নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সাহসী সত্য।এই নষ্ট দেশ-জাতি-সমাজ পরিবর্তনের প্রচেষ্টাকারী একজন যোদ্ধা।বাংলাদেশে পর্বত আরোহণের পথিকৃত।

অনল চৌধুরী

লেখক,সাংবাদিক,গবেষক,অনুবাদক,দার্শনিক,তাত্ত্বিক,সমাজ সংস্কারক,শিক্ষক ও সব অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী যোদ্ধা

অনল চৌধুরী › বিস্তারিত পোস্টঃ

নারীর ক্ষমতায়ণ দেশের কল্যাণের পরিবর্তে অপরাধে বেশী ব্যবহার হচ্ছে

১৬ ই মার্চ, ২০২০ রাত ২:৫৭



১৯৯২ সালের অক্টোবরে দৈনিক সংবাদে প্রকাশিত লেখক জীবনের প্রথম লেখাটাই লিখেছিলাম বিয়ে-বিচ্ছেদ, সম্পত্তি আর সন্তানের উত্তরাধিকারসহ সব ক্ষেত্রে নারীর সমান অধিকার ও মর্যাদা নিয়ে।

সংস্কৃতিজগতে নারীদের সন্মান রক্ষা ও এই জগতে নারীদের পরিকল্পিতভাবে নিজেদের লাম্পট্যের শিকার এবং দেশ-বিদেশে পেশাদার পতিতা বানানো লম্পট-নারী ব্যবসায়ী চক্রের বিরুদ্ধে লেখার কারণে বইমেলা থেকেও নিষিদ্ধ হয়েছি।

এই ব্লগেও নারীর সন্মান,মর্যাদা ও নিরাপত্তা নিয়ে নিয়মিত লিখি।

কিন্ত এখন মনে হচ্ছে নারীদের মধ্যে বড় একটা অংশই সন্মান ও মর্যাদার লাভের উপযুক্ত না।

তারা শিক্ষা,কর্মক্ষেত্র,রাজনীতি বা অন্যান্য ক্ষেত্রে প্রাপ্ত নিজেদের সুযোগ-সুবিধা ব্যবহার করে দেশ-জাতির কল্যাণের চেয়ে এ সুবিধা ব্যবহার করছে ঘুষ,দুর্নীতি,লুটপাট,মাদক ও নারী ব্যবসা,সন্ত্রাসী কার্যকলাপসহ সবরকম অপকর্মে।

দেশে সংঘটিত প্রতিটা বড় অপরাধ ও অপকর্মে পুরুষের প্রধান সহকারী হিসেবে আছে একজন অপরাধী নারী।

গত মাসের দৈনিক পত্রিকাগুলিতে কূখ্যাত নারী ব্যাবসায়ী পাপিয়া,কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীনের তার দুর্নীতির খবর প্রকাশের কারণে নীরিহ সাংবাদিকে মধ্যরাতে প্রশাসনের লোকজন দিয়ে মারধর ও কারাগারে পাঠানো একইদিন গাজিপুরের মহিলা কাউন্সিরের উল্টোদিক দিয়ে গাড়ি যেতে না দেয়ায় পুলিশকে মেরে আটক হওয়ার ঘটনাগুলি তাদের সমান অধিকারের জন্য লড়াই করা সচেতন ব্যাক্তিদের মনে ঘৃণার সৃষ্টি করছে।


ইতিপূর্বে নারায়ণঞ্জের এক সাবেক জনপ্রিয় নায়িকা মহিলা সংসদ-সদস্য তার দুর্নীতি,সন্ত্রাস,ভূমি দখল ও সব অপরাধীদের প্রশ্রয় দানের কারণে গডমাদার উপাধি পেয়েছিলো।


এভাবে দুর্নীতি,অপকর্ম,ক্ষমতার অপব্যবহার ও সন্ত্রাসীর মতো আচরণ করার নামই কি নারী স্বাধীনতা?

