নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

মানবী

মানবী › বিস্তারিত পোস্টঃ

আরশিতে প্রতিবিম্ব: শুদ্ধিকরণের শুরুটা হোক এখান থেকেই......(উৎসর্গ সকল নবীন ব্লগার)

১১ ই মে, ২০১৭ সকাল ১০:৫১

সতর্কীকরণ:: একটি অতি অপ্রিয় পোস্ট!!!



গত সাত আট বছর ধরে দেশ জুড়ে ধর্ষণের মহামারী চলছে। জনগণ নিয়ম করে প্রতি বছর দুচারটি ধর্ষণ আর হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে, অপরাধীর বিচারের দাবীতে মিছিল মিটিং আর প্রতিবাদ সভা করে আবার যে যার কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়ছে। ফলাফল? ধর্ষণের সংখ্যা প্রতিদিন এক্সপোনেনশিয়াল হারে বৃদ্ধি পেয়েছে।

ধষর্কের মৃত্যুদন্ডের দাবীতে পিটিশন

এধরনের প্রতিবাদ এখন শুধুই প্রহসনে পরিণত হয়েছে মাত্র।
দু-চারদিন হৈ চৈ এর পর এসব হত্যাকারী, ধর্ষকের পাল হাসিমুখে দাপটের সাথে ঘুড়ে বেড়ায় আর ধর্ষিতারা বেছে নেয় আত্মহননের পথ অথবা জীবন্মৃত হয়ে বেঁচে থাকে।

এই দুরবস্থার জন্য দেশের দুঃশাসন, আইন-প্রয়োগকারী সংস্থার ব্যর্থতা দায়ী তা একবাক্যে সকলেই স্বীকার করবে। ব্যর্থতার পিছনের প্রধান কারণটি সকলেরই জানা, মূল্যবোধের অবক্ষয় আর রন্ধ্রে রন্ধ্রে ছড়িয়ে পড়া দুর্নীতি!! এক দিন, দুদিন, চারদিন নয় বছরের পর বছর ধরে চলে আসছে এই অনৈতিকতার অবাধ চর্চা।

দেশে ভালো মানুষের সংখ্যা নিতান্ত কম নয়। আমি বিশ্বাস করি লক্ষ লক্ষ নয় সৎ মানুষের সংখ্যা কোটি কোটি, তারপরও হায়নার পালের এই তান্ডবের মূল কারন আমাদের নির্লিপ্ততা। আমাদের চারপাশে ঘটে যাওয়া অনৈতিকতা আমরা দেখেও না দেখার ভান করি, এড়িয়ে যাওয়াটাই সর্বত্তোম উপায় ভেবে নিজ দায়িত্ব সম্পাদন করছি।

দুর্নীতি সব সময়ই দুর্নীতি, অনৈতিক আচরণ সকল ক্ষেত্রেই বর্জনীয়।
নিজের ঘর থেকেই নৈতিকতার চর্চা শুরু প্রয়োজন। মনে রাখা জরুরী, প্রতিটি অপরাধীর শুরুটা ছোট খাটো অপরাধ দিয়েই ঘটে। আমরা সেসব মেনে নেয়াতে তারা ধীরে ধীরে আরো নির্ভীক হয়ে উঠে এক সময় বড় অপরাধের দিকে পা বাড়ায় তাই নৈতিকতার অবক্ষয়ে দেশের আজকের এই দুরবস্থার জন্য আমরা সকলেই দায়ী।


আজকের এই অরাজকতা একদিনে সৃষ্ট নয়, তিল তিল করে অপরাধের প্রশ্রয়ে বর্তমানের অচলাবস্থা করে গড়ে উঠেছে। আমরা প্রতিবাদ করিনা, বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে অপরাধীর সাথে সখ্যতা গড়ে তুলি। অনেকে মনে করেন, ঘুষ খাওয়া তো তেমন বড় অপরাধ নয়, নেতা হলেতো চাঁদাবাজি করাটাই স্বাভাবিক, সামান্য অপরাধ বড় করে দেখার কিছু নেই- আমাদের এই প্রশ্রয় আর উদাসীনতা দেশের নৈতিকার এই চরম বিপর্যয়ের জন্য দায়ী।

লক্ষ্যণীয় বিষয় ধর্ষক, খুনি অথবা ছিনতাইকারী প্রত্যেকে তার নিজ নিজ এলাকা, নিজ নিজ গন্ডির মাঝেই অপরাধ সংঘটিত করছে। আয়েশার ধর্ষক ঢাকার ক্লাবে এসে ধর্ষন করছেনা, কন্সটেবল হালিমা খাতুনের ধর্ষক নামী দামী কোন সেলিব্রিটিকে স্পর্শ করছেনা। পাড়ার মাস্তানদের ক্ষেত্রেও একই কথা, তারা যে যার নির্দিষ্ট গন্ডির মাঝেই করে যায় একের পর এক ঘৃণ্য অপরাধ- নিজ নিজ গন্ডির মাঝে সম্ভব নিকৃষ্টতম অপরাধ। অপরাধীরা তাদের গন্ডির মাঝে স্বীয় ক্ষমতার অপব্যবহারের লোভ সামলাতে পারছেনা, দু চারজন প্রভাবশালীর সাথে সখ্যতার কারনে অপরাধ সংঘটনের আগে থেকেই নির্ভীক আর নিশ্চিন্ত থাকছে। তারা জানে কোথাও দুচারটি মিষ্টি কথা, কোথাও উপঢৌকন আবার কোথাও আত্মীয়তার জোড়ে এড়িয়ে যেতে সক্ষম হবে প্রাপ্য শাস্তি।

মূল্যবোধের অবক্ষয়ের কারনে প্রশাসন, সরকার মনে করছে এটা খুব স্বাভাবিক ব্যাপার, এমনটি হরহামেশাইতো হচ্ছে। আর তাই তারা পরিচিত, প্রিয়জনদের গুরু অপরাধও লঘু-দৃষ্টিতে কখনও ক্ষমাশীল দৃষ্টিতে দেখছে!


এই ব্লগের প্লাটফর্মটি বাংলাদেশের একটি অতি ক্ষুদ্র চিত্র বললে ভুল হবেনা। ব্লগের শুরু থেকে আজ অবধি সরকারের অপকর্মের সমালোচনা, দুর্নীতি আর দুঃশাসনের প্রতিবাদে লেখা পোস্টের সংখ্যা অগুনিত! অনিয়ম উচ্ছৃঙ্খলায় অতিষ্ট জনজীবনের প্রতিবাদ সেসব পোস্টের মন্তব্যের ঘরে তুলে ধরে এসব দুর্নীতিবাজদের প্রতিমানুষের ক্ষোভ আর ঘৃণা। তারপরও আমরা নৈতিকতা আর মূল্যবোধের অবক্ষয়রোধে কতোখানি দায়িত্ব পালন করছি, একটু ভেবে দেখা যাক...

অধিকাংশ ব্লগার এখানে আসেন নিজের বক্তব্য, কেউ নিজের শিল্প সাহিত্য তুলে ধরতে। নতুনরা কিছুটা নার্ভাসনেস নিয়ে একটি লেখা পোস্ট করে- তা কেউ পড়বে, সমালোচনা করবে মতামত জানাবেন এমন আশায়। আর এই ব্যাপারটি আরো সুন্দর আর পরিশীলিত করতে "আলোচিত পোস্ট" নামের একটি কলাম শুরু করেছে, যেখানে জনপ্রিয় লেখাগুলো ঠাঁই পাবে; নবীন, খুব অপরিচিত লেখকেরও সুন্দর লেখাটি সকলের সামনে আসবে এই উদ্দেশ্যে।
ইদানীং এই লিস্টে তাকালে আমরা কি পাই?

ব্লগে সরকারী দলের প্রতিনিধি প্রতিদিন নিয়ম করে নির্দিষ্ট সময়ে দুর্নীতি আর দুঃশাসনের চূড়ান্ত অবস্থানে উপবিষ্ট নিজ দলের তোষামোদ করে পোস্ট দেয়, সেই লেখা আদতে দুজন পাঠক না পড়লেও তা ৫০০০ থেকে ২০০০০ পঠিত সংখ্যা নিয়ে "সর্বাধিক পঠিত"র লিস্টে চলে যায় নিমেষে। দুর্নীতিগ্রস্থ সরকারের প্রতিনিধির নীতিবোধ, ঔচিত্যবোধ থাকবেনা এমনটাই স্বাভাবিক- আর তাই প্রায় সচেতন ব্লগার বিষয়টি জানার পরও কিছু বলার থাকেনা।

সবচেয়ে দুঃখজনক "আলোচিত পোস্ট" প্রায় কনস্ট্যান্টলি অবস্থান করা অন্য নামগুলো।

এদের কেউ কেউ আমার অত্যন্ত প্রিয় ব্লগার তাই তাদের অনৈতিক আচরণটি অনেক বেশী পীড়াদায়ক! পোস্ট করার কয়েক মিনিটের মাঝে নিয়মিত ভাবে তাদের সাধারণ মানের লেখাটি আলোচিত পোস্টে চলে যাওয়ায় হতভম্ব হয়ে লক্ষ্য করি এরা নিজের মাল্টিনিক নিয়ে নিজেদের পিঠ চাপড়ে যাচ্ছে। মনে রাখা জরুরী, যে কোন অন্যায় করতে হলে নিজের নীতি বিসর্জন দিয়েই করতে হয়, লজ্জা সম্পূর্ণ ঝেড়ে ফেলেই শুধু এমনটা করা সম্ভব। আত্মমর্যাদাবোধ আর লজ্জা নিঃসন্দেহে এমন ঠুনকো পরিচিতির চেয়ে হাজার গুন বেশী মূল্যবান।
যে অপরের লেখা চুরি নিয়ে বড় বড় কথা বলছে এধরনের নির্লজ্জ আচরণ করে সে নিজেও যে একপ্রকারের চোর তা হয়তো বুঝতে পারছেনা। নিজের পোস্ট ভিন্ন নিকে ভালোলাগা জানানো, নিজের পোস্টে নিজেকে প্রশ্ন করে পরবর্তী পোস্ট দিতে উৎসাহিত করা- কখনও সৎ লোকের কর্ম নয়।

দেখা যায় ধর্ম সম্পর্কে ভূল উপদেশবাণী দিয়ে যাওয়া ব্যক্তিটি নিজের সস্তা পোস্টগুলো আলোচিত পোস্টে আনতে একাধিক নিকের অধার্মিক কাজ শুধু করছেনা, হাস্যকর ভাবে নারী নিক এমনকি হিন্দু নামের নিকও খুলে বসে আছে। ইসলাম ধর্মকে যে এতোটুকু নিজের মাঝে ধারণ করে, নূন্যতম প্রকৃত ঈমানদার প্রতিটি মানুষ বিশ্বাস করে ভূগর্ভের কেন্দ্রস্থলে পৌঁছে অন্যায় করলেও তা সর্বশক্তিমানের দৃষ্টি এড়িয়ে যাবেনা। মহান আল্লাহ্কেে ভয় না করে এই সামান্য পরিচিতির প্রলোভনের কাছে নতি স্বীকার কোন ধার্মিক ব্যক্তির পক্ষে সম্ভব নয়।
নির্লজ্জতার সকল সীমা অতিক্রম করে নিজেকে জনপ্রিয় ব্লগার আখ্যা দিয়ে মাল্টি নিক থেকে পোস্ট দেয়া শুধু নয়, সেখানে নিজের নামটিকে ইসলামিক চিন্তাবিদ হিসেবে পরিচিত করার অপচেষ্টা্ করার মতো ন্যাক্কারজনক ঘটনাও আছে! অধর্মের আশ্রয় নিয়ে ধর্মের কথা, অনৈতিকতার আশ্রয় নিয়ে অবক্ষয়ের কথা বলে চলছে আর আমরা সেসব দেখেও না দেখার ভাণ করছি, উৎসাহ দিচ্ছি!

আমার এই লেখাটি পড়ে হয়তো তাদের কেউ কেউ আরো দু/চারটি নতুন আইডি এখনই খুলে বসবে, অপরাধীদের কাছে অপরাধটাই স্ট্রেস রিলিভারের কাজ করে।



আবার অনেকে হয়তো ভাবছে এসব অতি ক্ষুদ্র অন্যায়, এড়িয়ে গেলেই হলো। সত্যি কি তাই? যাঁরা দীর্ঘদিন ধরে ব্লগে আছেন, এধরনের নির্লজ্জ কাজে তাঁদের খুব ইতরবিশেষ এসে যায়না(যদিও বেশ পুরনো ব্লগারও অপকর্ম করছে) তবে নতুন ব্লগারদের জন্য প্রচন্ড হতাশার সৃষ্টি করে! আমরা যারা মাল্টিনিক খুলে আত্মপ্রচারের নির্লজ্জচর্চা টি করছিনা তাদেরও আরশিতে নিজেদের প্রতিবিম্ব দেখাটা জরুরী। দুটো বেশি মন্তব্য পাওয়া, থাম্বস আপ বা বাহাবা পাবার লোভে, কেউ তার নামে শিরোনাম দিয়ে ছড়া কবিতা লিখে যাবে বা নিজের প্রকাশিত বইটি প্রচার করবে এমন স্বস্তা কিছুর লোভে সেসব অন্যায়কারীদের অসততা এড়িয়া যাচ্ছি কিনা, পোস্টে মন্তব্য করে আমরা তাদের উৎসাহিত করে যাচ্ছি কিনা!

যদি তাই করে থাকি, মনে রাখতে হবে নিষ্পাপ শিশু আয়েশার পিতা হজরত আলী বা কন্সটেবল হালিমা খাতুনের মতো ভিক্টিমরা কিন্তু ধর্ষকের প্রতি ক্ষোভে আত্মহননের পথ বেছে নেয়নি। যে দূর্নীতিগ্রস্থ প্রশাসন ঘুষ গ্রহন করে বা সজন প্রীতির ঘৃন্য চর্চায় মেতে উঠে নরপশু ধর্ষকদের অপরাধ এড়িয়ে গেছে, প্রশ্রয় দিয়েছে, তাদের এই অনাচার আর নির্লিপ্ততার প্রতিবাদেই ছিলো তাঁদের আত্মহনন।

যারা এই কাজটি করছে তাদের কেউ কেউ হয়তো অন্যায়ের গভীরতা অনুধাবনে অক্ষম, নিজের নামটি প্রচারের নিতান্তই ছেলেমানুষিটি করে এভাবে নিজের পিঠ চাপড়ে যায়। তাঁদের বেনিফিট অফ ডাউট দেয়া যায়। আজ এভাবে চোখে আঙ্গুল দিয়ে বিষয়টি দেখিয়ে দেবার পর যদি তাঁরা এই কুঅভ্যাস থেকে বিরত হন, তাঁদের স্যালুট কারণ অন্যায়ের পথে পা বাড়ানো অত্যন্ত সহজ হলেও সেখান থেকে ফিরে আসাটা খুব সহজ নয়। যারা পারেন, তাঁরা বীর।

এধরনের অপকর্ম নিয়ে সোচ্চার না হলেও অধিকাংশ ব্লগার তাদের মাল্টিনিক গুলো জানেন। এধরনের অন্যায় কখনও সুনাম বয়ে আনেনা। পোস্ট করার ১০- ১৫ মিনিট নয়, ২-৩ ঘন্টা পর্যন্ত মন্তব্য না পেলে, ভালোলাগা না পেলেও অন্যদের দৃষ্টিতে সন্মানিত হয়, তবে যে মাত্র মাল্টি নিকের তান্ডব শুরু পোস্ট আলোচিত কলামে উঠে গেলেও নৈতিকতার অবক্ষয়টি প্রকট হয়ে উঠে, অপরের চোখে ছোট হয়ে যায়। দীর্ঘদিন আগে এই ব্লগ একটি অস্থির সময় পাড়ি দিয়েছে, সেসময় এধরনের মাল্টি নিক নিয়ে নিজের পিঠ চাপড়ে যাবার মতো সস্তা ঘটনা ঘটেছে ব্যাপক ভাবে। যাঁদের মাঝে আত্ম মর্যাদাবোধের কিছু মাত্র অবশিষ্ট ছিলো, তাঁরা সেপথ থেকে ফিরে এসেছেন। সম্প্রতি দেখেছি তাঁদের কয়েক জনের লেখা পোস্ট হবার কয়েক ঘন্টা পর্যন্ত কোন মন্তব্য বা ভালোলাগা পায়নি, তারপরও তাঁর সৎ থেকেছেন। অন্যায় করার আত্মগ্লানির চেয়ে পোস্ট মন্তব্যশূণ্য থাকা অনেক বেশি তৃপ্তিদায়ক আর সন্মানজনক, এই সত্যটি শুধু মাত্র সৎ মানুষেরাই অনুধাবনে সক্ষম।

আমরা যদি আমাদের এই ব্লগের অতি ক্ষুদ্র পরিসরে সামান্য পরিচিতির(যদিও তা কুখ্যাতিই বেশি বয়ে আনে) লোভে এধরনের অনৈতিক কাজ থেকে বিরত থাকতে না পারি, নিজের পোস্টে দুটো বেশি মন্তব্য বা থাম্বসআপ পাবার লোভে এরনের নীতিবর্জিত কাজকে সমর্থন জানিয়ে তাদের পোস্টে মন্তব্য করে তাদের উৎসাহিত করে যাই তাহলে- প্রশাসন, পুলিশ কর্মকর্তা, রাজনীতিবিদ বা সরকারকে দোষারোপ করার কোন অধিকার আমাদের নেই। কারণ আমরা নিজেরাও সেই নষ্টদের ভিড়েরই একজন।

নবীন ব্লগারদের উৎসর্গের কারণ- তাঁরা অনেকে ব্লগে এসে ভড়কে যান- বিশেষ করে নির্দিষ্ট কিছু ব্লগারের পোস্ট প্রায় প্রতিদিন আলোচিত পোস্টে দেখে ভাবতে পারেন এদের লেখার মান উন্নত এবং নিজের লেখা সম্পর্কে খারাপ বোধ করেন। কেউ কেউ এই অনৈতিকতা চর্চাকে বাহাবা পেতে দেখে এক সময় নিজেও সেই গড্ডালিকা প্রবাহে গা ভাসিয়ে লজ্জা, আত্মসন্মানবোধ বিসর্জন দিয়ে মাল্টি নিকে নিজের পিঠ চাপড়ে দিতে উদ্যত হন। তাঁদের জ্ঞাতার্থে বলতে চাই, ভদ্রতার কারণে চুপ করে থাকলেও অধিকাংশ ব্লগারেরা এদের এই অপচর্চা সম্পর্কে অবগত।

কারো মাঝে আত্মপ্রচারের বাসনা অতিরিক্ত হলে অপরের সমস্যা না করেও তা করা যায়। অনেকে পোস্টের শিরোনামে নিজের নিকটি ব্যবহার করে- তা অত্যন্ত বিরক্তিকর হলেও অন্যায় নয় এবং কাউকে বঞ্চিত না করেই করছে।
আমি ব্লগে খুব অল্প সময়ের জন্য আসি, সেক্ষেত্রে আলোচিত পোস্টটি ভালো পোস্টের সূচক হয়ে ভালো ভালো লেখা পড়ার সুযোগ করে দিতে পারে মনে হয়েছে। দুঃখজনক ভাবে গত কয়েকদিনের মাঝে একসময় আলোচিত পোস্টের কলামে ১০০% অসৎ ব্লগারের অবস্থান দেখে মনে হয়েছে আজকের এই অবস্থার জন্য সচেতন ব্লগারদের দায় কম নয়। কেউ ন্যাকামী, কেউ তোষামোদের কাছে নতি স্বীকার করে এধরনের নির্লজ্জ আচরণ এড়িয়ে যাওয়ায় আজ এমন সম্ভব হয়েছে।

অনেক ব্লগারের পূর্বের নিক ব্যান হওয়ায় তাঁরা নতুন নিক খুলে সুন্দর ব্লগিং করছেন, সেটা ভিন্ন ব্যাপার। তবে সকল আত্ম মর্যাদাবোধ বিসর্জন দিয়ে একাধিক মাল্টি নিক নিয়ে নিজের স্বনামের পিঠ চাপড়ে দেবার এই অসুস্থ প্রতিযোগিতা নিন্দনীয়!
আমি সরাসরি মুখোশ উন্মোচিত না করলেও আর কেউ করবেননা এমন নয়। এসব অপকর্ম সম্পর্কে অবগত বিভিন্ন ব্লগারের মন্তব্য থেকেই এদের কারো কারো মাল্টি নিকের সম্পর্কে জেনেছি।

নবীন ব্লগারেদের জ্ঞাতার্থে জানাই, আপনার ভালো ভালো গঠনমূলক লেখা, সাহিত্যকর্মটির জেনুইন পাঠক অবশ্যই এই ব্লগে আছে। নিজের লেখাটি আরো অধিক সংখ্যক জেনুইন পাঠকের কাছে পৌঁছে দিতে নিজের পোস্টের সকল মন্তব্যের জবাব দিন আর অন্যদের পোস্টে মন্তব্য করুন- এটাই এখানে নিজের বক্তব্য তুলে ধরার সবচেয়ে সুস্থ সুন্দর উপায়।
নির্লজ্জ আচরণের মাধ্যমে ১০০+ মন্তব্য পাবার চেয়ে ডিগনিফাইড ব্লগিং করে ২টি মন্তব্য এমনকি পোস্ট সম্পূর্ণভাবে মন্তব্যশূণ্য থাকাও অনেক সন্মানের, এই সত্যটি নীতিবর্জিতরা অনুধাবনে অক্ষম।

সামহয়্যাইনব্লগের ক্ষুদ্র পরিসরে আমরা যদি অন্যায় পরিহার করে ডিগনিটি নিয়ে ব্লগিং উৎসাহিত না করতে পারি তাহলে ১৬ কোটি মানুষের অন্যায় নিয়ন্ত্রণের আশা করাও অন্যায়। তাই, প্রত্যেক সচেতন ব্লগারের উচিৎ এধরনের অনৈতিক কাজে লিপ্ত ব্লগারদের সম্পূর্ণ এড়িয়ে যাওয়া যতোদিন পর্যন্ত তারা এই অপকর্মটি থেকে সরে না আসছে।

আমাদের এই ক্ষুদ্র প্লাটফর্মটিতে অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে শিখে, নীতিবর্জিতদের প্রতিহত করার মাধ্যমেই শুরু হোক সত্য ও ন্যায়ের পথে যাত্রা! আমরা নিজ নিজ পরিসরকে দুর্নীতি মুক্ত করায় দৃঢ় প্রত্যয়ী হলে, এক সময় সিস্টেম প্রশাসন দুর্নীতি মুক্ত হতে বাধ্য হবে। সেদিন ধর্যক, খুনিদের নিয়মিত বিচারও নিশ্চিত!



ছবিসুত্র: ইন্টারনেট


****পাঁচ/ছয়জন চিহ্নিত ব্লগারের মাল্টিনিকের প্রমাণ সংগ্রহে আমার মাত্র ১০ মিনিটের মতো সময় নষ্ট হয়েছে, যাঁরা অধিক সময় ব্লগে কাটিয়ে থাকেন তাঁরা কতো সহজেই এদের চিহ্নিত করতে সক্ষম তা ভেবে দেখা জরুরী****

মন্তব্য ৩০০ টি রেটিং +৬৪/-০

মন্তব্য (৩০০) মন্তব্য লিখুন

১| ১১ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:১৪

শরদিন্দু রূপক বলেছেন: আমি ব্লগিংয়ের জগতে নতুন।এমন কাজ কেউ করতে পারে শুনেই হতভম্ব হয়ে গেলাম।যতটুকু সময়ই থাকি,লেখাগুলো আগ্রহ নিয়ে পড়ার চেষ্টা করতাম।মনে হয় সবাই কত দক্ষ,কিন্তু এমন কএউ করতে পারে!!!ভাবাই যায়না

১১ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:২৫

মানবী বলেছেন: অধিকাংশই ভালো লেখক, ৯৮% সৎ হলেও তান্ডবের কারণে অসৎদের উপস্থিতিটা বেশী প্রকট মনে হয়।
এ্যাটেনশন সিকিং স্বাভাবটা খুব বিব্রতকর, মানুষের আত্মমর্যাদাবোধ, লজ্জা সব বিসর্জিত হয়।

আন্তরিক ধন্যবাদ শরদিন্দু রূপক।
আপনার জন্য অনেক অনেক শুভকামনা রইলো, হ্যাপী ব্লগীং।

২| ১১ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৩৩

শরদিন্দু রূপক বলেছেন: ধন্যবাদ।আমি নামটা পরিবর্তন করতে চাচ্ছি।এটা পরিবর্তনের কোনো উপায় কি আছে?জানলে একটু জানাবেন।

১১ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৩৮

মানবী বলেছেন: কর্তৃপক্ষের সাথে ইমেইলে যোগাযোগ করে অনেকে নাম পরিবর্তন করেছেন অতীতে, আশা করি আপনি চেষ্টা করলে আপনারটিও পরিবর্তন সম্ভব হবে।

গুডলাক শরদিন্দু রূপক :-)

৩| ১১ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৪৯

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন:


''দুচারদিন হৈ চৈ এর পর এসব হত্যাকারী, ধর্ষকের পাল হাসিমুখে দাপটের সাথে ঘুড়ে বেড়ায় আর ধর্ষিতারা বেছে নেয় আত্মহননের পথ অথবা জীবন্মৃত হয়ে বেঁচে থাকে।''

উন্নত বিশ্বে এটা ঠেকানোর জন্যে কি করছে জানতে ইচ্ছে। জানি, ওরা প্রতিটি রাস্তা টোটাল সারভেইলেন্সের মধ্যে রাখে। তবুও, এমন ঘটনা সেখানে ঘটে। আমাদের দেশ থেকে বেশিই ঘটে। কিন্তু, তাদের মেয়েরা আমাদের মত এতো ভেঙ্গে পড়ে না। সামাজিক ভাবেও ধর্ষণের স্বীকার মেয়েদের এতোটা হেয় চোখে দেখা হয় না যেমনটা আমাদের দেশে দেখা হয়। এদিকটা উত্তরণের উপায় কি?

সমাজে খারাপ লোক থাকবেই। কিছু মানুষের মাঝের শয়তানত্ব দূর করা একেবারে অসম্ভব ব্যাপার। তাই, এমন ঘটনা ঘটবেই। তবে, মধ্যযুগে অপরাধীদের দল বেধে জনমানবশূন্য স্থানে নির্বাসনে পাঠানোর শাস্তি ছিলো। এটা অপরাধীদের ভয় দেখাতে সাহায্য করতো। এমন কোন শাস্তির আবার চালু করার আগ পর্যন্ত ভিক্টিমদের অটো সাজেশন দিয়ে মানসিক ভাবে সবল রাখার পথ ছাড়া অন্য কোন উপায় দেখছি না।

আপনার ভালো ভালো গঠনমূলক লেখা, সাহিত্যকর্মটির জেনুইন পাঠক অবশ্যই এই ব্লগে আছে।

বিশ্বাস করি এবং নিজে মেনে চলি এই নীতি।

''মাল্টি নিক....''

তবে, যেহেতু প্রতিটি ব্লগের একটি আলাদা ভিশন ও বিষয় থাকা উচিৎ, আমার মনে হয়, মাল্টি নিক খোলা অন্যায় নয় কেউ যদি ভালো উদ্দ্যেশ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে লেখা চালিয়ে যেতে চান। যেমন- রাজনীতি'র জন্যে একটি ব্লগ, আন্তর্জাতিক বিষয়ে আরেকটি, কিংবা, মোটিভেশনাল লেখার জন্যে আলাদা ব্লগ।

তবে, নিজের নিজে চাপড়ানো এক ধরণের অসুস্থতা হতে পারে।

আপনাকে ধন্যবাদ এসব বিষয়গুলো সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করার জন্যে।

১১ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:১৬

মানবী বলেছেন: "উন্নত বিশ্বে এটা ঠেকানোর জন্যে কি করছে জানতে ইচ্ছে"

- উন্নতবিশ্বের সকল দেশের কথা জানা নেই। যুক্তরাষ্ট্রে ধর্ষকদের দাপটের সাথে ঘুড়ে বেড়ানো দূরের কথা, নির্ধারিত শাস্তি শেষে জেল থেকে বের হবার পরের জীবনটিও বিভিন্ন বিধিনিষেধের মাধ্যমে দূর্বিসহ করে রাখা হয়। শুধু ধর্ষক নয়, যেকোন সেক্চুয়্যাল অফেন্ডার। কেউ হয়তো কোন নারী বা শিশুকে আপত্তিকর ভাবে স্পর্শ করেছে, তাকে সারাজীবন সেই অপবাদ বয়ে বেড়াতে হবে, তার গতিবিধর উপর হাজার রকমের রেস্ট্রিকশন থাকবে আর অধিকাংশ ক্ষেত্রে পায়ে বেড়ীর মতো মনিটর পরে ঘুরতে হয়। সেকচুয়্যাল অফেন্ডারদের সাজা বিভীষিকাময়।

সংখ্যাটা বেশি হবার দুটি কারণ বলে মনে করি। প্রথমত এদেশে মদের অবাধ প্রচলন আর সেই সাথে মাদকাসক্তের সংখ্যাও নিতান্ত কম নয়। আর এই দুই বস্তু মানুষের কান্ডজ্ঞান লোপের সাথে সাথে সেবনকারীর আত্মনিয়ন্ত্রণ পুরোপুরি বিলুপ্ত করে- আর তাই ধর্ষনের ঘটনার প্রায় অধিকাংশ ক্ষেত্রে এ দুয়ের এক বা উভয়ের ব্যবহার দেখা যায়।
আর দ্বিতীয় কারণটি সংজ্ঞা! আমাদের দেশে কোন স্ত্রী যদি থানায় গিয়ে জানায় তার স্বামী তাঁর ইচ্ছের বিরুদ্ধে তার সাথে সহবাস করেছে, বাংলাদেশ তথা ভারতীয় উপমহাদেশের পুলিশ তাকে বদ্ধ উন্মাদ বলবে। যুক্তরাষ্ট্র স্বামীরও অধিকার নেই বিবাহিত স্ত্রীর ইচ্ছের বিরুদ্ধে তার সাথে সম্পর্ক স্থাপনের- সুতরাং তা অভিহিত হবে ধর্ষন হিসেবে।
আর যা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, তা হলো রিপোর্ট করা। আমার ধারনা শুধু ঢাকা শহরে প্রতি বছর যে সংখ্যায় সেক্চুয়্যাল অফেন্স হয় তা সঠিক ভাবে রিপোর্টেড হলে যুক্তরাষ্ট্রের সকল পরিসংখ্যান ছাড়িয়ে যাবে।

আর বাংলাদেশের কাছাকাছি আরেকটি উন্নত দেশ সিঙ্গাপুর, শুনেছি সেখানে কোন নারী যদি পুলিশকে ফোন করে শুধু অভিযোগ করে কোন পুরুষ তাকে উত্যক্ত করেছে(ধর্ষন অনেক পরের ব্যাপার) কয়েক মিনিটের মাঝে পুলিশ পৌঁছে সেই ব্যক্তিকে গ্রেফ্তার করে- ব্যক্তিটি নির্দোষ কিনা তা পরে বিচার করা হয়।



কোন মাল্টিনিককে নীতিবর্জিত মনে করি তা পোস্টে স্পষ্টভাবেই উল্লেখ করেছি তাই জবাব আর দীর্ঘ করছিনা।

আপনি মেনে চলেন জেনে ভালো লাগলো(আপনি মাত্র একদিন ১৮ ঘন্টা আগে ব্লগ খুলেছেন!!)


অনেক ধন্যবাদ সত্যপথিক শাইয়্যান।
আন্তরিক শুভকামনা রইলো।

৪| ১১ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৫৬

সত্যের ছায়া বলেছেন: সম্পর্ক নষ্ট হওয়ার ভয়ে সবাই সত্যি কথা বলে না, আপনি বলেছেন।
.... স্যালুট আপা।

১১ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৪২

মানবী বলেছেন: অনৈতিকতার সাথে কখনও সম্পর্কে স্থাপণ বা রক্ষায় আগ্রহবোধ করিনা ভাইয়া। কেউ অন্যায় আচরণ পরিহার করলে ভালো, না করলে দূরত্ব বজিয়ে চলাটাই উত্তম।

শুধু পোস্ট করা নয়, এধরনের অপ্রিয় পোস্টে মন্তব্য করার মতো চারিত্রিক দৃঢ়তা সকলের থাকেনা। পুরনো অনেক ব্লগার এখানে মন্তব্য করতে দ্বিধাবোধ করবেন সেটাই স্বাভাবিক। আপনি করেছেন, আপনাকেও স্যালুট সত্যের ছায়া।

আন্তরিক ধন্যবাদ আর অনেক অনেক শুভকামনা রইলো ভাইয়া।

৫| ১১ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৩

জেন রসি বলেছেন: ব্লগে আমার কোন মাল্টি নেই। তবে অনেকেরই আছে। এদের মধ্যে কেউ কেউ শুধু লেখালেখি নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করার জন্যই বিভিন্ন নিক ব্যবহার করে।এদের নিয়ে বা এদের মাল্টি নিয়ে আমার কোন সমস্যা নেই। তবে আরেকদল আছে যারা মাল্টি দিয়ে গালিগালাজ করে। মূল নিককে আড়ালে রেখে মাল্টি নিক দিয়ে খুব কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য বা ছবি আপলোড করতে থাকে ব্লগে। অধিকাংশ সময়ই সেই মাল্টি নিকগুলো ব্যান করা হয়। কিন্তু যারা সেসব করে তারা সুশীল ইমেজ নিয়ে ঠিকই থেকে যায়!

আপনার এই পোস্টটা গুরুত্বপূর্ণ। তবে যাদের বিরুদ্ধে আপনি অভিযোগ করেছেন তাদের মূল নিকের নাম প্রকাশ করে দিতে পারেন। তাহলে তারা এসে নিজেদের পক্ষে যুক্তি দেওয়ার সুযোগ পাবে। অর্থাৎ আলোচনার সুযোগ থাকবে এই পোস্টে।

ধন্যবাদ আপনাকে।

১১ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১:০৪

মানবী বলেছেন: যাদের কথা বলেছি, তাদের মাঝে আমার খুব প্রিয় ব্লগার আছেন বলে নয়- আমার বিশ্বাস করতে ভালো তাদের প্রায় সকলেই এমনটা করেছে
১)অন্যায়ের গভীরতা না বুঝে নিতান্তই স্বস্তা জনপ্রিয়তার লোভে
২) সকলের নির্লিপ্ততায় ব্যাপারটি তাদের কাছে খুব অন্যায় মনে হয়নি।

তাই তাদের নাম প্রকাশ করতে চাইনা, আশা করি তারা এই অপকর্মটি থেকে বিরত হবেন। তাদের অনেকেই ভালো লিখেন তে সেই "ভালো"টি প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে যায় অনৈতিকতার চর্চায়।

এই পোস্টের উদ্দেশ্য যাতোটা আত্মপ্রচারকারী মাল্টিনিকধারীগণ তার চেয়েও বেশি তাদের উৎসাহদাতা গণ। আমরা অন্যায় আচরণকে লঘু করে দেখি, সেই সুযোগে যে অন্যায় কলেবরে বর্ধিত হয়ে ভয়ংকর রূপ ধারণ করে তা লক্ষ্য করিনা।
জনপ্রিয়তা হারাবার ভয়ে নিজ পরিসরের অন্যায়ের প্রতিবাদ করবোনা তবে কিছু দিন পর পর ধর্ষন, হত্যার প্রতিবাদে কীবোর্ড আর কলমে ঝড় তুলবো, মিডিয়ায় ঝড় তুলবো!

আমরা কিভাবে প্রশাসনের কাছে দূর্নীতিমুক্ত সুবিচার আশা করতে পারি!!!
এই ব্লগে আমি গত ১০ বছরে লেখা নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করেছি কিনা জানিনা তবে বরাবর যা অন্যায় মনে হয়েছে তা স্পষ্ট ভাবেই বলেছি। স্বাভাবিক ভাবে বিভিন্ন প্রতিক্রিয়ার স্বীকার হয়েছি.। তারপরও আজ অবধি এই একটি নিকেই আছি।


অনেক অনেক ধন্যবাদ জেন রসি।
ভালো থাকুন সব সময়।

৬| ১১ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৬

সুমন কর বলেছেন: এ ধরনের চমৎকার পোস্ট আজকাল খুব কম পাওয়া যায়। আপনার কি মনে হয় না, এখন অনেক পুরনো ব্লগার হারিয়ে গেছে !!

ভালো লিখেছেন। +।

১১ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১:২৩

মানবী বলেছেন: পোস্টে উল্লেখ করতে গিয়েও যা করিনি তা হলো, বর্তমানে কোন প্রকার ছল বা অন্যায়ের আশ্রয় না নিয়ে এই মুহুর্তে ব্লগের সবচেয়ে জনপ্রিয় ব্লগারের নাম সুমন কর।
শুধুমাত্র লেখার গুনে আর অন্যদের উৎসাহিত করার কারণে আপনার পোস্টগুলো জনপ্রিয় হয়, আমি কয়েকবার মন্তব্য করতে গিয়েও ফিরে এসেছি, মনে হয়েছে শত মন্তব্যের ভীড়ে হয়তো লক্ষ্য করবেননা।
আমি প্রতিদিন আসিনা, মাঝে মাঝে দীর্ঘ বিরতি পরে আর আপনি নিজেও পোস্ট করেন খুব কম, তাই কখনও শুরুর দিকে মন্তব্য করা সম্ভব হয়নি।

অনেক ব্লগার হারিয়ে গেছেন সত্য তবে মনে হয় তাঁদের অধিকাংশই আর আগ্রহবোধ করেননা। আমি বরাবর দীর্ঘ বিরতির পর ব্লগিং এ নিয়মিত হই, তাও খুব সাময়িক সময়ের জন্য।

আপনি নিজে সৎ বলেই অপেক্ষাকৃত পুরনো হওয়া সত্ত্বেও এমন অপ্রিয় একটি পোস্টে মন্তব্য করেছেন, সেজন্য বিশেষ ধন্যবাদ।
অনেক অনেক ভালো থাকুন সুমন কর।

৭| ১১ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১:০৩

আলোরিকা বলেছেন: মাল্টিনিকের বিষয়টি যেদিন জেনেছিলাম ---আসলেই হতভম্ব হয়ে গিয়েছিলাম । বিষয়টি জানতে পেরেছিলামও দুই স্বনামধন্যের মাল্টিনিকের ক্যাঁচাল থেকে । তাদেরই একজনের হৃদয়স্পর্শী লেখায় প্রতিনিয়ত আবেগাপ্লুত হয়ে মন্তব্য করতাম । পরে জানতে পারলাম সবই বানানো একজনের মাল্টিনিকে লেখা---- এতটা অবাক আর আহত আর কখনো হই নি । যাহোক তৎক্ষণাৎ তাকে বয়কট করেছি । আমার কাছে দুর্জন বিদ্বান হইলেও পরিত্যাজ্য । আসলে সততা আমাদের প্রতিটি কাজে , চিন্তায় , কথায় থাকা উচিৎ । সততার কোন ভগ্নাংশ হয়না । ভাল থাকুন । অনেক অনেক শুভকামনা ।

পুনশ্চ : আপনার পোস্টগুলো বরাবরই সুপাঠ্য ও গঠনমূলক :)

১১ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১:৪২

মানবী বলেছেন: আমি এ বিষয়ে বেশ স্পষ্ট ধারনা হবার পর এই পোস্ট দেয়া সত্ত্বেও আপনার মন্তব্যটি পড়ে আমার ভাবনায় জট পেকে যাবার উপক্রম সেখানে নবীন ব্লগারদের এসব ছল বুঝতে কতোটা দেরী হয়ে যায়! এর মাঝে তাঁদের অনেকে হতাশ হয়ে ব্লগ থেকেও বিদায় নেন।

ঠিক এই বয়কটের কথাটাই মূল বক্তব্য! আমরা আমদের ক্ষুদ্র গন্ডীর মাঝে ঠুনকো দু চারটি মন্তব্যের লোভে যদি অন্যায়ের প্রতিবাদ ও প্রতিকার করতে না জানি, বৃহত্তর পরিসরে এসব হত্যা ধর্ষনের বিচার আশা করআর অধিকার আমাদের থাকেনা।

"সততার কোন ভগ্নাংশ হয়না"

- অসাধারণ একটি কথা!

