নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

pramanik99

আমার স্কুল জীবনের স্মৃতিগুলো বার বার মনে পড়ে। ফিরে যেতে ইচ্ছে করে সেই দিনগুলোতে।

প্রামানিক

শহীদুল ইসলাম প্রামানিক

প্রামানিক › বিস্তারিত পোস্টঃ

কল্কির নেশা

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১২:৩৫


শহীদুল ইসলাম প্রামানিক

ফস ফস ফস কল্কি টানে
শুল্কিজানের চাচা
সিদ্ধি টানে পাকা নয় তো
বড়ই নাকি কাঁচা।

খুক খুক খুক কাসির চোটে
কল্কি গেল পড়ে
দু’টানেতেই চেয়ে দেখে
মাথা শুধু ঘোরে।

ঢুলু ঢুলু চোখ নিয়ে সে
যেই উঠেছে ভাই
বন বন বন ঘুরছে যেন
পুরো জগৎটাই।

পড় পড় পড় ধপাস করে
পড়ল মাথা ঘুরে
ফটাস করে ফাটল মাথা
কাঁদল নাকি সুরে।

মন্তব্য ৮০ টি রেটিং +১০/-০

মন্তব্য (৮০) মন্তব্য লিখুন

১| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৩

অনিকেত বৈরাগী তূর্য্য বলেছেন: বেক্কলকে কে বলেছিলো কল্কি টানতে?

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৮

প্রামানিক বলেছেন: হে হে হে সেই কথাই তো বলি কাঁচা নেশাখোররা নাকি এভাবেই প্রথম প্রথম চিৎ হয়ে পড়ে। ধন্যবাদ

২| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৫

অনিকেত বৈরাগী তূর্য্য বলেছেন: প্রথম মন্তব্যকারী হিসেবে একটা চা পেলে ভালো হতো না?

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১২:৫০

প্রামানিক বলেছেন:
নেন ভাই আপাতত, এক কাপ চা দিলাম। পড়ে লাগলে আরো চাইয়েন।

৩| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১২:৫৫

মুহাম্মদ তারেক্ব আব্দুল্লাহ বলেছেন: ছন্দে ছন্দে কল্কির নেশা, ভালো লেগেছে

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:০০

প্রামানিক বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই, শুভেচ্ছা রইল।

৪| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:১৬

মিনাজুল বলেছেন: সাথে টক খাওয়ালে ভালো হত

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:৩৮

প্রামানিক বলেছেন: এইটা হয়তো তাদের জানা ছিল না।

৫| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:১৯

তারেক মাহমু৩২৮ বলেছেন: একদমেতে সাধু, দুই দমে সন্নাস্যি,তিন দমেতে দেখতে পাবে ভগবানের হাসি...এ নেশা মজার নেশা।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:৪১

প্রামানিক বলেছেন: নেশাখোরদের কাছে এ নেশার তুলনা নাই, তারা কল্কিতে টান মেরে উপর দিকে যেভাবে তাকায় তাতে মনে হয় ভগবানের হাসিই দেখতে পায়। ধন্যবাদ আপনাকে।

৬| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:২১

নূর-ই-হাফসা বলেছেন: বাহ ভালো লেগেছে ।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:৪১

প্রামানিক বলেছেন: ধন্যবাদ বোন শুভেচ্ছা রইল।

৭| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:২৬

জাহিদ অনিক বলেছেন:

আমারও কল্কি টানতে মন চাইতেছে !!


ভালোলাগা রইলো প্রিয় ছড়াকার

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:৪৩

প্রামানিক বলেছেন: মন চাইলেই কল্কিতে টান দিয়েন না, শেষে মাথা ঘুরানি দিয়ে নিজে নিজে নিজেকে রাজা মনে করবেন।

৮| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৩:০৫

পাজী-পোলা বলেছেন: বেঁচে থাকাই একটা চরম নেশা।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:৪৪

প্রামানিক বলেছেন: একেক মানুষ একেক নেশায় দিন কাটায়। ধন্যবাদ

৯| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৩:১৬

আবু তালেব শেখ বলেছেন: কয়েল জ্বলেগেছে তাই আর টানছে না দেহে। সুন্দর হয়েছে

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:৪৫

প্রামানিক বলেছেন: কয়েলও কি নেশা জাগায় নাকি?

