঙ্গালী খুশি হবে।

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৫:১৮

চাঁদগাজী বলেছেন:



বাংগালীরা আন্তর্জাতিক বিষয়সমুহ সঠিকভাবে বুঝে বলে মনে হয় না; আসলে, ওরা নিজের দেশকে, জাতিকেও বুঝে না।

৩| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৫:২৫

রাজীব নুর বলেছেন: লাগুক যুদ্ধ। সব তছনছ হয়ে যাক।

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৫:২৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


হয়তো, মরবে ২ কোরিয়া ও জাপানের কিছু মানুষ; কিন্তু বাংলাদেশসহ অনেক দেশের ব্যবসা বাণিজ্য থেমে যাবে।

৪| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৫:২৮

স্বতু সাঁই বলেছেন: আন্তর্জাতিক বিষয় ভেবে কোন লাভ নেই আমেরিকার দম্ভ চূর্ণের প্রয়োজন। জানি না সাদ্দামের মতো উত্তর কোরিয়ার ফরফরানী কে জানে। তবে সত্যি যদি আমেরিকার উপর আঘাত হানতে পারে তাহলে ইহুদি নিপাত হতে সময় লাগবে না।

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৫:৩১

চাঁদগাজী বলেছেন:



ইহুদী নিয়ে আপনার ধরণা ভুল; যে কোন যুদ্ধে, ১ কোটী ৪০ লাখ ইহুদীর লাভ ছাড়া ক্ষতি হবে না ; ওরা শিক্ষিত ও বুদ্ধিমান। ধর্ম ও ইতিহাস বুদ্ধিমানদের পক্ষে

৫| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৫:৩৪

স্বতু সাঁই বলেছেন: কেউ আমেরিকাকে প্যাদানী দিতে পারলে ইহুদী লুকানোর যায়গা পাবে না।

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৫:৪৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


ইহুদীদের সম্পর্কে আপনার ধারণা মাদ্রাসার বাচ্চাদের সমান, মনে হচ্ছে!

৬| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৫:৩৫

বিজন রয় বলেছেন: যুদ্ধ হোক।

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৫:৪৬

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমেরিকা আজকেই লাফ দিয়ে পড়তো; দ: কোরিয়াও তাই চায়; কিন্তু যুদ্ধ শুরু হলে, রাশিয়া ও চীন তাদের অবস্হান বদলাতে পারে, এটাই আমেরিকাকে পেছনে টেনে রেখেছে। আবার জাপান আমরিকাকে যুদ্ধ না করার জন্য চাপ দিচ্ছে।

৭| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৫:৪২

চিটাগং এক্সপ্রেস বলেছেন: আপোসের খেলা মনে হচ্ছে

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৫:৪৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


মিসাইলে 'এটোমিক হেড' আমেরিকার জন্য আফোসের বিষয় নয়; আমেরিকা জানে, এগুলোতে চীন ও রাশিয়ার হাত আছে।

৮| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৫:৫৫

স্বতু সাঁই বলেছেন: ঐ তো বললাম, একবার প্যাদানী দিক তখন বুঝবেন মাদ্রাসার ছাত্র নাকি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। হুমকিতেই আপনার যে চোখের জল দেখছি, এটম পড়লে যে কি হবে তাই ভাবছি।

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:০৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


কয়েক কোটী বাংগালী আপনার মতো একই স্তরে ভাবেন, সেজন্য আমাদের রাজনীতি কলোনিয়েল যুগে পড়ে আছে।

৯| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:০৮

স্বতু সাঁই বলেছেন: বাঙালীকে আগে বিদেশীরা শোষন করতো, এখন করে দেশী জাতভাইরা। এটারও সমাধান হয়া যাইবো খুব তাড়াতাড়ি।

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:১২

চাঁদগাজী বলেছেন:


জাতি ভাইয়েরা ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানীর বিজনেস প্ল্যান ব্যবহার করছে!

১০| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:০৯

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: স্বতু সাঁই বলেছেন: ঐ তো বললাম, একবার প্যাদানী দিক তখন বুঝবেন মাদ্রাসার ছাত্র নাকি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। হুমকিতেই আপনার যে চোখের জল দেখছি, এটম পড়লে যে কি হবে তাই ভাবছি।

সাঁইজি, ছেড়ে দিন।

শেষ বয়েস এমন নিরাপদ আশ্রয় আর ভাতা'র টেনশন পড়লে কান্নাকাটি বহু রুপেই প্রকাশ পায়!
আপনি ছাড়ুনতো!
যে নিজের স্ব-জাতিকে তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করে তাদের জন্য তো বহু আগেই বাঙালী কবি লিখে গেছেন
"যে জন বঙ্গে জন্মি হিংসে বঙ্গভূমি
সেসব কাহার জন্ম নির্ণয় না জানি!!!

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:১১

চাঁদগাজী বলেছেন:


মাদ্রাসায় পড়াচ্ছেন?

১১| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:২২

ফেল কড়ি মাখ তেল বলেছেন: পারমানবিক বোমা সম্পকে আপনার জ্ঞান ক্লাস ২ বাচ্চার মত। শুধু শুধু আহম্মকের মত উওজনা চড়াচ্ছেন, টাম্প ফোন দিয়েছে আভিজাবি।

কোরিয়ার পারমানবিক বোমা গুলো প্রথম জেনারেশন এর। আর একটা আই সি বি এন ছোড়ার পড় লক্ষ বস্তুতে আঘাত আনতে ২০ ২৫ মিনিট লাগে। আমেরিকার যুদ্ধ জাহাজ, বিমান থেকে ছোড়া লেজার দিয়ে, স্যাটেলাইট এর মাধ্যমে পারমানবিক বোমার গতিপথ পরিবর্তন কয়েক ধাপে বিভিন্ন উপায়ে বোমাগুলো ধংশ করা যায়। সেই আমেরিকা এখন দুই চারটা ককটেল বানানো উওর কোরিয়ার ভয়ে
গুয়ামের মানুষকে কন্ডিশনার দিয়ে গোসল করতে নিষেধ করবে???? হাসবো নাহ কাদবো???

