নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমি লেখক নই, মাঝে নিজের মনের ভাবনাগুলো লিখতে ভাল লাগে। যা মনে আসে তাই লিখি,নিজের ভাললাগার জন্য লিখি। বর্তমানের এই ভাবনাগুলোর সাথে ভবিষ্যতের আমাকে মেলানোর জন্যই এই টুকটাক লেখালেখি।

তারেক_মাহমুদ

পৃথিবীর সব ভাল টিকে থাকুক শেষ দিন পর্যন্ত

তারেক_মাহমুদ › বিস্তারিত পোস্টঃ

সেকাল একাল

৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১২:৩১


(কিছুদিন আগে সেইদিন এইদিন শিরোনামে একটি পোষ্ট দিয়েছিলাম এটা তার পার্ট২ বলতে পারেন)

আমাদের বয়স্ক জনেরা অনেকেই বলেন কি সময়টাই না তখন ছিল : পুকুর ভরা মাছ ছিল, গোলা ভরা ধান ছিল, গোয়ালে গরু ছিল,খাঁচা ভরা মুরগী ছিল আরো কত কি? মোটকথা তখন ছিল স্বর্গ সুখ আর এখন নরক যন্ত্রণা। বিষয়টা কি আসলে এমন? আমাদের বাপ দাদারা তখন কি খুব সুখে ছিল,নাকি এখন আমরা সুখে আছি? আজ সেকাল আর একাল এর তুলনা করি :

সেকাল :

আমাদের বাপ দাদাদের সময় কোন কিছুতেই  ভেজাল ছিল না। উনারা নিজের পুকুর থেকে টাটকা মাছ খেতেন। নিজের জমির ধান থেকে চাল বানিয়ে খেতেন, তখন শুধুমাত্র গরিব লোকেরাই বাজার থেকে চাল কিনে খেতো। তখন ধনী গরিবের বিচার হতো, ধানের গোলা,পুকুরের মাছ,গোয়ালের গরু দিয়ে। যার ধানের গোলা যতবড় সেই তত ধনী । বিষয়টা এমনই ছিল। বাড়ির সবাই হাড়ভাংগা খাটুনি খাটতো। মহিলাদের পরিশ্রম সবচেয়ে বেশি ছিল। তখন এক একজন মহিলা ৭-২০টা পর্যন্ত বাচ্চার মা হতো। যার বাচ্চাকাচ্চা যত বেশি তার লাঠি ততই শক্ত, তাই পুরুষেরাও বাচ্চা জন্মদানে বেশি মনোযোগী ছিল। মানুষ তখন প্রকৃতিরর মাঝেই প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতো, (বন জংগল, খোলা যায়গায়)।

তখনকার মানুষের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম ছিল চিঠি। যেকোনো জরুরী প্রয়োজনে কাউকে চিঠি লিখলে সেই চিঠি তার কাছে পৌঁছাতে এক দেড় মাস লেগে যেতো। আবার কোন কোনটা ডাক পিয়নের বাড়িই থেকে যেতো প্রাপকের কাছে পৌছাতো না। জরুরি প্রয়োজনে টেলিগ্রাম করা হতো(কারো মৃত্যুর খবর জানাতে), টেলিগ্রাম পাওয়া মানেই কারো মৃত্যুর খবর পাওয়া,টেলিগ্রাম এর ভাষা এমন হতো : 'mother serious please come' 

শহরেও তখন খুব কম মানুষের ই ল্যান্ডফোন ছিল। যাদের ল্যান্ডফোন ছিল তারাই ছিল অভিজাত ফ্যামিলি। অনেকেরই ল্যান্ডফোন এ কথা বলার মানুষ ছিল না তবুও ফোন রাখতো আভিজাত্য প্রকাশের জন্য। ঢাকা থেকে নড়াইল, যশোর, রাজশাহী, চট্টগ্রাম যেতে তিন চার দিন লেগে যেতো। শহুরে ছেলেমেয়েরা শিক্ষার আলো দেখলেও, গ্রামের মুসলির পরিবারের ছেলে মেয়েরা শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত থাকতো। কিছু কিছু পরিবারের  ছেলেরা মক্তবে মাদ্রাসায় গেলেও মেয়েরা ১০০% ই থাকতো শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত। তখন ফসলের মৌসুম শেষ হয়ে গেলে মানুষের হাতে কাজ থাকতো না, তাই অনেকেই অনাহারে অর্ধাহারে দিন কাটাতো।


