নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

কলাবাগান১

বাংলাদেশ হোক রাজাকার মুক্ত

কলাবাগান১ › বিস্তারিত পোস্টঃ

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ট্রেকিং

১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৮:১১



সন্ধ্যায় বাড়ী ফেরার পথে আকাশের দিকে তাকিয়ে ভাবছিলাম কোন এক জায়গায় নিশ্চয়ই বাংলাদেশের বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ভাসছে...বাসায় ফিরেই গুগুল সার্চ...আমার মত বয়স্ক লোক ই যদি এমন উদ্দীপনা হয় যে নতুন কিছু খুজে বের করা...আন্দাজ করতে পারি বাংলাদেশের আনাচে কানাচে অনেক অনুসন্ধানী মনের কিশোর কিশোরী আছে ...এই স্যাটেলাইটকে ট্রেকিং করতে করতে হয়ত এমন উদ্দীপনায় পেয়ে বসবে যে হয়ত তার মন মননে স্যাটেলাইট সম্পর্কে জানার জন্য উদগ্রীব হয়ে এই নিয়ে পড়ালিখা আরম্ভ করবে ...আর এরাই এক সময় বাংলাদেশের নাসা তৈরী করবে। কাল একজন টিটকারী দিয়ে বাংলাদেশের নাসার নাম জানতে চেয়েছিল..বেচারা হয়ত খাম্বার সাথে স্যাটেলাইটকে গুলিয়ে ফেলেছিল....

আজ নাকি সন্ধ্যায় হাতির ঝিল আর সোরওয়ার্দী উদ্যানে নাকি স্যাটেলাইট নিয়ে উৎসব হবে...।সেখানে বিজ্ঞান ক্লাব গুলি খুব সহজেই বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ট্রেকিং করে জনগনকে দেখানোর ব্যবস্হা করতে পারে। নীচের ছবিটা আমি ঢাকার আকাশ থেকে কোন এংগ্যালে দেখা যাবে সেটা দিয়ে সার্চ করে বের করেছি




BANGABANDHUSAT-1

NORAD ID:
43463 LOCAL TIME: 21:55:37 UTC: 01:55:37 LATITUDE: -2.88 LONGITUDE: 94.91 ALTITUDE [km]:
33879.84 ALTITUDE [mi]: 21051.96SPEED [km/s]: 3.15 SPEED [mi/s]: 1.96 AZIMUTH: 13.3 N
-57.9 RIGHT ASCENSION: 23h 48m 49s DECLINATION: -08° 42' 22'' Local Sidereal Time:

আরেক টা ট্রেকিং ছবি অনেক দেশের স্যাটেলাইটের মাঝে আমাদের স্যাটেলাইট

আর যারা ঢাকার আকাশ থেকে লাইভ দেখতে চান তারা নীচের লিং ক্লিক করুন
Bangabandhu Satellite live tracking from Dhaka sky


ঢাকার জয়দেবপুরে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট এর গ্রাউন্ড স্টেশন এর কন্ট্রোল রুমের ছবি দেখতে চাই ...সেখানে কর্মরত ১৮ জন বাংলাদেশী বিজ্ঞানীদের সন্মদ্ধে জানতে চাই...প্রথম আলোর মত হলুদ সাংবাদিক রা হয়ত 'হিন্দু' নামের কোন বিজ্ঞানী কে এখনও খুজে পায় নাই ...খুজে পেলে আর সবাইকে বাদ দিয়ে ঐ বিজ্ঞানীকে ই হাই লাইট করত ....তাদের উৎসাহ হল ...কোন ভাবে যেন প্রশ্নবিদ্ধ করা যায় যেমন ৫ই জানুয়ারী নির্বাচনের সময় মহিলা ভোটার দের মাথায় ফটোশপ দিয়ে সিদুর একে দিয়েছিল....।

নীছে আমার কিছু কমেন্ট নিরাশাবাদিদের প্রতি - আমি কেন এই স্যাটেলাইট নিয়ে এত উৎসাহ


বাজারে টমাটো র দাম ১ পাউন্ড প্রায় ২ ডলার...কিন্তু বাজার থেকে ৩ ডলার দিয়ে একটা গাছ কিনলাম.সাথে মাটি/সার/টব সবমিলিয়ে ১২-১৩ ডলার খরচ...কিন্তু তিনমাস পরে সর্বসাকুল্যে ৩ পাউন্ড টমাটো ও পাই নাই (তিন মাস পানি সার দিয়ে যত্ন আত্মি করার পরও)। বাজারের টমাটো নিজের গাছের টমাটোর স্বাদের কাছে ফেল...

