নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সম্পদহীনদের জন্য শিক্ষাই সম্পদ

চাঁদগাজী

শিক্ষা, টেকনোলোজী, সামাজিক অর্থনীতি ও রাজনীতি জাতিকে এগিয়ে নেবে।

চাঁদগাজী › বিস্তারিত পোস্টঃ

উন্নয়ন নিয়ে কথা, উন্নয়ন মেলা; উন্নয়ন থেকে কে কতটুকু পাচ্ছেন?

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ৯:১৭



সরকার দেশে ৩ দিনব্যাপী উন্নয়ন মেলার ব্যবস্হা করেছে: সরকার কি কি উন্নয়ন করেছে, আরো কি কি করবে, সেটা মানুষের সাথে শেয়ার করার জন্য এই মেলা! ভালো প্রচেষ্টা; তবে, ৩ দিন খুবই লম্বা সময়। গতকাল প্রাইম মিনিষ্টার দেশের কিছু অন্চলের মেলায় অংশ গ্রহনকারীদের সাথে ভিডিও কনফারেন্স করে উন্নয়নের ব্যাপারে কথা বলেছেন, মানুষ থেকে ফিডব্যাক নিয়েছেন; মানুষের সাথে ভিডিও কনফারেন্স ও ফিডব্যাক চাওয়া একটি বড় ধরণের নতুন পদক্ষেপ!

বড় কথা হলো, প্রাইম মিনিষ্টার উন্নয়নে সবার "সহযোগীতা" চেয়েছেন!

গত ৪৭ বছর আমাদের সরকারগুলো উন্নয়নের যে মডেল ব্যবহার করছে, উহাকে 'তৃতীয় বিশ্বের গলাকাটা ক্যাপিটেলিজম' বলাই সঠিক হবে। কিছু পরিমাণ উন্নয়ন ঠিকই হচ্ছে; তবে, সেটা নাগরিকদের প্রয়োজনের চেয়ে বাজারের চাহিদা অনুসারে হচ্ছে, এটা খারাপ পন্হা; এবং উন্নয়ন থেকে সবাই ভাগ পাচ্ছে না; আসলে, হাতগোণা কিছু লোকজন বেশী ভাগ পাচ্ছেন! সাধারণ নাগরিক যদি উন্নয়নের ভাগ না পায়, সেই উন্নয়ন মানুষের কষ্টের কারণও হতে পারে।

জাতীয় উন্নয়নের কথা এলে, "সবার সহযোগীতা চাওয়া" একটি ভুল ধারণা মাত্র; শুদ্ধ হবে, "সবার অংশ গ্রহন"; আসলে, বাক্য ২টির মাঝে বিরাট সিমানটিক পার্থক্য আছে: "সহযোগীতা" শব্দটি অনেক অর্থে ব্যবহৃত হয়, অংশ গ্রহন ব্যতিতও সহযোগীতা সম্ভব; জাতীয় উন্নয়নের বেলায়, সঠিক পন্হা হবে, "সবার অংশ গ্রহন"; উন্নয়নে নাগরিকের অংশ গ্রহন না থাকলে, নাগরিকের প্রাপ্য-অংশ পাবার সম্ভাবনা নেই।

রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কথা ধরা যাক, প্রকল্পটি করছে আমাদের ও ভারতীয় সরকারী ইলেকট্রিকেল কোম্পানী; এখানে বাংলাদেশের নাগরিকদের "সহযোগীতা" বলতে কি বুঝায়? পরিস্হিতি অনুসারে এখানে 'সহযোগীতা" হবে প্রকল্পের বিরোধীতা না করা, এবং বিদ্যুৎ ক্রয় করা, বিনা জামেলায় বিল দেয়া! নাকি আরো কিছু আছে? আর "অংশ গ্রহন করা" হলে, সিমানটিক হতো: এই প্রকল্পে বিনিয়োগ করা, প্রকল্পের প্ল্যান কার্যকরী করার সময় সক্রিয় ভুমিকা রাখা; যেমন, প্রকল্পের স্হান নির্ধারণ, প্রকল্প লাভজনক হবে কিনা, এসব বুঝার জন্য বিনিয়োগকারীদের সভায় থাকা, মতামত দেয়া, দক্ষতা থাকলে প্রকল্পে চাকুরী করা।