শুনের গ্রামের চৌকিদার রাজনীতি ভাল বুঝে, আপনার জ্ঞান সেখানে সিমিত। শুধু বোমা ফোমা দিয়ে গাঁজাখুরি পোস্ট দিয়েন নাহ।
পাগলে হাসবে এইসব পড়ে।

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৩৫

চাঁদগাজী বলেছেন:



আমি এটমিক যুদ্ধ, মিসাইল সম্পর্কে না জানার পরও লিখছি, আপনি কমেন্ট করছেন।

আপনি এত কিছু জানার পর, আপনার পোস্টে কমেন্ট করা সম্ভব হচ্ছে না; কারণ, আপনি এখনো প্রসব করেননি।

১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ১২:৪১

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনি লিখার শুরু করেন, ব্লগারেরা পড়ার সুযোগ পাক।

১২| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:২২

স্বতু সাঁই বলেছেন: লেখক বলেছেন: জাতি ভাইয়েরা ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানীর বিজনেস প্ল্যান ব্যবহার করছে!

লেখক বলেছেন: হয়তো, মরবে ২ কোরিয়া ও জাপানের কিছু মানুষ; কিন্তু বাংলাদেশসহ অনেক দেশের ব্যবসা বাণিজ্য থেমে যাবে।


কুন মুখ দিয়ে কুন কথা কন হুস থাকে না। এমনি কি কাল কইছিলাম, আপনে আনপ্রেডিক্টেবল হিসাবে এরশাদেরও উর্ধ্বে।

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৩২

চাঁদগাজী বলেছেন:


যে কোন স্কেলের আনবিক যুদ্ধ হলে গার্মেন্ট ব্যবসা বন্ধ হয়ে যাবে ৫/১০ বছরের জন্য; আমেরিকা থেকে বিদেশে ডলার পাঠানোর উপর নিয়মাবলী দেয়া হবে; আরবদের তেলের ব্যবসা কমে যাবে।

১৩| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:২২

টারজান০০০০৭ বলেছেন: এইটাতো যাত্রাপালা মনে হইতাছে ! ট্রাম্প আর জং দুইজনেই ঠ্যাং তোলো ঠ্যাং তোলো ফস ফস কইরা মঞ্চে যুদ্ধের মহড়া দেখাইতেছে। আমি নিশ্চিত, ট্রাম্প কইতাছে , জং তুই মর। জং কইতাছে, তুই ষোলো টাকা দিছিস, আমিও ষোলো টাকা দিছি, মরব কেন ?

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:২৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


উত্তর কোরিয়া মিলিটারী জাতি হিসেবে দ: কোরিয়া ও জাপানকে ভয়ের মাঝে রেখেছে; এটা ঐ ২ দেশের মানুষে জন্য অকারণ ভোগান্তি।

১৪| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৩৩

তারেক ফাহিম বলেছেন: ভারত পাকিস্তানের ন্যায় সমঝোতা হলে সকলেরই লাভ

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৩৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


সমঝোতা এবার হবে হয়তো; কারণ আমেরিকা প্রস্তত থাকলেও দ: কোরিয়া ও জাপান প্রস্তুত নয়; জাপানীরা কোন অবস্হায় যুদ্ধে যেতে চাচ্ছে না।

১৫| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৩৪

স্বতু সাঁই বলেছেন: প্রসঙ্গ পাল্টান কেন? আলোচনা করতে হলে লাইনে থাকতে হয়

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৩৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমি অন-লাইনে আছি, আপনি কোন লাইনে?

১৬| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৪২

স্বতু সাঁই বলেছেন: এটাও বুঝতে এতো কষ্ট হচ্ছে। নিজেকে অবুঝ প্রমান আর কতো বার করবেন।

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৪৯

চাঁদগাজী বলেছেন:




বাহাসে আপনি বিজয়ী

১৭| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৪৮

নতুন বলেছেন: চাদগাজী ভাই...

যদি বাংলাদেশে এন্টিমিসাইল সিস্টেম বসান তবে কি আপনি সারা দেশের ১০০ কভারেজের জন্য করবেন? নাকি প্রথমে ঢাকা তারপরে বাকি বিভাগ এবং জেলা শহরের জন্য করবেন???

গুয়াম আমেরিকা থেকে কতদুরে??? এবং এটার প্রতি আক্রমনের সম্ভবনা কত বেশি যে ঐখানে 'এটমিক শেলটার ' বানিয়ে রাখবে??

বাংলাদেশের ১৭ কোটি মানুষের জন্যও তো 'এটমিক শেলটার ' নেই.... এটা নিয়ে কিছু লিখুন...

যদি কখনো বাংলাদেশে পারমানবিক বোমার আক্রমনের হুমকি দেয় তবে আপনিও ব্লগ লিখবেন...

ধিক হাসিনা/খালেদা, বাংলাদেশের ১৯ কোটি মানুষের জন্য 'এটমিক শেলটার 'নেই! =p~

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৫৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


যদি কোন কারণে আমেরিকা রাশিয়া ও চীন আনবিক যুদ্ধ যায়, প্রতিটি বাংগালীর জন্য কমপক্ষে ৬ মাসের জন্য শেলটার দরকার; খাদ্য শস্য ও পানি রক্ষার জন্য জন্য ব্যবস্হা নেয়ার দরকার। আধুনিক প্রতিটি বাড়ীর নীচে ও গ্রামে নতুন বাড়ীর সমুহের গভীর বেইসমেন্ট বানানো বাধ্য করে দিলে ৩০/৪০ ভাগ মানুষের জন্য প্রাথমিক শেলটার তৈরি হবে; বাকীদের জন্য প্লয়ান করার দরকার।

১৮| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:২৫

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: উত্তর কোরিয়া এমন ভুল করবে না আশা করি। কারণ, গুয়াম ধ্বংস মানে আমেরিকা ধ্বংস নয়...

