নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সনেট কবি রচিত সনেট সংখ্যা এখন ৮৬৩(২২ সেপ্টেম্বর ’১৮ পর্যন্ত) যা সনেটের নতুন বিশ্ব রেকর্ড, পূর্ব রেকোর্ড ছিল ইটালিয়ান কবি জিয়েকমো দ্যা ল্যান্টিনির, তাঁর সনেট সংখ্যা ছিল ২৫০।

সনেট কবি

রেকর্ড ভেঙ্গে রেকর্ড গড়ার দারুণ সখ। কিন্তু এমন সখ পূরণ করা দারুণ কঠিন। অবশেষে সে কঠিন কাজটাই করে ফেল্লাম। সর্বাধীক সনেট রচনার সাতশত বছরের পূরনো রেকর্ড ভেঙ্গে নতুন রেকর্ড গড়লাম। এখন বিশ্বের সর্বাধীক সনেট রচয়িতা সনেট কবি, ফরিদ আহমদ চৌধুরী।

সনেট কবি › বিস্তারিত পোস্টঃ

নববর্ষ ভাবনা সস-১

১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ সকাল ৮:০৪



নববর্ষ শুভদিনে নব উদ্যমের
সাথে কর উদ্যোগের নব আয়োজন
নবতর ভাবনার আছে প্রয়োজন
জ্বলে যেন নবতর আশার প্রদীপ।
অদম্য এখানে হোক স্রোত উত্তমের
অধম হারিয়ে যাক খুঁজে নিরজন
জনারণ্যে জনে জনে প্রাপ্তির ওজন
বাড়িয়ে সমৃদ্ধ কর এ বঙ্গ ব-দ্বীপ।

আমরা উদীয়মান প্রত্যয়ে উজ্জ্বল
কর্মের প্রেরণা নিয়ে সম্মুখে চলব
সকল খাটাব কাজে যা আছে সম্বল
পারতে হবেই হবে আমরা বলব।
সবাই এগিয়ে চল দীপ্ত প্রেরণায়
ঐক্যতানে কাজ কর আল্লাহ সহায়।


ছবিঃ গুগল

# নববর্ষ সংক্রান্ত প্রথম সনেট

মন্তব্য ৩৪ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (৩৪) মন্তব্য লিখুন

১| ১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ সকাল ৮:৫৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


নববর্ষের শুভেচ্ছা।
অনেক উৎসাহের কথা বলছে সনেট।
আপনার সুস্বাস্হ্য কামনা করছি।

১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ সকাল ৯:১৪

সনেট কবি বলেছেন: প্রথম মন্তব্যের জন্য আপনর প্রতি অনেক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। ট্রাম্পকে দেখলাম নববর্ষের শুভেচ্ছা জানাতে।

২| ১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ সকাল ৯:০৮

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: নুতন বছরের শুভেচ্ছা নিয়েন।সুন্দর কবিতা।অনেক প্রেরণা পেলাম।

ভাল থাকুন নিরন্তর।

১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ সকাল ৯:১৫

সনেট কবি বলেছেন: মন্তব্যের জন্য আপনাকে অনেক শুভেচ্ছা।

৩| ১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ সকাল ৯:২৮

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: শুভেচ্ছা নববর্ষের! সকলেই উজ্জীবিত হোক নববর্ষের ভাবনায়!

১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ সকাল ৯:৩৪

সনেট কবি বলেছেন: আমাদের পড়ে পড়ে ঘুমানোর সময় নেই। ছোট্ট দেশ। অধিক জনসংখ্যা। প্রতিবেশিরা উপহার হিসেবে আরো জন সংখ্যা পাঠাচ্ছে। কাজেই পুরোদেশ কর্মশালায় পরিণত করতে হবে। তবে যদি দেশটাকে টেনে একটু উপরে তোলা যায়।

৪| ১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ সকাল ১০:৫৬

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:


সুস্থ ধারার যে কোন সাংস্কৃতিক চর্চাকে আমাদের উৎসাহিত করা প্রয়োজন। এটি বিদেশি বা স্বদেশী যাই হোক না কেন। আমরা যে নীতি ও আদর্শ বিশ্বাস করি তা আমাদের নিজস্ব ব্যাপার, এতে সমাজের কিছু যায় আসে না। সমস্যা দেখা দেয় তখনই যখন আমরা নিজের ইচ্ছাকে জোর করে সমাজে প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করি। এটা অন্যায়। এতে সমাজে বিভাজন দেখা দেয়। হিংসা-বিদ্বেষ বেড়ে যায় ফলে সমাজে শান্তি বিনষ্ট হয়। একুশ শতকের বিশ্বায়নের এ যুগে জোর করে নিজের পছন্দ-অপছন্দ অন্যের উপর চাপিয়ে দেওয়া যায় না। মানুষ তা শুনতে বাধ্য নয়।

