নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

ঢাবিয়ান

ঢাবিয়ান › বিস্তারিত পোস্টঃ

কোটা সংস্কারের চাই না, ন্যায়বিচার চাই না, শুধু মেধাবী এই ছেলেগুলোর জীবন ভিক্ষা চাই

১২ ই জুলাই, ২০১৮ বিকাল ৫:৩৮


মন্তব্য ৩৬ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (৩৬) মন্তব্য লিখুন

১| ১২ ই জুলাই, ২০১৮ বিকাল ৫:৫২

জহিরুল ইসলাম সেতু বলেছেন: বেদনাদায়ক

১৩ ই জুলাই, ২০১৮ সকাল ৭:৩৯

ঢাবিয়ান বলেছেন: মিথ্যা আশ্বাষে আন্দোলন থামিয়ে হলে ফিরে গিয়েছিল এই তরুনেরা। এখন তাদের জন্মের শিক্ষা দিয়ে বুঝিয়ে দেয়া হচ্ছে কি জিনিষ অবৈধ স্বৈরাচারী সরকার।

২| ১২ ই জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:০৫

আমি নই বলেছেন: কোটা সংস্কারের চাই না, ন্যায়বিচার চাই না শুধু মেধাবী এই ছেলেগুলোর জীবন ভিক্ষা চাই

৩| ১২ ই জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:১৪

:):):)(:(:(:হাসু মামা বলেছেন: সোজা সাপ্তা কথা।

১৩ ই জুলাই, ২০১৮ সকাল ৭:৪২

ঢাবিয়ান বলেছেন: এমন স্বাধীনতাই কি আমরা চেয়েছিলাম, যেখানে এভাবে কড়জোড়ে প্রান ভিক্ষা চাইতে হবে এক নিষ্ঠুর, অত্যাচারী শাষকের কাছে?

৪| ১২ ই জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:২৭

আবু হাসান লাবলু বলেছেন: ভাই আমরা তো প্রতিবন্ধি,বোবা, অন্ধ, পাগল ।আমাদের তো কিছুই করার নেই।শুধু চেয়ে দেখব আর গোপনে আপসোস করে যাব হায়রে আমার সোনার বাংলা................................................................................

৫| ১২ ই জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:২৮

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: কিছু বলার নেই। কোন দিকে য়ে আমরা যাচ্ছি???

১২ ই জুলাই, ২০১৮ রাত ৯:৩৯

ঢাবিয়ান বলেছেন: পত্রিকায় ছবিগুলো দেখে ভাষাহীন হয়ে পড়েছিলাম। দুস্থ, অসহায় পিতামাতার এই আর্তি সহ্য করা যায় না।

৬| ১২ ই জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৩৭

সনেট কবি বলেছেন: আমাদের শাসকদের হুঁস পরে হয়, আগে হয়না। আর যখন তাদের হুঁস হয় তখন তারা এত দিনের ভুল দেখে বেহুঁস হয়ে যায়। তখন তাদের আর কিছুই করার থাকেনা। বি এন পি কখনো ভাবেনি তাদেরকে এমন দিন দেখতে হবে। আর যখন তারা কঠিন বাস্তবতার মধ্যে পড়েছে তখন তাদের করার কিছুই থাকছেনা।

১২ ই জুলাই, ২০১৮ রাত ৯:০৯

ঢাবিয়ান বলেছেন: বিএনপির করুন অবস্থা দেখে এটুকু আশা মনে জাগে যে এই সরকারের করুন পরিনতি একদিন হবে। একদিন আগে নয় পরে।

৭| ১২ ই জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৪৪

তারেক ফাহিম বলেছেন: দর্শক হয়েই ছিলাম আছি।

কিছু বলতে গেলেই সমস্যা।

১২ ই জুলাই, ২০১৮ রাত ৯:১২

ঢাবিয়ান বলেছেন: চুপ থেকেও কি আর রক্ষা করা যাবে নিজেকে? নিশ্চিত নই।

৮| ১২ ই জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৪৫

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: ভিক্ষা চাইনা কুত্তা সামলা - নীতিতে অসহায় করে ফেলেছে আম পিতা-মাতাকে!

