নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

পাঠক।

জুনায়েদ বি রাহমান

আমার ভিতর বাস করে এক অস্থির বেনামি বাউণ্ডুলে পাখি; যার কাঙ্ক্ষিত কোনো গন্তব্য নেই।

জুনায়েদ বি রাহমান › বিস্তারিত পোস্টঃ

কবিতা: অন্ধকার

০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ রাত ২:১৮


প্রশ্নের বিপরীতে প্রশ্ন এসে দাঁড়ালে, আমি অন্ধকারে উত্তর খুঁজি!
অন্ধকার এক জোরদার শক্তিমত্তার নাম।
অন্ধকার আমার আমি'র রাজকীয় সিংহাসন।

আলোঃ সে এক বৈচিত্র্যময় রহস্যক্ষেত্র-
যেখানে প্রশ্ন প্রশ্নকে গিলে খায়!
যেখানে মুদ্রার ঝলকে নির্ণীত হয় সত্য মিথ্যে!
যেখানে অস্তিত্ব গায়েব হয় অস্তিত্বে!

প্রশ্নের বিপরীতে প্রশ্ন এসে দাঁড়ালে, আমি চোখ বন্ধ করে অন্ধকারে হারিয়ে যাই।
অন্ধকার আমাকে স্বস্তি দেয়, আত্মতৃপ্তি দেয়।
কেননা দিনশেষে এই অন্ধকার'ই আমার! এবং আমি তাঁর।
আলো সেতো এক যৌগিক প্রশ্নপত্র মাত্র।
__________________
রচনাকাল -২০১৭
(সম্পাদিত)

ছবি- সংগৃহীত।

মন্তব্য ২০ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (২০) মন্তব্য লিখুন

১| ০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ রাত ২:৩৩

রাকিবুল ইসলাম অভ্রনীল বলেছেন: অসাধারণ অভিব্যক্তি। ভালো লাগলো

০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:০৩

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: কবিতাভাবনা ইতিবাচকভাবে নেওয়ার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।
অনেক ভালো থাকবেন ভাই।

২| ০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ রাত ২:৫৫

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



আসলে আমরা সবাই অন্ধ; কোন বস্তু থেকে যখন আলো চোখে পড়ে তখন আমরা দেখতে পাই৷মানুষের জীবনটাও ঠিক তাই৷একদম শুণ্য থেকে শুরু করতে হয়৷বয়স বাড়ার সাথে সাথে নিজের প্রতিভা ও যোগ্যতায় সব অনধকার দূর করে এগিয়ে যেতে হয়৷যারা তা করতে পারে তারাই আলোর খোঁজ পায়৷

শুভ রাত্রি৷

০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:১৮

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: "আসলে আমরা সবাই অন্ধ; কোন বস্তু থেকে যখন আলো চোখে পড়ে তখন আমরা দেখতে পাই৷মানুষের জীবনটাও ঠিক তাই৷একদম শুণ্য থেকে শুরু করতে হয়৷বয়স বাড়ার সাথে সাথে নিজের প্রতিভা ও যোগ্যতায় সব অনধকার দূর করে এগিয়ে যেতে হয়৷যারা তা করতে পারে তারাই আলোর খোঁজ পায়৷" - সুন্দর বলেছেন কাওসার ভাই। আমাদের জীবন শূন্য থেকে শুরু হয়। বয়স বাড়ার সাথে সাথে নিজের প্রতিভা ও যোগ্যতায় সব অন্ধকার দূর করে এগিয়ে যেতে হয়। যারা পারে তারাই সফল।
আমি কবিতাতে 'অন্ধকারকে' ইতিবাচকভাবে দেখানোর চেষ্টা করেছি। আমাদের ব্লগার স্বপ্নের শঙ্খচিল, চাক্কু ভাই সহ অনেকেই হয়তো সেটা ভালোভাবে নেননি। শতসহস্র বছর ধরে যে অন্ধকার অশুভ শক্তির প্রতীক হিসেবে প্রচলিত তার ইতিবাচক গান ভালোভাবে নেবেন আমিও আশা করিনি। যাইহোক, আমার কবিতাভাবনা বা অন্ধকারের ইতিবাচক দিকটা (যেটা আমি বলতে চেয়েছি) একটু ব্যাখ্যা করার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করছি। যদিও আমি কবিতা ব্যাখা বিশ্লেষণের পক্ষপাতী নই।