কালচার/সাংস্কৃতিক চর্চাটা আসে মানুষের ভালবাসা ও দীর্ঘ দিন থেকে সমাজে প্রচলিত অভ্যাস থেকে। এজন্য জোর করে কোন কালচার/সংস্কৃতি চাপিয়ে দেওয়া যায় না, আবার জোর করে মানুষের নিজস্ব কালচার/সংস্কৃতি থেকে বের করে আনা যায় না। সুস্থ সাংস্কৃতিক চর্চা ও বিনোদন মানুষের বুদ্ধিভিক্তিক জ্ঞানকে বিকশিত করে, পারিবারিক ও সামাজিক সম্পর্ক দৃঢ় করে। সমাজকে পরিশুদ্ধ করে। পৃথিবীর উন্নত ও সভ্য দেশগুলো এভাবেই আজ এগিয়ে যাচ্ছে আরো উন্নতি ও সমৃদ্ধির পথে। তারা নিজেদের মতামত কারো উপর চাপিয়ে দেয় না; বরং অন্যের পছন্দ অপছন্দকে সম্মান দেয়, সহযোগিতা করে। এতে সমাজে পারস্পরিক বিশ্বাস ও আস্থা অটুট থাকে।

.............শুভ নববর্ষ।

১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ সকাল ১১:১৪

সনেট কবি বলেছেন: খুব সুন্দর কথা বলেছেন। চাপিয়ে দেওয়ার মানসিকতা অসুস্থ্য মনের পরিচায়ক। বরং অপরের পছন্দ অপছন্দকে সম্মান জানানো সুস্থ্য মানসিকতার পরিচায়ক। মানুষ হাজার চেষ্টা করেও সব মানুষকে নিজ মতে আনতে পারবে না। যদিও নিজ মতের লোক সংখ্যা বৃদ্ধি পেলে সবার ভালো লাগে তথাপি সে ভালো লাগা বৃদ্ধি করার জন্য কারো উপর জোর করা ঠিক নয়।
অপরের প্রতি যদি ঘৃণা প্রকাশ করা হলে অপরের কাছ থেকে ঘৃণা ছাড়া কিছু আশা করা যায় না। নিজে শান্তি পেতে চাইলে অপরের শান্তি পাওয়াটাকেও গুরুত্ব দিতে হবে। আর কেউ যদি অপরের শান্তিতে বিঘ্ন ঘটাতে চায় তবে তার শান্তিতে বিঘ্ন ঘটতেই পারে।
যে অন্য মতের সে তার মত করে আনন্দ পেতে চাইলে তাতে আমার আপত্তির কারণ কি? আমি কেন তাতে নাক গলাতে যাই। অবশেষে বে-ঘোরে আমার নাকটাই যদি যায় তখন তবে কি উপায় হবে? আমি যদি আমার মত করে বাঁচতে চাই তকে অপরকে তার মত করে বাঁচতে দিতে হবে। নতুবা আমি আমার মত করে বাঁচতে পারব না।

৫| ১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ দুপুর ১২:৪৩

সম্রাট ইজ বেস্ট বলেছেন: কবিতা সুন্দর হয়েছে। প্লাস।

১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ দুপুর ১২:৫৮

সনেট কবি বলেছেন: অনেক শুভেচ্ছা জানবেন মহান সম্রাট। আপনার রাজ্যে আমরা কবিতা লিখি। যদি সভাসদ করে নিতেন তবু কিছু মাইনে মিলতো। অভাবে অভাবেতো এক্কবারে নাকাল হয়ে গেলাম।

৬| ১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ দুপুর ২:০০

মনিরুল ইসলাম বাবু বলেছেন: মন্দ হয়নি । চালিয়ে যান ।

১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ দুপুর ২:০৭

সনেট কবি বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ।

৭| ১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ বিকাল ৩:০০

তারেক ফাহিম বলেছেন: ১৪২৫ বাংলা (নতুন) বছরের শুভেচ্ছা শ্রদ্ধেয়।

১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ বিকাল ৩:১৭

সনেট কবি বলেছেন: প্রিয় তারেক ফাহিম ভাই আপনার জন্যও বাংলা নতুন বছরের শুভেচ্ছা।

৮| ১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ বিকাল ৩:০৩

নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন বলেছেন: খুব সুন্দর কবিতা, সুন্দর আহবান