১০| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৩:৩১

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: ছড়া সুন্দর হয়েছে প্রামানিক ।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:৪৬

প্রামানিক বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই, শুভেচ্ছা রইল।

১১| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:৩০

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন:

খুক খুকিয়ে হাসতে গিয়ে
ধরলো ভীষণ কাশ।
কল্কি টানের মজা বুঝে
ছুটেছে সব আশ!!!

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:০৬

প্রামানিক বলেছেন: হা হা হা দারুণ ছন্দ মন্তব্য। ধন্যবাদ

১২| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:১৬

চাঁদগাজী বলেছেন:


ধনী ও দরিদ্রদের আজব আজব মোহ, মিডল ক্লাশ কাজে ব্যস্ত

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:০৭

প্রামানিক বলেছেন: ঠিকই বলেছেন গাজী ভাই। মিডল ক্লাস শুধু খেটেই যাচ্ছে ভোগ করতে পারছে না।

১৩| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৪৮

সুমন কর বলেছেন: হাহাহাহা........মজার হয়েছে।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:০৮

প্রামানিক বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই, অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইল।

১৪| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৫১

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: অভ্যেস না থাকলে যা হয় আর কী!

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:০৯

প্রামানিক বলেছেন: ঠিকই বলেছেন, অভ্যাস না থাকার কারণেই চিৎ হয়ে পড়েছে।

১৫| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:৩২

শাহাদাৎ হোসাইন (সত্যের ছায়া) বলেছেন: প্রথম প্রথম এই অবস্হা হয়।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:১০

প্রামানিক বলেছেন: কল্কি টানতে টানতেই পাকা হয়। তখন নাক মুখ দিয়ে ভক ভক করে ধুঁয়া ছাড়ে।

১৬| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:৩৭

এফ.কে আশিক বলেছেন: আপনি সত্যি খুব ভালো লিখেন ভাইয়া।
এবার মেলায় আপনার কোন ছড়ার বই আসছে কি?

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:০৫

প্রামানিক বলেছেন: ইচ্ছা আছে মেলায় বই প্রকাশ করার। ধন্যবাদ আপনাকে উৎসাহ দেয়ার জন্য।

১৭| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:৫২

সোহানী বলেছেন: অনিকেত বৈরাগী তূর্য্য বলেছেন: বেক্কলকে কে বলেছিলো কল্কি টানতে?

অামারো তাই মত...............হাহাহাহা ভালো লাগলো বরাবরের মতই।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:৫৭

প্রামানিক বলেছেন: বেক্কেলরাই তো এই কাজ করে যার আক্কেল আছে সে কি এমন কাজ করে? ধন্যবাদ বোন সোহানী, শুভেচ্ছা রইল।

১৮| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:০২

বোকা মানুষ বলতে চায় বলেছেন: শেষ অবধি কল্কিই ধরলেন :-P

=p~ =p~ =p~

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১২:৪৪

প্রামানিক বলেছেন: কল্কির একটানেতে যেমন তেমন দুই টানেতে প্রজা তিন টানেতে উজির নাজির চার টানেতে রাজা। কাজেই কল্কির তুলনা নাই।

১৯| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:২৫

এফ.কে আশিক বলেছেন: পাঠের অফেক্ষায় রইলাম ভাইয়া।
অগৃীম শুভকামনা...।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১২:৪৪

প্রামানিক বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই।

২০| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১২:৫১

শাহরিয়ার কবীর বলেছেন:

গাজা খায় রাজারা
আর আমাদের মত
গরীবের জন্য আছে বিড়ি ;
বিড়ি উপ্র উঠার সিড়ি। :)


ভালো লিখিছেন প্রমাণিক ভাই।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ২:০৭

প্রামানিক বলেছেন: বিড়ি হলো উপরে উঠার সিড়ি। চমৎকার কথা। ধন্যবাদ

২১| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১২:৫৯

ওমেরা বলেছেন: খুব সুন্দর হয়েছে ভাইয়া ।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ২:০৮

প্রামানিক বলেছেন: ধন্যবাদ বোন, অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইল।

২২| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১:২৯

মাহমুদুর রহমান সুজন বলেছেন: সুন্দর ছড়াটি পড়ে ভাল লাগল।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ২:০৯

প্রামানিক বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই, শুভেচ্ছা রইল।

২৩| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ২:৩২

সম্রাট ইজ বেস্ট বলেছেন: ছড়া ভাল লাগল। কিন্তু প্রামানিক ভাই, কল্কির যুগ কি এখনও আছে? এখন তো মনে হয় আধুনিক পদ্ধতিতে কাজ চলছে।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ২:৩৬

প্রামানিক বলেছেন: ভারতের সাধু সন্নাসীরা এখনও কল্কি টানে।

২৪| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৩:০২

সচেতনহ্যাপী বলেছেন: আহারে,কি দিন ছিল তখন!!