১ম স্তবকঃ
"প্রশ্নের বিপরীতে প্রশ্ন এসে দাঁড়ালে, আমি অন্ধকারে উত্তর খুঁজি!
অন্ধকার এক জোরদার শক্তিমত্তার নাম।
অন্ধকার আমার আমি'র রাজকীয় সিংহাসন।"
-- অনেকসময় কাউকে প্রশ্ন করলে উত্তর না দিয়ে বা দিয়ে পালটা প্রশ্ন আসে এবং একটা জটিল পরিস্থিতি সৃষ্ট হয়। তখন আমি চোখ বন্ধ করে ভাবার চেষ্টা করি। অন্ধকার ভাবতে সহায়তা করে। তাই অন্ধকারকে শক্তি বা আমার সিংহাসন বলে উপস্থাপন করা।
আমার মতো অনেকেই সেটা করেন। ইংরেজি পত্রিকা সাইকোলজি টুডেতে গত (২০১৭) বছর এটা নিয়ে ড.আর্ট মার্কানের "Why do you close your eyes to remember'' শিরোনামেএকটি প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়েছিলো। লিংকে ক্লিক করে পড়ে নিতে পারেন। Click This Link

২য় স্তবকঃ
"আলোঃ সে এক বৈচিত্র্যময় রহস্যক্ষেত্র-
যেখানে প্রশ্ন প্রশ্নকে গিলে খায়!
যেখানে মুদ্রার ঝলকে নির্ণীত হয় সত্য মিথ্যে!
যেখানে অস্তিত্ব গায়েব হয় অস্তিত্বে!"
- অনেকসময় যা দেখি তার পেছনেও অনেক গল্প, অনেক তথ্য থেকে যায়। সমাজ সংখ্যা গরিষ্ঠতা প্রাধান্য দেয়। সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষ মিথ্যাকে আলো সত্য বললে মিথ্যাও সাময়িক সময়ের জন্য সত্য হয়ে যায়। প্রশ্নকে পালটা প্রশ্ন দিয়ে চাপা দিয়ে দেওয়া হয়। এসব চারিপাশে ঘটছে। বলতে পারেন ক্ষোভ থেকে এই কয়েকটা লাইন।

৩য় বা শেষ স্তবকঃ
"প্রশ্নের বিপরীতে প্রশ্ন এসে দাঁড়ালে, আমি চোখ বন্ধ করে অন্ধকারে হারিয়ে যাই।
অন্ধকার আমাকে স্বস্তি দেয়, আত্মতৃপ্তি দেয়।
কেননা দিনশেষে এই অন্ধকার'ই আমার! এবং আমি তাঁর।
আলো সেতো এক যৌগিক প্রশ্নপত্র মাত্র। "
- মৃত্যু অবিনশ্বর। আমি পরকালে বিশ্বাসী। তাই পৃথিবীর এইসব জটিল ঘটনা, প্রশ্ন, প্যাঁচাল যখন অসহ্য পরিস্থিতি সৃষ্টি করে তখন অন্ধকারই আমাকে তৃপ্তি দেয়। কারণ, ঈশ্বরে বিশ্বাসীরা বিশ্বাস করে পরকালে প্রত্যেক মানুষের বিচার হবে। এবং দুনিয়ায় যারা ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হয়ে তারা ন্যায় বিচার পাবে। আর মুসলিমরা বিশ্বাস করে দুনিয়া পরীক্ষাক্ষেত্র। আমিও একজন মুসলিম। তাই আলোকে "যৌগিক প্রশ্নপত্র বলা"।


আন্তরিক ধন্যবাদ সুন্দর মন্তব্যের জন্য। অনেক অনেক ভালো থাকবেন শ্রদ্ধেয় ভাই।

৩| ০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ রাত ৩:৩৮

স্বপ্নের শঙ্খচিল বলেছেন: অন্ধকার আমাকে স্বস্তি দেয়, আত্মতৃপ্তি দেয়।
কেননা দিনশেষে এই অন্ধকার'ই আমার!

অন্ধকার কখনো শুভ বার্তা হতে পারে না,
এই যে কবিতা লিখলেন ২০১৭ সালে এতদিন
অন্ধকারে পড়ে ছিল , মানে মৃত ছিল
অতএব আলোর জয়গান করুন ।
,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,

০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:২৫

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: প্রশ্নের বিপরীতে প্রশ্ন এসে দাঁড়ালে, আমি চোখ বন্ধ করে অন্ধকারে হারিয়ে যাই।
অন্ধকার আমাকে স্বস্তি দেয়, আত্মতৃপ্তি দেয়।
কেননা দিনশেষে এই অন্ধকার'ই আমার! এবং আমি তাঁর।
আলো সেতো এক যৌগিক প্রশ্নপত্র মাত্র। "

অন্ধকারকে শুভ বার্তা বলিনি। বলেছি, অন্ধকার ভাবতে সহায়তা করে। পৃথিবীর মুখোশ, মানুষ, ফানুশের ভান ভণিতা যখন অসহ্য পরিস্থিতিরর সৃষ্টি করে তখন অন্ধকারে চোখ বন্ধ করে থাকলে তৃপ্তি মেলে। যাইহোক, ভাবনা পাঠকের কাছে যথাযথভাবে উপস্থাপন করতে না পারার দায় লেখক হিসেবে আমিই নিচ্ছি। ভালো থাকুন। সুস্থ থাকুন।


৪| ০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ভোর ৬:১৬

সৈয়দ ইসলাম বলেছেন: আলো সেতো এক যৌগিক প্রশ্ন পত্র মাত্র

বাহ, ভালই তো কবিতা রচনা করেছিলেন।

০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:২৬

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: ভাই, আপনি সম্ভবত আমার বক্তব্য বুঝতে পেরেছেন। মন্তব্য পেয়ে ভালো লাগছে।

অনেক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা। ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন।

৫| ০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সকাল ৮:৩২

চাঙ্কু বলেছেন: আইচ্ছা, এখন আলো নিয়ে একটা কোবতে লেখেন!