ছাত্র/ছাত্রীরা সবাই লাইব্রেরী থেকে টেক্সক্ট বুক ২ সপ্তাহের জন্য ধার নিতে পারে কিন্তু প্রায় সবাই টেক্সক্ট বুক টা নিজে বুক স্টোর থেকে কিনে থাকে..। লাল কালির দাগ দেওয়া যায়....পাশে নোট লিখা যায়

কৃষক যখন অন্যের জমি বর্গা নিয়ে চাষ করে তখন বুকের পাজর বের হয়ে যায় মালিকের পছন্দ মত ফসল উৎপাদনে কিন্তু নিজের জমিতে ...।
ভাড়া বাসা নাকি নিজের একরুমের হলেও বাড়ী যেখানে নিশ্বাস নেওয়া যায় প্রান ভরে

বাংলাদেশ যখন ক্রিকেট টেস্ট এ স্ট্যটাস পেল..তখন অন্য দেশগুলির তুলনায় খুবই পিছিয়ে ছিল.. এখন সমানে সমানে

১০১ টা কারন আছে স্যাটেলাইটের পক্ষে তবে প্রধান 'কারন' হল আগে দেখতাম রাজাকারের গাড়ীতে বাংলাদেশের পতাকা..এখন দেখি স্যাটেলাইটের গায়ে বাংলাদেশের পতাকা

নিন্দুকেরা এক সময় বলবে
" ঘুরতে ঘুরতে ওটা ভারত চলে গেছে। আমরা অনেক খুঁজে দেখেছি। এটি আর বাংলাদেশে নেই।"

ও হ্যা দাদা বাবুরা কখন ফারাক্কার বাধ খুলে আর বন্ধ করে তার প্রমান ও পাওয়া যাবে ছবি সহ..... আর বর্ষার মিথ্যা কথা দিয়ে পার পাওয়া যাবে না...

মন্তব্য ৫৪ টি রেটিং +৬/-০

মন্তব্য (৫৪) মন্তব্য লিখুন

১| ১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৮:৩৭

স্োরনাভ বলেছেন: অসাধারণ লিখেছেন।

১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৮:৪২

কলাবাগান১ বলেছেন: সব কিছুর মূল্য লাভ ক্ষতি হিসাব করে হয় না...

২| ১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৮:৪৩

এলিয়ানা সিম্পসন বলেছেন: :)

১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৮:৫৫

কলাবাগান১ বলেছেন: আমেরিকা চাদে রকেট পাঠিয়ে কত টাকা লাভ করেছিল সেই হিসাব টা যদি পেতাম....

৩| ১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৮:৪৭

ঢাবিয়ান বলেছেন: কিশোর কিশোরিরা স্যটেলাইট নিয়ে ট্র্যকিং করতে করতে বাংলাদেশে নাসা বানিয়ে ফেলবে =p~ =p~ =p~

জরুরী ভিত্তিতে আপনার সাইক্রিয়াটিস্টের শরণাপন্ন হওয়া দরকার।

১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৮:৫৫

কলাবাগান১ বলেছেন: আপনার এত প্রচেস্টা মাঠে মারা গেল ..কত রকম হাকডাক কোটা নিয়ে মাঠে নামার ... গতকাল সকালে শাহবাগে জমায়েত দেখে আবার আটঘাট নিয়ে নেমেছিলেন সবাই কে নেমে আসার আহবান জানিয়ে কিন্তু আপনার কথা তো শুনলই না তারা আবার হলে ফিরে গেল.....

কিশোর কিশোরীদের উৎসাহ তাদের কে ভবিষ্যতে কোথাও নিয়ে যেতে পারে তা আপনার মত লোকেরা যারা স্বাধীনতার যুদ্ধকে রূপকথার সাথে তুলনা করেন টা জীবনে ও বুঝতে পারবেন না...।

গ্রামের প্রাইমারী স্কুলে পড়েছিলাম...স্কুল রুম এর এক মাথা থেকে আরেক মাথা দেখা যেত মাঝে কোন পার্টিশান ছিল না...আজ যখন বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে/কনফারেন্সে সাইন্স সেমিনার দেতে যাই...তখন পিছনে ফিরে তাকাই....।

৪| ১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৮:৫৭

এলিয়ানা সিম্পসন বলেছেন: ঢাবিয়ানদের মত নেগেটিভিটি হল ফ্রাস্ট্রেটিং। ভাই, সমালোচনা করতে হলে করেন। বাট হোয়াটস আপ উইথ অল দ্যা নেগেটিভিটি?This is our own country that we are talking about. Atleast, have some hope.