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৩:৪৯

প্রামানিক বলেছেন: সে বললে কষ্টই লাগে। প্রত্যেক বাড়িতেই হুক্কা তামাক কল্কির সমারোহ ছিল।

২৫| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ সকাল ৯:৪৯

নতুন নকিব বলেছেন:



কল্কি টেনে কেমন করে
নিপাত যেতে হয়!
সতর্কতার বার্তা দিলেন,
অবাক - ছন্দময়!

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:৫৪

প্রামানিক বলেছেন: দারুণ দারুণ ছন্দে ছন্দ মন্তব্য। ধন্যবাদ

২৬| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:২২

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: এক টানেতে যেমন তেমন দুই টানেতে রোগী
তিন টানেতে রাজা উজির চার টানেতে সূখি ;)

পাঁচ টানেতে মািট ছেড়ে শূন্যে উঠা যায়
ছয় টানেতে আকাশৈতে ভৈসে থাকা যায়
সাত টানেতে তুমি হবে ব্রহ্মা বিষ্ণ কলি
আট টানেতে স্বর্গ নরক সবই পাবে খালি

দেখাব নাকি খালি বলি দেখাব নাকি
ন'টানের কি মহিমা =p~ =p~ =p~ =p~ =p~

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:৫৬

প্রামানিক বলেছেন: হা হা হা কল্কির টানে টানে পরিবর্তন। চমৎকার মন্তব্য। ধন্যবাদ

২৭| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১২:৫৭

তারেক ফাহিম বলেছেন: ফাউল কল্কি টানতে গিয়ে এ ধষা :-/

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:৫৬

প্রামানিক বলেছেন: নতুন নতুন এরকম ফাউল অনেক হয়। ধন্যবাদ

২৮| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:২২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমি এক বার কল্কি টানতে দেখেছিলাম।
দেখলাম এটাকে হাতে নিয়ে কপালে ,বুকে ঠেকায়। তার পর বেজায় টান, টানের চোটে কল্কিতে দপ দপ করে আগুন জ্বলে !!!

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:৫৯

প্রামানিক বলেছেন: ভাই কি আর বলবো কল্কিখোরদের এমনও টান দিতে দেখেছি একটানে নাক মুখ দিয়ে ভক ভক করে ধুঁয়ো বের হয়। ধন্যবাদ লিটন ভাই কল্কিখোরের কাহিনী বলার জন্য।

২৯| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:০৮

নতুন নকিব বলেছেন:



লেখক বলেছেন: ভাই কি আর বলবো কল্কিখোরদের এমনও টান দিতে দেখেছি একটানে নাক মুখ দিয়ে ভক ভক করে ধুঁয়ো বের হয়।

-আচ্ছা, আগে তো কল্কিখোর দেশে অনেক ছিল। বিশেষ করে গ্রাম গঞ্জে অহরহ দেখা যেত। এখনও কি আছে?

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:০৩

প্রামানিক বলেছেন: না ভাই এখন আর কাউকে কল্কি খেতে দেখি না। গ্রামের লোকজনও এখন সিগারেট বিড়ি খায়। তবে কিছু মাজার বা আখড়াগুলোতে এখনও কল্কির প্রচলন আছে। যেমন গত দুই বছর আগে লালন শাহের মাজারে গিয়ে সন্ধার পরে কল্কির মহা ধুমধাম দেখেছি।

৩০| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৩:১৪

কালীদাস বলেছেন: সত্যি বলতে কি, এতদিনে একটা কাজের কবিতা লিখেছেন। মারহাবা টাইপের হৈসে !:#P

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:০৪

প্রামানিক বলেছেন: কল্কির জন্য মারহাবা দেয়ায় ধন্যবাদ। শুভেচ্ছা রইল।

৩১| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:২০

চানাচুর বলেছেন: বর্তমানে যে শিশা খায় তরুণ তরুণীরা সেটাও কিছুটা কল্কির মত। কিন্তু শিশার মধ্যে সম্ভবত তামাক জাতীয় কিছু থাকেনা।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:২৯

প্রামানিক বলেছেন: তামাক না হলেও শিশার ক্ষতি কম না। ধন্যবাদ আপনাকে মূল্যবান মন্তব্য করার জন্য।

৩২| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৫০

খায়রুল আহসান বলেছেন: চমৎকার ছড়া!
প্রথম মন্তব্যটাই সবার সেরা!

