নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমি লেখক নই, মাঝে নিজের মনের ভাবনাগুলো লিখতে ভাল লাগে। যা মনে আসে তাই লিখি,নিজের ভাললাগার জন্য লিখি। বর্তমানের এই ভাবনাগুলোর সাথে ভবিষ্যতের আমাকে মেলানোর জন্যই এই টুকটাক লেখালেখি।

তারেক_মাহমুদ

পৃথিবীর সব ভাল টিকে থাকুক শেষ দিন পর্যন্ত

তারেক_মাহমুদ › বিস্তারিত পোস্টঃ

ছোটগল্প : ময়নাভাবী

০৫ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ২:১৬

ময়না একজন অল্প শিক্ষিত মহিলা, দুটি কন্যা সন্তানের জননী। নিজের ভাগ্য ফেরাতে ঢাকায় এসেছিল ১৯৯৫ সালে। প্রথমে কিছুদিন গার্মেন্টসে কাজ করে, কিন্তু এত পরিশ্রম করে সামান্য রোজগার ময়নার মনঃপুত হতো না। একদিন ময়নার পরিচয় হয় রহিমা খালার সাথে। রহিমা খালা ময়নাকে মোটা ইনকামের লোভ দেখিয়ে তার সাথে কাজ করার আহবান জানায়। উচ্চাভিলাষী ময়নাও রাজী হয়ে যায় রহিমা খালার কথায়।

রহিমা খালার বাসায়ই থাকতো সে, প্রতিদিন প্রচুর লোকের আগমন ঘটতো তার বাসায়। এদের মধ্য থেকে বেছে বেছে টাকাওয়ালা ক্লাইন্টদেরই ময়নার কাছে পাঠাতো রহিমা খালা। দিনে দিনে বেশ ভাল টাকার মালিক হয়ে যায় । গাজিপুরে একটা জমিও কিনে ফেলে। একসময় রহিমা খালা মারা যায়। ময়না রহিমা খালার অবৈধ ব্যবসা হাল ধরে।


ফরিদ গাজী ময়নার নিয়মিত ক্লাইন্ট ছিল , আদম ব্যাপারীর দালালী করে ফরিদ ভালই রোজগার করতো একসময়। একদিন ফরিদ ময়নাকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়, ময়নাও রাজী হয়ে যায়।


অবৈধ ব্যবসার কারনে ময়নার এলাকার পাতি মাস্তান, ছোটখাটো রাজনৈতিক নেতাদের সাথে খুবই সখ্যতা। এরা মাঝেমাঝেই ময়নার বাসায় অতিথি হয়ে আসে। নিশিদ্ধ ব্যবসার জগতে ময়নাভাবী নামে পরিচিত সে। তার মোবাইলে প্রচুর মেয়েদের নম্বর আছে, যখন যাকে প্রয়োজন তাকে ফোন করে ডেকে নেন। স্বামী ফরিদ অপদার্থ টাইপের মানুষ সেটা বিয়ের পরই বুঝতে পারে সে। একসময় এক আদম ব্যাপারীর দালালি করে ভালই পয়সা রোজকার করলেও এখন আয় রোজগার খুব বেশি নেই। কয়েক বছর ধরে আদম ব্যবসা হাল হকিকত ভাল নয়। তাই ফরিদের নেশার টাকা জোগাড় করার জন্য ময়নাই একমাত্র ভরসা।


বাড়ির অন্য ফ্লাটের বাসিন্দাদের সাথে খুব বেশি একটা মেশে না ময়না ভাবী। তার বেশ কয়েকজন দালাল আছে এরাই ক্লাইট ধরে এনে দেয়। এরা কাকলী ব্রিজ, মহাখালী ফ্লাইওভারের নীচে দাঁড়িয়ে ক্লাইন্টদের দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করে। সবকিছু মিলে গেলে ময়নাভাবীকে ফোন দেয়। এছাড়া কয়েকটি ফেসবুক আইডি আছে সেখানেও মোবাইল নম্বর দিয়ে রেখেছে, অনেক ক্লাইন্ট সেই আইডি থেকেও নম্বর নিয়ে সরাসরি ফোন করে।  তাছাড়া ময়না মাঝেমাঝে পুরানো ক্লাইন্টদের ফোন করে বাসায় নিমন্ত্রণ জানায়। এভাবেই রাজধানীর ভদ্র এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে দিনের পর দিন অবৈধ ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।


