নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

ঘামের কালিতে হৃদয়ের কোরা কাগজে লিখি শ্রম সাহিত্য

মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু

আমি একজন ডিপ্লোমা প্রকৌশলী ,সাইট ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে ২০০৮ সাল থেকে সিঙ্গাপুরে এস-পাশ নিয়ে কাজ করছি। এর পূর্বে ১৯৯৭ থেকে ২০০৮ সাল ছিলাম সৌদি আরবের বিভিন্ন স্থানে। লেখালেখি শখ,শখের সংবাদ প্রতিনিধিও বটে.ফ্রিল্যান্স। ছোটবেলা থকে মঞ্চে নাটক করতাম।নাটক লিখতাম।নব্বইয়ের দশকে পথ নাটক আর বেইলি রোড ,গাইড হাউস সহ নানা মঞ্চে অভিনয় করেছি। পরিচালনাও করেছি।সৌদি আরবেও একাধিক নাটক ও শতাধিক অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেছি। তবে সাহিত্য জগতে পরিচিতি বিকাশ সিঙ্গাপুরে বাংলার কন্ঠ পত্রিকার মাধ্যমে।আন্তর্জাতিক রাইটার্স ফেস্টিভাল ,শ্রম ও প্রেমের কবিতা সহ বহুজাতিক সাহিত্য অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছি বাংলার কন্ঠের সাথে জড়িত থাকার সুবাদে হয়েছে.২০০০ সালে সৌদিতে একটি বই করেছিলাম কম্পিউটার প্রিন্টে। কবিতার বই ,নাম ছিল মরুমায়া।তা সংরক্ষণে নেই.২০১৫ সালে কবি গ্রন্থ \"প্রবাস থেকে বলছি,২০১৬ সালে উপন্যাস \"বন্ধু তুমি সায়াহ্নে,দুটি কাব্য গ্রন্থ একশো আশি ডিগ্রী ও কষ্ট বিলাস প্রকাশিত হয়েছে। ২০১১ সাল থেকে বাংলার কন্ঠের বিভাগীয় সম্পাদক,নিয়মিত ফিচার ,গল্প ,কবিতা ,উপন্যাস লিখছি, কবিতা হাজার ছাড়িয়েছে বহু পূর্বে।আর এখন অনলাইনে হরমেশাই লিখি,ফেসবুকতো আছেই। নিয়মিত মঞ্চ নাটক লিখছি,পরিচালনা,অভিনয় চলছে অবসরে প্রবাসের মাটিতে বাংলাদেশের সাহিত্য সংস্কৃতি নিয়ে বিদেশীদের কাচ্ছে তুলে ধরি লালা সবুজের রক্তাক্ত ইতিহাস,রক্ত স্নাত একুশের ইতিহাস,বাংলার অহংকার ঐতিহ্য় রক্ষায় দৃড় প্রতিজ্ঞ নিজেই নিজের কাছে। বাংলার কন্ঠ সাহিত্য পরিষদ ,প্রবাসী সাংবাদিক সমিতি (প্রসাস) এর সাধারণ সম্পাদক ,সিঙ্গাপুরে।এছাড়া যৌতুক প্রতিরোধ আন্দোলন,বাংলাদেশ,বাংলাদেশ কবি পরিষদ,অনুশীলন সাহিত্য পরিষদ,অনলাইন গ্রুপ এসোসিয়েশন সহ নানা সংগঠনের সাথে যুক্ত আছি. সাহিত্যের পড়াশুনা নেই,তবু ও মনে যা আসে তাই বিভিন্ন চকে ফেলে লিখি।কখন কবিতা,গল্প,উপন্যাস হয়ে যায়,বেশির ভাগ সমসাময়িক লিখি। দুই কন্যা আর স্ত্রী আছে সেই সাথে একান্ন বর্তী পরিবার। প্রবাসীর আর তেমন কিছু নেই। শ্রমিক,শ্রম সাহিত্য,প্রবাসে শ্রম প্রতিভা নিয়ে কাজের অবসরে সময় কাটাই। ধন্যবাদ মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু ১৪-৫-২০১৬ ইং

মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু › বিস্তারিত পোস্টঃ

সেনবাগ পাঠাগার

১৪ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১০:১০

সেনবাগ পাঠাগার

জাহাঙ্গীর বাবু

কত জন স্বপ্ন দেখে আকাশে উড়ার
ওরা কতিপয় স্বপ্ন দেখেছিলো,গড়বে পাঠাগার।
কুলীন পর্দানশীন এক মেয়ের স্বপ্ন
পিতৃকূল তার পাঁড়া গায়,
স্বপ্ন দেখে স্মার্ট মোবাইলের যুগে
গড়বে পাঠাগার।

বইয়ের সুধা জ্ঞানের ক্ষুদায় তাড়িত হয়,
প্রজন্মের নওজোয়ান,হাতে রাখে হাত,নারী পুরুষের ভেদাভেদ নয়।
ওরা তরুন পড়তে চায়,শিখতে চায়,শেখাতে চায়।

অন্ধকার থেকে আলোর একটাই পথ
শিক্ষা,জ্ঞান,আলো।
জ্ঞানের আলোয় পথ দেখাতে চায় পথ ভ্রষ্টকে
যারা আজ সর্বনাশা ইয়াবা,মাদকের কবলে,
ফিরিয়ে আনতে চায় জ্ঞানের টেবিলে
গল্প কবিতার আড্ডায়,
যাদের মগজ ধৌত হয়ে গেছে,মানুষের রক্তে হাত রাঙ্গায়।।

রাজনীতির করাল থাবায় যুব সমাজ
কিশোর দুরন্ত ছেলেবেলায় হাতে উঠে হাতিয়ার
ঠোঁটে সিগারেট,কিশোরী,, তরুনী নারী
অনিরাপদ পথে ঘাটে,ঘরে,বাইরে।
চাই শিক্ষার উন্নয়,জ্ঞানের আহরণ।
সচেতনতায় চাই শিক্ষা,চাই জ্ঞান,
বইয়ের প্রয়োজন।

এগিয়ে যাচ্ছে ব্যানারে পোষ্টারে দেশ
বিশ্বের আধুনিকতার ছোঁয়া গ্রামে
মোবাইল,স্যাটেলাইট,এমনকি
ধর্মের অপব্যাখ্যা,অন্ধ প্রপাগান্ডায়,
শিক্ষায় এখনো শহর এগিয়ে।
বেরিয়ে আসতে হবে,সিলেবাসের বাইরে, পড়তে হবে।
প্রয়োজন লাইব্রেরী,পাঠাগার।

বই কিনে কেউ দেউলিয়া হয়না,পড়ে আহরণ করে জ্ঞান।
সেনাবাগের এক ঝাঁক উদ্যমী তরুন
বাস্তবায়ন করেছে স্বপ্নের।
গড়েছে সেনবাগ পাঠাগার।
কলেজ রোড,সেনবাগ,নোয়াখালী।
স্যালুট তোমাদের হে প্রজন্ম।
সুন্দর আগামীর পথে যাও এগিয়ে।

১৩-১-২০১৮ ইং
সিঙ্গাপুর

আপনার ঘরে অযত্নে অবহেলায় বই পড়ে আছে পাঠিয়ে দিন, ধর্মীয়,সামাজিক উন্নয়ন,থিসিস,গবেষণা,মহা মানবদের জীবনী,কবিতা,গল্প,উপন্যাস,রচনা সমগ্র,আইন বিষয়ক,ম্যাগাজিন,ক্রোড় পত্র,অশ্লীল,উস্কানী,উম্মাদনা ছাড়া পাঠিয়ে দিন সেনবাগ পাঠাগারে।হাত বাড়িয়ে দিন একটি ভালো কাজে।

মন্তব্য ৩ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (৩) মন্তব্য লিখুন

১| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১০:২৬

রাজীব নুর বলেছেন: গুড জব।

২| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ১২:২৫

তারেক ফাহিম বলেছেন: সেনবাগ পাঠাগারের জন্য শুভ কামনা।

প্রতিষ্ঠাতার উদ্যেগ সফল হোক।

৩| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ১২:৩৩

তারেক মাহমু৩২৮ বলেছেন: শুভ কামনা

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.