চমৎকার মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ আলোরিকা।
ভালো থাকুন সব সময়।

পুনশ্চ: এটা সুখপাঠ্য পোস্ট আপু? আমার অতিসাধারন লেখা যাঁরা নিয়মিত পড়ে থাকেন তাঁরাও এই তিক্ত পোস্ট থেকে শতহাত দূরত্ব বজিয়ে চলবেন বলেই মনে করি। :-)

৮| ১১ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১:৪৭

এরশাদ বাদশা বলেছেন: ব্লগ বলি বা ফেসবুক, ২য় কোন নামে কোনদিনই একটিভ হওয়ার চেষ্টা করিনি, রুচিতে বাধে। বেশ কিছুদিন ধর্ষন নিয়ে নিয়মিত লিখছিলাম ফেসবুকে, সেখানে আমার একটা গ্রুপও আছে। কিন্তু বিধিবাম, সেখান থেকেও পাটতাড়ি গুটাতে হলো। ব্লগ কর্তৃপক্ষ কোন এক অজানা কারনে ভ্রাত্য করে রেখেছে অনেক আগে থেকেই। সমাজের এইসব অসঙ্গতি (বিশেষ করে ধর্ষন, দূর্নীতি) নিয়ে আমার লেখার কলমটা বর্তমানে থমকে আছে।
ধর্ষন জিনিসটা মার্ডার এর চেয়েও ভয়াবহ। বাংলাদেশের মতো দেশগুলোর ক্ষেত্রে তা আরো কয়েকগুন বেশি ভয়ংকর। আমার দৃষ্টিতে এর প্রথম এবং অন্যতম কারণ হলো, বিচারহীনতা। ধর্ষিতার উপর পাশবিকতা ঘটে যাওয়ার পর সে থানায় যায়না লোকলজ্জার ভয়ে কিংবা গেলেও ত্বড়িৎ গতিতে তার অভিযোগ আমলে নেওয়া হয়না। ভিকটিমকে হেল্প করার বদলে প্রশাসন তাকে আর একবার ধর্ষন করে। কিছুদিন আগে আনন্দবাজার পত্রিকায় পড়া ঘটনাটা মনে পড়লে এখনো গায়ের রোমকুপ খাড়া হয়ে যায়। পনের বছরের এক কিশোরী ধর্ষিত হওয়ার পর থানায় অভিযোগ দায়ের করতে গেলে দায়িত্বরত পুলিশ থানার মধ্যে তাকে বিবস্ত্র করে আদৌ ধর্ষিত হয়েছে কিনা তা নিজেই পরীক্ষা করে! তাও আবার তার স্পর্শকাতর জায়গায় হাত দিয়ে!!
আপন জুয়েলার্স এর মালিকের ছেলে আর তার সাঙ্গপাঙ্গদের দ্বারা ধর্ষিত দুই নারী ৩৭ দিন পর থানায় গেলেও ওসি ফরমান সাহেব তাদের উপদেশ দেয়- বাড়াবাড়ি করে আর কি হবে, তাতে নিজেদেরই ক্ষতি, বিয়েশাদী কেউ করতে চাইবেনা, এসব বলে ধর্ষিতাদের অভিযোগ দায়ের করা থেকে নিবৃত্ত করতে চেয়েছিলো।
আমি ওই দুজন বোনকে অবশ্যই সাধুবাদ জানাতে চাই, তারা শেষ পর্যন্ত লড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। নইলে ওই অপরাধীদের হাতে আরো কতো মেয়ের জীবন যে ধ্বংস হতো তা কে বলতে পারে?
প্রশাসন কবে দেশের এই মহা সমস্যা নিয়ে গভীরে গিয়ে চিন্তা করবে? কবে এ দেশ ধর্ষকের হাত থেকে মুক্তি পাবে? আদৌ পাবে কি?
ধন্যবাদ আপু, লেখা চালিয়ে যান।

১১ ই মে, ২০১৭ রাত ১১:০৪

মানবী বলেছেন: আপন জুয়েলার্সের মালিকের ধর্ষক পুত্রদের নিয়ে হৈচৈ শুনতে পাচ্ছি, ভালো যে অন্তঃত এই ভিকটিমদের পক্ষে মানুষ সরব হয়েছে। প্রতিকূলতার বিরুদ্ধে ভিকটিমদের সুবিচারের জন্য লড়াইটি প্রশংসনীয় এবং দৃষ্টান্তমূলক।
ছোট্ট শিশু আয়েশার ধর্ষক ধরা পড়েছে কিনা জানিনা। জানা নেই আত্মহননকারী ধর্ষিতা কন্সটেবলের ঘৃণ্য ধর্ষক আর তাদের পোষণকারীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা করা হয়েছে কিনা।

আমি মনে করি প্রতিটি নারীর সম্ভ্রম সমান গুরুত্বপূর্ণ, রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ্ ক্ষমতায় আসীন আর পথের ধারের সহায় সম্বলহীণ, পরিচয়বিহীণ নারীর সম্ভ্রম সমান গুরুত্বপূর্ণ! তাই সকল নরপশু ধর্ষকদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন দেখতে চাই।

"প্রশাসন কবে দেশের এই মহা সমস্যা নিয়ে গভীরে গিয়ে চিন্তা করবে? কবে এ দেশ ধর্ষকের হাত থেকে মুক্তি পাবে? আদৌ পাবে কি?"
- আপনি আমি আমরা যারা নীতিবোধ এখনও হারিয়ে ফেলিনি তার যেদিন প্রতিটি ক্ষেত্রে সব রকমের অন্যায় অনাচারের বিরুদ্ধে "জিরো টলারেন্স" দেখাবে সেদিন প্রশাসন শুধরে যেতে বাধ্য।
আমরা কেউ পরিবার, কেউ বন্ধু-সহকর্মী আবার কেউ পছন্দের রাজনৈতিক দল বা নেতা নেত্রীদের অন্যায় ইগনোর করি অথচ আমাদের বিবেক তাদের কৃত অন্যায় সম্পর্কে অবগত- তারপরও যেনো মানতে পারিনা।

আর ধর্ষক তোষণে বর্তমানের ক্ষমতাসীন দলের রেকর্ডটি লজ্জাকর। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘৃণ্য সেন্চুরী মানিককে প্রশ্রয় দেয়া, ইডেন কলেজের নীরিহ ছাত্রীদের পতিতাবৃত্তিতে এক রকম বাধ্য করা এসবই এদের নিজেদের মাঝেই নটোরিয়াস সেক্সঅফেন্ডারদের উপস্থিতির সরব ঘোষণা দেয়, এরা কিভাবে ধর্ষিতাদের সুবিচার এনে দিবে!!


আপনি বরাবর একটি নিক নিয়েই আছেন জেনে ভালো লাগলো। আশা করি কর্তৃপক্ষ আপনার নিকটি নিরাপদ করবে।

আপনাকেও অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া।
আন্তরিক শুভকামনা রইলো।

৯| ১১ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১:৪৯

ওমেরা বলেছেন: খুব সুন্দর একটা পোষ্ট পড়ে অনেক কিছু জানা যেমন হল তেমনি গোলকধাঁধাঁ লেগে গেল । সামান্য এই ব্লগে পরিচিত বা জনপ্রিয়তার জন্য কোন মানুষ এসব করতে পারে আমি একেবারে টাসকি খেয়ে গেলাম ।আপু আপনি এই পোষ্ট না দিলে তো এসব ব্যপারে আমার কিছুই জানা হত না । অনেক অনেক ধন্যবাদ আপু ।

১১ ই মে, ২০১৭ রাত ১১:৩১

মানবী বলেছেন: হয়তো আর অন্য কোনভাবে জানা হতো আপু।

নীতিবর্জিতরা নিজ নিজ গন্ডির মাঝেই সম্ভব সর্বোচ্চ খারাপ কাজটি করে থাকে, তা ব্লগে তুচ্ছ কিছু মন্তব্য পাওয়া হৌখ অথবা ঘুষগ্রহণ করে অপরাধীকে শাস্তি না দেয়া।
এরা বুঝেনা এভাবে নামটি আলোচিত কলামে আসা মানে তাদের গ্লোরি নয় বরং এটা পত্রকায় অপরাধীর ছবি প্রকাশ করে সম্প্রচারের মতো কালিমালিপ্ত।

আর আজ যারা করছে, তারা এক সময় নতুন ব্লগার ছিলো। অন্যদের পোস্টে অধিক মন্তব্য, কারো কারো মাল্টি নিকে নিজ পোস্টে মন্তব্যে আর সেসব দেখে অন্য ব্লগারদের নির্লিপ্ত থাকাটা তাদের উৎসাহিত করেছে।

আপনাকেও আন্তরিক ধন্যবাদ আপু।
ভালো থাকুন সব সময়।

১০| ১১ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১:৫৮

আলোরিকা বলেছেন: আমি বলেছি সুপাঠ্য -----লেখার শৈলী , লেখা পড়তে কষ্ট করতে হয়না :)

যারা আপনার লেখা সত্যিকার অর্থে পছন্দ করে তারা পড়বেই ----

'যে আমারে দেখিবারে পায়
অসীম ক্ষমায়
ভালো মন্দ মিলায়ে সকলি .।.।.।'

১১ ই মে, ২০১৭ রাত ১১:৫০

মানবী বলেছেন: ওহ্! "খ" বাদ পড়েছে, দুঃখিত আপু। তাইতো বলি এমন তিতকুটে লেখা সুখপাঠ্য হয় কিভাবে!


আমার জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কবিতাটি থেকে কোট করার জন্য বিশেষ ধন্যবাদ। তবে আপু এর শেষেও তো আছে "হে বন্ধু, বিদায়"!! B-)

তবে এই পোস্টের কারণে কারো কাছে ক্ষমাপ্রার্থী নই, নীতিবর্জিত অপকর্মকারীদের কাছে নয় আবার যারা তাদের প্রশ্রয় দিচ্ছে তাদের কাছেও নয়। তাই তাদের অসীম ক্ষমায় দেখার প্রয়োজন নেই, পোস্ট ভালো না লাগলে দূরত্ব বজিয়ে রাখলেই বেশি ভালো লাগবে।

অনেক অনেক ভালো থাকুন প্রিয় আলোরিকা।

১১| ১১ ই মে, ২০১৭ দুপুর ২:০৯

কানিজ ফাতেমা বলেছেন: মাল্টি নিক বিষয়টা জানা ছিলনা । তবে আমিও লক্ষ্য করেছি বহুমাত্রিক পঠিত হবার বিষয়টা ।
নিজেকে নিজে পিঠ চাপড়ালে আর যাই হোক ক্ষতিটা তো নিজেরই হয় । সে তো কখনো তার লেখার প্রকৃত মূল্যায়ন বুঝতে পারবেনা।

সুন্দর পোষ্টের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ এবং শুভ কামনা রইল ।

১২ ই মে, ২০১৭ রাত ১২:০৬

মানবী বলেছেন: নিজের পিঠ চাপড়ে যাওয়া যে শুধু হাস্যকর নয় ক্ষতিকরও তা তারা বুঝতে পারেনা বলেই তো এমনটা করে।

নিজের লেখার প্রকৃত মূল্যায়ন প্রয়োজন হয় জেনুইন লেখকদের, যারা আবোল তাবোল কিছু লিখে নিজেকে জিনিয়াস মনে করে, আত্মপ্রচারের মতো গ্লাণিকর কাজটি নির্দ্বিধায় করে তাদের তাদের মগজে এসব ঔচিত্যবোধ প্রবেশ অসম্ভব।

আপনার সমৃদ্ধ পোস্টগুলো পাঠকের আড়ালে থেকে যায়, আমি মনে করি তাতে আপনার কিছু এসে যায়না তবে পাঠকেরা বন্চিত হয়। তারা জানেনা কতো সুন্দর একটি লেখা, কবিতা পড়ার সুযোগ তারা হারালো।
আর আপনি যে ডিগনিফাইড ব্লগিং করছেন, এই ক্ষুদ্র পরিসরে সেটাই প্রকৃত সাফল্য।

অনেক অনেক ধন্যবাদ প্রিয় কানিজ ফাতেমা।
আন্তরিক শুভকামনা রইলো।

১২| ১১ ই মে, ২০১৭ দুপুর ২:৩৫

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: মাল্টি নিক সম্পর্কে শুনে আসতেছি। কিন্তু তাদের একজনরেও চিনি না
যাই হোক এমন গর্হিত কাজ থেকে বিরত থাকুন। এতে আত্মতৃপ্তি কি আসে? নিজের মনে নিজে রাজা হলে হয় না। সেই রাজার প্রজা্ও থাকতে হয়। প্রজারা রাজা মানলেই সে রাজা। তেমন করে লেখা চোরদেরও বলছি। যতটুকু সময় কপি পেস্ট এর পিছনে ব্যয় করছেন ততটুকু সময় নিজের মেধা কাজে লাগান। । অন্যের লেখায় বাহবা কমেন্ট লাইক পেয়ে নিজেকে বড় কিছু ভাবলে নিজেই ঠকবেন। চোর ধরা পড়ে যায় -ধরা পড়বেই একদিন। কথায় আছে না-চোরের দশদিন সাধুর একদিন।

খুব সুন্দর পোস্ট আপি। অনেক সময় আপনার পোস্ট বড় হ্ওয়ার কারণে পড়তে পারি না। আাজ পড়েই ফেললাম।

ভাল থাকুন
ভালবাসা রইল :)

১২ ই মে, ২০১৭ রাত ২:০৯

মানবী বলেছেন: তাদের তাদের কারো কারো বক্তব্য পড়ে মনে হয়েছে, জীবনের খুব শুরুতেই তাদের নৈতিকতার অবক্ষয় নয় সম্পূর্ণ ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়েছে সেই বোধ। সেকারণে তারা ন্যায় অন্যায়ের পার্থক্য করতে অক্ষম, একই কারণেই দেশজুড়ে লুটেপুটে খাওয়ার অবাধ তান্ডবও চলছে। এরা ভাবেছে আমরা যে যেভাবে পারছি নিজেরটা প্রচার করছি, আখের গুছিয়ে নিচ্ছি সমস্যা কোথায়!
এমনটা ভাবতে সম্পূর্ণ নীতিবর্জিত, বিবেক বর্জিত হয়ে মূলবোধের হত্যা করেই সম্ভব!

নিঃসন্দেহে এরা শুধু নিজেদেরই ঠকিয়ে যায় তা পোস্ট চুরি করে হোক আর ভন্ডামি করে মন্তব্য অথবা থাম্বসআপ জানিয়ে।

ওহ্! আমার পোস্ট বড় হবার কারণে পড়তে পারেননা জেনে খারাপ লাগলো। কাকতালীয় ব্যাপার হলো এই পোস্টটি ইম্পালসিভ হয়ে দেয়া, অত্যন্ত বিরক্ত বা অতীষ্ট হয়েই। এমনিতে এবার যে পোস্টটি দেবার কথা ছিলো তা প্রায় মৌন পোস্ট বললেও ভুল হবেনা :-)

ভালোবাসার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ প্রিয় কানিজ ফাতেমা ছবি।
ভালো থাকুন সবসময়।

১৩| ১১ ই মে, ২০১৭ দুপুর ২:৩৬

নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন বলেছেন: পোষ্ট পড়ে পোষ্টের অনেক কমেন্টই পড়লাম। কিন্তু কোথাও অপ্রিয় মনে হলো না পোষ্টটি। আমার কাছে ভালো লাগলো পোষ্টটি পড়ে। পোষ্টে যেমন ধর্ষক খুনিদের প্রতি বলা হয়েছে, তেমনি প্রতিকারের সমাধানও উল্লেখিত স্পষ্ট। আর নতুন ব্লগারদের জন্য খুব সুন্দর পরামর্শ। সবমিলিয়ে পোষ্টে মুগ্ধতা।

আমার কথাগুলো সব ফ্রিলি বলে যাচ্ছি, জানিনা বলা ঠিক হচ্ছে কিনা!
আমার নিজের পোষ্টগুলি প্রায় সবসময় আলোচিত ঘরে উঠে কখনো পরে আবার কখনো দ্রুত। সেজন্য আমার ভালো লাগলেও অনেক সময় নিজে নিজেই লজ্জায় পড়ি। তখন একদিন পোষ্ট অফ রাখি লেখা থাকলেও দেই না বা দুচারটি একসঙ্গে এক পোষ্টেই করে দেই। এই নিকটির আগে ও পরে আমার দুটি নিক, অনেকেই জানে। প্রথম দিকে নিক দুটি থেকে মন্তব্য দিলেও পরে আর মন্তব্য দেই না। তবে মাঝেমধ্যে লাইক দিয়ে দিই। আমার অপরাধ এটুকুই। আজ থেকে লাইকও বন্ধ করলাম। ক্ষমা করবেন আমার ভুলটুকু।

শুভকামনা আপনার জন্য

১২ ই মে, ২০১৭ সকাল ৯:২৪

মানবী বলেছেন:
১০ নং মন্তব্যে খুব সুন্দর একটি কথা বলেছে, সততার কোন ভগ্নাংশ নেই।
আমরা পোস্ট দেবার ২-৩ ঘন্টা পরও যদি সেখানে মন্তব্যের নীড় শূণ্য থেকে যায়, কোন ভালোলাগা/লাইক না পেয়ে নয়ন অতৃপ্ত হলেও নিজের মাল্টিনিকে নিজের পোস্টে মন্তব্য ও লাইক দেয়া অন্যায়, মিনতির জন্য করলেও অন্যায়।
এতে কোন জয় নেই, নিজেই নিজের কাছে পরাজিত হয়।

আপনি যদি এই কাজটি পুরোপুরি বন্ধ করেন নিঃসন্দেহে আমি খুব খুশি হবো। আমার প্রিয় পোস্টের তালিকায় এমন একাধিক পোস্ট আছে যেসবে একটি মাত্র মন্তব্য, একটিই ভালোলাগা- তারপরও পোস্টটি আর হাজারো পোস্টের চেয়ে বেশী মর্যাদার মনে হয়েছে।

পোস্টে মুগ্ধতা জেনে ভালো লাগলো, ধন্যবাদ নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন।
আন্তরিক শুভকামনা রইলো।


১৪| ১১ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৩:৩৯

নতুন বলেছেন: ৩০৯৮ বার পঠিত বানাতে আপনাকে খুব বেশি কস্ট করতে হবেনা।

নিজেই পোস্টে গিয়ে পেজটা রিফ্রেস করলেই প্রতিবারে নম্বারটা বাড়তে থাকবে....

এটা সরকারের দূনিতিবাজ লোকেরা খুব সহজেই করবে :)

১২ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:১৪

মানবী বলেছেন: অপকর্ম সব সময়ই খুব সহজ। ভন্ডামী করে মন্তব্য পাওয়া বা লাইক পাবার মাঝে কোন পরিতৃপ্তি নেই, লক্ষ্ হিটেও কোন সাফল্য বা মর্যাদা নেই।

শুধু সরকারের দূর্নীতিবাজ লোকেরা নয়, আরো কেউ কেউ করে বলেই মনে হয়।

বিশেষ ভাবে ৩০৯৮ সংখ্যাটির রহস্য গতকাল বোধগম্য হয়নি, আজ মনে হয় স্পষ্ট হলো!!!

আন্তরিক ধন্যবাদ নতুন।
অনেক অনেক ভালো থাকুন।

১৫| ১১ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৩:৫০

নতুন বলেছেন: ক্রমের একটা এপপসই আপনি ঘন্টায় পোস্ট ভিউ বাড়াতে পারেন...

এটা এই কাজই করছে... এরা মাল্টিনিক দিয়ে এই কাজ করা একটু কস্ট... তারচেয়ে সহজ তরিকা হইলো এপপস :)

https://www.youtube.com/watch?v=iqtto2VSeD8


১২ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:১৭

মানবী বলেছেন: নাচুনে বুড়ির দল আপনার ঢাকের বাড়িতে সাড়া দিয়েছে, অভিনন্দন নতুন।
আপনার এই মন্তব্য আত পোস্টের পর কারো কারো পোস্টের হিট সংখ্যা হঠাৎ করে জাম্প করেছে!!! B-)
হয়তো তারই কেউ..... আচ্ছা থাক, আর কিছু না বলি!!

আন্তরিক শুভকামনা ও ধন্যবাদ রইলো নতুন।

১৬| ১১ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৪:৪৫

ইতি সামিয়া বলেছেন: কেমন আছেন আপু? ভালো লখেছেন, লেখাটি শুধু নতুনদের উৎসর্গ করার কি কারন?

১২ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৩৫

মানবী বলেছেন: আলহামদুলিল্লাহ্ আ'লা ক্কু'ল্লি হা'ল, আশা করি আপনি ভালো আছেন আপু।

পোস্টে একাধিকবার আবার কখনও বোল্ড করে উল্লেখ করা আছে নবীনদের উৎস্বর্গের কারণ।
লেখাটি সকলেরই জন্য তবে বিশেষ ভাবে নতুনদের উৎস্বর্গকৃত, মাল্টিনিকের তান্ডবে বিভ্রান্ত হয়ে তাঁদের অনেকের মাঝে
হতাশার জন্ম নেয় দেখেছি।

অনেক ধন্যবাদ ইতি সামিয়া। ভালো থাকুন।

১৭| ১১ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৪:৪৬

ইতি সামিয়া বলেছেন: কেমন আছেন আপু? ভালো লিখেছেন, লেখাটি শুধু নতুনদের উৎসর্গ করার কি কারন?

১২ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:১০

মানবী বলেছেন: মন্তব্যটি এক মিনিটের পার্থক্যে দুবার এসেছে তাই নিশ্চিত নই ভুল করে না জানতে চাইবার আগ্রহ থেকে!

জবাব আগের মন্তব্যে দিয়েছি, ভালো থাকুন আপু।

১৮| ১১ ই মে, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৪৪

উম্মে সায়মা বলেছেন: আমিও শুনেছি মাল্টি নিকের কথা তবে ধরতে পারিনা ঠিক। আর বিশ্বাসও করতে ইচ্ছা করেনা। নতুন বলে সবই কম বুঝি। আশা করি আপনার আহ্বানে তারা সাড়া দেবেন। সুন্দর পোস্টের জন্য ধন্যবাদ মানবী আপু।

১২ ই মে, ২০১৭ দুপুর ২:০১

মানবী বলেছেন: যাঁরা নিতান্ত ছেলেমানুষী করার জন্য এমন করেছে অন্যায়ের গুরুত্ব না বুঝে তাঁরা হয়তো সাড়া দিবেন তবে যারা জেনে শুনে স্বভাবগত কারণেই এমন নীতিবর্জিত আচরণ করে তাদের অপকর্ম বন্ধ হবেনা।

আপনাকে অনেক ধন্যবাদ উন্মে সায়মা।
আন্তরিক শুভকামনা রইলো।

১৯| ১১ ই মে, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:০২

সুমন কর বলেছেন: আপনি আমার পোস্টে মন্তব্য করতে গিয়েও ফিরে এসেছেন, শুনে খারাপ লাগল। শুরুর দিকে মন্তব্য করতে পারেন নি, তাতে কি? আমার কাছে প্রতিটি মন্তব্য এবং প্রতি উত্তর গুরুত্বপূর্ণ। এই যেমন, একটু আগে অফিসের কারণে মেজাজটা খুব খারাপ ছিল। কিন্তু আপনার প্রতি উত্তর পড়ে, খুব ভালো লাগল। এই যে, ব্লগে একটা আন্তরিকতা। এটা কোথায় পাবো?

খুব ভালো থাকেন আর আমাদের জন্য সুন্দর সুন্দর লেখা উপহার দেন।

১৩ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:১০

মানবী বলেছেন: আপনার মন ভালো হয়েছিলো জেনে খুব ভালো লাগলো।

আচ্ছা পরবর্তীতে দেরীতে হলেও মন্তব্য করতে দ্বিধা করবোনা।
অনেক অনেক শুভামনা আর ধন্যবাদ সুমন কর।

২০| ১১ ই মে, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৩২

কাউয়ার জাত বলেছেন: আপনি সময়োপযোগী একটি পোস্ট দিয়েছেন।
মাল্টি নিকওয়ালা সেই ইসলামী স্কলারের(!) অবস্থা দেখে আমার হাসি পায়। তাকে ব্লগ কর্তৃপক্ষ জেনারেল করে রেখেছে। তার কোন লেখা প্রথম পাতায় আসেনা। অথচ প্রতিটা পোস্ট সর্বাধিক মন্তব্যপ্রাপ্ত হয়!

১৩ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:২৬

মানবী বলেছেন: জেনারেল ব্লগার হলেও লেখা আলোচিত পোস্টে ঠাঁই পায়, এটা জানা ছিলোনা! অদ্ভুত তো!

অধিকাংশ ব্লগারদের দেখেছি, জেনারেল হলে লেখালেখি বন্ধ করে দেন যতোদিন না নিরাপদ স্ট্যাটাস ফিরে পান।

আন্তরিক ধন্যবাদ কাউয়ার জাত। ভালো থাকুন।

২১| ১১ ই মে, ২০১৭ রাত ৯:০২

আহমেদ জী এস বলেছেন: মানবী ,




খুব সাহসী লেখা । আর বক্তব্য সমৃদ্ধ তো বটেই ।

প্রথম অংশে মানবিক, সামাজিক, রাষ্ট্রীক ঔচিত্যবোধের অভাবের সূত্র ধরে খুব মুন্সিয়ানার সাথে ব্লগ প্রসঙ্গে এসেছেন ।
যা বলেছেন , সত্যের অপলাপ নয় তা মোটেও । ব্লগের "আলোচিত ব্লগ" নিয়ে আপনার পর্যবেক্ষন একদম কারেক্ট ও পারফেক্ট ।
যাদের কারনে একটি লেখা প্রকাশের ঘন্টাখানেক পরেই "আলোচিত ব্লগ" এ চলে আসে তাদের আপনি অন্য কোথাও কখনও দেখবেন না । এটাই প্রমান করে আপনার ( আমাদেরও ) নিরীক্ষন কতো বাস্তবিক ।
বক্তব্যের মেজাজে আপনার পরিমিতিবোধ সম্ভ্রম জাগানিয়া ।

আর নতুন ব্লগাররা নিজেদের প্রকাশেই ব্যগ্র হয়ে ওঠেন বা থাকেন বেশী । খেয়াল করলে এটা দেখতে অসুবিধে হবার কথা নয় ।
কিন্তু আপনার হিতোপদেশ " নবীন ব্লগারেদের জ্ঞাতার্থে জানাই, আপনার ভালো ভালো গঠনমূলক লেখা, সাহিত্যকর্মটির জেনুইন পাঠক অবশ্যই এই ব্লগে আছে। নিজের লেখাটি আরো অধিক সংখ্যক জেনুইন পাঠকের কাছে পৌঁছে দিতে নিজের পোস্টের সকল মন্তব্যের জবাব দিন আর অন্যদের পোস্টে মন্তব্য করুন- এটাই এখানে নিজের বক্তব্য তুলে ধরার সবচেয়ে সুস্থ সুন্দর উপায়।" এটা সম্ভবত তারা মেনে চলেন না বা বোঝেনই না । লেখা দিয়েই ভাবেন দায়িত্বটি শেষ হলো । তার দায়িত্ব যে আরো কিছু থাকে সেটাও তাদের বোঝা উচিৎ ।

আশা করছি, আপনার এ লেখার আর্শিতে নিজের প্রতিবিম্ব আমরা দেখতে পাবো যদি দেখার চোখ আর মনন থাকে ।

শুভেচ্ছান্তে ।

১৩ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৫১

মানবী বলেছেন: "এটাই প্রমান করে আপনার ( আমাদেরও ) নিরীক্ষন কতো বাস্তবিক ।
বক্তব্যের মেজাজে আপনার পরিমিতিবোধ সম্ভ্রম জাগানিয়া।"

- জেনে খুব স্বস্তিবোধ করছি। আমি খুব সরাসরি কথা বলি বিধায় অনেক সময় অনিচ্ছাকৃতভাবে রূঢ় হয়ে যায় যা পরে নিজেরই মনখারাপের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এ্‌ই পোস্টটি কারো মনে আঘাত করার উদ্দেশ্যে নয় বরং একটি অসুভ চর্চাকে আঘাত করা, ধর্ষনের মহামারী আর বিচারহীণতার প্রেক্ষিতেই সেই আঘাতের প্রয়োজনীয়তাটা গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়েছে।
প্রথম বারের মতো একটি পোস্ট লিখতে গিয়ে তা তিনটি ড্রাফ্ট করে, তৃতীয়টি পোস্ট করেছি, যদিও লেখাটি খুব ইম্পালসিভ ভাবেই লেখা।

চমৎকার মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ আহমেদ জী এস।

২২| ১১ ই মে, ২০১৭ রাত ৯:২২

রাজীব নুর বলেছেন: যদিও অনেক বড় লেখা, তবুও পুরো লেখাটি পড়লাম। মন্তব্যও গুলো সব পড়লাম। ভালো লেগেছে।

১৪ ই মে, ২০১৭ রাত ১২:৪১

মানবী বলেছেন: জেনে ভালো লাগলো।

ধন্যবাদ ও শুভকামনা রাজীব নুর।

২৩| ১১ ই মে, ২০১৭ রাত ৯:৫৬

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: একটি ভাল বিষয়ে পোষ্ট দিয়েছেন । আপনার তুলনায় বলতে গেলে আমি ব্লগে প্রায় নতুন । তবে ব্লগে আসার পর হতে যে লেখাগুলি ভাল লাগে তা বেশ মনযোগ দিয়েই পাঠ করি , কোন কোন টায় বেশ লম্বাচুড়া্ মন্তবও লিখি । ব্লগের অনেকের খুবই পুরাতন পোষ্ট গুলি খুঁজে নিয়ে পাঠ করে অবাক হয়ে যাই এত সুন্দর লেখাগুলি যা গুনে মানে আমার কাছে সেরা বলে মনে হয় তার মন্তব্য শুন্যতা , পাঠক সংখ্যা কম কিংবা নগন্য দেখে একটু বিস্মিত হই । কারণটা তখন নীজেই অনুভব করে নেই , যখন দেখি তাদের লিখার উপরে কষ্ট করে দীর্ঘ কোন মন্তব্য রেখে এলে তারা সেটা পাঠ করেছেন কিনা তা যায়না বুঝা । আবার নতুনদের বেলাতেও দেখি তাই , তাদের পোষ্টে মন্তব্য করলে কোন উত্তর নাই। অনেকে দেখেছি আমাকে অনুসরন করছেন বলে নোটিশ পাই । সাথে সাথে তাঁদের পোষ্টে গিয়ে অনুসরন করার ধন্যবাদ জানিয়ে সেই সুযোগে কমপক্ষে ৫/৬ টি পোষ্ট পাঠ করে মন্তব্য লিখে দিয়ে তাদের লিখাগুলির সাথে পরিচিত হতে চাই । কিন্তু লক্ষ করি তাদের অনেকেই সেগুলির কোন উত্তরই দেন নাই । যাহোক মনে একটু কষ্ট পেলেও বলার কিছু নাই , এটা তাদের একান্ত ব্যক্তিগত ইচ্ছা । তবে মনে হয় উত্তর দিলে পারস্পরিক মিথক্রিয়াটি বাড়তে পারত।

আলোচিত ব্লগের বিষয়ে ভাল লিখেছেন , বিভিন্ন কারনে দেখা যায় কিছু লেখা নিয়মিতই আলোচিত ব্লগে চলে আছে ।
আলোচিত ব্লগটির স্বয়ংক্রিয়তার কারণে তা আলোচনায় চলে আসে । আলোচিত হওয়ার ক্রাইটেরিয়া এমন ভাবেই সেট করা যে সেখানে অাসার জন্য মালটি নীক সহ কিংবা পোষ্টদাতা একাই যথেষ্ট । তাই আমার মনে হয় আলোচিত পোষ্ট ক্রাইটেরিয়াটিকে নির্বাচিত পোষ্টের মত একটি নীতিমালার অধীনে নিয়ে আসলে এমন ততপরতা কিছুটা বন্দ হতে পারতো। আলোচিত পোষ্টের কারণে অনেক সময় পাঠকের ( অন্যের কথা জানিনা তবে আমার বেলায় এমনটি হয় ) অনেক মুল্যবান সময় চলে যায় শুধু পোষ্টটি আলোচিত কেন ও কিভাবে হল তা দেখার জন্য, তার পরে হাতে থাকা সময় কমে যাওয়ায় অনানোলোচিত অনেক মুল্যবান ও মানসম্পন্ন লেখা দেখার সময় আর হয়ে উঠেনা । পাঠকের জন্য টাইম কনসট্রেইন্ড একটি বড় ফ্যাকটর । তাই মেনুপুলেটেড আলোচিত ব্লগের বিষয়টি সামু কতৃপক্ষ একটু ভেবে দেখতে পারেন ।

ধর্ষনের বিস্তার রোধের জন্য সুন্দর যুক্তি তুলে ধরেছেন । মাদক ও ধর্ষনটাই, বড় বড় সব অপরাধের সুতিকাগাড় । একে বন্দের জন্য দেশে আইন আছে কঠোর , কিন্তু আমার মনে হয় যারা অপরাধ করে, তার থেকেও বড় অপরাধি তারাই যারা আপরাধটা জেনেও তা না ধরে । তাই আইনের যথাযথ প্রয়োগের জন্য পুলিশের নজরদারী বাড়ানো এবং অপরাধের সংবাদ পাওয়া মাত্রই অপরাধি পাকরাওয়ে যারা ব্যর্থ হবে তাদেরকে জবাবদিহীতার আওতায় নিতে হবে কঠোরভাবে । আইন শৃংখলা রক্ষাকারী কতৃপক্ষ নির্দিষ্ট সময়ের ভিতরে আপরাধী ধরতে ব্যর্থ হলে তাদের দায় দায়দায়িত্ব নিরোপন করে যথাযথ ব্যবস্থা ও সামাজিকভাবে সমালোচনা করতে হবে দায়িত্ব পালনে ব্যর্থতার জন্যে । আর এ বিষয়ে সামাজিক সচেতনাবোধ জাগ্রত করাও জরুরী , এদের ব্যপারে সমাজ সচেতন হলে অনেক উপকার হবে ।

আপনার পোষ্টের শুদ্ধিকরন বিষয়ক ভাবনাগুলির জন্য বিশেষ ধন্যবাদ রইল ।

১৪ ই মে, ২০১৭ রাত ১:০১

মানবী বলেছেন: ", যখন দেখি তাদের লিখার উপরে কষ্ট করে দীর্ঘ কোন মন্তব্য রেখে এলে তারা সেটা পাঠ করেছেন কিনা তা যায়না বুঝা । আবার নতুনদের বেলাতেও দেখি তাই , তাদের পোষ্টে মন্তব্য করলে কোন উত্তর নাই।"

- কোন ব্লগারকে অসৎ উপায় অবলম্বন করতে দেখলে আমি তার ব্লগ পড়ার আগ্রহ হারিয়ে ফেলি। আমি সাধারণত প্রায় সকলের পোস্ট র‍্যান্ডমলি পড়ি ও মন্তব্য করি। যদি কেউ আমার মন্তব্যের জবাব না দেয়, মনে করি তার পোস্টে আমার মন্তব্য অনাহুত তাই সেখানে পরবর্তীতে মন্তব্য করা থেকে বিরত হই।
আমার নিজের ব্লগে সকল মন্তব্যের জবাব দিতে চেষ্টা করি শুধু খুব আপত্তিকর, খুব সংবেদনশীল অথবা ব্যক্তিগত প্রশ্ন ছাড়া।

আমার ব্লগের নোটিফিকেশন সিস্টেমটি দীর্ঘদিন ধরে বিকল তাই অধিকাংশ ক্ষেত্রে খুব পুরনো পোস্টের নতুন মন্তব্য সম্পর্কে অবগত হওয়া সহজ হয়না। নিশ্চিত ন্‌ই আপনি যাদের পুরনো পোস্টে মন্তব্য করেছেন তারা জেনেছেন কিনা!

"আলোচিত পোষ্টের কারণে অনেক সময় পাঠকের ( অন্যের কথা জানিনা তবে আমার বেলায় এমনটি হয় ) অনেক মুল্যবান সময় চলে যায় শুধু পোষ্টটি আলোচিত কেন ও কিভাবে হল তা দেখার জন্য"

- যারা অসৎ উপায়ে পোস্ট হিট সংখ্যা বৃদ্ধি করে, অগ্রহনযোগ্য উপায়ে নিজের পোস্টের মন্তব্য বৃদ্ধি করে তাদের পোস্ট আলোচিত পোস্ট, নির্বাচিত পোস্ট এমনকি স্টিকি হলেও কখনও খুলে পড়ার আগ্রহবোধ করিনা!

"এ বিষয়ে সামাজিক সচেতনাবোধ জাগ্রত করাও জরুরী , এদের ব্যপারে সমাজ সচেতন হলে অনেক উপকার হবে"
- যে কোন অনৈতিক আচরণ, অন্যায়ের প্রতি সমাজের "জিরো টলারেন্স" দেশের রন্ধ্রে রন্ধ্রে পৌঁছে যাওয়া দূর্নীতির অবসান হতে বাধ্য।

সুন্দর বিস্তারিত মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ ডঃ এম এ আলী।
অনেক অনেক শুভকামনা রইলো।

২৪| ১১ ই মে, ২০১৭ রাত ১১:০৪

ফরিদ আহমদ চৌধুরী বলেছেন: আপনার পোষ্ট ও মন্তব্য মনোযোগ দিয়ে পড়লাম। অনেক কিছুই বূঝলাম। কথা হলো কোন একটি জিনিস কোন এক জনের নিকট ভুল। আর কোন এক জনের নিকট শুদ্ধ। বিষয়টা এমন না হলেতো সবাই এক মতের হতো। যেহেতু মানুষের মাঝে নানামত বিরাজমান তাতে পরিস্কার বুঝা যায় ভুল শুদ্ধটাও বিভিন্ন রকম। দেখা যাবে আপনার দৃষ্টিতে যেটা একশত ভাগ সঠিক সেটাই আরেক জনের নিকট একশত ভাগ বেঠিক। তবে এটা মানতেই হবে যে আপনি অবশ্যই আপনার মতে সম্পূর্ণ সঠিক। সে যাই হোক কষ্ট করে লিখেছেন। পোষ্ট ভাল হয়েছে। আপনার উজ্জল ভবিষ্যত কামনা করি।

১৪ ই মে, ২০১৭ রাত ১:২২

মানবী বলেছেন: স্যুট টাই পরিধান করে অফিসে যাবেনা সাধারন সার্ট প্যান্ট, ঈদে গ্রামে পিতৃপুরুষের ভিটায় গিয়ে ছুটির সময়টা কাটানো সঠিক সিদ্ধান্ত না কর্মস্থলে পরিবার পরিজন নিয়ে বন্ধুবান্ধবদের সাথে কাটানো ভালো- এধরনের সিদ্ধান্তে তারতম্য হতে, ভুল সঠিকের ভাবনায় ভেদাভেদ থাকতে পারে তবে আইন ও নৈতিকতার প্রশ্নে এধরনের বিবেচনা তারতম্য শুধুমাত্র অপরাধীরা করে থাকে।

যেমন একজন ঘুষ খোরের কাছে ঘুষ গ্রহন সঠিক মনে হয়, যে কুলাঙ্গার ধর্ষিতা জন্সটেবলের ঘৃন্য ধর্ষককে পশ্রয় দিয়েছে তার কাছে সেটা সঠিক মনে হয়েছে, নরপশুর দল যখন নিষ্পাপ আয়েশাকে র্নিাতন করে তাদের কাছে সেটাই সবচেয়ে সঠিক সিদ্ধান্ত ছিলো। নিয়ম নীতি আর আইনের ব্যাপারে সঠিক ভুলের কোন আপেক্ষিকতা নেই, থাকতেও পারেনা।

ভালো থাকুন ফরিদ আহমদ চৌধুরী।

২৫| ১১ ই মে, ২০১৭ রাত ১১:২৭

ফরিদ আহমদ চৌধুরী বলেছেন: পৃখিবীতে ধর্ম আছে সাড়ে চার হাজার মত যে কত আছে তা’ লেখাযোখা নেই। আপনি কোনটাকে ভুল আর কোনটাকে শুদ্ধ বলবেন? আর আপনি কাকে তার মত প্রকাশে বাধা দেবেন? প্রত্যেকে তার নিজের কথা বলবেই। তা সে যে ভাবে পারুক। আপনিতো এমন লোক যে যদি কেউ আপনার মতে কথা বলে আপনি তখন সহাস্যে বলে উঠবেন কথা শুদ্ধ হয়েছে। আর আপনার দৃষ্টিতে আপনার ও আপনার প্রিয়জনদের লেখা অবশ্যই মান সম্পন্ন আর সবারটা পঁচা। আসলে আমরা মানুষরাই এমন কেউ নিরপেক্ষ হতে পারিনা।

২৬| ১১ ই মে, ২০১৭ রাত ১১:৩৫

ফরিদ আহমদ চৌধুরী বলেছেন: আমি আবারো বলি আমি একজন কম্পিউটার প্রশিক্ষক। আমার বর্তমান ব্যাচে প্রশিক্ষনার্থী ৪৯ জন। সবাই ব্লগার। আগের ব্যাচে ছিল ৪২ ব্লগার। এভাবে আমার প্রশিক্ষনার্থী ১৬০০ জন। তাতের একএকজনের ২০ জন করে বন্ধু থাকলে সংখ্যা হয় ৩২০০০। আমার আত্মীয় সজনের গ্রুপটাও বেশ লম্বা। আমার কিন্তু নিক একটা। আমি আপনাদের মত এতিম নয়। তবে আমি কাউকে তেল মাজিনা। ব্লগ যদি আমাকে সুযুগ দেয় তবে আমার মনে হয় আমি কিছু একটা করে দেখাতে পারব। আমি ৫০০ সনেট লিখে ফেলে দিয়েছি। মানবীি আপনি আমাকে যেকোন বিষয় দেন দেখি আমি তা’দিয়ে সনেট লিখে দিতে পারি কিনা?
সে যাই হোক আপনি আপনার নিজ বিবেচনায় যথেষ্ট বড় একজন ব্লগার। সেটা না মেনে উপায় নেই।

২৭| ১১ ই মে, ২০১৭ রাত ১১:৫২

শাহরিয়ার কবীর বলেছেন:

আহমেদ জী এস ভাই বলেছেন যাদের কারনে একটি লেখা প্রকাশের ঘন্টাখানেক পরেই "আলোচিত ব্লগ" এ চলে আসে তাদের আপনি অন্য কোথাও কখনও দেখবেন না । এটাই প্রমান করে আপনার ( আমাদেরও ) নিরীক্ষন কতো বাস্তবিক ।
বক্তব্যের মেজাজে আপনার পরিমিতিবোধ সম্ভ্রম জাগানিয়া ।
লাইক

কেউ কেউ এ ব্লগে মাল্টি নিক দিয়ে রিবাট সেলিব্রটি আবার কিছু কিছু নিক দিয়ে ক্যচাল বাধাতে !

