নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সাহসী সত্য।এই নষ্ট দেশ-জাতি-সমাজ পরিবর্তনের প্রচেষ্টাকারী একজন নিস:ঙ্গ যোদ্ধা।বাংলাদেশে পর্বত আরোহণের পথিকৃত।

অনল চৌধুরী

লেখক,সাংবাদিক,গবেষক,অনুবাদক,দার্শনিক,তাত্ত্বিক,সমাজ সংস্কারক,শিক্ষক ও সব অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী যোদ্ধা

অনল চৌধুরী › বিস্তারিত পোস্টঃ

করোনা প্রতিরোধে ভিয়েতনাম এবং কিউবা থেকে চিকিৎসক এবং বিশেষজ্ঞ আনা হোক

০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৩:০৭



পৃথিবীর সবচেয়ে বড় সন্ত্রাসী দেশ এ্যমেরিকায় প্রতিদিন মানুষ মরছে মশা-মাছির মতো।

১ দিনেই মরেছে সর্বোচ্চ ১৪৯৭ জন। মোট মরেছে ১২,৫৬১ জন।

পারমাণবিক বোমা,বিমানবাহী যুদ্ধজাহাজ,টোমাহক ক্রজ ক্ষেপনাস্ত্র, ষ্টিলথ ১১৭ আর এফ-৩৫ জঙ্গী বিমান,প্যাট্রিয়ট ক্ষেপনাস্ত্র বিধ্বংসী প্রযুক্তি,নীরিহ ভিয়েতনামী হত্যাকারী গ্রিন ব্যারেট আর নিজেদের সৃষ্ট লাদেন হত্যাকারী মেরিন আর বাগদাদী মারা নেভি সিল সৈন্য বা এম-১৬ মেশিনগান-কোনাকিছুই তাদের রক্ষা করতে পারছে না।

নিয়তির কি পরিহাস !

যারা দেশে দেশে গণহত্যা না চালিয়ে শান্তি পায় না,সেই সবচেয়ে বড় সন্ত্রাসী দেশের রাষ্ট্রপতি বলছে,মৃত্যুর সংখ্যা ১ থেকে ২ লাখের মধ্যে রাখতে পারাটাই হবে সাফল্য !!!

রাশিয়া,চীন,ইরান বা লাদেন,তালেবান আইএস-কেউ এ্যামেরিকা আক্রমণ করেনি।

মনে হচ্ছে সারা পৃথিবীতে এ্যামেরিকার সন্ত্রাসের কারণে নিহত মানুষদের আত্মা ফিরে এসে প্রতিশোধ নিচ্ছে !!!!

কিন্ত কথা হচ্ছে যে এ্যামেরিকা ভিয়েতনামে ৩০ লাখের বেশী মানুষ মেরেছিলো,চীনের পাশের দেশ হলেও সেই ভিয়েতনামে করোনায় একজন মানুষও মারা যায়নি।

এর রহস্য কি?


এ্যামেরিকার পাশের দেশ কিউবায় করোনায় মারা গেছে মাত্র ৯ জন।

জাপানে মরেছে ৯২,দক্ষিণ কোরিয়ায় ১৯২,রাশিয়ায় ৪৩ জন আর সিঙ্গাপুরে মাত্র ৬ জন।

চীন থেকে বহুদূরে অবস্থিত ইতালী,স্পেন,জার্মানী,বৃটেন,ফ্রান্স আর এ্যামেরিকায় করোনায় যদি প্রতিদিন ৫০০ থেকে ১৫০০ এর উপর মানুষ মরে তাহলে চীনের পাশের দেশ জাপান,দক্ষিণ কোরিয়ায়,রাশিয়ায়,সিঙ্গাপুরে কিউবায় আর ভিয়েতনামে মৃত্যুর হার এতো কম থাকার পিছনে অবশ্যই যুক্তিসঙ্গত কারণ আছে, যেটা তারা জানে এবং যার প্রয়োগের মাধ্যমেই তার মৃতের সংখ্যাকে নিয়ন্ত্রণে রেখেছে।

বাংলাদেশের উচিত অবিলম্বে ভিয়েতনাম এবং কিউবা থেকে চিকিৎসক এবং বিশেষজ্ঞ নিয়ে আসা।