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৩২

চাঁদগাজী বলেছেন:


২য় বিশ্ব যু্দ্ধে জাপানীরা ভুল করে পার্ল হারবার আক্রমণ করে ভয়ংকর মুল্য দিয়েছে; সেটার কথা ভাবলে গুয়ামের আশেপাশে মিসাইল ফেলা ভয়ংকর ভাবনা।

১৯| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৪২

জাহিদ হাসান বলেছেন: লেখক বলেছেন: ২য় বিশ্ব যু্দ্ধে জাপানীরা ভুল করে পার্ল হারবার আক্রমণ করে ভয়ংকর মুল্য দিয়েছে;

এইবার নর্থ কোরিয়া গুয়ামে হামলা করে একই ভুল করতে যাচ্ছে। আফসোস লাগে ইতিহাস থেকে কোন শালারপুতই শিক্ষা নেয় না। ধ্বংস হোক কিম জং উন ও ডোনাল্ড ট্রাম্প।

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৫২

চাঁদগাজী বলেছেন:


আজকে সকালের মাঝে জাপান বিশালভাবে পেছনে সরে গেছে; তারা আমেরিকাকে জানায়েছে যে, তারা কোনভাবেই প্রস্তুত নন।

২০| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ৮:০৬

নয়ন বিন বাহার বলেছেন: সবাই আমেরিকা নিপাত যাক বলে রব উঠাচ্ছে। আমেরিকার নিপাত হলে বিশ্ব কয়েকশ বছর পিছিয়ে যাবে।
বেশিরভাগ অঞ্চলের দুর্ভিক্ষ কখনো থামবে বলে মনে হয় না।

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ৮:১৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


দরিদ্র জাতিদের জন্য খাবার দেয় শুধু মাত্র আমেরিকা ও কানাডা।

আবার বেশী খাদ্য উৎপাদনও করে আমেরিকা

২১| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ৮:৩৬

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: চীন চাচ্ছে আমেরিকাকে কমপক্ষে একটা বড় ধরণের হোঁচট খাওয়াতে, রাশিয়াও সেটাতে বিশ্বাস করে; চীন ও রাশিয়াই যুদ্ধটা বেশী চাচ্ছে; ওরাই কিমকে যুদ্ধের দিকে নিয়ে যাচ্ছে; ওদের ধারণা, এতে জাপান, দ: কোরিয়া ও আমেরিকা বিশালভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে; উত্তর কোরিয়ার মানুষ সম্পুর্ভাবে মুছে গেলেও ওদের কোন দু:খ নেই' ওরা জানে যে, এতে সাধারণ আমেরিকানরাও প্রাণ হারাবে।

একমত পোষণ করছি। আমারও এমনটাই মনে হয়। তবে 'পাগলেও নিজের ভালো বুঝে' এই প্রবাদ যদি সত্যি হয় তো কিম হয়তো শেষ পর্যন্ত থেমেও যেতে পারে। দেখা যাক, কী হয়।

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ৯:৩২

চাঁদগাজী বলেছেন:


কিম ভয় পাচ্ছে যে, আমেরিকা তার পেিবার থেকে ক্ষমতা কেড়ে নেবে; আবার সে যেই ধরণের এটম টেকনোলোজীতে যাচ্ছে, সেটা তার হাতে কেহ দেখতে চাহে না।

২২| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ৯:১৪

রানার ব্লগ বলেছেন: যুদ্ধ চাই না , একদমই চাই না। গুয়ামের মানুষ গুলর জন্য চিন্তা হচ্ছে, কি পরিমান মানুষিক যন্ত্রনায় তারা আছে। চিন রাশিয়া আশা করি সুস্থ বুদ্ধির পরিচয় দেবে। ট্রাম্প আর কিম দুইটাই উন্মাদ, আশা করি বিশ্ব শান্তির প্রয়জনে এদের দিয়ে বাঁদর নাচ নাচাবে না এরা।

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ৯:৩৬

চাঁদগাজী বলেছেন:


চীনারা আসলে নিম্নমানের মানুষ, আর কেজিবি হচ্ছে দানব; এরা আমেরিকাকে বিপদে ফেলতে গিয়ে সারা পৃথিবীকে ধ্বংস করতেও পিছপা হবে না

২৩| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ৯:৫৯

আহমেদ জী এস বলেছেন: চাঁদগাজী ,



অনেক হিসেব নিকেষ আছে । বিশ্ব রাজনীতির দাবা খেলা যেমন চলে , এটাও হয়তো তেমনি । হিসেব নিকেষ এর খেলা ।
সময় বলে দেবে , কি হলো ................

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ১০:০৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


১৯৯০ সালে উত্তর কোরিয়া রাশিয়া ও চীনের সাহায্য পারমানবিক চুল্লী স্হাপন করেছে; আজকে মিসাইল পরীক্ষা করতে চাচ্ছে গুয়ামের আশাপাশে, দুরত্ব বুঝার জন্য। ২৬ বছরে এখানে, সামনে আরো সমস্যার সৃস্টি করবে।

২৪| ১২ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ১০:২৭

মিঃ আতিক বলেছেন: বাংলাদেশী রাজনীতিবিদ যারা চুরি করা টাকা আমেরিকায় বিনিয়োগ করে সারা জীবনের জন্য নিশ্চিন্ত হয়েছিল এদের মনের অবস্থা টা কি জানতে পারলে ভালো লাগতো।
সুইজারল্যান্ড এর সাথে কারো পরমানু যুদ্ধের সম্ভাবনা আছে?

১২ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ১০:৪৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


এটার একটা সুরাহা হলে, চীনের সাথে টানাপোড়ন শুরু হবে; আমেরিকা জানে যে, কিমের পেছেন চীন ও রাশিয়া। আমেরিকা সবার জন্য কঠিন হয়ে যাবে।

২৫| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ২:০০

শকুন দৃিষ্ট বলেছেন: আপনাদের সমস্যা হচ্ছে একটা প্রোগ্রাম করবেন কিন্তু নিজের অর্থনীতি নিয়ে ভাববেন না। মনে করেন আপনার কাছে ২৬ কোটি টাকা আছে। আপনি ২৫কোটি দিয়ে গুলশানে একটা আলিশান বাড়ি কিনলেন আর হাতে থাকলো ১ কোটি। এখন এই বাড়ির রক্ষণাবেক্ষন এবং অন্যান্ন খরচ বাবদ আপনার যা আয়, তা দিয়ে কুললো না। ফলাফল, কিসুদিন পর হাতের ১ কোটি শেষ, আপনি দেনায় পড়লেন। তড়িঘড়ি করে বাড়িটি ১৫ কোটিতে বিক্রি করে দিতে হল। আপনার মুলধন কত দাড়াল?