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৫৯

প্রামানিক বলেছেন: ঠিকই বলেছেন খায়রুল ভাই। মন্তব্য করার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ।

৩৩| ১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:২২

ধ্রুবক আলো বলেছেন: হা হা হা, সেই এক মজার ছড়া ভাই।

১৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৪৯

প্রামানিক বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই, শুভেচছা রইল।

৩৪| ১৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:০১

অর্ক বলেছেন: আমি ছড়াটি উপভোগ করলাম। কিন্তু ছড়াটি ঠিক শিশু কিশোরদের উপযোগী নয়! ছড়াকার হিসেবে অনলাইনে আপনার বিরাট জনপ্রিয়তা কি দাবি রাখে না যে, আপনি লেখা প্রকাশের ব্যাপারে কিঞ্চিত হলেও সাবধানতা অবলম্বন করবেন। আপনার এই 'কল্কির নেশা' শিরোনামেরর ছড়া নিঃসন্দেহে শিশু কিশোরদের কোমল মনে কল্কি গাঁজা নেশা মাদক এসবের প্রতি উৎসাহিতকরণে কাজ করবে! নিশ্চয়ই তা আমাদের কারই কাম্য হতে পারে না। তাছাড়া শিশু কিশোরদের জন্য কোনও ছড়ার বইয়ে আপনি নিজেও নির্ঘাত লেখাটি অন্তর্ভুক্ত করতে চাইবেন না! এখন এই বিতর্কিত বিপদ জনক ছড়াটি এই বহুল জনপ্রিয় ব্লগ সাইটে রাখবেন কিনা, তা আপনার ব্যাপার! দয়া করে ঠাণ্ডা মাথায় কিছুক্ষণ ভেবে দেখবেন। একজন জনপ্রিয় সিনিয়র ব্লগার হিসেবে আপনার কাছে আরও দায়িত্বশীলতা আশা করি।


দাঁড়ান...

আমার আরও কিছু বলার আছে...

ভাবছি...

...

...

...

...

ইয়ে, লেখা পড়ে মনে হলো আপনার এসবে ভালো অভিজ্ঞতা আছে!

...

...

...

...

...


তা, সেগুনবাগিচার কোথায় পাওয়া যায়? বলবেন কি?


না না, এখানে না, উত্তরটা সরাসরি আমার নিচের মেইলে দিন।

...

...

...

...

...

...

মেইল

একটুফানকরলাম@ভাই.কম

হা হা হা

বর্তমানের শিশু কিশোররা যেমন ইঁচড়ে পাকা, তেমনি সবজান্তা।
এটা আমাদেরকেও বলেছিল আমাদের অগ্রজরা।
তাদেরকেও তাদের অগ্রজরা।
চলছেই...

অনেক ধন্যবাদ ও শুভকামনা প্রিয় প্রামানিক ভাই।

১৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:৩৩

প্রামানিক বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই, আপনি আমার সব ছড়া হয়তো পড়েন নাই। আমি সব ছড়া শিশুকিশোরদের জন্য লিখি না। ৭০% ছড়া লিখি সমাজের সমস্যা এবং অসংগতি নিয়ে। সমাজের বিভিন্ন সমস্যাগুলি ব্যাঙ্গ আকারে তুলে ধরার চেষ্টা করি। কল্কিখোরদের যে দুর্দশা হয় সেই চিত্রটা এই ছড়ায় তুলে ধরার চেষ্টা করেছি, তাতে শিশু কিশোররা আকৃষ্ট না হয়ে ভয় পাবার কথা। কল্কি খেয়ে মাথা ঘুরে পড়ে মাথা ফাটানো কি খুশির বিষয় না ভয়ের বিষয়?