১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৯:০১

কলাবাগান১ বলেছেন: His only hope is to raise the flag on ......car.....he compared the liberation war as 'myth' (Folktale)

৫| ১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৮:৫৯

ক্স বলেছেন: লিঙ্ক কই ? আমি ত পেলাম একটা ইউআরএল যেটা সামুর মহা বিজ্ঞ মডারেটরদের উদ্ভট সিদ্ধান্তের জন্য কপিও করা যাচ্ছেনা? ওই লিঙ্কটি ভূয়া?

১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৯:০৪

কলাবাগান১ বলেছেন: ভয়ে ভয়ে আপনার কমেন্ট টা খুললাম আমার চেয়ে বেশী তীর্যক ভাষায় আক্রমনের জন্য...you have mellowed

লিং ঠিক করে দিচ্ছি..আপনি এখান থেকে কপি করতে পারেন
https://in-the-sky.org/satmap_planetarium.php?utc=1526512627&gotosat=43463

৬| ১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৯:০৪

সুমন কর বলেছেন: সুন্দর করে লিখেছেন। শুভ সকাল।

১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৯:০৮

কলাবাগান১ বলেছেন: লাইভ লিং টা কি ঢাকা দেখাচ্ছে? মানে ঢাকার আকাশ বলছে???

৭| ১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৯:১১

অনন্য দায়িত্বশীল আমি বলেছেন: স্যাটেলাইটের পিছনে এতো টাকা খরচ না করে যদি এই টাকা বুয়েট অথবা ঢাবি অথবা অন্যকোন ইউনিভার্সিটিতে গবেষণায় ব্যয় করা যেত তাহলে হয়তো আমরা সূদুরপ্রসারী বেশি সুফল পেতাম। এর যে আয়ুস্কাল তাতে যে টাকা খরচ হয়েছে তা কি উঠে আসবে?

১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৯:১২

কলাবাগান১ বলেছেন: সব খরচ সব সময় উঠে আসে না...

৮| ১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৯:১২

এলিয়ানা সিম্পসন বলেছেন: আপনি ভাইরাস ফাইরাসের উপর রিসার্চ করছেন কেন? আমেরিকা শুধু শুধু আপনার উপর টাকা নষ্ট করছে। কয়েকটা কমন ডিজিজের উপর রিসার্চ করলেই তো হয়!

আর প্ল্যান্ট রিসার্চ হলে তো আপনি শ্যাষ :P

১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৯:১৭

কলাবাগান১ বলেছেন: একটা ঔষুধ বাজারে আনতে অন্তত ৫০ টা ঔষুধে বিলিয়ন ডলার ব্যয় করে ৪৯টা ই বাতিল হয়...

৯| ১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৯:১৫

ক্স বলেছেন: লিঙ্ক দেবার জন্য ধন্যবাদ - বঙ্গবন্ধুকে খুজে পেলাম দক্ষিণ আকাশে বুধ আর ইউরেনাসের মাঝখানে। কিন্তু আমার কমেন্টে ভয় কেন? আমি ত গালাগালি করিনা। সত্যি বলতে কি আপনার আর কালবৈশাখীর ব্লগে ভিজিট করতে আমার খুব ভালো লাগে। আপনি যাকে পছন্দ করেন, তার অন্যায়গুলোকেও যেভাবে ইতিবাচক ব্যখ্যা দেন - এই শিক্ষা আমার জীবনে অনেক কাজে এসেছে। চাকরি জীবনে এই শিক্ষার জন্যই আমি আজকে একজন সফল মানুষ।

১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৯:২০

কলাবাগান১ বলেছেন: আপনার এই খোচা টাকে বেশ উপভোগ করলাম...যারে পছন্দ করি...জীবন দিয়ে করি...অনেক নিচে নেমে হলেও করি ....

লিং টা কি বলছে যে এটা ঢাকার আকাশ থেকে দেখার ম্যাপ...আমি তো ভাই ওয়াশিংটনে বসে দেখতে চাচ্ছি...