এই দুই দেশের সাথেই স্বাধীনতার পর থেকেই বাংলাদেশের সম্পর্ক ভালো।

এসব দেশের মুদ্রার মানও বেশী না।

সুতরাং সেখানে থেকে প্রয়োজনীয় সাহায্য আনতে খুব বেশী খরচ হবে না।

বাংলাদেশে চিকিৎসক নামের কিছু বর্বর এবারো জনগণের বিপদে তাদের পাশে না দাড়িয়ে ঘরে বসে নিজেদের রক্ষা করার পদ্ধতি নিয়েছে।

এ্যামেরিকার চিকিৎসকরাও এতোটা জমিদারী করার সাহস দেখায় না যেটা দেখায় বাংলাদেশেরগুলি।

এদের সন্ত্রাসের কারণেই ভর্তি হতে না পেরে কারণেই গতকাল গাইবান্ধায় এক মহিলা সিএনজিতে সন্তান প্রসব করেছে।

বাংলাদেশেরগুলি কমিশন বাণিজ্য,রোগীর কিডনী চুরি আর নারী রোগী ধর্ষণে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন।

বাংলাদেশকে করোনার ভয়াবহতা থেকে রক্ষার জন্য এই মুহূর্তে এর চেয়ে ভালো আর কোনো উপায় দেখছি না।

একবার করোনা ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়লে কিন্ত মঙ্গল গ্রহ থেকে বিশেষজ্ঞ এনেও কোনো লাভ হবে না।

মন্তব্য ৪৫ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (৪৫) মন্তব্য লিখুন

১| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৩:২১

ভুয়া মফিজ বলেছেন: বিস্তারিত ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণে (আমার মতো করে) না গিয়ে সোজাসুজি যদি বলি........আপনার প্রতিটা বক্তব্যের সাথেই আমি একমত।

০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৩:২২

অনল চৌধুরী বলেছেন: ধন্যবাধ।
এছাড়া আমরা আর কিইবা করতে পারি?

২| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৩:৩০

ইফতি সৌরভ বলেছেন: উনারা কি PPE ছাড়া, CORONA TEST ছাড়াই - সেবা দিয়ে যাবে? বাংলাদেশের ডাক্তাররা এত খারাপ না। সরকারি ডাক্তাররা উপজেলাগুলোতে কিন্তু সেবা দিয়ে যাচ্ছেন । আপনি Test এর availability & accuracy নিশ্চিত করেন, তারা নিজেদের টাকায় দরকার হলে PPE কিনবে কিন্তু সেবা বন্ধ করবে না। অবশ্য ক্লিনিক-প্রাইভেট চেম্বারের ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক যদি মনে করে, করোনা রোগী তার ক্লিনিকে চিকিৎসা নিলে তার ব্যবসার বারোটা বাজবে তাই করোনা Symptoms এর রোগী ত্রিসীমানায় আসা নিষেধ - তবে ডাক্তারদের গালি দিয়ে লাভ নেয়।
এ দেশে যারা মেডিকেলে চান্স পায়, তারা প্রথম সারির মেধাবী। এ মেধাবী যদি "কসাই" হয়, তবে দোষ আমাদের, আমাদের সিস্টেমের কারণ আমরা কিছু কসাইয়ের শাস্তি নিশ্চিত করতে পারি নাই।
মঙ্গলগ্রহ থেকে এলিয়েন আনার দরকার নেই, মানুষ আগে সচেতন হোক। সরকারের নির্দেশনা মেনে চলুক।

০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৩:৩৮

অনল চৌধুরী বলেছেন: গর্ভবতী মহিলা কি করোন রোগী ছিলো যে তাকে জানোয়ারের মতো ফিরিয়ে দেয়া হলো?
কমিশন বাণিজ্য,রোগীর কিডনী চুরি আর নারী রোগী ধর্ষণে বাংলাদেশের চিকিৎসক নামধারীগুলি যে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন-এব্যাপারে ওকালতি কি?
জনগণের টাকায় যারা পড়ে,তারা সেবা দিতে বাধ্য।
পুলিশ কিন্ত পালায়নি।
তারা মৃত্যুর ঝুকি নিয়েই সারাদিন কাজ করে যাচ্ছে।

৩| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৩:৩৯

রাজীব নুর বলেছেন: Charity starts from home- এই বেদবাক্য আমাদের কেউ শিখিয়ে দেয় নি। আমাদের জীবন থেকে নেয়া।

০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৩:৪৬

অনল চৌধুরী বলেছেন: এসব এখন কি আর কেউ মানে?

