নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমি লেখক নই, মাঝে নিজের মনের ভাবনাগুলো লিখতে ভাল লাগে। যা মনে আসে তাই লিখি,নিজের ভাললাগার জন্য লিখি। বর্তমানের এই ভাবনাগুলোর সাথে ভবিষ্যতের আমাকে মেলানোর জন্যই এই টুকটাক লেখালেখি।

তারেক_মাহমুদ

পৃথিবীর সব ভাল টিকে থাকুক শেষ দিন পর্যন্ত

তারেক_মাহমুদ › বিস্তারিত পোস্টঃ

বাকা লাঠি

২০ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১২:৩১


চিকিৎসা বিজ্ঞানের উন্নতির ফলে বর্তমানে মানুষের গড় আয়ু বেড়েছে, এটা খুবই সত্যি কথা। তবে এই কথাটি পুরুষদের বেলায় প্রযোজ্য নয়। আমার দাদার আমলের পুরুষরা ৯০-১২০ বছর পর্যন্ত বাচতেন, তবে মহিলারা একের পর এক সন্তান জন্ম দিতে গিয়ে অল্প বয়সের মারা যেতেন। আমার দাদা ১২০ বছর বেচেছিলেন। আজ আমার দাদার গল্পই বলি।

আমার দাদা ছিলেন এলাকার সবচেয়ে বয়ঃজোষ্ঠ মানুষ, তাই সবাই উনাকে সম্মান করতেন। ১০০+ বয়সেও দিব্যি হাটাচলা করে বেড়াতেন। উনার উচ্চতা ছিল প্রায় ৬ফিট কিন্তু তবু এত বয়সেও ওনার শরীর একটুও বাঁকিয়ে যায় নি। বাকা হাতলের একটি বেতের লাঠি নিয়ে দিব্যি কারো সাহায্য ছাড়াই চলাফেরা করে বেড়াতেন। তবে মাঝেমাঝে ওই বাকা লাঠিটির অপ্রয়োগ করতেন, এই যেমন - বাজারে গিয়েছেন মাছ কিনতে, মাছটিকে হাত দিয়ে না টিপে লাঠির মাথা দিয়ে টিপে দেখতেন মাছটি শক্ত নাকি নরম! এতে কোন কোন দোকানদার খুব রেগে যেতো, কিন্তু দাদা বিষয়টি আমলেই নিতেন না।


দাদার সেই বাকা লাঠির অপ্রয়োগের শিকার একবার আমিও হয়েছি। একদিন দাদা আমার কাছে পানি চাচ্ছিলেন আমি দিতে দেরি করছিলাম ব্যস লাঠির বাকা প্রান্ত আমার গলায় লাগিয়ে আমাকে হ্যাচকা টান দিয়ে নিজের কাছে টেনে নিয়ে বললেন কি আমার কথা কানে যাচ্ছে না তোমার?

একবার সরকার থেকে সিদ্ধান্ত হল, আমাদের বাড়ির পাশ দিয়ে আমাদের জমির উপর দিয়ে একটি খাল কাটা হবে।সেই খালের জমিতে অনেক কৃষকেরই পাকা ফসল ছিল,কিন্তু কেউই সাহস পাচ্ছিল না কিছু বলতে। দাদা দায়িত্বরত অফিসারকে অনুরোধ করলেন জমির সরিষাগুলো পাকা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে । কিন্তু সেই অফিসার কোন মতেই রাজী হচ্ছিলেন না দেরি করতে, দাদা রেগে গেলেন, সেই অফিসারের গলায় আমার মত করেই বাকালাঠি আটকিয়ে টান দিলেন, আর বললেন আমার কথা তোমার কানে যাচ্ছে না? শুরু হল তুমুল ক্যাচাল, একসময় পুলিশও চলে আসলো। পুলিশ সব শুনে, যে জমিগুলোতে ফসল আছে সে জায়গাগুলো বাদ দিয়ে অন্য জায়গায় খাল কাটার পরামর্শ দিলেন। আর ফসলি জমিতে ফসল পাকা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে বললেন।দায়িত্বরত অফিসারকে পুলিশ বললেন, উনি আপনার বাবার চেয়েও বয়সে বড় হবেন, তাই বিষয়টি ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখতে অনুরোধ করলেন।

এখনকার পুলিশ হলে হয়তো আমার দাদাকে হাজতেই থাকতে হতো। পুলিশের কাছ থেকে এমন সুন্দর মিমাংসাই সবার প্রত্যাশা।