যদি আমাদের "অংশ গ্রহন না থাকে", শুধু "সহযোগীতা করার" জন্য আমাদের সরকারী ইলেকট্রিকেল কোম্পানী কি বছরের শেষে লাভের থেকে নাগরিকদের ১০০ টাকার একটা চেক পাঠাবে? সোনালী, রূপালী, অগ্রণী ব্যাংক কি ৪৭ বছরে নাগরিকদের ১ টাকার একটা চেক পাঠায়েছিল?

প্রাইম মিনিষ্টার কি "সহযোগীতা" চাচ্ছেন? আমরা উনার সব প্ল্যানকে সাপোর্ট করি, পণ্য বা সার্ভিস কিনি, কোন প্রকার প্রতিবাদ না করি; এটাই কি সহযোগি্তা? নাকি তিনি অংশ গ্রহনকে বুঝায়েছেন?

উনাকে ধন্যবাদ যে, উনি ভিডিও কনফারেন্স করেছেন; তবে, উনি যাদের সাথে কথা বলেছেন, এগুলোর বাহিরে উনার কথা বলার দরকার ছিল: ইউনিভার্সিটির ছাত্র-শিক্ষক, অর্থনীতিবিদ, ইন্জিনিয়ার, ডাক্তার, চাষী ও শ্রমিকদের প্রফেশানেল সংগঠনগুলোর সাথে আলোচনা করার দরকার ছিলো; দেশের প্রত্যন্ত অন্চলের একজন মুদি দোকানদার, একজন জেলে, বা একজন পুলিশের সাথে কথা বলাটা ভালো; তবে, উন্নয়ন সম্পর্কে সঠিক ফিডব্যাক পেতে হলে প্রফেশানেলদের থেকে আগে শুনতে হবে।

মন্তব্য ৫০ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (৫০) মন্তব্য লিখুন

১| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১০:০২

মরুচারী বেদুঈন বলেছেন: উনাদের উন্নয়নের ফলাফল- ' মিটাই এর লাভ পিঁপড়ায় খাওয়ার মত'

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১০:১২

চাঁদগাজী বলেছেন:


৪৭ বছর চলে আসছে গলাকাটা ক্যাপিটেলিজম: যার ক্যাপিটেল আছে, সেই সরকারী ঋণ পাবে মাত্র; যার ব্যবসা আছে, সে নতুন ব্যবসার সুযোগ পাবে।

২| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১০:২৪

মোহাম্মদ মজিবর রহমান বলেছেন: সুষ্ঠ নির্বাচন আর গনতন্ত্র ছাড়া এসব উন্নয়ন শুভংকরের ফাঁকি মাত্র।

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১০:৩১

চাঁদগাজী বলেছেন:


সুষ্টু নির্বাচন হলে হঠাৎ করে ফেরেশতা মেরেশতা নির্বাচিত হবে না; সর্বাধিক শামীম ওসমানের যায়গায় ফালু আসবে; বেগম জিয়া না হয় আবারও ৫ সীটে ভোট পাবেন; বেগম জিয়া কি ফাইনউান্স বুঝেন? উনি ১৯৯১ সাল থেকে হয় ক্ষমতায় না হয় বিরোধী দলে আছেন তো; আপনি উনার আমলে, সোনালী ব্যাংক থেকে কত লোন পেয়েছিলেন কেরু কোম্পানীর কারখানা কিনতে?

৩| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১০:৩২

বলাক০৪ বলেছেন: আমাদের দেশে হবে সেই ছেলে(?) কবে, কথায় না বড় হয়ে কাজে বড় হবে......... :(

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১০:৪০

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনি কি সেই ছেলে নন? দেখেন, আমাদেরকে হতাশ করবেন না!