এদের কারো মধ্যেই বিয়ে-বিচ্ছেদ, সম্পত্তি আর সন্তানের উত্তরাধিকারের ক্ষেত্রে বৈষম্যমূলক আইন বিলোপ বা কর্মস্থলে,সড়কে এমন বাসে নারী ধর্ষণের মতো জঘণ্য অপরাধের বিষয়ে কোনো প্রতিবাদী ভূমিকা পালনের ইচ্ছা বা আগ্রহ নাই।



নষ্ট পুরুষদের মতো সব অপরাধ ও অপকর্মে অংশগ্রহণ করাইকেই এরা নারী স্বাধীনতা মনে করছে।




একটা জেলার নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটদের মধ্যে সর্বোচ্চ পদের অধিকারী হয়েও কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন তার দুর্নীতির খবর প্রকাশকারী সাংবাদিকের প্রতি সব আইনকে তুচ্ছ করে নিকৃষ্ট সন্ত্রাসীর মতো আচরণ করেছে। শুধু প্রত্যাহার বা বিভাগীয় মামলা এর জন্য উপযুক্ত শাস্তি না। এর বিরুদ্ধে অবশ্যই ফৌজদারী আইনে মামলা হতে হবে এবং এর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হতে হবে,যাতে ভবিষ্যতে কেউ সাংবাদিকদের সাথে সন্ত্রাসীর মতো আচরণ করার সাহস না পায়। একইভাবে শাস্তি হতে হবে গাজিপুরে কাউন্সিলরসহ সব অপরাধী নারীদের।

যারা কোনটা অপরাধ আর কোনটা স্বাধীনতা-সেটা বোঝেনা,তারা কোনোদিনও প্রকৃত স্বাধীনতা পায় না।




মন্তব্য ২৮ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (২৮) মন্তব্য লিখুন

১| ১৬ ই মার্চ, ২০২০ রাত ৩:২৯

চাঁদগাজী বলেছেন:



আপনি আসলে বুদ্ধিহীন মানুষ; নারীরা পুরুষ থেকে বেশী কাজ করে; পাপিয়া, বেগম জিয়া, মানে পুরো বাংলাদেশের নারী নন; আপনি বাসায় কোন কাজ করেন?

১৬ ই মার্চ, ২০২০ ভোর ৬:২৯

অনল চৌধুরী বলেছেন: অকাজকে কাজ বলে আমার সমালোচনা করলেন না প্রশংসা !!!!
আমি প্রায় ১৮ কোটি লোকের পুরো একটা জাতিকে রক্ষার জন্য লড়াই করি।
অশোভন ব্যাক্তিগত আক্রমণ থেকে বিরত হন।

২| ১৬ ই মার্চ, ২০২০ রাত ৩:৩৫

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




যার যা ইচ্ছা তা করুক। অনেকটা “নেশা খাবি খা মারা যাবি যা” টাইপ। মরে যাক পঁচে যাক।


১৬ ই মার্চ, ২০২০ রাত ৩:৪৫

অনল চৌধুরী বলেছেন: শুধু নিজেরা মরলে কিছু বলার ছিলো না,কিন্ত প্রায় ১৮ কোট লোকের পুরো একটা জাতিকে ধ্বংস করে দিচ্ছে।

৩| ১৬ ই মার্চ, ২০২০ রাত ৩:৫৪

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




চাঁদগাজী বলেছেন: আপনি আসলে বুদ্ধিহীন মানুষ; নারীরা পুরুষ থেকে বেশী কাজ করে; পাপিয়া, বেগম জিয়া, মানে পুরো বাংলাদেশের নারী নন; আপনি বাসায় কোন কাজ করেন?

আমার মনে হয় বাংলাদেশের পুং জাতি বেদে (বাইদ্দা) গোত্রের। সর্বকাজে পারদর্শী মহিলারা (সবাই নন) কাজকর্ম করেন আর পুং জাতি ঘরে বসে খান। তবে পুং জাতিদের মাঝে জামালপুর ডিসি সাহেব যেমন আছেন তেমনি নারীদের মধ্যে তসলিমা নাসরিন ও যুগ যুগ ধরে আছেন - থাকবেন অনন্তকাল।

ব্লগার অনল চৌধুরী কোন দুঃখে সর্বশেষ ছবিটি পাপিয়া ওরফে জলহস্তি ওরফে ছোট হাতি ওরফে ট্যাটু হাতির ছবি দিলেন?


১৬ ই মার্চ, ২০২০ ভোর ৪:০১

অনল চৌধুরী বলেছেন: যাদের নিয়ে লেখা,তাদের ছবি থাকতে হবে না!!
পাপিয়া ওরফে জলহস্তি ওরফে ছোট হাতি ওরফে ট্যাটু হাতির ছবি দিলেন?-প্রথমে দিতে চেয়েছিলাম,কিন্ত শেষে এসে পড়েছে।

৪| ১৬ ই মার্চ, ২০২০ রাত ৩:৫৭

সোহানী বলেছেন: নারী বা পুরষ, দেশে এখনতো দেখি যার কাছেই ক্ষমতা আছে সেই সব কিছুর উর্ধে।

আপনি প্রায় বলেন, বইমেলাতে নিষিদ্ধ! এর মানে কি?

