নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

ভীষণ কঠিন পোড়ামাটিকে আবার সেই কাদামাটিতে ফিরিয়ে আনা,ভীষণ কঠিন আঘাত দেয়া শব্দমালা গুলো ফিরিয়ে নেয়া,ভীষণ কঠিন নিজের সম্পর্কে কিছু বলা।যে চোখ দেখিনি সে চোখ কেমন করে বিশ্বাস করবে জানি না।যে কখনো রাখিনি হৃদয়ের উপর হৃদয়;সে কেমন করে বুঝবে আমায়!

নীল মনি

শিশুর মত চোখ দিয়ে দেখি আমার এই বিশ্ব!

নীল মনি › বিস্তারিত পোস্টঃ

শুদ্ধ

২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:১৬

হঠাৎ একটা বুনো হাওয়া ঝাপটে ফেলে দিল;
আমি পড়ে রইলাম।
আশেপাশে কেউ নেই
পড়ে যাওয়া দেখে যে হাসবে।
সাহায্যের হাত নেই;যে টেনে তুলবে।
আমি প্রবল শক্তি দিয়ে উঠার চেষ্টা করছি
ঠিক তখন তীব্র এক আলো
কোথা থেকে ঠিকরে এসে পড়ল।
তাকাতে পারছিলাম না।
তবুও মনে হল উঠতেই হবে।
আমি উঠলাম।
নিজের কাছে প্রশ্ন করলাম 'কে আমি।'
আমি সামনে এগোলাম।
দেখি আমার মত কেউ কেউ দাঁড়িয়ে।
কেউ কেউ ছুটে চলছে নির্বিঘ্নে।
আমি দাঁড়ালাম।
জিজ্ঞেস করলাম;
সামনে দাঁড়িয়ে থাকা একজনকে
'কে তুমি?’
'আমি মানুষ।'
আমি মানুষের খোঁজে বের হলাম।
বলা যায় সবচেয়ে ভালো মানুষের খোঁজে।
মানুষ খুঁজতে গিয়ে বাজারে গেলাম।
দেখি কত মানুষ,কত...
দোকানে গিয়ে দাঁড়ালাম।
দেখি সে ফল বিক্রি করছে।
হাঁপাতে হাঁপাতে এসে এক মানুষ এসে বলল
আমার শিশুরা খাবে এই ফল,
একটু ভালো দেখে দিও।
সে বলল "চিন্তা করবেন না স্যার।
সবচেয়ে ভালো ফল নিয়ে যাবেন ঘরে।"
সে ফল দিল।
লোকটি নিশ্চিত মনে ফল নিয়ে গেল।
ফল বিক্রেতা হাসল।
এমন বোকা মানুষ হয় নাকি।
ফলগুলোর মাঝে দুটি পচাঁ,
চারটি ভালো আর একটা থেঁতলে গেছে।
বিক্রেতার কী দোষ!বিক্রি করতে হবে যে!
আমি ছুটলাম আবার মানুষের খোঁজে
ভুল হল ভালো মানুষের খোঁজে।
আমি হাঁটতে হাঁটতে চলে এলাম এক বিদ্যালয়ে
শিক্ষা দিচ্ছেন শিক্ষক।
বুঝলাম আমি ঠিক এসে পড়েছি ভালো মানুষের কাছে।
কিন্তু এ কি স্যার বলছেন,"কোচিংয়েই তোদের সব পড়িয়ে দিব,
মিস দিস না যেন কেউ।"
কি করবেন সংসার তো চালাতে হবে!
ঘুরতে ঘুরতে চলে এলাম হাসপাতালে
হাজার মানুষের আকুতি আর আহাজারি
ডাক্তার করছেন সেবা নির্বিশেষে।
আহা! কত ভালো মানুষ!
কিন্তু ছোট্ট করে শুনলাম যেন
"রিপোর্ট দেখিয়ে নিতে চেম্বারে আসতে ভুলবেন না যেন।বিকেল বেলা চেম্বারে থাকি কিনা!
কী করবেন সংসার তো বাঁচাতে হবে!
আমি বের হয়ে এলাম।
মাথার উপর খাঁড়া সূর্য
বড্ড তেষ্টা পেল।
ছুটে চললাম পানির খোঁজে।
কিন্তু পয়সা নেই যে।
এখানে যে পানির বড্ড দাম।
অবশেষে দাঁড়িয়ে এক জীর্ণ কুটিরের সামনে
চিৎকার আর কান্নায় বিশ্ব যেন কাঁপছে।
শুনলাম ভাত জোটেনি তাদের।
পানি চাইলাম।
এসে বলল বাবা একমুঠো মুড়ি আছে।
পানির সাথে সাথে ওটা খেয়ে নিও।মেহমান কিনা!
হাসলাম আমি।
বললাম পানি হলে সই।
সেখান থেকে বের হতে না হতেই আবার সেই বুনো হাওয়া
ফেলে দিল এক নিমিষে।
আমি পড়ে গেলাম।
সহস্র হাসি যেন হাসছে প্রবল প্রতিধ্বনি হয়ে।
তারি মাঝে একটি হাত নেমে এল আমার হাতে।
বলল সে যেন কানে কানে।
প্রতিটা ভালো মানুষ লুকিয়ে আছে মানুষ নামের মুখোশে।
শুদ্ধ কর অন্তরাত্মা;
শুদ্ধ কর নিজেকে।

©রুবাইদা গুলশান
#কাউকে আঘাত দেয়ার জন্য লেখাটি লেখা হয়নি।কেউ ব্যক্তিগতভাবে নিবেন না।

মন্তব্য ৭ টি রেটিং +৪/-০

মন্তব্য (৭) মন্তব্য লিখুন

১| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:৩৯

তারেক মাহমু৩২৮ বলেছেন: প্রতিটা ভালো মানুষ লুকিয়ে আছে মানুষ নামের মুখোশে।
শুদ্ধ কর অন্তরাত্মা;
শুদ্ধ কর নিজেকে

যথার্থ ই বলেছেন।

২| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:১১

নূর-ই-হাফসা বলেছেন: ভালো লেগেছে । কথা গুলো সুন্দর

৩| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:৫৩

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: সুন্দর।+

৪| ২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ সকাল ৮:৩৪

কথাকথিকেথিকথন বলেছেন:




ভাল খারাপ দু'য়ে মিলেই মানুষ । কবিতা চমৎকার হয়েছে । আমি মনে করি নিজে সত্যিকার মানুষ হয়ে ভালো মানুষের খোঁজ এমনিতেই পাওয়া যায় ।

৫| ২৮ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ২:৪৪

নীল মনি বলেছেন: :):)

৬| ২৮ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ২:৪৪

নীল মনি বলেছেন: দ্বিতীয়বারের মত + পেলাম শুকরিয়া

৭| ২৮ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ২:৪৬

নীল মনি বলেছেন: দোয়া করবেন যেন লেখার মান আরো ভালো হয়।মন্তব্য দিয়ে অনুপ্রেরণা দেওয়ার জন্য কৃতজ্ঞতা জানাই।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.