১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৯:২৫

কলাবাগান১ বলেছেন: " বঙ্গবন্ধুকে খুজে পেলাম দক্ষিণ আকাশে বুধ আর ইউরেনাসের মাঝখানে।" খুজেই যখন পেয়েছেন তখন কেন বারে বারে বঙ্গবন্ধুর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছিলেন...একবার যখন পৌছায়ে গিয়েছে তখন ১৫ বছরের আগে বিদেহী আত্মা খুজে পাবেন বলে মনে হয় না

১০| ১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৯:৩৩

রাজীব নুর বলেছেন: শুভ সকাল।
ভালো আছেন?

১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ৯:৪০

কলাবাগান১ বলেছেন: আমার এখানে তো রাত্রি ..কিছুক্ষন পরে ঘুমাতে যাব

ও হ্যা পৃথিবীতে কোন রহস্য নাই যা দেখেন তাই ...তবে সাহিত্যক কবি তারা নিজের মননে রহস্য তৈরী করেন পাঠক কে ধরে রাখার জন্য .। যেমন হুমায়ুন আহমেদ ..মিসির আলী সবই কল্পনা প্রসূত

পোস্টের বিষয় নিয়ে আপনার কি ভাবনা

১১| ১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ১০:২৬

ক্স বলেছেন: ১৫ বছর পর বিদেহী আত্মা কোথায় যাবে বলে আপনার ধারণা? বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা আমি জন্মের পর থেকেই করে যাচ্ছি - এতে সমস্যা কোথায়? কেন মনে হল আমি খোঁচা মেরেছি? ভালোকে ভালো বলাই আমার অভ্যাস। আমাকে ভয় পান কেন সেটাও ক্লিয়ার করলেন না।

১৫ ই মে, ২০১৮ বিকাল ৫:২৬

কলাবাগান১ বলেছেন: ওকে বুঝলাম

১২| ১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ১১:২৩

কাওসার চৌধুরী বলেছেন: আপনার লেখাটি আমার বেশ ভাল লেগেছে। আমরা বিষয়টিকে পজেটিভ ভাবে নিলেই হয়। নতুন প্রজন্ম স্যাটেলাইট নিয়ে আগ্রহী হবে। হয়তো অদূর ভবিষ্যতে আমরা একজন বাঙালি নাসা বিজ্ঞনী দেখতে পাব। সব কিছু লাভের অঙ্ক দিয়ে হিসাব করলে হবে না।

১৫ ই মে, ২০১৮ বিকাল ৫:২৭

কলাবাগান১ বলেছেন: নতুন প্রজন্ম স্যাটেলাইট নিয়ে আগ্রহী হবে।

১৩| ১৫ ই মে, ২০১৮ সকাল ১১:৪৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


দেশের ১১ লাখ বুয়া, ৩ লাখ চাকরাণী, ৪ লাখ টোকাই, ১৭ লাখ শিশু শ্রমিকেরা মিলে "বাংলাদেশ নাসা" গড়ে তুলেবে শীঘ্রই; তারা আরব ও মালয়েশিয়া অবস্হিত শ্রমিকদের বউদেরও "বানাসা"তে সদস্য পদ দেবে; তারপর তারা শেখ হাসিনার জন্মদিনে বেলুনের বদলে স্যাটেলাইট উড়াবে।

আমেরিকান খাবারে প্রাটিন বেশী।

১৪| ১৫ ই মে, ২০১৮ দুপুর ১২:৩৯

হাসান কালবৈশাখী বলেছেন:

ছাগু ও ছাগু সমর্থকদের প্রতিটি কাজই প্রপাগান্ডা নির্ভর।

বঙ্গবন্ধু-১ স্যটেলাইট রেঞ্জ বাংলাদেশ সহ ফিলিপিনস ইন্দোনেশিয়া থেকে আরব, মধ্যপ্রাচ্য পর্যন্ত।
অতচ ক্রমাগত ভাবে বলাহচ্ছে এই স্যটেলাইট বাংলাদেশের রেঞ্জের বাইরে।

এই স্যটেলাইটের স্বত্ত দরবেশ বাবার , সার্ভিস দরবেশ বাবার বেক্সিমকো থেকে বেশীদামে কিনতে হবে।