৪| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১০:৪৭

একটি আটলান্টিক বলেছেন: ভাল বলেছেন।যারা দেশ চালায় তারা নিজের স্ত্রী-সন্তান ছাড়া পৃথিবীতে অন্য কোন মানুষ আছে বলে মনে করেনা।তাই এতো এতো দুর্ভোগ নাগরিকদের।আজও ১০০০০ গ্রামে ইলেক্ট্রিসিটি যায়নি (BRAC REPORT)

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১০:৫৭

চাঁদগাজী বলেছেন:



যদি সবকিছু ১৯৭১ সালের মননে চলতো, এটুকু উন্নতি ১৯৮৫ সালের মাঝেই হয়ে যেতো; লোকসংখ্যা আজ থাকতো ১১/১২ কোটী; কিছু পারুক, না পারুক, খালি ক্ষমতা দখল করে বসে থাকে; সবকিছু দখলে রাখতে অভ্যস্ত হয়ে গেছে।

৫| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১০:৫৫

একটি আটলান্টিক বলেছেন: এখন সেই সব লিলিপুটিয়ানদের কিভাবে সরানো যায় সেইটা ভেবে দেখেছেন?

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:০০

চাঁদগাজী বলেছেন:



এটা ১৯৯১ সাল থেকেও কঠিন কাজ হবে

৬| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:০১

একটি আটলান্টিক বলেছেন: বাংলাদেশের জিডিপি মাত্র ২২৪ বিলিয়ন! ভাবা যায়।মাইক্রোসফট কম্পানির আয় আমাদের জিডিপির চেয়ে বেশি

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:০৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


ওখানে মনে লাখ তিনেক কাজ করেন।

আমাদের ৩ লাখের মাঝে ১ লাখ ২০ হাজার আজো নামই লিখতে পারে না; নাম শিখানোর মতো "উন্নয়ন"ও কার্যও সম্পন্ন হয়নি ৪৭ বছরে।

৭| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:০৪

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: রামপাল নিয়ে আমার তীব্র আপত্তি, এমন উন্নয়নটা না হলেই ভালো, অবশ্য সাধারণের সব আপত্তি গোনায় ধরার সময় কই? তবে দেশে ব্যপক কাঠামোগত উন্নয়ন হচ্ছে এটা অস্বীকার করার সুযোগ নাই, যদিও আমাদের মতো ছোট ব্যবসায়ীরা ডুবতে বসেছি প্রায়।

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:০৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


কাঠামো বানায় চীনারা, বিদ্যুৎ বানায় ভারত, চিকিৎসা করে ভারত ও থাইল্যান্ড; নিজেরা সৌদীতে উট চরানোর কাজ পাচ্ছি, এইটা আসলে উন্নয়নের লিলিপুটিয়ান মডেল।

৮| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:১৪

একটি আটলান্টিক বলেছেন: যদি সকল ছাত্র-ছাত্রী স্কুল,কলেজ,ইউনিভার্সিটিতে যাওয়া বন্ধ করে দেয় তাহলে লিলিপুটিয়ানদের সরানো যাবে?

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:১৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


এদের সরায়ে লাভ হবে না তেমন, যদি আধুনিক ভাবনার নতুন রাজনৈতিক দল না থাকে; এরা প্রত্যেকেই অপরের চেয়ে কম দক্ষ।

৯| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:২০

একটি আটলান্টিক বলেছেন: তাহলে কি বাংলাদেশের জন্য ভাল কোন ভবিষ্যৎ নাই :( :( :(

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:১৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


শিক্ষিতরা মিলে আধুনিক রাজনৈতিক দল গঠন করতে হবে; এখনকার দল দুটোর মনোভাব বৃটিশ কলোনিয়েল সিস্টেম থেকে খারাপ।