৪| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৩:৫০

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনার মতো জ্ঞানী লোকে ভর্তি বলে বাংলাদেশের এই অবস্হা। আপনার ধারণাশক্তি মালয়েশিয়ায় কর্মরত একজন বাংগালী শ্রমিকের থেকে অনেক কম হবে।

০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ ভোর ৪:০৯

অনল চৌধুরী বলেছেন: আপনি কি জানেন আপনি শীঘ্রই মারা যাবেন?
তাই মৃত্যু ভয়ে আপনার বুদ্ধি-শুদ্ধি লোপ পেয়েছে।
প্রলাপ বকে বাংলাদেশের একজন অন্যতম গবেষককে মানহানিকর কথা বলছেন.যে ব্যাপারে ইতিপূর্বে সবাই আপনাকে সতর্ক করেছে।
ভিয়েতনাম-কিউবায় আপনার জ্বলুনির কারণ কি বুঝি না? সমাজতন্ত্রের নাম শুনলেই গা জ্বলে, যাদের সাহায্যে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছিলো আর যাদের পায়ের কাছে সন্ত্রাসী এ্যামেরিকা কোনোদিন খুনাখুনি ছাড়া কোনোদিকে যেতে পারবে না।
হত তিন ঘন্টায় আপনার পেয়ারের দেশে আরো ৩৩৫ জন মরেছে।
অপেক্ষা করেন আপনার পালার জন্য।

৫| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ ভোর ৪:০১

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনার নাম বললে কিউবানরা হয়তো দলে দলে চলে আসবে।

৬| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ ভোর ৪:০৮

রাফা বলেছেন: আপনার রাগের কারন যে কোন বাঙালী উপলব্দি করতে পারবে সন্দেহ নাই। বাংলাদেশেই নিবেদিত প্রাণ অনেক ডাক্তার ,নার্স আছেন।আবার কসাই সমটুল্য ডাক্তার ও মেডিকেল ব্যবসায়ীও রয়েছেন।কাজেই ঢালাওভাবে বিবেচনা করা উচিত নয়।

প্রধানমন্ত্রীর ক্ষোভ দেখানোর যথেষ্ট কারন অবশ্যই আছে।কিন্তু ঐ যে বললেন ঐ দেশ সেই দেশ থেকে ডাক্তার নিয়ে আসবেন।সে অবস্থা কেনো সৃষ্টি হলো একটু ভাবেন'তো !! সাস্থখাতে আপনার বরাদ্ধ কত হয় ? আর চোরের দল সব পোষ্টিং দিয়ে রেখেছেন সাস্থ মন্ত্রনালয়ের সকল স্থানে।বরাদ্ধের ৫০% চলে ঐ চোরদের পকেটে। পোষ্টিং হলে কোথাও কোন ডাক্তার যেতে চায়না।অথচ দিন শেষে তারাই আবার সামনের কাতারে চলে আসে।সবকিছু ম্যানেজ হয়ে যায়।

এর প্রধান ও একমাত্র অন্তরায় এদেশেরই নীতি নির্ধারক /আমলা /বড় বড় ব্যাবসায়ীরা। এরা কেউ দেশের সাস্থ ব্যাবস্থার উপর নির্ভর করেনা।সবাই লক্ষ লক্ষ ডলার খরচ করে বিদেশে গিয়ে চিকিৎসা করায় । এমনকি সরকারি টাকায় বিদেশে গিয়ে চিকিৎসা করায়। আমি চাই এখন একযোগে এই শ্রেনিটা কঠিন রোগে আক্রান্ত হয়ে ঘরে পচে মরুক।যেনো বিশ্বের কোথাও যেতে না পারে।

একমাত্র তা'হলেই যদি এদের টনক নড়ে । দেশের সাস্থ বিভাগ নিয়ে কিছু চিন্তা ভাবনা করে । আমরাও কিছুটা সস্তির নিঃসাস ফেলে বাচি।