একাল :

একালে হয়তো উপরের অনেক সমস্যাই নেই। মোবাইল ইন্টারনেট মানুষের জীবন যাত্রাকে সহজ করে দিয়েছে। কিন্তু আধুনিকতার সাথে সাথে যোগ হয়েছে নতুন নতুন সমস্যা। ট্রাফিকজ্যাম, পরিবেশ দুষন,খাবারে ভেজাল ইত্যাদি আমাদের প্রধান সমস্যা।
দারিদ্র বেকারত্ব এসব সমস্যা এখনো আছে তবে আগের দিনের সাথে তুলনা করলে অনেকটাই কম। গ্রামের সেই মাটির রাস্তা আর নেই,এখন সব ইট পাথরের রাস্তা। গ্রামে এখন কাচা বাড়ীর পরিবর্তে উঠছে পাকা বাড়ি। ফসল উৎপাদনে এখন ব্যবহার হচ্ছে মাত্রাতিরিক্ত রাসায়নিক সার। গ্রামের মানুষ এখন আর আগের মত সহজ সরল জীবনযাপন করতে চায় না। তারাও দ্রুত নিজেদের উন্নতি চায়। গ্রামের মানুষ এখন শহরমুখী, সবাই তাদের ছেলে মেয়েকে শহরে পাঠাতে ব্যস্ত। মানুষের অতিরিক্ত শহরমুখীতায় শহরে চাপ বাড়ছে। তাই গ্রাম ও শহরের ব্যবধান কমানো জরুরী।

মন্তব্য ৬৪ টি রেটিং +৬/-০

মন্তব্য (৬৪) মন্তব্য লিখুন

১| ৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১২:৪০

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: Excellent writing

৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১২:৪২

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: অনেক শুকরিয়া, সাজ্জাদ ভাই, অনেক শুভেচ্ছা ও ভালবাসা।

২| ৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১২:৪৪

সৈয়দ ইসলাম বলেছেন: লেখক বলেছেন,
মানুষের অতিরিক্ত শহরমুখীতায় শহরের চাপ বাড়ছে। তাই গ্রাম ও শহরের ব্যবধান কমানো জরুরী

হ্যা, উন্নয়নের মাধ্যমে গ্রামের মানুষের জীবনযাপন সহজতর করে দেয়া উচিত। এবং গ্রামের কৃষিকাজে আধুনিকায়নের ব্যাপক প্রয়োগ প্রয়োজন।

ধন্যবাদ তারেক ভাই।

৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১২:৪৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: আস্তে আস্তে আমাদের গ্রামের উন্নায়ন হচ্ছে তবে গ্রামে কর্মসংস্থান স্মৃষ্টি করা জরুরি তবেই শহরমুখী মানুষের স্রোত কমানো যাবে।অনেক ধন্যবাদ এবং ভালবাসা ইসলাম ভাই।

৩| ৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১২:৪৭

কুঁড়ের_বাদশা বলেছেন: দেশে মোবাইল এসেছে চিঠি বন্ধ হৈয়াছে ভালবাসার কথা এখন আসে বাতাসে।
আমার অভাবের সংসার বন্ধুর সঙ্গে প্রেম করিলে মোবাইলের দরকার। বন্ধে বলছে বেইল নাই আমার...

৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১২:৫০

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: হা হা হা ভাল বলেছেন বাদশা ভাই অনেক শুভেচ্ছা আপনার জন্য।

৪| ৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১২:৪৭

বিজন রয় বলেছেন: আপনি মনে লয় সাবে আমলের নোক!!!

৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১২:৫২

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: আমি গ্রাম এবং শহরে বড় হয়েছ তাই অনেক কিছুর পরিরর্তন চোখের সামনেইতো দেখালাম। আমি চিঠি এবং মোবাইল জামানার নোক দাদা। ধন্যবাদ এবং শুভেচ্ছা।

৫| ৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১২:৪৮

শামচুল হক বলেছেন: চমৎকার বক্তব্য

৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১২:৫৩

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: অনেক অনেক শুকরিয়া শামচুল ভাই। নিরন্তর শুভেচ্ছা।

৬| ৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১২:৪৯

কাওসার চৌধুরী বলেছেন: তারেক ভাই, চমৎকার একটি বিষয় নিয়ে লেখেছেন। সেকালে এমন কিছু ছিল যা একালে নেই। সময়ে পরিক্রমায় তা হারিয়ে গেছে। আবার একালে এমন কিছু আছে যা সেকালে ছিল না বা কল্পনা করা যেত না।

এটা পৃথিবীর পরিক্রমায় প্রতিনিয়ত ঘটতে থাকবে। মানুষষের গতি যত বাড়বে, সমাজে হিপোক্রেসি ও কৃত্রিমতা তত বাড়বে। এজন্য শহর ও গ্রামের মানুষের মাঝে অনেক পার্থক্য।

আর গতির সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ে চাহিদা ও আধুনিকতা। আগে গতিও ছিল না, তাই চাহিদাও ছিল না।

৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১:০৪

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: শুভ দুপুর কওসার ভাই।

অধুনিকতা আমাদেরকে অনেক কিছু দিয়েছে আবার কিছু নির্মল আনন্দ কেড়ে নিয়েছে। আমাদের গ্রামের উন্নয়নের পাশাপাশি কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা জরুরি তবে শহরমুখী মানুষের স্রোত থামানো যাবে। বরাবরের মতই সুন্দর মন্তব্যের জন্য অনেক ভালবাসা।

৭| ৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১:০৮

আকতার আর হোসাইন বলেছেন: তথ্য প্রযুক্তির উন্নয়নে যুগের আধুনিকায়নে পৃথিবী হয়েছে সহজ হতে সহজতর, বদলেছে জীবন ও জিবনের ধরণ।

অলিখিতভাবে বাড়ছে শ্রেণী বৈষম্য, সেকালে ভিখারি ভিখ মাগতে গেলেও তাকে ঐ প্লেটেই খাবার দেয়া হতো যে প্লেটে মানুষ নিজেরা খেতো।....

আহা মাঝে মাঝে খুব ইচ্ছা হয় টাইম মেশিনে চড়ে সেকালে ফিরে যায়....

৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ২:২৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: সেইসময়ে ফিরে যাওয়া সম্ভব নয়, প্রযুক্তি গ্রাম ও শহরের ব্যবধান কমিয়ে দিয়েছে, তবে চিঠি লেখার দিনগুলো ভাবতে ভাললাগে। ধন্যবাদ ভাই আকতার হোসেন।

৮| ৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১:১৬

জোকস বলেছেন:

৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ২:২৯

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: সত্যি এটা সেকালের প্রতিক, পাঠ লাইক, এবং সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ ভাই জোকস।

৯| ৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১:২০

শাহরিয়ার কবীর বলেছেন: বিজ্ঞান মানুষের জীবন যাত্রা সহজ করে দিচ্ছে !!


আগে অনেক আবেগ দিতে চিঠি লেখা হতো ; এখন মোবাইলে মেসেজ লেখা হয়.. :P


ভালো এক বিষয় তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন।।

৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ২:৩৩

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই শাহরিয়ার কবীর, মোবাইল আমাদের জীবন যাত্রাকে সহজ করে দিয়েছে, তবে চিঠি পাওয়ার একটা অন্যরকম আনন্দ ছিল। ধন্যবাদ এবং ভালবাসা।

১০| ৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১:২২

ব্লগার_প্রান্ত বলেছেন: সামনের প্রজন্ম আমাদের নিয়ে গবেষনা করবে। পৃথিবীটা কয়েক বছরে বেশ বদলে গেছে।

৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ২:৩৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: সামনের সময়গুলো আরো অনেক বেশি আধুনিক হবে এটাই স্বাভাবিক, একদিন পৃথিবী কোথায় গিয়ে পৌঁছাবে স্মৃষ্টি কর্তাই জানেন। মন্তব্য জন্য ধন্যবাদ এবং ভালোলাগা রইলো প্রান্ত।