আমৃকার অর্থনৈতিক অবস্থা এখন অনেকটা এরকমই। যুদ্ধাস্ত্রে দেশটি এতটা, এতটা পরিমাণ ব্যায় করে ফেলেছে যে, এগুলি বিক্রি করতে না পারলে তার জন্য ১০ নং মহা বিপদ কড়া নাড়তেছে। যুদ্ধ না থাকলে তো এই অস্ত্রের কদর বা বাজার কোনোটাই নাই। এই জন্য যে সরকারই ক্ষমতায় আসে, তার লক্ষই থাকে দেশে দেশে, গোস্ঠিতে গোস্ঠিতে লাগাইয়া দেওয়া। উদাহরণ, ISIS, লাদেন, আলকা, তালে, বোকো হারামজাদা, ইরাক, সিরিয়া, লেবানন, আফগান, ইয়েমেন ... আর কত ভাই?

সমস্যা হচ্ছে, টিরামপ্‌রে নিয়া। এই ব্যাটা একেতো রাজনীতিবিদ না, তার উপর না আছে তার দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক অভিঞতা, না আছে রাস্ট্র চালনার প্রগ্গা, আউলা-ঝাউলা আরকি। হেরে দিয়া আমৃকা চাইছিল মধ্যপ্রাচ্চে নতুন আর একটা পেচগি লাগাইতে। বাট, এইবার ধরা খাইছে, সব ফাস। ফলাফল, ইরান ও তুরস্কের মত দেশের কাছ থেকেও জুটতেছে হুমকি-ধামকি।

আমাদের হাসুদিদি যেমন গত টার্মে বাংকের থেকে ধার নিয়েও কুলোতে পারছিল না, তখন টাকা ছাপিয়ে টাকার অভাব পুরনের জন্য রাবিশ মন্ত্রীকে নির্দেশ দিয়েছিলেন। আমৃকারও তাই করতে হচ্ছে এখন। নিচে গার্ডিয়ানের রিপোর্টটা দেখুন:

US federal debt is still a record high. This week it passed a milestone: the fourth straight year the deficit has passed the $1tn mark. As of today, the national debt stands at $16,066,241,407,385.80 (just over $16 trillion).

আমৃকা রাস্ট্রসংঘের কাছে দেনা, জাপানের কাছে যে পরিমান ঋণ তার বিনিময়ে কিসুদিন বাদে জাপান যদি দাবি করে আমৃকার অর্ধেকটা দিতে হবে হয়ত তাই দিতে হতে পারে। কথায় আছে না, গরিবের বউ সবারই ভাবি। তবে, এখনই না। ব্যাপারটা ঘটতে আরো সময় লাগবে। হয়ত কয়েক যুগও লেগে যেতে পারে।

আপনাদেরকে আর একটা তথ্য দিই। নির্বাচনের সময় যে NYSE, DAX Index ছিল ১০৩ এরও উপরে আর টিরাম্‌পের সময় তা এখন দাড়িয়েছে ৯২.৯৯ তে। অর্থাত, এই সামান্য সময়ে $ প্রায় ১১০০ পয়েন্ট পড়েছে। অন্যদিকে, ইউরো ও GBP gain করেছে। দেখুন আজকের সুচক,

https://www.investing.com/quotes/us-dollar-index

আমেরিকের জিডিপি নির্ধারিত হয় যে সুচকগুলোর মানদন্ড দিয়ে(যেমন, হোম সেলস, হোম প্রডাকশন, ক্রুড ওয়েল স্টক চেন্জ) তার বেশির ভাগেরই বর্তমান সুচক পুবের তুলনায় নিচের দিকে। মানে, জিডিপি নিম্নগামী। দেখুন লাস্ট ৬ মাসের সুচকের অবসথা,

http://www.myfxbook.com/forex-economic-calendar

এই আমৃকা করবে যুদ্ধ? ২য় বিশ্বযুদ্ধ (১৯৩৯-৪৫) ৬ বছর স্হায়ী ছিল, অস্ত্র বেচা না হলে কয়দিন টিকতে পারবে আমু?

চিনের সরকারি টেলিভিশন সূত্রের খবর, শি টেলিফোনে ট্রাম্পকে বোঝান, কোরীয় উপদ্বীপকে পরমাণু হামলার হাত থেকে বাঁচানোটা কেন চিন ও আমেরিকা, দু’টি দেশের কাছেই খুব জরুরি। ট্রাম্পকে শি বলেন, দু’দেশেরই (চিন ও আমেরিকা) অর্থনৈতিক স্বার্থে কোরীয় উপদ্বীপে শান্তি ও সুস্থিতি বজায় রাখার প্রয়োজন। মন্তব্য, পাল্টা মন্তব্য, চাপ বা পাল্টা চাপ তৈরির কৌশল, বা যুদ্ধের প্রস্তুতি কোনওটাই যে সে ক্ষেত্রে কাম্য নয়, মার্কিন প্রেসিডেন্টকে তা বুঝিয়ে বলেন চিনের প্রেসিডেন্ট। এও বলেন, পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে হবে রাজনৈতিক ভাবে। আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে। দু’পক্ষকেই ‘রণং দেহি’ মনোভাব ছাড়তে হবে। এ ব্যাপারে বেজিং-এর সহায়তা পাওয়া যাবে বলেও শি আশ্বাস দিয়েছেন ট্রাম্পকে।

টেলিভিশনে দেখা গিয়েছে, শি’র সব কথা শুনে সদর্থক ভাবে মাথা নাড়ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট! চিনা প্রেসিডেন্টের প্রস্তাব, পরামর্শকে বাহবাও দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প, প্রকাশ্যেই।

১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ২:০৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


"আমাদের হাসুদিদি যেমন গত টার্মে বাংকের থেকে ধার নিয়েও কুলোতে পারছিল না, তখন টাকা ছাপিয়ে টাকার অভাব পুরনের জন্য রাবিশ মন্ত্রীকে নির্দেশ দিয়েছিলেন। আমৃকারও তাই করতে হচ্ছে এখন। নিচে গার্ডিয়ানের রিপোর্টটা দেখুন: "

-আইএমএফ চালাচ্ছেন মনে হয়?