আসল ঘটনা হচ্ছে সব টিভি কম্পানির জন্য একটি করে ট্রান্সপন্ডার ভাড়া করা গাললেও বেক্সিমকোর লাগবে ২টি, (ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভি ও ডিটিএইচ) যাষ্ট অন্যান্যদের চেয়ে একটি বেশি। গুজব ছড়ালো ২টা না, সবটাই নিয়ে নিচ্ছে বেক্সিমকো! ..হাসবো?
হেসে লাভ নেই, ফকরুল, মান্না, বদ বদিয়ুজ্জামান পর্যন্ত সেমিনারে যা মুখে আসছে বলে যাচ্ছে।

রামপালের চুক্তি নিয়ে বলেছিল ভারত ১৫% বিনিয়োগ করে ৫০% লাভ নিবে। এই বাশেরকেল্লার গুজব নিয়ে চাঁদগাজী সাহেবও পোষ্ট দিয়েছিল।
আসল সত্য হচ্ছে এটি ছিল একটি সুষম চুক্তি, আন্তর্জাতিক স্টক বাজারে নিবন্ধিত।

আর কোটা আন্দোলনে মিথ্যা রগকাটা গুজব নিয়ে হাজার হাজার পোষ্ট দেয়া হয়েছিল, আমেরিকায় পিএইডি করা একজনও রগকাটা ছবিসহ পোষ্ট দিছিল, একটা মিথ্যাকে প্রতিষ্ঠিত করতে কানাডার ভাতা খাওয়া এক মহিলাও ..

১৫ ই মে, ২০১৮ বিকাল ৫:২৯

কলাবাগান১ বলেছেন: এদের আসল উদ্দেশ্য হল ১৯৭১ কে প্রশ্নবিদ্ধ করা...তাই এরা স্যাটেলাইটের গায়ে বাংলাদেশের পতাকার ছবি সহ্য করতে পারে না

১৫| ১৫ ই মে, ২০১৮ দুপুর ১:০১

চোরাবালি- বলেছেন: আসলে এদেশে রাজাকারই প্রধান সমস্যা। তারা কোন কিছুই পজিটিভ নিতে পারে না।
বিগত একবছর যাবত বাড়ীতে যেতে পারি না; কারণ কোম্পানী ছুটি দিবে বড় জোড় ৩দিন, আমার যেতে নূন্যতম ১দিন আসতে ১দিন যদি কপাল ভাল হয়, আগে লাগত ৬ঘন্টা, হাড্ডি সহিসালামতে নিয়ে আসতে পারলে খুশি।
গত বুধবার থেকে লাগা জ্যাম সর্বশেষ ১২৬কিলো হয়েছিল একদিনের জায়গায় ৩দিনের ঢাকা পৌছতে পারেনি অনেকে চট্টগ্রাম থেকে। বাজারে মুদ্রাস্ফীতির দরুন মোটাচাউল ৪৫টাকা কেজি অন্যান্য না হয় বাদই দিলাম;
রাজাকারের বাচ্চাদের একটাই সমস্যা তারা বাংলাদেশী আদি বাসিন্দা, বসবাস করেও এদেশেই, তারা খেটে খাওয়া মানুষ তাদের দুবেলা অন্ন জোগাতেই অবস্থা খারাপ, তারা সেটালাইটের স্বপ্ন দেখবে কি করে।
২ডলারের টমোটের বদলে ৫/৭ডলারে গাছ কিনে তখনই খরচ করা যায় যখন পকেটে পর্যাপ্ত অর্থ থাকে। যদি ছেলের স্কুলের বেতনের টাকা জোগাতে সমস্যা হত তখন ২ ডলারের টমোটেই ২০সেন্ট কমানোর জন্য ১০মিনিট লেকচার দিতেন গাছ কেনা তো দুরে থাক। এ কথাটি অবশ্য যাদের বোধ আছে তাদের জন্য, গ্রামের অনেক লোক আছে যারা ছেলেকে বই কিনে না দিয়ে সিনেমা হলে গিয়ে সিনেমা দেখে তাদের বিষয় ভিন্ন।
ধিক্কার জানাই রাজাকারের বাচ্চাদের যারা দেশের সমস্যা নিয়ে চিন্তিত, বিলাসিতা নিয়ে চিন্তা না করার জন্য।

১৫ ই মে, ২০১৮ বিকাল ৫:৩৩

কলাবাগান১ বলেছেন: ১৩২০ পঠিত!!!