১৬ ই মার্চ, ২০২০ ভোর ৪:০০

অনল চৌধুরী বলেছেন: নারী বা পুরষ, দেশে এখনতো দেখি যার কাছেই ক্ষমতা আছে সেই সব কিছুর উর্ধে-তাহলে আর নারী নির্যাতন করছে বলে অঅহাজারি কেনো!!!!
আপনি প্রায় বলেন, বইমেলাতে নিষিদ্ধ! এর মানে কি? -যা পড়েছেন তাই।
বইটা পড়লে বুঝবেন কেনো নিষিদ্ধ।।

৫| ১৬ ই মার্চ, ২০২০ ভোর ৪:১১

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




অনল চৌধুরী ভাই,
যে খারাপ হবার সে খারাপ হবেই আপনি শিকল বেঁধেও ধরে রাখতে পারবেন না। আর যে ভালো হবার সে ভালো হবেই। শিক্ষিত হলেই যে ভালো মানুষ হতে হবে এমন কোথাও লেখা আছে? আর পুথিগত বিদ্যা না থাকলেই একজন মানুষ খারাপ হবে এমনও কোথাও লেখা নেই।

ভালোমন্দ বিচার করা কঠিন। সবাই আপানার আমার চাইতে বরং দশ লাইন বেশীই বোঝেন কিন্তু কাজেকর্মে প্রতিফলন কি - লাড্ডু। তাই আসুন নিজে ভালো থাকি। আর যারা ভালো হবার তারা অটো ভালো হবেন আর যার খারাপ হবার তারাও অটো খারাপ হবেন - প্রকৃতির পুরো সিস্টেম অটোমেশিন।

তবে জলহস্তি প্রমাণ করে দিয়েছে বাংলাদেশে রাজনীতি তে কি পরিমান নোংরা নষ্ট লম্পট বিদ্যমান। রিকোয়ারমেন্ট ছিলো হাতি তার দলবল সহ ফুলফিল করেছে। শুধু বিক্রেতা ধরা পরবে এটি কেমন কথা ক্রেতাগণ তো আবার আরো শত শত বিক্রেতা তৈরি করে নিবে - নাকি বলেন?

৬| ১৬ ই মার্চ, ২০২০ ভোর ৫:২২

মিরোরডডল বলেছেন: আপনি ভালো লেখেন । নারীর সন্মান, মর্যাদা, স্বাধীনতা নিয়ে ।
Which is good, I appreciate.

আবার এখন আপনার মনে হচ্ছে একটা বড় অংশই এই মর্যাদার উপযুক্ত না ।
Because you know why? Cause you generalized as women which you don't need to.

I would say, we should identify and protest against any bad action, crime, corruption, sexual assault done by the person doesn't matter man or woman.

Instead generalized man or woman we can treat all as human being. That's better.

Good people bad people everywhere among us in every sector.
মিডিয়া আর রাজনীতি এক্সপোসড হয় বেশী কিন্তু সব জায়গায় অনৈতিক কাজ হচ্ছে । কখনো নারী আবার কখনো পুরুষ করছে ।
আবার কখনো নারী পুরুষ দুজনেই ইনভল্ভড আছে ।

Men and women are not enemy. We are friends, we are partner, we are living in a same society and working side by side.
Rather blaming each other or generalized, we can respect everyone as human and say NO to all bad actions.
We should condemn all crimes no matter which gender the person belong.

খারাপ কাজকে খারাপ বলুন ।
নারী পুরুষে ভেদাভেদ না করে প্লিজ ।
Keep up your good writing

১৬ ই মার্চ, ২০২০ ভোর ৬:৩১

অনল চৌধুরী বলেছেন: 1. I would say, we should identify and protest against any bad action, crime, corruption, sexual assault done by the person doesn't matter man or woman-Then the term WOMEN`S LIBERATION should be eleminated from the dictionaries of the so called faminists. Because the have been demanding equal rights against male shavinism and "Patriarchy".

2.Men and women are not enemy. We are friends, we are partner, we are living in a same society and working side by side.
Rather blaming each other or generalized, we can respect everyone as human and say NO to all bad actions.
We should condemn all crimes no matter which gender the person belong-If really it is ,why women ask for quota on basis of gender ?

