নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

পাঠক।

জুনায়েদ বি রাহমান

আমার ভিতর বাস করে এক অস্থির বেনামি বাউণ্ডুলে পাখি; যার কাঙ্ক্ষিত কোনো গন্তব্য নেই।

জুনায়েদ বি রাহমান › বিস্তারিত পোস্টঃ

\'একগাল থুঃ থুঃ\' কথিত শিক্ষকগোষ্ঠীর মুখে! (দেখুনঃ \'চাটুকারিতার একটি অসাধারণ ভিডিওচিত্র\'! )

১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ দুপুর ১:৩০


শাহি বা জমিদারি আমলে রাজ্যের আমলা কামলারা চাটুকারিতার মাধ্যমেই নিজেদের অবস্থান ধরে রাখতেন। তখনকার রাজা বাদশা বা শাসকশ্রেণী চাটুকারদের পছন্দ করতেন, প্রাধান্য দিতেন। জনসাধারণ চাটুকারিতাকে তখন তেমন বাকা চোখে দেখতো না। কেননা, তখনকার সমাজ, সভ্যতা চাটুকারিতাতে অভ্যস্ত ছিলো। সময়ের অগ্রগতিতে মানুষ চাটুকারিতার ফলাফল অনুধাবন করতে শিখেছে। মানুষ এখন চাটুকারিতাকে প্রচণ্ড অপছন্দ করে। ফলাফলঃ 'চাটুকার' শব্দটা পরিণত হয়েছে গালিতে। চাটুকারিতা করতে দেখলেই মানুষ সমালোচনা করে, গালি দেয়। তবুও আমাদের শাসকশ্রেণী এবং আমলাকামলারা এই চাটুকারিতার বলয় থেকে বেরিয়ে আসতে পারছেন না।

আমাদের শাসকশ্রেণী মিথ্যে প্রশংসা শুনতে চান। চাটুকার আমলা কামলারাও শাসকদের চাহিদানুযায়ী ভুয়া প্রশংসা করেন। কেননা তারা(রাস্ট্রের আমলা কামলা) জানেন নিজের অবস্থা ধরে রাখতে হলে বা সুবিধা পেতে হলে চাটুকারিতার কোন বিকল্প নেই। সাম্প্রতিক সময়ে আমাদের দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতেও এই চাটুকারিতার প্রাদুর্ভাব মারাত্মক আকারে লক্ষ্য করা যাচ্ছে। শাসকদের সম্মানার্থে স্কুল কলেজ পড়ুয়াদের ঘণ্টার পর ঘণ্টা রোদবৃষ্টিতে রাস্তায় দাড় করিয়ে রাখা ত আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর কমন সংস্কৃতি। আজ দেখলাম নতুন আরেক'টি অভূতপূর্ব পদ্ধতি। যোশরের এবিসিডি নামক একটা মাধ্যমিক স্কুলে কয়েকজন স্কুলছাত্রীর মাধ্যমে 'দেবদেবীদের পূঁজা' করার স্টাইলে বিশেষ অঙ্গভঙ্গিমায় মাথা নত করে কতিপয় চোর বাটপারদের ফুলের মালা প্রদর্শন পরিয়ে দেওয়া হলো। (বিশেষ পদ্ধতিতে গণ্যমান্যদের সম্মান প্রদর্শনের ভিডিওচিত্র দেখতে চাইলে ক্লিক করুন-

চাটুকার সরকার - চাটুকার আমলা কামলা - জনগনের ক্ষুদ্রাংশ চাটুকার এবং সুখী। পক্ষান্তরে বেশিরভাগই অসুখী, বঞ্চিত, নিপীড়িত। - এই চেইনে চলছে দেশ।

খুজ নিলে দেখা যাবে উল্লিখিত স্কুলের প্রধান শিক্ষকসহ অধিকাংশ শিক্ষকই দুর্নীতির আশ্রয় নিয়ে চাটুকারিতার মাধ্যমে চাকুরী পেয়েছে। তাদের টিকে থাকতে হলে বা সামনে এগুতে হলে চাটুকারিতা আবশ্যক।

ছবি: সংগ্রহীত

মন্তব্য ৪৬ টি রেটিং +৭/-০

মন্তব্য (৪৬) মন্তব্য লিখুন

১| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ দুপুর ১:৪৩

রাজীব নুর বলেছেন: গ্রামের স্কুল গুলোতে এমনই হয়।
বিশেষ অতিথিকে খুশি করার জন্য তারা এরকমই করে।

১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ দুপুর ১:৪৭

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: তাই বলে এভাবে? শিক্ষকতা করা যোগ্যতা কি এদের আছে?