১৬| ১৫ ই মে, ২০১৮ বিকাল ৫:৩৭

রাজীব নুর বলেছেন: মহাকাশে স্যাটেলাইট বনাম রাজপথের যানজট।
এ এক অনবদ্য কাব্য।
আমরা যখন তথ্য যোগাযোগ এর গতি আনয়নের জন্য অতিউতলা হয়ে স্যাটেলাইট পাঠাই, তখন ঢাকার রাজপথে আমাদের ২০ মিনিট এর পথ পারি দিতে হয় ২ ঘন্টা ধরে । এ অদ্ভুত দেশের উদ্ভট নাগরিক আমরা। কারো কিছু বলার নেই, করারও নেই।

১৫ ই মে, ২০১৮ বিকাল ৫:৪৩

কলাবাগান১ বলেছেন: পাকিস্হান আমলই ভাল ছিল...রাস্তায় জ্যাম ছিল না কোন প্রাইভেট কার ছিল না ..রিকসা দিয়েই চলে যেত...জীবন তখনও চলত..

১৭| ১৫ ই মে, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৪৫

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: ভালো উদ্যোগ...

১৫ ই মে, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৩৮

কলাবাগান১ বলেছেন: ভালো উদ্দ্যেগ এতে কোন সন্দেহ নাই...তাই বিরোধিতা না করে কিভাবে এর সুফল জনগন পেতে পারে তার জন্য সরকার কে সব সময় চাপের মুখে রাখতে হবে

১৮| ১৫ ই মে, ২০১৮ রাত ৮:০৬

বিষাদ সময় বলেছেন: প্রথমেই বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটালাইট এর সর্বাঙ্গিন মঙ্গল কামনা করছি। তবে প্রচার এবং অপপ্রচারে কিছু বিষয়ে এখন পুরা ঝাপসার মধ্যে আছি। নিচে বিষয়গুলো দিলাম -

শুনেছি টিভির অনুষ্ঠান সম্প্রচার, ইন্টারনেট ও টেলিকমুনিকেশন সুবিধা এবং আবহওয়ার পূর্বাভাস পাওযা যাবে এ স্যাটালইট থেকে।
কিন্তু এখন শুনছি বিশেষ ধরণের ক্যামেরা জাতীয় কোন ডিভাইস না থাকায় এ থেকে আবহওয়ার প‌ূর্বাভাস পাওয়া যাবে না আর ট্রান্সসিভার না থাকায় টেলিকমুনিকেশন বা ইন্টারনেট সুবিধা পাওয়া যাবে না। একটু বুঝিয়ে বলবেন কি?

ধন্যবাদ।

১৫ ই মে, ২০১৮ রাত ৯:২৩

কলাবাগান১ বলেছেন: কি করতে পারে তা নিয়ে মাথা ব্যাথা নাই কিন্তু কি করতে পারবে না তা নিয়েই চিন্তা....
যা করতে পারবে না তা বঙ্গবন্ধু-২ স্যাটালাইট দিয়ে হবে

১৯| ১৫ ই মে, ২০১৮ রাত ৮:০৮

দপ্তরবিহীন মন্ত্রী বলেছেন: আচ্ছা স্যাটেলাইটকে পুরো আদলে(মুভির মত) দেখা যাবে নাকি শুধু বিন্দুর মত বোঝা যাবে?

১৫ ই মে, ২০১৮ রাত ৯:২৪

কলাবাগান১ বলেছেন: বিন্দুর মতই দেখাবে কিন্তু সাঈদীর মত চাদে দেখা যাবে না..

২০| ১৫ ই মে, ২০১৮ রাত ৮:৫৪

মো: নিজাম উদ্দিন মন্ডল বলেছেন: @"বাংলাদেশের আনাচে কানাচে অনেক অনুসন্ধানী মনের কিশোর কিশোরী আছে ...এই নিয়ে পড়ালিখা আরম্ভ করবে ...আর এরাই এক সময় বাংলাদেশের নাসা তৈরী করবে। "
-- শ্রদ্ধেয়র মত, এমন আশাবাদী লোকদের আমার খুব পছন্দ। :)

@ঢাবিয়ান,
@চাঁদগাজী
সমস্যা কী???
লোক দুটি সবসময় নিজেদেরর পন্ডিত ভাবে।
পজিটিভ কিছু চিন্তা করতে পারে না। X(

১৫ ই মে, ২০১৮ রাত ৯:২৫

কলাবাগান১ বলেছেন: কি আছে তা নিয়ে উনারা সন্তস্ট নয়..কি নেই তা নিয়ে উনারা মনক্ষুন্ন