নারী যদি নির্যাতন আর অধিকারে ক্ষেত্রে মানুষের পরিবর্তে লিঙ্গের ভিত্তিতে নিজেদের বিচার করে,তাহলে তাদের করা অপরাধের ক্ষেত্রেও তাদের একইভাবে বিচার করা হবে।

৭| ১৬ ই মার্চ, ২০২০ সকাল ৮:১২

নেওয়াজ আলি বলেছেন: পাপিয়া , সাদিয়া এবং ডিসি বর্তমান ক্ষমতাশালী আরেক নারীর ছায়ায় পাপী হয়েছে। সবাই সমান না।

১৭ ই মার্চ, ২০২০ রাত ১:২৬

অনল চৌধুরী বলেছেন: অপরাধীকে কারো ছায়া দিতে হয়না,সে নিজেই ছায়া জোগাড় করে নেয়।
বিএনপি আমলে দিনাজপুরের খুকু,সচিবালয়ের সুন্দরী,তারেকের হেরেমের নারীদের কথা কি জানেন না???

৮| ১৬ ই মার্চ, ২০২০ সকাল ৯:০৮

রাজীব নুর বলেছেন: সমাজে সব নারীই পাপিয়া না।
হাতে গোনা কয়েকটা মাত্র খারাপ নারী আছে। এটা চিন্তার কোনো বিষয় না।

১৭ ই মার্চ, ২০২০ রাত ১:২৮

অনল চৌধুরী বলেছেন: বলেছেন: সংখ্যাটা এখন হাতে গোণা না,অনেক।
যে নারীর ক্ষমতা আছে,সেই দাপট দেখায়।

৯| ১৬ ই মার্চ, ২০২০ সকাল ৯:০৯

কূকরা বলেছেন: পাঁদগাজি সারাদিন ব্লগে ফাত্রামি করে, তাইলে বাসার কাজ পাঁদগাজি কখন করে।

১৭ ই মার্চ, ২০২০ রাত ১:২৮

অনল চৌধুরী বলেছেন: চাচাজান ,উত্তর দেন।

১০| ১৬ ই মার্চ, ২০২০ সকাল ৯:৪৫

মিরোরডডল বলেছেন: Literally this is exactly I meant. What I'm saying this is all about my view, my thought.
Everyone has their own opinion.
I believe no need to ask for liberation.
We are liberal in our mind.

Of course I believe in women empowerment. But I would say not necessarily it has to be always equal. Ratio can be more or less based on the situation. Things are not always black and white.

Some sector women are strong, doing very well but men are behind.
Similarly, in some field men doing amazing but women are not. That's okay.
Men women everyone has their own role in our society at home or work place.
All role are important in each point.
There is no competition between men and women.
We are accountable to perform our own role with integrity, but goal should be same to achieve progress in our society together.

I strongly believe if any woman commit a crime, she must deserve same punishment as a man.
There is no consideration as a woman.

As a woman, never taken any advantage in life.
I always take side of the vulnerable, disadvantaged and unprivileged people.
Majority may women but there are men too.
That's how I believe in human rights not women right.
This is how I feel. You may feel different.

Thanks for your reply.

১৭ ই মার্চ, ২০২০ রাত ২:০৭

অনল চৌধুরী বলেছেন: If both men and women had considered themselves as human being instead of identifying on sex,there wouldn`t hv any problem.
But the question arise when women take extra advantages based on their gender in education,employment or any other sector but act like the corrupt men.
If some of them continue acting like those lady criminals,I think it`s almost impossible to achieve equal right and honor for what You and I hv been fighting for.

১১| ১৬ ই মার্চ, ২০২০ সকাল ১০:২৪

রাশিয়া বলেছেন: নারীদের খারাপ কাজে লিপ্ত হবার সুযোগ খুব কম। তবে ক্ষমতা পেলে তারা পুরুষের চেয়ে ভয়ংকর হয়ে ঊঠতে পারে। কুড়িগ্রামের এই ডিসি গত বছর রাত এগারোটার সময় ঈদের চাঁদ উঠিয়ে পুরো দেশের জনগণকে হয়রানি করেছিল - সেকথা অনেকেই ভুলে গেছেন।