১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ২:০৯

চাঁদগাজী বলেছেন:



আমেরিকার ন্যাশনাল ডেব্ট মানে ডলারগুলো বাতাসে মিশে যাচ্ছে না, ওগুলো কাজ করছে।

২৬| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ২:৩১

শকুন দৃিষ্ট বলেছেন: লেখক বলেছেন: আমেরিকার ন্যাশনাল ডেব্ট মানে ডলারগুলো বাতাসে মিশে যাচ্ছে না, ওগুলো কাজ করছে।

আর-এ মিয়া লোনের টাকা আর গাটের(রিজার্ভের) টাকার পার্থক্য বুঝেন? লোনের টাকায় সুদ দিতে হচ্ছে না? মনে করেন আমি আমার নিজের ১০ টাকা আর আপনি আমার বা অন্যের থেকে লোন নিয়ে দুজনই একসাথে ব্যাবসা শুরু করলাম। যেহেতু, বাজারটা মুক্ত(মুক্ত বাজার অর্থনীতি), কে এগিয়ে থাকবে অর্থনীতির দৌড়ে? আমি না আপনি? আপনারে কেলাস ১ এর ম্যাথ বুঝাইতে হইতেসে।

বুঝেন ৩, উত্তর তো ৩ এর উপরে দিতে পারবেন না ...

১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ৩:২১

চাঁদগাজী বলেছেন:


বন্ডের উপর গড়ে ৬% সুদ দিচ্ছে।

২৭| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ সকাল ৯:৩১

দেশ প্রেমিক বাঙালী বলেছেন: একটা শক্ত যুদ্ধ হওয়া খুবই প্রয়োজন এতোই প্রয়োজন যে সেখানে যেন আমেরিকা এক্কেবারে ধুলোয় মিশিয়ে যায়। চিরতরে ওদের যুদ্ধের সাধ মিটিয়ে দিতে হবে।





ভালো থাকুন নিরন্তর। ধন্যবাদ।

১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৩:২০

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমেরিকা যদি ধুলোয় মিশে যায়, ইরান আরবদের বাতাসে মিশায়ে দিবে; চীন ভারতের পুর্বান্চল দখল করে নেবে; পুতিন রাশিয়ার আশেপাশের সবার দেশ দখল করে নেবে; এগুলো সামলাতে পারবেন তো?

২৮| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ সকাল ১১:০০

শাহাদাৎ হোসাইন (সত্যের ছায়া) বলেছেন: আমেরিকা কারো উপ্রে বোমা না ফেললে কেউ আমেরিকা কে মারবেনা- টেনশনের কিছু নাই।

১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৩:২৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমেরিকার সাধারণ মানুষ এটম থেকে অরক্ষিত, সরকার যুদ্ধ করতে চাচ্ছে!

২৯| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ সকাল ১১:৫০

শকুন দৃিষ্ট বলেছেন: এইত দাদা লাইনে এয়েচেন। তার মানে ১০ টাকায় সুদ দিচ্ছে ৬০ পয়সা, দ্যাট মিনস্‌ ১০$ ঋণে আমৃকাকে মাহাজনের কাছে ফেরত দিতে হচ্ছে সুদে-আসলে ১০.৬$। আর যদি ফেরত দিতে না পারে, পরের বছর ঋণকৃত মাহাজনের মোট মুলধন দাড়াচ্ছে ১০.৬$(চক্রবৃদ্ধি হারে) যার উপরে ফি বছর সেম রেটএ সুদ চালু থাকছে? এখন, উন্মুক্ত বাজারে প্রবল প্রতিপক্ষ যখন চিন (যেখানে শ্রম ও কাচামাল দুই-ই সস্তা ও সহজলভ্য) আমৃকারমত হাইলি প্রডাকশন রেট-এ উৎপাদিত পন্য প্রতিযোগিতা করে ব্যাবসা করার পর যে প্রফিট থাকছে (ধরেন, ১$ প্রফিট করতে পারল) তা থেকে ঋণের লভ্যাংশ বা সুদ(এক্ষেত্রে, ০.৬$) পরিশোধের পরে যা থাকছে(০.৪$) তা দিয়ে যদি আভ্যন্তরিন ব্যায় না মিটে তাইলে ঘটনা কি দাড়ায়?

আপনি বলবেন চাইনিজ পন্যের গুণ গত মান এক্ষেত্রে ফ্যাক্টর হয়ে দাড়াতে পারে? তাহলে, আজকের একটা খবর আপনাকে শোনাই:

ট্যাঙ্ক ব্রেক ডাউন! প্রতিযোগিতা থেকে ‘আউট’ ভারতীয় সেনা:
http://www.anandabazar.com/national/due-to-t-90-tanks-breakdown-indian-army-knocked-out-of-international-drill-competition-dgtl-1.657060?ref=strydtl-rltd-national

অথবা, এইখানে গুতাদেন: মহড়ায় ট্যাংক বিধ্বস্ত, আন্তর্জাতিক সামরিক প্রতিযোগিতা থেকে বাদ ভারত:
http://monitorbd.news/2017/08/12/মহড়ায়-ট্যাংক-বিধ্বস্ত-আন/

চীন তার নিজের তৈরি ট্যাংক পাঠিয়েছে প্রতিযোগিতায়। ভারত অংশ নেয় রাশিয়ায় তৈরি টি-৯০ ট্যাক নিয়ে। চিনের দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি ৯৬বি ট্যাঙ্ক অংশ নিয়েছিল এই প্রতিযোগিতায়।