১০| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ১:২৪

শাহাদাৎ হোসাইন (সত্যের ছায়া) বলেছেন: বর্তমানে উনি যেটা বলেন সেটাই চূড়ান্ত । বাকী যারা আছেন তারা উনার পিছনে হাউকাউ কিংবা ম্যাওপ্যাও করেন। এই হাউকাউ কিংবা ম্যাওপ্যাও আওয়ামীলীগের কাছে পাগলের প্রলাপ।
আর
সাধারণ জনণের কাছে উপরের দুই শ্রেণি (আওয়ামী এবং আওয়ামী এন্টি পার্টি) অভিসাপ।

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:২৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


উনি জেনারেল জিয়া ও জেনারেল এরশাদ থেকে ভালো করছেন; তবে, উনার বিদ্যার জোর বৃটিশ কলোনিয়েল সিষ্টেমের মতো; তিনি জিয়ার গলাকাটা ক্যাপিটেক্সলিজম চালু রেখেছেন: বসুন্ধরা, এস আলম, কর্ণেল ফারুকেরা সব দখল করছে, উনার লোকেরা সব দখল করছে, বাকীরা উনার সরকারের বাজার।

১১| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ২:০৩

রাজীব নুর বলেছেন: আপনার লেখাটি পর-পর দুইবার পড়লাম খুব মন দিয়ে। আমার পাশে সুরভি বসে ছিল, সেও পড়লো।

ধন্যবাদ ভালো লিখেছেন

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:২৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনি কি বিসিএস দেয়ার কথা ভাবছেন? আপনার স্ত্রীকে কি প্রতিদিন কিছু পড়ার নির্দেশ দিয়েছেন?

১২| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ২:০৪

রাজীব নুর বলেছেন: যদি কোনোদিন সুযোগ পাই- আমি একদিন সমস্ত রাজনীতিবদের আপনার লেখা গুলো পড়াবো। শেখ হাসিনা সহ।

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:২৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


শেখ হাসিনা বাবাকে ভুলে গেছেন, বাবার ছবিতে ফুল দেন, আর জিয়ার গলাকাটা ক্যাপিটেলিজম চালিয়ে যাচ্ছেন; উনার আসল গুরু কিন্ত জেনারেল জিয়া।

১৩| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ২:২৭

ধ্রুবক আলো বলেছেন: আমাদের মন্ত্রীরা সাধারণ মানুষ, বা প্রফেশনালদের সাথে আলোচনা করবে এটা এক ধরণের আকাশ কুসুম কল্পনা।

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৪৬

চাঁদগাজী বলেছেন:



আমাদের মন্ত্রীদের একমাত্র দক্ষতা হলো উনারা শেখ হাসিনা থেকে কম জানেন।

১৪| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ২:২৮

ধ্রুবক আলো বলেছেন: লেখাটা খুব শিক্ষা মূলক, সকলের পড়া উচিৎ।
কিন্ত আজকাল ব্লগে পাঠক ও লেখকের সংখ্যা খুবই কম।
কয়েকজন ব্লগার আছেন এরা শুধু পোষ্ট করেন কোনো লেখা পড়েনা।

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৪৯

চাঁদগাজী বলেছেন:



আমিও লক্ষ্য করছি, কিছু কচ্ছপ ব্লগার আছেন, ডিম পেড়ে চলে যান; আবার ডিম পাড়ার সময় হলে ফিরেন; কিছু আবার শীতের সময় পোষ্ট দিয়ে "হাইবারনেশন" এ থাকেন!

১৫| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ২:৫০

এডওয়ার্ড মায়া বলেছেন: গুরু - উন্নয়ন সম্পর্কে পড়লাম।
যুক্তিতে সহমত

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৫০

চাঁদগাজী বলেছেন:


শেখ হাসিনা কষ্ট করে সুযোগের সৃষ্টি করেছিলেন, কিন্তু উহাকে মানুষের পক্ষে ব্যবহার না করে, শুধু দলের জন্য ব্য হার করেছেন।

১৬| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ বিকাল ৩:৩৭

শাহিন-৯৯ বলেছেন:



১) উন্নয়ন মেলা করে কেন টাকা নষ্ট করতে হবে?
দেশের চাহিদার চেয়ে চ্যানেলের সংখ্যা ৫ গুন বেশি, তাদের দিয়ে প্রচার করলেতো আর টাকাগুলো নষ্ট হত না, এমনিতেই চ্যানেলগুলোর কাজ নেই তার উপর সরকার যদি তাদের কাজ নিয়ে করে, তয় ক্যামনে হবে?
২) আমাদের দেশে অন্তত যে কোন মেগা প্রজেক্ট শুরুর পূর্বে প্রফেশনালদের নিয়ে দীর্ঘ কনফারেন্স করা উচিত, আমার বিশ্বাস, করলে দুইটা লাভ, ১. ভাল একটা সিধান্তে উপনিত হওয়া যাবে ২) প্রফেশনালদের মান অনেক বাড়বে।
৩) জনগনের ইনভেস্ট করার অপশন করা যায় কি না তা ভেবে দেখা যেতে পারে।

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৪৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


শেখ হাসিনাই বাংলাদেশী বর্তমান রাজনীতিবিদদের মাঝে সবচেয়ে বুদ্ধিমতি সন্দেহ নেই; কিন্তু উনার ভাবনা চিন্তার দৌড় বৃটিশ কলোনিয়েল সিষ্টেম অবধি, অর্থৎ উনি নিজেই ১০০ বছর পেছনে আছেন; মার্কেল থেকে ২০০ বছর পেছনে।

উনি এসেছিলেন মিলটারী ও কিছু ব্যুরোক্রেটকে থামাতে, সেটার কিছু একটা করেছেন, এখানেই উনার মিশন শেষ; বাকীগুলো ফাও

১৭| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ বিকাল ৪:৩২

তারেক ফাহিম বলেছেন: উ্ন্নয়ন মেলার উদ্দশ্য কী?

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৪০

চাঁদগাজী বলেছেন:


উনার লোকদের মাঝে এমবিএ'দের সংখ্যা বেড়ে গেছে মনে হচ্ছে, গরু নাই দুধ বিক্রয় করছেন!

১৮| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ বিকাল ৪:৪৮

মরুচারী বেদুঈন বলেছেন: ভাই, আপনাকে আমার ব্লগে দাওয়াত না দিয়ে কিযে ভুল করেছিলাম! আচ্ছা, অতিরিক্ত আপন মানুষকে দাওয়াত দেওয়া লাগে? কিন্তু শায়মা আপুনিতো বুঝে না! :(

চলেন চলেন তাড়াতাড়ি! :)

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৩৯

চাঁদগাজী বলেছেন:



শীত বাড়লে মানুষজন আজগুবি, আজগুবি গল্প করে; এবারের শীতের কারণ নাকি সৌদীর লু হাওয়া এতদুর এসে গেছে!

১৯| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:০৮

বিদেশে কামলা খাটি বলেছেন: মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের পাসপোর্ট অফিসে পাসপোর্ট সেবা দেয়ার নামে চলছে হরিলুট আর সরকারী টাকার শ্রাদ্ধ। সরকারী টাকা যে কত সস্তা তা এখানে একবার না গেলে কেউ বুঝতে পারবে না। তাদের দেশের প্রতি দরদ দেখে আমি হতভম্ব হয়ে গেলাম।


প্রায় বছর দুয়েক আগে অনেক ঢাক-ঢোল পিটিয়ে প্রবাসী জনগণকে আরো বেশী করে পাসপোর্ট সেবা দেয়ার আব্দার করে দূতাবাসে খোলায় হয় পৃথক পাসপোর্ট বিভাগ। সেখানে বরাদ্দ করা হয় প্রায় ৩০ কোটি টাকা। দূতাবাসে পর্যাপ্ত জনবল থাকার পরও পাসপোর্ট বিভাগে ঢাকা থেকে আনা হয় প্রশাসন ক্যাডার থেকে এক জন সিনিয়ার সহকারী সচিব যিনি কিনা এখানে প্রথম সচিব নামে পরিচিত। সেই সাথে ঢাকা থেকে পাঠানো হয় আরো চার জন পদস্থ কর্মচারী। ফলে দূতাবাসে অতিরিক্তি জন বল হিসাবে যোগ হয় আরো ৫ জন। সরকারের খরচ বেড়ে যায় কোটি কোটি টাকা।

