নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

পরম সত্য বলে কিছু নেই।

জেন রসি

সময়ের সাথে দাবা খেলি। বোর্ডের একপাশে আমার অস্তিত্ব নিয়ে বসে আছি। প্রতিটা সিদ্ধান্তই এক একটা চাল। শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত খেলাটা উপভোগ করতে চাই!

জেন রসি › বিস্তারিত পোস্টঃ

পাঠ প্রতিক্রিয়া অথবা পাঠ প্রতিক্রিয়া নাঃ মন্মথের মেলানকোলিয়া

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:১৬



এখন পর্যন্ত বইমেলা থেকে একটাই বই কিনেছি। বইয়ের নাম মন্মথের মেলানকোলিয়া। লেখক হাসান মাহবুব। আজ সেটা পড়ে শেষ করলাম। এবং পড়ার পর দুটো শব্দ মাথায় স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে খেলা করেছে। শব্দদুটো হলো “ইন্টারেস্টিং” এবং প্রেডিক্টেবল”। প্রেডিক্টেবল কারন হাসান ভাইয়ের গল্পের সাথে আমি পরিচিত। তাই তার প্রথম উপন্যাস পড়ে আমি ধাক্কা খাওয়ার জন্য প্রস্তুত ছিলাম। এবং যেহেতু প্রস্তুত ছিলাম তাই অবাক হইনি। এবার কিছু পর্যবেক্ষণের কথা বলা যেতে পারে। অর্থাৎ পড়ার সময় এবং পড়ার পর যা মনে হয়েছে তা সোজাসাপ্টা ভাবে বলে দেওয়া।


হাসান ভাইয়ের লেখার সাথে যেহেতু পূর্বপরিচিত তাই ধরেই নিয়েছিলাম এই বই একটানে পড়ে ফেলা যাবেনা। অর্থাৎ মনোযোগ ধরে রাখা যাবেনা। এবং পড়া শুরু করার পর ঘটনা ঠিক তাই ঘটল। কারন একঘেঁয়ে বর্ননা। এবং সেটা অনেকটা নিজের সাথে নিজের কথোপকথন টাইপ। অর্থাৎ লেখক এখানে পাঠককে অপশন দিয়ে দিচ্ছে। পড়বা কি পড়বা না? পড়লে মনোযোগ দাও। আরো গভীরে যাও। মেটাফোর নিয়ে একটু খেলে দেখ! আমি পড়া না থামিয়ে আরো গভীর মনোযোগে মন্মথের মেলানকোলিয়ায় ডুব দিলাম। যদিও ব্যাপারটা স্বতঃস্ফূর্ত ছিলনা।


উপন্যাসের গুরুত্বপূর্ন এক চরিত্র হচ্ছে বিট্টু নামক এক কুকুর। বিট্টু তার চারপাশের জগত সম্পর্কে কী ভাবছে বা কী ফিল করছে এসবের বর্ননা আছে। অর্থাৎ একটি কুকুরের চোখ দিয়ে জগতকে দেখার চেষ্টা। কাজটা করার জন্য লেখককে কুকুর নিয়ে বেশ কিছু পড়ালেখা করতে হয়েছে বলে মনে হয়। যার ছাপ এ লেখায় আছে। কিছু কিছু তথ্য লেখক নিজেই সুকৌশলে তার চরিত্রগুলোর মুখ বা ভাবনা দিয়ে বলিয়েছে। যাইহোক বিট্টুকে পড়ার সময় সুনীলের কবিতার বিখ্যাত কিছু লাইন মনে পড়ে যাচ্ছিল। “আমি মানুষের পায়ের কাছে কুকুর হয়ে বসে থাকি, মানুষের ভেতরের কুকুরটাকে দেখব বলে”। কিন্তু প্রশ্ন হলো বিট্টু কি আসলেই কুকুর নাকি একটা ডিভাইস? যে ডিভাইসকে একদল মানুষের মাঝে ফেলে দিয়ে মূলত মানুষকেই ব্যাখা করার চেষ্টা করা হয়। এই ব্যাখ্যার কিছু সীমাবদ্ধতা আছে। এবং এই সীমাবদ্ধতার ব্যাপারে লেখকের পক্ষপাতিত্ব আছে। অবসেশনও হতে পারে।


কাজলী খুব একটা কমপ্লেক্স চরিত্র না। প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত তার চরিত্র খুব স্পষ্ট। এবং তার পরিনতিও অনুমান করা যাচ্ছিল। তবে কাজলীকে দিয়ে বা তাকে বিশ্লেষন করে আরো তুলনামূলক কমপ্লেক্স কিছু ব্যাপার বুঝার বা ফিল করার সুযোগ আছে। আরো সহজ করে বললে বলতে হয় অদৃষ্টবাদের সাথে মানুষের অসহায়ত্বের যে সম্পর্ক তার একটা সিম্বল হচ্ছে এই কাজলী চরিত্র।