১১| ৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ২:৩২

লাবণ্য ২ বলেছেন: গুরুত্বপূর্ণ একটি পোষ্ট।ভেজাল খাদ্য নিয়েই আমার বেশী টেনশন।

৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ২:৩৯

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ভাবতে অবাক লাগে মানুষ কিভাবে খাবারে বিষ মেশায়? অতিলোভ মানুষকে পশুর স্তরে নামিয়ে দিয়েছে। সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ লাবন্য আপু।

১২| ৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ২:৩৬

লায়নহার্ট বলেছেন: স্ফিংসের প্রশ্ন

৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ২:৪৩

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: একটু বুঝিয়ে বললেন, আপনার মন্তব্যটি বুঝতে পারছি না। পাঠ ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ ভাই লায়নহার্ট।

১৩| ৩০ শে মে, ২০১৮ দুপুর ২:৫৬

নিয়াজ সুমন বলেছেন: সুন্দর উপস্থাপনা.

৩০ শে মে, ২০১৮ বিকাল ৩:০২

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: পাঠ ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ নিয়াজ ভাই।

১৪| ৩০ শে মে, ২০১৮ বিকাল ৪:৩০

রাজীব নুর বলেছেন: আপনার কাছে কোন কাল ভালো লাগে? সেকাল?

৩০ শে মে, ২০১৮ বিকাল ৪:৫০

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: সেকালে সেকালই ভাল ছিল কিন্তু বর্তমানে সেকালে স্মৃতি রোমন্থন করে কিছু সুখ পাওয়া যাবে ঠিকই তবে সেকেলে চিন্তাধারা এখন অচল। আপনার কি মনে হয় রাজীব ভাই? সেই সহজসরল জীবনই ভাল ছিল নাকি এই যান্ত্রিক যুগ?

১৫| ৩০ শে মে, ২০১৮ বিকাল ৪:৪৩

মোঃ ইকবাল ২৭ বলেছেন: দেশ যতই আধুনিক হচ্ছে দেশের মানুষ গুলো ততই হারামি, হিংস্র, স্বার্থপর হচ্ছে।সেকালে কম খেলে ও যা খেয়েছি তা পিউর আর একালে খাদ্যেতো আছেই মানুষের কথাতেই ফরমালিনের গন্ধ পাওয়া যায়।

৩০ শে মে, ২০১৮ বিকাল ৪:৫৫

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: তখনকার মানুষ খাবারে ফার্মালিন নামক বিষ মেশানোর কথা স্বপ্নেও ভাবেনি, সময়ের সাথে সাথে মানুষ নিষ্ঠুর এবং স্বার্থপর হয়ে যাচ্ছে।সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ ইকবাল ভাই।

১৬| ৩০ শে মে, ২০১৮ বিকাল ৫:১৫

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: সেকাল ও একালের সুবিধা অসুবিধা দুটোই ছিল ও আছে। কোন কাল ভালো এই প্রশ্নের যৌক্তিকতা নেই।

৩০ শে মে, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:১৩

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: সময়ের সাথে সাথে মানুষের চাওয়া পাওয়া চিন্তা চেতনার পরিবর্তন হয়, আজ যা সবচেয়ে আধুনিক কালই হয়তো তা অচল,তাই কোন সেকাল ভাল নাকি একাল এ বিতর্কে না যাওয়াই ভাল। অনেক ধন্যবাদ প্রিয় হেনা ভাই।

১৭| ৩০ শে মে, ২০১৮ বিকাল ৫:৩৩

কাইকর বলেছেন: ভাল লিখেছেন

৩০ শে মে, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:১৫

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: পড়ে বললে নাকি না পড়েই? ধন্যবাদ ছোটভাই কাইকর।

১৮| ৩০ শে মে, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:১৫

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: গ্রামে কর্মসংস্থান থাকলে কেউ শহরমুখী হত না। আর এখন কে কার চেয়ে বেশী কিছু করবে এই প্রতিযোগীতায় গ্রামের লোকেরাও নিকটবর্তী জেলা শহরে চলে যাচ্ছে। যদিও এখন গ্রাম আর শহরে তেমন বড় পার্থক্য নেই...

