নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

জীবনকে যারা উপভোগ করতে চান, আমি তাঁদের একজন। সহজ-সরল চিন্তা-ভাবনা করার চেষ্টা করি। আর, খুব ভালো আইডিয়া দিতে পারি।

সত্যপথিক শাইয়্যান

অন্যদের সেভাবেই দেখি, নিজেকে যেভাবে দেখতে চাই। যে বিষয়গুলো নিয়ে লেখার চেষ্টা করি- মোটিভেশনাল গল্প-কাহিনী-প্রবন্ধ, ছড়া এবং কবিতা

সত্যপথিক শাইয়্যান › বিস্তারিত পোস্টঃ

অসমাপ্ত গল্প-১ঃ \'রক্তাক্ত প্রান্তর\'

১৪ ই জুন, ২০১৮ রাত ১২:১৯


মাটিতে পড়ে আছে বাসিত। রক্তে চারপাশ ভরে গিয়েছে। এই কিছুক্ষণ আগে গুলি খেয়েছে সে। শত্রুর মেশিনগান তার দুটো পা-ই ঝাঁঝরা করে দিয়েছে। একটু উঠে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে বেঙ্গল প্লাটুনের সেকেন্ড লেফট্যানেন্ট বাসিত। পারলো না, তার পুরো দেহ মাটিতে আছড়ে পড়ে যায়।

আশে-পাশে আরেকবার তাকায় বাসিত। জানে, কেউ সাহায্য করতে এগিয়ে আসবে না। তার প্লাটুনের একমাত্র সে-ই বেঁচে আছে। চারদিকে সহযোদ্ধাদের ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা মৃতদেহগুলো'র দিকে তাকিয়ে বুকটা হা হা করে উঠে তরুণ অফিসারের। কোম্পানী কমান্ডার মেজর হায়দারের ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন দেহ তার পাশেই পড়ে আছে। এই একটু আগেই রেডিওতে সাহায্যের আবেদন জানিয়ে ব্যাক-আপ চেয়েছিলেন মেজর। ঠিক তখনই একটি মর্টারের শেল এসে পড়ে তার উপর। সঙ্গে সঙ্গে মারা যান কমান্ডার।

পাশের রেডিওটা হঠাৎ বেজে উঠে। এখনো ওটা কাজ করছে! অবাক হয় বাসিত। রিসিভার উঠানোর এক বিন্দু শক্তি নেই। রক্তে ভিজে প্রায় বন্ধ হয়ে আসা চোখ দুটি দিয়ে সে রেডিওর দিকে চেয়ে থাকে। শুনতে পায় কে যেন ওপাশ থেকে বলছে- "হোল্ড ইউর পজিশন! রেস্কিউ পার্টি এহেড। আই রিপিট, রেস্কিউ পার্টি এহেড।"

বাসিত জানে, এ এক বৃথা আশা। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের রনাঙ্গনের এই অংশে রেস্কিউ পার্টিকে স্থলপথে পৌঁছাতে তিন-চার দিন লেগে যাবে। সে পর্যন্ত টিকে থাকতে হবে ব্রিটিশ বাহিনী'র বেঙ্গল রেজিমেন্টের সেকেন্ড এডজুটেন্ড বাসিত আলীকে।

সে কি পারবে?


================================================================================
আমি প্রায়ই গল্প লেখায় হাত দেই। গল্পের বিভিন্ন প্লট মাথায় আসে। কিন্তু, দুয়েকটা বাদে বাকি কোনটাই শেষ করতে পারিনি। সেই রকম কয়েকটি গল্পের কিছু অংশ নিয়েই আমার এই সিরিজ। কেউ হয়তো পছন্দ করে নিজের মতো করে শেষ করবে, এই-ই একটু আশা।
================================================================================

ছবিসূত্রঃ Normandy Supply, MIck Stephenson, wikipedia, 16 April 2007, Click This Link

মন্তব্য ১৪ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (১৪) মন্তব্য লিখুন

১| ১৪ ই জুন, ২০১৮ রাত ১:০৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


এগুলো বুদবুদ, আছে, আবার নেই

১৪ ই জুন, ২০১৮ রাত ১:২২

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: বুদবুদগুলোকে ধরে রাখার ক্ষীণ চেষ্টা বলতে পারেন।

মন্তব্যে ধন্যবাদ বিস্তর।

২| ১৪ ই জুন, ২০১৮ রাত ১:১২

রসায়ন বলেছেন: সেকেন্ড লিউট সাহেব কি কাট অফ পার্টিতে ছিল ?

১৪ ই জুন, ২০১৮ রাত ১:২৪

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: এখনো এ নিয়ে চিন্তা করিনি। পরের প্যারাগুলোতে থাকতে পারে। :)

ধন্যবাদ নিরন্তর।

৩| ১৪ ই জুন, ২০১৮ রাত ৩:০৩

মোঃ জিদান খান (অয়ন) বলেছেন: গল্পের শেষ হয়েও হলো না।
ব্লগটি ঘুরে আসার নিমন্ত্রণ রইলো।

১৪ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:২৩

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: গল্পটি অসমাপ্ত। মন্তব্যে ধন্যবাদ।

আপনার ব্লগটি ঘুরে এসেছি। শুভ ব্লগিং।

৪| ১৪ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৭:০৫

সিগন্যাস বলেছেন: সুন্দর লেখেছেন শাইয়্যান ভাই।এখন শুধু বাকি অংশটা লেখে ফেলেন।ছোট গল্প হয়ে যাবে।

১৪ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:৩৩

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: বড় করতে সময়ের প্রয়োজন। সেইটা করে উঠতে পারছি না। তাই, ভাবনাগুলোকে এক্ত্র করে রেখে দিয়েছি এখানে।

ধন্যবাদ নিরন্তর।

৫| ১৪ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৯:৪৫

রাজীব নুর বলেছেন: আচ্ছা বলুনতো, আপনার সন্তান যদি কোনো ভুল করে তবে একজন বাবা হিসাবে আপনি তাকে কিভাবে শাসন করেন?

১৪ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:৩৫

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: আমার ছেলে হলে কান মলে লাল করে দিয়ে বলবো- ''ব্যাটা, বিড়ালের মতো হবি না। হইলে বাঘ। নাইলে মানুষই যথেষ্ট!' :)

৬| ১৪ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৯:৫৭

কাইকর বলেছেন: ভাল লাগলো

১৪ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:৪০

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: মন্তব্যে ধন্যবাদ।

৭| ১৪ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ২:১০

চঞ্চল হরিণী বলেছেন: শুরুটাই তো আগ্রহ জাগিয়ে দিল। একটু ভাবলেই মনে হয় পুরোটা লিখে ফেলতে পারবেন। ভালো লাগলো।

১৪ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:৪৭

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: ছোট গল্প আসলে এক বসায় লিখতে হয়। চেয়ার থেকে একবার উঠে গেলে আগ্রহ মরে যায়। আমার অবস্থাও অনেকটা এই রকম। এছাড়াও সময়ও পাচ্ছি না।

উৎসাহের জন্যে অশেষ ধন্যবাদ।

শুভেচ্ছা নিরন্তর।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.