ময়নাভাবীর দুটি মেয়ে, মুন্নি ও পূর্ণিমা। মুন্নি ক্লাশ সিক্স এ পড়ে, পূর্ণিমা থ্রিতে। জন্মের পর থেকেই এরা বাসার মধ্যে অসামাজিক ক্রিয়াকালাপ দেখতে দেখেতে বড় হচ্ছে। ফরিদ ইদানীং বাসায় খুব কমই আসে, মাসে এক দুইবার আসে টাকা নেওয়ার জন্য। টাকা না দিলে বিশ্রী ভাষায় গালিগালাজ করে,গায়ে হাত তোলে। ময়নাও কম যায় না গালিগালাজ এবং হাত তোলার দিক দিয়ে।দুজনেই এই ঝগড়া হাতাহাতি থেকে মারামারিতে পৌছায়। মেয়ে দুটো বুঝে গেছে তাদেরকে বেচে থাকতে হলে মায়ের পক্ষেই থাকতে হবে।


এভাবেই অসুস্থ পরিবেশেই বেড়ে উঠছে ময়নার দুটি মেয়ে। ওরাও একদিন হয়তো মায়ের দেখানো পথেই পা বাড়াবে।

মন্তব্য ৬৯ টি রেটিং +৮/-০

মন্তব্য (৬৯) মন্তব্য লিখুন

১| ০৫ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ২:৩৯

প্রামানিক বলেছেন: বর্তমান সমাজে এরকম ঘটনা অনেক ঘটছে। ধন্যবাদ বাস্তবতার ভিত্তিতে গল্প লেখার জন্য।

০৫ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ২:৪৩

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: পাঠ ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ প্রামাণিক ভাই।

২| ০৫ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:২৮

অচেনা হৃদি বলেছেন: :(

০৫ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:৪৫

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: পাঠ ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ আপু।

৩| ০৫ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:৩৮

রোকনুজ্জামান খান বলেছেন: এরকম ময়না ভাবীতে দেশ ভরে যাচ্ছে ।
তারপরেও ভাবীর মেয়ে দুটির জন্য
শুভ কমনা । তারা যান বড় হয়ে মানুষের মত মানুষ হয়ে সমাজে বেচে থাকতে পারে....?

আমার নতুন গল্প।
"""ট্রিপল ফিল্টার টেস্ট""""
লিংক
(Click This Link)
এক বার ঘুরে আসার বিনীত অনুরোধ রইল।
আপনাদের অনুপ্রেরনাই আমাকে এগিয়ে যেতে সাহায্য করবে ।

০৫ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:৪৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ময়নাভাবীদের অস্তিত্ব অস্বীকার করার উপায় নেই। পাঠ ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ রোকনুজ্জামান ভাই। অবশ্যই আপনার গল্প পড়বো।

৪| ০৫ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:০৪

ফেনা বলেছেন: বাস্তব চিত্র।

০৫ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:০৮

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ভদ্রপাড়াগুলোতেও এমন ময়নাভাবীরা আছেন সেটাই বোঝাতে চেয়েছি। ধন্যবাদ ফেনা ভাই।

৫| ০৫ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:১৬

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: অসাধারণ! তবে এই সমাজ জীর্ণ সমাজ।
এই সমাজ ভাঙ্গতে হবে।
ভাঙ্গতে গেলে বাঁধবে লড়াই।
সেই লড়াইয়ে জিতবে হবে।

০৫ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:৩১

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: চমৎকার বলেছেন সাজ্জাদ ভাই, ফেসবুক, ইন্টানেটের বদৌলতে এইসব ময়নাভাবী ব্যবসা সহজ হয়ে গেছে। এসব অসামাজিক কার্যকালাপ বন্দ করা খুবই জরুরি।

৬| ০৫ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:৩৩

কাওসার চৌধুরী বলেছেন: বর্তমান সময়ের প্রেক্ষাপটে ময়নাভাবীর চরিত্রটি চমৎকার হয়েছে। এরকম হাজার হাজার ময়না ভাবী সারা দেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছেন। অনেক ভাল লাগল গল্পটি পড়ে তারেক ভাই।

০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ৮:১৬

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ধন্যবাদ কাওসার ভাই, সবার চোখের সামনেই কেউ কেউ অবৈধ ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে কেউই তার খোজ রাখেনা, পাঠ ও সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