ধন্যবাদ,অ.চৌধুরী। ভাবনাগুলো আপনার আমার সকলের জন্য।

০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ ভোর ৪:১৪

অনল চৌধুরী বলেছেন: সব চিকিৎসকের কথা বলিনি,যারা অপরাধী শুধু তাদের কথাই বলেছি।
আপনার আমার সবার পরিবারেই তো চিকিৎসক আছে। স্বাস্থ্যখাতে যা বরাদ্দ হয় সেটাও কি জনগণের জন্য ব্যায় হয় না আফজালরা ২৫০০ কোটি টাকা লুট করে অস্ট্রেলিয়া পালিয়ে যায়????

৭| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ ভোর ৪:২২

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনি বলেছেন, আপনি একজন গবেষক!
তা'হলে, বাংলাদেশে ১৯ কোটী গবেষক আছেন।

০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ বিকাল ৪:১২

অনল চৌধুরী বলেছেন: এজন্যই আপনাকে কুকরা পার্ভার্ট বলে।
সবাইকে নিজের লেভেলে নামিয়ে আনাই পার্ভার্টদের বৈশিষ্ট।
সিআইএ ঘন্টায় কতো সেন্ট দেয় মোসাহেবী করার জন্য?
দেশকে ধ্বংস থেকে জন্য একটা উপায় দিলাম,সেটা ভালো লাগলো না,ভালো লাগলো সন্ত্রাসী এ্যামেরিকার দালালি!!!!

০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ বিকাল ৪:৩৩

অনল চৌধুরী বলেছেন:

-২৪. ২৮ শে মার্চ, ২০২০ দুপুর ১:০৭

কূকরা বলেছেন: পাঁদগাজী শুধু বুদ্ধিপ্রতিবন্ধিই না, মানসিক ভাবে বিকার গ্রস্থ এবং পারভার্টেডও বটে। সামু ব্লগের কোয়ালিটি নামিয়ে এনে একটা নীচের লেভেলে ধরে রাখার ব্যপারে তার বড় ধরনের ভুমিকা আছে। এরে পারমানেন্ট ভাবে ব্যান না করলে, সামু ব্লগের একটা সিনোনেম যদি পাঁদগাজী ব্লগ হয়ে যায়, তাতে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

৮| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ ভোর ৪:২৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমেরিকায় ৬ লাখ বাংগালী থাকে, আমেরিকা সম্পর্কে আপনার কোন ধারণা নেই; আমার সন্দেহ, বাংলাদেশ সম্প্কে আপনার আদৌ কোন ধারণা আছে কিনা।

০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ বিকাল ৪:৪২

অনল চৌধুরী বলেছেন:

-২৪. ২৮ শে মার্চ, ২০২০ দুপুর ১:০৭

কূকরা বলেছেন: পাঁদগাজী শুধু বুদ্ধিপ্রতিবন্ধিই না, মানসিক ভাবে বিকার গ্রস্থ এবং পারভার্টেডও বটে। সামু ব্লগের কোয়ালিটি নামিয়ে এনে একটা নীচের লেভেলে ধরে রাখার ব্যপারে তার বড় ধরনের ভুমিকা আছে। এরে পারমানেন্ট ভাবে ব্যান না করলে, সামু ব্লগের একটা সিনোনেম যদি পাঁদগাজী ব্লগ হয়ে যায়, তাতে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ বিকাল ৫:০১

অনল চৌধুরী বলেছেন: আপনি যেমন আপনার বুদ্ধিও তেমন।

এ্যামেরিকায় বাংলাদেশের সবচেয়ে নষ্ট ও নিকৃষ্টরা থাকে,যারা টাকার লোভে তাদের সব নীতিহীন অপরাধে সমর্থন দেয় আর দেশে দেশে সন্ত্রাস, গণহত্যা,বিমান হামলা,অর লুটপাট চালানো জন্য কর দিয়ে নিজেদেরও এসব অপরাধের অংশীদার করে।