০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৩৫

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: স্বাগতম চাক্কু ভাই। কবিতারে কোবেতা কইয়া আপনার নিকের সাথে সুবিচার করেছেন। যাউকগা, আপনি "আলো" নিয়া কোবেতা (আপনার ভাষ্যমতে) লিখতে বোলছেন। ভালা কইরা চাইয়া দেখেন, এখানে আলোও আছে। কোবেতায় "আলোকে" যৌগিক প্রশ্নপত্র কইছি।

প্রথমবারের মতো আমার পাতায় আসার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা। সবসময় চাক্কু নিয়া আসবেন- প্রত্যাশা। শুভকামনা। ভালো ও সুস্থ থাকুন সতত।

৬| ০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সকাল ৯:১৪

রাজীব নুর বলেছেন: সুন্দর কবিতা লিখেছেন।
অনেক ধন্যবাদ।
আমার খুব আফসোস হয় আমি কবিতা লিখতে পারি না বলে।

০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৩৭

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: রাজীব ভাই, আপনি ভালো গল্প লিখতে পারেন। চেষ্টা করলে, আমার চাইতে বেশ ভালো কবিতা লিখতে পারবেন।

আপনার ভালোলাগা বা প্রেরণাদায়ক মন্তব্য বরাবরই অনুপ্রাণিত করে। অনেক অনেক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানবেন। ভালো ও সুস্থ থাকবেন।

৭| ০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সকাল ৯:২২

সাইন বোর্ড বলেছেন: ভাবনা ও প্রকাশ সুন্দর !

০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৩৮

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: ভাবনাকে ইতিবাচকভাবে নেওয়ার জন্য ধন্যবাদ। অনেক অনেক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানবেন।
ভালো থাকবেন।

৮| ০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:২০

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: শুভসকাল প্রিয় জুনায়েদভাই,

কবিতা সুন্দর হয়েছে। একরাশ মুগ্ধতা রেখেগেলাম।

শুভকামনা রইল।


০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৪০

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: শুভসকাল পদাতিক ভাই। আপনার মন্তব্যে বরাবরের মতো প্রেরণা পেলাম। কবিতা পড়ার ও মন্তব্য করার জন্য অনেক অনে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা

ভালো থাকবেন।

৯| ০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:২৫

বাকপ্রবাস বলেছেন: খুব সুন্দর।

আমরা যেটাকে আলো ভাবছি সেটা আসলে অন্ধকারই, অন্ধকারকে বুঝতে পারছিনা বলে এমন হয়। আলোতে আমরা খুঁজে পাই ভাবছি, অথছ সবকিছু পাচ্ছি অন্ধকারেই

০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৪৬

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: কবি এবং প্রিয় ভাই, আপনার 'খুব সুন্দর' বলাতে তৃপ্তি পেয়েছি।

অন্ধকার নিয়ে লিখার কারণ বা কবিতাভাবনা উপরে কাওসার ভাইয়ের মন্তব্যের প্রতিমন্তব্যে ব্যাখ্যা করার চেষ্টা করেছি। আপনি বলেছেন, অন্ধকারকে বুঝতে পারছি না বলে এমন হচ্ছে। হ্যা, আসলে অন্ধকারকে আমরা অশুভ শক্তির প্রতীক হিসেবেই জানি। অথচ,খুব নিবিড়ভাবে ভাবলে অন্ধকারেই প্রকৃত প্রশান্তি। আমাদের সমাপ্তি অন্ধকারেই।
বহুরূপী আলোর চাকচক্য থেকে অন্ধকারইই ভালো।

মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা। ভালো থাকবেন।

১০| ০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:১৬

কথার ফুলঝুরি! বলেছেন: এক সময় অন্ধকার খুব ভালো লাগতো আমার কিন্তু এখন আর ভালো লাগেনা :( অন্ধকারের অনেক রূপ ।

কবিতা ভালো লেগেছে ভাইডি B-)

০৪ ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:২৮

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: অন্ধকারের অনেক রূপ। তাহলে আলোর রূপ তো বেশুমার!

প্রেরণাদায়ক মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানবে@ বোন'ডি

ভালো থাকবে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.