নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সাহসী সত্য।এই নষ্ট দেশ-জাতি-সমাজ পরিবর্তনের প্রচেষ্টাকারী একজন যোদ্ধা।বাংলাদেশে পর্বত আরোহণের পথিকৃত।

অনল চৌধুরী

লেখক,সাংবাদিক,গবেষক,অনুবাদক,দার্শনিক,তাত্ত্বিক,সমাজ সংস্কারক,শিক্ষক ও সব অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী যোদ্ধা

অনল চৌধুরী › বিস্তারিত পোস্টঃ

প্রকৃত ধার্মিক থাকলে দেশ পাল্টে যেতো

১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:২৩



বক-ধার্মিকরা কোনোদিনও দেশের কোনো ভালো করতে পারেনা ,কিন্ত ক্ষতি করে সবসময়ই।

আজ দুপুরে মার্কেটের দোকানে গিয়ে শুনি ,উপরে ১০০-এর বেশী লোক ধম্ম-কম্ম করছে।

অথচ সরকার এজন্য একসাথে ৫ জনের বেশী একত্রিত হতে নিষেধ করেছে।

দোকানের মালিক বললেন,আমি ২ টার সময় দোকান বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর বাসায় গিয়ে ধম্ম-কম্ম করবো। কিন্ত আমার কর্মচারী বেশী ‘‘ধার্মিক’’। তাই নিষেধ করলেও শোনেননা।

নিয়মিত শুধু আনুষ্ঠানিক ধর্মচর্চা করলে চুরি-ঘুষ-দুর্নীতি-পরীক্ষায় নকল-সন্ত্রাস-মদ-মাদক খাওয়া বা ব্যাভিচার কোনো কিছুই অপরাধ না-বাংলাদেশের প্রায় প্রতিটা শিশু ছোটোবেলা থেকে এই বিকৃত ও ভুল ধারণা নিয়ে বেড়ে উঠে।

এজন্যই এদেশে বক-ধার্মিকের সংখ্যা এতো বেশী, যারা অবাধে এসব অপকর্ম করছে।

এরা নিজেরা যেমন এসব অপরাধ করে,তেমনই কখনোই এসব অপরাধের বিরুদ্ধে কোনো কথা বলে না।

বরং হাতে গোণা যে ২/১ জন নিজে সৎ থেকে এসব অপরাধের প্রতিবাদ করে এবং দেশে ন্যায় প্রতিষ্ঠা করতে চায়-এরা তাদের বিরুদ্ধেই সবরকম ষড়যন্ত্র করে।

বাংলাদেশে যদি চোরের হাত কেটে দেয়া,লম্পটদের পাথর ছুড়ে হত্যা করা আর ধর্ষকের শিরোচ্ছেদের আইন থাকতো,তাহলে একদিনের মধ্যে এসব বন্ধ হয়ে যেতো। কিন্ত বক-ধার্মিক এসব আইনের প্রবল বিরোধী।কারণ এই আইন থাকলে সবার আগে তারাই ফাদে পড়বে।

একজন প্রকৃত ধার্মিক যেমন চুরি-ঘুষ-দুর্নীতি-বিদেশে টাকা পাচার-সন্ত্রাস-মদ-মাদক খাওয়া-অন্যের অধিকার হরণের মতো অপরাধ করবেন না,একইভাবে তিনি মানুষকে কোনোরকম ঝুকির মধ্যে ফেলার মতো কাজও করবেন না।

কিন্ত বক-ধার্মিকরা অবিবেচকের মতো ধর্ম চর্চার নামে চুরি-দুর্নীতির মতো এখন দেশে করোনা ছড়ানোর ঝুকি নিচ্ছে।

মন্তব্য ১৬ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (১৬) মন্তব্য লিখুন

১| ১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:৩৪

নেওয়াজ আলি বলেছেন: চোরে না শুনে ধর্মের কথা

১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:৩৫

অনল চৌধুরী বলেছেন: করোনায় মরার পর শুনবে।

২| ১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:৪৫

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: সততার বিকল্প নেই। ধর্ম সততার শিক্ষা দেয়। মনে রাখতে হবে জ্ঞানের শুরু আল্লাহ এক অদ্বিতীয় আর মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তার প্রেরিত পুরুষ এটি জানার ও মানার মধ্যে দিয়ে।

১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:৪৮

অনল চৌধুরী বলেছেন: কিন্ত দেশে সততা মানে কয়জন?
মানলে ১৭ কোটি লোকের একটা দেশ চোর-ডাকাত-লম্পট-নেশাখোরে ভর্তি আর দেশের এই শোচনীয় অবস্থা হয়?