সো, কথা হচ্ছে যুদ্ধের জন্য সর্বপ্রথম পেটে ভাত থাকা প্রয়োজন। খালি পেট মেরা ড্যামাক কি বাতি নেহি জলতি (ডায়ালগ ফ্রম মটু)। এইদিক বিবেচনায় আমৃকা একটা ডুবন্ত টাইটানিক যা ডুবতে অনেকটা সময় নিবে বলতে পারেন। যার জন্য দায়ী রাজনীতিতে নবীণ পাগলু ট্রাম্প নিজেই, তার অদক্ষ মন্ত্রীসভা ও বহুদিন ধরে চলে আসা তার দেশের শয়তানি অস্ত্রব্যাবসা, যুদ্ধ ও পররাস্ট্রনীতি। একমাত্র টিলারসন ছাড়া তার মন্ত্রীসভায় আমার মনে হয় না আর কোন দক্ষ লোকবল আছে যারা আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে পটু এবং পুটিন ও কমিউনিস্ট চিনের ঝানু পলিটিশিয়ানদের মত নেতাদের সাথে পেরে উঠবে।

আর এইসময়ে ঠিক চালকের আসনে চিন। কিমের উপর দাদাগিরি ফলাচ্ছে(সহযোগিতা করছে) শি চিন ফিং যা কমিউনিস্ট গণচিনের দীর্ঘদিনের পরিকল্পনামাফিক ছক। তা না হলে আপনি কি মনে করেন কিম ১ হপ্তায় তিন তিনটা ক্ষেপনের পরিক্ষা চালাতে পারে যা ১টার থেকে অন্যটা পাল্লায় ভারী? তার দেশ সর্বশেষ যে ক্ষেপনটির পরিক্ষা চালিয়েছে তা আমৃকার মূল ভূখন্ডে আঘাত হানতে সক্ষম আর এই কান্ডের পর থেকে কিমকে আব্বু ডাকা শুরু করেছে ট্রাম্প।

১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৩:২৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


চীনের মানুষের জীবন আমেরিকার কুকুরের জীবনের কাছাকাছি লেভেলের; আমেরিকানরা কুকুরের পেছেন যত খরচ করে মাসে তাতে চীনের ৫ জন চলে সেই টাকায়; ফলে, তাদের সাথে জাংক উৎপাদনে কেহ পারবে না।

১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৩:৩২

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনি যদি আমেরিকার ফাইন্যান্স বুঝেন,ওদের বন্ড সিস্টেমের উপর লিখুন।

৩০| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ দুপুর ১:৩৭

বিজন রয় বলেছেন: আমেরিকানদের নিয়ে আপনার অনেক ভাবনা।

১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৩:২২

চাঁদগাজী বলেছেন:



আমেরিকার সাধারণ মানুষ অন্য দেশের সাধারণ মানুষের জন্য কিছু করতে চায়; চীন, ভারত, রাশিয়ার মানুষ অন্যদের কথা ভাবে না, অন্য দেশে পালিয়ে যায়।

৩১| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ দুপুর ১:৪০

রক বেনন বলেছেন: বুঝলাম না, সবাই যদি খালি আমেরিকাকে প্যাদাতেই চায় তাহলে আমেরিকা যখন ডিভি লটারি ভিসা ইস্যু করে, তখন সবাই হুমড়ি খেয়ে পড়ে কেন? বাংলাদেশের কোটা নাকি অনেক আগেই শেষ!! =p~ =p~ =p~ =p~ আর তারা যখন বিভিন্ন দেশের নাগরিকদের আমেরিকা ভ্রমণের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে তখন তো সবার খুশি হয়ে বলা উচিত, যা বেটা, তোদের দেশে যাবই না। =p~ =p~ =p~

১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৩:২৪

চাঁদগাজী বলেছেন:



আমেরিকা একা যে পরিমাণ খাদ্য উৎপাদন করছে, তাতে বিশ্বের খাচ্ছে, অনেক দেশের লোকজন কাজ না করেই বাঁচতে চায়।

৩২| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৩:৫০

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: আজকের সংবাদ ভাষ্যে দেখা গেল বিশ্বজুড়ে উত্তেজনা বাড়িয়ে মুখোমুখি অবস্থানে দাঁড়িয়ে আছে যুক্তরাষ্ট্রে ও উত্তর কোরিয়া। যেকোনো সময় যুদ্ধের আশঙ্কা রয়েছে। একদিকে, মার্কিন আওতাভুক্ত গুয়াম দ্বীপদেশ গুয়ামে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার হুমকি দিয়েছে কিম জং উনের উত্তর কোরিয়া। অন্যদিকে, 'সেনা দিয়ে সমস্যা সমাধানের' ট্যুইট করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এরমধ্যেই নতুন এক চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ করল উত্তর কোরিয়ার সরকারি সংবাদপত্র রোডোং সিনমুন। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কমপক্ষে ৩৫ লাখ উত্তর কোরিয়ার নাগরিক যুদ্ধে সামিল হতে চেয়ে সেনায় যোগ দিতে চেয়েছেন। এদের মধ্যে প্রাক্তন সেনা থেকে সাধারণ শ্রমিকও রয়েছেন।

প্রসঙ্গত, জাতিসংঘে উত্তর কোরিয়ার রপ্তানির উপর নিষেধাজ্ঞা চাপাতে প্রস্তাব পেশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এর জেরে দু'দেশের মধ্যে যুদ্ধের পরিস্থিতি আরও তীব্র হয়েছে।

উল্লেখ্য, কিম জং উনের কাছে বর্তমানে ১০ লাখ সক্রিয় সেনা বিভিন্ন ঘাঁটিতে রয়েছেন। রিজার্ভে রয়েছেন আরও ৬০ লাখ। এছাড়াও ১ হাজার যুদ্ধবিমান, ৫ হাজার সামরিক ট্যাঙ্ক এবং ৭৬টি সাবমেরিন রয়েছে পিয়ংইয়ংয়ের কাছে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ৬০টি পরমাণু বোমা রয়েছে কোরীয় উপদ্বীপের এই দেশের কাছে।