মেটাফোরের ভালো খেলা আছে। পাজল আছে। সমাধানও আছে। লেখকের অবচেতন মনও আছে। যা চরিত্রগুলোর চেতন মনে ক্রীয়াশীল।


সব মানুষই পশু। কিন্তু সব পশুই মানুষ না।

বাংলা সাহিত্য নিয়ে আমার পড়ালেখা খুব কম। তবে যা পড়েছি তার ভিত্তিতে বলা যায় হাসান ভাই নিজের মত করেই একটা ইউনিক স্টাইলের জন্ম দিয়ে যাচ্ছেন। মনের অন্ধকার অলি গলি এক্সপ্লোর করে তাকে মেটাফোরিক পাজলে রূপান্তর করা খুব সহজ কাজ নয়। তবে একজন পাঠক হিসাবে সেটা দেখা এবং বুঝার চেষ্টাটা আমার কাছে উপভোগ্য।






মন্তব্য ৩৮ টি রেটিং +৮/-০

মন্তব্য (৩৮) মন্তব্য লিখুন

১| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৩৫

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: Nice

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৩৮

জেন রসি বলেছেন: ধন্যবাদ।



২| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৩৮

উম্মে সায়মা বলেছেন: আপনার পাঠ প্রতিক্রিয়া পড়ে বইটি পড়ার আগ্রহ হচ্ছে জেন রসি ভাইয়া। ইন্টারেস্টিং হবে মনে হয়। আশা করি কোন একসময় সংগ্রহ করার সুযোগ হবে।
ধন্যবাদ।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৪৪

জেন রসি বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে। :)



৩| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৫৮

দিশেহারা রাজপুত্র বলেছেন: এই বইটা পড়ার ইচ্ছা আছে। সেই সাথে নরকের রাজপুত্র। এই দু'টো কবে কালেক্ট করতে পারবো, জানি না। তবে করবো। ব্লগে যখন নিয়মিত ছিলাম তখন নিয়মিত ছিলাম হাসান ভাইয়ের গল্পে। তার অধিকাংশ গল্পই আমি অশেষ মুগ্ধতা নিয়ে শেষ করেছি। এছাড়া গল্পে সবসময়ই মুগ্ধ পাঠক। আমারে হতাশ করতে হলে লেখকরে খুবই নিম্নপর্যায়ের গল্প লিখতে হয়।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ৮:০১

জেন রসি বলেছেন: সবারই একটা কাপ অব টি টাইপ ব্যাপার আছে। তবে আমার আগ্রহের জায়গা হচ্ছে গল্পটা কেন এবং কিভাবে বলা হচ্ছে তা নিয়ে। পাঠক হিসাবে এটা আমি উপভোগ করি।


৪| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:২১

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: ধন্যবাদ জেন রসি , ফাগুনের প্রথম দিনে উৎসাহ নিয়ে পাঠের মত মুল্যবান একটি লেখা পেলাম । খুবই অল্প কথায় আমাদের কথা সাহিত্যিক হাসান মাহবুবের বইটির সুন্দর ও প্রাঞ্জল পর্যালোচনা । বই এর ভিতরকার মুল বিষয়কে পাঠকের হৃদয়গ্রাহী করে উপস্থাপনা ভাল লাগল । বইটি সংগ্রহে নিয়ে পাঠের আগ্রহ সৃষ্ট হলো ।

অনেক শুভেচ্ছা রইল


১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ৮:০৫

জেন রসি বলেছেন: ধন্যবাদ আলী ভাই। বেশ কিছুদিনপর ব্লগে এসে আপনার মন্তব্য পেয়ে ভালো লাগছে। আশা করি ভালো আছেন।


৫| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ৮:১০

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনাকে লিখতে দেখে ভালো লাগলো।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ৮:২১

জেন রসি বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে। :)


৬| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ৯:০২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: বইয়ের কাটতির জন্য একটা সহজ বোধগম্য নাম দরকার। সে ক্ষেত্রে 'মন্মথের মেলানকোলিয়া' টাইপের খটোমটো নাম অনেকটা রিস্কি হয়ে যায় । এরকম রিস্ক নেয়টা হাসান ভাইয়ের মত চমৎকার লিখকরাই নিতে পারেন।
বইটির সাফল্য কামনা করছি।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ১১:০৩

