নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সাহসী সত্য।এই নষ্ট দেশ-জাতি-সমাজ পরিবর্তনের প্রচেষ্টাকারী একজন নিস:ঙ্গ যোদ্ধা।বাংলাদেশে পর্বত অরোহণের পথিকৃত।

অনল চৌধুরী

লেখক,সাংবাদিক,গবেষক,অনুবাদক,দার্শনিক,তাত্ত্বিক,সমাজ সংস্কারক,শিক্ষক ও সব অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী যোদ্ধা

অনল চৌধুরী › বিস্তারিত পোস্টঃ

চুরি, ঘুষ,দুর্নীতি,ব্যাভিচার,জুয়া,মদ-মাদক, সুদ-এসবের বিরুদ্ধে মামলা হয় না কেনো?

০৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৩:০৫



ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগ তুলে ‘ন ডরাই’-এর সেন্সর বাতিল ও প্রদর্শনী বন্ধে একটি আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

ছবির চিত্রনাট্যকার ভারতীয়।এদের মধ্যে অনেকেই অন্য ধর্মকে হেয় করে আনন্দ পান।

ছোটোবেলায় ভারত থেকে আমদানী করা Radiant Way নামে ইংরেজী বইয়ে পড়েছিলাম,এক লোকের কুকুরের নাম সুলতান।
ভারতের সংখ্যাগুরু শিশুদের অত্যন্ত সুক্ষভাবে একইসাথে সুলতান শাসক এবং তাদের ধর্মবিরোধী করে তোলার জন্য এই নাম ব্যাবহার করা হয়েছিলো।

এখানেও এরকম কোনো পরিকল্পনা কাজ করেছে কিনা,সেটা তদন্ত হলে জানা যাবে।

বাদী পক্ষের আপত্তি ছবির প্রধান চরিত্রের নাম নিয়ে।২০১০ সালে এই একই নামের একটা মহিলা পরকিয়ার কারণে নিজের সন্তানকে হত্যা করেছিলো।আর এ বছর বরগুনায় মেয়ের কারণে দুইজন নিহত হয়েছে ,তার নামও সেটা।এখন এদের নিয়ে কেউ যদি ছবি বানায় আর সেই নাম ব্যবহার করে,তাহলে কি অবমাননা হবে?

আর যারা এইসব ‘‘পবিত্র’’ নাম নিয়ে এসব জঘণ্য অপকর্ম করেছে,তারা কি ধর্ম অবমাননা করেনি বা এখনো করছে না????

পরিচালক পক্ষের দাবী,তাদের ছবি নারী অধিকারে পক্ষে। কিন্ত শুধু সার্ফিং করাকে নারী অধিকার বলে মানতে আমি রাজী না।

প্রকৃত নারী অধিকার প্রতিটা ক্ষেত্রে তাদের পুরুষের সমান সন্মান ও মর্যাদা লাভ,যেটা থেকে বাংলাদেশ এখনো অনেক দূরে।

পশ্চিমের মেয়েরাও সমুদ্র সৈকতে অবাধে সার্ফিং ও অন্যান্য খেলায় অংশ নিতে পারে কিন্ত এ্যামেরিকা ও ইউরোপের প্রতিটা দেশে মেয়েদের অবস্থা শোচনীয়।

চলচ্চিত্র নাটক গানে বেপর্দা নারীদের পুরুষের সাথে অবাধ মেলামেশা দেখানো হয় যা ধর্মবিরোধী।
কিন্তু দেশের কোন লোকটা এসব দেখে না?

জামাতিরা ১৯৯২ সালে ডিশ এ্যান্টেনা চালু করে বাংলাদেশের ঘরে ঘরে ভারতীয় আর ইংরেজী অপসংস্কৃতি ঢুকিয়েছে। কেউ ২৭ বছরে এসব বন্ধ করেছে?

যে দেশে এতো ধার্মিক, সেই দেশে চুরি-ঘুষ-দুর্নীতি-জুয়া-ব্যাভিচার-মদ-মাদক-সুদ অবাধে চলে কিভাবে?
এসব বন্ধ হয় না কেনো?

আসল কথা হলো দেশটা ওই উকিলের মতো ভন্ড মোনাফেক আর ধোকাবাজ বক ধার্মিকে ভর্তি।

তাই সব অপকর্ম অবাধে চলে

মন্তব্য ১৮ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (১৮) মন্তব্য লিখুন

১| ০৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ভোর ৫:১৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


একা আপনার সব ইচ্ছা পুরণ করতে হলে, হয়তো নতুন এক দেশ সৃষ্টি করতে হবে!