এখন পরিস্থিতি কোন দিকে গড়ায় তা দেখার বিষয় , বিষয়টি বেশ উদ্বেগজনকও বটে ।

১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৪:২২

চাঁদগাজী বলেছেন:


উত্তর কোরিয়ার লোকজন চীনের ক্রীতদাস হয়ে চীনের জন্য উৎপাদন করছে; কিম পরিবার ও মিলিটারীরা বসে বসে খাচ্ছে। কিম, চীন ও রাশিয়া ২ কোরিয়াকে এক হতে দিচ্ছে না; কোরিয়নরা শান্তিপ্রিয় কর্মঠ মানুষজন; কিম ও মিলিটারী মিলে চীনের সহায়তায় তাদেরকে ক্রীতদাস বানায়ে রেখেছে; কিম এটমিক ভয় লাগিয়ে রাজত্ব চালিয়ে যাচ্ছে।

৩৩| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৪:১৩

নূর আলম হিরণ বলেছেন: যুদ্ধ তুদ্ধ কিছু হবে না, কিম হুমকি দিচ্ছে ট্রাম্প থেকে পাল্টা হুমকি পেতে যাতে পারমাণবিক বোমা বানাতে গিয়ে দেশে দুর্ভিক্ষ আক্রন্ত মানুষকে বুঝাতে পারে দেখো পারমানবিক বোমার কি দরকার!

১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৪:২৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


কিম পরিবার, মিলিটারী ও চীনারা মিলে উত্তর কোরিয়ার লোকজনকে ক্রীতদাসের মতো ব্যবহার করছে।

৩৪| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:২৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: যুদ্ধ থামাতে আমাদের যখন কিছুই করার নেই, সুতরাং আসুন আমরা যুদ্ধ উপভোগ করার জন্য প্রস্তুত হই।

১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৩২

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমাদের কথার দাম নেই, আমাদের শক্তি নেই, আমাদের বুদ্ধির দাম নেই, আমরা ১৭ কোটী; রাশিয়নরা ১৪ কোটী।

৩৫| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:০৮

শকুন দৃিষ্ট বলেছেন: লেখক বলেছেন: চীনের মানুষের জীবন আমেরিকার কুকুরের জীবনের কাছাকাছি লেভেলের; আমেরিকানরা কুকুরের পেছেন যত খরচ করে মাসে তাতে চীনের ৫ জন চলে সেই টাকায়; - অতীব সত্য কথন। শুধু চিন কেন, গোটা এশিয়া মহাদেশের (জাপান ছাড়া) মানুষের জীবনচিত্র এরকম। তয় কথা হইল, আমৃকা চলে "ঋণং ঘৃতং পিবেত" নীতি নিয়ে আর কমুনিস্ট চিনের নজর পুজিবাদ তথা মুলধন বাাড়ানোয়। তাই যুদ্ধ যদি বেধেই যায় তবে আমৃকার দম ছিনের অনেক আগেই শেষ হয়ে যাবে।

১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:১৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


যুদ্ধ লাগলে আমেরিকা বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হবে, সন্দেহ নেই।

৩৬| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:১০

শকুন দৃিষ্ট বলেছেন: দুঃখিত, শব্দটি "ছিনের" না হয়ে "চিনের" হবে।

৩৭| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:১৯

শকুন দৃিষ্ট বলেছেন: নয়ন বিন বাহার বলেছেন: সবাই আমেরিকা নিপাত যাক বলে রব উঠাচ্ছে। আমেরিকার নিপাত হলে বিশ্ব কয়েকশ বছর পিছিয়ে যাবে। বেশিরভাগ অঞ্চলের দুর্ভিক্ষ কখনো থামবে বলে মনে হয় না।

আমেরিকার এইরকম উত্থান না হলে ইথিওপিয়া, সোমালিয়া, ইরাক, সিরিয়া, লেবানন, আফগানিসথান, ইয়েমেন ... প্রভৃতি দেশগুলোর লক্ষ-লক্ষ মানুষ না খেয়ে মরত না। বুঝা গেসে?

১৪ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ১:০০

চাঁদগাজী বলেছেন:


ইউরোপ আমেরিকা কর্তৃক ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি; কারণ, তারা একই লেভেলে ছিল; আরবেরা সরকার ও মানুষে ভিন্ন লেভেলে থাকায় ও কিছু মানুষ আমেরিকা থেকে সুবিধা নিতে গিয়ে জাতিগুলোকে ধ্বংস করেছে।

৩৮| ১৪ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ১২:৩০

ভ্রমরের ডানা বলেছেন:



মন রো, ডমিনো,ট্রুম্যান, বুশ ডক্ট্রিনে বিশ্ব ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তার কিছুটা প্রভাব এই কোরিয়া সংকটেও পড়বে। গুয়াম একটা হিউজ টেস্ট কেস......

১৪ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ১২:৩৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


যোগ বিয়োগ করলে ল্যাটিন আমেরিকা, এশিয়া ও আফ্রিকা রাজনৈতিকভাবে ভয়ংকরভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আমেরিকার কারণে, বিশাল পরিমাণে মানুষ অকারণে প্রাণ হারায়েছে; কিন্তু সমস্যা ছিল, স্হানীয়রা আমেরিকাকে ব্যবহার করেছে; যেমন, সিরিয়ার সুন্নীরা জানতো না তারা কিসের ভেতর পা দিচ্ছে, বা দ: ভিয়েতনাম আমেরিকার সাহায্য না নিয়ে নিজের সমস্যা সমাধান করতে পারতো।

৩৯| ১৪ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ১:৫৭

প্রশ্নবোধক (?) বলেছেন: যারা ডলার-ইউরো কেনাবেচা করেন, তাদের লাভ বা লস কোথায়?

১৪ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ২:২০

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনি কি ট্রেডিং সম্পর্কে প্রশ্ন করেছেন?