১৯৯২ সালে টোফেল-এ অনেক স্কোর থাকার পরও আমি ঘৃণাবোধ করে ওই সন্ত্রাসীদের দেশে পড়তে যাইনি।
৬ লাখ বাংগালী যাঁরা আমেরিকায় বাস করেন, তাঁরা নিশ্চয় আমেরিকাকে দেশের ১৯ কোটী থেকে হাজার গুণে বেশী বুঝেন-আপনার জানা উচিত, এদের মধ্যে ৯৫%ই ট্যাক্সি চালক,বয়,বেয়ারা শ্রেণীর,যারা নিজেদের তিনবেলা খাবার ছাড়া অন্য কিছু বোঝেনা।

আর এদের নীতির লেভেলটাও আপনারই মতো,যেখানে নিজের স্বার্থ ছাড়া নৈতিকতা বা মানবতা বলে কিছু নাই।

দেখে মনে হচ্ছে ,সিঅআইএ এ্যামেরিকার গণহত্যা,লুটপাটের পক্ষে গলাবাজি করার জন্য আপনাকে বেতন দিয়ে রেখেছে।

আপনাকে দিনও এ্যামেরিকার কোনো সন্ত্রাসে সমর্থ দেয়া ছাড়া বিরোধিতা করতে দেখিনি,যেটা নেপাল-গাম্বিয়ার লোকজনও করে।
এ্যামেরিকা ছাড়া পৃথিবীর আর কোন দেশ জাতিসংঘের অনুমতি ছাড়া দলবল নিয়ে অন্য দেশ আক্রমণ করে ধ্বংস করে?

৯| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ ভোর ৫:৫৭

সোনালি কাবিন বলেছেন: +++++

১০| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ সকাল ৮:৩৮

এলিয়ানা সিম্পসন বলেছেন: আপনি না হ্যাপি ছিলেন আমেরিকায় এত মানুষ মরার কারণে?

০৯ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৩:০৮

অনল চৌধুরী বলেছেন: STILL I AM THE HAPPIEST PERSON ON EARTH SEEING THE BUTCHERS,LOOTERS AND BABY KILLERS DYING LIKE PIGS,WHO MADE THE WORLD HELL ONLY FOR THEIR GREED.

AND BE SURE,THIS IS THE END OF THEIR TERRORISM ON THE WORLD AND THEY WILL NEVER BE ABLE TO SPREAD THEIR POISONOUS BREATH TO ANY OTHER COUNTRY.

১১| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ সকাল ১১:১৮

দেশ প্রেমিক বাঙালী বলেছেন: ব্লগার রাফা-র সংগে আমি ১০০% সহমত।

০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ বিকাল ৪:১৪

অনল চৌধুরী বলেছেন: ধন্যবাদ।

১২| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ দুপুর ১:১২

নেওয়াজ আলি বলেছেন: Right

০৯ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ২:১৩

অনল চৌধুরী বলেছেন: ধন্যবাদ।

১৩| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ দুপুর ১:৩৯

রাজীব নুর বলেছেন: দরকার নাই।
আমাদের দেশের ডাক্তাররা পারবে।

০৯ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ২:০৪

অনল চৌধুরী বলেছেন: সন্ত্রাসী এ্যামেরিকা ইংণ্যান্ড ফ্রাান্স,ক্যানাডারগুলি পারছে না আর এদেশেরগুলি পারবে !!!

খুব ভালো যুক্তি।
আপনি হঠাৎ এতো গাজি ভক্ত হয়ে গেলেন কেনো যে তার সব কথাতেই অন্ধভাবে সমর্থন দিচ্ছেন?

১৪| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ দুপুর ১:৫৩

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
এখন সবচেয়ে বেশি দরকার কভিড ১৯ নের অ্যালার্ম অ্যাপস কিংবা ডিভাইস তৈরি করা। যেটা কোন মানুষের কাছে থাকলে তার আশেপাশে কভিড১৯ ভাইরাস থাকলে সেটা শব্দ করে জানিয়ে দিবে। ফলে সেই লোক নিরাপদ দূরত্বে চলে যেতে পারবেন। এই মুহূর্তে এটা আবিষ্কার করলেও আমাদের অনেক উপকার হতে পারে।

এখনো যেহেতু কোনো প্রতিষেধক , প্রতিরোধক কোন ঔষধ তৈরি হয়নি । তাই আবিষ্কারকদের উচিত ডিভাইস তৈরির দিকেও একটু মনোযোগ দেওয়া। ডিভাইস আলাদা করে তৈরি করতে পারলে হয়‌ অথবা মোবাইল ফোনে ইন্সটল করার মত অ্যাপস তৈরি করতে পারলেও হয়।