১৪ ই মে, ২০১৭ ভোর ৬:০১

মানবী বলেছেন: পত্রিকায় ছবি ছাপলে তা অনেক বড় প্রচার। একজনের অর্জনের যেমন ছবি আসে তেমনি আসে দাগী আ্সামী আর ঘৃন্য অপরাধীর। এখন কোন আসামী যদি পত্রিকার পাতায় নিজের ছবি দেখে আত্মতৃপ্তি পায় তাহলে যেমন, ঠিক তেমনটাই কেউ অপকর্ম বা অসৎ উপায় অবলম্বন করে নিজেকে গুনী লেখক বা বিরাট সেলিব্রটি মনে করার বিভ্রান্তি ঘটলে।

ধন্যবাদ ও আন্তরিক শুভকামনা রইলো শাহরিয়ার কবীর।

২৮| ১১ ই মে, ২০১৭ রাত ১১:৫৪

ফরিদ আহমদ চৌধুরী বলেছেন: ৥ কাউয়ার জাত
মাল্টি নিকওয়ালা সেই ইসলামী স্কলারের(!) অবস্থা দেখে আমার হাসি পায়। তাকে ব্লগ কর্তৃপক্ষ জেনারেল করে রেখেছে। তার কোন লেখা প্রথম পাতায় আসেনা। অথচ প্রতিটা পোস্ট সর্বাধিক মন্তব্যপ্রাপ্ত হয়! সে নিজেকে স্কলার ভাবেনা। সেজন্য সে জেনারেল থেকে ফিরতেও চায়না। বিশ্বাস না হয় ব্লগ কর্তৃপক্ষকে জিজ্ঞেস করে নিশ্চিত হয়ে নিন সে তাদের কাছে কোন আবেদন করেছে কিনা? হ্যাঁ আমি আবেদন করব সে দিন যে দিন দেখব আমার বিশটি পোষ্ট একাধারে নির্বাচিত পাতায় গিয়েছে। যদি এমনটা না ঘটে তবে হয়ত আমি কোন দিনই আবেদন করব না। বি কজ আমার জেনারেল থাকতেই ভাল লাগে।

২৯| ১২ ই মে, ২০১৭ রাত ১২:১২

চাঁদগাজী বলেছেন:


ব্লগে সমস্যা ছিল, থাকবে; কারণ, এখানে ব্লগিং করছেন সমস্যায় ভরা দেশের লোকজন

১৪ ই মে, ২০১৭ ভোর ৬:৩১

মানবী বলেছেন: ধন্যবাদ চাঁদগাজী।
ভালো থাকুন।

৩০| ১২ ই মে, ২০১৭ রাত ১২:৫৮

স্বপ্নের_ফেরিওয়ালা বলেছেন:
@ফরিদ আহমদ চৌধুরী ভাই, ও নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন, আপনাদের প্রতি সন্মান রেখেই প্রশ্ন করছি, আপনারা দেখি এ পোষ্টে অনেক ভালো কথা বলেছেন কিন্তু আপনাদের পোষ্টে এতো মেয়ে ও ছেলে ব্লগার কই থেকে আসে ? আর তারা শুধু আপনাদের ব্লগেই কেন মন্তব্য করে? যদি একটু এ ব্যপারটা মুখ খুলতেন...

আর নাহয়, এর পরে থেকে একটু দয়া করে দু একটা এ নিকের ব্লগারকে আমাদের দিকে পাঠিয়ে দিবেন......

১৪ ই মে, ২০১৭ ভোর ৬:৪৩

মানবী বলেছেন: এই ব্লগে অনেক কলেজ বিশ্ব বিদ্যালয়ের শিক্ষক আছেন, তাঁদের কারো কারো জনপ্রিয়তা প্রবাদতুল্য। তাঁদের বর্তমান ও সাবেক মিলিয়ে ছাত্রছাত্রী সংখ্যা হাজার হাজার। বুয়েট, বিশ্ববিদ্যালয়ের ঝাঁক ঝাক ছাত্রছাত্রী এখানে ব্লগার। বিভিন্ন মিডিয়া হাউজের সিনিয়র জুনিয়র মিলিয়ে অগুনিত সাংবাদিক এখানে ব্লগিং করেন, তাঁদের কারো মাঝে এমন নির্লজ্জ আচরণ চোখে পড়েনা।
শিক্ষকের পোস্টে, বিশেষ করে ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন শিক্ষকের প্রতিটি পোস্টে মন্তব্য ও ভালোলাগা জানাতে বোধ সম্পন্ন ছাত্রছাত্রী কিছু হলেও দ্বিধা করবে, এতে শিক্ষককেই বিব্রত করা হয়।
যদি দেখা যায়কোন শিক্ষকের সকল পোস্টে তার স্টুডেন্টরা নিয়মিত ভাবে মন্তব্য ও ভালোলাগা জানাচ্ছে, এর দুটো ব্যাখ্যা হতে পারে-
এক. তোষামোদী প্রিয় অসৎ শিক্ষক, তাকে পিঠ চাপড়ে দিলে ব্রাউনি পয়েন্ট পাওয়া যায়, না দিলে উল্টোটা।
দুই. ছাত্রছাত্রী সকলেই ব্যক্তিত্বহীণ চাটুকার। একযোগে যা হবার সম্ভাবনা ক্ষীণ।

স্বপ্নের_ফেরিওয়ালাকে ধন্যবাদ ও শুভকামনা।

৩১| ১২ ই মে, ২০১৭ রাত ১২:৫৮

সচেতনহ্যাপী বলেছেন: দেশ আমাদের নিয়ে আবার ব্লগও আমাদের নিয়েই।। সেক্ষেত্রে দেশের দিকে তাকালেই ব্লগের অবস্থা ..।।
খুবই সুন্দর ভাবেই ব্যাখ্যা করেছেন পুরোটা।। তারপরও দেশকে যেমন ছাড়া সম্ভব না তেমনই বোধহয় ব্লগও।। একসময় সময় কাটাতে আসা এই মাধ্যমটা এখন নেশায় পরিনত হয়েছে।।
ভাল থাকবেন।।

১৪ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:১৭

মানবী বলেছেন: যে কোন অন্যায়ের প্রতি "জিরো টলারেন্স" চর্চাটা আমরা ব্লগের ক্ষুদ্র পরিসর থেকে শুরু করতে পারি। বিন্দু বিন্দু জমে আজ যেমন অন্যায় আর অনৈতিকতার পাহাড় গড়ে উঠেছে, ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র পরিসরে সততার প্রকৃত চর্চা দিয়ে আমরা হয়তো সেই পাহাড় গুড়িয়ে দিতে পারি- অন্তঃত চেষ্টা করে দেখার আশায় এই পোস্টটি।

আন্তরিক ধন্যবাদ সচেতনহ্যাপী।
ভালো থাকুন সব সময়।

৩২| ১২ ই মে, ২০১৭ রাত ১:৩০

কাছের-মানুষ বলেছেন: লেখা শুরু করেছেন ধর্ষন নিয়ে এই বিষয়ে বলব বিচারহিনতার একটা সংস্কেতি তৈরি হয়েছে আমাদের দেশে ! একজন মানুষ নিজের নূর্ন্যতম অধিকারের জন্যও এখানে আন্দোলন করতে হয় অথচ এগুলোতো না চাইতেই পাবার কথা ছিল ! ধর্ষনের বিচারের জন্য আন্দোলন করতে হয় অথচ এগুলোর বিচার এমনিতেই হওয়া উচিৎ অথচ আমাদের দেশে সোচ্চার না হলে কিছুই হয় না !বিচার হলে সব অপরাধ লগারিধমিক হারে এমনিতেই কমে যেত !!

মাল্টি নিক বা এক শেণির ব্লগারের অনৈতিক ব্যাপার বলব কোন ব্যাক্তিত্ব সম্পূর্ন মানুষ এই কাজ করতে পারে না ! অনেকেই লেখার মানের প্রতি যত্নশীল না হয়ে দেখেছি শুধু আলোচিত হতে চায় , কি মজা উপায় কে জানে !! এই বিষয়ে মডারেটর দের একটা নিতিমালা প্রনোয়নের সময় এসেছে অন্তত তাদের বিরুদ্ধে যারা অনৈতিকভাবে আলোচিত পাতায় যেতে চায় মানহীন লেখা দিয়ে।

সুন্দর পোষ্টের জন্য ধন্যবাদ ।

১৪ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৩১

মানবী বলেছেন: চমৎকার বলেছেন, সম্পূর্ণ সহমত আপনার সাথে।

শুধু ধর্ষন নয়, ছিনতাই রাহাজানির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিলে এধরনের অপরাধ অচিরেই নির্মুল সম্ভব! প্রয়োজন শুধু সরকার আর প্রশাসনের সদিচ্ছা- এখন এরাই যখন অপরাধীদের লালন করছে তাই শাস্তির আশা করতেও এখন ভয় হয়।

অপরাধীদের কাছে অন্যায় একরকম নেশার মতো। যে দেশে কৈশোর থেকে পরীক্ষার খাতায় নকল করার মতো অনৈতিকতার মাধ্যমে অন্যায়ের পথে যাত্রা শুরু, সেখানে এধরনের অসৎ উপায় অবলম্বনকারীদের উপস্থিতি থাকাটা স্বাভাবিক। সমস্যা হলো আমাদের নিয়ে, আমরা যারা এধরনের অন্যায় করছি অথচ নির্বিকার থাকছি বা তাদের পিঠ চাপড়ে উৎসাহিত করছি, ব্যর্থতার দায়টা আমাদেরই বেশি।

অনেক অনেক ধন্যবাদ কাছের-মানুষ।
ভালো থাকুন সব সময়।

৩৩| ১২ ই মে, ২০১৭ রাত ২:৪৪

গ্রামের ছোট্র ব্লগার খায়রুল বলেছেন: লেখক কে অনেক অনেক ধন্যবাদ। অনেক ভালো লাগলো।

১৪ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৩৯

মানবী বলেছেন: গ্রামের ছোট্র ব্লগার খায়রুলকেও অনেক অনেক শুভকামনা আর আন্তরিক ধন্যবাদ।

৩৪| ১২ ই মে, ২০১৭ ভোর ৪:০৮

সোহানী বলেছেন: মানবী, সবাই দ্রুত বড়লোক হতে চায় ও সাথে দ্রুত জনপ্রিয় হতে চায় তাই সর্টকাটের পথ ধরে। যে তেল মালিশের লিখায় ২টা মন্তব্য নেই তার পাঠক ৬০০০!!! সেটা বুঝতে সময় লাগে না। তবে মাল্টিনিকের ব্যাপারটা আমার এ মোটা মাথায় আসে না। কারো যদি সময় থাকে তাহলে এক নিকেইতো লিখতে পারে, অসংখ্য নিকে লিখলেতো তালগোল পাকানোর কথা। যাহোক, সবসময়ই কম বোঝার চেস্টা করি।

এবার অাসি দেশের সবচেয়ে মূল সমস্যায়। না, আমরা কখনই এই নরক থেকে বের হতে পারবো না যতদিন সরকারীভাবে শক্ত হাতে দমন না করে। আমি আমার অনেক লিখায় বার বার বলেছি ধর্ষকের উপযুক্ত শাস্তি না হলে কোনক্রমেই তা দমন সম্ভব নয়। তার উপরতো বলেছেন মানিক আর বাকিদের পুরস্কৃত করার কথা। তাহলে কিভাবে আশা করেন দেশের ভালো কিছুর....!!! কখনই কোন অবস্থাতেই সম্ভব নয়।

আর ক্ষমতাশীলদের পৃষ্ঠপোষকতায় মাদকের ব্যবসা চলছে, সেটাই বা কিভাবে বন্ধ হবে??

হাতে হাতে মোবাইল ইন্টারনেট, অবাধে নীল ছবি, স্টার জলসা আর জিবাংলার আধা কাপড়ের নারী.... এসব মাঝে থেকে ধর্ষনতো খুব স্বাভাবিক ...... তাই নয় কি? একটাও কি উদারন দিতে পারবেন যেখানে সরকারীভাবে ধর্ষন বা মাদক ঠেকানোর জন্য কোন উদ্যোগ নিয়েছে?? বরং উল্টোটা....

ভালো থাকেন........

১৪ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৫৫

মানবী বলেছেন: " কারো যদি সময় থাকে তাহলে এক নিকেইতো লিখতে পারে, অসংখ্য নিকে লিখলেতো তালগোল পাকানোর কথা"

-তালগোল পেকে যায় বলেই তো পাঠকদের কাছে ধরা পড়ে, কোন অদ্ভুত কারণে তারা নিজেরা এই তালগোল ধরতে অক্ষম!
উপরে যা বলেছি, যে দেশে কৈশোর থেকেই পরীক্ষার খাতায় নকলের মাধ্যমে অনৈতিকতার পথে যাত্রা শুরু, তারা জীবনের পদে পদে শর্টকাট খুঁজবে এটাই হয়তো স্বাভাবিক।

৩২ নং মন্তব্যের জবাবে সেটাই বলেছি, দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিলে এধরনের অপরাধ অচিরেই নির্মুল সম্ভব! প্রয়োজন শুধু সরকার আর প্রশাসনের সদিচ্ছা- এখন এরাই যখন অপরাধীদের লালন করছে তাই শাস্তির আশা করতেও এখন ভয় হয়।
তবে আমরা যদি সচেতনা হয়ে নিজ নিজ গন্ডী দূর্নীতি মুক্ত রাখতে সচেষ্টা হই, সেক্ষেত্রে বেবিস্টেপে হলেও কিছু পরিবর্তন হয়তো সম্ভব।
আপনাকে অনেক ধন্যবাদ সোহানী।
আন্তরিক শুভকামনা রইলো।

৩৫| ১২ ই মে, ২০১৭ সকাল ১০:০৬

ফরিদ আহমদ চৌধুরী বলেছেন: ৥স্বপ্নের ফেরিওয়ালা
আমার মেয়ে আছে দুইটা আমার কম্পিউারের বর্তমান ব্যাচে প্রশিক্ষনার্থী আছে ৪৯ জন। তো ব্লগের পথটা তাদেরকে আমিই দেখিয়েছি। ডঃ এম এ আলীকে দেখিয়ে বলেছি দেখ এখানে জানার কত সুন্দর বিষয়। কিন্তু ওদেরকে টেনেটুনে কি ফেসবুক থেকে নামান যায়? আমাকে দেখানোর জন্য টুককরে ব্লগে ঢুকে আবার যথারিতি পগারপার। আবার বলে কিনা স্যার এমন ভাবে মন্তব্য করেছি যে কেউ বলতে পারবেনা আমি আপনার ছাত্র। আমার জেনারেল বিষয়ে ওদেরকে বলেছি দেখ আমিই এখানে জেনারেল। এবার বুঝ তবে এখানে লিখতে হলে কতভাল লিখতে হয়।
তাহলে মূল সমস্যা হলো আমার পোষ্ট আলোচিত পাতায় যাওয়া নিয়ে। তো ব্লগের কর্তারা একটা নিয়ম করতে পারেন। তারা বেছে বেছে আলোচিত পাতায় দিলেই পারেন। এখন কারো লেখা কেউ পড়েনা সে খুব ভাল লেখক সেটাইবা কেমন কথা! আমার জেনারেল হওয়া বিষয়েও অনেকের আনন্দ অনেক। ্বামি সাফ বলে দিয়েছি আমি উল্টা-পাল্টা লেখি তাই জেনারেল। যেখানে টাকাওরা পুরস্কাররোনা সেখানে নাম ফুটানো লাগবে কিসে? সুনামের কথা বলছেন? সুনাম ধুয়ে কি পানি খায়? নোয়াখাইল্লারা অলাভ জনক কাজে বেকার খাটেনা।

৩৬| ১২ ই মে, ২০১৭ সকাল ১০:৩২

ফরিদ আহমদ চৌধুরী বলেছেন: ৥স্বপ্নের ফেরিওয়ালা
আমি মেয়ে ও ছাত্রদের কয়েকটা নিক বলে দিয়েছি মাঝে মাঝে তারা সেদিকেও যায়। আমি ফেসবুকে প্রতিদিন একটা করে পোষ্ট দিয়ে থাকে হিসেবমত সেগলো দুই কোটি লোকের কাছে পৌঁছার কথা। টুইটও করি। বুঝতে পারছি ব্লগে লেখালেখি বন্ধ করে দেওয়াই সহজ সমাধান। কিন্তু কথা হলো যারা আমার ব্লগে ঢুকে তারা খালি খালি ফিরে যাক সেটাও কেন জানি মন চায়না। তো ফেস বুকের মতো এখানেও পোষ্ট দিলেতো আমার পোষ্ট সংখ্যা চারশত ছাড়ানোর কথা ছিল।

৩৭| ১২ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:২১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: মাল্টি নিক আত্বপ্রবঞ্চনার শামিল, যদিও অনেকে গর্ব করে প্রচার করে তার মাল্টি নিক আছে।

১৫ ই মে, ২০১৭ রাত ১:২৫

মানবী বলেছেন: গর্ব করে মাল্টিনিক প্রচারের মতো কাজ করে! আসলে বোধবুদ্ধি লোপ পেলেই কেউ অণুধাবনে অক্ষম হয় যে মাল্টিনিক নিয়ে আত্মপ্রচার কতোখানি লজ্জার আর গ্লাণিকর!

আন্তরিক ধন্যবাদ গিয়াস উদ্দিন লিটন।
অনেক ভালো থাকুন।



"প্রবঞ্চনার" এই যুক্তাক্ষর (ঞ্চ) লিখতে অনেকবার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছি!

৩৮| ১২ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৩২

নাগরিক কবি বলেছেন: অনেক সুন্দর ও বিষদ আলোচনা করেছেন। ধন্যবাদ। আর মাল্টি নিক চালানো মানুষের এখন ভাইরাস সংক্রমণ এর মত। যেন আলোচিত ব্লগে যেতেই হবে ৫/৬ টা নিক দিয়ে। :(

১৫ ই মে, ২০১৭ রাত ১:৩৯

মানবী বলেছেন: ৫/৬ টির বেশি আছে কারো কারো। আসলে এরা অণুধাবনে অক্ষম এমন অনৈতিকভাবে আলোচিত পোস্টে যাওয়া শুধু নামটি খারাপ করে, সপরিচিত আসেনা। এই পোস্টের মন্তব্যগুলো প্রমাণ করে অধিকাংশ ব্লগার নিরন থাকলেও তাঁরা সকলেই খুব ভালোভাবে জানেন কে করছে, বিযয়টি যথেষ্ট অপমানকর হবার কথা।

আর যাঁরা এই অপকর্মটি করছেনা, তাঁরা এদের সকল পোস্ট বয়কত করলেই অপচর্চা পুরপুরি বন্ধ সম্ভব, তবে অনেকেই তা করতে অক্ষম!

অনেক ধন্যবাদ ও আন্তরিক শুভকামনা নাগরিক কবি।

৩৯| ১২ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৪২

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: মাল্টি নিক আত্বপ্রবঞ্চনার শামিল, যদিও অনেকে গর্ব করে প্রচার করে তার মাল্টি নিক আছে।

। আমার সাফ কথা ভাল লিখা গুলো গুরুত্বপাক । নতুন পুরোনো নিয়ে ভাবছিনা । আমি নতুন ব্লগার পুরোনোদের কাছে অনেক বিষয়ে শিখেছি। উৎসর্গ ভাল লেগেছে :)

১৫ ই মে, ২০১৭ রাত ১:৫৩

মানবী বলেছেন: লেখা ভালো মন্দর ব্যাপারটি অনেকটাই আপেক্ষিক। তবে অনৈতিক ভাবে বা তোষামোদীর আশ্রয় নিয়ে আলোচিত পোস্টে স্থান পাবার ব্যাপারটি নিঃসন্দেহে গ্লাণিকর, যারা এমনটা করে তারা নিঃসন্দেহে এই গ্লাণিবোধশূণ্য হয়ে থাকে।

আন্তরিক ধন্যবাদ ও শুভকামনা সেলিম আনোয়ার।

৪০| ১২ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৪৯

এরশাদ বাদশা বলেছেন: ওই একটি জায়গায় আপনার সাথে আমি সম্পূর্ন একমত। ছাত্রলীগ আর তাদের দোসরদের হাতে এরকম বহু ঘটনা ঘটেছে, যেগুলোর কোন প্রতিকারই হয়নি।
আমি আয়শা আর তার বাবার আত্মহননের ঘটনাটা পত্রিকায় পড়ে চোখের পানি ধরে রাখতে পারিনি। মেয়ের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে না পারা সেই অক্ষম পিতার জায়গায় নিজেকে কল্পনা করে শিউরে উঠেছি। তনুর বেলায়ও একই ঘটনা ঘটেছে। সম্ভবত আর্মির অফিসার কিংবা জওয়ানদের হাতে তার সম্ভ্রম এবং জীবন যাওয়াতেই তাকে নিয়ে সরকারের কোন পর্যায় থেকেই একটি টূঁ শব্দও করা হয়নি। তনু হারিয়ে গেছে, তার পরিবারও বিচারের আশা ছেড়ে দিয়েছে। সাধারণ মানুষ অনেক প্রতিবাদ করেছে, কিন্তু তাতে কর্ণপাত করার সময় কোথায় সরকারের, পাছে আর্মিকে চটিয়ে দিলে যদি গদি উল্টে যায়!
বিচারহীনতার এই সংস্কৃতিই ধর্ষনের স্রোতকে বেগবান করছে। প্রধানমন্ত্রী ধর্ষকের দ্রুত বিচার এবং ধর্ষিতাকে সাহা্য্য করার জন্য আলাদা একটি ফোর্স গঠন করবেন, যাদের কাজই হবে অভিযোগ পাওয়া মাত্র দ্রুত কাজে নেমে পড়া। হেল্পলাইন নাম্বার চালু করা যেখানে চব্বিশ ঘন্টা কমপ্লেইন রিসিভ করা হবে এবং দ্রুত অন দ্যা স্পটে গিয়ে ব্যবস্থা নিতে হবে। ধর্ষিতাকে অভিযোগ করার জন্য থানায় গিয়ে যাতে ধর্ণা দিতে না হয়।
করা যায়, আন্তরিক হলেই করা যায়। ধর্ষক সাফাত আর সাকিফ ধরা পড়েছে, অন্যজন এখনো পলাতক। কুলাঙ্গারগুলোর সর্বোচ্চ সাজা চাই, কোন ছাড় যাতে না পায়।

১৫ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:২৫

মানবী বলেছেন: ক্যান্টনমেন্টে ধর্ষিতা একজন তনুকে নিয়ে যে আলোচনার ঝড় উঠেছিলো তার শতভাগের এক ভাগ আলোচনা হতে দেখিনা প্রতিদিন ছাত্রলীগ আর আওয়ামিলীগের কুলাঙ্গারদের দ্বারা ধর্ষিতা, লান্ছিতাদের পক্ষে।
শুধু কি তাই, আমাদের হালিমার নামটি পর্যন্ত সেভাবে প্রচার পায়না, হালিমা সেই তরুনী কন্সটেবল যে ধর্ষিতা হবার পর আত্মহত্যা করেছে।

"প্রধানমন্ত্রী ধর্ষকের দ্রুত বিচার এবং ধর্ষিতাকে সাহা্য্য করার জন্য আলাদা একটি ফোর্স গঠন করবেন, যাদের কাজই হবে অভিযোগ পাওয়া মাত্র দ্রুত কাজে নেমে পড়া। হেল্পলাইন নাম্বার চালু করা যেখানে চব্বিশ ঘন্টা কমপ্লেইন রিসিভ করা হবে এবং দ্রুত অন দ্যা স্পটে গিয়ে ব্যবস্থা নিতে হবে। ধর্ষিতাকে অভিযোগ করার জন্য থানায় গিয়ে যাতে ধর্ণা দিতে না হয়। "
-সুন্দর পরামর্শ তবে শুধু দূরাশা।

একজন খালেদা জিয়া, একজন শেখ হাসিনার শূধু এতোটুকু সদিচ্ছা যথেষ্ট এদেশ থেকে হায়নার পালের তান্ডব অবসানে। হাসিনা এখন ক্ষমতাসীন, তার দলের কর্মিদের আচরণ দেখে মনে হয়, আশেপাশের নারীদের প্রতি তাদের অধিকার জন্মগত।
প্রধানমন্ত্রী যদি আজ এই মুহুর্ত থেকে ধর্ষন, ইভটিজিং এর প্রতি জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেন এবং দুচারজন অপরাধীকে অবিলম্বে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়, এ সপ্তাহের মাঝে এই নারকীয় উল্লাস থেমে যেতে বাধ্য।

প্রচন্ড বিষন্নতায় বিবশ হয়ে আছি মনে হয় ভাইয়া- ছোট্ট শিশু, পুলিশ কেউ রেহাই পাচ্ছেনা এই নরপশুদের কাছ থেকে। ভারত থেকে চাল ডাল আমদানির সাথে সাথে সেখান থেকে ধর্ষকেরা এদেশে পাড়ি জমিয়েছে কিনা বুঝতে পারছিনা।

আপনি অনেক অনেক ভালো থাকুন।
নিরাপদে থাক আপনার রাজকন্যারা।

৪১| ১২ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৫২

বিলিয়ার রহমান বলেছেন: হ্যাটস অব টু ইউ আপি!:)


+++

১৫ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৮

মানবী বলেছেন: শুভকামনা বিলিয়ার রহমান।

৪২| ১২ ই মে, ২০১৭ দুপুর ২:১০

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: আপু, যে ধরণেরই ধর্ষণ হোক না কেন, তার প্রতিবাদ করা উচিৎ। একত্রিত ভাবে করতে পারলে অনেক ফলদায়ক হয়। আপনার লেখা পড়েই অনুপ্রাণিত হয়ে এই পিটিশনে সাইন করেছি- Death Sentence as a punishment to a rapist in Bangladesh

এর বেশি একজন সাধারণ একজন নাগরিক হিসেবে করা মনে হয় সম্ভব নয় আমার পক্ষে।

ভালো থাকুন।

১৩ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:১৫

মানবী বলেছেন: আন্তরিক ধন্যবাদ ভাইয়া। আপনার এই মন্তব্যটি আমার সামান্য পোস্টটিকে স্বার্থক করেছে।

যদি্ও এই পোস্টটি আর খুব বেশি জনের পড়ার সম্ভাবনা কম, তারপরও পোস্টের শুরুতে পিটিশনের লিংকটি যুক্ত করেছি। কেউ আগ্রহী হলে সাইন করবে।


পিটিশনটিতে স্বাক্ষরের আহ্বান জানিয়ে আপনি একটি পোস্ট দিতে পারেন। দীর্ঘকাল আগে একটি পিটিশনে স্বাক্ষরের অনুরোধ জানিয়ে পোস্ট করেছিলাম, যদি কোন কাজে আসে তাই শেয়ার করছি।

অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া।
ভালো থাকুন সব সময়।

৪৩| ১২ ই মে, ২০১৭ দুপুর ২:৪৩

করুণাধারা বলেছেন: প্রিয় মানবী, ব্লগ থেকে দূরে ছিলাম - মন্তব্য করতে দেরি হল।

প্রতিবার মনে হয় এবার বুঝি ধর্ষণের বিচার হবেই, কিন্তু ঠিকই দেখা যায় আসামী পিছলা মাছের মত আইনের হাত ফসকে বেরিয়ে যায়। তনুর ধর্ষণ ও মৃত্যুর পর মনে হচ্ছিল এবার বিচার হবেই। হয় নি। আয়েশার ফলো আপ কই? আমরা ব্যস্ত নতুন ধর্ষণ নিয়ে। এরপর আরেকটা ধর্ষণ হবে, ভুলে যাব এটা।

একবার দেশে এসিড ছোঁড়া খুব বেড়ে গেছিল। এরশাদের সময়, সম্ভবত ৮৩/৮৪ সালে দুই এসিড নিক্ষেপকারীর ফাঁসি হয়। তারপর এসিড নিক্ষেপ একেবারে কমে গেছিল। আপনার মনে হয় তেমন কিছু এবার হবে? একমাত্র তাহলেই এসব বন্ধ হবে।

আলোচিত হিসাবে নিজের পোস্টকে আনতে যারা মিথ্যাচার করে তাদের ধিক্কার জানাই।

ধন্যবাদ চমৎকার পোস্টটির জন্য।+++++

ভাল থাকুন সবসময়।

১৫ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৫৬

মানবী বলেছেন: মাঝে মাঝে কিছু ঘটনা, কিছু মানুষ আমকে ভীষণভাবে আচ্ছন্ন করে রাখে, মনে হয় মৃত্যুর পরও খুব জীবন্ত হয়ে সামনে এসে দাঁড়িয়েছে। বোবা কষ্টে বিবষ হয়ে আছি আপু।

দেব শিশু আয়শা আর তার বাবার হত্যাকারীরা আজও বুক ফুলিয়ে মুক্ত হাওয়ায় ঘুরছে।
ময়মনসিংহের কন্সটেবল হালিমা খাতুনের কুলাঙ্গার ধর্ষক এস আই মিজানুল আর অপরাধী ওসি দেলোয়ার আহমেদ পুলিশ বাহীনির দেয়া নিরাপত্তা বেষ্টনীর মাঝে নিশ্চিন্তেই আছে।

এক সামান্য আলোচিত পোস্টে নাম দেখাতে আমরা দূর্নীতি আর অন্যায়ের আশ্রয় নিতে দ্বিধা করিনা সেখানে এরা নিজেদের বাঁচাতে অপরাধের পর অ্পরাধ করবে, দুটো পয়সার লোভে রক্ষকেরা ভক্ষক হয়ে উঠবে- এমনটাই স্বাভাবিক মনে হয়।

অনেক অনেক ধন্যবাদ আর আন্তরিক শুভকামনা করুণাধারা।

৪৪| ১৩ ই মে, ২০১৭ সকাল ১০:২৬

এরশাদ বাদশা বলেছেন: বিলিয়ার রহমান বলেছেন: হ্যাটস অব টু ইউ আপি!:)

''হ্যাটস অব"!!!! :P

১৬ ই মে, ২০১৭ সকাল ১০:৪৭

মানবী বলেছেন: .

:-)

৪৫| ১৩ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৪০

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: এ নিয়ে একটি লেখা রেডি করে রেখেছি। নতুন ব্লগার বলে এখনো প্রথম পৃষ্ঠায় লেখা্র সুযোগ পাইনি। পেলেই পোস্ট করবো।

বিভিন্ন দেশে ধর্ষণের শাস্তি নামক লেখাটি রেডি করতে করতেই জানতে পারলাম, Liechtenstein নামের একটি দেশে ২০১০ সাল পর্যন্ত একটিও ধর্ষণ হয়নি!

আপনাকে আবারো ধন্যবাদ।

১৬ ই মে, ২০১৭ সকাল ১০:৪৯

মানবী বলেছেন: লেখা রেডি জেনে ভালো লাগলো। আশা করি শীঘ্রই আপনি প্রথম পাতায় লেখার সুযোগ পাবেন।

ধন্যবাদ সত্যপথিক শাইয়্যান।
ভালো থাকুন।

৪৬| ১৩ ই মে, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:১৯

ভ্রমরের ডানা বলেছেন: সেলিম আনোয়ার বলেছেন: গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: মাল্টি নিক আত্বপ্রবঞ্চনার শামিল, যদিও অনেকে গর্ব করে প্রচার করে তার মাল্টি নিক আছে।

আমিও তাই!

১৬ ই মে, ২০১৭ সকাল ১০:৫৬

মানবী বলেছেন:
ধন্যবাদ আর শুভকামনা রইলো ভ্রমনের ডানা।

৪৭| ১৩ ই মে, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৩৯

হাতুড়ে লেখক বলেছেন: ব্লগ ছাড়তে হবে।

১৬ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:০২

মানবী বলেছেন: কেনো বুঝতে পারছিনা!!
ধন্যবাদ হাতুড়ে লেখক, ভালো থাকুন।

৪৮| ১৩ ই মে, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:২২

জুন বলেছেন: আমাদের এই ক্ষুদ্র প্লাটফর্মটিতে অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে শিখলে, নীতিবর্জিতদের প্রতিহত করার মাধ্যমেই শুরু হোক সত্য ও ন্যায়ের পথে যাত্রা! আমরা নিজ নিজ পরিসরকে দূর্নীতি মুক্ত করায় দৃঢ় প্রত্যয়ী হলে, এক সময় সিস্টেম প্রশাসন দূর্নীতি মুক্ত হতে বাধ্য হবে। সেদিন ধর্যক, খুনিদের বিচারও নিয়মিত নিশ্চিত!
+

১৬ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:০৮

মানবী বলেছেন: ধন্যবাদ আর শুভকামনা জুন।

৪৯| ১৪ ই মে, ২০১৭ রাত ১২:৪১

নাগরিক কবি বলেছেন: আপু ঘুরতে আসলাম B-)

১৬ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:১৬

মানবী বলেছেন: ভালো লাগলো ভাইয়া :-)

শুভকামনা রইলো।

৫০| ১৪ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৪:৫৬

তরুন ইউসুফ বলেছেন: অনেক কিছু জানতে পারলাম। ধন্যবাদ মানবী

১৬ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১:২৬

মানবী বলেছেন: জানাতে পেরে পোস্টটি স্বার্থক হলো :-)

আন্তরিক ধন্যবাদ আর শুভকামনা রইলো তরুন ইউসুফ।

৫১| ১৪ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৫:৩০

অগ্নি সারথি বলেছেন: এদের কেউ কেউ আমার অত্যন্ত প্রিয় ব্লগার তাই তাদের অনৈতিক আচরণটি অনেক বেশী পীড়াদায়ক! পোস্ট করার কয়েক মিনিটের মাঝে নিয়মিত ভাবে তাদের সাধারণ মানের লেখাটি আলোচিত পোস্টে চলে যাওয়ায় হতভম্ব হয়ে লক্ষ্য করি এরা নিজের মাল্টিনিক নিয়ে নিজেদের পিঠ চাপড়ে যাচ্ছে। মনে রাখা জরুরী, যে কোন অন্যায় করতে হলেই নিজের নীতি বিসর্জন দিয়েই করতে হয়, লজ্জা সম্পূর্ণ ঝেড়ে ফেলেই শুধু এমনটা করা সম্ভব। আত্মমর্যাদাবোধ আর লজ্জা নিঃসন্দেহে এমন ঠুনকো পরিচিতির চেয়ে হাজার গুন বেশী মূল্যবান।
যে অপরের লেখা চুরি নিয়ে বড় বড় কথা বলছে এধরনের নির্লজ্জ আচরণ করে সে নিজেও যে একপ্রকারের চোর তা হয়তো বুঝতে পারছেনা। নিজের পোস্ট ভিন্ন নিকে ভালোলাগা জানানো, নিজের পোস্টে নিজেকে প্রশ্ন করে পরবর্তী পোস্ট দিতে উৎসাহিত করা- কখনও সৎ লোকের কর্ম নয়। - আসলে এসব চোর ব্লগারদের দিয়ে আজ পুরো ব্লগ ভর্তি। মান সম্মত লেখা-র চেয়ে অন্য ব্লগারকে তেল-তোয়াজ করে বেশি লেখা আসছে। ব্লগ জেনারেশন একটা 'ফাকিং হিট সিকার' জেনারেশনে পরিনত হচ্ছে যেটা কোনভাবেই কাম্য নয়। হয়তোবা একারনেই ভাল লেখকগন ব্লগটা ছেড়ে দিচ্ছেন। সঠিক জায়গাটা দেখিয়ে দেবার জন্য স্যালুট মানবী।

১৭ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৫৬

মানবী বলেছেন: আপনাকে ধন্যবাদ অগ্নি সারথি।
শুভকামনা রইলো।

৫২| ১৪ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৫:৪৯

বাকরখানি বলেছেন: ব্লগটা নোংরা হয়া গেছে কয়েকজন আন্ধা হিটখোর আর উদ্ধত বেয়াদবের কারণে।

১৭ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৫৯

মানবী বলেছেন: বয়ঃজেষ্ঠ হলে বেয়াদব বলা যায়না মনে হয়, তবে অন্ধকার কুয়োর ব্যাঙকে নিঃসন্দেহে কূয়োর ব্যাঙ বলাই যায়- যে হঠাৎ আলোর ঝলকানি দেখে নিজের প্রতিবিম্ব ভেবে আত্মতৃপ্তি লাভ করে।

আন্তরিক ধন্যবাদ বাকরখানি।
ভালো থাকুন সব সময়।

৫৩| ১৫ ই মে, ২০১৭ সকাল ১০:৪৭

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: সময় পেলে এখানে এসে পোস্ট পড়ি। কিন্তু এখানেও এমন অসৎ ব্যক্তিদের রাজত্ব চলছে জেনে বিচলিত হলাম।

শুভকামনা সবার জন্য। শুদ্ধ বোধ জাগ্রত হোক।

১৭ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:০৬

মানবী বলেছেন: সকলের শুদ্ধ বোধ জাগ্রত হোক।
-সহমত

ধন্যবাদ জুনায়েদ বি রাহমান।

৫৪| ১৫ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:১০

সাহসী সন্তান বলেছেন: পুরো পোস্টের বিষয়বস্তুর সাথে সহমত হইলেও লেখার ধারাবাহিকতাটা কেমন জানি অন্যরকম লাগলো। একটা বিষয় নিয়ে পড়তে পড়তে হঠাৎ কইরা কড়া ব্রেক দিয়া পাঠককে ভিন্ন দিকে ঘুরে যাইতে বাধ্য করা হইছে। যার ফলে এখানে মূল বিষয়বস্তুটা লঘু হইয়া (ধর্ষণ সংক্রান্ত লেখাটার কথা বুঝাইলাম) পাঠকের কাছে একটা সাধারণ বিষয় হাইলাইট হইয়া গেছে বেশি!