৩৫| ১৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:০০

অর্ক বলেছেন: ওই মাথা ঘুরে পরার জন্যেই পৃথিবীতে বেশুমার অর্থ ব্যয় করে মানুষ! আই রিপিট বেশুমার... মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার, শুধু হরেক রকম মাদকের পিছনে। সব ওই মাথা ঘুরে পরার জন্যেই। ঢাকার ৩-৪* স্টার হোটেলের বারে যাবেন, দেখবেন অনেকেই আছে এক বসায় ১০০০০+ টাকার মদ পান করে। অনেকেই এমন মাতাল হয়ে যায় যে, ড্রাইভার ধরে নিয়ে গাড়িতে তুলে পৌঁছে দেয় বাড়িতে।

আমি আপনার বেশ কিছু ছড়াই পড়েছি, সবই দিব্যি শিশু কিশোরদের উপযোগী, আমি বরং বলবো ওদের এগুলো আরও বেশি পড়া দরকার। তারাই কাণ্ডারি হবে এ জাতির আগামী দিনের। এটা ব্যতিক্রম। এই ছড়া আপনার শিশু কিশোর পাঠকরা পাঠ করার যারা জানে না, তার নিদেন পক্ষে মা বাবাকে জিজ্ঞেস করতে পারে যে, কল্কি গাঁজা কি?

যাই হোক এটা একটা ছড়াই। এখানে ৩৬৪ বার পঠিত হয়েছে। তেমন কোনও বড় ব্যাপার না! তবে আমি ব্যক্তিগতভাবে আপনার জায়গায় থাকলে এই ছড়া লিখতাম না বা প্রকাশও করতাম না। কল্কি গাঁজা এসবের সাথে আমি নিজেও সেভাবে পরিচিত নই! ছড়াটি আমার মধ্যেই কল্কি গাঁজা এসব আরও ভালভাবে জানার জন্য কৌতূহলী করে তুললো! শিশু কিশোরদের কথা আর কি বলবো!

যাই হোক ছড়া আমার খুব ভালো লেগেছে। ধন্যবাদ।

১৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:৪৬

প্রামানিক বলেছেন: আমাদের সময় শতকরা ৯০% শিশুকেই কল্কি সাজাতে হতো। হিন্দু মুসলিম যে কোন বুড়োকে কল্কি, হুক্কা না খাওয়ালে অসন্মান করা হতো। আমি বা আমার সমবয়সি বা বড় বয়সি যারা ছিল তাদের সবাইকে নিজহাতে কল্কিতে তামাক ভরে আগুন লাগিয়ে বুড়োদের দিতো হতো। কই কল্কি সাজিয়ে দেয়ার পরও তো আমরা কেউ কল্কিখোর হই নাই। যারা কল্কি খায় তারা কি সবাই আমার ছড়া পড়েছে? কল্কিখোরের বিষয়টা হলো মনসিকতা। মনসিকতা খারাপ হলে সে কল্কি খাবে আর যার মানসিকতা খারাপ না তাকে কল্কির তলে বসিয়ে রাখলেও কল্কি খাবে না।

৩৬| ১৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:০৭

অর্ক বলেছেন: ওই মাথা ঘুরে পরার জন্যেই পৃথিবীতে বেশুমার অর্থ ব্যয় করে মানুষ! আই রিপিট বেশুমার... মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার, শুধু হরেক রকম মাদকের পিছনে। সব ওই মাথা ঘুরে পরার জন্যেই। ঢাকার ৩-৪* স্টার হোটেলের বারে যাবেন, দেখবেন অনেকেই আছে এক বসায় ১০০০০+ টাকার মদ পান করে। অনেকেই এমন মাতাল হয়ে যায় যে, ড্রাইভার ধরে নিয়ে যেয়ে গাড়িতে তুলে পৌঁছে দেয় বাড়িতে।

আমি আপনার বেশ কিছু ছড়াই পড়েছি, সবই দিব্যি শিশু কিশোরদের উপযোগী, আমি বরং বলবো, ওদের এগুলো আরও বেশি পড়া দরকার। কারণ তারাই কাণ্ডারি হবে এ জাতির আগামী দিনের। তারাই বিনির্মাণ করবে সমাজ। এটা ব্যতিক্রম। এই ছড়া শিশু কিশোর পাঠকরা পাঠ করার পর, যারা জানে না, তারা নিদেন পক্ষে মা বাবাকে জিজ্ঞেস করতে পারে যে, কল্কি গাঁজা কি?