তরুণ উদ্ভাবকদের আছে আহ্বান, একটু ভেবে দেখুন এমন কোন ডিভাইস কিংবা অ্যাপস তৈরি করা যায় কিনা যেটা কভিড ১৯ ভাইরাসের উপস্থিতি জানান দেবে । আর মানুষ নিরাপদ দূরত্বে অবস্থান নিতে পারবে।

০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ বিকাল ৪:১৫

অনল চৌধুরী বলেছেন: আমি যে পরামর্শ দিলাম,সেটার ব্যাপারে কেউ কিছু বললেন না,এটাই দু:খের।

১৫| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ বিকাল ৪:৩৪

অনল চৌধুরী বলেছেন:

১৬| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ বিকাল ৫:১৬

বিভ্রান্ত পাঠক বলেছেন: একমত

০৯ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ২:০৪

অনল চৌধুরী বলেছেন: ধন্যবাদ।

১৭| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ বিকাল ৫:৪৮

বিষাদ সময় বলেছেন: লেখার সাথে একমত না হওয়ার কোন সুযোগই দেখছি না। আমেরিকা, ইউরোপে অনেক ডাক্তার পিপিই না পেয়ে নিজেদের গায়ে পলিথিন জড়িয়ে রুগীদের বাঁচানোর আপ্রাণ চেষ্টা করছেন। পাকিস্তানের চিকিৎসকরা পিপিই এর দাবীতে আন্দোলন করায় গ্রেফতার হয়েছেন। আর আমাাদের দেশের বেশিরভাগ চিকিৎসক কোয়ারেনটাইনে চলে গেছেন, আর যারা চিকিৎসা দিচ্ছেন তাদের অবস্থা "ধরি মাছ না ছুই পানি"র মতো।

০৯ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ২:০৬

অনল চৌধুরী বলেছেন: এখানে যা কিছু বলা হয়েছে,সব দেশের জন্য।
কিউবা বা ভিয়েতনাম অন্তত বাংলাদেশকে গ্যাস দেয়া কথা বলার মতো সাহস দেখাবে না।

১৮| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:৪৫

রাজীব নুর বলেছেন: অবাক অচেনা নতুন পৃথিবী এক !!
বিশ্বশক্তি অসহায় !! নতুন বাণিজ্য দস্যুতা।

১৯| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১০:০৬

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: যে সব দেশ ভালো ভাবে পরিস্থিতি সামাল দিচ্ছে সেটা কি শুধু ডাক্তারদের জন্য? সার্বিক ব্যবস্থাপনায় যারা আছেন তাদের ভুমিকা অনেক। Mass People management টাই বড় সমস্যা। আমাদের দেশেতো দেখতেই পাচ্ছি কিভাবে প্রবাসীদের আনা হলও, গার্মেন্টস শ্রমিকদের নিয়ে যা হলও, টেস্ট কিট আর PPE নিয়ে যা হলও, পথে ঘাটে বাজারে মসজিদে মানুষ যা করছে। সব দোষ ডাক্তারদের দিয়ে লাভ কি। যে রোগের কোনও চিকিৎসা নাই সেক্ষেত্রে ডাক্তারের ভুমিকা মুখ্য নয়, আরও অনেক factor আছে। সরকারের ভূমিকা বা দায়িত্ব সবচেয়ে বেশী। নিউইয়র্ক এর ডাক্তাররা কি খারাপ। তবে এই অবস্থা কেন? কারণ সার্বিক ব্যবস্থাপনা ঠিক মত হচ্ছে না উঁচু পদের লোকদের দ্বারা। সময় মত বিপদের গুরুত্ব বোঝার ক্ষেত্রেও ভুল সিদ্ধান্ত ছিল।

০৯ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ২:১০

অনল চৌধুরী বলেছেন: আমি বলেছি,ওই দুই দেশ করোনা মোকাবেলার সঠিক পদ্ধতি জানে,যা বহুগণে উন্নত হওয়ার পরও সন্ত্রাসী এ্যামেরিকা জানে না।
এজন্যই ওদের সাহায্য নিলে শেখা যাবে।

২০| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১০:৪৬

সোনালি কাবিন বলেছেন: লেখক বলেছেন: STILL I AM THE HAPPIEST PERSON ON EARTH SEEING THE BUTCHERS,LOOTERS AND BABY KILLERS DYING LIKE PIGS,WHO MADE THE WORLD HELL ONLY FOR THEIR GREED.