৭| ০৫ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:৫০

বিজন রয় বলেছেন: লেখার সময় এত তাড়াহুড়া করার দরকার কি?
আরো ধীরস্থিরভাবে সময় নিয়ে লেখার চেষ্টা করুন।

আমি আরো ভাল কিছু চাই।
চেষ্টা করতে তো দোষ নাই।

০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ৮:২০

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: আপনার মত গুনি মানুষের চোখে তাড়াহুড়ো ধরা পড়বে সেটা আমি জানতাম দাদা, একটা লেখা শেষ করার পর পোষ্ট করার জন্য কেমন যেন অস্থির হয়ে পড়ি। আসলে ঠিকই বলেছেন আরো সময় নিয়ে পোষ্ট করা উচিত ছিল।

৮| ০৫ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:৫৬

রাজীব নুর বলেছেন: বাস্তব গল্প বললেন তারেক ভাই।

০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ৮:২২

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: হুম বাস্তব গল্প, এমন ঘটনা আমাদের চোখের সামনেই ঘটছে,আমরা অনেক সময় জানি আবার জানি না।মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ রাজীব ভাই।

৯| ০৫ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:৫৮

কাছের-মানুষ বলেছেন: বাস্তব সম্মত লেখা।
গল্প হিসেবে আরেকটু ভিন্ন ভাবে সাজাতে হবে, ভাবতে হবে লেখার আগে।

লেখার ভিতরের মেসেজটা ভাল হয়েছে। লেখতে থাকুন এরকম আরো বাস্তবসম্মত বিষয়।

০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ৮:২৬

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ঠিকই বলেছেন কাছের মানুষ ভাই,আমার গল্পগুলো শেষটা আমার নিজেরই পছন্দ হয় না, একটা ম্যাসেজ দিয়ে গল্প শেষ করে দেই। মন্তব্যেরব জন্য ধন্যবাদ এবং ভালবাসা।

১০| ০৫ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৫:৩০

মায়াবী ঘাতক বলেছেন: বাস্তব সম্মত লেখা। সত্যি বলতে গেলে ঢাকার তথাকথিত ভদ্র(!) এলাকা যেমন গুলশান, উত্তরা, ধানমন্ডিতে এইসব ময়নাভাবির সংখ্যাই বেশি। পড়ে ভালো লেগেছে।

০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ৮:২৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: মায়াবী ঘাতক ভাই, পড়ে আপনার ভাল লেগেছে জেনে খুশি হলাম। অনেক ভালবাসা রইলো।

১১| ০৫ ই জুন, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৩৯

আকতার আর হোসাইন বলেছেন: বাস্তবতার নিরিখে ধারুণ একটি গল্প...

০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ৮:২৯

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই আকতার, সমাজের নৈতিক অবক্ষয়ের গল্প।অনেক ভালবাসা আপনার জন্য।

১২| ০৫ ই জুন, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:০৩

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: অন্ধকার জীবনের গল্প...

০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ৮:৩৩

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: আমাদের চোখের সামনেই এমন ঘটনা ঘটছে আমরা জানতেও পারছি না। অনেক ধন্যবাদ তালগাছ ভাই।

১৩| ০৫ ই জুন, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৩৮

মো: নিজাম উদ্দিন মন্ডল বলেছেন: কি ভয়ংকর গল্প রে ভাই?
তাই বলে ময়না__ অন্ধকার জগতে পা বাড়াবে???:(

০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ৮:৩৬

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: আসলেই তাই অভাবে স্বভাব নষ্ট, অভাবের তাড়না ময়না এমন অন্ধকার জগতে পা বাড়ায়। অনেক ধন্যবাদ ও ভালবাসা নিজাম ভাই।

১৪| ০৫ ই জুন, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৫৩

নাজিম সৌরভ বলেছেন: এভাবেই জন্ম হয় ময়নাভাবিদের !