গত কয়েকদিন ধইরা পেপার-পত্রিকায় এই ধর্ষণ নিয়াও লেখা পড়তে পড়তে এক প্রকার বিরক্ত হইয়া গেছি। আর এই বিরক্ত হওয়ার অন্যতম কারণ হইলো, আমাদের সাংঘাতিক (সাংবাদিক) ভাইয়ুমনিরাও এক্ষেত্রে মূল বিষয়টা চাপা দিয়া যতসব ফালতু বিষয় গুলাই হাইলাইট করতাছে বেশি। সাফাত (ধর্ষক) এই করছে, সাফাত সেই করছে, জেল খানায় সাফাতের রাতের খাবার কি ছিল, সাফাতের কয়টা বউ ছিল, কয়টা মেয়ে বান্ধবী ছিল ইত্যাদী ইত্যাদী।

আরে ভাই, আজকের বিচারে সাফাত একজন ধর্ষক ছাড়া আর কিচ্ছু না। আর ধর্ষণ মামলায় তার কি হইতাছে তোরা সেই খবর প্রচার কর? সাফাত কে নিয়া যদি তোদের এতই আগ্রহ থাকে, তাইলে প্রয়োজনে তার জন্য তোরা একটা আলাদা ম্যাগাজিন বের কর? আমরা শুধু জানতে চাই ধর্ষক নামধারী ঐ কুত্তার বাচ্চার শাস্তি হইবে কবে (?) সেটাই!

এবার আপনার পোস্টের দ্বিতীয় অংশটা নিয়ে বলি। আলোচিত পোস্টের ব্যাপারে আমার সারাজীবনের আপত্তি। আমার কথা হইলো, এই ব্লগ প্লার্টফর্মটার যাবতিয় বিষয় গুলিই যদি মডারেটর দ্বারা নিয়ন্ত্রন করা সম্ভব হয়; তাইলে ঐ সামান্য আলোচিত ব্লগটাকে সয়ংক্রিয় রাখার কি আদৌ কোন যুক্তি আছে? এই বিষয় সম্পর্কে বলতে আমি ৩২ নং মন্তব্যকারীর একটা লাইন কোট করলাম- "এই বিষয়ে মডারেটরদের একটা নীতিমালা প্রণয়নের সময় এসেছে। অন্তত তাদের বিরুদ্ধে, যারা অনৈতিকভাবে আলোচিত পাতায় যেতে চায় মানহীন লেখা দিয়ে।"

হালের আলোচিত ব্লগার ফরিদ আহমদ চৌধুরী সাহেবের কিছু ফালতু যুক্তি দেখলাম। সত্যি বলতে আমি উনার মেধার প্রশংসা না কইরা পারি না। কারণ একজন ব্যক্তি একই ভাবে কমপক্ষে ২০ থেকে ২৫ টা মাল্টি নিয়ন্ত্রন করতে সম্ভবত এই প্রথম আমি কাউকে দেখলাম। ভুল ভাইবেন না আপা, ২০-২৫ টা মাল্টির আইডি আর পার্সওয়ার্ড সংরক্ষনে রাখাটাও কিন্তু চারটেখানি কথা নয়! ;)

ফরিদ আহমদ চৌধুরী যু্ক্তি দিছেন, উনার পোস্টে মন্তব্যকৃত সবগুলা মাল্টিই নাকি উনার ছত্রাক আর ভাইরাস (ছাত্র-ছাত্রী) বৃন্দ। কিন্তু উনি মনে হয় জানেন না, এই ব্লগেই এমন অনেক টেকনিক্যাল ব্লগার আছেন; যারা একটা নিকের গতিবিধী দিয়ে সেই নিকের যাবতিয় ছাইয়ারে কালেক্ট করবার পারে। তয় আমি কিন্তু উনার চনেটের বড় গুণমুগ্ধ ভক্ত! কি যে চুলের মাথা লেখে, তা কেবল উনিই জানেন! আমি নিশ্চিৎ, সনেটের নামে উনি যেসব চনেট গুলা রচনা করেন, তা যদি মাইকেল পড়তো; তাইলে নিশ্চিতভাবে গলায় দঁড়ি দিয়া মইরা যাইতো! X(

আমি ফেসবুকে প্রতিদিন একটা করে পোষ্ট দিয়ে থাকে হিসেবমত সেগলো দুই কোটি লোকের কাছে পৌঁছার কথা। টুইটও করি।

- এই কথা শোনার পরে আমি জ্ঞানহারা হইলাম না কেন, এইটাই হইলো জাতির জন্য সবথেকে বড় প্রশ্ন! গেয়ানের চিপায় আমার এখন গর্ভবতী হইয়া যাওয়ার দশা হইছে! =p~ এক লাইন পোস্ট লিখতে যে দশটা বানান ভুল করে, সে দুইকোটি মানুষের কাছে কি যে পৌঁছাইতেছে, আল্লায় ভাল জানেন। চৌধুরী সাহেব, ফেবু-টুইটারে আমিও আছি। আর আমি চাই না এমন একজন গেয়ানী ব্যক্তি আমার ফেরেম লিস্টের বাইরে থাকুক। এড মি আইএম বুলাক! ;)

পোস্টে ভাল লাগা! আর সাথে ৩০ নং মন্তব্য এবং প্রতি উত্তরেও! জাস্ট অসাধারণ একটা প্রতিউত্তর করছেন! শুভ কামনা রইলো!

১৭ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:২৯

মানবী বলেছেন: "একটা বিষয় নিয়ে পড়তে পড়তে হঠাৎ কইরা কড়া ব্রেক দিয়া পাঠককে ভিন্ন দিকে ঘুরে যাইতে বাধ্য করা হইছে। যার ফলে এখানে মূল বিষয়বস্তুটা লঘু হইয়া (ধর্ষণ সংক্রান্ত লেখাটার কথা বুঝাইলাম) পাঠকের কাছে একটা সাধারণ বিষয় হাইলাইট হইয়া গেছে বেশি!"

-সাহসী সন্তানের মন্তব্যের স্টাইল যেমন "হইয়া গেছি" "কইরা ফ্যালাইছি" টাইপ তেমনি মানবী'র ব্লগিং স্টাইল হঠাৎ ব্রেক করে ঝাঁকুনি দিয়ে মোড় ঘুড়িয়ে দেয়া!
আমার লেখালেখির ক্ষমতার সীমাবদ্ধতার কারণেই আপনার কাছে স্পষ্ট হয়নি পোস্টের মূল বিষয়বস্তু। পোস্টের মূল উদ্দেশ্য সমস্যার মূলে আলোকপাত করা- এক্সক্লুসিভলি ধর্ষণ সংক্রান্ত আলোচনায় শুধু অগুনিত ব্লগ কেনো পত্রিকা, টিভি চ্যানেল, সোশ্যাল মিডিয়া সকলেই সরব।

সামহয়্যারইনব্লগের এক অদ্ভুত পোকার কারণে আমার বেশ কিছু পোস্টে মন্তব্যের কাউন্ট হঠাৎ মাইনাস থেকে শুরু হয়, এখানেও তেমনটি হওয়ায় আপনার উল্লেখ করা ৩০ নং মন্তব্যটি বর্তমানে ২৮ নং হয়ে গেছে :-)

বিস্তারিত মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ সাহসী সন্তান।
আন্তরিক শুভকামনা রইলো।

৫৫| ১৫ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:২৯

নাদিম আহসান তুহিন বলেছেন: নিজের লেখাটি আরো অধিক সংখ্যক জেনুইন পাঠকের কাছে পৌঁছে দিতে নিজের পোস্টের সকল মন্তব্যের জবাব দিন আর অন্যদের পোস্টে মন্তব্য করুন- এটাই এখানে নিজের বক্তব্য তুলে ধরার সবচেয়ে সুস্থ সুন্দর উপায়।


আমার একটা পোস্টেও আপনার এইরকম একটি মন্তব্য পেয়ে উৎসাহিত হয়েছিলাম। এবং এরপরের দিনই আমার আরেকটি পোসাত সর্বাধিক পঠিত হিসেবে নির্বাচিত পোস্টে স্থান পেয়েছিলো। আপনার এই উপদেশটি নতুনদের জন্য সবসময়ই অনুকরণীয়।

১৭ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৩৩

মানবী বলেছেন: আপনার লেখার গুনে পোস্টটি সর্বাধিক পঠিত হয়ে "আলোচিত পোস্টে" স্থান করে নিয়েছে, আমার পরামর্শটি আপনার লেখাটি শুধুমাত্র কিছু পাঠকের কাছে পৌঁছে দিতে সাহায্য করেছে মাত্র।


পরীক্ষা ভালো হয়েছে আশা করি নাদিম আহসান তুহিন।
আন্তরিক ধন্যবাদ আর শুভকামনা রইলো।

৫৬| ১৫ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৪

মোস্তফা সোহেল বলেছেন: লেখাটি পড়লাম। সাথে সব মন্তব্য । ভাল একটি বিষয়ে উপস্থাপনা করেছেন।
মানুষ সামান্য খ্যাতির জন্য কত কিছু করতে পারে তা সামুতে এসে দেখতে হল।
আমি বিষয়টা খেয়াল করেছিলাম। ভাবছিলাম এ বিষয়ে কিছু লিখি কিন্তু সময়ের অভাবে লেখা হয়নি।
আপনার এই লেখাটি পড়ে তাদের যদি হুশ ফেরে।
যাদের লেখা পড়ে মনে শ্রদ্ধা আসে তারাই যদি এসব ফালতু কাজ করে তবে তখন কেমন খারাপ লাগে।
অনেক ধন্যবাদ মানবী আপু।

১৭ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৯

মানবী বলেছেন: "মানুষ সামান্য খ্যাতির জন্য কত কিছু করতে পারে তা সামুতে এসে দেখতে হল।"

- এটাকে খ্যাতি বলেনা ভাইয়া। একটু লক্ষ্য করলে দেখবেন প্রায় অধিকাংশ ব্যাপারটি সম্পর্কে অবগত ছিলেন, আর যাঁরা আইটি লাইনের তাঁরা তো আরও অনেক ডিটেইল জানেন। এই বিষয়টি অপকর্ম যারা করে তারা জানেনা বা বুঝেনা।

আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ মোস্তফা সোহেল।
ভালো থাকুন সব সময়।

৫৭| ১৬ ই মে, ২০১৭ রাত ১:৪৪

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: আপু, শুধু জানাতে এলাম, পিটিশনে সাইনকারীদের সংখ্যা বাড়ছে আপনি এখানে এড করার পর থেকে। সুদূর জার্মানি থেকে Anita Kanitz-ও যোগ দিয়েছেন আমাদের সাথে।

১৭ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৫৮

মানবী বলেছেন: জেনে ভালো লেগেছে ভাইয়া, আপনার প্রচেষ্টার কারণেই ঘটেছে।

আপনি এবং আপনাদের আরেকটু সচেষ্টা হয়ে যথাশীঘ্রি পিটিশনটি তে স্বাক্ষরের অণুরোধ জানিয়ে পোস্ট দেয়া জরুরী।
আপনি বা আর কেউ যদি প্রথম পাতায় এর মাঝে এ্যাকসেস পেয়ে থাকে, তনি করতে পারেন।

অনেক অনেক ভালো থাকুন সত্যপথিক শাইয়্যান।
আপডেট জানানোর জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ।

৫৮| ১৬ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:১৫

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: চমৎকার পোস্ট। আপনি যে বিষয়গুলোতে আলোকপাত করেছেন, তা নিয়ে ব্লগারদের ইতিবাচক সাড়া নিঃসন্দেহে দারুন একটি ব্যাপার। গুরুত্বপূর্ন এই পোস্টটি সকলের আরো নজরে আসা উচিত।

তাই অনুগ্রহ করে পোস্টের বানানগুলো পুনরায় পরীক্ষা করে দেখার অনুরোধ রইল। কোথাও কোন সংশোধন প্রয়োজন হলে দ্রুত তা সম্পন্ন করে আমাদেরকে জানান।

শুভেচ্ছা রইল।

১৬ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:২৭

মানবী বলেছেন: কাল্পনিক_ভালোবাসা, ধন্যবাদ আপনার সুন্দর মন্তব্যের জন্য।
বানানের ভুল যদি বুঝার ক্ষমতা থাকে বানান কি ভুল হয় ভাইয়া? আমার আর সব জ্ঞানের মতো বানানে দক্ষতাও খুব দুর্বল।
একটি পোস্ট লিখেছি, বাহিনী হবে না বাহীনি তা নিয়ে সংশবে পোস্ট করছিনা!!

কোন ভুল বানান আপনার বা আর কারো চোখে পড়লে অবশ্যই সংশোধন করে দিবো।

আন্তরিক শুভ কামনা রইলো।

৫৯| ১৬ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৪৪

করুণাধারা বলেছেন: খুব সুন্দর, পাকা হাতে আঁকা একটা ছবির মধ্যে খুব ছোট একটা ভুল চোখে পড়লে আফসোস হয়, কেন শিল্পীর এটা চোখে পড়ল না। অথচ দেখুন ভাল নয় এমন ছবিতে হাজারটা ভুল থাকলেও আমরা খেয়াল করিনা। আপনার পোস্টটাকে নিঁখুত দেখতে চান বলেই হয়ত কাভার আফসোস, আমারও।

উৎসর্গ হবে।

ভাল থাকুন, শুভকামনা।

১৬ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:০২

মানবী বলেছেন: আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা আপু।
আমার যেকোন পোস্টের বানান ভুল সংশোধন করে দিলে কৃতজ্ঞ হবো।

বাহিনী সঠিক না বাহীনি- খুব এলোমেলো মনে হয়!!!

অনেক অনেক ভালো থাকুন প্রিয় করুণাধারা।

৬০| ১৬ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৩১

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: আমি যথাসম্ভব আপনাকে সাহায্য করার চেষ্টা করছি।

১। আর্শিতে প্রতিবিম্ব: শুদ্ধিকরণের শুরুটা হোক এখান থেকেই......(উৎস্বর্গ সকল নবীন ব্লগার) <
আরশিতে প্রতিবিম্ব: শুদ্ধিকরণের শুরুটা হোক এখান থেকেই......(উৎসর্গ সকল নবীন ব্লগার)

২। গত সাত আট বছর ধরে দেশ জুড়ে ধর্ষনের মহামারী চলছে। জনগণ নিয়ম করে প্রতি বছর দুচারটি ধর্ষন আর হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে, অপরাধীর বিচারের দাবীতে মিছিল মিটিং আর প্রতিবাদ সভা করে আবার যে যার কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়ছে। ফলাফল? ধর্ষনের সংখ্যা প্রতিদিন এক্সপোনেনশিয়াল হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। <
- গত সাত আট বছর ধরে দেশ জুড়ে ধর্ষণের মহামারী চলছে। জনগণ নিয়ম করে প্রতি বছর দুচারটি ধর্ষণ আর হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে, অপরাধীর বিচারের দাবীতে মিছিল মিটিং আর প্রতিবাদ সভা করে আবার যে যার কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়ছে। ফলাফল? ধর্ষণের সংখ্যা প্রতিদিন এক্সপোনেনশিয়াল হারে বৃদ্ধি পেয়েছে।

৩। এধরনের প্রতিবাদ এখন শুধুই প্রহসনে পরিণত হয়েছে মাত্র।
দুচারদিন হৈ চৈ এর পর এসব হত্যাকারী, ধর্ষকের পাল হাসিমুখে দাপটের সাথে ঘুড়ে বেড়ায় আর ধর্ষিতারা বেছে নেয় আত্মহননের পথ অথবা জীবন্মৃত হয়ে বেঁচে থাকে।

- এধরনের প্রতিবাদ এখন শুধুই প্রহসনে পরিণত হয়েছে মাত্র।
দু-চারদিন হৈ চৈ এর পর এসব হত্যাকারী, ধর্ষকের পাল হাসিমুখে দাপটের সাথে ঘুরে বেড়ায় আর ধর্ষিতারা বেছে নেয় আত্মহননের পথ অথবা জীবন্মৃত হয়ে বেঁচে থাকে।

৪। এই দূরাবস্থার জন্য দেশের দুঃশাসন, আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার ব্যর্থতা দায়ী তা একবাক্যে সকলেই স্বীকার করবে। ব্যর্থতার পিছনের প্রধান কারণটি সকলেরই জানা, মূল্যবোধের অবক্ষয় আর রন্ধ্রে রন্ধ্রে ছড়িয়ে পড়া দূর্নীতি!! এক দিন, দুদিন, চারদিন নয় বছরের পর বছর ধরে চলে আসছে এই অনৈতিকতার অবাধ চর্চা।
- এই দুরবস্থার জন্য দেশের দুঃশাসন, আইন-প্রয়োগকারী সংস্থার ব্যর্থতা দায়ী তা একবাক্যে সকলেই স্বীকার করবে। ব্যর্থতার পিছনের প্রধান কারণটি সকলেরই জানা, মূল্যবোধের অবক্ষয় আর রন্ধ্রে রন্ধ্রে ছড়িয়ে পড়া দুর্নীতি!! এক দিন, দুদিন, চারদিন নয় বছরের পর বছর ধরে চলে আসছে এই অনৈতিকতার অবাধ চর্চা।

৫। দেশে ভালো মানুষের সংখ্যা নিতান্ত কম নয়। আমি বিশ্বাস করি লক্ষ লক্ষ নয় সৎ মানুষের সংখ্যা কোটি কোটি, তারপরও হায়নার পালের এই তান্ডবের মূল কারন আমাদের নির্লিপ্ততা। আমাদের চারপাশে ঘটে যাওয়া অনৈতিকতা আমরা দেখেও না দেখার ভাণ করি, এড়িয়ে যাওয়াটাই সর্বত্তোম উপায় ভেবে নিজ দায়িত্ব সম্পাদন করছি।
- দেশে ভালো মানুষের সংখ্যা নিতান্ত কম নয়। আমি বিশ্বাস করি লক্ষ লক্ষ নয় সৎ মানুষের সংখ্যা কোটি কোটি, তারপরও হায়েনার পালের এই তাণ্ডবের মূল কারণ আমাদের নির্লিপ্ততা। আমাদের চারপাশে ঘটে যাওয়া অনৈতিকতা আমরা দেখেও না দেখার ভান করি, এড়িয়ে যাওয়াটাই সর্বোত্তম উপায় ভেবে নিজ দায়িত্ব সম্পাদন করছি।

৬। দূর্নীতি সব সময়ই দূর্নীতি, অনৈতিক আচরণ সকল ক্ষেত্রেই বর্জনীয়।
নিজের ঘর থেকেই নৈতিকতার চর্চা শুরু প্রয়োজন। মনে রাখা জরুরী, প্রতিটি অপরাধীর শুরুটা ছোট খাটো অপরাধ দিয়েই ঘটে। আমরা সেসব মেনে নেয়াতে তারা ধীরে ধীরে আরো নির্ভীক হয়ে উঠে এক সময় বড় অপরাধের দিকে পা বাড়ায় তাই নৈতিকতার অবক্ষয়ে দেশের আজকের এই দূরাবস্থার জন্য আমরা সকলেই দায়ী।

- দুর্নীতি সব সময়ই দুর্নীতি, অনৈতিক আচরণ সকল ক্ষেত্রেই বর্জনীয়।
নিজের ঘর থেকেই নৈতিকতার চর্চা শুরু প্রয়োজন। মনে রাখা জরুরী, প্রতিটি অপরাধীর শুরুটা ছোট খাটো অপরাধ দিয়েই ঘটে। আমরা সেসব মেনে নেয়াতে তারা ধীরে ধীরে আরো নির্ভীক হয়ে উঠে এক সময় বড় অপরাধের দিকে পা বাড়ায় তাই নৈতিকতার অবক্ষয়ে দেশের আজকের এই দুরবস্থার জন্য আমরা সকলেই দায়ী।

৭। আজকের এই অরাজকতা একদিনে সৃষ্ট নয়, তিল তিল করে অপরাধের প্রশ্রয়ে বর্তমানের অচলাবস্থা করে গড়ে উঠেছে। আমরা প্রতিবাদ করিনা, বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে অপরাধীর সাথে সখ্যতা গড়ে তুলি। অনেকে মনে করেন, ঘুষ খাওয়া তো তেমন বড় অপরাধ নয়, নেতা হলেতো চাঁদাবাজি করাটাই স্বাভাবিক, সামান্য অপরাধ বড় করে দেখার কিছু নেই- আমাদের এই প্রশ্রয় আর ঔদাসীন্য দেশের নৈতিকার এই চরম বিপর্যয়ের জন্য দায়ী।
- আজকের এই অরাজকতা একদিনে সৃষ্ট নয়, তিল তিল করে অপরাধের প্রশ্রয়ে বর্তমানের অচলাবস্থা করে গড়ে উঠেছে। আমরা প্রতিবাদ করিনা, বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে অপরাধীর সাথে সখ্যতা গড়ে তুলি। অনেকে মনে করেন, ঘুষ খাওয়া তো তেমন বড় অপরাধ নয়, নেতা হলে-তো চাঁদাবাজি করাটাই স্বাভাবিক, সামান্য অপরাধ বড় করে দেখার কিছু নেই- আমাদের এই প্রশ্রয় আর উদাসীনতা দেশের নৈতিকতার এই চরম বিপর্যয়ের জন্য দায়ী।

৬১| ১৬ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৩৬

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ৮। লক্ষ্যণীয় বিষয় ধর্ষক, খুনি অথবা ছিনতাইকারী প্রত্যেকে তার নিজ নিজ এলাকা, নিজ নিজ গন্ডীর মাঝেই অপরাধ সংঘটিত করছে। আয়শার ধর্ষক ঢাকার ক্লাবে এসে ধর্ষন করছেনা, কন্সটেবল হালিমা খাতুনের ধর্ষক নামী দামী কোন সেলিব্রিটিকে স্পর্শ করছেনা। পাড়ার মাস্তানদের ক্ষেত্রেও এই কথা, তারা যে যার নির্দিষ্ট গন্ডীর মাঝেই করে যায় একের পর এক ঘৃণ্য অপরাধ- নিজ নিজ গন্ডির মাঝে সম্ভব নিকৃষ্টতম অপরাধ। অপরাধীরা তাদের গন্ডির মাঝে স্বীয় ক্ষমতার অপব্যবহারের লোভ সামলাতে পারছেনা, দু চারজন প্রভাবশালীর সাথে সখ্যতার কারনে অপরাধ সংঘটনের আগে থেকেই নির্ভীক আর নিশ্চিন্ত থাকছে। তারা জানে কোথাও দুচারটি মিষ্টি কথা, কোথাও উপঢৌকন আবার কোথাও আত্মীয়তার জোড়ে এড়িয়ে যেতে সক্ষম হবে প্রাপ্য শাস্তি।

লক্ষণীয় বিষয় ধর্ষক, খুনি অথবা ছিনতাইকারী প্রত্যেকে তার নিজ নিজ এলাকা, নিজ নিজ গণ্ডির মাঝেই অপরাধ সংঘটিত করছে। আয়েশার ধর্ষক ঢাকার ক্লাবে এসে ধর্ষণ করছেনা, কনস্টেবল হালিমা খাতুনের ধর্ষক নামী দামী কোন সেলেব্রিটিকে স্পর্শ করছেনা। পাড়ার মাস্তানদের ক্ষেত্রেও এই কথা, তারা যে যার নির্দিষ্ট গণ্ডির মাঝেই করে যায় একের পর এক ঘৃণ্য অপরাধ- নিজ নিজ গণ্ডির মাঝে সম্ভব নিকৃষ্টতম অপরাধ। অপরাধীরা তাদের গণ্ডির মাঝে স্বীয় ক্ষমতার অপব্যবহারের লোভ সামলাতে পারছেনা, দু চারজন প্রভাবশালীর সাথে সখ্যতার কারণে অপরাধ সংঘটনের আগে থেকেই নির্ভীক আর নিশ্চিন্ত থাকছে। তারা জানে কোথাও দুচারটি মিষ্টি কথা, কোথাও উপঢৌকন আবার কোথাও আত্মীয়তার জোড়ে এড়িয়ে যেতে সক্ষম হবে প্রাপ্য শাস্তি।

৯। মূল্যবোধের অবক্ষয়ের কারনে প্রশাসন, সরকার মনে করছে এটা খুব স্বাভাবিক ব্যাপার, এমনটি হরহামেশাইতো হচ্ছে। আর তাই তারা পরিচিত, প্রিয়জনদের গুরু অপরাধও লঘুদৃষ্টিতে কখনও ক্ষমাশীল দৃষ্টিতে দেখছে!
- মূল্যবোধের অবক্ষয়ের কারণে প্রশাসন, সরকার মনে করছে এটা খুব স্বাভাবিক ব্যাপার, এমনটি হরহামেশাই তো হচ্ছে। আর তাই তারা পরিচিত, প্রিয়জনদের গুরু অপরাধও লঘু-দৃষ্টিতে কখনও ক্ষমাশীল দৃষ্টিতে দেখছে!

১০। এই ব্লগের প্লাটফর্মটি বাংলাদেশের একটি অতি ক্ষুদ্র চিত্র বললে ভুল হবেনা। ব্লগের শুরু থেকে আজ অবধি সরকারের অপকর্মের সমালোচনা, দুর্নীতি আর দুঃশাসনের প্রতিবাদে লেখা পোস্টের সংখ্যা অগুনিত! অনিয়ম উছ্ছৃঙ্খলায় অতীষ্ট জনজীবনের প্রতিবাদ সেসব পোস্টের মন্তব্যের ঘরে তুলে ধরে এসব দুর্নীতিবাজদের প্রতিমানুষের ক্ষোভ আর ঘৃনা। তারপরও আমরা নৈতিকতা আর মূল্যবোধের অবক্ষয়রোধে কতোখানি দায়িত্ব পালন করছি, একটু ভেবে দেখা যাক...

অধিকাংশ ব্লগার এখানে আসেন নিজের বক্তব্য, কেউ নিজের শিল্প সাহিত্য তুলে ধরতে। নতুনরা কিছুটা নার্ভাসনেস নিয়ে একটি লেখা পোস্ট করে- তা কেউ পড়বে, সমালোচনা করবে মতামত জানাবেন এমন আশায়। আর এই ব্যাপারটি আরো সুন্দর আর পরিশীলিত করতে "আলোচিত পোস্ট" নামের একটি কলাম শুরু করেছে, যেখানে জনপ্রিয় লেখাগুলো ঠাঁই পাবে; নবীন, খুব অপরিচিত লেখকেরও সুন্দর লেখাটি সকলের সামনে আসবে এই উদ্দেশ্যে।
ইদানীং এই লিস্টে তাকালে আমরা কি পাই?

ব্লগে সরকারী দলের প্রতিনিধি প্রতিদিন নিয়ম করে নির্দিষ্ট সময়ে দূর্নীতি আর দুঃশাসনের চূড়ান্ত অবস্থানে উপবিষ্ট নিজ দলের তোষামোদ করে পোস্ট দেয়, সেই লেখা আদতে দুজন পাঠক না পড়লেও তা ৫০০০ থেকে ২০০০০ পঠিত সংখ্যা নিয়ে "সর্বাধিক পঠিত"র লিস্টে চলে যায় নিমেষে। দূর্নীতিগ্রস্থ সরকারের প্রতিনিধির নীতিবোধ, ঔচিত্যবোধ থাকবেনা এমনটাই স্বাভাবিক- আর তাই প্রায় সচেতন ব্লগার বিষয়টি জানার পরও কিছু বলার থাকেনা।

সবচেয়ে দুঃখজনক "আলোচিত পোস্ট" প্রায় কনস্ট্যান্টলি অবস্থান করা অন্য নামগুলো।

- এই ব্লগের প্লাটফর্মটি বাংলাদেশের একটি অতি ক্ষুদ্র চিত্র বললে ভুল হবেনা। ব্লগের শুরু থেকে আজ অবধি সরকারের অপকর্মের সমালোচনা, দুর্নীতি আর দুঃশাসনের প্রতিবাদে লেখা পোস্টের সংখ্যা অগুনিত! অনিয়ম উচ্ছৃঙ্খলায় অতিষ্ঠ জনজীবনের প্রতিবাদ সেসব পোস্টের মন্তব্যের ঘরে তুলে ধরে এসব দুর্নীতিবাজদের প্রতি মানুষের ক্ষোভ আর ঘৃণা। তারপরও আমরা নৈতিকতা আর মূল্যবোধের অবক্ষয় রোধে কতোখানি দায়িত্ব পালন করছি, একটু ভেবে দেখা যাক...

অধিকাংশ ব্লগার এখানে আসেন নিজের বক্তব্য, কেউ নিজের শিল্প সাহিত্য তুলে ধরতে। নতুনরা কিছুটা নার্ভাসনেস নিয়ে একটি লেখা পোস্ট করে- তা কেউ পড়বে, সমালোচনা করবে মতামত জানাবেন এমন আশায়। আর এই ব্যাপারটি আরো সুন্দর আর পরিশীলিত করতে "আলোচিত পোস্ট" নামের একটি কলাম শুরু করেছে, যেখানে জনপ্রিয় লেখাগুলো ঠাঁই পাবে; নবীন, খুব অপরিচিত লেখকেরও সুন্দর লেখাটি সকলের সামনে আসবে এই উদ্দেশ্যে।
ইদানীং এই লিস্টে তাকালে আমরা কি পাই?

ব্লগে সরকারী দলের প্রতিনিধি প্রতিদিন নিয়ম করে নির্দিষ্ট সময়ে দুর্নীতি আর দুঃশাসনের চূড়ান্ত অবস্থানে উপবিষ্ট নিজ দলের তোষামোদ করে পোস্ট দেয়, সেই লেখা আদতে দুজন পাঠক না পড়লেও তা ৫০০০ থেকে ২০০০০ পঠিত সংখ্যা নিয়ে "সর্বাধিক পঠিত"র লিস্টে চলে যায় নিমেষে। দূর্নীতি গ্রস্থ সরকারের প্রতিনিধির নীতি বোধ, ঔচিত্যবোধ থাকবেনা এমনটাই স্বাভাবিক- আর তাই প্রায় সচেতন ব্লগার বিষয়টি জানার পরও কিছু বলার থাকেনা।

সবচেয়ে দুঃখজনক "আলোচিত পোস্ট" প্রায় কনস্ট্যান্টলি অবস্থান করা অন্য নামগুলো।

৬২| ১৬ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৩৮

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ১১। এদের কেউ কেউ আমার অত্যন্ত প্রিয় ব্লগার তাই তাদের অনৈতিক আচরণটি অনেক বেশী পীড়াদায়ক! পোস্ট করার কয়েক মিনিটের মাঝে নিয়মিত ভাবে তাদের সাধারণ মানের লেখাটি আলোচিত পোস্টে চলে যাওয়ায় হতভম্ব হয়ে লক্ষ্য করি এরা নিজের মাল্টিনিক নিয়ে নিজেদের পিঠ চাপড়ে যাচ্ছে। মনে রাখা জরুরী, যে কোন অন্যায় করতে হলেই নিজের নীতি বিসর্জন দিয়েই করতে হয়, লজ্জা সম্পূর্ণ ঝেড়ে ফেলেই শুধু এমনটা করা সম্ভব। আত্মমর্যাদাবোধ আর লজ্জা নিঃসন্দেহে এমন ঠুনকো পরিচিতির চেয়ে হাজার গুন বেশী মূল্যবান।
যে অপরের লেখা চুরি নিয়ে বড় বড় কথা বলছে এধরনের নির্লজ্জ আচরণ করে সে নিজেও যে একপ্রকারের চোর তা হয়তো বুঝতে পারছেনা। নিজের পোস্ট ভিন্ন নিকে ভালোলাগা জানানো, নিজের পোস্টে নিজেকে প্রশ্ন করে পরবর্তী পোস্ট দিতে উৎসাহিত করা- কখনও সৎ লোকের কর্ম নয়।

দেখা যায় ধর্ম সম্পর্কে ভূল উপদেশবাণী দিয়ে যাওয়া ব্যক্তিটি নিজের স্বস্তা পোস্টগুলো আলোচিত পোস্টে আনতে একাধিক নিকের অধার্মিক কাজ শুধু করছেনা, হাস্যকর ভাবে নারী নিক এমনকি হিন্দু নামের নিকও খুলে বসে আছে। ইসলাম ধর্মকে যে এতোটুকু নিজের মাঝে ধারন করে, নূন্যতম প্রকৃত ঈমানদার প্রতিটি মানুষ বিশ্বাস করে ভূগর্ভের কেন্দ্রস্থলে পৌঁছে অন্যায় করলেও তা সর্বশক্তিমানের দৃষ্টি এড়িয়ে যাবেনা। মহান আল্লাহ্কেে ভয় না করে এই সামান্য পরিচিতির প্রলোভনের কাছে নতি স্বীকার কোন ধার্মিক ব্যক্তির পক্ষে সম্ভব নয়।
নির্লজ্জতার সকল সীমা অতিক্রম করে নিজেকে জনপ্রিয় ব্লগার আখ্যা দিয়ে মাল্টি নিক থেকে পোস্ট দেয়া শুধু নয়, সেখানে নিজের নামটিকে ইসলামিক চিন্তাবিদ হিসেবে পরিচিত করার অপচেষ্টা্ করার মতো ন্যাক্কারজনক ঘটনাও আছে! অধর্মের আশ্রয় নিয়ে ধর্মের কথা, অনৈতিকতার আশ্রয় নিয়ে অবক্ষয়ের কথা বলে চলছে আর আমরা সেসব দেখেও না দেখার ভাণ করছি, উৎসাহ দিচ্ছি!

আমার এই লেখাটি পড়ে হয়তো তাদের কেউ কেউ আরো দু/চারটি নতুন আইডি এখনই খুলে বসবে, অপরাধীদের কাছে অপরাধটাই স্ট্রেস রিলিভারের কাজ করে।


এদের কেউ কেউ আমার অত্যন্ত প্রিয় ব্লগার তাই তাদের অনৈতিক আচরণটি অনেক বেশী পীড়াদায়ক! পোস্ট করার কয়েক মিনিটের মাঝে নিয়মিত ভাবে তাদের সাধারণ মানের লেখাটি আলোচিত পোস্টে চলে যাওয়ায় হতভম্ব হয়ে লক্ষ্য করি এরা নিজের মাল্টি নিক নিয়ে নিজেদের পিঠ চাপড়ে যাচ্ছে। মনে রাখা জরুরী, যে কোন অন্যায় করতে হলেই নিজের নীতি বিসর্জন দিয়েই করতে হয়, লজ্জা সম্পূর্ণ ঝেড়ে ফেলেই শুধু এমনটা করা সম্ভব। আত্ম মর্যাদাবোধ আর লজ্জা নিঃসন্দেহে এমন ঠুনকো পরিচিতির চেয়ে হাজার গুন বেশী মূল্যবান।
যে অপরের লেখা চুরি নিয়ে বড় বড় কথা বলছে এধরনের নির্লজ্জ আচরণ করে সে নিজেও যে একপ্রকারের চোর তা হয়তো বুঝতে পারছেনা। নিজের পোস্ট ভিন্ন নিকে ভালোলাগা জানানো, নিজের পোস্টে নিজেকে প্রশ্ন করে পরবর্তী পোস্ট দিতে উৎসাহিত করা- কখনও সৎ লোকের কর্ম নয়।
- দেখা যায় ধর্ম সম্পর্কে ভুল উপদেশ বাণী দিয়ে যাওয়া ব্যক্তিটি নিজের সস্তা পোস্টগুলো আলোচিত পোস্টে আনতে একাধিক নিকের অধার্মিক কাজ শুধু করছেনা, হাস্যকর ভাবে নারী নিক এমনকি হিন্দু নামের নিকও খুলে বসে আছে। ইসলাম ধর্মকে যে এতোটুকু নিজের মাঝে ধারণ করে, নূন্যতম প্রকৃত ঈমানদার প্রতিটি মানুষ বিশ্বাস করে ভূগর্ভের কেন্দ্রস্থলে পৌঁছে অন্যায় করলেও তা সর্বশক্তিমানের দৃষ্টি এড়িয়ে যাবেনা। মহান আল্লাহ্‌কেও ভয় না করে এই সামান্য পরিচিতির প্রলোভনের কাছে নতি স্বীকার কোন ধার্মিক ব্যক্তির পক্ষে সম্ভব নয়। নির্লজ্জতার সকল সীমা অতিক্রম করে নিজেকে জনপ্রিয় ব্লগার আখ্যা দিয়ে মাল্টি নিক থেকে পোস্ট দেয়া শুধু নয়, সেখানে নিজের নামটিকে ইসলামিক চিন্তাবিদ হিসেবে পরিচিত করার অপচেষ্টা করার মতো ন্যক্কারজনক ঘটনাও আছে! অধর্মের আশ্রয় নিয়ে ধর্মের কথা, অনৈতিকতার আশ্রয় নিয়ে অবক্ষয়ের কথা বলে চলছে আর আমরা সেসব দেখেও না দেখার ভাণ করছি, উৎসাহ দিচ্ছি!

আমার এই লেখাটি পড়ে হয়তো তাদের কেউ কেউ আরো দু/চারটি নতুন আইডি এখনই খুলে বসবে, অপরাধীদের কাছে অপরাধটাই স্ট্রেস রিলিভারের কাজ করে।

৬৩| ১৬ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৫

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ১২। আবার অনেকে হয়তো ভাবছে এসব অতি ক্ষুদ্র অন্যায়, এড়িয়ে গেলেই হলো। সত্যি কি তাই? যাঁরা দীর্ঘদিন ধরে ব্লগে আছেন, এধরনের নির্লজ্জ কাজে তাঁদের খুব ইতরবিশেষ এসে যায়না(যদিও বেশ পুরনো ব্লগার অপকর্ম করছে) তবে নতুন ব্লগারদের জন্য প্রচন্ড হতাশার সৃষ্টি করে! আমরা যাঁরা মাল্টিনিক খুলে আত্মপ্রচারের নির্লজ্জচর্চা টি করছিনা তাদেরও আর্শিতে নিজেদের প্রতিবিম্ব দেখাটা জরুরী। দুটো বেশি মন্তব্য পাওয়া, থাম্বস আপ বা বাহাবা পাবার লোভে, কেউ তার নামে শিরোনাম দিয়ে ছড়া কবিতা লিখে যাবে বা নিজের প্রকাশিত বইটি প্রচার করবে এমন স্বস্তা কিছুর লোভে সেসব অন্যায়কারীদের অসততা এড়িয়া যাচ্ছি, পোস্টে মন্তব্য করে আমরা তাদের উৎসাহিত করে যাচ্ছি কিনা!