যারা এই বিশেষ সম্মান নিচ্ছে এদের একজনেরও কি নূন্যতম সম্মান পাওয়ার যোগ্যতা আছে?

২| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ দুপুর ১:৫৯

মলাসইলমুইনা বলেছেন: হাহাহা, এত রাগলে চলবে কেমন করে ! মোঘলেরসাথেতো খানা মোগলাই-ই হবে Iযেমন আমাদের নেতা তেমন মহান আমাদের শিক্ষকবৃন্দ আর তেমন তাদের কাজ কারবার I এগুলোই দেখতে হবে আরো অনেকদিন মনে হয় I সিট্ টাইট |

১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ বিকাল ৩:০১

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: এসব অপসংস্কৃতি বিরুদ্ধে তীব্রভাবে আওয়াজ তোলা এখন সনয়ের দাবী।

৩| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ দুপুর ২:০৩

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



ভিডিওটি দেখেছি। আসলে এমপিদের বেশিরভাগই এই পদের অযোগ্য। এদের পড়াশুনার গভীরতা কম। এদের বেশিরভাগের বাঙালি সংস্কৃতি এবং নিজের করনীয় সম্বন্ধে স্পষ্ট ধারণা নেই। এরা এমপি হয় টাকার দাপটে আর হাই কমান্ডের সুনজরের ফলে। এখানে যোগ্যতার দরকার নেই। 'ভাঁড়' হলেও এদেশে মিনিস্টার হওয়া যায়।

১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ বিকাল ৩:০৫

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: ঠিক বলেছেন কাওছার ভাই। এই দেশে এমপি মন্ত্রী হতে যোগ্যতা লাগেনা। লাগে পয়সা আর দলান্ধতা।

আমরা (জন সাধারণ) সচেতন না হলে নোংরা রাজনীতির কবল থেকে মুক্তির সম্ভাবনা নেই।

৪| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ দুপুর ২:১৫

রাকু হাসান বলেছেন:

ধিক্কার জানাচ্ছি । অমানুষ ।কোমলমতি শিক্ষার্থীদের নিয়ে এটা করায় সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি নিন্দা ।

১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ বিকাল ৩:০৭

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: ধিক্কার! এদের (এইসব চাটুকার শিক্ষক & শাসকদের) বয়কট করা সময়ের দাবী।

৫| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ বিকাল ৩:০০

মাহিরাহি বলেছেন: লজ্জা

১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ বিকাল ৩:০৭

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: জ্বী। দেশ ও জাতির লজ্জা!

৬| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ বিকাল ৩:৩৪

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: ভিডিওটি দেখলাম। উত্তর আপনি বলেই দিয়েছেন। চাটুকারিতা বলে শব্দটা যে বাংলা অভিধানে আছে।


শুভকামনা জানবেন ।

১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ বিকাল ৩:৫১

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: এইসব চাটুকারিতা বন্ধ না হলে আমাদের এগুনোর সুযোগ নেই।

শুভকামনা প্রিয় পদাতিক ভাই।

৭| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ বিকাল ৩:৪৭

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: বিষয়টা সত্যিই আমাদের অবাক করে দিয়েছে। ওখানে কি দুয়েকজন সুস্থ্য মানুষও ছিল না!!

১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ বিকাল ৩:৫৪

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: সেটাই।

এতগুলা মানুষের মধ্যে কেউ আপত্তি জানান নি। এটা প্রমাণ করে সমাজের তথাকথিত শিক্ষিত শ্রেণি সম্পূর্ণ দুষিত। সাধারণ মানুষ নিরুপায়।

৮| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ বিকাল ৪:০৯

ঢাবিয়ান বলেছেন: এই স্কুলের প্রধান শিক্ষককে ধরে জুতা পেটা করা উচিৎ।

১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ বিকাল ৪:১১

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: হ্যা। জুতার মালা উনার প্রাপ্য।

৯| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ বিকাল ৪:২৬

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
চাটুকাররা কখনোই সমাজের
কোন কল্যাণ করতে পারেনা।

১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৪৪

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: সঠিক বলেছেন নূরু ভাই। চাটুকার'রা সমাজও দেশের জন্য অভিশাপ!

১০| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ বিকাল ৪:৪২

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: এইকুকাজের জন্য শিক্ষকরাই দায়ী। আর আওয়ামীলীগ তাও একটা হেনতেন!

আজ চতুর্দিকে শিক্ষার নামে চলছে কুশিক্ষা! হয়ত কতেকটা আমাদের সামনে স্পষ্ট কিন্তু অধিকাংশই এমন গোপনে চলছে!