চার নং মন্তব্যে লাইক দিয়ে গেলাম, কথাগুলো ভালো লাগলো।

শুভ নববর্ষ
বৈশাখী শুভেচ্ছা রইল।

১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ বিকাল ৩:২০

সনেট কবি বলেছেন: প্রিয় কবিকে এখন কালে ভদ্রে পাওয়া যায়। তবু ভালো যে বাংলা বছরের প্রথম দিন প্রিয় কবিকে পাওয়া গেল। মন্তব্যের জন্য অনেক শুভেচ্ছা।

৯| ১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ বিকাল ৪:৩৪

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: সনেট লিখার কবি এখন নাই, আপনার লেখা পড়ে ভালো লাগলো । ধন্যবাদ ।

১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ বিকাল ৫:১৬

সনেট কবি বলেছেন: আমার সনেট সনেটের কোন শর্ত ভঙ্গ করেছে কি? যদি না করে তবে এখন সনেট লেখার কবি থাকবে না কেন?

১০| ১৪ ই এপ্রিল, ২০১৮ রাত ১১:৫৪

অাব্দুল্লাহ অাল কাফি বলেছেন:
আপনার প্রত্যাশাগুলি প্রাপ্তিতে পূর্ণ হোক।
নববর্ষের শুভেচ্ছা ও শুভ কামনা।

১৫ ই এপ্রিল, ২০১৮ সকাল ৯:৪১

সনেট কবি বলেছেন: আপনার জন্যও অনেক শুভেচ্ছা। আশাকরি সব শর্ত পূরণ করে সনেট লিখতে আপনি সক্ষম হবেন।

১১| ১৫ ই এপ্রিল, ২০১৮ রাত ১২:৪৫

মোঃ মঈনুদ্দিন বলেছেন: ভালো লাগলো আপনার অনিন্দ্যসুন্দর কবিতা খানি। আপনাকেও নববর্ষের শুভেচ্ছা।

১৫ ই এপ্রিল, ২০১৮ সকাল ৯:৪১

সনেট কবি বলেছেন: আপনার জন্যও অনেক শুভেচ্ছা মঈনুদ্দিন ভাই।

১২| ১৫ ই এপ্রিল, ২০১৮ ভোর ৫:৫৯

স্বামী বিশুদ্ধানন্দ বলেছেন: সুন্দর কবিতা, বৈশাখী শুভেচ্ছা রইল।

১৫ ই এপ্রিল, ২০১৮ সকাল ৯:৪২

সনেট কবি বলেছেন: আপনার জন্যও রইলো বৈশাখী শুভেচ্ছা।

১৩| ১৫ ই এপ্রিল, ২০১৮ সকাল ৮:৪৩

নতুন নকিব বলেছেন:



কবিতা সুন্দর, সুপাঠ্য এবং আশা জাগানিয়া। মোবারকবাদ।

আচ্ছা, দশম এবং বারতম লাইনের শব্দ দু'টি 'বলিব' এবং 'চলিব' হলে কেমন হত?

১৫ ই এপ্রিল, ২০১৮ সকাল ৯:৩৯

সনেট কবি বলেছেন: তাহলে সাধু ও চলিত মিশ্রণ হতো প্রিয় কবি।

১৪| ১৫ ই এপ্রিল, ২০১৮ দুপুর ১২:০৬

নতুন নকিব বলেছেন:



ধন্যবাদ, প্রিয় কবি।

প্রথম লাইনের শব্দটি 'উদ্দমের' না হয়ে 'উদ্যমের' হলে ভাল হত কি?
দ্বিতীয় লাইনের 'উদ্দৌগের' শব্দটি কি 'উদ্যোগের' হওয়া উচিত ছিল?
নবম লাইনে 'উদিয়মান' না দিয়ে কি 'উদীয়মান' দেয়া সঠিক?
চৌদ্দতম, মানে শেষের লাইনে 'কাজ' এবং 'কর' দু'টি পৃথক শব্দ বোধ হয়। সম্ভবত: স্পেস প্রয়োজন।

আপনার স্বাস্থ্য এখন কেমন যাচ্ছে?