তারা অতি সাধারন ঘরের বলেই আজ অসহায় হয়ে ভিক্ষা চাইছে!
যদি সংবিধান সচেতন হতো! বলতেন- সাংবিধানিক রাইটের কথা!
যদি রাজনৈতিক সচেতন হতেন- বলতেন- অন্যায়ের প্রতিবাদের আমার ছেলের আত্মদান অমর হবে!
একাত্তরে মায়েরা যেভাবে সন্তানদের বিদায় দিতেন!

আজ নিতান্ত একটা চাকুরীর আশায় লেখাপড়া করতে পাঠঅনো সন্তান যখন স্বৈরাচারি জুলুমের স্বীকার
তখন অসহায় আর্তিই গুমড়ে মরে!

দু:খজনক! হে স্বৈরশাসক! একদিন তুমি থাকবেনা, ডান্ডা থাকবেনা! তখন তোমাকে ঘৃণা ভরেই স্মরন করবে সময়!

১২ ই জুলাই, ২০১৮ রাত ৯:১৪

ঢাবিয়ান বলেছেন: হে স্বৈরশাসক! একদিন তুমি থাকবেনা, ডান্ডা থাকবেনা! তখন তোমাকে ঘৃণা ভরেই স্মরন করবে সময়।

৯| ১২ ই জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:১২

ফেনা বলেছেন: সত্যি খুব বেদনাদায়ক।

১০| ১২ ই জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:২২

মোঃ মঈনুদ্দিন বলেছেন: ভয় হয় বিষম ভয় হয়! কোটা আন্দোলন দমন করার জন্য সরকার এবং সরকার সমর্থকগোষ্ঠীর চিৎকার আর আস্ফালন আমাদের আম জনতাদের ভীত করে। কিন্তু কষ্ট বুকেই চেপে যেতে হবে। এ অসহায়দের আহাজারীতে আল্লাহর আরশ কাঁপলেও ক্ষমতাসীনদের ভুঁরুর ভাঁজ ও পড়বে না।

১২ ই জুলাই, ২০১৮ রাত ৯:২২

ঢাবিয়ান বলেছেন: ৭১ এ শুনেছিলাম এইভাবে সন্তানদের প্রান ভিক্ষা চেয়ে পিতামাতাদের মার্সি পিটিশন করতে পাক সরকারের কাছে। চোখের সামনে এখন সেটাই দেখতে পাচ্ছি।

১১| ১২ ই জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৫৫

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: আপনি বাঁচলে বাপের নাম। কয়েকদিন আগে এক মা তার ছেলে হত্যার মামলা প্রত্যাহার করে নিয়েছে চাপে পড়ে...

১৩ ই জুলাই, ২০১৮ সকাল ৮:৪৯

ঢাবিয়ান বলেছেন: স্বৈরাচার নিপাত যাক, গনতন্ত্র মুক্তি পাক।

১২| ১২ ই জুলাই, ২০১৮ রাত ৮:৩১

রাজীব নুর বলেছেন: বর্তমানে দেশে চাকুরীর যে বাজার, তাতে আমি কোন মতেই কোটা প্রথা সমর্থন করতে পারছি না।

১২ ই জুলাই, ২০১৮ রাত ৯:১৮

ঢাবিয়ান বলেছেন: সারা দেশ কোটা সংস্কারের পক্ষে। বিপক্ষে কেবল স্বৈরাচারী সরকার।

১৩| ১২ ই জুলাই, ২০১৮ রাত ৮:৩২

চাঁদগাজী বলেছেন:


সরকার এদেরকে সন্দেহ করছে; ফলে, ব্যাপারটা মা-বাবার হাতের বাইরে চলে গেছে।

এটা পপুলার সরকার নয়; তবে, এসব ছেলেদের সাথে যদি বিএনপি ও জামাতের যোগাযোগ থাকে, সরকার নিজের লেজ রক্ষায় অনেকদুর যাবে; মা-বাবা হয়তো বাংলার এসব কুটকৌশল স হজে বুঝবেন না। এগুলো আমার অনুমান মাত্র।

১২ ই জুলাই, ২০১৮ রাত ৯:২৬

ঢাবিয়ান বলেছেন: আপনার দল ও তার নেত্রীর যা অনুমান , আপনার অনুমানও সে রকমই হবে !!! এতে আর আশ্চর্য্যর কি?