১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৫০

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: আসলে এইসব ফালতো, অযোগ্য লোকদের আমরা শাসক হিসেবে নির্বাচিত করছি। তারা ভেবে না ভেবে কাজ টাজ করে দেশের বারোটা বাজাচ্ছে।

শিক্ষক নিয়োগের প্রক্রিয়াটাই দেখুন না। যারা নিয়োগ দিচ্ছেন তারা যদি স্বচ্ছ, বিচক্ষণ না হয়, তাহলে অযোগ্যদের নিয়োগ পাওয়াটাই স্বাভাবিক। পাচ্ছে। তারপর অকাজ করছে, করাচ্ছে...

১১| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:০৩

ঢাকার লোক বলেছেন: দুই একজন টুপি পড়াও দেখলাম "বিনম্র সশ্রদ্ধ মালা " গলে নিয়ে এ কোমলমতি ছাত্রীদের কৃতার্থ করেছেন! দুদিন পর নেতাদের পদমূলে সিজদায় পড়ে যেতেও হয়তো দেখতে হবে! ধিক !! এদের বিচার হওয়া উচিত !!!

১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৫৩

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: সহমত। এদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া উচিত।

১২| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৪৪

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: ঘৃন্য এ কাজের দায়ীদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দেয়া হোক।

নইলে ঢাকার লোক ভায়ার আশংকা সত্য হতে খুব বেশি সময় নেবে না।

চাটুকারীতা ধ্বংস হোক।

১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৫৮

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: সহমত। এসব অপকর্মকারীদের শাস্তি না হলে মুক্তিযুদ্ধ, মুক্তিযোদ্ধা, দেশ ও জাতি ভয়াবহ ক্ষতির সম্মুখীন হবে।

আমাদেরও এইসব ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়ে অযোগ্য, অবিচক্ষণ চোরদের হাতে ক্ষমতা দেওয়ার আগে হাজারবার ভাবতে হবে।

১৩| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:২২

সাইন বোর্ড বলেছেন: এগুলো দীর্ঘ দিনের কালচার, এসব থেকে বেরিয়ে অাসা এত সহজ নয় ।

১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ রাত ৯:৩৪

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: এসব অপসংস্কৃতির বিরুদ্ধে আওয়াজ না তুললে বেরিয়ে আসা সম্ভব না। নিজ নিজ অবস্থান থেকে প্রতিবাদ করা আমাদের দায়িত্ব।

১৪| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ রাত ৯:০৭

মাহমুদুর রহমান সুজন বলেছেন: লজ্জা!!! এরূপ কোন ভক্তি বা শ্রদ্ধা হতে পারে না। এদের বিচার হওয়া উচিত।

১২ ই অক্টোবর, ২০১৮ রাত ৯:৩৭

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: সেটাই। এদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হলে ভবিষ্যতে এমন কিছু ঘটবার সম্ভাবনা কমবে।

১৫| ১৩ ই অক্টোবর, ২০১৮ রাত ১:৪০

নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন বলেছেন: একদম সত্য কথা, চাটুকারিতা হলো বর্তমান রাজনীতি, এদেরমধ্যে দেশপ্রেম জায়গাই পায় না।

আমরা দুর্নীতি মুক্ত বাংলাদেশ চাই

১৩ ই অক্টোবর, ২০১৮ সকাল ১১:২১

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: "আমরা দুর্নীতি মুক্ত বাংলাদেশ চাই" - হ্যা। এটাই আমাদের একমাত্র চাওয়া।

চাটুকার, দুর্নীতিবাজদের হাতে যাতে ক্ষমতা না যায় সেদিকে আমাদের লক্ষ রাখতে হবে।

১৬| ১৩ ই অক্টোবর, ২০১৮ রাত ২:৫৬

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: এর আগে একটা ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল শেখ মুজিবের ছবির সামনে একজন একজন করে ছাত্রী গিয়ে সালাম করছে। এসব কী? ওখানকার সচেতন অভিভাবকদের অবশ্যই শিক্ষকদের কাছে কৈফিয়ত চাইতে হবে এই ধরনের ভুল শিক্ষা কেন দেয়া হচ্ছে ছাত্র ছাত্রীদের...