০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ৮:৩৮

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: অভাবের তাড়নাই ময়না ভাবীদের জন্ম দেয়। ধন্যবাদ সৌরভ ভাই।

১৫| ০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ৮:০৬

শিমুল_মাহমুদ বলেছেন: সভ্য জগতের ভিতরেই লুকিয়ে আছে অন্ধকার জগৎ, বাস্তব সম্মত গল্প।

০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ৮:৩৯

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ঠিক তাই পাঠ ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

১৬| ০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ৮:৪২

আহমেদ জী এস বলেছেন: তারেক_মাহমুদ ,




বাস্তব । শেষের লাইনটি আরো বেশি বাস্তব ।

০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ৮:৫৮

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: আহমেদ জি এস ভাইয়া, ময়না ভাবীদের অন্ধকারে বেড়ে ওঠা সন্তানেরা অন্ধকার পথেই পা বাড়ায়। অনেক ধন্যবাদ এবং ভালবাসা।

১৭| ০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ৮:৪২

সুমন কর বলেছেন: বাস্তবিক ঘটনা !! ছোট গল্প হিসেবে ভালো লাগল।

০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ৯:০০

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: পাঠ ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ সুমন ভাই।

১৮| ০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ৯:৩৫

করুণাধারা বলেছেন: বাস্তব জীবনের গল্প, পড়ে বেশ ভালো লাগলো।

০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ৯:৩৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ধন্যবাদ করুণাধারা আপু।

১৯| ০৫ ই জুন, ২০১৮ রাত ১০:২১

সামু পাগলা০০৭ বলেছেন: দুঃখজনক! বাচ্চা দুটোর ভবিষ্যৎ ভীষনই অনিশ্চিত, হয়ত তাদের ভাগ্যও মায়ের মতোই হবে!

০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৭:৫৫

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ময়নাভাবীদের বাচ্চারা এভাবেই অসুস্থ পরিবেশে বড়ি হয়, তারাও মায়ের মত একই পেশা বেছে নেয়। ধন্যবাদ সামুপাগলা ০০৭ আপু।

২০| ০৬ ই জুন, ২০১৮ রাত ১:২১

শিখা রহমান বলেছেন: বাস্তবতা মনখারাপ করে দেয়। :(

০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৭:৫৯

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: শিখা আপু, বাস্তবতা আসলেই কঠিন, পাঠ ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

২১| ০৬ ই জুন, ২০১৮ রাত ২:৪৪

ওমেরা বলেছেন: অভাবের চেয়েও লোভ মানুষকে খারাপ বানায়।

০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৮:০২

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: লোভ খুবই খারাপ জিনিষ, অনেকেই লোভে পড়েই অন্ধকার পথে পা বাড়ায়। অনেক পর আপনাকে পেলাম ওমেরা আপু। অনেক ধন্যবাদ।

২২| ০৬ ই জুন, ২০১৮ রাত ২:৪৪

ওমেরা বলেছেন: অভাবের চেয়েও লোভ মানুষকে খারাপ বানায়।

২৩| ০৬ ই জুন, ২০১৮ ভোর ৫:৫৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


সাধরণ ঘটনার মতো একটা বর্ণনা, তেমন কোন প্লট নেই

০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৮:০৬

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: হা হা আপনি ঠিকই ধরেছেন এটা আমার সামনে ঘটে যাওয়া একটি ঘটনা,গল্প আকারে লিখতে চেয়েছিলাম আসলেই গল্পের কোন প্লট নেই। অনেক ধন্যবাদ চাঁদগাজী ভাই।

২৪| ০৬ ই জুন, ২০১৮ ভোর ৬:২৮

রাকু হাসান বলেছেন: এ রকম টা হচ্ছে আমরা তাদের অসুস্থ বানিয়ে দিচ্ছি .।

০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৮:১৪

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: একদম সঠিক বলেছেন রকু ভাই শিশুরা অপরাধী হয়ে জন্মায় না সমাজই তাদের অপরাধী বানায়। সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

২৫| ০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৭:০৩

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: অনেকদিন আগে পড়া কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের একটা কবিতার লাইন ঠিক এরকম,