১৭ ই মার্চ, ২০২০ রাত ১:৩৩

অনল চৌধুরী বলেছেন: নারীদের খারাপ কাজে লিপ্ত হবার সুযোগ খুব কম- একথা মানতে পারছি না।
এইসব সন্ত্রাস-দুর্নীতি ছাড়াও দেশে পরকিয়া,অবৈধ সম্পর্ক আর এসবের কারণে তাদের নিজেদের মিশ বা অন্য নারী-পুরুষ হত্যার তালিকাটা একবার দেখেন।
কোনো নারী না চাইলে কেইউ তার সাথে অবৈধ সম্পর্কে জড়াতে পারবে না।

১৭ ই মার্চ, ২০২০ রাত ১:৪০

অনল চৌধুরী বলেছেন: ১২ নম্বর মন্তব্যকারী, আপনি একটা অসভ্য,বেয়াদব
আগে ভদ্রতা শিখে তারপর ব্লগে আসেন।
আমি ইতরদের কথার উত্তর দেই না।
আমি কে সেটা জানার ক্ষমতা আপনার নাই,কোনোদিন হবেও না।
নিজে কি সেটা একবার ভাবেন।
নোংরা মন্তব্য কেটে দিলাম।

১২| ১৬ ই মার্চ, ২০২০ সকাল ১০:৫১

নীল আকাশ বলেছেন: দেশের তথাকথিত উন্নয়ন এখন মহাসড়ক থেকে আকাশের উদ্দেশ্যে উড়াল দিয়েছে দূর্নীতি'কে বগলদাবা করে। দেশ এখন ইউরোপ আমিরিকা সিঙ্গাপুরের চেয়েও উন্নত। তবে এর সাথে -
১। সারাদেশে দিন দিন বিচারহীনতা যেভাবে বেড়ে চলছে, টাকা পয়সার বিনিময়ে যা ইচ্ছে করার লাইসেন্স পাওয়া যাচ্ছে।
২। নৈতিকতার দিক দিয়ে চরমভাবে ধ্বংসের মুখে। বিভিন্ন দিবসে, অনুষ্ঠানে, কনসার্টে ও যুবক-যুবতিদের নির্লজ্জ উন্মাদনা ও বেহায়াপনা আমাদের দেশীয় কৃষ্টি-কালচারকে চরমভাবে ক্ষুন্ন করছে। তারা নিজেরা হচ্ছে বিপদগামি, সমাজ ও নতুন প্রজন্মকে করছে বিভ্রান্ত, সর্বোপরি ধর্মীয় বিধানকে লঙ্ঘন করে করছে চরম নাফরমানি।
৩। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কথা কি বলব? লেখাপড়ার পবিত্র স্থান টিকে অপবিত্র ও দুষিত করে বিবিধ নামদারী রাজনৈতিক দল ও ছাত্র নামদারী অংগ সংগঠন সাথে রাজনীতির সাথে যুক্ত শিক্ষক নামদারী দলবাজেরা শুধু লেখাপড়ার পবিত্র স্থান নয় সারা দেশটাকেই কলুষিত করে ফেলেছে। সততা এবং দেশপ্রেম এই শব্দগুলি আমি ছোটবেলায় পড়েছি। তখন স্কুলের শিক্ষকরা খুব আদর করে এই সব নীতিজ্ঞানের লাইনগুলি পড়াতেন এবং শেখাতেন। আজও আমি আমার সেই সব শিক্ষকদের শ্রদ্ধা ভরে স্মরণ করি। সময়ের সাথে সাথে সব কিছুই দ্রুতই বদলে গেছে। আজকালে শিক্ষকরাই আজ নিজের ছাত্রীদের যৌন নির্যাতন করে কিন্তু কিছুই হয় না। চাকুরি নেয় ঘুষ দিয়ে যারা তার কিভাবে নীতিজ্ঞান শিখাবে বলুন তো?
৪। বর্তমান সরকার এসেছে পিছনের দরজা দিয়ে, দেশে জনগনের মৌলিক ভোটাধিকার বিলুপ্ত করে নির্লজ্জ বেহায়ার মতো জোর করে পার্শ্ববর্তী একটা দেশের সাহায্য নিয়ে ক্ষমতা দখল করে রেখেছে। আর এর বিনিময়ে নামমাত্র মুল্যে সারা দেশই বিক্রি করে দিচ্ছে। এই দেশে এখন ইউনিয়ন চেয়ারম্যান থেকে এম্পি মন্ত্রী.... প্রায় সবাই দুর্নীতিবাজ। দুর্নীতিবাজদের মাধ্যমে প্রশাসনে ঢুকা আমলা, কামলারাও দুর্নীতিবাজ; চরিত্রহীন হবে এটাই স্বাভাবিক। কারন গোড়াতেই দুর্নীতির আসল আখড়া। দেশপ্রেম শব্দের অর্থও এরা জানে না কিংবা জানলেও মানে না।