০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৩:৩৬

অনল চৌধুরী বলেছেন: একদিম ঠিক বলেছেন।
আমরা নীতিবান সবাই মিলে এক নতুন সভ্যতা সৃষ্টি করবো।

২| ০৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ভোর ৬:৫৯

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: পড়ে চর্বিত চর্বণ বলে মনে হলো।

০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৩:৩২

অনল চৌধুরী বলেছেন: এর আগে কে এসব লিখেছেলিংক দেন।

৩| ০৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:১৯

স্বামী বিশুদ্ধানন্দ বলেছেন: দক্ষিণ এশীয়রা জেনেটিকালিই অনেক হিপোক্রেট | এরা আবেগের বশবর্তী হয়ে বা লোকদেখানোর উদ্দেশ্যে অনেক কিছু করে ফেলে যা তাদের প্রকৃত রূপের সাথে সম্পূর্ণ বিপরীতধর্মী |

০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৩:৫০

অনল চৌধুরী বলেছেন: এজন্যই তো পাকিস্তান,ভানক অঅল বাংলাদেশ-এই তিন দেশের একইরকম অবস্থা।

তবে ভূটান,শ্রীলংকা আর মালদ্বীপের অবস্থা সম্পূর্ণ আলাদা।

৪| ০৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৮:২৫

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




এই সিনেমা ব্ন্ধ করা উচিত কি উচিত না, তা সেন্সর বোর্ড দেখবে আদালত দেখবে। আমার জানা মতে ভারত+বাংলা যৌথ শিল্প সমাজ দুইটি নোংরা সমাজের মিক্চার। তাদের কোনো কর্ম ভালো হবার কথা না। হবেও না। ভারতীয় চ্যানেলে বাংলাদেশে কি কি হচ্ছে তা ঢাকার তেজগাঁয়ে মটর ম্যাকানিক বাদল ও জানে শুধু জানে না বাংলাদেশের লোক প্রশাসন!!! আর জানেনা বাংলাদেশের মিডিয়া, ছাপা খানা, প্রেস!!!

মহিলাদের যেমন সম্মান আছে পুরুষেরও সম্মান আছে যার যার সম্মান সে নিজে বজায় রাখতে হবে এখন হোক সে হাজী সাহেব আর হাজী সাহেবান। প্রতিবাদও নিজেরই করতে হবে। আপনার হয়ে তো আমি প্রতিবাদ করবো না - আপনার সমস্যা আপনি ভালো জানেন। আমি যেটা সমস্যা মনে করছি আপনি হয়তো তা সমস্যাই মনে করেন না - আমি কেনো আপনার ঝামেলায় পড়বো? আপনি আওয়াজ দিন। যার যার নিজের গলার আওয়াজ নিজে দিতে হবে।

জামাতিরা ডিশ এনেছে বামাতিরা বন্ধ করতে পারতো নাকি টাকার লোভ বড় লোভ? এখনো বন্ধ করা যায় নাকি বন্ধ করলে সরকার পরে যাবে??? জামাতি গামাতি যারা ডিশ ব্যাবসার সাথে জড়িত তাদের ঠেঙ্গার চড়ে জেলখানা করে রাখা হোক আর ডিশ বন্ধ করে দেওয়া হোক। - কে মানা করেছে?

০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৩:৩৭

অনল চৌধুরী বলেছেন: ঠিক বলেছেন।
সব শিয়ালই এক ভাষায় কথা বলে।
এতে কোনো ডান-বাম নাই।
ক্ষমতা-টাকা-নারী-মদের লোভ সবারই একরকম।

৫| ০৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:২৮

রাজীব নুর বলেছেন: আপনার সাথে একমত নই।

০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৩:৪৩

অনল চৌধুরী বলেছেন: আপনার স্বাধীন মত প্রকাশের গণতান্ত্রিক অধিকারের জন্যই আমি লড়াই করি।
কোন মতের সাথে কেন একমত না,বিস্তারিত বলেন।
আমি নিরপেক্ষভাবে কথা বলেছি।

৬| ০৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:০৯

প্রকৌশলী মোঃ সাদ্দাম হোসেন বলেছেন: যে দেশে এতো ধার্মিক, সেই দেশে চুরি-ঘুষ-দুর্নীতি-জুয়া-ব্যাভিচার-মদ-মাদক-সুদ অবাধে চলে কিভাবে?
এসব বন্ধ হয় না কেনো?