যদি তাই করে থাকি, মনে রাখতে হবে নিষ্পাপ শিশু আয়েশার পিতা হজরত আলী বা কন্সটেবল হালিমা খাতুনের মতো ভিক্টিমরা কিন্তু ধর্ষকের প্রতি ক্ষোভে আত্মহননের পথ বেছে নেয়নি। যে দূর্নীতিগ্রস্থ প্রশাসন ঘুষ গ্রহন করে বা সজন প্রীতির ঘৃন্য চর্চায় মেতে উঠে নরপশু ধর্ষকদের অপরাধ এড়িয়ে গেছে, প্রশ্রয় দিয়েছে, তাদের এই অনাচার আর নির্লিপ্ততার প্রতিবাদেই ছিলো তাঁদের আত্মহনন।

যারা এই কাজটি করছে তাদের কেউ কেউ হয়তো অন্যায়ের গভীরতা অনুধাবনে অক্ষম, নিজের নামটি প্রচারের নিতান্তই ছেলেমানুষীটি করে এভাবে নিজের পিঠ চাপড়ে যায়। তাঁদের বেনিফিট অফ ডাউট দেয়া যায়। আজ এভাবে চোখে আঙ্গুল দিয়ে বিষয়টি দেখিয়ে দেবার পর যদি তাঁরা এই কুঅভ্যাস থেকে বিরত হন, তাঁদের স্যালুট কারণ অন্যায়ের পথে পা বাড়ানো অত্যন্ত সহজ হলেও সেখান থেকে ফিরে আসাটা খুব সহজ নয়। যাঁরা পারেন, তাঁরা বীর।

এধরনের অপকর্ম নিয়ে সোচ্চার না হলেও অধিকাংশ ব্লগার তাদের মাল্টিনিক গুলো জানেন। এধরনের অন্যায় কখনও সুনাম বয়ে আনেনা। পোস্ট করার ১০- ১৫ মিনিট নয়, ২-৩ ঘন্টা পর্যন্ত মন্তব্য না পেলে, ভালোলাগা না পেলেও অন্যদের দৃষ্টিতে সন্মানিত হয়, তবে যে মাত্র মাল্টিনিকের তান্ডব শুরু পোস্ট আলোচিত কলামে উঠে গেলেও নৈতিকতার অবক্ষয়টি প্রকট হয়ে উঠে, অপরের চোখে ছোট হয়ে যায়। দীর্ঘদিন আগে এই ব্লগ একটি অস্থির সময় পাড়ি দিয়েছে, সেসময় এধরনের মাল্টি নিক নিয়ে নিজের পিঠ চাপড়ে যাবার মতো স্বস্তা ঘটনা ঘটেছে ব্যাপক ভাবে। যাঁদের মাঝে আত্মমর্যাদাবোধের কিছু মাত্র অবশিষ্ট ছিলো, তাঁরা সেপথ থেকে ফিরে এসেছেন। সম্প্রতি দেখেছি তাঁদের কয়েক জনের লেখা পোস্ট হবার কয়েক ঘন্টা পর্যন্ত কোন মন্তব্য বা ভালোলাগা পায়নি, তারপরও তাঁর সৎ থেকেছেন। অন্যায় করার আত্মগ্লানির চেয়ে পোস্ট মন্তব্যশূণ্য থাকা অনেক বেশি তৃপ্তিদায়ক আর সন্মানজনক, এই সত্যটি শুধু মাত্র সৎ মানুষেরাই অনুধাবনে সক্ষম।

আমরা যদি আমাদের এই ব্লগের অতি ক্ষুদ্র পরিসরে সামান্য পরিচিতির(যদিও তা কুখ্যাতিই বেশি বয়ে আনে) লোভে এধরনের অনৈতিক কাজ থেকে বিরত থাকতে না পারি, নিজের পোস্টে দুটো বেশি মন্তব্য বা থাম্বসআপ পাবার লোভে এরনের নীতিবর্জিত কাজকে সমর্থন জানিয়ে তাদের পোস্টে মন্তব্য করে তাদের উৎসাহিত করে যাই তাহলে- প্রশাসন, পুলিশ কর্মকর্তা, রাজনীতিবিদ বা সরকারকে দোষারোপ করার কোন অধিকার আমাদের নেই। কারণ আমরা নিজেরাও সেই নষ্টদের ভীড়েরই একজন।


আবার অনেকে হয়তো ভাবছে এসব অতি ক্ষুদ্র অন্যায়, এড়িয়ে গেলেই হলো। সত্যি কি তাই? যারা দীর্ঘদিন ধরে ব্লগে আছেন, এধরনের নির্লজ্জ কাজে তাঁদের খুব ইতরবিশেষ এসে যায়না(যদিও বেশ পুরনো ব্লগার অপকর্ম করছে) তবে নতুন ব্লগারদের জন্য প্রচণ্ড হতাশার সৃষ্টি করে! আমরা যারা মাল্টি নিক খুলে আত্মপ্রচারের নির্লজ্জ চর্চা টি করছিনা তাদেরও আরশিতে নিজেদের প্রতিবিম্ব দেখাটা জরুরী। দুটো বেশি মন্তব্য পাওয়া, থাম্বস আপ বা বাহবা পাবার লোভে, কেউ তার নামে শিরোনাম দিয়ে ছড়া কবিতা লিখে যাবে বা নিজের প্রকাশিত বইটি প্রচার করবে এমন সস্তা কিছুর লোভে সেসব অন্যায়কারীদের অসততা এড়িয়ে যাচ্ছি, পোস্টে মন্তব্য করে আমরা তাদের উৎসাহিত করে যাচ্ছি কিনা!

যদি তাই করে থাকি, মনে রাখতে হবে নিষ্পাপ শিশু আয়েশার পিতা হজরত আলী বা কনস্টেবল হালিমা খাতুনের মতো ভিক্টিমরা কিন্তু ধর্ষকের প্রতি ক্ষোভে আত্মহননের পথ বেছে নেয়নি। যে দূর্নীতিগ্রস্থ প্রশাসন ঘুষ গ্রহণ করে বা সজন প্রীতির ঘৃণ্য চর্চায় মেতে উঠে নরপশু ধর্ষকদের অপরাধ এড়িয়ে গেছে, প্রশ্রয় দিয়েছে, তাদের এই অনাচার আর নির্লিপ্ততার প্রতিবাদেই ছিলো তাঁদের আত্মহনন।

যারা এই কাজটি করছে তাদের কেউ কেউ হয়তো অন্যায়ের গভীরতা অনুধাবনে অক্ষম, নিজের নামটি প্রচারের নিতান্তই ছেলেমানুষিটি করে এভাবে নিজের পিঠ চাপড়ে যায়। তাঁদের বেনিফিট অফ ডাউট দেয়া যায়। আজ এভাবে চোখে আঙ্গুল দিয়ে বিষয়টি দেখিয়ে দেবার পর যদি তাঁরা এই কুঅভ্যাস থেকে বিরত হন, তাঁদের স্যালুট কারণ অন্যায়ের পথে পা বাড়ানো অত্যন্ত সহজ হলেও সেখান থেকে ফিরে আসাটা খুব সহজ নয়। যারা পারেন, তাঁরা বীর।

এধরনের অপকর্ম নিয়ে সোচ্চার না হলেও অধিকাংশ ব্লগার তাদের মাল্টি নিক গুলো জানেন। এধরনের অন্যায় কখনও সুনাম বয়ে আনেনা। পোস্ট করার ১০- ১৫ মিনিট নয়, ২-৩ ঘণ্টা পর্যন্ত মন্তব্য না পেলে, ভালোলাগা না পেলেও অন্যদের দৃষ্টিতে সম্মানিত হয়, তবে যে মাত্র মাল্টি নিকের তাণ্ডব শুরু পোস্ট আলোচিত কলামে উঠে গেলেও নৈতিকতার অবক্ষয়টি প্রকট হয়ে উঠে, অপরের চোখে ছোট হয়ে যায়। দীর্ঘদিন আগে এই ব্লগ একটি অস্থির সময় পাড়ি দিয়েছে, সেসময় এধরনের মাল্টি নিক নিয়ে নিজের পিঠ চাপড়ে যাবার মতো সস্তা ঘটনা ঘটেছে ব্যাপক ভাবে। যাঁদের মাঝে আত্ম মর্যাদাবোধের কিছু মাত্র অবশিষ্ট ছিলো, তাঁরা সেপথ থেকে ফিরে এসেছেন। সম্প্রতি দেখেছি তাঁদের কয়েক জনের লেখা পোস্ট হবার কয়েক ঘণ্টা পর্যন্ত কোন মন্তব্য বা ভালোলাগা পায়নি, তারপরও তাঁর সৎ থেকেছেন। অন্যায় করার আত্মগ্লানির চেয়ে পোস্ট মন্তব্যশূণ্য থাকা অনেক বেশি তৃপ্তিদায়ক আর সম্মানজনক, এই সত্যটি শুধু মাত্র সৎ মানুষেরাই অনুধাবনে সক্ষম।

আমরা যদি আমাদের এই ব্লগের অতি ক্ষুদ্র পরিসরে সামান্য পরিচিতির(যদিও তা কুখ্যাতিই বেশি বয়ে আনে) লোভে এধরনের অনৈতিক কাজ থেকে বিরত থাকতে না পারি, নিজের পোস্টে দুটো বেশি মন্তব্য বা থাম্বসআপ পাবার লোভে এরনের নীতি বর্জিত কাজকে সমর্থন জানিয়ে তাদের পোস্টে মন্তব্য করে তাদের উৎসাহিত করে যাই তাহলে- প্রশাসন, পুলিশ কর্মকর্তা, রাজনীতিবিদ বা সরকারকে দোষারোপ করার কোন অধিকার আমাদের নেই। কারণ আমরা নিজেরাও সেই নষ্টদের ভিড়েরই একজন।

৬৪| ১৬ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৯

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ১৩। নবীন ব্লগারদের উৎসর্গের কারণ- তাঁরা অনেকে ব্লগে এসে ভড়কে যান- বিশেষ করে নির্দিষ্ট কিছু ব্লগারের পোস্ট প্রায় প্রতিদিন আলোচিত পোস্টে দেখে ভাবতে পারেন এদের লেখার মান উন্নত এবং নিজের লেখা সম্পর্কে খারাপ বোধ করেন। কেউ কেউ এই অনৈতিকতা চর্চাকে বাহাবা পেতে দেখে এক সময় নিজেও সেই গড্ডালিকা প্রবাহে গা ভাসিয়ে লজ্জা, আত্মসন্মানবোধ বিসর্জন দিয়ে মাল্টিনিকে নিজের পিঠ চাপড়ে দিতে উদ্যত হন। তাঁদের জ্ঞাতার্থে বলতে চাই, ভদ্রতার কারণে চুপ করে থাকলেও অধিকাংশ ব্লগারেরা এদের এই অপচর্চা সম্পর্কে অবগত।

কারো মাঝে আত্মপ্রচারের বাসনা অতিরিক্ত হলে অপরের সমস্যা না করেও তা করা যায়। অনেকে পোস্টের শিরোনামে নিজের নিকটি ব্যবহার করে- তা অত্যন্ত বিরক্তিকর হলেও অন্যায় নয় এবং কাউকে বন্ছিত না করেই করছে।
আমি ব্লগে খুব অল্প সময়ের জন্য আসি, সেক্ষেত্রে আলোচিত পোস্টটি ভালো পোস্টের সূচক হয়ে ভালো ভালো লেখা পড়ার সুযোগ করে দিতে পারে মনে হয়েছে। দুঃখজনক ভাবে গত কয়েকদিনের মাঝে একসময় আলোচিত পোস্টের কলামে ১০০% অসৎ ব্লগারের অবস্থান দেখে মনে হয়েছে আজকের এই অবস্থার জন্য সচেতন ব্লগারদের দায় কম নয়। কেউ ন্যাকামী, কেউ তোষামোদের কাছে নতি স্বীকার করে এধরনের নির্লজ্জ আচরণ এড়িয়ে যাওয়ায় আজ এমন সম্ভব হয়েছে।

অনেক ব্লগারের পূর্বের নিক ব্যান হওয়ায় তাঁরা নতুন নিক খুলে সুন্দর ব্লগিং করছেন, সেটা ভিন্ন ব্যাপার। তবে সকল আত্মমর্যাদাবোধ বিসর্জন দিয়ে একাধিক মাল্টি নিক নিয়ে নিজের স্বনামের পিঠ চাপড়ে দেবার এই অসুস্থ প্রতিযোগিতা নিন্দনীয়!
আমি সরাসরি মুখোশ উন্মোচিত না করলেও আর কেউ করবেননা এমন নয়। এসব অপকর্ম সম্পর্কে অবগত বিভিন্ন ব্লগারের মন্তব্য থেকেই এদের কারো কারো মাল্টি নিকের সম্পর্কে জেনেছি।

নবীন ব্লগারেদের জ্ঞাতার্থে জানাই, আপনার ভালো ভালো গঠনমূলক লেখা, সাহিত্যকর্মটির জেনুইন পাঠক অবশ্যই এই ব্লগে আছে। নিজের লেখাটি আরো অধিক সংখ্যক জেনুইন পাঠকের কাছে পৌঁছে দিতে নিজের পোস্টের সকল মন্তব্যের জবাব দিন আর অন্যদের পোস্টে মন্তব্য করুন- এটাই এখানে নিজের বক্তব্য তুলে ধরার সবচেয়ে সুস্থ সুন্দর উপায়।
নির্লজ্জ আচরণের মাধ্যমে ১০০+ মন্তব্য পাবার চেয়ে ডিগনিফাইড ব্লগিং করে ২টি মন্তব্য এমনকি পোস্ট সম্পূর্ণভাবে মন্তব্যশূণ্য থাকাও অনেক সন্মানের, এই সত্যটি নীতিবর্জিতরা অনুধাবনে অক্ষম।

সামহয়্যাইনব্লগের ক্ষুদ্র পরিসরে আমরা যদি অন্যায় পরিহার করে ডিগনিটি নিয়ে ব্লগিং উৎসাহিত না করতে পারি তাহলে ১৬ কোটি মানুষের অন্যায় নিয়ন্ত্রণের আশা করাও অন্যায়। তাই, প্রত্যেক সচেতন ব্লগারের উচিৎ এধরনের অনৈতিক কাজে লিপ্ত ব্লগারদের সম্পূর্ণ এড়িয়ে যাওয়া যতোদিন পর্যন্ত তারা এই অপকর্মটি থেকে সরে না আসছে।

আমাদের এই ক্ষুদ্র প্লাটফর্মটিতে অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে শিখলে, নীতিবর্জিতদের প্রতিহত করার মাধ্যমেই শুরু হোক সত্য ও ন্যায়ের পথে যাত্রা! আমরা নিজ নিজ পরিসরকে দূর্নীতি মুক্ত করায় দৃঢ় প্রত্যয়ী হলে, এক সময় সিস্টেম প্রশাসন দূর্নীতি মুক্ত হতে বাধ্য হবে। সেদিন ধর্যক, খুনিদের বিচারও নিয়মিত নিশ্চিত!


নবীন ব্লগারদের উৎসর্গের কারণ- তাঁরা অনেকে ব্লগে এসে ভড়কে যান- বিশেষ করে নির্দিষ্ট কিছু ব্লগারের পোস্ট প্রায় প্রতিদিন আলোচিত পোস্টে দেখে ভাবতে পারেন এদের লেখার মান উন্নত এবং নিজের লেখা সম্পর্কে খারাপ বোধ করেন। কেউ কেউ এই অনৈতিকতা চর্চাকে বাহবা পেতে দেখে এক সময় নিজেও সেই গড্ডালিকা প্রবাহে গা ভাসিয়ে লজ্জা, আত্মসম্মানবোধ বিসর্জন দিয়ে মাল্টি নিকে নিজের পিঠ চাপড়ে দিতে উদ্যত হন। তাঁদের জ্ঞাতার্থে বলতে চাই, ভদ্রতার কারণে চুপ করে থাকলেও অধিকাংশ ব্লগারেরা এদের এই অপচর্চা সম্পর্কে অবগত।

কারো মাঝে আত্মপ্রচারের বাসনা অতিরিক্ত হলে অপরের সমস্যা না করেও তা করা যায়। অনেকে পোস্টের শিরোনামে নিজের নিকটি ব্যবহার করে- তা অত্যন্ত বিরক্তিকর হলেও অন্যায় নয় এবং কাউকে বঞ্চিত না করেই করছে।
আমি ব্লগে খুব অল্প সময়ের জন্য আসি, সেক্ষেত্রে আলোচিত পোস্টটি ভালো পোস্টের সূচক হয়ে ভালো ভালো লেখা পড়ার সুযোগ করে দিতে পারে মনে হয়েছে। দুঃখজনক ভাবে গত কয়েকদিনের মাঝে একসময় আলোচিত পোস্টের কলামে ১০০% অসৎ ব্লগারের অবস্থান দেখে মনে হয়েছে আজকের এই অবস্থার জন্য সচেতন ব্লগারদের দায় কম নয়। কেউ ন্যাকামি, কেউ তোষামোদের কাছে নতি স্বীকার করে এধরনের নির্লজ্জ আচরণ এড়িয়ে যাওয়ায় আজ এমন সম্ভব হয়েছে।

অনেক ব্লগারের পূর্বের নিক ব্যান হওয়ায় তাঁরা নতুন নিক খুলে সুন্দর ব্লগিং করছেন, সেটা ভিন্ন ব্যাপার। তবে সকল আত্ম মর্যাদাবোধ বিসর্জন দিয়ে একাধিক মাল্টি নিক নিয়ে নিজের স্বনামের পিঠ চাপড়ে দেবার এই অসুস্থ প্রতিযোগিতা নিন্দনীয়!
আমি সরাসরি মুখোশ উন্মোচিত না করলেও আর কেউ করবেননা এমন নয়। এসব অপকর্ম সম্পর্কে অবগত বিভিন্ন ব্লগারের মন্তব্য থেকেই এদের কারো কারো মাল্টি নিকের সম্পর্কে জেনেছি।

নবীন ব্লগারদের জ্ঞাতার্থে জানাই, আপনার ভালো ভালো গঠনমূলক লেখা, সাহিত্যকর্মটির জেনুইন পাঠক অবশ্যই এই ব্লগে আছে। নিজের লেখাটি আরো অধিক সংখ্যক জেনুইন পাঠকের কাছে পৌঁছে দিতে নিজের পোস্টের সকল মন্তব্যের জবাব দিন আর অন্যদের পোস্টে মন্তব্য করুন- এটাই এখানে নিজের বক্তব্য তুলে ধরার সবচেয়ে সুস্থ সুন্দর উপায়।
নির্লজ্জ আচরণের মাধ্যমে ১০০+ মন্তব্য পাবার চেয়ে ডিগনিফাইড ব্লগিং করে ২টি মন্তব্য এমনকি পোস্ট সম্পূর্ণভাবে মন্তব্যশূণ্য থাকাও অনেক সম্মানের, এই সত্যটি নীতি বর্জিতরা অনুধাবনে অক্ষম।

সামহয়্যাইনব্লগের ক্ষুদ্র পরিসরে আমরা যদি অন্যায় পরিহার করে ডিগনিটি নিয়ে ব্লগিং উৎসাহিত না করতে পারি তাহলে ১৬ কোটি মানুষের অন্যায় নিয়ন্ত্রণের আশা করাও অন্যায়। তাই, প্রত্যেক সচেতন ব্লগারের উচিৎ এধরনের অনৈতিক কাজে লিপ্ত ব্লগারদের সম্পূর্ণ এড়িয়ে যাওয়া যতোদিন পর্যন্ত তারা এই অপকর্মটি থেকে সরে না আসছে।

আমাদের এই ক্ষুদ্র প্লাটফর্মটিতে অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে শিখলে, নীতি বর্জিতদের প্রতিহত করার মাধ্যমেই শুরু হোক সত্য ও ন্যায়ের পথে যাত্রা! আমরা নিজ নিজ পরিসরকে দুর্নীতি মুক্ত করায় দৃঢ় প্রত্যয়ী হলে, এক সময় সিস্টেম প্রশাসন দুর্নীতি মুক্ত হতে বাধ্য হবে। সেদিন ধর্ষক, খুনিদের বিচারও নিয়মিত নিশ্চিত!

৬৫| ১৬ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৫০

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: প্রিয় ব্লগার মানবী, আমি চেষ্টা করেছি অনুচ্ছেদ অনুযায়ী যে বানানগুলো সংশোধন করে দিতে। আপনি চাইলে প্রয়োজনীয় সংশোধন সম্পন্ন করার পর আমার এই মন্তব্যগুলো মুছে দিতে পারেন।

শুভ ব্লগিং।

১৬ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১:২৩

মানবী বলেছেন: আপনাকে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা আর ধন্যবাদ।

মন্তব্যগুলো মুছতে চাইছিনা দুটি কারণেল আপনি এতো কষ্ট করে সংশোধন করেছেন সেটা থাক।
আর দ্বিতীয় কারণ, এই পোস্টটির মূল উদ্দেশ্য ভুল সংশোধনের আহ্বান তাই মন্তব্য গুলোও না হয় ভুল সংশোধনে যে লজ্জা নেই তার একটি দৃষ্টান্ত হয়ে থাক।

"বঞ্চিত" এটা আমি টাইপ করতে পারিনা, "ঞ্চ" আমাকে কপি পেস্ট করতে হয়েছে।
আর্শি'র সঠিক বানান "আরশি" এটা জেনে একটু বিব্রতবোধ করছি নিজের অজ্ঞতায়।
আত্মসন্মানবোধ যে আত্ম সন্মানবোধ- এই ভুল কিভাবে লিখে এসেছি বুঝতে পারছিনা।

আমি সাধ্যমতো চেষ্টা করেছি আপনার সংশোধিত অংশ পোস্টে শুধরে দিতে, তারপরো যদি কিছু ভুল থাকে আপনি বা আর যে কেউ জানালে কৃতজ্ঞ হবো।

অনেক অনেক ভালো থাকুন কাল্পনিক_ভালোবাসা।

৬৬| ১৬ ই মে, ২০১৭ দুপুর ২:১৫

গারোপাহাড় বলেছেন: আপনার পোষ্ট ও তার পরে সবার করা মন্তব্যের যে লম্বা সারি দেখলাম তাতে আমার খানিকটা আশা জেগেছে।
আমার কাছে মনে হচ্ছে সামুর সুদিন আবার ফিরে আসছে।
ভালো ভালো লিখাগুলো আবারো মজা করা পড়া যাবে।
আপনার এবং বাকী সব ব্লগারদের জন্য রইল শুভকামনা।

১৮ ই মে, ২০১৭ রাত ১:৫৪

মানবী বলেছেন: আপনার সাথে সাথে আমরাও আশাবাদী।

আন্তরিক ধন্যবাদ আরোপাহাড়।
ভালো থাকুন সব সময়।

৬৭| ১৬ ই মে, ২০১৭ দুপুর ২:২০

সত্যের ছায়া বলেছেন: দেরিতে হলেও পোষ্টি স্টিকি করার জন্য মডুদের কে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

এই পোষ্টের পর নতুনরা নতুন করে উৎসাহ পাবে।

১৮ ই মে, ২০১৭ রাত ১:৫৬

মানবী বলেছেন: নতুনরা উৎসাহিত হলে পোস্টটি ধন্য হবে।

আপনাকে অনেক ধন্যবাদ সত্যের ছায়া।
আন্তরিক শুভকামনা রইলো।

৬৮| ১৬ ই মে, ২০১৭ দুপুর ২:২২

ধ্রুবক আলো বলেছেন: অভিনন্দন জানাই আপনাকে।

১৮ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:০৭

মানবী বলেছেন: কিসের অভিনন্দন বুঝতে পারছিনা তবে মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ ধ্রুবক আলো।
অনেক ভালো থাকুন।

৬৯| ১৬ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৩:০৪

নতুন নকিব বলেছেন:



অশেষ ধন্যবাদ ব্লগার মানবীকে সুন্দর অতিব গুরুত্বপূর্ন একটি পোস্ট প্রদানে।

প্রিয় কাভা ভাইকে অভিনন্দন, কষ্ট করে সংশোধনীগুলো এনে দেয়ায়।

১৮ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:১৬

মানবী বলেছেন: আপনাকেও অনেক ধন্যবাদ নতুন নকিব।
আন্তরিক শুভকামনা রইলো।

৭০| ১৬ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৩:৩০

পান্হপাদপ বলেছেন: সুন্দর লেখা।আমি পুরনো পাঠক এই ব্লগের।লেখার দক্ষতা কম।তবে আপনার কথা সত্য।নতুন কেউ লিখলে উৎসাহ না দিয়ে হতাশজনক মন্তব্য করেন কেউ কেউ।তারা নিজেদের অনেক পণ্ডিত এবং এলিট শ্রেণীর ব্লগার মনে করেন।

১৮ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:২৪

মানবী বলেছেন: এলিট ব্লগার, সেলিব্রিটি ব্লগার বলে কিছু এই ব্লগে নেই।
কেউ যদি নিজেকে এলিট বা সেলিব্রিটি ভেবে বিভ্রান্ত হয়, সেটা নিতান্তই তার বোকামী।

লেখা সুন্দর মনে হয়েছে জেনে ভালো লাগলো, ধন্যবাদ পান্থপাদপ।

৭১| ১৬ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৩:৩৭

MAD2017 বলেছেন: আমাদের এই বাংলাদেশে কতজন নারী প্রতিদিন যৌন হয়রানি বা ধর্ষণের শিকার হন, তার কোনো সঠিক পরিসংখ্যান নেই। তবে প্রায় প্রতিদিন গণমাধ্যমে যেভাবে মেয়েদের ওপর যৌন নিপীড়নের খবর প্রকাশিত হচ্ছে তাতে মনে হচ্ছে খুব শিগগিরই আমরা এদিক দিয়ে কঙ্গোকে ধরে ফেলব। আবার পেছনেও ফেলে দিতে পারি-এমন আশঙ্কাও রয়েছে।

বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতির দেওয়া এক তথ্য অনুযায়ী, ২০১০ সাল থেকে ২০১৪ সালের অক্টোবর পর্যন্ত তিন হাজার ৯২ জন ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। পাঠক, আপনারাই হিসাব করুন এই চার বছরে দৈনিক কতজন নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে কেন এত ধর্ষণ? কঙ্গোয় যেমন নারীদের রক্ষার জন্য অনেক আইন আছে, কিন্তু সেসব আইনের প্রয়োগ নেই। তেমনি মতো আমাদের দেশেও ধর্ষণবিরোধী আইন আছে। কিন্তু আইনের কোনো প্রয়োগ নেই। ফলে প্রায় প্রতিদিনই ঘটছে ধর্ষণের ঘটনা। ধর্ষকদের জন্য বাংলাদেশ এখন একটি স্বর্গরাজ্য-এটা এখন বলা যেতেই পারে। সব বয়সের নারীকেই ধর্ষণ করা হচ্ছে। গৃহবধূ, শিক্ষিকা, চিকিৎসক, প্রকৌশলী, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী, কলেজ ছাত্রী, স্কুলছাত্রী, এমনকি কোলের শিশুকেও ধর্ষণ করা হচ্ছে। গত বছর গাজীপুরে ধর্ষণ করা হয়েছে আট মাসের এক শিশুকে। দিনাজপুরের পার্বতীপুরে ধর্ষণ করা হয়েছে ৫ বছরের এক শিশুকে। শরিয়তপুরে ৩ বছরের শিশু ধর্ষিত হয়েছ। এ রকম বহু ঘটেছে। এই হিসাব আঙুলের কড়ে গুনে বলা যাবে না।

বাংলাদেশ শিশু অধিকার ফোরামের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৬ সালের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৯ মাসে ৩২৫টি শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এই ৩২৫ শিশুর মধ্যে ৪৮ জন শিশু গণধর্ষণের শিকার হয়েছে, । এদের মধ্যে ১৫ জন শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। এ ছাড়া ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে ৫৪ শিশুকে। অর্থাৎ প্রতি মাসে গড়ে ৩৫টি শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে।

১৮ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৩৯

মানবী বলেছেন: আমাদের আইন আছে তবে ধর্ষকের শাস্তি দিতে তার প্রয়োগ নেই। আইন প্রয়োগে ব্যর্থতার দায়টা আমাদের মতো সাধারণ মানুষের উপর অনেক খানি এসে পরে। সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে ছড়িয়ে পড়া "দুর্নীতি" নামের বিষপোকা আমরাই লালন করে চলেছি। যেকোন ধর্ষনের পর ধর্ষকের অবস্থান অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে উৎকোচ দিয়ে খুব সহজে সেই আইনকে পঙ্গু করে দেয়া হচ্ছে।

এখানে পড়েছি ২০১৬ সালে ধর্ষিতার সংখ্যা ৭৩৯ তার মধ্যে শিশুর সংখ্যা ৩২৫ হলে (তাও ৯ মাসে) ভয়ংকর খবর!
আর কেনোই বা নয় বলুন, বনানীর ডাবল রেপ ধামাচাপা দিতে যে জঘণ্য ষড়যন্ত্রের খবর এখানে জানলাম, তা পড়ে এদেশে আদৌ কখনও সুবিচার সম্ভব হবে কিনা বুঝতে পারছিনা, বিশেষ করে বর্তমান সরকারের সময়।

বিস্তারিত মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ MAD2017 ।

৭২| ১৬ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৩:৫১

আমি চির-দুরন্ত বলেছেন: কোনো ব্যাবস্থা করা গেলে ভাল হত .।.। না হলে মনক্ষুন্ন হওয়া ছাড়া উপায় নেই

১৮ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৫

মানবী বলেছেন: কিসের ব্যবস্থা!!!

ধন্যবাদ আর শুভকামনা আমি চির-দুরন্ত।

৭৩| ১৬ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৪:০৩

কানিজ রিনা বলেছেন: আমি বুঝিনা নিজের লেখায় মাল্টি নিক
ব্যবহার করার কারন কি, কিছু উপলদ্ধিতে
বুঝতে পারি সাগর চুরির চতুরতা নিজের
নামটা বসিয়ে বাহবা পাওয়া। ধরুন কোনও
নামীদামী লেখকে বই পড়ে মাঝখান থেকে
লেখকের কিছু প্যারা নিজের ভাষা মিশিয়ে
নিজের নাম দিয়ে ব্লগে তুলে বেশ লেখক
সাজা যায়।
কবিতার বেলায় একই কিছু চতুর নির্লজ্জ
বেহায়া গোছের ব্লগার পুরনতী কবিতা চতুরতা
করে নিজের ভাষা মিশিয়ে ব্লগে প্রেরন করে
নিজেকে জাহেরী করে।
আর তারাই অসংখ্য নিক ব্যবহার করে। বলে
আমি জানি। এখানে লেখা চোরদের কোনও
জেন্ডার নাই। সততায় বিশ্বাসী সাহসী লেখক
কখনও অনেক নিক ব্যবহার করেনা।

আর ধর্ষন যেভাবে দেশটা তপ্ত দাপদাহ হয়ে
ভূপৃষ্ট ফেটে চৌরির হয়ে যাচ্ছে। অন্তর জালায়
লজ্জায় গায়ের চামরা পুড়ে গন্ধ ছড়িয়ে
আন্তর জাতীক কলঙ্কে ভূষীত হচ্ছে সেই
ক্ষেত্রে সরকার কতটা পদক্ষেপ নেবে দেখার
বিষয়। আপনার লেখার আহবানে ধর্ষন
দাবদাহ ঝড়ো হাওয়ার বেগে ঠান্ডা শীতল
বাতাশ বয়ে আনুক এই কামনায়। ধন্যবাদ,

১৮ ই মে, ২০১৭ রাত ১১:৪৯

মানবী বলেছেন: সুন্দর বলেছেন। আমার মতো ক্ষুদ্র মানুষের লেখায় কিছু হয়না তারপরও যার যার নিজ অবস্থান থেকে সাধ্যমতো চেষ্টাটা চালিয়ে যাওয়া জরুরী, তাই এভাবে লেখা।

আপনার চমৎকার মন্তব্যে পোস্টটি সন্মানিত হলো।
আন্তরিক ধন্যবাদ কানিজ রিনা।
অনেক ভালো থাকুন।

৭৪| ১৬ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৪:২২

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমাদের জাতি নিজকে টেনে নীচে নামাচ্ছেন

১৮ ই মে, ২০১৭ রাত ১১:৫৭

মানবী বলেছেন: .

:-)

৭৫| ১৬ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৫:১৫

EM Selim Ahmed বলেছেন: নাম উল্লেখ করবো না হয়তো তারাও আপনার এই লেখায় বড় বড় কমেন্ট করে বসে আছে। যারা নবীন ব্লগারদের লেখায় এমন কমেন্টও করে থাকে "এটা কি আপনি নিজে পড়ার জন্য লিখেছেন?"
আফছোস তারা উৎসাহ না দিয়ে নবীনদের কে অবহেলা করে।

১৯ শে মে, ২০১৭ রাত ২:১০

মানবী বলেছেন: বাস্তব জীবনের যেমন বিভিন্ন রকমের মানুষ আছে, ভার্চুয়্যাল জীবনেও তেমনি।

পজিটিভ আর নেগেটিভ মানুষের ভীড়ে আপনি কাকে বেশী গুরুত্ব দিবেন তা নির্ধারণ করে দিবে আপনার আগামী দিনগুলো।


অনেক অনেক ধন্যবাদ আর শুভকামনা EM Selim Ahmed।
ভালো থাকুন সব সময়।

৭৬| ১৬ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৫:২২

সিফটিপিন বলেছেন: সতর্কীকরণ:: একটি অতি অপ্রিয় পোস্ট!!! B:-)

১৯ শে মে, ২০১৭ রাত ২:১৫

মানবী বলেছেন: .
:-)

৭৭| ১৬ ই মে, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:০৪

ইসফানদিয়র বলেছেন: গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট

১৯ শে মে, ২০১৭ রাত ২:২১

মানবী বলেছেন: ধন্যবাদ আর শুভকামনা ইসফানদিয়র।

৭৮| ১৬ ই মে, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৩৮

ফরিদ আহমদ চৌধুরী বলেছেন: পোষ্টে আমার বেশ কিছু সমালোচনা দেখছি। বেশ ভাল লাগছে। কারণ সমালোচনাও এক ধরনের আলোচনা। এতে আমি আমার পোষ্টের মান যদি আরো বাড়াতে পারি তবে ক্ষতি কি?

৭৯| ১৬ ই মে, ২০১৭ রাত ৮:১৩

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: আপনার এই পোস্টে খুব গুরুত্বপূর্ণ কিছু কথা বলেছেন। ধর্ষণের দিকে আর গেলাম না। তবে মাল্টি নিক নিয়ে নিজের পিঠ নিজে চাপড়ানোর ব্যাপারটা সত্যিই নিন্দনীয়। এ ধরনের অসুস্থ চর্চা বন্ধ হওয়া উচিৎ।

আপনাকে ধন্যবাদ মানবী। আপনার পোস্টটিতে কা ভা ভাইয়ের শ্রমসাধ্য সহযোগিতার জন্য তাকেও ধন্যবাদ।

১৯ শে মে, ২০১৭ সকাল ১১:৫৪

মানবী বলেছেন: আশাকরি যাদের কিছুমাত্র আত্ম সন্মানবোধ আছে, তাঁরা নিজের পিঠ চাপড়ানোর কাজটি থেকে বিরত হবেন।

আন্তরিক ধন্যবাদ আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম।
ভালো থাকুন সব সময়।

৮০| ১৬ ই মে, ২০১৭ রাত ৮:৪১

কথাকথিকেথিকথন বলেছেন: দুঃখজনক । আশাকরি এরা মানুষ হোক ।

১৯ শে মে, ২০১৭ সকাল ১১:৫৫

মানবী বলেছেন: আমরা সবাই তেমনটাই আশা করি।

ভালো থাকবেন আপু, ধন্যবাদ আপনাকে।

৮১| ১৬ ই মে, ২০১৭ রাত ৯:৩৯

শরীফুর রায়হান বলেছেন: এসব ব্লগারদের শুভবুদ্ধির উদয় হোক

১৯ শে মে, ২০১৭ সকাল ১১:৫৬

মানবী বলেছেন: আমিন।

ধন্যবাদ শরীফুর রায়হান।
আন্তরিক শুভকামনা রইলো।

৮২| ১৬ ই মে, ২০১৭ রাত ১০:০৯

উর্বি বলেছেন: তালিয়া হবে তালিয়া। অসাধারণ।

১৯ শে মে, ২০১৭ সকাল ১১:৫৭

মানবী বলেছেন: জেনে খুব ভালো লাগলো।

অনেক ধন্যবাদ আর শুভকামনা উর্বি।

৮৩| ১৬ ই মে, ২০১৭ রাত ১০:২৩

ঢাকাবাসী বলেছেন: খুব সুন্দর একটা লেখা, গুরুত্বপুর্ণ লেখা।

১৯ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১২:০০

মানবী বলেছেন: জেনে পোস্টটি ধন্য হলো।

অনেক ভালো থাকুন ঢাকাবাসী।
আন্তরিক ধন্যবাদ আপনাকে।

৮৪| ১৭ ই মে, ২০১৭ রাত ১:৪০

আঙ্কেল হো বলেছেন: সুপ্রিয় ব্লগার মানবী,

এদের কেউ কেউ আমার অত্যন্ত প্রিয় ব্লগার তাই তাদের অনৈতিক আচরণটি অনেক বেশী পীড়াদায়ক! পোস্ট করার কয়েক মিনিটের মাঝে নিয়মিত ভাবে তাদের সাধারণ মানের লেখাটি আলোচিত পোস্টে চলে যাওয়ায় হতভম্ব হয়ে লক্ষ্য করি এরা নিজের মাল্টি নিক নিয়ে নিজেদের পিঠ চাপড়ে যাচ্ছে। মনে রাখা জরুরী, যে কোন অন্যায় করতে হলেই নিজের নীতি বিসর্জন দিয়েই করতে হয়, লজ্জা সম্পূর্ণ ঝেড়ে ফেলেই শুধু এমনটা করা সম্ভব। আত্ম মর্যাদাবোধ আর লজ্জা নিঃসন্দেহে এমন ঠুনকো পরিচিতির চেয়ে হাজার গুন বেশী মূল্যবান।
যে অপরের লেখা চুরি নিয়ে বড় বড় কথা বলছে এধরনের নির্লজ্জ আচরণ করে সে নিজেও যে একপ্রকারের চোর তা হয়তো বুঝতে পারছেনা। নিজের পোস্ট ভিন্ন নিকে ভালোলাগা জানানো, নিজের পোস্টে নিজেকে প্রশ্ন করে পরবর্তী পোস্ট দিতে উৎসাহিত করা- কখনও সৎ লোকের কর্ম নয়।
- দেখা যায় ধর্ম সম্পর্কে ভুল উপদেশ বাণী দিয়ে যাওয়া ব্যক্তিটি নিজের সস্তা পোস্টগুলো আলোচিত পোস্টে আনতে একাধিক নিকের অধার্মিক কাজ শুধু করছেনা, হাস্যকর ভাবে নারী নিক এমনকি হিন্দু নামের নিকও খুলে বসে আছে। ইসলাম ধর্মকে যে এতোটুকু নিজের মাঝে ধারণ করে, নূন্যতম প্রকৃত ঈমানদার প্রতিটি মানুষ বিশ্বাস করে ভূগর্ভের কেন্দ্রস্থলে পৌঁছে অন্যায় করলেও তা সর্বশক্তিমানের দৃষ্টি এড়িয়ে যাবেনা। মহান আল্লাহ্‌কেও ভয় না করে এই সামান্য পরিচিতির প্রলোভনের কাছে নতি স্বীকার কোন ধার্মিক ব্যক্তির পক্ষে সম্ভব নয়। নির্লজ্জতার সকল সীমা অতিক্রম করে নিজেকে জনপ্রিয় ব্লগার আখ্যা দিয়ে মাল্টি নিক থেকে পোস্ট দেয়া শুধু নয়, সেখানে নিজের নামটিকে ইসলামিক চিন্তাবিদ হিসেবে পরিচিত করার অপচেষ্টা করার মতো ন্যক্কারজনক ঘটনাও আছে! অধর্মের আশ্রয় নিয়ে ধর্মের কথা, অনৈতিকতার আশ্রয় নিয়ে অবক্ষয়ের কথা বলে চলছে আর আমরা সেসব দেখেও না দেখার ভাণ করছি, উৎসাহ দিচ্ছি!

