নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

বাংলা ভাষা অনেক সুন্দর একটি ভাষা। বাংলা আমার ভাষা। বাংলা আমার দেশ।

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন

আমি কেউ না। কবে যে কেউ হতে পারবো।

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন › বিস্তারিত পোস্টঃ

মালয়েশিয়াতে ভালো লাগার জিনিস -০২: Pos Malaysia

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:১৯



আমার কেউ কেউ জানি যে, বাংলাদেশে পোস্ট অফিস নাকি এখন খুব একটা চলে না। আমি শুনেছি। আসলে সত্য কিনা জানি না। অথচ এর বিপরীত দৃশ্য দেখেছি মালয়েশিয়াতে। সেখানে পোস্ট অফিস বেশ ধুমসে চলছে। বেশ জম-জমাট।

মালয়েশিয়াতে পোস্ট অফিসের সেবার মান খুবই ভালো। এখনো প্রচুর মানুষ সেবা নিতে আসে। কিউ মেশিনে লাইনে দাঁড়ানোর কুপন নিয়ে অনেকেই ১৫/২০ মিনিট অপেক্ষা করে পোস্টাল সেবা নেন।

মালয়েশিয়ার পোস্ট অফিসকে বলে Pos Malaysia. দেশের যে সব জায়গায় জনগণের যাতায়াত আছে সেখানেই দেখা যায় পোস্ট অফিস আছে। এমন কি বড় বড় শপিং মলেও পোস্ট অফিসের সেবা আছে। যারা মালয়েশিয়া ঘুরতে যান তারা যে কোন বড় মার্কেটে গিয়ে কাউকে বললেই পোস্ট অফিস দেখিয়ে দেবে। সেখানে গিয়ে একবার না হয় সেবা নিয়ে আসুন। ৫ রিঙ্গিত খরচ করে দেশে একটা চিঠি পোস্ট করে দিয়ে আসুন। দেখবেন আপনি দেশে আসার আগেই হয়তো আপনার চিঠি এসে হাজির হবে (এখানে অবশ্য বাংলাদেশ পোস্ট অফিসের সেবার উপরও নির্ভর করবে আপনার চিঠি আপনার বাসায় সময় মতো আসবে কিনা)।

মালয়েশিয়ার পোস্ট অফিসের ওয়েব সাইটঁ

মালয়েশিয়াতে পোস্ট অফিসে সব ধরনের সেবা পাওয়া যায়। যেমন- বিদ্যুত বিল, টেলিফোন বিল, পানির বিল, গাড়ির ইন্স্যুরেন্স, ড্রাইভিং লাইসেন্স তৈরী, কুরিয়ার পাঠানো, টাকা পাঠানো সহ আরো অনেক ধরনের সেবা এখানে দেয়া হয় খুব দ্রুত।

প্রতিটি পোস্ট অফিসই শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত। বসার ভালো ব্যবস্থা থাকে। সেবা প্রার্থীদের লাইন দেয়ার জন্য কিউ মেশিন থাকবেই।
বেশী ভিড় না থাকলে ৫/১০ মিনিটে সেবা নিয়ে বের হয়ে আসা যায়।

কেউ যদি মালয়েশিয়াতে বেড়াতে আসেন, একটু সময় করে যে কোন একটা পোস্ট অফিসে ঢুকে এদের সেবার মান যাচাই করে যান। আপনার ভালো লাগবে। দেশে গিয়ে আপনার কোন বন্ধু ডাক বিভাগের বড় কর্তা থাকলে তাকে বলতে পারবেন।

মন্তব্য ১০ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (১০) মন্তব্য লিখুন

১| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৩০

চাঁদগাজী বলেছেন:


ওদের সার্ভিস বেশী, তাই চলছে।

আমি ভাবছিলাম মানুষ পোষ্ট অফিস থেকে ইমেইল পাঠায়

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ভোর ৫:৫৮

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: মেইল তো এখন মানুষ মোবাইল ফোনেই করে। এক সময় ঢাকা জিপিও থেকে আমেরিকা যাবার ভিসা লটারী পাঠাতাম। এক বার এ উপলক্ষ্যে ঢাকা জিপিও শুক্রবারেও খোলা ছিল। আমি যে কাউন্টারে লাইন ধরেছিলাম আমার পালা এলে তিনি আমাকে বললেন- ৫ টাকা বেশী দিলে তিনি সেই দিনের ফ্লাইটেই আমার আবেদন পাঠানোর ব্যবস্থা করে দিবেন। আমিও সাথে সাথে রাজি হয়ে গেলাম। এটা ১৯৯০ সালের ঘটনা। আমার ডিভি লটারি ভাগ্যে শিকা ছিড়েনি।

২| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ৮:২৪

আখেনাটেন বলেছেন: দেশের পোস্ট অফিস শুধু সরকারী কাজে ব্যবহৃত হয়। এতেই জাতি খুশি। :D

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ভোর ৫:৫৮

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: সার্ভিস তো সবার জন্য। সরকার তো সার্ভিস দাতা। জনতা সার্ভিস গ্রহীতা। দাতাই যদি গ্রহণ করে তবে সেটা বেমানান লাগে।

৩| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রাত ১০:১৮

রাজীব নুর বলেছেন: আমাকে প্রায়ই জিপিও তে যেতে হয়। আমার দম বন্ধ হয়ে আসে।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ভোর ৫:৫৫

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: আমাদেরকে আরো অগ্রসর চিন্তাভাবনার অধিকারী হতে হবে। নইলে এ যুগে টেকা দায়। আমরা টিকতে চাই।

৪| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৩৪

প্রামানিক বলেছেন: বাংলাদেশের পোষ্ট অফিসগুলো বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:১০

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: আমাদের সবার উচিত পোস্ট অফিসের সেবার মান বাড়ানোর জন্য প্রচেষ্টা নেয়া। অনেক ধরনের সেবা দেয়া যেতে পারে। বিদেশ থেকে জেনে সেটা দেশেও প্রয়োগ করা যেতে পারে। দেশ সবার । উন্নত দেশ চাই।

৫| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ বিকাল ৪:৫২

বিদেশে কামলা খাটি বলেছেন: এক সময় বিদেশে যারা কামলা দিই তাদের চিঠিই ছিল দেশে যোগাযোগের এক মাত্র মাধ্যম। এখন কেউ চিঠি লিখতে চায় না। আমরা দেশে মোবাইলে কথা বলি। দেশের কারো কথা বলার দরকার হলে মিস কল দেয় । আমরা কল ব্যাক করি। বাংলাদেশ থেকে বিদেশে কল করা অনেক খরচের ব্যাপার।

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ১:০৮

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: বাংলাদেশের ভেতর কলরেট কিন্তু খুব কম। কিন্তু তারা বিদেশে কল করার জন্য কোন সুযোগ দেবে না। তাই আপাতত দেশ থেকে মিসড কল আসুক। আর আাপনার বিদেশে বসে কল ব্যাক করুন। বিষয়টা উপভোগ করার মতো। আপনার প্রিয় কোন জন দেশ থেকে মিসড কল দিচ্ছে আর আপনি কল ব্যাক করছেন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.