AND BE SURE,THIS IS THE END OF THERE TERRORISM ON THE WORLD AND THEY WILL NEVER BE ABLE TO SPREAD THEIR POISONOUS BREATH TO ANY OTHER COUNTRY

মাইনাস

০৯ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ২:০৮

অনল চৌধুরী বলেছেন: ধন্যবাদ।
আপনার স্বাধীন মত প্রকাশের অধিকার আছে।
আমি গাজি না যে ভিন্নমত, শুনলেই গালি দেয়া শুরু করবো।

২১| ০৯ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১২:৪২

বংগল কক বলেছেন: আম্রিকা ইউরুপ এতদিন নিজেদের বানানো কাল্পনিক টেররিস্টদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে, এখন সত্যিকারের টেরর কি জিনিস তা হাঁড়ে হাঁড়ে টের পাইতেছে। সারা দুনিয়ায় আম্রিকা ইউরুপের যত দালাল আছে তারাও অতি শিঘ্রই সত্যিকারের টেরর কি জিনিস সেইটা টের পাইতে যাইতেছে। করোনা ভাইরাস রকস!

০৯ ই এপ্রিল, ২০২০ ভোর ৪:২১

অনল চৌধুরী বলেছেন: ধন্যবাদ।
এটা প্রকৃতির ক্রোধ ছাড়া এমনি এমনি হয়নি।
ইউরোপ-এ্যামেরিকা এতো উন্নত হওয়ার পরও আর কোনো দেশের মানুষ সন্ত্রাসীগুলির মতো এভাবে গরু-ছাগলের মতো মরছে না।

২২| ০৯ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১:৪২

রাজীব নুর বলেছেন: ভিয়েতনামে করোনাভাইরাসে কোনো ব্যক্তি এখন পর্যন্ত মারা যায়নি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সর্বশেষ (৭ এপ্রিল) তথ্য অনুযায়ী ভিয়েতনামে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২৪৫। দেশটিতে ইতিমধ্যে ভাইরাস থেকে সুস্থ হয়েছেন ১২৩ জন।

০৯ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ২:১৩

অনল চৌধুরী বলেছেন: একথা লিখেছি।

০৯ ই এপ্রিল, ২০২০ ভোর ৪:১২

অনল চৌধুরী বলেছেন: বিশেষজ্ঞ সাহায্য চেয়ে চীনের কাছে আবেদন করা হয়েছে।
যদিও চীনের পরিবর্তে ভিয়েতনাম বা কিউবা থেকে আনলে আরো ভালো হতো।
ভাইরাস ছড়াতে পারে,এই ভয়ে এখন চীনের জিনিস অনেক দেশই নিচ্ছে না।
যাই হোক আপনাদের সমর্থনের ফলেই এটা সম্ভব হয়েছে।
সবাইকে অনেক ধন্যবাদ

২৩| ১০ ই এপ্রিল, ২০২০ ভোর ৪:৫৮

পলাতক মুর্গ বলেছেন: ভিয়েতনামিদের সাথে আমার কাজ করার সুযোগ হয়েছে। দে আর ভেরি গুড এন্ড সিনসিয়ার এবাউট দেয়ার সাবজেক্টস, এবং এদের মনের মধ্যে কুটিলতা নাই, স্ট্রেইট কাট একটা জাতি। এদের কাছে আমাদের অনেক কিছু শিখার আছে।

১০ ই এপ্রিল, ২০২০ ভোর ৫:৩৫

অনল চৌধুরী বলেছেন: ধন্যবাদ।
ওরা আফগানদের মতোই পৃথিবীর অন্যতম স্বাধীনচেতা জাতি।
এ্যামেরিকার সন্ত্রাসের কারণে ওদের অস্তিত্বই নির্মুল হওয়ার অবস্থা হয়েছিলো কিন্ত শেষ পর্যন্ত তারাই এই বিশ্ব সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে বিজয়ী হয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.