১৫ ই এপ্রিল, ২০১৮ দুপুর ১২:১২

সনেট কবি বলেছেন: প্রিয় কবি আপনার সাজেশন মত ঠিক করে দিলাম- ধন্যবাদ।

১৫| ১৫ ই এপ্রিল, ২০১৮ দুপুর ১২:১৭

নতুন নকিব বলেছেন:



স্বাস্থ্য কেমন? চাকরিতে যোগদান করেছেন? সমস্যাদি কেটেছে কিছুটা? সার্বিক অবস্থা জানতে পারলে ভাল লাগতো।

১৫ ই এপ্রিল, ২০১৮ দুপুর ১২:৩২

সনেট কবি বলেছেন: স্বাস্থ্য আল্লাহর রহমতে মোটামুটি আছে। চাকুরিতে এখনো যোগদান করিনি। কারণ সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ মিডপোর্ট হাসপাতাল এনজিওগ্রামের পর যে বেড রেষ্ট দিয়েছে তা’শেষ হচ্ছে ১৯ এপ্রিল ২০ এপ্রিল মেডিকেল ফিটনেসের জন্য ডাক্তারের কাছে যাব। ২২ তারিখে চাকুরিতে যোগদানের কথা ভাবছি।
যেহেতু আল্লাহ সর্ব শক্তিমান সেহেতু মুসলমানদের মতভেদ দূর করে তাদেরকে এক করা সম্ভব বলে আমি মনে করি। এ জন্য আমি একটা গবেষণা কেন্দ্র খুলতে চাই। আমার ঢাকায় দুই কাঠা জায়গা আছে প্রয়োজনে সেটা একাজে খাটানো যেতে পারে। গবেষণা কেন্দ্রে কাজ করার মতো মেধা আপনারও রয়েছে। কিন্তু ভেবে কুল পাচ্ছিনা অর্থায়ন কি করে হবে? দোয়া করবেন আল্লাহ যেন কোন একটা পথ করে দেন। হাদিসে আছে দোয়া তকদীর বদলাতে পারে। অনেক স্কলার একত্রে মিলে গবেষণা করলে ভুল হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকবে। আর ভুর না হলেই গ্রহণযোগ্যতা তৈরী হবে।আমি সনে করি কাজ শুরু করে আমি মরে গেলেও অন্যদের অব্যাহত কাজে হয়ত ফলাফল বেরিয়ে আসবে।

১৬| ১৫ ই এপ্রিল, ২০১৮ বিকাল ৩:৩১

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: আমি হয়তো লিখতে ভুল লিখেছি বা বোঝাতে পারিনি, আপনার লেখা সনেট এখানে কোনো দ্বিমত নেই, আপনার লেখা ভালো লেগেছে ধন্যবাদ ।।
তবে এখন সনেট লিখার কবি নেই বলা যায় পত্রিকায় যা দেখি তা সনেট না ৮+ ৬ লাইন = ১৪ লা্ইন ই কি সনেট ? দৈনিক মোমের আলো পত্রিকায় - তাদের লেখাই ছাপা হয় যারা কোটাভুক্ত (এখানেও কোটা আছে) তাই বলেছি সনেট এখন হয় না, যা হচ্ছে প্রবন্ধ টাইপ কিছু একটা বোঝা মুশকিল তাতেও ফ্যাঁকরা আছে কবিতায় অশালীন নোংরামী উঠে আসে কবির মনো কামনা লালসা *** বিজ্ঞাপণের জন্য দৈনিক মোমের আলো পত্রিকা অফিসে রাখা হয় - নয়তো এই পত্রিকা ডাষ্টবিনে ফেলা ভালো ।

১৫ ই এপ্রিল, ২০১৮ বিকাল ৫:২৬

সনেট কবি বলেছেন: আপনার মনভাব বুঝতে পারছি। ৮+৬=১৪ এটাও কিন্তু কম নয়। কারণ আপনার মনভাবকে ১৪ পর্যন্ত টেনে নিতে হবে এর আগে শেষ করলে হবে না। আবার আপনার মনভাব বেশী থাকলেও আপনাকে ১৪ তেই শেষ করতে হবে; এর বাইরে আপনি যেতে পারবেন না। আবার উপস্থাপন হতে হবে ৮ লাইনে, উপসংহার হতে হবে ৬ লাইনে। অন্তমিল করলে অন্তমিল খুঁজতে হবে। প্রত্যেক পদও ৮+৬=১৪ হতে হবে। অন্তমিল না থাকলে আপনাকে আবহকে ধরে আনতে হবে। এক কথায় শর্তের শেষ নেই। ১৪ লাইনের কবিতা লিখেই সেটাকে সনেট বলা যাবে না যদি না তাতে এর শর্তগুলো পূরণ না থাকে।