১৪| ১২ ই জুলাই, ২০১৮ রাত ৮:৩৬

জগতারন বলেছেন:
এই ছবি ও আকুতি দেখিয়া অন্তরের অন্তস্থান থেকে আমার কান্না সহ আমার চোখদুইটি আদ্র হইয়াছিল।
ইয়া আল্লাহ, বাংলাদেশের মানুষদের তুমি সুমতি দাও। -আমীন।

১২ ই জুলাই, ২০১৮ রাত ৯:৩৫

ঢাবিয়ান বলেছেন: আমরা মানুষ তাই আমাদের চোখদুটো আদ্র হয়ে যায় নিরাপরাধ, নীরিহ এই ছেলেগুলোর এই অবস্থা দেখলে। ক্ষমতায় যারা বসে আছে তাদের চেহারা মানুষের মত দেখালেও আদতে তারা মানুষ নয়।

১৫| ১২ ই জুলাই, ২০১৮ রাত ৯:৫২

ঢাবিয়ান বলেছেন: দেশের বিশিষ্টজনেরা যখন মুখে কুলুপ মেরে বসে আছে, তখন স্বল্প সংখ্যক যারা এই অসহায় ছাত্রদের পাশে এসে দাড়িয়েছে , তাদের স্যলুট জানাই। তাদের বেশিরভাগ ৭১ এর রনাঙ্গনে্র মুক্তিযোদ্ধা।

দৈনিক সাপ্তাহিকের গোলাম মর্তুজার কলাম থেকে -
তরিকুলদের উপর চালানো বর্বর নির্যাতন নিয়ে লিখেছি দ্য ডেইলি স্টারের অনলাইনে।
নুরুলের বাবা ছেলের চিকিৎসার জন্যে জমি বিক্রি করে ৫০ হাজার টাকা নিয়ে ঢাকায় এসেছেন।
একজন প্রখ্যাত মুক্তিযাদ্ধা- স্থপতি ফোন করে বললেন,নুরুলের বাবাকে ৫০ হাজার টাকা আমরা জোগার করে দেব। দেখেন, বিক্রি করা জমি তিনি ফেরত নিতে পারেন কিনা।নুরুলের বাবার সঙ্গে যোগাযোগ করে একজন জানালেন,নুরুলের বাবা এভাবে টাকা নিতে লজ্জা পাচ্ছেন, তিনি একটু বিব্রত।তবে আমরা বুঝিয়ে টাকাটা নিতে রাজি করাব।
নুরুলের বাবা আর্থিকভাবে দরিদ্র, ব্যক্তিত্বে আমাদের চেয়ে- অনেকের চেয়ে কত ধণী!
প্রতিশ্রুতি যিনি দিয়েছিলেন তিনি নিজে বা জোগার করে ৫০ হাজার টাকা নুরুলের বাবাকে দেবেন।নুরুলের চিকিৎসার ব্যয়ও তারা জোগার করে দেবেন।

হাতুড়ি দিয়ে পা ভেঙ্গে দেওয়া তরিকুলের চিকিৎসা খরচের জন্যে প্রয়োজন অনুযায়ী তিনি/ তারা সহায়তা করবেন।

যিনি/ যারা টাকা দিচ্ছেন, তারা সবাই ১৯৭১ সালের রণাঙ্গনের যোদ্ধা।
এছাড়া নুরুল- রাশেদ- তরিকুল- ফারুকদের আইনি সহায়তা দিচ্ছেন ব্যারিস্টার সারা হোসেন, ব্যারিস্টার জোতির্ময় বড়ুয়ারা।

১৬| ১৩ ই জুলাই, ২০১৮ দুপুর ১২:০২

টারজান০০০০৭ বলেছেন: করুন চিত্র ! :(
কোটা সংস্কার যৌক্তিক হইলেও আন্দোলন অনর্থক মনে হইতেছে !