জেন রসি বলেছেন: নামটা আমার কাছে আকর্ষনীয় মনে হয়েছে। তাছাড়া প্লটটা নামেও প্রতিফলিত হয়েছে। আপনার জন্যও শুভকামনা লিটন ভাই।


৭| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ৯:০৫

সৈয়দ ইসলাম বলেছেন:


পাঠ প্রতিক্রিয়া সাজালেন তো সুন্দর। ভালো লাগলো প্রকাশভঙ্গী। বসন্তের শুভেচ্ছা জানবেন।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ১১:০৫

জেন রসি বলেছেন: ধন্যবাদ। বসন্তের শুভেচ্ছা।


৮| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ৯:৩১

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: পাঠ প্রতিক্রিয়া আগ্রহী করে তুলল বেশ.।

মেলায় গেলেই খুঁজে নিতে হবে :)

বাসন্তী শুভেচ্ছা রইল

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ১১:০৬

জেন রসি বলেছেন: ধন্যবাদ বিদ্রোহী ভাই। শুভেচ্ছা। :)


৯| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ১০:২২

জুলিয়ান সিদ্দিকী বলেছেন: উপন্যাসের দুই চাইর পাঁচটা লাইন, নিদেনপক্ষে শুরুর কয়টা লাইনও তো দিতে পারতেন। আলোচনা না হোক, রিভিউ না হোক, প্রতিক্রিয়া হোক বা না হোক, উল্লেখ না করা কি ঠিক হইল? টাকা-পয়সা খরচের দিক দিয়া কঞ্জুস মানুষ দেখছি, কিন্তু কথার দিক দিয়াও এমন মানুষ আছে এই প্রথম বুঝতে পারতাছি। আপচুচ! :(

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ১১:১৩

জেন রসি বলেছেন: উপন্যাসের লাইন পড়তে হলে কিনে ফেলুন। ;) তাছাড়া স্পয়লার বলে একটা ব্যাপার আছে। আরো ব্যাপার হইলো আমার ঠিক যা বলার দরকার ছিল তাই বলেছি। সেটা একলাইনেও হয়ে যেতে পারে। :P

ধন্যবাদ ভাই। শুভেচ্ছা। :)


১০| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ১১:০১

বিজন রয় বলেছেন: হা হা হা ......

এই ব্লগ অনেককেই লেখক বানিয়েছে, হাসান মাহবুবকেও।
তবে লেখকদের জীবনে অনেক শর্ত আছে, যা ব্লগারদের নেই।

বুঝেছেন মশাই।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ১১:১৫

জেন রসি বলেছেন: না বুঝি নাই। :P

আপনি কেমন আছেন?


১১| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ১২:১৩

কানিজ রিনা বলেছেন: সব মানুষই পশু আরেব্বাইস কিন্তু সব পশুই
মানুষ না দারুন তো। কুকুরাই পশু কিন্তু
কুকুর কোনও দিন মানুষ হয়না। বইটা
অনলাইনে দেখব। ধন্যবাদ।

১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:৩৬

জেন রসি বলেছেন: আপনাকেও ধন্যবাদ। :)

১২| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ভোর ৫:০৭

জাহিদ অনিক বলেছেন:

হাসান মাহবুব ওরফে হামা ভাইকে কিছুটা পড়েছি ব্লগে। আপনি যতটা হামা ভাইকে চিনেন ততটা ভাল নিশ্চয়ই তার লেখাকে চিনি না, তবে কিছুটা তো নিশ্চয়ই চিনি। সেই ধারণা থেকেই অনুমান করেছিলাম, এই বইতে তিনি পাঠকের সাথে খেলতে চাইবেন। এবং খেলায় তিনি টাইব্রেকারে জিতবেন।

মেলায় যাব, বইটা কিনব

১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:৩৮

জেন রসি বলেছেন: ধন্যবাদ জাহিদ অনিক ভাই। :)

১৩| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:১২

রাজীব নুর বলেছেন: ঞ্চারপাশে এত এত বই- ভালো লাগে।

১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:৩৯

জেন রসি বলেছেন: উপভোগ করুন। :)

১৪| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:৪৮

মোস্তফা সোহেল বলেছেন: হাসান মাহাবুব ভাইয়ের বই ব্যতিক্রম কিছু থাকবে বলেই আমার মনে হয়।

১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:৪২

জেন রসি বলেছেন: সেটা জানতে হলে পড়ে ফেলুন। ধন্যবাদ। :)

১৫| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ১২:০৭

পার্থ তালুকদার বলেছেন: বইটি পড়ার অপেক্ষায় আছি ....
আর হ্যাঁ, আপনার রিভিউটা ভালো হয়েছে ।

১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:৪৩

জেন রসি বলেছেন: ধন্যবাদ পার্থ দা। :)

১৬| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ১২:৫১

হাসান মাহবুব বলেছেন: মহান সূত্রধর এবং বেনী দোলানো ছোট্ট মেয়ের রসায়নটা কি আরো জমানো লাগতো?