এছাড়া ঢাকার আগারগাঁও পাসপোর্ট অফিস থেকে প্রায় প্রতি মাসেই কর্মকর্তারা নানা ছল ছুতোয় মালয়েশিয়া সফর করছেন। বিদেশ সফরের সময় কর্মকর্তারা নিয়মিত বেতন ভাতার বাইরেও প্রতিদিন প্রায় ৩০০ মার্কিন ডলার করে ভাতা নেন সরকারের কোষাগার থেকে। ফলে শ্বেতহস্তী পোষতে সরকারকে গুণতে হচ্ছে কোটি কোটি টাকা।

জানা গেছে, আগারগাঁও পাসপোর্ট অফিসের বড় কর্তারাই নন, প্রায় সময়ই সেখান থেকে ১০/১৫ জন কর্মচারী বিশেষ সেবা দেয়ার নাম করে মালয়েশিয়া সফর করেন। প্রতিবার সফরে তারা ১ মাস বা তার চেয়েও বেশী সময় কাটান। ফলে তাদের পেছনে নিয়মিত বেতন ভাতা ছাড়াও ডলারে ভাতা দিতে রাষ্ট্রের কোটি কোটি টাকা নষ্ট হচ্ছে।

চলতি মাসে ঢাকার আগারগাঁও থেকে সেবার দেয়ার নাম করে আবার পাঠানো হয়েছে ২৫ জন কর্মচারী আর ২ জন কর্মকর্তা।তারা নাকি ২ মাস ধরে প্রবাসী জনগণকে সেবা প্রদান করবে।
এদিকে তারা পাসপোর্ট অফিসে সেবা দেয়ার নাম করে রাষ্ট্রের টাকার শ্রাদ্ধ করে চলেছেন। কারণ এই মুহূর্তে প্রায় ৩০ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীকে নিয়মিত বেতন ভাতা দেয়া ছাড়াও তাদেরকে প্রতিদিন জন প্রতি ২/৩ শত মার্কিন ডলার করে বিদেশ ভাতা দিতে হচ্ছে। যা আসছে গরীব দেশের গরীব মানুষের জন্য বরাদ্দ করা বাজেট থেকে। এর বিনিময়ে সাধারণ মানুষ কি পাবে। লাভের মধ্যে লাভ হবে এই সব কর্মকর্তা কর্মচারী সরকারী টাকায় বিদেশে ঘুরবে আর শপিং করে লাগেজ ভর্তি করবে। খুব্ই আনন্দের বিষয়।

সেবা দেয়ার নাম করে এতো মানুষ এক সাথে মালয়েশিয়াতে আসার কোন রেকর্ড নেই বলে জানা গেছে। কারণ দূতাবাসে এক সাথে এতো গুলো মানুষ কাজ করার মতো কোন জায়গা, মেশিন বা অবকাঠামোগত কোন সুযোগই নেই।

এ ব্যাপারে ভালো জানেন এমন এক জন সাবেক সরকারী কর্মকর্তার সাথে আলাপ করে জানা গেছে যে, পৃথিবীর অনেক দেশের দূতাবাসে মোট স্টাফ সংখ্যাএ ৩০ জন হয় না।অথচ মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের পাসপোর্ট অফিসে জনগণের টাকার শ্রা্দ্ধ আর হরিলুটের জন্য নানান রাজনৈতিক তদবির করে তাদেরকে পাঠানো হয়েছে। তাদেরকে যে অফিসে থেকে পাঠানো হয়েছে সেই অফিসের কাজ কর্ম কি করে চলে এটাও একটা বিরাট প্রশ্ন। কারণ কোন একটি অফিস থেকে এক সাথে ২৫/৩০ জন কর্মকর্তা, কর্মচারী ২ মাসের জন্য বিদেশে চলে গেলে সেই অফিসটি কি ভাবে চলে।

এই লুটপাট আর সরকারী টাকার শ্রাদ্ধ দেখার মতো কোন লোক নেই বাংলাদেশে?