আমার এই লেখাটি পড়ে হয়তো তাদের কেউ কেউ আরো দু/চারটি নতুন আইডি এখনই খুলে বসবে, অপরাধীদের কাছে অপরাধটাই স্ট্রেস রিলিভারের কাজ করে।


যথারীতি মানবীয় বক্তব্য। এর থেকে সুস্পষ্ট এবং ভদ্রোচিত ভাষায় বোঝান্য সম্ভব নয় নতুন ও পুরনো ব্লগারদের। ফরিদ আহমেদ চৌধুরী নিকের মত মুখোশের আড়ালের কেউ কেউ তবু বুঝবে না। সেলিব্রিটি মাল্টিনিক লালনকারীগণ এ পোস্টে ঢুকবেন না। তারা জানেন এমন পোস্ট প্রথমপাতা থেকে সরে যাওয়া সময়ের ব্যাপার মাত্র। ঢুকলে মাল্টিনিক দিয়েই ঢুকবেন। কারা এ পোস্টে এমন বুঝতে আপনার বেশি হলে ৫ মিনিট ব্যয় হবে। আমাকেও ধরে নেবেন তাদের মাঝে। আমি পুরোনো।

নবীন ব্লগারদের জ্ঞাতার্থে জানাই, আপনার ভালো ভালো গঠনমূলক লেখা, সাহিত্যকর্মটির জেনুইন পাঠক অবশ্যই এই ব্লগে আছে। নিজের লেখাটি আরো অধিক সংখ্যক জেনুইন পাঠকের কাছে পৌঁছে দিতে নিজের পোস্টের সকল মন্তব্যের জবাব দিন আর অন্যদের পোস্টে মন্তব্য করুন- এটাই এখানে নিজের বক্তব্য তুলে ধরার সবচেয়ে সুস্থ সুন্দর উপায়।
নির্লজ্জ আচরণের মাধ্যমে ১০০+ মন্তব্য পাবার চেয়ে ডিগনিফাইড ব্লগিং করে ২টি মন্তব্য এমনকি পোস্ট সম্পূর্ণভাবে মন্তব্যশূণ্য থাকাও অনেক সম্মানের, এই সত্যটি নীতি বর্জিতরা অনুধাবনে অক্ষম


পোস্টের সারমর্ম এ কথাগুলো। নবীনেরা প্রথমে এসে মাল্টিনিক ব্যবহার, অসতপন্থা সম্পর্কে অবগত থাকেন না। কেউ নতুন ব্লগার হিসেবে এসে এমন করলে তাকে বোঝানো পুরনো ব্লগারদের দায়িত্ব। পুরনো ব্লগারগণের কেউ কেউ এমন করলে তা দু:খজনক। এ ব্লগের অনেক ব্লগার এখনো নিজ নামে সমাদৃত। বহু নামে লিখলে লেখার মান ভাল হবে এমন ভেবে নেয়ার কারণ নেই। অন্তত:পক্ষে নিজের পোস্টে নিজে কমেন্ট করা নীচাশয়তা। এসব কাজে সময় দেবার চেয়ে সে সময়টুকু অন্য লেখার জন্য এবং অন্যের ব্লগ পড়বার জন্য দেয়া ভাল হয়। একজন ব্লগারের লিখে যাবার জন্য এক পরিচয়ই যথেষ্ট। ব্লগ নিক রেজিস্টেশনের জন্য মোবাইল ফোন এর মাধ্যমে ভেরিফিকেশন অসৎ মাল্টিনিক এবং তার মাধ্যমে ব্যক্তি আক্রমণ, অপপ্রচার সহ নানা সমস্যার সমাধান হতে পারে। এছাড়া শর্তাবলী লংঘন করে কমেন্ট ও পোস্ট করা হলে ব্লগ নিক সময়সীমা নির্দিষ্ট করে স্থগিত করা যেতে পারে। যত পুরনো পরিচিত ব্লগারই হোন, বারংবার নীতিমালার লংঘনে নিক বাতিল করা উচিত। সেফ ব্লগার হতে সময় ও মন্তব্য নয়, পোস্টের মান ও অন্য ব্লগারদের সাথে মিথস্ক্রিয়াকে সর্বাগ্রে বিবেচনা করা যেতে পারে।
অসংখ্য ধন্যবাদ মানবী এ সময়োচিত পোস্টের জন্য।

১৯ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১২:০৯

মানবী বলেছেন: "সেলিব্রিটি মাল্টিনিক লালনকারীগণ এ পোস্টে ঢুকবেন না। তারা জানেন এমন পোস্ট প্রথমপাতা থেকে সরে যাওয়া সময়ের ব্যাপার মাত্র। ঢুকলে মাল্টিনিক দিয়েই ঢুকবেন। কারা এ পোস্টে এমন বুঝতে আপনার বেশি হলে ৫ মিনিট ব্যয় হবে"

- আমি আসলে ৫ মিনিট নয় ৫ সপ্তাহ একটানা ব্যয় করলেও বুঝতে পারবোনা তার এক এবং অন্যতম কারণ গত দশ বছরে এই ব্লগে আমার কাউকে সেলিব্রিটি ব্লগার মনে হয়নি! কেউ যদি নিজেকে সেলিব্রিটি মনে করে সেটা নিতান্তই তার বিভ্রান্তি।


আপনি কে সেটা জানতে ইচ্ছে করছে!!! তবে জানতে চাইবোনা বা জানার চেষ্টা করবোনা। গত কয়েক বছরে যখনই কোন হারিয়ে যাওয়া প্রিয় ব্লগারের নতুন নিক আমি চিনতে পেরেছি সাথে সাথে তাঁরা আবার হারিয়ে গেছেন, তারচেয়ে বরং ভেবে নেই- যে প্রিয় ব্লগারদের খুঁজি আপনি তাঁদেরই একজন। এই নিকে অন্তঃত এখানে সচল থাকবেন এমনটা আশা করি।

খুব ভালো পরামর্শ দিয়েছেন আর মন ভালো করে দেবার মতো মন্তব্য করেছেন।
আন্তরিক ধন্যবাদ আঙ্কেল হো।
সব সময় খুব ভালো থাকবেন।

৮৫| ১৭ ই মে, ২০১৭ ভোর ৫:৪০

তপোবণ বলেছেন: এখানেও দু নম্বরী! হায়রে। আজ যদি আপনার (মানবী) পোষ্টটি না পড়তাম তাহলে অজানাই থেকে যেত নিক নেম ব্যবহারের বিষয়টি। ব্লগে লেখা এটা হতে পারে মানবীয় গুনাবলীর একটি। এখানেও কেন নিজের মূল্যবোধকে বিসর্জণ দিতে হয় বুঝিনা। ব্যথিত হলাম। যারা ইতি মধ্যে আমার প্রিয় ব্লগার তারাও এমন অসৎ কিনা কে জানে। আসলে কি বলবো। আমার বিশ্বাষ গুলো প্রতিদিন ভাঙ্গছে দেখে ব্যথিতই হচ্ছি প্রতিদিন। ধন্যবাদ লেখককে বিষয়টি নোটিশ করার জন্য।

২০ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১২:০৪

মানবী বলেছেন: আমার ধারনা অধিকাংশ জনই না বুঝে ছেলেমানুষী হিসেবে এমন করেছে, হয়তো বুঝতে পারেনি এটা অন্যায়। এরপরও যারা এমনটা করবে বুঝতে হবে তাদের মাঝে নৈতিকতাবোধ বলে কিছুই নেই।

সমাজের সব ক্ষেত্রের এধরনের অপ্রিয় ব্যাপার গুলো আছে, হতাশ হলে চলবেনাতো :-)

আন্তরিক ধন্যবাদ আর শুভকামনা তপোবণ।

৮৬| ১৭ ই মে, ২০১৭ সকাল ১০:০৫

ইখতামিন বলেছেন:
সময়োপযোগী পোস্ট। সুন্দর পোস্ট।

+

কিন্তু একটা বিষয় বুঝলাম না, যে পিটিশনের লিং দিয়েছেন, তাতে মাত্র ২২ জন সাইন করেছে। তাহলে এই পিটিশন সফল হবে কী করে!!!

২০ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১২:০৯

মানবী বলেছেন: বর্তমান ৪০(অরিজিনালি ৪২) নং মন্তব্যে প্রিয় ব্লগার সত্যপথিক শাইয়্যান পিটিশনের লিংকটি শেয়ার করেছেন। তাঁর প্রথম পাতায় এ্যাক্সেস নেই দেখে এখনও আলাদা পোস্ট দিয়ে সেভাবে প্রচার করতে পারছেননা। তাঁরা অচীরেই এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিবেন আশা করি।

আন্তরিক ধন্যবাদ আর শুভকামনা রইলো ইখতামিন।

৮৭| ১৭ ই মে, ২০১৭ সকাল ১০:২৩

মোস্তফা কামাল পলাশ বলেছেন:
সামুতে ব্লগিং এর ৭ম বছর চলতেছে। প্রথম ৫ বছরে মাত্র ২ জন ব্লগারকে নিষিদ্ধের তালিকায় যোগ করেছিলাম। ব্লগ নীতিমালার উদারতার সুযোগ নিয়ে ২০১৬ সাল থেকে ব্লগে ছাইয়া নিকের আধিক্য বাড়তে থাকে। ফলে ষষ্ঠ বছরে নিষিদ্ধের তালিকায় তালিকাটি প্রায় ২ ডজনে উপনীত হয়। ছাইয়াদের ব্লগারের নোংরামি এমন পর্যায়ে উপনীত হয় যে শেষে ব্লগিং স্থগিত করতে হয়েছে গত প্রায় ১ বছর থেকে। প্রায়ই মনে হয় আবার ব্লগিং শুরু করি। কিন্তু কিছু চিহ্নিত ব্লগারের নোংরামির কারণে পরক্ষণেই সিদ্ধান্ত পাল্টাতে হয়।

খোজ নিলে দেখা যাবে এই সকল ব্লগারের মধ্যে একাধিক জন ধর্ষকদের সমগোত্রীয়।

আপনকে ধন্যবাদ কিছু অপ্রিয় সত্য কথা লিখবার জন্য।

১৭ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৫৩

মানবী বলেছেন: আপনাকে খুঁজছিলাম তিস্তা পাড়ের মানুষে খোঁজ নেবার জন্য। দীর্ঘদিন অনলাইনে চোখে পড়েনি বলে জানতে চাওয়া হয়নি।

ব্লগে ৭ বছরের উপস্থিতিতে নিশ্চয় দেখেছেন কতো ধরনের প্রতিক্রীয়ার শিকার হয়েছি! অভদ্রজনদের উপর রাগ করে আপনি এখানে ব্লগিং ছেড়ে দেয়া মানে তাদের জয়ী করা, তাদের কাছে পরাজিত হবার কোন মানে নেই।
আমার জানা নেই আপনাকে কে, কেনো আক্রমণ করেছে! তবে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ক্রীতদাস কিছু উগ্রপন্থী আছে, তারা নিজ নিজ দলীয় প্রভুদের অপকর্ম প্রকাশিত বা সমালোচিত হতে দেখলে অস্তিত্ত্ব সংকটে পরে মরিয়া হয়ে আক্রমণ করে। তাদের কীট পতঙ্গসম বিবেচনা করে আপনার নিজের মতো লিখে যান। আপনার যে কয়টি পোস্ট পড়েছি তথ্য সমৃদ্ধ আর দেশ প্রেমের কথা বলে।

আশাকরি আপনার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে অচিরেই সুন্দর সুন্দর লেখা উপহার দিবেন।

আপনার লেখা বন্ধ হওয়ায় আপনাকে আক্রমণকারীদের সুবিধা হয়েছে আর তিস্তাপারের অসহায় মানুষেরা তাঁডের একটি কন্ঠ হারিয়েছে।

আন্তরিক ধন্যবাদ মোস্তফা কামাল পলাশ।
অনেক অনেক ভালো থাকুন।

৮৮| ১৭ ই মে, ২০১৭ সকাল ১০:৫০

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: দারুন বিষয়ে পোষ্টে জন্য লেখককে ধন্যবাদ

সামুকে ধন্যবাদ ষ্টীকি করে সবার নজরে আনার ব্যবস্থা করায়।


বিজ্ঞ মতামতের পর বলঅর কিছু নেই। শুধু মনে হয় ধর্ষনকে হাইলাইট করার চেয়ে এর কারণ গুলৌ দূর করতে পারলে বুঝী মুক্তি মিলবে।

আমরা ভোগবাদীতাকে আদর্শ হিসেবে নিয়ে জীবন যাপন করে এর সাইড ইফেক্টে কান্না করাটা বোকামো নয়?
ধার্মিকের ভুলে ধর্মকেই ঠেলতে ঠেলতে বনবাসে পাঠিয়েছি।
পরিবার যেখঅন থেকে বিবেক, সুস্থ বোধ আর নীতি নৈতিকতার পাঠ সেখানেই গলদ।
ঢাকায় আঙুলের কড় গুনে বলা যাবে কটা পরিবারে সকালে কোরআন/ড়ীতা/বাইবেল চর্চা হয়!
পারিবারিক বেইজ নষ্ট হয়ে গেল বাইরে তার প্রভাব অবশ্যম্ভাবী।

সুস্থ স্বাভাবিক জীবন যাপন এখন যেন স্বপ্নের মতো অধরা। মুক্তবাজার অর্থনীতি, মুক্ত সংস্কৃতি আমাদের এলোমেলৌ করে দিচ্ছে।
জীবনের লক্ষ্য কেবল। অর্থ, অর্থ এবং অর্থ। তখন নীতি নৈতিকতার পর্দা আপনাতেই ছিড়ে যাচ্ছে। জিপিএ ফাইভের নেশায় যেমন মেধাহীন হচ্ছে জাতি -ষ্ট্যাটাসের নামে তেমনি ক্রম অধ:পতিত হচ্ছে প্রজন্ম।

ইয়াবা বদি যখন প্রধানমন্ত্রীর পাশে থেকে হাসিমূখে পোজ দেয়- পুরা জাতির কাছে কি বার্তা পৌছে??? মরণ নেশা ইয়াবা কিন্তু ধর্ষনের একটা বড় কারণ। নেশাগ্রস্থতায় বিবেক বুদ্ধি লোপ পেয়ে নেশাকারীরা জাত, ধর্ম, বয়স সব ভুলে কেবলই পাশবিকতায় আক্রান্ত। যে জন্যে এখন শিশুরাো রেহাই পাচ্ছে না। এখন রাষ্ট্রীয় ভাবে ইয়াবা বন্ধ না করে, ইয়াবা সম্রাটকে হাইলাইটস করে ধর্ষন বন্ধ করারা আশা করাও বোকামী। শুধু ইয়াবা নয় সকল শ্রেণীর মাদকের এত ব্যপকতা ইতোপূর্বে আর কখনো হয়নি।
সুস্থ স্বাভাববিক চাওয়াকেও ইউটোপিয়া মনে হয় এতটাই নষ্ট হয়ে গেছে সমাজ!!!

তাই গোড়া থেকেই ঠিক করার উদ্যোগ জরুরী।

চাই পরিবারের মজবুত ভিত্তি।
স্ব- স্ব ধর্মের চর্চা
সুস্থ সংস্কৃতির পৃষ্ঠপোষকতা
সৎ, সততার রাষ্ট্রীয় সম্মাননা
জীবন বোধের ডাইমেনশন বদলে মিডিয়ার অংশগ্রহণ
সকল প্রকার মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স


কোন একটা দিয়ে নয় বরং সামগ্রীকতায় কাজ করতে হবে সকলকে যারযার স্থান থেকে।

২০ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৭

মানবী বলেছেন: "কোন একটা দিয়ে নয় বরং সামগ্রীকতায় কাজ করতে হবে সকলকে যারযার স্থান থেকে"
-খুব জরুরূ আর গুরুত্বপূর্ণ কথা!

পোস্টটির মূল বক্তব্য সহজ ভাবে বুঝতে পেরেছেন দেখে ভালো লাগলো। সেই সাথে চমৎকার কিছু আহ্বান!

অনেক অনেক ধন্যবাদ বিদ্রোহী ভৃগু।

০৮ ই জুন, ২০১৭ সকাল ১১:৪২

মানবী বলেছেন: "জীবনের লক্ষ্য কেবল। অর্থ, অর্থ এবং অর্থ। তখন নীতি নৈতিকতার পর্দা আপনাতেই ছিড়ে যাচ্ছে।"
- কেউ অর্থের পিছে ছুটছে, কেউ খ্যাতি আবার কেউ নিছকই মজার জন্য সরাসরি অসৎ পন্থা অবলম্বন করছে। আবার কেউ কেউ সেসব অসৎদের বিভিন্ন ভাবে সমর্থন করে জীবনের বিভিন্ন ক্ষেত্রে অনৈতিকতার চর্চাটা বৃদ্ধি করে চলেছে।
যেমন আমাদের প্রধানমন্ত্রী সরাসরি চাঁদাবাজি করেননি, ধর্ষনের তো প্রশ্নই নেই, সেখানে এসব অপরাধের কারণে উঠতে বসতে দিবারাত্রি তাকে দোষারোপ করা হয় কারণ এধরনের অপকর্মের হোতা ছাত্রলীগ তার ছত্রছায়ায় লালিত অথবা বলা যায় ছাত্রলীগকে তিনি প্রশ্রয় দেন বা সমর্থন করেন।

একই ভাবে ব্যক্তি জীবনে আমরা যখন কোন অন্যায় কারীকে সমর্থন করি তখন নিজেরা অপরাধটি সরাসরি না করলেও সেই অপরাধের অংশ হয়ে উঠি। নৈতিকতা আর মূলবোধের ক্ষেত্রে সিলেক্টিভিটি নেই।
অনৈতিক আচরণকারী যেই হোক সদা বর্জনীয়, তাই না!

ভালো থাকুন বিদ্রোহী ভৃগু।

৮৯| ১৭ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৩৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক দিন পর স্টিকি পোস্ট পেলাম। তা আবার একজন হেভীওয়েট ব্লগারের।
অভিনন্দন মানবী, ধন্যবাদ ব্লগ টিম।

১৭ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৪১

মানবী বলেছেন: অন্ধকে অন্ধ, খোঁড়াকে খোঁড়া আর মোটাকে মোটা বলতে নেই! :(

তবে ব্লগিং বা লেখক হিসেবে বিবেচনা করলে সকলেই সেম ওয়েট- হেভী ওয়েট, লাইট ওয়েট কেউ নেই প্রিয় ব্লগার গিয়াস উদ্দিন লিটন।

আন্তরিক শুভকামনা আর ধন্যবাদ রইলো।

৯০| ১৭ ই মে, ২০১৭ সকাল ১১:৫১

সাদাত সায়েম বলেছেন: নির্লজ্জ আচরণের মাধ্যমে ১০০+ মন্তব্য পাবার চেয়ে ডিগনিফাইড ব্লগিং করে ২টি মন্তব্য এমনকি পোস্ট সম্পূর্ণভাবে মন্তব্যশূণ্য থাকাও অনেক সন্মানের

২০ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১২:২৯

মানবী বলেছেন: ধন্যবাদ আর শুভকামনা সাদাত সায়েম।

৯১| ১৭ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১:১৬

কানিজ রিনা বলেছেন: আঙ্কেল হো, বিদ্রোহী ভৃগুর সাথে একমত
পোষন করছি। যেভাবে বাইরের পরিবেশ
নেশায় আকৃষ্ট পরিবারের বাবা মা বড়রা
সন্তানের নজরদারী বাড়ানোর বিশেষ প্রয়োজন। এক্ষত্রে প্রতিটি পরিবারের বাবা মা
বলিষ্ঠ পদক্ষেপ না নিলে সমাজে পচন ঠেকান
যাবেনা। আপনার সন্তান স্কুল কলেজ ভার্সিটি
পড়াশুনার পাশাপাশি কোনও নেশার আখরায়
সমবেত হচ্ছে কিনা সেদিকে বিশেষ ভাবে
নজর রাখা। বাইরের ভয়ঙ্কর পরিবেশ নিজের
আদরের সন্তান বখে যাওয়া পিতা মাতার চেয়ে ক্ষতিগ্রোস্ত অন্য কেউ হবেনা।
তাই পিতা মাতা পরিবারের বলিষ্ঠ পদক্ষেপ
মুক্তি আনতে সক্ষম সমাজের পচন।
সেই সাথে নিজের বখে যাওয়া সন্তানের
ধরিয়ে দিতে প্রসাশনের সহায়তা করা। যদিও
বাবা মার জন্য এটা অত্যান্ত কঠিন কাজ
তথাপি সন্তানের মঙ্গলের জন্যই প্রশাসনকে
সহায়তা জরুরী। একমাত্র বাবা মা বুঝতেে
পারে তার বখে যাওয়া সন্তানের মতিগতি।
অতপর শিক্ষাঙ্গনে শিক্ষক অভিভাবকের
সচেতনত দৃষ্টি হয়ত ঘুনে ধরা যুব সমাজ
রেহাই পেতে সক্ষম।
আপনার সচেতন আহব্বানের ডাক হোক
প্রতিটি মানুষের হৃদয়ঙ্গম। শুভকামনা,

২০ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৫৮

মানবী বলেছেন: আঙ্কেল হো, বিদ্রোহী ভৃগুর সাথে আমি নিজেও দৃঢ় ভাবে সহমত।

আরেকটি সুন্দর মন্তব্যের জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ প্রিয় কানিজ রিনা।
ভালো থাকুন সব সময়।

৯২| ১৭ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১:৩৭

গ্রামের ছোট্র ব্লগার খায়রুল বলেছেন:

আমিতো কিছু পোষ্ট করতেই পারি না প্রায় এক বৎসর দরে। শুধু মন্তব্য করি। তাও ব্লগ ছাড়ছি না। খুব ভালো লাগে। পোষ্ট করার অনুমতি পেলে খুশি হবো।

২১ শে মে, ২০১৭ রাত ১২:১৮

মানবী বলেছেন: অদ্ভুত তো!
এটা আপনার প্রথম এ্যাকাউন্ট হলে এমন হবার কথা নয়।
আশা করছি ব্লগ কর্তৃপক্ষ শীঘ্রই আপনার সমস্যার সমাধান করবে।

৯৩| ১৭ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১:৫৪

আখেনাটেন বলেছেন: ভণ্ডামি যখন সমাজের প্রতিটি কোনায় কোনায় জেঁকে বসেছে তখন ব্লগই বা বাদ থাকে কেন?

২১ শে মে, ২০১৭ রাত ১২:২১

মানবী বলেছেন: তারপরও প্রতিবাদ আর প্রতিকারের চেষ্টা করতে হবে।

আপনাকে অনেক ধন্যবাদ আর শুভকামনা আখেনাটেন।

৯৪| ১৭ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৩:০৮

মহেড়া বলেছেন: আমার লেখায় তেমন মন্তব্য আসে না, আমি আশাও করি না। যারা ভালো লেখে তাদের যে আলোচিত ব্লগে পাই না এটাও আমার হতাশা। আমি নিজেকে নবীন ব্লগারই মনে করি। মনটা আমার খুব বিদ্গুটে স্বীকার করছি, ভালো লিখা না হলে একটু পড়তে ইচ্ছে করে না। কারণ স্কুল-কলেজ , এমন কি বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে অনেক মানহীন বই আমি পড়ার নেশায় পড়েছি, পরে দেখেছি ঐ বইগুলো না পড়ে আমি অন্য ভালো বইগুলো পড়তে পারতাম। সময়গুলো জলে গেল। ভালো বই কোনগুলো, ভালো মান কোনগুলো, ভালো মানুষ কোনগুলো এইটুকু বুঝতে আমার তৃতীয় বর্ষ পর্যন্ত গিয়েছে। তাও আমি সব বাদ দিয়ে শুরু করেছিলাম বলে। কতটুকু যোগ্যতা অর্জন করেছি তা জানি না। অনেক সময় পেরিয়ে গেছি জীবনের আছে উপার্জনের চিন্তা , আছে মুক্তির আকাঙ্ক্ষা, আছে দেখার চোখ, আছে আত্মা বাঁচিয়ে রাখার প্রয়াস সে যে কত চাপ ,কত বড় মোকাবিলা এবং সংগ্রাম আল্লাহ মালুম।
আমাদের দেশে সংগ্রাম আবার বহুমুখী, ঘরে-বাইরে, ভিতরে-বাহিরে। এক সময় দেখা যায় একান্ত একা। কেউ নেই পাশে। বিশ্বাসের ,ভুল পথের সে যে কি মারাত্বক দ্বন্ধ বলে শেষ করা যায় না। চোখের সামনে দেখেছি একটু কম চতুর হলে, একটু অস্বাভাবিক হলে কত ছেলে মেয়ের জীবন চলা এখানে কত অস্বাভাবিক। এগুলো দেখে আমি খুব ব্যাথিত হই। বুঝাতে যাই না পাছে সে ভুল বুঝে, জীবন দিয়েই বুঝে নিক। কত জীবনের হয় ক্ষয় শুধু বিনা কারণে। আমাদের দেশে একটি শিশুকেও জঙ্গী হওয়ার অভিযান দেখেছি। আমি জানি কেউ সৎ সাহস নিয়ে বলতে পারবে না থামো সেই কচি কিশলয় আকাঠা নয়, এ ফুল। মানবের জীবন এখানে অনেক মূল্যহীন, নৈতিকতা এখানে অনেক বেমানান। সবার জন্যে বাংলাদেশ নয়, সবার জন্যে দেশ নয়। মাটি এখানে বিভক্ত মানুষের জন্যে। ভালোবাসা এখানে একমুখী। মা এখানে শুধুই মা, মাতৃত্ব নয়। নেতা এখানে শুধুই নেতা নেতৃত্ব নয়। তবুও আমরা স্বপ্ন দেখি, পথ হাঁটি । ভালোবাসি। আমাদের যে একটি নতুন পৃথিবীর পথে যেতে হবে।

২১ শে মে, ২০১৭ রাত ১২:৩১

মানবী বলেছেন: ‌আপনার সমৃদ্ধ ভাবনার মন্তব্য থেকে স্পষ্ট হয় একজন লেখক হিসাবে আপনি কেমন! অত্যন্ত আগ্রহবোধ করছি আপনার ব্লগ পড়ার।

"চোখের সামনে দেখেছি একটু কম চতুর হলে, একটু অস্বাভাবিক হলে কত ছেলে মেয়ের জীবন চলা এখানে কত অস্বাভাবিক। এগুলো দেখে আমি খুব ব্যাথিত হই। বুঝাতে যাই না পাছে সে ভুল বুঝে, জীবন দিয়েই বুঝে নিক।"

- আমার মনে হয় চালা চুতর হবার চেয়েও সৎ আর সতর্ক থাকা বেশি জরুরী। যারা ভন্ডামী করে জনপ্রিয় হয়, এক সময় তাদের মুখোশ খুলে পড়তে বাধ্য। সৎ মানুষ সময়ের সাথে সাথে উজ্জলতর হতে থাকে আর দৃঢ়প্রত্যয়ী হতে শিখে।

মন ছুঁয়ে যাওয়া অসাধারণ মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ মহেড়া।
অনেক ভালো থাকুন সব সময়।

৯৫| ১৭ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৩:৩৭

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
সময়োপযোগী গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের অবতারণা করার জন্য মানবীকে ধন্যবাদ।
ধন্যবাদ সকল বিজ্ঞ মন্তব্যকারীদেরকে। সবাই সাধুবাদ জানিয়ে মন্তব্য করেছেন।
কিন্তু আমরা কি কখনো কারো কাছ থেকে শিক্ষা নেই ? ভালোকে সমর্থন জানাতে আমরা
যেমন কার্পণ্য করিনা তেমনি অন্যায়কে নিন্দা জানাতেও পিছপা হইনা। কিন্তু বাস্তব ক্ষেত্রে
তার কতটুকু প্রয়োগ করি সেটা আমরা নিজের কাছে প্রশ্ন করলেই জানতে পারি। তাই সমস্যা
ছিলো, আছে, থাকবে, কারণ আমরা কারো কাছ থেকেই শিক্ষা গ্রহণ করিনা। আমরা শিক্ষা দিতে পছন্দ করি।

২১ শে মে, ২০১৭ রাত ১২:৩৩

মানবী বলেছেন: সহমত।
আমাদের শিক্ষা গ্রহনের ধারাটা শুরু হোক এখন থেকেই...

সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ নূর মোহাম্মদ নূরু।
আন্তরিক শুভ কামনা রইলো।

৯৬| ১৭ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৩:৪৩

আমি ইহতিব বলেছেন: পুরো পোস্ট টি পড়ে শেষ করতে পারিনি এখনও। পিটিশনে সাইন করার জন্য লিংকে গিয়ে খুব অবাক হলাম এই দেখে যে মাত্র ২৯ জন এখন পর্যন্ত পিটিশন সাইন করেছেন। এর কোন যথাযোগ্য যুক্তি সংগত কারন খুঁজে পেলামনা। হতাশ হলাম।

২১ শে মে, ২০১৭ রাত ১:২৫

মানবী বলেছেন: পড়ে শেষ করেছেন কিনা বুঝতে পারছিনা!
তবে আপনাকে মনে হয় বেশ মিস করেছি, প্রিয় ব্লগার ইতি সামিয়ার এক পোস্টে মন্তব্য করে "আমি ইহতিব" কে ধন্যবাদ জানিয়ে এসেছিলাম /:)

৪০(অরিজিনালি ৪২) নং মন্তব্যে প্রিয় ব্লগার সত্যপথিক শাইয়্যান পিটিশনটি শেয়ার করেছেন। তাঁরা ফেসবুকে এই সম্পর্কে ক্যাম্পেইন শুরু করেছেন বলে জানিয়েছেন ১১৬ নং মন্তব্যে।

ধন্যবাদ আর শুভকামনা রইলো।

৯৭| ১৭ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৪:০৯

রাফিন জয় বলেছেন: ব্যানার প্রদর্শনটাই মুখ্য, তাই তনু, তন্নি, রিশা, মিতু, অভিজিৎ, দিপন, রাজন, রাকিব ইত্যাদি (আরকি যাদের গণমাধ্যম খুব ভাল মত ফোকাস করেছে) খুনের পরে অহরহ প্রতিবাদী মিছিল, মানববন্ধন, এরে ঘেরাও, তারে ঘেরা, আগ্রাম-বাগ্রাম অনেক কর্মসূচী।

কিন্তু আদৌ কি ফাতেমা (৫ বছরের শিশু যার যৌনাঙ্গ কেটে বড় করা হয়েছিলো ধর্ষণের জন্য) ধর্ষণ, দীপা (জবি'র শিক্ষার্থী) খুনের বেলায় হয়েছিল এমনটা? তা না হয় বাদ দিলাম, ২০১৬ বর্ষের প্রায় ৭২৪ জন নারী, যাদের সতীত্বহনন করা হয়েছে, তাদের বেলায় কি করা হয়েছিলো এমনটা? একদমি না।

আবার যাদের আমরা সত্যিই সুশীল বলে জানি, যারা সব সময় প্রতিবাদ করে থাকে, তাদের মধ্যেও রয়েছে মহা গলদ। তাই আমার এলাকায় তনু হত্যার প্রতিবাদে মিছিল-মানববন্ধন হয়, বর্ষবরণের দিন নারীর শ্লীলতাহানী নিয়ে প্রতিবাদী মিছিল-মিটিং হয়, কিন্তু আমার এলাকার পাশে রোজ রাতে যখন একটা মেয়েকে তার গৃহ মালিক ধর্ষণ করে, তখন কোন প্রতিবাদী মিছিল নাই। যখন আমার কলেজের পাশে একটা মেয়েকে সতীত্বহনন করে ফেলে যায় নরপিশাচের দল, তখন কোন প্রতিবাদী কর্মসূচী নেই। যখন প্রতিদিন স্কুল-কলেজের বালিকা শিক্ষার্থীরা উত্যক্ত হয় নরপিচাশদের কাছে, তা নিয়ে কোন কালেই প্রশ্ন নাই!

সবটাই সবটাই ব্যানার প্রদর্শন, সবটাই অবান্তর কেন যেন মনে হচ্ছে এখন!

২১ শে মে, ২০১৭ রাত ১:৪৭

মানবী বলেছেন: দুঃখজনক ভাবে ব্যানার প্রদর্শনটার মাঝেই এসব প্রতিবাদ সীমাবদ্ধ হয়ে উঠেছে আমাদের দেশে!
সেকারনে্ এখানে ব্যানার নয়, মূল সমস্যায় আলোকপাতের চেষ্টা করেছি মাত্র।

আরও দুঃখজনক কিছু কিছু লোক এই ব্যানারটাই দেখতে চায়, সমস্যার মূলে হাত দেয়া এরা পছণ্দ করেনা, আত্মসংকটে পড়ে যায়।

আপনি যাদের সুবিচারের কথা জানতে চেয়েছেন, স্বীকার করছি তাঁরা কেনো বাংলাদেশে কোন ধর্ষিতার ধর্ষকের শাস্তি হয়েছে বলে জানা নেই। আমি সুশীল নই তারপরও তাঁদেরই তাঁদেরই একজনকে নিয়ে দীর্ঘদিন আগের একটি প্রচেষ্টা হয়েছিলো এই ব্লগে। অগিনিত মানুষের সাথে ডঃ জাফর ইকবাল স্যার, সাহিত্যিক আনিসুল হক সহ অনেক মহান সাংবাদিক শামিল হয়েছিলেন এই প্রচেষ্টায়।

দুঃখজনক ভাবে বিচারের রায়ের দুয়ারে এসে দাবার চাল পাল্টে যায়, ধর্ষকের পোষনকারী ক্ষমতায় চলে আসে। সুবিচারের স্বপ্ন আছড়ে পরেছিলো সে মুহুর্তেই।

সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ রাফিন জয়।
শুভকামনা রইলো।

৯৮| ১৭ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৫:১১

সিনবাদ জাহাজি বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ লিখাটার জন্য।
+++

২১ শে মে, ২০১৭ রাত ১:৪৮

মানবী বলেছেন: আপনাকেও ধন্যবাদ আর শুভকামনা সিনবাদ জাহাজি।

৯৯| ১৭ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৫:৩৯

মোঃ গালিব মেহেদী খাঁন বলেছেন: ধর্ষণ করায় আমাদের সমাজ। সমাজ মানে আমাকে আপনাকে বাদ দিয়ে নয় ।তার মানে ধর্ষকের পৃষ্ঠপোষক আপনি, আমি, আমরা সবাই। আমরা মুখে যাই বলি না কেন মনে প্রাণে ধর্ষণকে সমর্থন করি। আর সমর্থন করি বলেই ধর্ষক শেষ পর্যন্ত সমাজের অংশই থেকে যায়। পরিবার থেকে ধর্ষককে বাঁচাতে সর্বাত্মক চেষ্টা করা হয়। সমাজপতিরা তার পক্ষ নেয়, প্রশাসন মামলা নিতে টালবাহানা করে। ধর্ষকের পক্ষে আইনি লড়াইয়ে নামে আদালত পাড়ার সবথেকে জাঁদরেল আইনজ্ঞরা। নির্লজ্জের মত তারা আবার ক্যামেরার সামনে দাড়িয়ে বিচার ব্যবস্থা নিয়ে সন্দেহ পোষণ করার মত ধৃষ্টতা দেখায়। ধর্ষণের বিচার চেয়ে ধর্ষিতার পরিবারকে আন্দোলন করতে হয়।
তারপরেও আমরা বলছি আমরা ধর্ষণের বিরুদ্ধে। আমরা এই যারা বড় বড় কথা বলছি। ভাল মানুষের মুখোশ পরে ঘুরে বেড়াচ্ছি তাদের পরিবারের বন্ধু সজনের কাছ থেকে খবর নিতে গেলে কতজনের কত কদর্য মুখ যে বেড় হয়ে আসবে তার ইয়ত্তা নেই।
যে সমাজের অধিকাংশ মানুষই দুর্নীতি পরায়ণ, অমানবিক, নৃশংস। যে সমাজে সমাজবিরোধীরাই সমাজপতি হয়ে বসে আছে সে সমাজই তো ধর্ষক। ধর্ষণ কি কেবল শারীরিকভাবে হয়? মানসিক ভাবে হয় না?
আমরা প্রত্যেকেই একটা বিকৃত মানসিকতাপূর্ন, নির্বোধ, নির্দয় সমাজের প্রতিনিধিত্ব করছি।

সংযুক্তিঃ ভাবছি আমিও কয়েকটা ফেক একাউন্ট খুলব। পাঠক সংখা বাড়ানো বলে কথা!

২১ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৫৬

মানবী বলেছেন: "ধর্ষণ কি কেবল শারীরিকভাবে হয়? মানসিক ভাবে হয় না?"

-শারীরিক ধর্ষনেরই শাস্তি হয়না যে দেশে, সেখানে মানসিক ধর্ষনের কথা বললে বদ্ধ পাগল ভাববে নিশ্চয়।

"আমরা প্রত্যেকেই একটা বিকৃত মানসিকতাপূর্ণ, নির্বোধ, নির্দয় সমাজের প্রতিনিধিত্ব করছি।"
-নিঃসন্দেহে। দুর্নিতি দুঃশাসন আর নৃশংসতাকে মুখ বুজে সয়ে, অন্যায় অনাচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ না করে আজকের এই ভয়াবহ সমাজ আমরাই গড়ে তুলেছি। যতোক্ষণ পর্যন্ত নিজের ঘরের ছেলে বা মেয়েটি ভিক্টিম হয় ততোক্ষণ পর্যন্ত আমাদের কাছে তেমন গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়না।

ঃ ফেক এ্যাকাউন্ট খুলতে পারলেই যে নিজের পিঠ চাপড়ানোর মতো নীচে নামা সম্ভব হবে এমন কিন্তু নয়। :-)
এই পোস্টটি বর্তমানের মাল্টি নিকদের মনে করে লেখা, অথচ অস্তিত্ব সংকটে পরে গর্ত থেকে বেরিয়ে এসেছে এই ব্লগের সবচেয়ে নটোরিয়াস বিতর্কিত রাজনৈতিকদলের কর্মী, যে ৫০-৬০ টি মাল্টি নিক নিয়েছিলো বলে অনেকেই জানাতেন। সে এখন এই পোস্টটি সহ্য করতে পারছেনা, ইনিয়ে বিনি্য়ে গান গাইছে- এধরনের হীণমন্যতাবোধ ধারন করা সম্ভব হলেই আপনার মাল্টি গ্রহন স্বার্থক হবে :-)

সুন্দর মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ মোঃ গালিব মেহেদী খাঁন।
ভালো থাকুন।


১০০| ১৮ ই মে, ২০১৭ রাত ১২:৫১

প্রামানিক বলেছেন: সময়োপযোগী গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে পোষ্ট করার জন্য ধন্যবাদ।

২১ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১:০১

মানবী বলেছেন: আপনাকেও ধন্যবাদ প্রামানিক।
শুভকামনা রইলো।

১০১| ১৮ ই মে, ২০১৭ রাত ১:২২

Naim500 বলেছেন: মন যমুনার পাড়ে....

২১ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১:০২

মানবী বলেছেন: .

?

১০২| ১৮ ই মে, ২০১৭ রাত ১:২৩

Naim500 বলেছেন:

২১ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১:৩৭

মানবী বলেছেন: কিছু বলতে চেয়েছিলেন মনে হয়!

ভালো থাকুন।

১০৩| ১৮ ই মে, ২০১৭ রাত ২:৫১

মাসুদ কামাল বলেছেন:
আশ্চর্য, ব্লগে লেখা নিয়েও এত সব কাণ্ড হয় নাকি?
অনেকটা বিস্মিত হলাম, কিছুটা হতাশও।

১৮ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৫৬

মানবী বলেছেন: আমি আপনাকে হতাশ না হতে বিনীত অনুরোধ জানাই। কেনো তা বলছি..

প্রথমত উপরের প্রায় সব কয়টি মন্তব্য থেকে স্পষ্ট হয়, অধিকাংশ ব্লগার বিষয়টি অপছন্দ করেন এবং অত্যন্ত নীচ কাজ বলে মনে করেন। গুটি কয়েকের কারাসাজিতে "আলোচিত পোস্ট" কলামটি দূষিত হয়ে থাকে।
আর, ব্লগকতৃপক্ষ এই পোস্টটি স্টিকি করে এধরনের অ্পচর্চার প্রতি নিজেদের অসমর্থনটা তুলে ধরেছেন, সুতরাং এধরনের অ্পকর্ম নিরসনে তাঁরা আন্তরিক হবেন বলে আশা করা যায়।
সবচেয়ে জরুরী হলো, জাতির রন্ধ্রে রন্ধ্রে দুর্নীতি আর অসততা তাই আপনি হয়তো জানেননা যার সাথে এক টেবিলে বসে হাসি মুখে কথা বলছেন, সেই এখানে এই ব্লগে এই অসততার অপচর্চার পাইওনিয়র কিনা! আপনি হয়তো জানেননা, নিজেকে অনলাইন এ্যাক্টিভিস্ট দাবী করে যে বড় বড় নীতিবাক্য আউড়ে চলেছে তার ক্লেইম টু ফেম হলো অপরের লেখা চুরি করে নিজের নামে চালিয়ে দেয়া, অন্যদের সামাজিক কান্ডের কৃতীত্ব চুরি করে আত্মপ্রচার করে নিজের উপর বড় এক এ্যাক্টিভিস্টের মুখোশ আঁটা! কয়টি মন্তব্য, কিছু হিটের জন্য সর্বপ্রকার অসৎ উপায় অবলম্বনের পথ এখানে সেই প্রথম চিনিয়ে গেছে কিনা!!