মন্তব্য ২৬ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (২৬) মন্তব্য লিখুন

১| ২০ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১২:৫৯

রাজীব নুর বলেছেন: আমার দাদা হঠাত অন্ধ হয়ে যান। তখন তার ৩৫/৩৬ বছর বয়স।
কিন্তু তিনি লাঠি কখনও ব্যবহার করেন নি।

২০ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১:১২

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ৩৫/৩৬ বছর বয়সে আপনার দাদা অন্ধ হয়েছিলেন জেনে খারাপ লাগলো, তবে উনার মানসিক শক্তির কথা জেনে ভাল লাগলো, আশাকরি একদিন আপনার দাদার গল্প লিখবেন।

২| ২০ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১:০১

চাঁদগাজী বলেছেন:


১২০ বছর? এখন ঢাকায় ২০ বছর বাঁচাই কষ্টকর হবে।

২০ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১:১৬

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ঠিকই বলেছেন গাজী ভাই, এই ভেজালের যুগে এতদিন বাচা সম্ভব নয়। অনেক ধন্যবাদ।

৩| ২০ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১:০৪

তারেক ফাহিম বলেছেন: আপনার দাদার বর্ণনা শুনে মনে হচ্ছিল আমার দাদার বর্ণনা করছি।

আমার দাদাও লম্বায় প্রায় ৬ ফিট ছিলেন। বেঁচেও ছিলেন প্রায় ১২৫ এর মত।
শেষ বয়সেও চশমা খুব একটা ব্যবহার করতেন না ।

লাঠি ছিলো তবে মাথা ছিলো সোজা আপনার মত লাঠির শীকার হতে হয়নি ;)




২০ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১:১৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: যাক আপনার দাদা গল্প কিছুটা জানা হল, অনেক ধন্যবাদ ফাহিম ভাই।

৪| ২০ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১:৪৩

জাহিদ অনিক বলেছেন:

বাহ ! ভালো লাগলো। লাঠির খাপ গলায় বসিয়ে ক্যাক করে টান দেয়ার ব্যাপারটা বেশ মজা করেই লিখেছেন।

২০ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১:৫৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ধন্যবাদ প্রিয় জাহিদ অনিক ভাই, ভাল লেগেছে জেনে খুশি হলাম।

৫| ২০ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ২:৩৬

গড়ল বলেছেন: গড় আয়ু বাড়ার কারণ হল শিশু মৃত্যুর হার কমে যাওয়া ও অসুখ বিসুখে অকাল মৃত্যুর হার কমে যাওয়ায়। তবে অায়ুষ্কাল বাড়েনি, বড়ংচ কমেছে। তার প্রধান কারণ হচ্ছে খাদ্যভ্যাস ও অতিমাত্রায় আরামপ্রিয়তা।

২০ শে জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:১৪

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: একেবারেই সঠিক বলেছেন, এখন ১২০ বছর বাচবার কথা স্বপ্নেও ভাবা যায় না।

৬| ২০ শে জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:২০

ভিন্নচিন্তা ভিন্নমত ভিন্নপথ বলেছেন: @ তারেক মাহমুদ- রূপকথার গল্প বলতে ভালো লাগে ? আপনাকে কিছু তথ্য দিচ্ছি।
যাটের দশকে গড়পড়তা বাংলাদেশী-দের life expectancy ছিলো পুরুষদের 45.42 বছর ও মহিলাদের 46.15 বছর (1960) ।
সত্তর দশকে life expectancy বেড়ে পুরুষদের হয় 47.52 ও মহিলাদের 47.42 বছর( 1970)।(সূত্র:countryeconomy.com)
আর 2015 সালে এসে বাংলাদেশীদের life expectancy বেড়ে দাঁড়িয়েছে গড়ে 71.6 বছর ( সূত্র: Wikipedia)
আপনার দাদার 120 বছর অতিরঞ্জিত।

২১ শে জুন, ২০১৮ ভোর ৬:৫৩

তারেক_মাহমুদ বলেছেন:

ভাই ভিন্নমত ভিন্নপথ ভিন্নচিন্না প্রথমেই আপনাকে ইদ মোবারক,

পরিসংখ্যান দিয়ে পৃথিবীর সব কিছু চলে না , পৃথিবীতে কিছু ব্যতিক্রমী ঘটনা সব সময়ই ঘটে। আমার দাদা মারা গেছেন ১৯৮৯ সালে, তখনকার বেচে থাকা বয়ঃজোষ্ঠদের ধারণা ছিল এমনি। আমিতো গ্রামের আরো বেশ কয়েকজনকে ৯০-১০০বছর বাচার কথা শুনেছি। আমার দাদার বোনও ১০০ বছরের বেশি বেচেছিলেন । এটা গল্প নয় সত্যি।