১৭| ১৫ ই এপ্রিল, ২০১৮ বিকাল ৩:৩৮

নতুন নকিব বলেছেন:



আপনার পরিকল্পনা মা- শাআল্লাহ অনেক ভাল। জাতির কল্যানে এ ধরনের মহত্তর চিন্তা ক'জনই বা করে থাকেন? ক'জনেরই বা জাতীয় কল্যান ভাবনার এমন আকাশ প্রমান দরাজ দিল অন্তর রয়েছে? আল্লাহ পাকের শুকরিয়া, তবু আপনি উম্মতের এ দুর্দিনে এমন একটি বিষয় নিয়ে অন্তত: ভাবছেন। আপনার প্রতি অভিনন্দন। আপনার উদ্যোগ মোবারক হোক। সফলতা এবং স্বার্থকতা লাভ করুক।

তবে, জাতীয় ঐক্য সংহতিকে সুসংহত করতে বৃহত কোনো পরিকল্পনা বাস্তবায়নে যেতে প্রয়োজনীয় ফান্ডিংটা অন্যতম ফ্যাক্টর হয়ে দাড়ায়। তাছাড়া আপনি যখনই এরকম সুন্দর কোনো উদ্যোগ নিয়ে সামনে এগুতে সচেষ্ট হবেন, ধরে নিতে হবে, পদে পদে আপনাকে বিভিন্ন বাধা এসে আটকাতে চেষ্টা করবে। এগুলো দু'পায়ে দলেই সামনে অগ্রসর হতে হবে।

আপাতত: আপনি ফান্ডিংটা নিয়ে একটু ভাবুন। স্বচ্ছল, ধার্মিকমনা শুভানূধ্যায়ী, শুভাকাঙ্খীদের এ বিষয়ে দাওয়াত দিতে থাকুন। আশা করি, আল্লাহ পাকের ইচ্ছায় কোনো একটা ব্যবস্থা হয়ে যাবে।

ঠিকই বলেছেন হয়তো, কাজ শুরু করে আপনি মরে গেলে ফলাফল তো বেরিয়ে আসবেই; ইনশা-আল্লাহ আপনিও অমর হয়ে থেকে যাবেন এ জাতির প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে। সাদাক্কায়ে জারিয়া অব্যহত থাকবে আশা করা যায়।

১৫ ই এপ্রিল, ২০১৮ বিকাল ৫:৩৭

সনেট কবি বলেছেন: প্রিয় কবি ফান্ডের কথা আমিও ভাবছি। মহানবি (সাঃ) হজরত ওসমান (রাঃ) ও আব্দুর রহমান ইবনে আওফকে (রাঃ) পেয়েছিলেন বড় আকারের ফান্ড দাতা। আপনি একবার ভেবে দেখুন ইসলামে আগে যা গবেষণা হয়েছে তা’সব ছিল একক গবেষণা। শুধুমাত্র হানাফিরা ছিল একটা দল। সেটা এ জন্য জনসমর্থনও বেশী পেয়েছে। আর সব একক। এখন সব একককে নিয়ে আরেকটি দলবদ্ধ কার্যক্রম শুরু করা দরকার। আমার মনে হয় মতভেদ কমানো বা দূর করার পথ এতে বেরিয়ে আসবে। জানি না আল্লাহর ইচ্ছা কি রকম। তবে আল্লাহ আমার সাথে স্বপ্নে কথা বলেছেন। স্বপ্নে মহানবির (সাঃ) সেবা করেছি। এ জন্য সাহস কিছুটা বেড়েছে। কিন্তু টাকার ব্যাপারে কোন কুল কিনারা করতে পারছিনা। যাক আপনি শুধু দোয়া করতে থাকুন। প্রতিষ্ঠান গড়ার পর্যায়ে গেলে ইনশা আল্লাহ আপনাকে ডাকব। এখন আল্লাহ কোন একটা রাস্তা দেখিয়ে দিবেন সেই প্রত্যাশায় আছি।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.