ধর্মতলার মোড়ে লেনিন দাঁড়িয়ে আছেন,

গ্রাম থেকে এক লোক শহরে এসেছিল,

ডাক্তার দেখিয়ে সর্বস্বান্ত হবে বলে,

তার আগেই তাকে সর্বস্বান্ত করে দিল এক পকেটমার,

লেনিন দাঁরিয়ে দেখছেন ।

সন্ধ্যের মুখে হাই তুলতে তুলতে,

একটি মেয়ে গাছ তলার নীচে এসে দাঁড়ালো,

এমন সময় একটি ট্যাক্সি তাকে তুলে নিয়ে গেল,

লেনিন দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখছেন।

কিছুক্ষণ পরে সেই মেয়েটি আবার সেখানেই এসে দাঁড়ালো।

লেনিন দাঁড়িয়ে দেখছেন।


কাজেই লেনিন রুপের প্রশাসনের এদের নিয়ে কোনও মাথা ব্যাথা নেই, আর একারনেই এদের আধুনিক রুপ যত্রতত্র গজিয়ে ওঠা স্পার নামে এই ব্যবসা চলে যাচ্ছে।

অনেক ভাল লাগা প্রিয় তারেক ভাইকে।

০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৮:১৮

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: পদাতিক ভাই,সুভাষ মুখপাধ্যায়ের চমৎকার একটি কবিতা দিয়ে শুরু করলেন, খুবই চমৎকার একটি মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

২৬| ০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৯:০৯

মোস্তফা সোহেল বলেছেন: চাঁদগাজী ভাই কিন্তু ঠিক বলেছেন।

০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ১০:১৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: হুম ঠিক বলেছেন চাঁদগাজী ভাই, মানুষের জীবনের গল্পগুলো এমন সাধারণই হয়। ধন্যবাদ সোহেল ভাই।

২৭| ০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৯:৪১

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
গল্পে আর একটু নাটকীয়তা থাকলে পড়ে আরাম হতো।

০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ১০:২১

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: সব গল্পে নাটকীয়তা থাকে না, ময়নাভাবীদের সন্তানদের জীবনে মিরাকল কিছু ঘটার সম্ভাবনা কম। অনেক ধন্যবাদ মাইদুল ভাই।

২৮| ০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৯:৪৬

শামচুল হক বলেছেন: দেশে এখন অনেক ময়না ভাবি এসব পেশায় নিয়োজিত। এদেরকে সুপথে আনা দরকার।

০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ১০:২৩

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: একদম ঠিক বলেছেন শামচুল ভাই,প্রজন্মের পর প্রজন্ম অন্ধকার জগতে বিচরণ করবে সেটা হতে পারে না। ধন্যবাদ এবং ভালবাসা।

২৯| ০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ১০:৪২

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: হুম বাস্তব গল্প, এমন ঘটনা আমাদের চোখের সামনেই ঘটছে,আমরা অনেক সময় জানি আবার জানি না। মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ রাজীব ভাই।


মন্তব্য করা আমার দায়িত্ব।

০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ১০:৫৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: পুনরায় মন্তব্যের জন্য আবারো ধন্যবাদ রাজীব ভাই।

৩০| ০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ১১:০১

আবু ছােলহ বলেছেন:



ভাল লিখেছেন। অনাকাঙ্খিত হলেও এ আমাদের সমাজেরই খন্ডচিত্র।

০৬ ই জুন, ২০১৮ সকাল ১১:০৬

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: পাঠ ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ আবু ছোলহ ভাই।

৩১| ০৬ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ১২:৪১

জুন বলেছেন: +

০৬ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ১২:৪৬

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: পাঠ মন্তব্য ও লাইকের জন্য ধন্যবাদ জুনাপি।

৩২| ০৬ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ১২:৪২

মিথী_মারজান বলেছেন: মন খারাপের গল্প।:(

০৬ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ১২:৪৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: জি আপু আসলেই তাই, অনেক ধন্যবাদ।

৩৩| ০৬ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ২:৩৩

মোঃ খুরশীদ আলম বলেছেন: ময়নাভাবীদের যারা এই রাস্তায় আনে তারা ধরা ছোঁয়ার বাইরে থেকে যায় আজীবন।

০৬ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ২:৪৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ময়নাভাবীদের যারা ইইন্ধন তার ধরাছোঁয়ার বাইরেই থেকে যায়। অনেক ধন্যবাদ খুরশীদ আলম ভাই।

৩৪| ০৬ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:১২

লাইলী আরজুমান খানম লায়লা বলেছেন: মন দিয়ে পড়লাম। অসাধারণ একটি বাস্তবসম্মত গল্প, এটা সমাজেরই একটি দিক – শুভকামনা রইল

০৬ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:৪৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: কমেন্ট পড়ে সত্যি দারুণ অনুপ্রাণিত হলাম।অনেক অনেক ধন্যবাদ লায়লা আপু।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.