৩০ শে মে, ২০১৮ রাত ৯:২৮

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ধন্যবাদ তালগাছ ভাই, আমিও এটাই বলতে চেয়েছি।পাঠ ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

১৯| ৩১ শে মে, ২০১৮ রাত ১:৩১

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: শহর থেকে কলকারখানা গ্রামে নিয়ে আসলে শহুরের চাপ কমবে। গ্রাম ও উন্নত হবে।

৩১ শে মে, ২০১৮ সকাল ৮:১১

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: আসলেই তাই জুনায়েদ ভাই, গ্রাম যতই উন্নত হোক কর্মসংস্থান স্মৃষ্টি করা না গেলে শহরমুখী স্রোত থামবে না। ধন্যবাদ এবং ভালবাসা।

২০| ৩১ শে মে, ২০১৮ ভোর ৬:৫৭

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: শুভ সকাল তারেক ভাই। আপনার পোষ্ট মানে অতিতকে রোমন্থনের সুযোগ। দেরিতে পড়ার জন্য দুঃখিতব।আসলে আমি এমন একটি স্থানে আছি যেখানে গতদুদিনে নেট যোগাযোগ নেই। এখন পেলাম তবে কতক্ষণ থাকবে সন্দেহ। যাক পোষ্টে ভাল লাগা রেখেগেলাম। +++++

আপনার দেখার দৃষ্টি এভাবেই চলুক, এই কামনাকারী হিসাবে ব্লগ ছাড়লাম।

৩১ শে মে, ২০১৮ সকাল ৮:২৮

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ পদাতিক ভাই এত কষ্ট করে মন্তব্য করার জন্য, ঠিকই বলেছেন আমার বেশিরভাগ লেখাই অতীত স্মৃতিচারণ,অতীত স্মৃতি বড়ই মধুর তাই সেগুলি মাঝে মাঝে একটু উল্টে পালটে দেখা আর কি। অনেক ভালবাসা প্রিয় ভাই

২১| ৩১ শে মে, ২০১৮ সকাল ১০:৫২

জুন বলেছেন: একাল সেকালের একেবারে সঠিক বিভাজন তারেক মাহমুদ । চিঠি আর ফোনের ব্যপারটিও একদম দশে দশ। ভালোলাগলো পড়তে।
+

৩১ শে মে, ২০১৮ সকাল ১০:৫৪

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: চমৎকার মন্তব্যে অনুপ্রাণিত হলাম জুনাপি। অনেক ধন্যবাদ আপুনি।

২২| ৩১ শে মে, ২০১৮ সকাল ১১:৫৯

শিখা রহমান বলেছেন: তারেক আপনার এই নষ্টালজিক করে দেয়া লেখাগুলো আমার প্রিয়। হয়তোবা আমি মানুষটা নস্টালজিক বলেই।

বরাবরের মতো সুখপাঠ্য লেখার জন্য ধন্যবাদ। ভালো লাগলো। লেখাটা পড়ে একটু পেছনে হাঁটলাম।

ভালো থাকবেন। শুভকামনা।

৩১ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১২:১২

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: অনেক ভাল লাগলো আপু আপনার এই চমৎকার মন্তব্যে।

আপনার মত আমারো অতীত স্মৃতিচাচারণ করতে ভাললাগে। গ্রাম এবং শহর দুজায়গাতেই বসবাসের অভিজ্ঞতা থাকায় বিচিত্র স্মৃতি মনের কোনে ভিড় করে। ধন্যবাদ শিখা আপু।

২৩| ৩১ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১২:৪০

শিমুল_মাহমুদ বলেছেন: চমৎকার লেখা সেকাল একালের সঠিক চিত্র ফুটে উঠেছে লেখায়।

৩১ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১:০২

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: পাঠ ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ ও অনুপ্রেরণা।

২৪| ৩১ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১২:৫৩

তারেক ফাহিম বলেছেন: এখন আর গ্রাম আর শহরের এমন বেশি পার্থক্য নেই।

কর্মসংস্থানের নাই বলে মানুষ শহরে কিংবা গ্রামের পাশের শহরে ভিড় করে।

৩১ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১:০৩

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: আপনার সাথে একমত, অনেক ধন্যবাদ ফাহিম ভাই।

২৫| ৩১ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১:২৫

ইব্‌রাহীম আই কে বলেছেন: কিছুকাল পরের ব্লগাররা আবার আমাদের দিনের সাথে ওদের দিনের তুলনা করে হয়তো আপনার ভাবনার মত করেই লিখবেঃ একাল সেকাল।