২১| ১৫ ই মে, ২০১৮ রাত ৯:২৯

এলিয়ানা সিম্পসন বলেছেন: আমার মনে হয়, চাঁদগাজী এখন পৃথিবীর সব ইস্যুতেই কমেন্ট করবে, "দেশের ১১ লাখ বুয়া, ৩ লাখ চাকরাণী, ৪ লাখ টোকাই, ১৭ লাখ শিশু শ্রমিক"।


লেখক বলেছেন: বিন্দুর মতই দেখাবে কিন্তু সাঈদীর মত চাদে দেখা যাবে না.. =p~ =p~ =p~

১৫ ই মে, ২০১৮ রাত ৯:৩৩

কলাবাগান১ বলেছেন: উনার কমেন্টে অভ্যস্হ হয়ে গেছি...

২২| ১৫ ই মে, ২০১৮ রাত ১০:০২

বিষাদ সময় বলেছেন: কি করতে পারে তা নিয়ে মাথা ব্যাথা নাই কিন্তু কি করতে পারবে না তা নিয়েই চিন্তা....
ভুল...........কি পারেনা তা নিয়ে আমার মাথা ব্যাথা না। আমার মাথা ব্যাথা সত্যটা জানার জন্য................


১৫ ই মে, ২০১৮ রাত ১০:২১

কলাবাগান১ বলেছেন: আমি কি করতে পারবে তা জানি...

২৩| ১৬ ই মে, ২০১৮ রাত ১:১৮

পিকো মাইন্ড বলেছেন: এখন থাইকা আর কাওরে ভিক্ষা দেওয়া যাবে না। কারণ আমাদের বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট আছে। সরকারি হাসপাতালে কেউ সেবা না পাইলেও সমস্যা নাই। কারণ আমাদের বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট আছে। সর্বোপরি, ব্লগাররা খোশ মানে আর কয়েকটা স্যাটেলাইট পাঠানো উচিত।

১৬ ই মে, ২০১৮ রাত ২:০২

কলাবাগান১ বলেছেন: টিটকারী দিতেই পারেন...কিন্তু যখন বিদ্যুত ছাড়া শুধু খাম্বা দিয়েছিল, তখন কিন্তু টিটকারী দেন নাই...যখন রাজাকারের গাড়ীতে পতাকা ছিল..তখন সবাই সরকারি হাসপাতালে সেবা পাইত ..এখন কেউ পায় না???

আমার এই পোস্ট পড়ে যদি কোন বাবা/মা তাদের সন্তান দের শিখান কিভাবে স্যাটেলাইট (শুধু বাংলাদেশের না, যেমন নাসার স্পেস স্টেশন) ট্রেক করতে হয়, হয়ত এই সন্তান রা ও একদিন মহাকাশ নিয়ে পড়া শুনা করার উৎসাহ পাবে...

২৪| ১৬ ই মে, ২০১৮ রাত ২:১২

বিলুনী বলেছেন: অসাধারন তথ্য সমৃদ্ধ পোষ্ট, প্রিয়তে গেল । লিংকটি ফলো করে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর মহাকাশের বর্তমান অবস্থানটি দেখে এলাম । প্রযুক্তিযে কতদুর পর্যন্ত বিস্তৃত হয়েছে তা নীজ চোখে না দেখলে বুঝা যায়না । অবশ্য কিছু দলকানা অন্ধ লোকজন তা কোনদিনই দেখতে পাবেনা , তবে তারা চাঁদে সাইদিকে ঠিকই দেখতে পাবে ।