১৩ ই অক্টোবর, ২০১৮ সকাল ১১:২৩

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: অতি ভক্তি চোরের লক্ষণ বলে একটা কথা আছে না। এরা(ছাত্রছাত্রীদের শিক্ষকরা) চোর এবং চাটুকার।

শিক্ষকতার যোগ্যতা নেই, চাটুকারিতা করেই টিকে আছে। এদের জুতাপেটা করা নাগরিক কর্তব্য হয়ে দাঁড়িয়েছে।

১৭| ১৩ ই অক্টোবর, ২০১৮ ভোর ৬:০১

যুক্তি না নিলে যুক্তি দাও বলেছেন: ছিঃ ছিঃ এই কাজ মানুষের না

১৩ ই অক্টোবর, ২০১৮ সকাল ১১:২৪

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: এরা মানুষ না। [sb[ চাটুকার

১৮| ১৩ ই অক্টোবর, ২০১৮ সকাল ৯:১১

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: তাই বলে এভাবে? শিক্ষকতা করা যোগ্যতা কি এদের আছে?
যারা এই বিশেষ সম্মান নিচ্ছে এদের একজনেরও কি নূন্যতম সম্মান পাওয়ার যোগ্যতা আছে?

যারা সম্মান নিচ্ছে তারা মনের করে এটা তাদের অধিকার।

১৩ ই অক্টোবর, ২০১৮ সকাল ১১:২৬

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: এটাই ত সমস্যা। এরা অন্ধ হয়ে গেছেন। এদের আশেপাশে গিজগিজ করছে অসংখ্য চাটুকার।

১৯| ১৩ ই অক্টোবর, ২০১৮ সকাল ৯:২১

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন:
আপনার হাতে টাকা আছে? টাকা থাকলে আপনার বাসার চাকরকেও এই স্কুলের শিক্ষতায় বসিয়ে দিতে পারবেন! বিশ্বাস না হলে নিকটতম আওয়ামী নেতার সাথে দেখা করুন!

১৩ ই অক্টোবর, ২০১৮ সকাল ১১:৩০

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: সহমত। কিছু (অ)মানুষ রাজনীতি করে, দল ক্ষমতায় আসলে অফিস আদালত, স্কুল কলেজের নিয়োগ বাণিজ্য আর রাস্তাঘাট, হাট বাজারে চাঁদাবাজি করে পয়সা কামাতে। দলমত নির্বিশেষে এদের বয়কট করা উচিত।

২০| ১৩ ই অক্টোবর, ২০১৮ সকাল ১০:১৪

নীল আকাশ বলেছেন: আপনার লেখা ভালো তবে বানানের দিকে খেয়াল করবেন। আর বর্তমানে বাংলাদেশের শিক্ষকদের চরিত্র এরশাদ সাহেবের চরিত্রের মতন পবিত্র!

১৩ ই অক্টোবর, ২০১৮ সকাল ১১:৩২

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: পরামর্শের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।

"বর্তমানে বাংলাদেশের শিক্ষকদের চরিত্র এরশাদ সাহেবের চরিত্রের মতন পবিত্র!"- সহমত। তাই ছাত্রছাত্রীদের কাছে শিক্ষকদের সম্মান নেই।

২১| ১৩ ই অক্টোবর, ২০১৮ দুপুর ১২:২৮

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
চাটুকার সব সমাজের জন্যই ক্ষতিকর। শিক্ষা প্রতষ্ঠিনে তা গ্রহণযোগ্য নয় কোনভাবেই।

১৩ ই অক্টোবর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:২৭

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: ঠিক বলেছেন। চাটুকারিতা নিপাত যাক।

২২| ২২ শে অক্টোবর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:২৬

স্রাঞ্জি সে বলেছেন:
জুনায়েদ ভাই ব্যস্ত নাকি আমি ব্যস্ত বুঝতেছিনা....


কেমন আছেন.... নতুন পোস্ট দেন।

২২ শে অক্টোবর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৩১

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: ব্যস্ত না। আমার চোখে সমস্যা। চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে চোখগুলোকে বিশ্রাম দিচ্ছি।

আর নতুন পোস্ট দেওয়ার টপিক আপাতত মাথায় নেই। ব্লগে সবি আছে। আমি ভালো লেখকও নই।


আপনার কি অবস্থা?

২৩| ২২ শে অক্টোবর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৩৬

স্রাঞ্জি সে বলেছেন:

এই আছি ভাল.... যদিও ইদানীং একটু অসুস্থ ছিলাম। আপনি কি সেই কথায় এখনো রেগে আছেন... ঐ যে টাকুরের।

২২ শে অক্টোবর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৪৩

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: আরে নাহ! আমি এসব তেমন গুরুত্ব দেই না। উনাদের প্রতি এমনিতেই রেসপেক্ট কাজ করে, তাছাড়া ব্লগিং বলেন আর জীবনের অভিজ্ঞতায় বলেন, উনারা আমার থেকে অনেক এগিয়ে।

সুতরাং অমন দুচার কথা বলতেই পারেন। এসব নিয়ে মন খারাপ করার কিছু নেই।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.