যাই হোক এটা একটা ছড়াই। এখানে ৩৬৪ বার পঠিত হয়েছে। তেমন কোনও বড় ব্যাপার না! তবে আমি ব্যক্তিগতভাবে আপনার জায়গায় থাকলে এই ছড়া লিখতাম না বা প্রকাশও করতাম না। কল্কি গাঁজা এসবের সাথে আমি নিজেও সেভাবে পরিচিত নই! ছড়াটি আমার মধ্যেই কল্কি গাঁজা এগুলো আরও ভালভাবে জানার জন্য কৌতূহলী করে তুললো! শিশু কিশোরদের কথা আর কি বলবো!

যাই হোক ছড়া আমার খুব ভালো লেগেছে। ধন্যবাদ।
*তাড়াহুড়োয় আগের মন্তব্যে কিছু ভুল হয়েছে। দয়া করে ডিলিট করে দিন।

১৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:৪৭

প্রামানিক বলেছেন: ধন্যবাদ

৩৭| ১৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:০৮

শামছুল ইসলাম বলেছেন: দারুণ ছড়া ।

কল্কি টানাটা অনেকের কাছে একটা আর্ট । যারা পারে না শুল্কিজানের চাচার মতো করুণ অবস্থা হয় ।
বেশ মজা করে পরিবেশন করেছেন । ( নেশার মন্দ দিকটার বিচারে গেলাম না, তাতে ছড়ার সৌন্দর্য ব্যাহত হতো) ।

১৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৮

প্রামানিক বলেছেন: ছড়ায় নেশার মন্দ দিকটাই তুলে ধরা আছে। শুল্কিজানের চাচা মাথা ঘুরে পড়ে মাথা ফাটিয়েছে।

৩৮| ১৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:৪৭

অর্ক বলেছেন: কল্কিখোরের বিষয়টা হলো মনসিকতা। মনসিকতা খারাপ হলে সে কল্কি খাবে আর যার মানসিকতা খারাপ না তাকে কল্কির তলে বসিয়ে রাখলেও কল্কি খাবে না।

আমি বুঝলাম না! কতো সম্ভাবনাময় তরুণ প্রাণ ঝরে গেছে মাদকের নীল নেশার আঁধারে। বিটিভিতে একটি নাটিকা দেখতাম ছেলেবেলায়, মেধাবি সুবোধ ছাত্র মাদকাসক্ত বন্ধুদের পাল্লায় পরে একটান দুটান থেকে একপর্যায়ে মাদকাসক্ত হয়ে মরেই যায়। মানসিকতার এখানে কী আছে, পরিস্থিতির স্বীকার হয়ে বেশিরভাগ মাদকাসক্ত হয়। এমনিতেই ইয়াবা, ফেন্সিডিল, হিরোইন ইত্যাদি মাদকে জর্জরিত আমাদের দেশ। এর মধ্যে একজন সর্বজন প্রিয় জনপ্রিয় ব্লগার হিসেবে আপনার এই অধুনালুপ্ত কল্কি হুক্কা নেশাকে ছড়া প্রচার করা যুক্তিযুক্ত হয়নি বলে মনে হয়েছে আমার। আপনি নিশ্চয়ই জানেন ইদানীং শিশার ব্যাপক প্রচলন দেখা যাচ্ছে শহরের অভিজাত শ্রেণীর ছেলেমেয়েদের মাঝে।

যাই হোক আমি আপনি আমরা যখন সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে, আমরা ব্লগিং করবো, কিছু কিছু দায়বদ্ধতা আমাদের এসেই যায় যে, আমরা এমন কিছু লিখবো না, যা সমাজে বিন্দু মাত্র কোনও ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে। সিগারেট নিয়ে ধূমপানের ক্ষতিকর দিক নিয়ে আপনি লিখতে পারেন, এতে আপনার কোনও দায়বদ্ধতা নেই। কারণ চারিদকে সর্বত্র মানুষ ধূমপান করে। কিন্তু কল্কি হুক্কা নিয়ে আছে। কল্কি হুক্কা এগুলো চর্চা করার মতো ভালো বিষয় নয়। সরকার, বিভিন্ন ngo মাদক বিরোধী প্রচারে কতো অর্থ শ্রম ব্যয় করে কতো রকম প্রচারণা করে চলেছে, যাতে মাদকের অভিশাপ থেকে মুক্ত থাকতে পারে এই রাষ্ট্র ও সমাজ; কতো বিজ্ঞাপন, নাটক, পোস্টার, লিফলেট, কতো রকম প্রচার।