এগুলো অনেকটা স্পেকুলেশন, স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদী অর্থনীতির উপর ও ফাইনেন্সিয়েলের উপর নির্ভরশীল ট্রেইড।
যেমন এখন দ: কোরিয়ার "ওন"এড় মান কমার সম্ভাবনা; শুক্রবারে ছিল ১১৪৩ "ওন" সমান ১ ডলার; এখন বিক্রয়ের সময়

৪০| ১৪ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ৩:২৯

ফেল কড়ি মাখ তেল বলেছেন: ডলার, ফলার গার্রমেন্ট কর্মী কি সব লিখা দেখি আবার পোস্ট ডিলিট দিছেন? ব্লগবাসী পেদানী দিসে নাকি???

১৪ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ৩:৪২

চাঁদগাজী বলেছেন:


না, কেহ কিছু বলেনি; আমি ধর্মের সাথে জড়িত বিষয়গুলো নিয়ে দীর্ঘ আলোচনা পছন্দ করি না।

৪১| ১৪ ই আগস্ট, ২০১৭ সকাল ৭:৫৭

টারজান০০০০৭ বলেছেন: ধর্ম সম্মন্ধে আপনার জ্ঞান হাঁটুতে ! কেন যে লিখতে যান ! ধর্মে এলার্জি থাকিলে দরজা বন্ধ কইরা চুলকান , ব্লগে কেন ? মলম পাট্টির তো অভাব নাই !
অনেক বুদ্ধুজীবীরই ধর্মে বিশ্বাস নাই , আগ্রহও নাই !তাহাদের মাথা ধর্মের কাছেও নাই ! তাই তাহারা অযথা বিতর্কে পড়ে না। আপনি কেন পড়েন?
বুদ্ধুজীবীদের বিশ্বাস যুক্তিতে, বিজ্ঞানে ! কোনোকিছু বিশ্বাস করিতে হইলে তাহারা যুক্তি দিয়া , বিজ্ঞান দিয়া আগে মাপিয়া লন, তাহার পর বিশ্বাস করেন।
ধার্মিকরা আগে বিশ্বাস করেন, তাহার পর প্রয়োজন পড়িলে মাপিয়া দেখেন, মাথায় না ধরিলে থামিয়া যান , মানিয়া লন, বিশ্বাস করিয়া লন। বিজ্ঞান বা যুক্তির বিপরীত হইলে ধর্মকেই বিশ্বাস করেন। কারণ তাহারা জানেন, ধর্ম বিজ্ঞান বা যুক্তির বিপরীত নহে , বিজ্ঞান বা যুক্তির উর্ধে !

আপনার মেধা আর অভিজ্ঞতা আমরা জাতিগঠনে দেখিতে চাই ! জাতি পতনে নহে !

১৪ ই আগস্ট, ২০১৭ সকাল ৯:০৭

চাঁদগাজী বলেছেন:



ধর্মের প্রয়োগে লজিক আছে; সেখান থেকে মানুষ পেছনে চলে যাচ্ছে, যেখানে গেলে কোন লজিকই থাকবে না।

৪২| ১৫ ই আগস্ট, ২০১৭ ভোর ৫:২৪

লেখা পাগলা বলেছেন: সামুতে গরুদের চাষাবাদের জায়গা হয় ভালো বুঝছেন চাঁদগাজী ভাই । আমাকে প্রায় ছয় মাস লেখতে দিচ্ছে না ইনারা।
সামুর হাল চাষ করা পাবলিক হেরা বলে ব্লগের মডারেট।

১৫ ই আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৫:৩৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


feedbac@somewhereinblog.net অনুরোধ করেন।

৪৩| ১৬ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ১০:১৯

প্রশ্নবোধক (?) বলেছেন: লেখক বলেছেন:
আপনি কি ট্রেডিং সম্পর্কে প্রশ্ন করেছেন?

না আমি আসলে বোঝাতে চেয়েছি যে, যারা বিভিন্ন দেশের মুদ্রা ক্রয়-বিক্রয়ের সাথে সম্পৃক্ত তারা অস্থীতিশীল পরিবেশই চায়। শাখের করাত আরকি!

১৬ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ১০:৩১

চাঁদগাজী বলেছেন:


পরোক্ষভাবে তাই বলা যায়; অথবা বলা যায় যে, তারা অস্থীতিশীলতার আশংকা করছে।

৪৪| ১৬ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ১০:৩৪

ডার্ক ম্যান বলেছেন: আপনার ধিক্কারে আমেরিকার কিছু আসে না

১৬ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ১০:৩৬

চাঁদগাজী বলেছেন:


ব্লগের বাহিরে কেহ তো জানার কথা নয়; আমি চাচ্ছি যে, ব্লগারেরা বিশ্বের সাধারণ মানুষের অবস্হা বুঝুক

৪৫| ১৬ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ১০:৪০

ডার্ক ম্যান বলেছেন: ব্লগারেরা গল্প কবিতা উপন্যাস ছাড়া আর কিছু বোঝে না। আপনি জোর করে খাওয়াতে গেলে বদহজম হয়ে যাবে।

১৬ ই আগস্ট, ২০১৭ রাত ১০:৪৬

চাঁদগাজী বলেছেন:


ঠিকই বলেছেন, অনেকেই ডায়েরিয়ায় ভোগেন মাঝে মাঝে

৪৬| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৭ বিকাল ৩:৩৭

রাজীব বলেছেন: উত্তর কোরিয়া হুমকী দিচ্ছে আর ট্রাম্প সেটি নিয়ে ব্যাস্ত। এই ফাকে চীন ভারতের পাশে সেনাবাহিনী প্রস্তুত রেখেছে। ভারত-চীন সীমান্ত থেকে ট্রাম্পের দৃষ্টি অন্যদিকে ফিরিয়ে রাখতেই কি কোরিয়ার হুমকী?

২৭ শে আগস্ট, ২০১৭ সকাল ৮:২৪

চাঁদগাজী বলেছেন:



চীন ও ভারতের মাঝে যুদ্ধ হওয়ার মতো কোন কারণ নেই।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.