নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

বাংলা ভাষা অনেক সুন্দর একটি ভাষা। বাংলা আমার ভাষা। বাংলা আমার দেশ।

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন

আমি কেউ না। কবে যে কেউ হতে পারবো।

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন › বিস্তারিত পোস্টঃ

বিদ্যুত চুরি ও ব্যাড মিন্টন খেলা

০৫ ই মার্চ, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:১৭

শীতকা‌লে বাংলা‌দে‌শে যে ব্যাড মিন্টন খেলা হয় তা‌তে ১০০ ওয়া‌টের বা তার চে‌য়ে বেশী পাওয়া‌রের অ‌নেকগু‌লো বাল্ব জ্বা‌লি‌য়ে খেলার কোর্ট‌কে আ‌লো‌কিত করা হয়। বেশীর ভাগ ক্ষে‌ত্রে আ‌লো জ্বালা‌নোর এই বিপুল প‌রিমাণ বিদ্যুত ফাও সংগ্রহ করা হয়। আ‌রো খোলা‌মেলা ভা‌বে বল‌তে গে‌লে এই বিদ্যুত চু‌রি করা হয়। কোর্টের পা‌শের সরবরাহ লাইন থে‌কে আলগা তার বে‌ধে নেয়া হয় বিদ্যুত। ফ‌লে জাতীয় গ্রিড থে‌কে বিপুল প‌রিমাণ বিদ্যুত গচ্চা যায়। শহ‌রের ব্যাপারটা জা‌নি না। ত‌বে গ্রামাঞ্চ‌লে পল্লী বিদ্যুত না‌কি মোট প্রদত্ত বিদ্যু‌তের হিসাব রা‌খে। গ্রাহ‌কের মিটার হিসাব ক‌রে বা‌কি বিদ্যু‌তের বিল সব গ্রাহ‌কের ঘা‌ড়ে দি‌য়ে দেয়। ফ‌লে কোম্পানীর লস হয় না ঠিকই পাব‌লি‌কের প‌কেট কাটা যায় ঠিকই। পাঠক‌দের কি বিষয়‌টি জানা আ‌ছে? থাক‌লে আপনা‌দের মতামত শেয়ার কর‌তে পা‌রেন। আর যারা খে‌লে তারা কি পা‌রেন না খেলার মাঠ আ‌লো‌কিত করার জন্য মিটারসহ এক‌টি সং‌যোগ নি‌তে?

মন্তব্য ৮ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (৮) মন্তব্য লিখুন

১| ০৫ ই মার্চ, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৫৬

প্রান্তর পাতা বলেছেন: =p~

০৭ ই মার্চ, ২০১৮ ভোর ৫:৪২

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: সব সময় আমরা সততার পরিচয় দিই না।

২| ০৫ ই মার্চ, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:০২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: তরুণদের বিনোদনের পর্যাপ্ত সরকারী ব্যবস্থা নেই, তাই এহেন অপরাধকে মানুষ ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখে।

০৭ ই মার্চ, ২০১৮ ভোর ৫:৪৩

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: ক্ষমার চোখে দেখে বাধ্য হয়ে। আর খেলা তো সব সময় তরুণরা যে খেলে তা তো নয়। অনেক চাকুরি জীবীরা তো খেলেন। তারা তো একই কায়দা অবলম্বন করেন।

৩| ০৫ ই মার্চ, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৩২

বারিধারা ২ বলেছেন: তরুণদের বিনোদনের জন্য সরকার কেন, কারোরই কোন ব্যবস্থা নেই। একারণে তারা নিজেদের বিনোদনের ব্যবস্থা নিজেরাই ইভটিজিং, ধর্ষণের মাধ্যমে বেছে নিয়েছে।

০৭ ই মার্চ, ২০১৮ ভোর ৫:৪৪

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: বিনোদনের উৎস খুঁজতে হবে। কারা কোথায় বিনোদন পাবে সেটা যাচাই করা দরকার।

৪| ০৬ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ৩:৫৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


চিটাগং এলাকায় ব্যাডমিন্টন বিলুপ্ত হয়ে গেছে

০৬ ই মার্চ, ২০১৮ সকাল ৯:৪২

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: ক্রীড়া থা কা দর কার। মানুষ যন্ত্র হয়ে গে লে সম স্যা।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.