তারা কিন্তু একথা (কল্কিখোরের বিষয়টা হলো মনসিকতা। মনসিকতা খারাপ হলে সে কল্কি খাবে আর যার মানসিকতা খারাপ না তাকে কল্কির তলে বসিয়ে রাখলেও কল্কি খাবে না।) বলে তাদের দায় এড়ায় না। আর আপনি যাদেরকে কল্কি সাজিয়ে দিতেন, তারাও কিন্তু বড়দের দেখে দেখেই কল্কি ধরেছে। পরবর্তীতে সিগারেট বিড়ি আসার পর কল্কি হুক্কার আবেদন অনেকটাই ফুরিয়ে যায়।

যাই হোক অনেক কথা বললাম।
ধন্যবাদ ও শুভকামনা।

১৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:০৫

প্রামানিক বলেছেন: ঐসময়ে যারা কল্কিখোর ছিল তারা এখন তামাকের অভাবে বিড়ি সিগারেট খায়। যদিও এখন কল্কির প্রচলন নাই বললেই চলে তারপরেও আপনার কথামত আমি না হয় কল্কির ছড়া বন্ধ করলাম কিন্তু বিড়ি সিগারেট ওয়ালাদের কি করবেন?

৩৯| ১৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:১২

অর্ক বলেছেন: লেখেন প্রামানিক ভাই, আপনি মনের সাধ মিটিয়ে লেখেন। এরপর গুল নিয়ে একটা হুলস্থুল ছড়া লিখে পোস্ট করেন। এবার ছড়ায় ছড়ায় প্রায় অধুনালুপ্ত এই গুলের সাথেও নতুন প্রজন্মকে পরিচয় করিয়ে দেন, আরও এই সকল মাদক ঐতিহ্য নিয়ে রসিয়ে রসিয়ে ছড়া বানিয়ে প্রচার করেন। আপনার ব্যাপার! আমি ভালো মন নিয়ে ভালো কথাই বলেছি। এটা নিয়ে যেভাবে আক্রমণাত্মক হয়ে উঠছেন, তা সত্য অকল্পনীয়। আমি সত্যিই আপনাকে খুব শ্রদ্ধা করি। আপনার মতো একজন ছড়াকারকে আমাদের ভীষণ প্রয়োজন। আমাদের সমৃদ্ধ শিশু সাহিত্য দরকার, বিদ্যা বুদ্ধিতে সমৃদ্ধ উন্নত নতুন প্রজন্ম দরকার। এই নতুন প্রজন্ম গড়ে উঠবে আপনার, আপনাদের মতো শিশু সাহিত্যিকদের হাত ধরেই।

একটা বিষয় আপনার বোঝা উচিৎ, ছড়া সাহিত্যটাই মূলত শিশু কিশোরদের জন্য। শিশুকিশোরদের জন্যেই মূলত ছড়া লেখা হয়। আপনি বুঝতে পারছেন না, গুল কল্কি গাঞ্জা আপনার ছড়ার বিষয় হতে পারে না। আপনি আমাদের হারানো ঐতিহ্য ঢেকি, কুলা ইত্যাদি নিয়ে ছড়া লেখেন। আমি আপনাকে প্রাণভরে বাহবা দিবো, সাধুবাদ জানাবো। কেউ যদি ভালো কিছু বলে তা গ্রহণ করতে কার্পণ্য কাম্য নয়।

যাক আমার ভুল হলে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। আপনি আরও ছড়া লিখবেন, আরও অনেক কথা হবে।
ধন্যবাদ।

১৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:১৯

প্রামানিক বলেছেন: ভুল বুঝতেছেন কেন ভাই? আপনার উপরে খেপবো কেন? আপনি আমার পাঠক হিসাবে যুক্তিনির্ভর মন্তব্য করতেই পারেন। আপনি আপনার দৃষ্টিতে যুক্তি দেখিয়েছেন আমি আমার দৃষ্টিতে খন্ডন করার চেষ্টা করেছি, এ ছাড়া অন্য কিছু নয়। ধন্যবাদ

৪০| ২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:২৮

শাহানাজ সুলতানা অধরা বলেছেন: নেশার ঘোরে কাপছে জগৎ
ঘুরছে মাথা বন বন বন
খুক খুক খুক ইচ্ছে কাশি
শূন্য কপেট ,ঠন ঠন ঠন ।

২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:২৪

প্রামানিক বলেছেন: চমৎকার ছন্দ কথা। ধন্যবাদ আপনাকে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.