এখন বলুন, এই পরিস্থিতিতে কে ছেলে কে মেয়ে কোন জায়গায় কোন আকাম কুকাম করে বেড়াচ্ছে তার কোন হদিস আছে? যে যেখানে পারে লুটপাট করে বেড়াচ্ছে। আগে মেয়েরা ঘরে থাকতো দেখে এদের নিউজ আসতো না। এখন বেশি বেশি করে মেয়েরা চাকুরি বা ব্যবসা বা রাজনীতির সাথে যুক্ত দেখে ধীরে ধীরে নাম উঠে আসছে। আরও আসবে, আসতেই থাকবে এই পরিস্থিতি চলতে থাকলে।

আমি আসামী বা সন্ত্রাসী বা অরপরাধীর কোন লিংঙ্গ বৈষম্য করতে চাই না।
তবে যেইসব মেয়েরা স্বেচ্ছায় মিডিয়াতে ঢুকে দেহ বিক্রি করে রাতারাতি মডেল হতে চায় তাদের কথা আলাদা।

ধন্যবাদ।

১৭ ই মার্চ, ২০২০ রাত ৩:৩৩

অনল চৌধুরী বলেছেন: ধন্যবাদ।
এই সরকারের অনেক দোষ,কিন্ত বিএনপি-জামাতি সরকারের আমলে কি নারী ভয়ংকরীরা ছিলো না !!!!
বিএনপি আমলে দিনাজপুরের খুকু,সচিবালয়ের সুন্দরী,তারেকের হেরেমের নারীদের কথা কি জানেন না???

১৩| ১৬ ই মার্চ, ২০২০ সকাল ১১:২৮

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: ইসলামপন্থীরা এই কথাই বলে এসেছে এত কাল। বাংলাদেশে নারী স্বাধীনতা, নারীর ক্ষমতায়ণের নামে যা হয় তাতে নারীর মর্যাদা আরো কমে যাচ্ছে। নারীবাদিরা দেখেনা এমডি'র পিএস, দোকানে, মেলায়, বিজ্ঞাপনে নারীরা কোন যোগ্যতায় চাকুরি পেয়েছে...

১৭ ই মার্চ, ২০২০ রাত ১:৫০

অনল চৌধুরী বলেছেন: ধন্যবাদ।
মাত্র ১২ বছর আগেও নারীদের শিক্ষাগ্রহণ বা চাকরী-ব্যবসায় জড়িত হওয়ার এতোটা সুযোগ ছিলো না।
বেগম রোকেয়ার মতো মহৎ নারীদের প্রচেষ্টা আর নারীর প্রতি শ্রদ্ধাীল পুরুষদের কারণে তাদের এই অগ্রগতি সম্ভব হয়েছে।
কিন্ত তারা যদি এই সুযোগকে ভালো কাজের পরিবর্তে অপরাধে নিয়োজিত করে,তাহলে সমাজে মোল্লাদের নারীকে অবরোধবাসী করে রাখার মতবাদই শক্তিশালী হবে।
নারীবাদী মানে তসলিমার মতো একেকটা নষ্টা,টাকালোভী,ধান্ধাবাজ।
আমি নারীর সমান অধিকারের জন্য লড়াই করা একজন মানবতাবাদী।

১৪| ১৭ ই মার্চ, ২০২০ দুপুর ১:৪১

অগ্নিঝরা আগন্তুক বলেছেন: তাদের জায়গায় পুরুষদের কথা চিন্তা করলে, তারাও একই কাজ করতো। দেশের শাসনব্যবস্থাকে বুড়ো আঙ্গুল দেখানো উপরকর্তার পুরুষ নারী উভয়ের পক্ষেই এখন মামুলি ব্যাপার কিছুটা ।
যদিও সরকারের সদিচ্ছার কারণে এনারা এখন ধরা পড়ছেন ধীরে ধীরে। নারীদের ক্ষমতায়ন কেই শুধুমাত্র Generalize করা উচিত হয়নি আপনার।

১৮ ই মার্চ, ২০২০ রাত ১:২৯

অনল চৌধুরী বলেছেন: আমি আমার স্বাধীন মত দিয়েছি,যেমন দিয়েছেন আপনি।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.