নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

ভীষণ কঠিন পোড়ামাটিকে আবার সেই কাদামাটিতে ফিরিয়ে আনা,ভীষণ কঠিন আঘাত দেয়া শব্দমালা গুলো ফিরিয়ে নেয়া,ভীষণ কঠিন নিজের সম্পর্কে কিছু বলা।যে চোখ দেখিনি সে চোখ কেমন করে বিশ্বাস করবে জানি না।যে কখনো রাখিনি হৃদয়ের উপর হৃদয়;সে কেমন করে বুঝবে আমায়!

নীল মনি

শিশুর মত চোখ দিয়ে দেখি আমার এই বিশ্ব!

নীল মনি › বিস্তারিত পোস্টঃ

বন্ধুত্ব

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:২৭

একটি #কাল্পনিক গল্প


রিতা বেশ উগ্র স্বভাবের।কথায় কথায় মানুষের সাথে ঝগড়া বাধায়।যাকে বলা যায় পায়ে পা বাধিয়ে ঝগড়া।
মেয়েটা বোরকা পরে না কিন্তু দিন কয়েক হল মাথায় হিজাব পরে।হিজাব পরলে নাকি বেশ আকর্ষণীয় দেখায়।

রিতা শামসুন্নাহার হলে থাকে।মৃত্তিকা বিজ্ঞান,৩য় বর্ষ।এক রুমে চারজন থাকে।রিতার রুমমেট আরাধ্য। সেও রিতার মত উগ্র মেজাজি।কিন্তু দু'জনের মধ্যে বেশ মিল।একসাথে প্রতিদিন বেশ অনেকটা সময় গল্প করে কাটায়।একজনের জিনিস আর একজন ব্যবহার করে।বোনের মত মিল যাকে বলে।

একদিন রীতা সকালে ক্লাসে যাবার আগে সেফটিপিন হারিয়ে ফেলে।আরাধ্যের কাছ থেকে রীতা সেফটিপিন নেয়।।তাড়াহুড়া করে হিজাব পরতে রিতার হাতে সেফটিপিন ফুটে যায়।আরাধ্যের হিজাব পরা দেখেই মূলত রীতা হিজাব পরে।

বেশ কিছুদিন ধরে আরাধ্য অসুস্থ।আরাধ্য ছুটি নিয়ে বাড়ি চলে যায়।কয়েক মাস হয়ে যায় অথচ ক্যাম্পাসে ফেরার কোন নাম নাই।এর মধ্যে একদিন রিতার জ্বর আসে,গলা ব্যথা করে।ক্লান্তি লাগে।আর সারাক্ষণ মাথাব্যথা লেগেই আছে।মাথা ব্যথার জন্য কিছু খেতেও ভালো লাগে না।দিন দিন ওজন কমে যাচ্ছে।
রীতাকে ডাক্তারের কাছে নেয়া হয়েছে।রক্তের বিভিন্ন রিপোর্ট করতে দেয়া হয়েছে।তাতে দেখা গেছে রীতার HIVপজেটিভ মানে রিতার এইডস।খবরটা জেনে রীতা আকাশ থেকে পড়ে।এই ধরনের কোন কিছুই হয়নি তার সাথে।হিসাব মেলাতে পারে না।

ভাবতেই থাকে।রীতার রিপোর্টের দিনই ঠিক খবর আসে
আরাধ্য মারা গেছে এইডসে।

রীতার কখনো জানা হয়ে উঠবে না
আরাধ্যের ব্যবহৃত সেফটিপিন তার
এইডসের জন্য দায়ী।

#অভিজ্ঞজনদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

#রুবাইদা গুলশান

মন্তব্য ৯ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (৯) মন্তব্য লিখুন

১| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:৪৮

eunknown_rafi বলেছেন: আরাধ্যের ও কি এই পিন টি ই ফুটেছিলো?

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:৫৫

নীল মনি বলেছেন: হ্যাঁ, একই পিন আরাধ্যের ফুটেছিল।

২| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১২:৩৪

বেনামি মানুষ বলেছেন: এতো তাড়াতাড়ি ই HIV ভাইরাস কাজ করে?
মনে হয় না।


আপনি আরেকটু জেনে আমাদের জানান প্লিজ।

২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:৪৪

নীল মনি বলেছেন: এত তাড়াতাড়ি কাজ করে না। গুগলের তথ্য মতে এই ভাইরাস খুব বেশি সময় আলোতে সক্রিয় থাকতে পারে না।তবে একজন ডাক্তারের কাছে জেনেছি যদি সেফটিপিনে যদি জীবাণু থাকে তাহলে সে সম্ভাবনা উড়িয়ে দেয়া যায় না।আর এটার উপর রিসার্চ করলে সত্যিকারের তথ্য জানা যেতে পারে।যেহেতু আমি সঠিকটা বলতে পারব না তাই শুধু সচেতনতার জন্য কাল্পনিক অর্থে লিখেছি।একজনের জিনিস অন্য জনের ব্যবহার করা উচিত নয়,কারণ কিসে কি জীবাণু আছে লুকিয়ে তা আমরা জানি না।

৩| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১২:৩৬

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: এটা বেসম্ভব গল্প...

৪| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ সকাল ৮:৩৭

তারেক মাহমু৩২৮ বলেছেন: কি বলবো ভাষা হারিয়ে ফেলেছি এমন হয় নাকি?

৫| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৫

রাজীব নুর বলেছেন: ওরে বাবা ---

৬| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:৪৫

আখেনাটেন বলেছেন: বেনামি মানুষ বলেছেন: এতো তাড়াতাড়ি ই HIV ভাইরাস কাজ করে?
মনে হয় না।
-- একই প্রশ্ন আমারও।

সাধারণত্‌ এইচআইভি ভাইরাস এটাক করা আর এইডস রোগে মারা যাওয়ার মাঝে বেশ সময় দরকার। সুস্থ সবল মানুষ কয়েকবছর পর্যন্ত বেঁচে থাকতে পারে।

৭| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:৪৫

নীল মনি বলেছেন: সবার প্রশ্নের উত্তর আশা করি পেয়ে গেছেন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.