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:১৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


কপি-পেষ্ট করে মন্তব্য করা ঠিক নয়।

সরকারী চাকুরী পেলে শতকরা ৯০ ভাগ মানুষ অসৎ ও অলস হয়ে যায়। আজকের তুখোড় ছাত্রনেতা আগামীকাল বিসিএস পাশ করে পুলিশে গেলে, ১ম দিন ঘুষ খাবে।

২০| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ৯:১৬

মোহেবুল্লাহ অয়ন বলেছেন: হঠাৎ মেলার দরকার পড়ল কেন! সরকার কি তাদের ইমেজ নিয়ে চিন্তিত যে মেলা করে নিজেদের কাজ তুলে ধরতে হবে! তাছাড়া বিটিভিতেই তো বিরাট প্রচারণা চলে দিন-রাত।

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ৯:৪৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


মেলা করা মানে নিজেদের বেকুবী প্রকাশ। উনি ফিডব্যাক চাইলে প্রথমে মানুষ থেকে ফিডব্যাক নিতেন যে, মানুষ উনার উন্নয়নের সঠিক ভাগ পাচ্ছেন কিনা?

পরবর্তীতে উনি প্রফেশানেলদের থেকে আগামী প্ল্যান গুলো ব্যাপারে ফিডব্যাক চাইতে পারতেন; মানুষকে সরাসরি অংশ গ্রহনের জন্য বিনিয়োগের/ কাজ করার সুযোগ করে দিটে পারতেন।

উনি কাহিনী বলার জন্য মেলা বসায়েছেন। এগুলো বেঠিক পদ্ধতি

২১| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ১১:২০

প্রামানিক বলেছেন: কাঠামো বানায় চীনারা, বিদ্যুৎ বানায় ভারত, চিকিৎসা করে ভারত ও থাইল্যান্ড; নিজেরা সৌদীতে উট চরানোর কাজ পাচ্ছি, এইটা আসলে উন্নয়নের লিলিপুটিয়ান মডেল।

গাজী ভাইয়ের এই কথার সাথে সহমত।

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ১১:৩৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


উনি উন্নয়ন করছেন, বসুন্ধরা, ওরিয়ন, বেক্সিমকো, আলম ব্রাদার্স, ভারতীয় ইলেকট্রিক কোম্পানী লাভবান হচ্ছে; আমরা মেলায় গিয়ে তালপাতার বাঁশী বাজাই! এভাবে কতদিন?

২২| ১৩ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ৭:৩৬

ডঃ এম এ আলী বলেছেন:
কৃষক সহ মেহনতি জনতা চাষ করছে , চারা লাগাচ্ছে , পানি দিচ্ছে , পরিচর্যা করছে, ফল ফলাচ্ছে , ফসল যাচ্ছে মহাজনের ঘরে । আয় বাড়ছে, জিডিপি বাড়ছে , অংকের হিসাবে মাথাপিছু আয় বাড়ছে , আয় বনটনের হিসাবে পুজিপতির মুনাফা স্ফীত হচ্ছে , শহড়ে আলীশান ভবন হচ্ছে , উন্নয়নের অংশীদার সিংহভাগ মানুষ ঘাড় ঘুরিয়ে উচা ভবন দেখছে , ভবনের তলা গুণছে , আনন্দের ডেকুর তুলছে , তাইনা দেখে অনেকেই অনেক ফন্দি ফিকির করে ফায়দাও লুটছে ।