উপস্থাপনাটা ভালো ছিল।

৩১ শে মে, ২০১৮ দুপুর ১:৩৮

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: যেটা বর্তমান এক সেকেন্ড পরে সেটাই অতীত, ধন্যবাদ ইব্রাহীম ভাই, অনেক ভালোলাগা এবং ভালবাসা। আপনার মার্কেটিং নিয়ে লেখাটি চমৎকার হয়েছে।

২৬| ৩১ শে মে, ২০১৮ দুপুর ২:১২

হাসান রাজু বলেছেন: বড়রা বলে কিংবা বুড়োরা বলে, এখনকার মানুষগুলো পাপে নিমজ্জিত তাই রোগবালাইও বেশি । ক্যান্সার, হার্ট এট্যাক, স্ট্রোক এগুলো আগে ছিল না, কারন আগের মানুষ ছিল সহজ সরল ।

মূলত,ক্যান্সার, হার্ট এট্যাক, স্ট্রোক এগুলো আগেও ছিল। কিন্তু আগের মানুষ জানতেই পারত না কি রোগে রোগী মারা গেল ।

আবার তাদের কথাও ঠিক । এভাবে যদি বিচার করেন - পাপ =খাদ্যে বিষ, পাপের ফল= ক্যান্সার ।

৩১ শে মে, ২০১৮ দুপুর ২:৩১

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: একদম ঠিক বলেছেন হাসান রাজু ভাই, তখনকার মানুষ জানতো যে কি রোগে মারা যাচ্ছে। অনেক ধন্যবাদ।

আফটপিক :আপনি ফুটবল অনুরাগী সেটা জানি, চলে আসুন বিশ্বকাপ আড্ডায়। এখানেwww.somewhereinblog.net/blog/samupagla007/30224263#c12219123

৩১ শে মে, ২০১৮ দুপুর ২:৩১

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: Click This Link

২৭| ৩১ শে মে, ২০১৮ রাত ৮:০৫

সুমন কর বলেছেন: কমন কথা-বার্তা !!

৩১ শে মে, ২০১৮ রাত ৮:৫৫

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: খুবই কমন, শুধুমাত্র স্মৃতিচারণ ধন্যবাদ সুমন ভাই।

২৮| ০১ লা জুন, ২০১৮ রাত ১:৫৮

হাসান রাজু বলেছেন: কি বলে যে ধন্যবাদ দিব আপনাকে। চমৎকার এক আড্ডা ঘরে আমাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। অশেষ ধন্যবাদ। আপনার বিপক্ষে খেলব আমি। ভালো লাগবে।

০১ লা জুন, ২০১৮ সকাল ৯:৩৮

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: মেতে উঠুন আড্ডায়, প্রতিপক্ষ না থাকলে খেলায় মজা নেই। ধন্যবাদ হাসান রাজু ভাই।

২৯| ০১ লা জুন, ২০১৮ দুপুর ২:২৮

করুণাধারা বলেছেন: পোস্ট পড়ার আগেই পুরান আমলের ফোন আর ডাকবাক্সের ছবি দেখে নস্টালজিক হয়ে গেলাম। পুরনো দিনের সাথে আজকের দিনের তুলনা- পোস্ট পড়ে খুব ভালো লাগলো।

০১ লা জুন, ২০১৮ রাত ৮:০৮

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: পোষ্টটি আপনাকে নস্টালজিক করেছে জেনে ভাল লাগলো, অনেক ধন্যবাদ করুনাধারা আপু।

৩০| ০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৯:৫৬

MirroredDoll বলেছেন: ভাল লিখেছেন

০৬ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ১:৪৮

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ।

৩১| ১৪ ই জুন, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:০৯

একাল-সেকাল বলেছেন: সেকালের আবেগ গুলো ছিল কালিতে মেশানো, একালের আবেগ লিথিয়াম ব্যাটারীর ভিতর আবদ্ধ !!

১৬ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:৪০

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ঠিকই বলেছেন একাল সেকাল ভাই, অনেক ধন্যবাদ আপনাকে ঈদ মোবারক।

৩২| ২০ শে জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:২৪

একাল-সেকাল বলেছেন: আপনাকেও ঈদ পরবর্তী মোবারক :D

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.