সরকার এখন আগুনের ফুলকি দেখিলেও প্রতিক্রিয়া দেখাইবে, বিরোধী দল ফুলকিতে হাওয়া দিয়া আগুন জ্বালাইতে চাহিবে ! কে যে কখন বাটে পরে কে জানে ! :(

১৩ ই জুলাই, ২০১৮ বিকাল ৩:৫৮

ঢাবিয়ান বলেছেন: এই আন্দোলন অনর্থক কোনভাবেই নয়। নির্যাতন করে সাময়িকভাবে আন্দোলন দমানো সম্ভব, থামানো সম্ভব নয়। আজকে যারা পিটুনি, নির্যাতনের শিকার হচ্ছে তারা ছাত্রছাত্রী। যুগে যুগে ছাত্রসমাজ সাহসিকতার প্রতীক হিসেবে আবির্ভুত হয়েছে এবং বিজয়কে ছিনিয়ে এনেছে। ৫২, ৭১ , ৯০ এর জ্বলজ্যন্ত উদাহরন।

১৭| ১৩ ই জুলাই, ২০১৮ বিকাল ৩:১৮

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: সারা দেশ কোটা সংস্কারের পক্ষে। বিপক্ষে কেবল স্বৈরাচারী সরকার।


সারা দেশের মানুষ একদিকে আর সরকার আরেক দিকে।
সরকার যা চাইবে তাই হবে। এর বাইরে কেউ যেতে পারবে না। কেউ এর বাইরে গেলে তাকে হাতুড়ি দিয়ে হাড় ভেঙ্গে দেওয়া হবে।

১৮| ১৩ ই জুলাই, ২০১৮ বিকাল ৫:১৯

বৃষ্টি বিন্দু বলেছেন: ছেলেগুলোর করুন পরিণতির এই বিষিয়টি কোনভাবেই মানতে পারিনা।
মানবতা কোথায়? পায়ের নিচে নাকি হাতুড়ির আঘাতে?

১৯| ১৩ ই জুলাই, ২০১৮ বিকাল ৫:৩৬

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: এই নিরিহ ছাত্রদের সাথে সরকারের এমন কঠোরতা কখনো কাম্য নয়, কোটা সংস্কার সারা দেশের মানুষের প্রাণের দাবী।

১৩ ই জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:১০

ঢাবিয়ান বলেছেন: স্বৈরাচারী সরকার দেয় আদালতের দোহাই! কোটা বাতিল বা সংস্কার করলে নাকি আদালত অবমাননা হবে!!
প্রতিটা দিন, প্রতিটা ক্ষনে আদালত অবমানা করা স্বৈরাচারী অবৈধ সরকার জনগনকে শেখায় আইন!!!

২০| ১৩ ই জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:১৮

ঢাবিয়ান বলেছেন:

এই সেই বিখ্যাত হলের ডাল। সাবসিডিতে খাওয়া এই ডাইলের খোটাও শোনানো হচ্ছে ছাত্রদের।

২১| ১৩ ই জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:২৩

সোহানী বলেছেন: অবিলম্বে এদের মুক্তি চাই, মুক্তি চাই, মুক্তি চাই, মুক্তি চাই........................

১৩ ই জুলাই, ২০১৮ রাত ৯:৩৩

ঢাবিয়ান বলেছেন: ইতিহাসের এক কাল অধ্যায় হিসেবে বিবেচিত হবে লীগের শাষনকাল।

২২| ১৪ ই জুলাই, ২০১৮ দুপুর ১২:৪৫

হাঙ্গামা বলেছেন: গজব অবশ্যম্ভাবী।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.