মহাকাশে বাংলাদেশে নিজস্ব একটি স্যাটেলাইট আছে তা জাতির কাছে গৌরবের বিষয় । এর মুল্য টাকায় পরিমাপ করা যাবেনা । যদি তাই হত তাহলে হাজার হাজার বিলিয়ন ডলার ব্যয় করে কেহ মহাশুন্যে ( চাদে, মঙ্গলে ও বৃহস্পতিতে স্যাটেলাইট পাঠাতনা । একটা দিয়েই যদি সারা পৃথিবীকে কভার দেয়া যেতো তাহলে আমিরিকা , রাশিয়া শত শত স্য্টেলাইট মহাশুণ্যে পাঠাতনা। কেহ চায়না অহতুক অর্থ ব্যয় করতে। ভারতের মত দারিদ্র পিড়িত দেশও মহাশুন্যে ৮৩ টি স্যাটেলাইট পাঠিয়েছে । একটা দিয়ে কাজ চললে ভারতের মত হারকিপটা দেশ কোন দিনই ২টা পাঠাতনা । বাংলাদেশ শুরুটা তো করতে পেরেছে । এর সুফল কিছু দিনের মধ্যেই পাবে । দেশে মহাকাশ বিজ্ঞানের বিকাশ ঘটবে । নতুন প্রজন্ম , প্রযুক্তি ও বিজ্ঝা শিক্ষা প্রসারে এগিয়ে যাবে । বড় মাপের বিনিয়োগে দেশেই স্যটেলাইট প্রযুক্তির জন্য প্রয়োজনীয় অবাঠামো সৃজনে জনমত গড়ে উঠবে , সরকার এ খাতে প্রয়োজনীয় বড় মাপের অর্থ বিনিয়োগে ব্রতী হবে । দেশ নীজস্ব প্রযুক্তি বিকাশের পথে এগিয়ে যাবে । দেশের মান মর্যাদা বৃদ্ধি পাবে । তবে দেশের বর্তমান সরকারের এ সাফল্যে যাদের গায়ে জ্বলুনী পয়দা হয়েছে ( দেশ বিদেশে অবস্থানরত বাশের কেল্লা ও মগবাজারের অালফালার প্রযুক্তি ধারীরা তাদের প্রপাগান্ডার ঝুরী নিয়ে ঝাপিয়ে পড়বে , এটা খুবই সাধারণ বিষয় ) তারা তাদের কর্ম চালিয়েই যাবে । স্যাটেলাইট হতে সুফল আসলেও তারা এর মধ্যে কুফল বের করবেই করবে । কথায় বলে ছলের কলের অভাব হয়না ।
যাহোক ধন্যবাদ মুল্যবান পোষ্টটির জন্য ।

১৬ ই মে, ২০১৮ রাত ২:৫৯

কলাবাগান১ বলেছেন: মহাকাশে বাংলাদেশে নিজস্ব একটি স্যাটেলাইট আছে তা জাতির কাছে গৌরবের বিষয় । এর মুল্য টাকায় পরিমাপ করা যাবেনা
কিশোর বা কিশোরী রা যদি এর থেকে অনুপ্রানিত হয়, তাতেও অনেক লাভ..শুধু মেট্যারিয়াল লাভ খুজলে হবে না..

২৫| ১৭ ই মে, ২০১৮ রাত ১১:৩৯

থিওরি বলেছেন: অপেক্ষায় থাকলাম, একদিন ৮৮-৯২ ডিগ্রি তে আমাদের দেশের সোনার ছেলেরা নিজেদের প্রযুক্তির স্যাটেলাইট তুলবে। BB1 এর পাশাপাশি ব্রাক এর সোনার ছেলে গুলকে এক্তু সাহায্য করা দরকার। অবস্য তার আগে দেখতে হবে তাদের বংশ রাজাকার কিনা। চাচা ভাস্তে কেও সাগু খাইত কিনা!!!

১৮ ই মে, ২০১৮ রাত ৮:৪৪

কলাবাগান১ বলেছেন: আপনাদের মত রাজাকারের রক্ত ..মন মানসিকতা ইত্যাদি থাকতে আর পরীক্ষার দরকার নাই..মুখ খুললেই বুঝা যায়

২৬| ১৮ ই মে, ২০১৮ রাত ৮:০৫

নায়লা রহমান বলেছেন: আরেকটা নিউজ পড়লাম বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর কক্ষপথে পৌঁছতে ৩ দিন সময় লাগবে!

১৮ ই মে, ২০১৮ রাত ৮:৪৫

কলাবাগান১ বলেছেন: দেখলাম

২৭| ১৯ শে মে, ২০১৮ রাত ১২:০৪

মেঘনা পাড়ের ছেলে বলেছেন: যত ছোটই মনে করিনা কেনো, মহাকাশে বাংলাদেশের এই পদক্ষেপ উত্তরপ্রজন্মকে কতটা এগিয়ে নেবে তা বোঝার মত সক্ষমতা শিক্ষিতদের একটা বড় অংশেরই নেই, সেটাই আফসোস........

১৯ শে মে, ২০১৮ রাত ১২:০৯

কলাবাগান১ বলেছেন: তাদের বিরোধীতা স্যাটেলাইট নিয়ে না...আওয়ামী সরকার কেন করল তাতেই গাত্রদাহ...জামাত পাঠালে কিছুই বলত না..তখন বলত এটার দরকার আছে

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.