তবু ভাল, দেশের অবকাঠামোর উন্নয়ন কিছু না কিছু হচ্ছে । প্রয়োজন অনুযায়ী দেশের আর্থ সামাজিক ও রাজনৈতিক পুর্ণগনের মাধ্যমে জনগন উন্নয়ন অবকাঠামোর সুযোগ কাজে লাগিয়ে দেশের উন্নয়নের চাকাকে সঠিক পথে চালিত করার সুযোগ করে নিতে পারবে । তবে এর জন্য প্রয়োজন হবে সকলের জন্য সুশিক্ষা , প্রকল্প প্রনয়ন ও বাস্তবায়নের জন্য সকলের তরে অংশগ্রহনমুলক সুযোগ সুবিধা প্রদানের ব্যবস্থা করা । আর এর জন্য প্রয়োজন হবে সঠিক গনতান্ত্রিক প্রতিষ্টান সৃজন ও তার যথাযথ বিকাশ সাধন । ধন্যবাদ মুল্যবান পোষ্টটির জন্য ।

১৩ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ৭:৪৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


অবকাঠামো হচ্ছে, তবে এগুলোর মাকিলানা থেকে সাধারণ মানুষ লাভবান হচ্ছে না প্রত্যক্ষভাবে, তারা সরকারের বাজার হিসেবে থাকছে।

অবকাঠামোগুলোর টেকসই নেই: যেমন রামপাল বন্ধ হয়ে যাবে এক সময়, আনবিক চুল্লীও খোলার ৫/৭ বছরের মাঝে বন্ধ হয়ে যাবে। রাস্তাগুলো ৬ মাসে অকেজো হয়ে যায়। সরকার বদল হলে, অনেক প্রাইভেট ব্যবসা বাস্পীভুত হয়ে যাবে।

২৩| ১৩ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ৮:২৫

সৈয়দ ইসলাম বলেছেন: এগলো পুড়নো না, নিত্য নতুন, প্রতিদিনকার।


এখনো কিছু শিক্ষিত ভাইয়ের মুখে এদেশকে গণতান্ত্রিক দেশ বলে গর্ব করতে শুনি। অথচ এদেশে ক্ষমতার আসনকে দুর্গন্ধকারী প্রত্যেক অপরাজনৈতিক দল ক্ষমতায় এসেই পুঁজিবাদীদের নেংটা খাদেম হয়ে যায়। ধিক্কার দিলে এদের প্রতি ঘৃণা কিছুটা কমবে বলেও মনে হয় না।

১৩ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ৯:১৮

চাঁদগাজী বলেছেন:



আওয়ামী লীগ পুরোপুরি ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানীতে পরিণত হয়েছে।

২৪| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০১৮ ভোর ৫:৫৪

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: দু ডজনেরও বেশী টিভি চ্যানেল আছে কিন্তু কোন ইংরেজি ভাষায় প্রচার হয় এমন কোন চ্যানেল দেশে নাই। থাকলে এই সব মেলার খবর বিদেশীরা যারা এখন দেশে আছে তারা জানতে পেত।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০১৮ ভোর ৬:০৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


শেখ হাসিনা যদি নরওয়ে, বা ডেনমার্ক থেকে একজন এডভাইজার নিতেন, উনি দেশের সামগ্রিক অবস্হা বুঝে ব্যবস্হা নিতে পারতেন; দীর্ঘমেয়াদী বিষয়ে ভাবতে পারতেন।

২৫| ২০ শে জানুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ১২:১৮

রক বেনন বলেছেন: উন্নয়ন মেলার আয়োজন করতে কত টাকা খরচ হয়েছে?? এটা কি আমাদের করের টাকা?? উন্নয়ন মেলা থেকে কি কি উপকার পাওয়া গিয়েছে?? দেশের উন্নয়নের জোয়ারের সাথে এই মেলা কতটুকু সম্পৃক্ত?? আর দেশের উন্নয়ন বাবদ কত টাকা চুরি করা হয়েছে আর অপব্যয় করা হয়েছে তার কোন লিস্ট বিতরণ করা হয়েছে কি??

২১ শে জানুয়ারি, ২০১৮ ভোর ৪:০৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


এগুলো হয়তো জয়ের হবুগিরি; মানুষকে রাগিয়ে দেয়ার জন্য যথেষ্ঠ

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.