এই প্রশ্নটা আমারও। তবে উত্তরও আমি বুঝতে পারি আমার মতো করে।
এনিওয়ে, প্রকৃত নারী অধিকার প্রতিটা ক্ষেত্রে তাদের পুরুষের সমান সন্মান ও মর্যাদা লাভ
ব্যাপারটা কি এমন যে ধরেন, সেনাবাহিনীতে ৪ লাখ সৈন্য থাকলে ২ লাখ পুরুষ আর ২ লাখ নারী থাকবে। ৫০০০০ ড্রাইভার দেশে থাকলে ২৫০০০ হাজার পুরুষ ২৫০০০ নারী থাকবে। ১ লাখ শিক্ষক থাকলে ৫০ হাজার পুরুষ আর ৫০ হাজার নারী থাকবে। এভাবেই প্রতিটা ক্ষেত্রে নারী পুরুষ সমতা আনা হবে?
ব্যাপারটা একটু ক্লিয়ার করবেন?

ধন্যবাদ।

০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৩:৪১

অনল চৌধুরী বলেছেন: বলেছেন: ব্যাপারটা সংখ্যার না,মর্যাদা আর সন্মানের।
নারী কোথাও নির্যাতিত বা বৈষ্যম্যের স্বীকার হবে না,সম্পত্তিতে সমান অধিকার পাবে,তাকে কেউ উত্যক্ত বা ধর্ষণ করবে না-এসব।
আপনার মতো শিক্ষিত ব্যাক্তির এসব না বোঝার কথা না।

৭| ০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১:০০

নীল আকাশ বলেছেন: এই দেশে বিচার ব্যবস্থা বলে কিছু এখন আর অবশিষ্ট আছে?
সরকার তো নিজেই ধর্মের বিরুদ্ধে কঠোর! যেখানে মহানবীর বিরুদ্ধে বাজে কিছু বললে কিছু হয় না কিন্তু বিশেষ
একজনের বিরুদ্ধে কিছু সত্য কথা বললেও দেশ ছাড়া হতে হয়, সেখানে কার ঘাড়ে কয়টা মাথা যে এর প্রতিবাদ করবে?

০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৩:৪৪

অনল চৌধুরী বলেছেন: ধর্মের অবমাননা করে অনেকেই কারাগারে গেছে।

৮| ০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:৪৬

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




অনল চৌধুরী ভাই,
এইসব সিনেমা নির্মাতাদের কান টেনে ছিড়ে ফেলা উচিত। ন ডরাই ন ফরাই একটি সিনেমা বানিয়ে দেশে হাহাকার পরে গেছে। নারী মুক্তি এতে চলে আসবে। এতে করে নারী পণ্য হওয়া থেকে বেঁচে যাবে? বাক্স চ্যানেল ফাই, রঙ সাদা করার ক্রিম সুন্দরী প্রতিযোগিতা এই সব কে করছে আর কারা নারীকে পণ্য করছে আর কারা এই সিনেমা নির্মাতা? দেশের আদম সমাজ এসব বুঝার জ্ঞান পেঁয়াজের সাথে খেয়ে লম্পট হয়েছে।

অনল চৌধুরী ভাই, দেশে যা ইচ্ছা তা হোক ভাই, বাদ দিন। যে ভালো কাজ করছে সে ভালো কাজ করুক। যে খারাপ কাজ করছে সেও খারাপ কাজ করুক। সবারই সমান অধিকার।

এই সিনেমায় দেশ উদ্ধার হয়ে একদম ঠেঙ্গার চড়ে গিয়ে পড়বে।

১৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ২:৪৬

অনল চৌধুরী বলেছেন: মিডিয়ার পেশাদার লম্পট আর নারী ব্যবসায়ীরা এসব বানিয়ে সবাইকে ধোকা দিতে চায়।
কিন্ত তারা যে আসলে কি,সেটা তো সবাই জানে।
ভাই,দু:খিত,দেশের বাইরে থাকায় উত্তর দিতে দেরী হয়ে গেলো।

৯| ১৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ২:৪৫

অনল চৌধুরী বলেছেন: মিডিয়ার পেশাদার লম্পট অঅর নারী ব্যবসায়ীরা এসব বানিয়ে সবাইকে ধোকা দিতে চায়।
কিন্ত তারা যে আসলে কি,সেটা তো সবাই জানে।
ভাই,দু:খিত,দেশের বাইরে থাকায় উত্তর দিতে দেরী হয়ে গেলো।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.