১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:৫৯

জেন রসি বলেছেন: উপন্যাসের সে অধ্যায়টা হচ্ছে ধাঁধা যার উত্তর হচ্ছে বাকি অধ্যায়গুলো। তবে দুটো ব্যাপারকে আরো গভীর এবং স্পষ্ট ভাবে কানেক্ট করার সুযোগ ছিল। বিশেষ করে উপন্যাসে ছোট গল্পের যে রেশটা ছিল তা এ অধ্যায়টা দিয়ে কাটানো যেত।

১৭| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ২:২০

আলোরিকা বলেছেন: গতকাল মেলায় গিয়েছিলাম । বইয়ের তালিকায় অন্যান্য বইয়ের সাথে ছিল 'মন্মথের মেলানকোলিয়া' আর 'শরীফ আজাদ অনূদিত ছোট গল্পে'র বই দুটো ---বলাই বাহুল্য জ্যামে বসে বসে পৌঁছালাম সন্ধ্যা সাত ঘটিকায় ! তারপর মেলায় ঢুকে শুধু মনে আছে মেলানকোলিয়া :(( স্টল নাম্বার , প্রকাশনী সবই মাথা থেকে আউট .।.।.।.।.।মোবাইলে নেই নেটওয়ার্ক X(( তারপর কিছুক্ষণ এদিক সেদিক ঘুরে গোটা কয়েক বই কিনে ফাগুন হাওয়ায় ভেসে ভেসে দিক হারিয়ে , সঙ্গী সাথী হারিয়ে বাসায় প্রত্যাবর্তন । বেরসিক আমাকে ফাগুন কাল ভালই একহাত নিল :(

আজকে আর ভুল নয় দুটো বইয়েরই তথ্যাদি মোবাইলে তুলে নিলাম । মিশন আগামী শুক্রবার :)

ফাগুনের শুভেচ্ছা রসি ভাইয়া :)

১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ১২:১৫

জেন রসি বলেছেন: আমি বইমেলার শেষে কেনাকাটা করব। ঢাকার কুখ্যাত জ্যাম মানুষের এ্যানার্জি শুষে নেয়। সে অর্থে জ্যামময় বসন্ত এক হাত নিতেই পারে। হা হা

ধন্যবাদ আপু। ফাগুনের শুভেচ্ছা। :)

১৮| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ১১:৩২

সোহানী বলেছেন: পাঠ প্রতিক্রিয়া ভালো লাগলো। বরাবরেই হামা ভাইয়ের আমি একনিষ্ঠ পাঠক আমি। পাঠককুলকে সহজেই ধরে রাখতে পারে তার লেখনির গুনে। শুধু একটি বিষয়ই আমার দ্বিমত তাহলে "পড়বা কি পড়বা না"? কারন আমার মতে ওনার লিখা পড়া শুরু করলে শেষ না করে উঠা যায় না। যদিও আমি দু:খ প্রকাশ করছি যে ব্লগের বাইরে ওনার লিখা এ পর্যন্ত পড়া হয়নি অন্তত বই হিসেবে। তাই পুরোপুরি দ্বিমত ও করতে পারছি না। দেশের বাইরে বাংলা বই কালেকশান সত্যিই দূরহ।

অনেক ধন্যবাদ জেন রসি বইটা সম্পর্কে আগাম নোটিশ করার জন্য। আগ্রহ আরো বেড়ে গেল পড়ার জন্য।

ভালো থাকুন।

১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ১২:২৮

জেন রসি বলেছেন: পাঠককুলকে সহজেই ধরে রাখতে পারে এটা আমার মনে হয়না। বরং একজন পাঠক হিসাবে হাসান ভাইয়ের লেখা পড়তে হলে আমাকে মনোযোগ ধরে রাখার চেষ্টা করতে হয়। তবে হাসান ভাইয়ের স্টাইলটা এদেশে ইউনিক। এবং লেখার বিষয়গুলো ডিস্টার্বিং। পাঠককে ধাক্কা দেওয়ার ক্ষমতা এবং সাহস লেখকের আছে।

ধন্যবাদ সোহানী আপু। শুভেচ্ছা।




১৯| ১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:৪২

মনিরা সুলতানা বলেছেন:
ভালো লাগলো রসি ভাই
আপনার স্টাইলে’র পাঠ প্রতিক্রিয়া .....

১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ১২:৩০

জেন রসি বলেছেন: ধন্যবাদ মনিরা আপু। :)




আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.