আপনাকে ধন্যবাদ।

৭| ২০ শে জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:৩০

সিগন্যাস বলেছেন: তাজ্জব বিষয় তারেক ভাই।আমরা যেখানে নানা ভ্যাকসিন-ট্যাকসিন নিয়েই ৫০ বছর বাঁচতে পারিনা সেখানে আপনার দাদার মতো লোকেরা একশো বছর বাঁচতো।

২১ শে জুন, ২০১৮ সকাল ৭:০০

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: মেডিসিন আর ভেজালের যুগে ৫০ বছর বেচে থাকাই দায়। ওদেরদের যুগে উনারা ফ্রেস জিনিষ খেতেন,পরিবহন ব্যবস্থা ভাল না থাকায় মাইলের পর মাইল হাটতেন,প্রচুর পরিশ্রম করতেন, তাই এত দীর্ঘ আয়ু পেয়েছিলেন। এত আয়ু সবার ভাগ্যে জুটতো না তবে ৮০-৯০ বছর অনেকেই বাচতেন।

অনেক ধন্যবাদ সিগন্যাস ভাই।

৮| ২০ শে জুন, ২০১৮ বিকাল ৫:০২

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: পোস্ট টি খুব ভালো লাগলো। ভেজাল আর দূষিত পরিবেশ সব কেড়ে নিচ্ছে। কিন্তু আমাদের কোন হুশ হচ্ছে না।আফসোস!

২১ শে জুন, ২০১৮ সকাল ৭:০২

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ভাল বলেছেন সাজ্জাদ ভাই, ভেজাল খাবার, দুষিত পানি বায়ু মানুষের আয়ু কমিয়ে দিচ্ছে। অনেক ধন্যবাদ।

৯| ২০ শে জুন, ২০১৮ বিকাল ৫:২৮

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: প্রিয় তারেক ভাই ভালো লাগলো আপনার দাদুর গল্প শুনে। উনি সেঞ্চুরি করায় আপনাকে অভিনন্দন জানাই । তবে ওনার বাকা লাঠির ঘা শুধু আপনি একা খাননি, সঙ্গে এক আধিকারিকও , বেশ মজা পেলাম। হা হা হা। আমার অবশ্য এসব চোখে দেখার সুযোগ হয়নি, লাঠি খাওয়াতো কোন ছাড়।

অনেক অনেক শুভ কামনা আপনাকে।

২১ শে জুন, ২০১৮ সকাল ১১:১২

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ধন্যবাদ পদাতিক ভাই, মাছের বাজারে গিয়ে লাঠি দিয়ে মাছ টিপে দেখার ঘটনা মনে পড়লে এখনো হাসি পায়। দাদুদের সানিধ্য পাওয়া ভাগ্যের ব্যাপার। সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

১০| ২০ শে জুন, ২০১৮ রাত ৮:৫৬

সুমন কর বলেছেন: আপনার দাদা আর বাঁকা লাঠির কাহিনী পড়ে ভালো লাগল।

২১ শে জুন, ২০১৮ সকাল ১১:১৩

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ এবং ইদ মোবারক সুমন ভাই।

১১| ২৫ শে জুন, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:১০

খালেদা শাম্মী বলেছেন: ভাল লেগেছে পড়ে। আর শেষের লাইনটিও।

২৬ শে জুন, ২০১৮ সকাল ১১:১৬

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: পাঠ ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ শাম্মী আপু।

১২| ২৮ শে জুন, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৪৮

রাকু হাসান বলেছেন: সাহসী ছিলেন তাহলে ....গড় আয়ুর যে গড় হিসাব সেটা মহিলাদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য বেশি । ৭০ + বছর বেঁচেছে এমন লোক কম দেখি । তবে মহিলারা অনেক বেশিও গড় আয়ু নিয়ে এখনও আছে ।

০২ রা জুলাই, ২০১৮ রাত ১১:৩৩

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই রাকু হাসান।

১৩| ০৬ ই জুলাই, ২০১৮ রাত ১০:৩৭

নীলপরি বলেছেন: সুন্দর করে লিখেছেন । ভালো লাগলো ।

০৬ ই জুলাই, ২০১৮ রাত ১১:২৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ধন্যবাদ প্রিয় নীল পরি।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.