নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

মুক্ত সকল চিন্তা করি, নিজের সাথে নিজেই লড়ি।

ফায়েজুর রহমান সৈকত

মুক্ত সকল চিন্তা করি, নিজের সাথে নিজেই লড়ি।

ফায়েজুর রহমান সৈকত › বিস্তারিত পোস্টঃ

মাঝরাতের অতিথি (অনুগল্প)

১৯ শে মার্চ, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:১১

এক শীতের রাতে কইথিকা এক বেশ্যা আইসা আমারে বলে, আপনের এইখানে আমারে ইকটু থাকবার জাগা দিবেন? খুব শীত লাগতাছে।
নাইটগার্ডের চাকরি নিবার সময় এইসব বেশ্যার ব্যাপারে আগেই সতর্ক করে দিছিল। তাই কোন পাত্তা না দিয়া ধমক মাইরা বেশ্যাটারে কইলাম, রঙ্গ করস আমার সাথে? যা বেশ্যা যা!
আমার কথা শুইনা বেশ্যাটা আর কিছু কইল না। চুপ কইরা সেইখানে কিছুক্ষণ দাঁড়াইয়া রইল। তারপরে একটা শুকনা হাসি দিয়া চইলা যাইতে লাগল। সে ঘুরার সময় আমি দেখি তার চোখেমুখে রাগ আর ঘিন্না। সেই ঘিন্নার ঢেউ যেন আমার দিকে বয়ে আসতেছে। যেন সেই ঢেউ আমারে তলায় নিব। যেন আমারে গিল্লা খাইব। কিন্তু সে আমারে ঘিন্না করব কেন? আবার নতুন চাকরি, কেউ দেখলে ত বিপদে পইড়া যামু। এইসব ভাবতে ভাবতে পেছন থিকা তারে ডাক দিয়া কইলাম, শুনুন আমিতো এইখানে নতুন কাজ নিছি। বেশি শীত করলে আপনে আমার এই জ্যাকেটটা পইরা নেন। চাকরির লাইগা কিনছিলাম। গরম আছে। আর কোন সমস্যা না থাকলে চলেন সারারাইত দুইজনে বইসা গল্প করি। গল্প করবেন?
এই কথা শুনে বেশ্যাটা হাসি দিয়া কইলো, আইচ্ছা। আমি ভাবছিলাম সে রাগ কইরা চইলা যাইব। এইবার তার চোখেমুখে আর ঘিন্না নাই। আমার টুলটাতে সে আইসা বসলো। আর আমি দুইজনের লাইগা গরম গরম দুইকাপ চা আর এক প্যাক বিস্কুট আনতে গেলাম।

মন্তব্য ২ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (২) মন্তব্য লিখুন

১| ১৯ শে মার্চ, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:২৮

সঞ্জীব ব্যানার্জী বলেছেন: ভালোবাসাই মানুষের ধর্ম। মেয়েটি যে বেশ্যা তা কথক জানলেন কি করে?

২০ শে মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৩:০০

ফায়েজুর রহমান সৈকত বলেছেন: কথক মেয়েটিরে জন্ম দিছে। এইটা কথকের বানানি গল্প।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.