আপনার কয়েক শব্দের মন্তব্যের জবাব এমন দীর্ঘ করায় আন্তরিক ভাবে দুঃখিত!
আন্তরিক ধন্যবাদ মাসুদ কামাল।
হতাশ না হয়ে সব সময় ভালো থাকার অনুরোধ রইলো :-)

১০৪| ১৮ ই মে, ২০১৭ সকাল ১০:১৯

এস,এম,মনিরুজ্জামান মিন্টু বলেছেন: এক নিকের জন্য সময় বের করা যেখানে সৌভাগ্যের ব্যাপার!
সেখানে মাল্টি নিক খুলে কারসাজি করার মত এত সময় মানুষ কোথায় পায়?
পোস্টটি নতুনদের উৎসর্গ করার জন্য ধন্যবাদ।

২১ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১:৩৬

মানবী বলেছেন: আপনি পোস্টটি পড়েছেন সেজন্য আপনাকেও আন্তরিক ধন্যবাদ।

নতুনদের উৎসর্গ করা পোস্ট নতুনরা পড়লে পোস্টটি স্বার্থকতা লাভ করে।
অনেক শুভকামনা রইলো এস,এম,মনিরুজ্জামান মিন্টু।

১০৫| ১৮ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১:৩০

ফান্ডামেন্টাল শরীফ বলেছেন: প্রথম কথা হোল আমি এই সামুতে একেবারেই নতুন মাত্র ২-৩ দিন হোল , লগইন করে নোটিশ আকারে এইটা দেখার পর ভয় পেয়েছিলাম । ভাবলাম আমি আবার কি করালাম ??? কিন্তু পুরা পোস্ট ও ৭৭ টা মন্তব্য পরার পর বুঝলাম এইটা একটা আপুর লেখা পোস্ট যা সামুর লোকেরা সবার কাছেই পাঠাচ্ছে ।
যেহেতু আমি নতুন তাই প্রথম দিকে এই পোস্ট ও মন্তব্যের কিছুই বুঝি নাই কিন্তু পরে একটু হলেও বুঝতে সফল হয়েছি । আর বড় কথা হোল আমি যে কারনে সামুতে যোগদান করেছি সেটার স্বাদ পেয়েছি আমি , আমি এসেছি শিক্ষার জন্য এবং জ্ঞান আহোরন করার জন্য । সেটা আমি পাবো আশা করি ।
দ্বিতীয় কথা হোল আমি ভাবিনাই সামুতেও এমন হয় , আমি ভাবতাম এই সামুতে সব জ্ঞানী মানুষদের বসবাস তাদের সাথে থাকলে অনেক কিছু শিক্ষা যাবে কিন্তু এইখানে যে বাকি সামাজিক মাধ্যমগুলার মতো কাজ চলে তা আমাদের নতুনদের জন্য খুব হতাশা জনক ।
তৃতীয় কথা হোল এইখানের সহযোগিতা , দেখলাম মানবী আপুকে অনেকেই অনেক ভাবে সাহায্য করছেন , আমি ও সেটা খুব সাবলীল ভাবেই গ্রহন করছেন । জানি না আপু অনেক পরিচিত বলে এমন হোল কিনা । মনে প্রশ্ন জাগে নতুনরা কি এই সাহায্য পায় ??? কারন আমাদের সমাজ তেলা মাথায় তেল দিতে পছন্দ করে । জ্ঞানী মানুষেরা ও কি সেই পথে হাঁটে ??

## আমি অনেক বানানভুল করি, এইটা ইচ্ছাকৃত না । অনেক চেষ্টা করেও এই ভুল এড়িয়ে চলতে পারি না । তাই সবার কাছে আগেই ক্ষমা চেয়ে নিছি ।

১৮ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১:৪১

মানবী বলেছেন: ব্লগে স্বাগতম ভাইয়া।

এই পোস্ট আপনাদের নোটিশ আকারে পাঠাচ্ছে জেনে ভড়কে গেলাম! এটা হয়তো সামহয়্যারইনব্লগের নতুন কোন সংযোজন যা সম্পর্কে আমি অবগত নই। আর আমি আসলে মোটেও পরিচিত নই, দীর্ঘ সময় পর পর ব্লগে আসার কারণে অধিকাংশ সময় নিজেকেও নতুন মনে হয়। এবার বেশ অনেক মাস হলো আছি তারপরও খুব বেশি জন আমার নামটি জানেন বলে মনে হয়না কারণ ব্লগে দীর্ঘ সময় থাকা হয়না দেখে হয়তো।

এখানে অধিকাংশ ব্লগারেরা খুব সহযোগিতা করে থাকেন, নতুন পুরনো সকলকেই। আমি জ্ঞানীও নই, আমার তেলা মাথাও না :-)

পোস্টের মন্তব্যে সহযোগিতা সম্পর্কে জেনে নিশ্চয় বুঝেছেন বানান বিষয়ে আমি কি পরিমান অজ্ঞ! সুতরাং বানান ভুল কোন চিন্তা না করে নিজের মতো লিখে যান। নিজের পোস্টে মন্তব্যের জবাব আর অন্যদের পোস্ট মন্তব্য করায় অভ্যস্ত হলে এখানে আপনার সময় ভালো কাটবে আশা করি।

অনেক অনেক ধন্যবাদ আর শুভকামনা রইলো ফান্ডামেন্টাল শরীফ।

১০৬| ১৮ ই মে, ২০১৭ দুপুর ১:৪৬

নূর আলম হিরণ বলেছেন: পোষ্ট পড়ে কিছুটা আশার আলো দেখছি। ধন্যবাদ লেখককে।

২১ শে মে, ২০১৭ রাত ১২:১৯

মানবী বলেছেন: জেনে ভালো লাগলো।

আপনাকে ধন্যবাদ নূর আলম হিরণ।
ভালো থাকুন।

১০৭| ১৮ ই মে, ২০১৭ বিকাল ৩:১৮

ফান্ডামেন্টাল শরীফ বলেছেন: আপু ভুল আমার কারন আমি নতুন তাই জানি না কোনটা কি , সকলের কাছে যেভাবে গিয়েছে আমার কাছে ও সেভাবেই এসেছে ।

২১ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১:৩৯

মানবী বলেছেন: কোন সমস্যা নেই ভাইয়া।

অনেক ভালো থাকুন।

১০৮| ১৮ ই মে, ২০১৭ রাত ৯:৫৭

হাফিজ রাহমান বলেছেন: বোন ! আমার কথাগুলোর সব দেখি আপনি বলে ফেলেছেন। এখন আমি কি বলব ? সাহসী বক্তব্যের জন্য আপনাকে লাল গোলাপের রক্তিম শুভেচ্ছা। আপনাকে বীরাঙ্গনা উপাধি না দিয়ে পারা যাচ্ছে না। সত্য কথাগুলো এতটা সাহসের বলতে পারার সক্ষমতা খুব কম মানুষেরই থাকে। বস্তুত সত্য কথা বলতেই হয়। এখানে সাধুতা দেখানো কাপুরুষতা।...। অসংখ্য ধন্যবাদ। অনেক অনেক ভাল থাকুন।

২১ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১:৪৭

মানবী বলেছেন: ‌আপনাকে আন্তরিক ধন্যবাদ হাফিজ রহমান তবে বীরাঙ্গনার কথা শুনে ঘাবড়ে গিয়েছি না বিব্রত হয়েছি বুঝতে পারছিনা।
এটা খুব সাধারণ একটি পোস্ট, দিনের আলোর মতো কিচূ সত্যকথা নিয়ে আলোচনা মাত্র- বীরত্বের কিছু নেই ভাইয়া।

সাধারণ পোস্টটিকে নিজগুনে অসাধারণ করে দেখেছেন।
অনেক অনেক ভালো থাকুন।

১০৯| ১৮ ই মে, ২০১৭ রাত ১১:০৫

মোস্তফা কামাল পলাশ বলেছেন:
আপনাকে ধন্যবাদ আপা। আশা করছি ভাল আছেন। লেখা-লেখি শুরু করতে সময় লাগবে হয়ত। লেখা-লেখি বিষয়টা কিছুটা চলন্ত ট্রেনের মতো। স্টার্ট নিতে সময় নেয়। তবে একবার চলা শুরু করলে থামতে চায় না। তবে চোরা-কারবারিরা যেমন মাঝ পথে চেন টেনে সাময়িক ভাবে অভীষ্ট লক্ষে পৌছাতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে সামুর কিছু ব্লগারও তেমনটাই চেষ্টা করে। চোরা-কারবারিদের মতো এরাও সাময়িক ভাবে সফল হয় বটে তবে দীর্ঘমেয়াদী টিকে থাকতে পারে না। ৫ বছর ব্লগিং করতেছে এই রকম ব্লগারদের ব্লগ ঘুরে দেখলেই বুঝা যায় তারা কি লেখে? কেন লেখে? কাদের জন্য লেখে?

আপনাকে আবারও ধন্যবাদ।

২২ শে মে, ২০১৭ রাত ১২:৫১

মানবী বলেছেন: গত ৫ বছর টাইম লাইনটা দিয়ে মনে হয় আমি বুঝতে পারবোনা। অমার বেশ কজন প্রিয় ব্লগার আছে যাঁরা গত ৫ বছর ধরে ব্লগিং করছেন এবং নিশ্চিত হয়ে বলা যায় তাঁরা কাউকে আক্রমণ করা দূরের কথা অভদ্র আচরণ করবেননা।
যখন কারো আচরণ এক বারের জন্যও আপত্তিকর মনে হয়, আমি তার ব্লগে যাবার আর রুচীবোধ করিনা- এমনটা প্রথম থেকেই।
মাল্টি নিকের আড়ালে স্বরূপ লুকিয়ে রাখলে মাঝে মাঝে বিভ্রান্ত হয়ে হয়তো ঘুরে এসেছি।


অচিরেই লেখা শুরু করবেন আশা করি ভাইয়া।
অনেক অনেক ভালো থাকুন মোস্তফা কামাল পলাশ।

১১০| ১৯ শে মে, ২০১৭ সকাল ৮:৪১

সৈয়দ তাজুল ইসলাম তাজ হাবিবী বলেছেন: চাদরে ঢাকা অসভ্য মানুষগুলোর অসভ্য মার্কা লিখাগুলোর পরিবর্তে এই রকম মূল্যবান লিখাগুলো যদি নির্বাচিত পাতায় প্রকাশ পেতো।
অনেক অনেক শুভকামনা রইলো

২২ শে মে, ২০১৭ রাত ১২:৫৫

মানবী বলেছেন: এই লেখাটি আপনার কাছে মূল্যবান হয়েছে জেনে সন্মানিত হলাম।

আন্তরিক ধন্যবাদ আর শুভকামনা সৈয়দ তাজুল ইসলাম তাজ হাবিবী।

১১১| ১৯ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১২:২২

ধ্রুবক আলো বলেছেন: পোষ্টটি পিন পোস্ট হয়েছে তাই অভিনন্দন জানিয়েছি :)

২২ শে মে, ২০১৭ রাত ১:২০

মানবী বলেছেন: পোস্ট স্টিকি হবার মাঝে আসলে কোন অর্জন নেই।

যে কোন লেখা বা পোস্টের স্বার্থকতা সেখানেই যখন তা মানুষের মনে ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে সক্ষম হয়।
যেকোন সময় যে কারো পোস্ট স্টিকি হতে পারে, একসময় তা সরেও যায়। :-)

আবারও এসে ব্যাখ্যা করে যাবার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ ভাইয়া।
ভালো থাকুন সব সময়।

১১২| ১৯ শে মে, ২০১৭ বিকাল ৩:৩৬

জীবন সাগর বলেছেন: চার মাস চলে গেলেও এখনো তিন দিনের পর্যবেক্ষণ শেষ হল না!! নিজের দোষটাও জানিনা!!!

২২ শে মে, ২০১৭ সকাল ১১:৫৮

মানবী বলেছেন: আমি এই ব্যাপারটি বুঝতে অক্ষম। আরো বেশ কয়েকজন গুনী ব্লগার দীর্ঘদিন ধরে ব্লগিং করার পরও প্রথম পাতায় এ্যাকসেস নেই।
কোন দোষ নিশ্চয় নেই, এটা হয়তো এদের পলিসির কোন কিছু হবে।

আপনার জন্য শুভকামনা জীবন সাগর।

১১৩| ১৯ শে মে, ২০১৭ বিকাল ৪:১৪

এক ভিনদেশী বলেছেন: নীচের ধর্ষন+হত্যা অনেক বেশী দু:খজনক ছিল। এরজন্য কোন প্রতিবাদ গড়ে তুলতে দেখা যায়নি, হয়তো তার গরীব ছিল তাই। একদিকে বিচারহীনতা অন্যদিকে আমাদের বেছে বেছে প্রতিবাদ করার অভ্যাস এসব ঘটনাকে উৎসাহিত করছে!

২২ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১২:০০

মানবী বলেছেন: কাদের প্রতিবাদের কথা বলছেন স্পষ্ট নয়।
কারা প্রতিবাদ করেনি বললে জবাব দেয়া সম্ভব হতো।


ধন্যবাদ ও শুভকামনা এক ভীনদেশী।

১১৪| ১৯ শে মে, ২০১৭ রাত ১০:২৭

Farhana Sharmin বলেছেন: অনেক ভাল লাগল পড়ে।সময়োপযোগী পোষ্ট।

২২ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৩৩

মানবী বলেছেন: জেনে খুব ভালো লাগলো, অনেক ধন্যবাদ Farhana Sharmin।
ভালো থাকুন সব সময়।

১১৫| ২০ শে মে, ২০১৭ রাত ১১:২৫

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: আপু, একটি ফেইসবুক ক্যাম্পেইনটি শুরু করে হয়েছে আগামী দুই সপ্তাহের জন্যে।

আপনাকে আবারো ধন্যবাদ।

২০ শে মে, ২০১৭ রাত ১১:৫৯

মানবী বলেছেন: জেনে ভালো লাগলো ভাইয়া।
অনেক ব্লগার পিটিশনে স্বাক্ষরের সংখ্যা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

ফেসবুকে আমার কোন এ্যাকাউন্ট নেই, তাই সেখানের ঘটনাবলী তখনই জানতে পারি যদি কেউ ব্লগে এসে শেয়ার করে।
এখান থেকে আপনাদের সাথে সংহতি প্রকাশ করছি।

অল দ্যা বেস্ট ভাইয়া।

১১৬| ২০ শে মে, ২০১৭ রাত ১১:২৭

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: লিংক- We are United against the Rapists

২১ শে মে, ২০১৭ রাত ১:৩১

মানবী বলেছেন: ভাইয়া, আপনারা অতীতে এধরনের কাজ করেছেন হয়তো যদি না করে থাকেন.... অভিজ্ঞতা থেকে একটি ব্যাপার জানাতে ইচ্ছে করছে!

এধরনের ক্যাম্পেইনে স্বভাবতই একদল কুলাঙ্গারের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়া। সমাজের মাঝে মিশে থাকা এই কীটেরা অনলাইনেও আছে- ব্লগে, ফেসবুকে সবখানেই আছে। এরা এধরনে প্রতিবাদ দেখে অস্তিত্ব সংকটে পড়ে মরিয়া হয়ে উঠে। কেউ সরাসরি আক্রমণ করে, কেউ ইনিয়ে বিনিয়ে পোস্ট দেয়- যা দেখে প্রাথমিক ভাবে বেশ ভালো কথা বলছে মনে হলেও একটু লক্ষ্য করলে দেখা যায় এদের আসল অস্থিরতাটা কোথায়। কাপুরুষ বিধায় এরা শুরুতেই মূল কথাটা না বলে শেষের দিকে জানাবে।

এদের বিষয়ে পরামর্শ হলো কীট পতঙ্গের মতো এড়িয়ে যান। জাস্ট ইগনোর। জুতোর তলায় পিশে মারার মতো সময় নষ্ট করাও অনুচিত, সেই গুরুত্বটা পেলেও এরা ধন্য হয়ে যায়।

ভালো থাকুন ভাইয়া। :-)

১১৭| ২১ শে মে, ২০১৭ সকাল ১১:৪৭

ধ্রুবক আলো বলেছেন: খুব ভালো একটা পোষ্ট; নতুন ব্লগারদের জন্য খুব ভালো একটা পোস্ট।
যারা দুই নম্বরি করে ব্লগে তাদের জন্যে একটি ভুয়া পোষ্ট :P

আমি বলি, পোস্ট হিট করার জন্যে করুক দুই নম্বরি, কি হবে ? বড় জোর ব্লগ পর্যন্তই পরে আর কি করবে, যদি বই বের (তা এদের সম্ভব না) বই হিট করার জন্যে একাধিক পাঠক খুলবে?!

২১ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১:০৬

মানবী বলেছেন: এই পোস্টে বর্তমানের কথা উল্লেখ করেছিলাম, তা দেখে যে এই ব্লগে দুনম্বরীর চ্যাম্পিয়ন সর্বাধিক মাল্টিনিকধারী ব্লগার তার ডজন খানেক মাল্টি নিক নিয়ে গর্ত থেকে বেরিয়ে আসবে ভাবনায় ছিলোনা। এখন মরিয়া হয়ে এই পোস্টের সমালোচনা করে মাল্টি নিক কেনো তেমন ক্ষতিকর নয় সম্পর্কে গান গাইতে চাইছে!! :-)

বইয়ের কথা আর কিছু নাই বা বলি।

তবু পোস্টের কন্টেন্ট সম্পর্কে মন্তব্যে করেছেন দেখে ভালো লাগলো প্রিয় ব্লগার ধ্রবক আলো।
অনেক অনেক ধন্যবাদ আর আন্তরিক শুভকামনা রইলো।

১১৮| ২১ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১:০৬

উর্বি বলেছেন: মানবী আপু। যা বুঝলাম। অনেকেরই মনঃক্ষুণ্ণ হইসে। কিছু মানুষ প্রত্যাশা করছিল ধর্ষণ এর পিটিশন দাবিতে তারা একটা ফ্রি রগ রগে রসালো গল্প শুনতে পারবে। ;) যাউকগা তাদের সেই মনোবাসনা তো পূরন হয়ই নাই উলটা মাল্টি নিকের জ্ঞানে খোঁচা খাইসে......হাহাহাহাহাহাহাহহাহাহহা =p~ =p~ =p~ B-)

২১ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১:১৬

মানবী বলেছেন: এক বিতর্কিত(পড়ুন ঘৃনিত) রাজনৈতিক দলের সবচেয়ে নটোরিয়াস কর্মী, যার কর্মকান্ডের কারনেই আরেক রাজনৈতিক দল এখানে একসময় গালাগালে ভাসিয়ে দিতো। বলতে পারেন এই ব্লগের তার সর্বাধিক মাল্টি নিক, এই পোস্ট দেখে যে এতোটা নিরাপত্তাহীণতায় ভুগবে আর মাল্টি নিক নিয়ে গর্ত থেকে বেরিয়ে আসবে ধারনা ছিলোনা! B-)

এই পোস্টের বিরোধীতা করে, নির্যাতিতা সম্পর্কে কুৎসা রটিয়ে নোংরা পোস্ট দিতে পারে, তাদেরকে মনুষ্য জাতির অন্তর্গত মনে করিনা।
মজার ব্যাপার হলো এরা বুঝে, এদের কর্মকান্ড কতোটা ঘৃণ্য আর সমালোচিত তাই নতুন নতুন নিকে আসে। অরিজিনাল নিকে আসার সৎ সাহস নেই মোটেই।

ঐ পোস্টটি একঝলক দেখেছি মাত্র, পুরোটা পড়ার বা সব মন্তব্য পাঠের রুচি হয়নি।



ইনশাহ্আল্লাহ্ অনেকদিন বাঁচবেন প্রিয় উর্বি, আব্দুল্লাহ্ স্যারকে নিয়ে লেখা পোস্টটি আবার দেননি দেখে পুরনোটিতে মন্তব্য করতে যাচ্ছিলাম এখনই :-)

আন্তরিক ধন্যবাদ আর শুভকামনা উর্বি আপুটাকে।

১১৯| ২১ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১:৫২

উর্বি বলেছেন: হাহাহহাহাহাহাহা। একেই বলে কো ইনসিডেন্স। এটা অবশ্যই আমার জন্য সৌভাগ্য B-) B-) B-)

২২ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৫১

মানবী বলেছেন: কো ইন্সিডেন্স অবশ্যই আপু। :-)

ভালো থাকুন সব সময়।

১২০| ২১ শে মে, ২০১৭ বিকাল ৩:২৪

সিগনেচার নসিব বলেছেন: এধরণের পোস্টগুলোকে ইদানিং কমেডি মনে হয়
সচেতন সচেতন পোস্ট মাগার কোন প্রতিফলন নাই
এর থেকে কোনদিনও নিস্তার পাবে না বাংলাদেশ

২৩ শে মে, ২০১৭ সকাল ৮:২৯

মানবী বলেছেন: কমেডি মনে হবেনা যদি আমরা প্রত্যেকে সচেতন হয়ে নিজ নিজ পরিবেশে নৈতিকতার চর্চায় সচেষ্ট হই।

ধন্যবাদ সিগনেচার নসিব।
ভালো থাকুন।

১২১| ২১ শে মে, ২০১৭ বিকাল ৪:০৭

হীরক মুশফিক বলেছেন: “সামহয়্যাইনব্লগের ক্ষুদ্র পরিসরে আমরা যদি অন্যায় পরিহার করে ডিগনিটি নিয়ে ব্লগিং উৎসাহিত না করতে পারি তাহলে ১৬ কোটি মানুষের অন্যায় নিয়ন্ত্রণের আশা করাও অন্যায়। তাই, প্রত্যেক সচেতন ব্লগারের উচিৎ এধরনের অনৈতিক কাজে লিপ্ত ব্লগারদের সম্পূর্ণ এড়িয়ে যাওয়া যতোদিন পর্যন্ত তারা এই অপকর্মটি থেকে সরে না আসছে”
ধন্যবাদ লেখক আপনাকে।
এমন একটি প্লাটফর্মে এসব ঘটতে পারে ধারণার বাইরে ছিলো। কিছু ঘোর কেটে গেলো বৈকি!

২৩ শে মে, ২০১৭ সকাল ৮:৩২

মানবী বলেছেন: ঘোর সব সময় মানুষকে বিভ্রান্ত করে। :-)
কোন কিছু ভালোলাগলে তার বাস্তবতাটা মেনে নিয়ে পছন্দ করা জরুরী।


আন্তরিক ধন্যবাদ আর শুভকামনা হিরক মুশফিক।

১২২| ২১ শে মে, ২০১৭ রাত ১০:৫১

বুক ওয়ার্ম বলেছেন: সামু ব্লগের শুরুতে খুব অল্প সময়ে কিছু পরিচিতি পাইসি, সহব্লগারদের ভালবাসা পাইসি, সিনিয়র ব্লগারদের স্নেহ পাইসি!

তখন সামুতে নাস্তিকদের সেই প্রভাব! জানাপা, আরিল তাদের জামাই আদর করে। আসিফ মহিউদ্দীন, সবাক, সন্যাসী, কর্ণ, রাজহাস, নাহোল এরকম কিছু বাইন টাইপের খ্যাচড়া পোলাপাইনের সেইরকম সিন্ডিকেট! একের পর এক নাস্তিক পোস্ট দেয় তারা, বিশাল ক্যাচাল লাগে, সাধারণ ব্লগার সেগুলোর প্রতিবাদ করে আর গণহারে সাধারণ ব্লগাররা ব্যান খায়! কেন জানি তাদের গৃহপালিত কুত্তার মতো আদর সোহাগ দেয়া হইত তাদের! তখন ব্লগের অবস্থা ছিলো "আমাকে কিছু আস্তিক / নাস্তিক ক্যাচাল দাও, আমি তোমাদের এত্তোগুলা "হিট" দিব!!

একবার তো সন্যাসী একটা ঐতিহাসিক পোস্ট দিসিল, সেইটা আবার স্টিকিও হইসে সামুতে! সেই পোস্টের ইনায়ে বিনায়ে সারমর্ম হইলো, "দেশে একাত্তরের যুদ্ধাপরাধের জন্য ঢালাওভাবে ইসলাম ধর্ম দায়ী"! প্রথমে সাধারণ ব্লগাররা সেই পোস্টের মর্ম বুঝে নাই! তারপর যখন কয়েকজন অভিজ্ঞ ব্লগার এসে সেই প্রপাগাণ্ডা মূলক স্টিকি পোস্টের বিরোধিতা করছে তারপর শুরু হইছে মজা! তখন সামুর পোস্টে প্লাস / মাইনাস রেটিং ব্যাবস্থা ছিলো! শুরু হলো গন্ডায় গন্ডায় মাইনাস প্রদান! এবং সেই পোস্ট সর্বশেষে রেকর্ড সংখ্যক মাইনাস খাইয়া ব্লগ ইতিহাসের আস্তাকুরে নিক্ষিপ্ত হইছে! (এই ঘটনার পর জানা আপা সামু থেকে "মাইনাস" রেটিং উঠিয়ে দিলেন সাধারন ব্লগারদের প্রবল বিদ্রোহের পরেও!! কারণ সবাই জানে!)

তখন একটা মজার বিষয় ছিলো! ব্লগে তখন "ছাগু" ট্যাগ তার যৌবন পার করতেসে! খুব সাবধানে পা ফেলতে হয়, কমেন্ট করতে হয়, পোস্ট দিতে হয়!! কে কোনখান দিয়া আইসা আবার ছাগু ট্যাগ ধরায়া দেয় এই ভয়ে! আসলেই সেসময় ছাগু ট্যাগের একটা ভাব ছিলো!! পার্ট ছিলো!!

তখন জামাত / শিবিররা তো ছাগু ট্যাগ খাইতোই, বিএনপি পন্থী ব্লগাররাও খাইতো! তখন ব্লগে নাস্তিকরা এই ট্যাগ দেওয়ার অলিখিত সত্ত্বাধিকারী ছিলো এবং একসময় সেই ট্যাগ ব্যাবহার করা শুরু হইলো সাধারণ মুসলমান ব্লগারদের বিরুদ্ধেও! মনে করেন, একজন সাধারন ব্লগার একটা ধর্মীয় পোস্টে কমেন্ট করছে তখন নাস্তিকরা যাইয়া কইতো, "ল্যাঞ্জা বাইর হইয়া গেসে!" "তুমি ছাগু"! একসময় তাদের নাস্তিকতা পোস্টের বিরোধীতা করলেও ছাগু ট্যাগ দিতো!! নাস্তিকতা বিরোধী কোন লেখা লিখলেও ব্লগাররা ছাগু ট্যাগ দিতো, শেষমেষ এমন অবস্থা দাঁড়াইছে যে, কেউ পুরাতন জোকস পোস্ট করছে, কারও পছন্দ হয়নি, সেও পোস্টদাতাও ছাগু হইয়া যাইতো!

একসময় সেই "ছাগু" ফিল্টারে আটকাইয়া যাইতো অনেক সাধারন ব্লগার, বিএনপি পন্থী ব্লগার এমনকি আওয়ামী পন্থী ব্লগারও (যেমন: ব্লগার শিপু ভাই)

কিন্তু এই সকল ঘটনার অনেক বছর পরে এসে হিসেব মিলিয়ে নেন, "কই গেল ছাগু ট্যাগ ফিল্টার, কই আইসা দাড়াইসে সামু ব্লগ, কই গেল নাস্তিকরা, কই গেল সামুর সেইসকল হিট দেয়া ধান্দাবাজরা!"

এইতো গেল ভার্চুয়াল ব্লগের এক"ফিল্টার" কাহিনী, এবার রাজপথে তাকাই! নতুন ফিল্টার আসছিল "রাজাকার" ফিল্টার। সেই ফিল্টারে সাচ্চা নাস্তিক ছাড়া সবাই একে একে আটকে গেসিল! এমনকি অনেক আওয়ামীলীগারও আটকে গেসিল (যেমন : মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডার, সাবেক আওয়ামী মন্ত্রী এ কে খন্দকার!)! এখন এই ফিল্টারও অচল!!

ব্লগাররা ব্লগ কেন ছাড়ল এসব ওপেন সেক্রেট! পুরান ব্লগাররা এসে মাঝে মাঝে দেখে। এসে দেখতেসে মাল্টির ছরাছড়ি। কে / কারা এসব করে বুঝা ব্যাপারনা। ব্লগরে ভাঁড়ের আখড়া বানাইতে না চাইলে মাল্টি ফিল্টার এড না করলে সামুর ব্লগার হিসাবে পরিচয় দিলে মানিজ্জত থাকবেনা।

২৩ শে মে, ২০১৭ সকাল ৮:৪৫

মানবী বলেছেন: সমস্যা কিছু নীতিবর্জিত রাজনৈতিক দলের মগজধোলাইকৃত ক্রীতদাসদের নিয়ে। শুরুর দিকে যখন "পেইড ব্লগিং" শব্দটি শুনেছি, ভেবেছিলাম এটা প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে এধরনের নিশেষন ব্যবহার করে। পরে হতভম্ব হয়ে যখন জানি ধিকৃত রাজনৈতিক দলের ক্রীতদাস এক মাদকাসক্ত কুলাঙ্গার সর্বত্র মিথ্যাচার করছে, আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয়ে (?)উচ্চশিক্ষায় অধ্যায়নরত ছাত্ররা তাকে নির্লজ্জের মতো সমর্থন করছে তখন ব্যাপারটি বিশ্বাস করতে বাধ্য হই।

এখানে আওয়ামি লীগের মুখোশ উন্মোচিত হলে যেমন আওয়ালীগের ক্রীতদাসেরা "রাজাকার" ট্যাগ দিতে মরিয়া হয়ে উঠে, তেমনি ধর্মান্ধ বা জামাতের ক্রীতদাসেরা তাদের মুখোশ উন্মোচিত হতে দেখলে নাস্তিক/আওয়ামিলীগ ট্যাগ দেবার ধৃষ্টতা দেখায়! এই অপচর্চায় শুধুই তাদের নিজেদের দুর্বলতা প্রকাশ পায়, যাকে বলছে তার কিছু এসে যায়না।

মাল্টি নিক দিয়ে নিজের পিঠ চাপড়ানোটা শুধু গ্লানিকর নয়, সৎ এবং আত্ম মর্যাদাবোধ সম্পন্ন ব্লগারদের প্রতি অন্যায় আচরণ।
কর্তৃপক্ষ ব্যাপারটা নিয়ন্ত্রণ করতে পারলে খুব ভালো। তাছাড়া নিজেরা সচেতন হয়ে অসৎদের বর্জন করা যায়।

আপনার বর্তমান নিকের কাছাকাছি নিকের একজন জনপ্রিয় ব্লগার ছিলেন, খুব সম্ভবত ব্লগের শুরু দিকে তিনি এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছিলেন।

আন্তরিক ধন্যবাদ বুক ওয়ার্ম।
ভালো থাকুন সব সময়।

১২৩| ২২ শে মে, ২০১৭ সকাল ৮:২৬

তাহমিদ তাজ ওয়ার বলেছেন: চাঁদাবাজি , দুর্নীতি , ধর্ষণ , হত্যা , গুম , এসকল অপরাধ এর বিরুদ্ধে এখন এ সবাইকে এক হতে হবে । সরকার এর ভাল কাজ এর প্রশংসা , খারাপ কাজ এর সমালোচনা করা ও আমাদের নৈতিক দায়িত্ব । নিজেদের অধিকার আদায়ে যেমন জাগ্রত হতে হবে, তেমনি অন্যের অধিকার , দেশের যেন কোন ক্ষতি না হয় তা ও নিশ্চিত করতে হবে । ব্লগ এমন একটি সাইট যেখান থেকে নিজের মতামত প্রকাশ করা যায় । জাগ্রত করা যায় পুরো দেশ , এমন কি বিশ্ববাসীকে , যেকন অন্যায় এর বিরুদ্ধে । ঠিক তেমনি শুরু করা যায় মহৎ কাজ , আবার খারাপ কাজ করা যায় । তাই আমাদের মহৎ কে অর্জন ও খারাপ কে বর্জন করে এগিয়ে যেতে হবে ।

২৩ শে মে, ২০১৭ সকাল ৮:৫০

মানবী বলেছেন: আপনার মন্তব্যের প্রতিটি লাইনের সাথে সহমত।

যেকোন অপকর্ম বা অপরাধের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে সবচেয়ে প্রথমে নিজেদের নৈতিকতার চর্চাটা জরুরী। নিজ নিজ পরিবার, কর্মক্ষেত্রে, পরিচিত মহল সর্বত্র অন্যায়ের বিরুদ্ধে সচেতন হলে এক সময় সামগ্রিক পরিবর্তন আসতে বাধ্য।


চমৎকার গঠনমূলক মন্তব্যের জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ তাহমিদ তাজ ওয়ার।
ভালো থাকুন সব সময়।

১২৪| ২২ শে মে, ২০১৭ সকাল ৯:২৬

মোঃ খুরশীদ আলম বলেছেন: সৃষ্টিকর্তা সবই দেখেন, যা আমরা করি গোপনে কিংবা প্রকাশ্যে। এই বোধ জাগ্রত হোক সকল বিশ্বাসীর মনে।

২৩ শে মে, ২০১৭ সকাল ৮:৫৩

মানবী বলেছেন: এই সত্যটি আসলে আমাদের প্রাত্যহিক জীবনের প্রতিটি কাজে মনে রাখা জরুরী।
শুভবোধ জাগ্রত হোক আমাদের সকলের।

অনেক ধন্যবাদ মোঃ খুরশীদ আলম।
আন্তরিক শুভকামনা রইলো।

১২৫| ২৩ শে মে, ২০১৭ রাত ৩:০৪

রুদ্র জাহেদ বলেছেন: খুব গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট। শুধু এটাই বলব- আমাদের অধিকাংশের মানসিকতার পরিসর এখনো একটা দুষ্টচক্রে ঘুরতে থাকে।যার ফলে শেষ পর্যন্ত দেখা যায় যে এসব মানুষদের মাঝে মনুষ্যত্বের ছিটেফোঁটাওও নেই!

২৩ শে মে, ২০১৭ সকাল ৯:০৯

মানবী বলেছেন: সহমত।
ধন্যবাদ সুন্দর মন্তব্যের জন্য।

দীর্ঘদিন পর ব্লগে মনে হয়, আপনার কবিতা সম্প্রতি চোখে পড়নি।
অনেক ভালো থাকুন রুদ্র জাহেদ।

১২৬| ২৩ শে মে, ২০১৭ সকাল ৭:১৭

সৌমিক আহমেদ খান বলেছেন: পোস্ট লাইকে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করে দিসি
Take that..

২৩ শে মে, ২০১৭ সকাল ৯:১০

মানবী বলেছেন: .

:-)

১২৭| ২৩ শে মে, ২০১৭ সকাল ৮:৪৪

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: এদের কেউ কেউ আমার অত্যন্ত প্রিয় ব্লগার তাই তাদের অনৈতিক আচরণটি অনেক বেশী পীড়াদায়ক! পোস্ট করার কয়েক মিনিটের মাঝে নিয়মিত ভাবে তাদের সাধারণ মানের লেখাটি আলোচিত পোস্টে চলে যাওয়ায় হতভম্ব হয়ে লক্ষ্য করি এরা নিজের মাল্টিনিক নিয়ে নিজেদের পিঠ চাপড়ে যাচ্ছে। মনে রাখা জরুরী, যে কোন অন্যায় করতে হলে নিজের নীতি বিসর্জন দিয়েই করতে হয়, লজ্জা সম্পূর্ণ ঝেড়ে ফেলেই শুধু এমনটা করা সম্ভব। আত্মমর্যাদাবোধ আর লজ্জা নিঃসন্দেহে এমন ঠুনকো পরিচিতির চেয়ে হাজার গুন বেশী মূল্যবান।
যে অপরের লেখা চুরি নিয়ে বড় বড় কথা বলছে এধরনের নির্লজ্জ আচরণ করে সে নিজেও যে একপ্রকারের চোর তা হয়তো বুঝতে পারছেনা। নিজের পোস্ট ভিন্ন নিকে ভালোলাগা জানানো, নিজের পোস্টে নিজেকে প্রশ্ন করে পরবর্তী পোস্ট দিতে উৎসাহিত করা- কখনও সৎ লোকের কর্ম নয়।


...........এমন লোকেরা আপনার প্রিয় তালিকায় থাকে কিভাবে সেটা ভেবেই তো আশ্চর্য্য লাগে আমার।

১২৮| ২৩ শে মে, ২০১৭ সকাল ৮:৪৬

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ****পাঁচ/ছয়জন চিহ্নিত ব্লগারের মাল্টিনিকের প্রমাণ সংগ্রহে আমার মাত্র ১০ মিনিটের মতো সময় নষ্ট হয়েছে, যাঁরা অধিক সময় ব্লগে কাটিয়ে থাকেন তাঁরা কতো সহজেই এদের চিহ্নিত করতে সক্ষম তা ভেবে দেখা জরুরী****

.............এদের পরিচয় জানালে খুশি হতাম, আমরাও চিনে নিতাম সহজেই।

১২৯| ২৩ শে মে, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:০৭

উর্বি বলেছেন: হুম। শুধু মাল্টি নিক,পোস্ট এ বিষয়টা আটকে নাই... কেউ কেউ ত পারলে বিখ্যাত ব্যাক্তিদের আকা ছবি ও নিজের বলে চালিয়ে দিতে সক্ষম।

২৪ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১২:২৩

মানবী বলেছেন: অসততা সব সময়ই ঘৃণ্য সেটা যে রূপেই হোক।
আপু, আমি যেহেতু জানিনা আসলেই কেউ কারো কবিতা, ছবি, গল্প চুরি করেছে কিনা- সময় নিয়ে সেসব পড়া হয়না দেখেই হয়তো- তাই কে চোর কে নয় তা আমার পক্ষে বলা মুশকিল।

আপনাকে শুধু বলবো, বাইরের পৃথিবীটা অনেক বড়। আর প্রতিদিন সেখানে একদল মানুষ আপনার মানসিক প্রশান্তির প্রত্যাশা নিয়ে থাকে, আপনি কম্পোজড থাকা মানে তাঁদের সুস্থ হয়ে উঠতে যথার্থ পরামশ দেয়া। তাই তুচ্ছ ব্যাপারে একদম মানসিক কষ্ট পাবেননা, নিজের জন্য না হলেও তাঁদের জন্য ভালো থাকতে হবে।


আরেকটি কথা, উপরে ৮৭ নং মন্তব্যের জবাবে বলেছি আপনাকেও বলছি- আক্রমণকারীদের জন্য কখনও ব্লগ ছেড়ে যাবেননা।

ভালো থাকুন প্রিয় উর্বি।

১৩০| ২৩ শে মে, ২০১৭ রাত ৮:৩৩

গেম চেঞ্জার বলেছেন: ধন্যবাদ মানবী আপু, ব্লগে কিছুদিন ধরে ছিলাম না, কেবল ঢুঁ মারার জন্য আসা!

মাল্টিনিকের চর্চা করে যারা নিজের পোস্টকে আলোচিত পাতায় জোর করে নিয়ে যায় তাদের দেখে জাস্ট হাসিই পায়! মানুষের সময়ের মুল্যও এত কম সেটা জেনে আমি কেবল অবাক হচ্ছি!

আসলে আমাদের স্বভাব খারাপ এতই খারাপ হয়ে গেছে, যেখানেই সিস্টেম আছে সেখানেই সেটাকে ট্র্যাপ করে নিজেরটা আদায় করা! ব্লগের রেগুলেশনে এটা থাকা উচিত- যারা টেকনোলজি ব্যবহার করে/অসদুপায় অবলম্বন করে হিট/মন্তব্যের ফ্লাডিং করবে তাদের ব্লগ চিরস্থায়ী/অস্থায়ী ব্লক কিংবা ১ম পাতা নিষিদ্ধ করা!

২৪ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১২:০১

মানবী বলেছেন: অত্যন্ত স্বস্তা এক জনপ্রিয়তার লক্ষ্যে এখানে এধরনের মাল্টি নিকের প্রচলন শুরু হয়েছিলো।
যা দিয়ে এক শ্রেনীর এ্যাটেনশন সিকিং প্যাথেটিক ব্লগারেরা নিজেদের মিথ্যা জনপ্রিয়তা শো অফ করতে চেয়েছিলো।

মাল্টি নিক দিয়ে নিজের পোস্টের হিট আর মন্তব্য সংখ্যা বৃদ্ধির অসুস্থধারার অবসান সম্ভব কিনা জানা নেই তবে অধিকাংশ জন যে এটা ঘৃনার চোখে দেখেন এটা সকলের জানা জরুরী।

ধন্যবাদ গেম চেন্জ্ঞার, আন্তরিক শুভকামনা রইলো।

১৩১| ২৪ শে মে, ২০১৭ বিকাল ৩:৪০

অশ্রুকারিগর বলেছেন: আপনার এই দৃড়তাপূর্ণ, যৌক্তিক লেখাটা পড়ে যদি কেউ নিজেকে শুধরায় সেটাই পরম পাওয়া হবে। ব্লগে কয়টা হিট কামিয়ে আজকে কে কোথায় আছেন কে জানে!

২৫ শে মে, ২০১৭ সকাল ১০:৩০

মানবী বলেছেন: ভালো বলেছেন।

আন্তরিক ধন্যবাদ অশ্রুকারিগর।
ভালো থাকুন সব সময়।

১৩২| ২৪ শে মে, ২০১৭ বিকাল ৩:৪৯

লেখোয়াড়. বলেছেন:
গত সাত আট বছর ধরে দেশ জুড়ে ধর্ষণের মহামারী চলছে।

তার আগে?

তার আগে এত মিডিয়া ছিল না, তাইতো?

১৩৩| ২৪ শে মে, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৪৯

সকাল রয় বলেছেন: ম্যালাদিন পর ব্লগে আসিলাম। মাল্টিনিক কি এখনো চলে নাকি?

২৫ শে মে, ২০১৭ সকাল ১০:৪৬

মানবী বলেছেন: .

:-)

১৩৪| ২৫ শে মে, ২০১৭ ভোর ৬:৩১

যাযাবর রনি বলেছেন: prothomei khoma chailam amar bangla type korte osubidhe hoy..ami apnader desh er keu noil..thaki kolkatay ..ami akhono thik bujhlam na ki kore apnar ei post ta chokh er samne ese galo...ami montromugdher moto porei gelam sudhu.. apnader lekhar shoili,bagmita amake ei post e comment korar jonno osthir kore tullo..ak e songe hoye gelo register korao.. tobe as a blogger likhchina kichui...ami baji dhore bolte pari ei blog er jekono blogger amar theke lekhonishoili te onek egiye..asole amader edike blog niye kono chorchai hoy na...ami ki osohay obosthay porechilam registration korte ta r bolar opekkha rakhchina..jai hok apnar puroi lekhata porlam ...baddhyo korlen amake comment box e niye aste...apnar lekhar maan bichar korae nyunotomo joggyotao ami rakhina :) maap korben..tobe ebar theke ami apnar o apnader proti post follow korbo kotha dilam..apnader onek alochona mathar opor diyei galo...tobe jotoutuku bujhlam apnara shantite nei..protibader vhasha fute utheche..tai ei jajabor jodi apnader kono kaje ashe obboshyoi kaje lagaben nirdwidhay... epare share korte thakbo oparer obostha..jehetu bangali porte pari valoi bangla reply tao bangla tei deben! ...onek boro kore fellam ...dukkhito! apnader jonno roilo antorik preeti o subhechha ...aro likhe jan.. "a pen is mightier than a sword" :-)

২৫ শে মে, ২০১৭ সকাল ১০:৪৫

মানবী বলেছেন: ব্লগে স্বাগতম যাযাবর রনি।

আমার সাধারণ মানের লেখার এধরনের মূল্যায়নে সন্মানিত হলাম। কয়েকদিন আগে এক অসাধারণ লেখকের অসাধারণ কিছু লেখা পড়ে মনে হয়েছে নিজের নিম্নমানের লেখাগুলো সব মুছে ফেলাটাই ভালো হবে। তাই আপনার এমন মন্তব্যে দ্বিধান্বিত কিছুটা!
আমাদের এখানে প্রায় শুরু থেকে পশ্চিমবঙ্গের বেশ কয়েকজন ব্লগার আছেন। আপনার সুন্দর সুন্দর লেখা দিয়ে এই ব্লগ সাইটটি আরও সমৃদ্ধ হবে এমনই প্রত্যাশা।
এ্যাবসোলিউট শান্তিতো আসলে কোথাও নেই, সব খানেই ভাঙ্গা গড়ার মাধ্যমে এ্যাডজাস্টমেন্ট আর রি এ্যাডজাস্টমেন্ট মাধ্যমে জীবন যাপন তাই বিচলিত হবেননা মোটেও। :-)

আমার ব্লগের বিষয়ে ছোট্ট একটি কথা জানিয়ে রাখতে ইচ্ছে করছে। আমি যা অন্যায় মনে হয় তা সাধারণত অকপটে বলি তাই নিজের দেশের রাজনীতিবিদ, প্রশাসনের তীব্র সমালোচনা যেমন অহরহ করে থাকি তেমনি ভারত সরকারের সমালোচনাও হয়। ভারত সরকার এবং ভারতীয় জনগণ দুটি ভিন্ন সত্ত্বা আমার কাছে। :-)

লেখালেখির মানের মতো বাংলা টাইপেও আমি বেশ আনাড়ি! এখান থেকে অভ্র ডাউনলোড করে চেষ্টা করে দেখতে পারেন, অভ্র দিয়ে বাংলা টাইপ আমার কাছে সহজ মনে হয়।

চমৎকার মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ যাযাবর রনি।
এমন সুন্দর সব মন্তব্যও ব্লগগুলোকে সমৃদ্ধ করে।
অনেক অনেক ভালো থাকুন।


হ্যাপী ব্লগিং

১৩৫| ২৫ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৭

Al Rajbari বলেছেন: ভালই লিখেছেন-!

২৬ শে মে, ২০১৭ সকাল ১১:৪৪

মানবী বলেছেন: ধন্যবাদ Al Rajbari।
ভালো থাকুন।

১৩৬| ২৫ শে মে, ২০১৭ রাত ৯:২৪

মিঃ আতিক বলেছেন: মানবী আপুর কলম থেকে সময়ের সাহসী উচ্চারণ।
অসংখ্য ধন্যবাদ আপুমনি।

২৭ শে মে, ২০১৭ সকাল ৯:২০

মানবী বলেছেন: জেনে ভালো লাগলো ভাইয়া।

আন্তরিক ধন্যবাদ আর শুভ কামনা রইলো মিঃ আতিকের জন্য :-)

১৩৭| ২৬ শে মে, ২০১৭ ভোর ৪:২৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


ব্লগ অনেক সময় পার করে, একটা ভালো লেভেলে এসেছে; ব্লগারেরা ভালো করছেন, আমাদের জাতির সার্বিক অবস্হার কথা দেখলে, ব্লগিং খুবই ভালো হচ্ছে!

এখানে যা বলা হয়েছে, এগুলোকে ভালো বললে ভালো বলা যায়; তবে, দরকারী কিছু নয়; মোটামুটি ম্যাঁও প্যাঁও টাইপের ভালো আর কি, উড়ো খই গোবিন্দে নম; এমন লেখা আসবে যাবে, এগুলোর শেষ নেই!

২৯ শে মে, ২০১৭ সকাল ৯:০৫

মানবী বলেছেন: ঠিক

১৩৮| ২৬ শে মে, ২০১৭ বিকাল ৫:৪৫

বনলতা আবেদিন বলেছেন: এটা আমার মাল্টি নিক , আমার ওরিজিনাল নিকও রয়েছে । এটা খোলার উদ্দেশ্য হলো শুধু মাত্র ভিন্ন রকম কিছু লেখা লেখার জন্য, অতি গোপন কিছু লিখবো ভেবেছিলাম । আমার এই আইডি দিয়ে আমি কোনদিন আমার ওরিজিনাল আইডিতে একটি লাইক বা কমেন্ট করিনি , করার প্রশ্নই ওঠে না । আমি লেখি মনের আনন্দে এবং প্রতিবাদ জানাবার জন্য । সস্তা খ্যাতির কোনই লোভ নেই ।

তবে যখন দেখি মান সম্পন্ন নয় সে রকম লেখাও নির্বাচিত পাতায় চলে যায় , তখন খুব খারাপ লাগে । আমার লেখা গুলো খুব একটা পঠিত হয় না ( আমার ওরিজিনাল নিকের কথা বলছি ) , লাইক এবং কমেন্ট হয় না তারপরও মাল্টি নিক নিয়ে সেখানে ঝাঁপিয়ে পড়ি না ।

অত্যন্ত সুন্দর একটি লেখা লিখেছন। মাল্টি নিকের অপব্যবহার সত্যিই একটি অপরাধ ।

২৯ শে মে, ২০১৭ সকাল ৯:১২

মানবী বলেছেন: আমার লেখালেখির হাত নেই, মনের ভাবনা গুলো লিখে রাখা মাত্র!

যদি কখনও গল্প, কবিতা লেখার মতো দুঃসাহস করি, তা আমার কাছে গোপন কিছু। সেসব এখানে পোস্ট করতে দ্বিধা হয়, সংকোচ বোধ করি। আমার ধারনা অন্য নিক গ্রহন করলেও একই অনুভূতি হবে, নিক ভিন্ হলেও আমি আর আমার আমিত্ব তো পাল্টে যাবেনা।

নিজের মাল্টি নিকে মন্তব্য করে বা গ্রুপিং এর সাহায্যে চ্যাট করে মন্তব্য সংখ্যা বৃদ্ধির মাঝে যে দৈন্যতা তা অনুধাবনে অক্ষমরাই এমনটা করে থাকে।

লেখা সুন্দর মনে হয়েছে জেনে ভালো লাগলো।
ধন্যবাদ বনলতা আবেদিন। শুভকামনা রইলো।

১৩৯| ২৭ শে মে, ২০১৭ দুপুর ২:৪০

কানিজ রিনা বলেছেন: মানবী এক সৎসাহসী দৃঢ় বিশ্বাসী রাজহংসী।
দৃঢ় প্রত্যয় সততায় হয়ে উঠবে পরমহংসী
মহামায়া নারী এই কামনায়।
তোমার স্টিকি লেখায় সকল ব্লগার সতস্ফুর্ত
মতবাদ দেখে আমি বিশ্বিত।
মহামায়া নারীরা হোল গোটা মানুষ জাতিকে
নিজের সন্তান ভাবতে পারে। যে নারী
অন্যায়ের কাছে মাথা নত করেনা। শুভকামনা।

২৯ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১:১৯

মানবী বলেছেন: আপনার সুন্দর মন্তব্য পড়ে মহামায়া নারী হতে ইচ্ছে করছে আপু!
বিরক্তি, ক্ষোভ, ঘৃণার মতো মানবীয়বোধ গুলো ঝেড়ে ফেলতে অক্ষম বলে আর মহামায়া নারী হয়ে ‌ওঠা হয়না!


মন ছুঁয়ে যাওয়া মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ কানিজ রিনা।
ভালো থাকুন সব সময়।

১৪০| ২৭ শে মে, ২০১৭ বিকাল ৩:৩১

হাতেম গাজী বলেছেন: বেশ তথ্যবহুল

২৯ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১:৩১

মানবী বলেছেন: ধন্যবাদ হাতেম গাজী, ভালো থাকুন।

১৪১| ২৭ শে মে, ২০১৭ বিকাল ৩:৩৭

হাতেম গাজী বলেছেন: অপরাধীদের কাছে অপরাধটাই স্ট্রেস রিলিভারের কাজ করে।

৩০ শে মে, ২০১৭ রাত ১১:৩৮

মানবী বলেছেন: .
:-)

১৪২| ২৭ শে মে, ২০১৭ রাত ১১:৪৬

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: রমজানের শুভেচ্ছা, আপু।

রমজান সম্পর্কে শেখ রুমী'র একটি বাণী শেয়ার করছি-

''ও চন্দ্র-মুখী প্রিয়,
রমজানের মাসটি এসে গেছে!
টেবিলটা ঢেকে দিয়ে,
প্রশংসার দ্বারটি খুলে দাও।'

৩১ শে মে, ২০১৭ সকাল ১১:৪২

মানবী বলেছেন:
Knock, and He'll open the door
Vanish, and He'll make
you shine like the sun,
Fall, and He'll raise you to the heavens
Become nothing, and He'll turn you into everything.

-Rumi


রমজানুল মুবারাক প্রিয় ভাইয়া।
শেখ রুমীর বাণী পেয়ে অভিভূত, অনেক অনেক ধন্যবাদ আর কৃতজ্ঞতা।
দোয়া করবেন।

,


১৪৩| ২৮ শে মে, ২০১৭ দুপুর ১:৫৬

বিষাদ সময় বলেছেন: আপনাকে ধন্যবাদ এ রকম চমৎকার আত্মশুদ্ধিমূলক পোস্ট দেয়ার জন্য। আমি যতটুকু জানি আপনি একজন অত্যন্ত বাস্তববাদী লেখক । সত্যকে প্রকাশ করার মত যথেষ্ট সাহস আপনার রয়েছে। আপনার পোস্ট নিয়ে আলোচনা করার ইচ্ছে ছিল, কিন্তু সময়ে অভাবে পেরে উঠছি না। অল্প পরিসরে আপনার দুইটি ব্ক্তব্যের উপর সামান্য আলোপাত করতে চাই-

১) গত সাত আট বছর ধরে দেশ জুড়ে ধর্ষণের মহামারী চলছে।
২) ধর্ষণের সংখ্যা প্রতিদিন এক্সপোনেনশিয়াল হারে বৃদ্ধি পেয়েছে।

আপনার মত বাস্তববাদী লেখক যদি পরিসংখ্যান দিয়ে কথাটি বলতেন তবে ভাল লাগতো। যাহোক বক্তব্যটির বাস্তবতা বুঝতে নেট ঘেটে যে তথ্য পেলাম তা নিচে তুলে ধরলাম-
নিচের পরিসংখ্যান দুটি আইন ও সালিশ কেন্দ্রেরঃ





নিচের চার্টটির লিঙ্ক -Rape in Bangladesh 2001-2016




এখন আপনিই বলুন এই পরিসংখ্যান কি আপনার দেয়া বক্তব্যকে সমর্থন করে? ধন্যবাদ।

১৪৪| ২৮ শে মে, ২০১৭ রাত ১১:৫৫

প্রদীপ কান্তি দে বলেছেন: http://bondhuadda.com/

১৪৫| ২৯ শে মে, ২০১৭ সকাল ১০:৪৪

আদম পুত্র বলেছেন: ধর্ষণ নামক এই নব্য মহামারীকে যৌক্তিক বিশ্লেষণের মাধ্যমে তুলে ধরার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। কিন্তু আমাদের এই লেখা সমাজের সর্বস্তরের মানুষদের কাছে পৌঁছাবে না। বরং কিছু লাইক কমেন্টেই জীবমৃত অবস্থায় হয়ত বেঁচে থাকবে কিছুদিন। অতঃপর আবার নতুন কোন ধর্ষণ হবে আমরাও কলম ধরবো নতুন করে। আজ শিশু থেকে বৃদ্ধা, সন্তান সম্ভবা মা, হাঁসপাতালের বিছানায় সুয়ে থেকে মৃত্যুর সাথে লড়ায় করে টিম টিম করে জ্বলতে থাকা কোন মা, মেয়ে কিংবা বোন কেউই এই ধর্ষণ নামক ব্যাধি থেকে মুক্ত নন। এমত অবস্থায় আমাদের করনীয় খুঁজে বের করতে হবে। আমি মনে করি এর জন্য তিনটি পদক্ষেপ এই সমস্যা সমাধানে ভূমিকা রাখবেঃ ১/ ধর্মীয় মূল্যবোধের চর্চা। ২/ নারীর পন্যরুপ ব্যাবহার বন্ধ করে তাকে সম্মানিত করা। ৩/ ধর্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি।

০১ লা জুন, ২০১৭ দুপুর ১:১৬

মানবী বলেছেন: "কিছু লাইক কমেন্টেই জীবমৃত অবস্থায় হয়ত বেঁচে থাকবে কিছুদিন। অতঃপর আবার নতুন কোন ধর্ষণ হবে আমরাও কলম ধরবো নতুন করে।"
- খুব ভালো বলেছেন।

আপনার পরামর্শগুলোও ভালো তবে আমি এক নম্বরে ধর্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি। সামাজিক এবং ধর্মীয় মূল্যবোধের চর্চায় আমি ছেলে সন্তানদের সুশিক্ষিত করে গড়ে তোলায় বেশী জোড় দিবো। মেয়েদের পণ হিসেবে ব্যবহার না ব্যবহারে খুব কিছু এসে যায়না মনে হয়, তাহলে ছব বছরের আয়েশারা নিরাপদ থাকতো। কিছুদিন আগে এক মা দ দিয়ে কুপিয়ে নিজের পুত্রকে হত্যা করেছে, নিজের মাকে ধর্ষনে উদ্যত হওয়ায়! এক্ষেত্রে নারীকে পণ্য হিসেবে প্রচারের প্রভাব নেই বলেই মনে হয়।

সুন্দর গঠনমূলক মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ আদম পুত্র।
আন্তরিক শুভকামনা রইলো।

১৪৬| ৩০ শে মে, ২০১৭ বিকাল ৩:০৩

ক্লে ডল বলেছেন: বেশ কিছুদিন পর ব্লগে এসে দারুণ একটি পোষ্ট পড়লাম।

আলোরিকার ৪ নম্বর মন্তব্যের সাথে আমিও গলা মিলাতে চাই। আসলেই সততার কোন ভগ্নাংশ হয় না।

নীতিহীনতা, অসততার বলিদান হোক ক্ষুদ্র পরিসর থেকেই।

০১ লা জুন, ২০১৭ দুপুর ১:১৮

মানবী বলেছেন: আলোরিকা আসলেই সুন্দর বলেছেন।
আমাদের এখানে অনেকেই অস্ততার ভগ্নাংশ নিয়ে ঘুরছেন। অনৈতিক কাজের নিন্দা করছেন আবার যারা এসব অপকর্ম করছে তাদের পিঠ চাপড়ে দিচ্ছে, এভাবে নৈতিকতার ভগ্নাংশ মেনে চলাটা অবাক আর হতাশ করে।

সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ প্রিয় ক্লে ডলকে।
অনেক অনেক শুভকামনা রইলো।

১৪৭| ৩০ শে মে, ২০১৭ বিকাল ৩:১৪

ক্লে ডল বলেছেন: সকলের মন্তব্য আর আপনার পুরো পোষ্টটি পড়তে প্রায় ৩ ঘন্টা সময় নিল। তবে সত্যিই আপনার বক্তব্য অন্যায়ের প্রতি জিরো টলারেন্স হতে উদ্ভুদ্ধ করেছে।
মাল্টি চালানোর ব্রেইন আর ধৈর্য আমার কোনটায় নাই। তবে মাল্টির দুর্নীতি দেখে মাঝে মাঝে মনে হয়েছে কিছু বলি। তবে এড়িয়ে যাওয়াকে শ্রেয় মনে হয়েছে। যেকোনো অন্যায় রুখতে কাউকে না কাউকে এগিয়ে আসতে হয়। আপনি এগিয়েছেন। ধন্যবাদ আপনাকে। ব্লগে মাল্টি দিয়ে লাইক দেওয়া থেকে শুরু করে ধর্ষণের মত জঘন্য অপরাধ যে শুধু, আমরা অন্যায় সয়ে যায় বলে বৃদ্ধি পাচ্ছে তা চোখে আঙ্গুল দিয়ে বুঝিয়েছেন।

০২ রা জুন, ২০১৭ সকাল ১১:২৪

মানবী বলেছেন: কষ্ট করে এতোটা সময় নিয়ে পোস্ট আর মন্তব্য পড়েছেন জেনে অভিভূত হলাম আপু।
আমরা অনেকেও এখানে এধরনের অপকর্মের নিন্দা করেছি অথচ তার পর পরই এধরনের অন্যায় যারা করছে তাদের পোস্টে ভালোলাগা আর মন্তব্য করেছি।

সমাজের অন্যায়ের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটে! আর একারনে অপরাধীরা এক সময় সকলের কাছে আর দশজনের মতো গ্রহনযোগ্য হয়ে উঠে! অপরাধ এবং অপরাধীকে প্রশ্রয় দেবার এই অপচর্চা থেকে মুক্ত হতে না পারলে কোনদিন সমাজের ইতিবাচক কোন পরিবর্তন আনা সম্ভব নয়। আর তাই ইভটিজিং, ধর্ষন, চাঁদাবাজি, হত্যা, গুম সবই দিনে দিনে শুধু বৃদ্ধি পেয়ে চলেছে- কারন অপরাধীরা জানে প্রাথমিক ধাক্কার পর এক সময় সে গহনীয় হয়ে উঠবে।

চমৎকার মন্তব্যের জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ প্রিয় ক্লে ডল।
ভালো থাকুন সব সময়।

১৪৮| ৩০ শে মে, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৫৪

নাদিম আহসান তুহিন বলেছেন: তালপাতারসেপাই সম্পর্কে আপনার মন্তব্য কী??? উনার সবগুলা পোস্টই সর্বাধিক পঠিত হিসেবে আলোচিত ব্লগে আসে। প্রতিটা পোস্টেই প্রায় হাজারের উপর পঠিত দেখায়। কিন্তু লাইক বা মন্তব্যের ঘর শূন্য।


একদিন উনি পোস্ট করার ৫মিনিটেই ১০০বার পঠিত দেখে উনার আগে পরের পোস্টের ভিউ দেখলাম, সেগুলো ১০/১৫বারের বেশি পঠিত ছিল্ না।তারপর আমি ঐ পোস্টে কমেন্ট করার পর সেটার ভিউ আর তেমন একটা বাড়েনি।

০২ রা জুন, ২০১৭ সকাল ১১:২৮

মানবী বলেছেন: এই পোস্টে কারো নাম নির্দিয্ট করে কিছু বলা হয়নি(যদিও কেউ কেউ "ভাড়ার ঘরে কে রে, আমি কলা খাইনা টাইপ" আচরণ করে চলেছে), সুতরাং এখনও কাউকে বিশেষ ভাবে বলতে চাইছিনা।

যারা অন্যায় করে তাদের অন্যায় হয়তো বন্ধ সম্ভব নয় তবে আমরা অবশ্যই সচেতন ভাবে তাদের এড়িয়ে চলতে পারি।
যাদের মাল্টি নিক নেই অথচ কুখ্যাত মাল্টি নিকধারীর পোস্টে জেনে শুনে মন্তব্য করছেন, তাঁরাও প্রায় সমান অন্যায়ই করলেন অসৎ কোলের অসততাকে উৎসাহিত করে।

আন্তরিক ধন্যবাদ নাদিম আহসান তুহিন।
ভালো থাকুন সব সময়।

১৪৯| ৩১ শে মে, ২০১৭ রাত ১০:৫৬

মনিরা সুলতানা বলেছেন: প্রতিটি কথার সাথে একমত ।
অসৎ মানুষের কর্মকান্ডে সমাজ ধ্বংস হয় না , সমাজ ধ্বংস হয় ভালো মানুষের নিরবতায় ।
সেই হিসেবে আমি ও দায়মুক্ত নই ।

শুভ কামনা !

০১ লা জুন, ২০১৭ দুপুর ১:০৯

মানবী বলেছেন: আপনি সহমত জেনে খুব ভালো লাগলো আপু।

আমাদের প্রত্যেকের উচিৎ এদের বর্জন করা। অনৈতিকতার সাথে আপোষ করে এদের মিষ্টি কথায় এদের ভুলে সমর্থন দেয়াটাও প্রায় সমান অপরাধ। আমরা প্রত্যেকে যদি নিজ নিজ দায়িত্বটা সচেতন ভাবে পালন করি, সমাজ বদলাতে বাধ্য।

আন্তরিক ধন্যবাদ প্রিয় মনিরা সুলতানা।
অনেক অনেক শুভকামনা রইলো।

১৫০| ০১ লা জুন, ২০১৭ ভোর ৬:২৮

মেহেদী রবিন বলেছেন: অনেক দিন পর আসলাম ব্লগে। এসেই মনের মত পোস্ট। সামু দাবী করে যে সামু বাংলা ভাষায় সবচেয়ে বড় ব্লগ। সামু অবশ্যই সেরা ব্লগ গুলোর একটা। কিন্ত বড় হলেই কি সেরা হয়? মেইন্টেন্যান্স এবং ক্রমান্বয়ে মানোন্নয়ন যদি ঠিক ঠাক না করা হয় তাহলে সেরা দাবী করার প্রশ্নই আসে না। ব্লগকে আরো ইউজার ফ্রেন্ডলি করা দরকার এবং নবীন প্রবীন সব লেখকদের সমান সুযোগ সুবিধা সরবরাহ করা দরকার। আর এখানে বিদ্বান মানুষের আসর বলেই জানতাম। তাদেরও এই অবস্থা!! তাহলে কি আসলেই সব কিছু নষ্টদের অধিকারে চলে যাচ্ছে?

০১ লা জুন, ২০১৭ দুপুর ১:০৬

মানবী বলেছেন: পোস্টটি আপনার মনের মতো হয়েছে জেনে ধন্য হলো।

আর সব স্থানের মতো সামহয়্যারইনব্লগেও শুরু থেকে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন সমস্যা হয়েছে, এসবই একটি সাময়িক ক্রাইসিসের মতো। সব ভালো মন্দ নিয়েই এটা সেরা ব্লগ মনে হয়, অবশ্য এক্ষেত্রে বিচারক হিসেবে আমার যোগ্যতা তেমন নেই কারণ অন্য কোন বাংলাব্লগে আমার এ্যাকাউন্ট নেই এমনকি বিচরণও নেই।
টাইপ করতে সক্ষম হলেই কি আর বিদ্বান বলা যায়!!! সুশিক্ষিত হতেও আরও অনেক অনেক গুনাবলীর প্রয়োজন পড়ে- বিদ্বান তো পরের কথা।

নষ্টদের অধিকারে সব ছেড়ে দিতে রাজী নই বলেই এই লেখার অবতারনা আর মন্তব্যকারীরাও জানিয়েছেন তাঁরাও রাজি নন :-)

সুন্দর মন্তব্যের জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ মেহেদী রবিন।
অনেক অনেক ভালো থাকুন।

১৫১| ০১ লা জুন, ২০১৭ সকাল ১১:৩১

সুরঞ্জনা বলেছেন: ওহ!মানবী! মনে হচ্ছে কত যুগ পর তোমার স্পর্শ পেলাম। তোমার সেই বলীষ্ঠ কথামালা! কেমন আছো?

০১ লা জুন, ২০১৭ দুপুর ১২:১৪

মানবী বলেছেন: প্রিয় আপুটাকে দীর্ঘদিন পর দেখে খুব ভালো লাগলো। আমি ভালো নেই আপু, আমার জন্য দোয়া করবেন।

আপনার ইমেইলের জবাব দিয়েছি দেখার সাথে সাথে, পেয়েছেন আশা করি।
অণেক অনেক ভালো থাকুন প্রিয় সুরঞ্জনা আপু। মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ।

১৫২| ০১ লা জুন, ২০১৭ দুপুর ২:১৭

ফরিদ আহমদ চৌধুরী বলেছেন: দেখা যায় ধর্ম সম্পর্কে ভূল উপদেশবাণী দিয়ে যাওয়া ব্যক্তিটি নিজের সস্তা পোস্টগুলো আলোচিত পোস্টে আনতে একাধিক নিকের অধার্মিক কাজ শুধু করছেনা, হাস্যকর ভাবে নারী নিক এমনকি হিন্দু নামের নিকও খুলে বসে আছে। আপনি প্রচন্ড হিন্দু বিদ্বেষী সাপম্প্রদায়ীক মনভাবের পরিচয় দিলেন। মাল্টি নিকার হিন্দু নামে নিক না খুলে গাছ-পালা, ফুল-পাখি ইত্যাদি নামেও নিক খুলতে পারতো্ তিনি হিন্দুকে সম্মান করেছেন, আর আপনি অসম্মান করলেন। আপনাকে তোয়াজ করে ব্লগ কর্তৃপক্ষও হিন্দু সম্প্রদায়কে অপমান করল।

১৫৩| ০১ লা জুন, ২০১৭ রাত ৮:১৫

ব্লগ সার্চম্যান বলেছেন: আমার কিছু বলার নাই ।তবে খুব ভালো লাগল পোস্ট ।

০৫ ই জুন, ২০১৭ দুপুর ২:২৪

মানবী বলেছেন: জেনে আমারও খুব ভালো লাগলো ব্লগ সার্চম্যান।
আন্তরিক ধন্যবাদ ও শুভকামনা রইলো।

১৫৪| ০৬ ই জুন, ২০১৭ বিকাল ৫:০৯

খায়রুল আহসান বলেছেন: একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের প্রতি আলোকপাত করে চমৎকার এবং ক্ষুরধার এই আলোচনাটির জন্য আপাততঃ অভিনন্দন ও সাধুবাদ জানিয়ে যাচ্ছি। পরে সব মন্তব্যসমূহ পুনরায় পড়ে আমার দুই পাই (Two Cents) এর মন্তব্য রাখার আশা ব্যক্ত করে গেলাম।

০৮ ই জুন, ২০১৭ সকাল ৭:০৪

মানবী বলেছেন: এটা ক্ষুরধার মনে হয়েছে!! আমি বেশ কয়েকবার চেষ্টা করে নমনীয় সুরে লিখেছি, অসততা আর অসৎ লোকদের প্রতি আমার মনোভাব কঠোর, নির্মম বললেও ভুল হবেনা।
ভবিষ্যতে একই বিষয়ে পোস্ট দিলে হয়তো আর নমনীয় হওয়া সম্ভব হবেনা।

লেখাটি আপনার কাছে চমৎকার মনে হয়েছে জেনে স্বস্তিবোধ করছি। আপনার টু সেন্ট জানার আগ্রহ রইলো।
আন্তরিক ধন্যবাদ খায়রুল আহসান।
অনেক অনেক ভালো থাকুন।

১৫৫| ০৭ ই জুন, ২০১৭ বিকাল ৩:৫৫

শূন্যনীড় বলেছেন: অনেক সুন্দর পোষ্ট। গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা। ধর্ষকেদর নিয়ে লেখা খুব সুন্দর যৌক্তিক সব পরামর্শ।
আর নতুনদের মানহীন লেখা আলোচিত হওয়া সম্পর্কে ভালোই বলেছেন। ভালো লাগলো।

তপে নতুন মানহীন লেখার আলোচিত হওয়া নিয়ে যে বক্তব্য দিয়েছেন, আমার মনে হয় না তা ঠিকঠাক কাজে লাগছে!
দুর্নীতি কেবল মাল্টি নিক বা অলেখকদের অলেখার নয়, দুর্নীতি ব্লগ কর্তৃপক্ষেরও কোন অংশে কম দেখছি না আপু! আলোচিত সংয়ক্রিয়, কিন্তু নির্বাচিত!!! আপনি নির্বাচিত পাতা আর ব্লগ প্রথম পাতা ঘুরে দেখেন, অনেক মানসম্পন্ন পোষ্ট যেমন নির্বাচিত পাতায় যায় না, আবার অনেক মানহীন লেখাও নির্বাচিত পাতায় যায়গা করে নিচ্ছে! এটা মনে হয় দুর্নীতির মধ্যে না!!!

আর একটা জিনিষ আপনার পোষ্ট থেকে স্পষ্টত বুঝা যায়, তা হলো নতুন লেখকদের মানহীন লেখায় মন্তব্য করাও একপ্রকার অন্যায়!! সবাই লেখক না, সবাই প্রতিষ্ঠিত লেখক হয়ে ব্লগে আসে না। নতুনদের লেখা মানহীন হবেই, তাই বলে তারা কারো কাছে উৎসাহ পাবেনা !!! কেবল বেছেবেছে মানসম্পন্ন লেখায় মন্তব্য করলে নতুনদের আর ব্লগে লেখার সুযোগ দেয়ারই দরকার কি, যেহেতু মানহীন লেখা ব্লগের সম্মান হানি করে!!!

আমার কাছে মনে হচ্ছে না নতুন মানহীন লেখক সম্পর্কে আপনার এই পরামর্শ কোন কাজে লেগেছে।

১৫৬| ০৭ ই জুন, ২০১৭ বিকাল ৪:১৬

তোমার জন্য মিনতি বলেছেন: নতুনদের কপাল খারাপ!! এরা মানসম্পন্ন লিখতে পারেনা।
তাই গুণী জনদের ওদের এড়িয়ে চলা উচিৎ!! কারণ, মানহীন নতুনদের পোষ্টে মন্তব্য করলে তা আলোচিত পাতায় যাবে, এটা অন্যায় কাজ।।

১৫৭| ১৬ ই জুন, ২০১৭ সকাল ১১:৫৭

খায়রুল আহসান বলেছেন: দুর্নীতি সব সময়ই দুর্নীতি, অনৈতিক আচরণ সকল ক্ষেত্রেই বর্জনীয়। নিজের ঘর থেকেই নৈতিকতার চর্চা শুরু প্রয়োজন.... ভূগর্ভের কেন্দ্রস্থলে পৌঁছে অন্যায় করলেও তা সর্বশক্তিমানের দৃষ্টি এড়িয়ে যাবেনা -- অমোঘ সত্য বাণী!
অপরাধীদের কাছে অপরাধটাই স্ট্রেস রিলিভারের কাজ করে -- চমৎকার কথা বলেছেন!
অন্যায় করার আত্মগ্লানির চেয়ে পোস্ট মন্তব্যশূণ্য থাকা অনেক বেশি তৃপ্তিদায়ক আর সন্মানজনক, এই সত্যটি শুধু মাত্র সৎ মানুষেরাই অনুধাবনে সক্ষম -- আমিও তাই মনে করি। লেখার কাজ আমার। কারো ভাল লাগবে কিনা, সেটা তার ব্যাপার। ভাল লাগলে মন্তব্য করে সেটা জানিয়ে গেলে সেটা সহৃদয়তার পরিচায়ক। না জানালেও লেখকের কোন ক্ষতি নেই।

১৫৮| ১৬ ই জুন, ২০১৭ দুপুর ১২:২০

খায়রুল আহসান বলেছেন: সেকচুয়্যাল অফেন্ডারদের সাজা বিভীষিকাময় (-১ নং প্রতিমন্তব্য) - সেটাই হওয়া উচিত।
আপনি মেনে চলেন জেনে ভালো লাগলো (আপনি মাত্র একদিন ১৮ ঘন্টা আগে ব্লগ খুলেছেন!!)-(-১ নং প্রতিমন্তব্য)-- :)
আমরা অন্যায় আচরণকে লঘু করে দেখি, সেই সুযোগে যে অন্যায় কলেবরে বর্ধিত হয়ে ভয়ংকর রূপ ধারণ করে তা লক্ষ্য করিনা (১ নং প্রতিমন্তব্য)-- কথাটা স্মরণ ও বিবেচনার দাবী রাখে।
আমার কাছে দুর্জন বিদ্বান হইলেও পরিত্যাজ্য । আসলে সততা আমাদের প্রতিটি কাজে , চিন্তায় , কথায় থাকা উচিৎ । সততার কোন ভগ্নাংশ হয়নও) -- এমন চমৎকার একটা কথার জন্য আলোরিকা এর প্রশংসা না করলেই নয়।

১৫৯| ১৭ ই জুন, ২০১৭ বিকাল ৫:২৮

মুশি-১৯৯৪ বলেছেন:
বেশ কিছুদিন পরে ব্লগে এসে এই ভয়ংকর জনশূন্য প্রলয়ান্ধকারের মধ্যে দেখলাম আপনার আলোকবার্তিকা। আপনার গান সর্ম্পকিত পোষ্ট পড়ে মনে হয়েছিল আপুটির হৃদয়ের জগতে একটা বসন্তের হাওয়া আছে। কিন্তু একি সেই আপুটি দেখি একাকিনী সকলের পার্শ্বে আসিয়া উপনীত ।

‘মাল্টিনিক’ ধারণাটি কী তাহা লইয়া লোকে কিছু কিছু ভুল করিবেই, তালগোলও পাকাইবে, অনুমানের পর অনুমাননির্ভর ব্যবহার করিতে থাকিবে আর আমার মনে হয় বেশিদিন যাইতে না যাইতেই শব্দটি লইয়া এক প্রকার হুজুগেরও চল হইবে......

১৬০| ১৯ শে জুন, ২০১৭ রাত ৮:২৩

খায়রুল আহসান বলেছেন: এরশাদ বাদশা এর সুচিন্তিত মন্তব্যটা (৪ নং) ভাল লেগেছে, সে সাথে আপনার যুক্তিপূর্ণ উত্তরও।
"আপনি আমি আমরা যারা নীতিবোধ এখনও হারিয়ে ফেলিনি তার যেদিন প্রতিটি ক্ষেত্রে সব রকমের অন্যায় অনাচারের বিরুদ্ধে "জিরো টলারেন্স" দেখাবো সেদিন প্রশাসন শুধরে যেতে বাধ্য" -- একমত।
তবে আপু এর শেষেও তো আছে "হে বন্ধু, বিদায়"!! (৬ নং প্রতিমন্তব্য) -- ভাল বলেছেন। :)
আর আপনি যে ডিগনিফাইড ব্লগিং করছেন, এই ক্ষুদ্র পরিসরে সেটাই প্রকৃত সাফল্য (৭ নং প্রতিমন্তব্য) -- কানিজ ফাতেমা সম্পর্কে আপনার এ পর্যবেক্ষণের সাথে আমি একমত। অনেকের ভাল পোস্ট এখানে অপঠিত থেকে যায়।
নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন (৯ নং মন্তব্যে) সততার সাথে তার ভুল স্বীকার করেছেন, এটাও বেশ ভাল লেগেছে।
আহমেদ জী এস এর মন্তব্য সব সময়ই খুব ভাল লাগে, এখানেও তাই (১৭ নং মন্তব্য)। বিশেষ করে- বক্তব্যের মেজাজে আপনার পরিমিতিবোধ সম্ভ্রম জাগানিয়া কথাটা।

১৬১| ২৪ শে জুন, ২০১৭ রাত ১০:৩১

বর্ষন হোমস বলেছেন:
অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পোষ্ট।এইবারের সামুগিরিতে সব ক্যাটাগরিতেই ফার্স্ট।

১৬২| ০৫ ই জুলাই, ২০১৭ বিকাল ৩:১১

Artcell Sabuj বলেছেন: ছোটবেলা থেকেই কিলার,থ্রিলার,ব্লোগার এসব শব্দ শুনে সারা শরীরে শীরশীরে রোমাঞ্চ অনুভব করেছি।
আজ প্রথম কি মনে করে যেন এই সাইটে ব্লগাররের লিস্টে নাম রেজিস্ট্রি করলাম।
আমি খুব ভয়ে ছিলাম,আবার গর্ববোধওও করছিলাম ব্লোগারদের নিকটবর্তী হতে পারবো, তাদের জ্যান্ত চিন্তা-কথার সাথে যুক্ত থাকবো।

#কিন্তু আপনার লেখাটি পড়ে জানতে পারলাম ব্লগে লিখলেই সবাই ব্লগার হয়ে যায় না।

তবে আমি বিশ্বাস করি সততা ও আন্তরিকতা দ্বারা পৃথিবীর সমস্ত জয় করা সম্ভব।

আপনার লেখার স্টাইলটার প্রশংসা প্রকাশ্যই করলাম।
ধন্যবাদ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.