৩| ১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১০:১১

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
কিছু নাস্তিক বুঝতে পারেনা কোনটা ধার্মিক আর কোনটি বক ধার্মিক।
তাই তাদের কথাবার্তা অনেক সময় প্রকৃত ধার্মিকদের আঘাত হানে।
যা মোটেই ঠিক নয়। অতিরিক্ত বাড়াবাড়ি কোন কিছুতেই ঠিক নয়
তা ধর্মই হোক বা সমােলোচনাই হোক।

১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১০:২৫

অনল চৌধুরী বলেছেন: যারা চুরি-ঘুষ-দুর্নীতি-সন্ত্রাস-মদ-মাদক খাওয়া বা ব্যাভিচার করে, আবার নিজেকে ধার্মিক বলে দাবী করে-পৃথিবীর সব ধর্ম অনুযায়ী তারা ভন্ড এবং বক-ধার্মিক।

৪| ১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১০:২৩

কহেন কবি কালীদাস বলেছেন: সততার কথা বলে আমাদের লজ্জা দেবেন না!
আমাদের মতো অসৎ এই দুনিয়ায় আর আছে কিনা সন্দেহ আছে আমার।
প্রমান, রমজান মাসে সব মুসলিম দেশে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস পত্রের দাম কমে কিন্তু আমাদের দেশে বাড়ে। আগে শুধু রমজানের আগে বাড়ত আর এইটা নিয়ে কথা হতো। এরপর আমাদের ধুরন্ধর ব্যাবসায়িরা রমজান মাসে দাম বাড়ায় না, এক দুই মাস আগেই দাম বাড়ায় যাতে পাব্লিক বলতে না পারে রমজান মাসে দাম বাড়ছে। এবারও একি অবস্থা।বরং এবার আরও রমরমা অবস্থা আমাদের দেশের ব্যাবসায়িদের। ছাল,তেল, ডাল , ছোলা, চিনি কিসের দাম বাড়ে নাই!!

মাঝে মাঝে খুব হতাস লাগে, ট্যাক্স দিই কিন্তু কোন লাভ নাই। লাভের গুঁড় পিঁপড়ায় খাবে।

১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১০:২৮

অনল চৌধুরী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ।
রমজান মাসে সব মুসলিম দেশে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস পত্রের দাম কমে কিন্তু আমাদের দেশে বাড়ে। আগে শুধু রমজানের আগে বাড়ত আর এইটা নিয়ে কথা হতো। এরপর আমাদের ধুরন্ধর ব্যাবসায়িরা রমজান মাসে দাম বাড়ায় না, এক দুই মাস আগেই দাম বাড়ায় যাতে পাব্লিক বলতে না পারে রমজান মাসে দাম বাড়ছে। এবারও একি অবস্থা।বরং এবার আরও রমরমা অবস্থা আমাদের দেশের ব্যাবসায়িদের। ছাল,তেল, ডাল , ছোলা, চিনি কিসের দাম বাড়ে নাই!! - জন্মের পর থেকেই এই অবস্থা দেখে আসছি।
অথচ এরা সবাই আবার ধর্মীয় লেবাসধারী হয়।
খ্রীষ্টান দেশগুলিতেও উৎসবের সময় সবকিছুর দাম কমে কিন্ত বাংলাদেশের মোনাফেকগুলি ধান্ধায় থাকে,কিভাবে চুরি করা যায়।

৫| ১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১১:০০

ব্লগার_প্রান্ত বলেছেন: সত্য লিখেছেন


নবাব সিরাজ কি বাংলায় কথা বলতেন জনাব? জানার আগ্রহ ছিলো

১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১১:২৩

অনল চৌধুরী বলেছেন: আমার গবেষণা মতে না।
কারণ তাদের পারিবারিক ভাষা ছিলো ফার্সী।
তবে আপনি এব্যাপারে তার বংশধরের সাথে কথা বলে দেখতে পারেন।
https://www.youtube.com/watch?v=wWneFKlR36g

৬| ১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১১:১৪

নুরুলইসলা০৬০৪ বলেছেন: বাংলাদেশিরা পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি ধার্মিক।তাইতো সুইডেনের থেকে সততায় আমরা কয়েকধাপ এগিয়ে।সুইডেনে আবার নাস্তিক বেশি।

১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১১:২৫

অনল চৌধুরী বলেছেন: এসব সত্য কথা বললে আবার ভন্ড-বক-ধার্মিকদের গায়ে লাগে !!!!!!!!!!!

৭| ১৬ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ২:১৮

রাজীব নুর বলেছেন: ধার্মিক মানেই জ্ঞানের অভাব।
ধার্মিক মানেই কুসংস্কার বিশ্বাসী।
ধার্মিক মানেই গোয়াড়।

১৬ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ২:৪৮

অনল চৌধুরী বলেছেন: কিছু ব্যাতিক্রম আছে।
এধরণের গোয়ারদের সাথে তসলিমা-হু আযাদের কোনো পার্থক্য নাই।
একই মুদ্রার দুই পিঠ।

৮| ১৬ ই এপ্রিল, ২০২০ ভোর ৬:৪৭

অগ্নিবেশ বলেছেন: ধর্ম সততার শিক্ষা দিতে ব্যর্থ, ধর্মকে ছুড়ে ফেলে দিন।

১৭ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১২:২৬

অনল চৌধুরী বলেছেন: বিবেক-নীতি-নৈতিকতা-সততা-দেশপ্রেম-মানবতা-পরোপকার-সৎ চিন্তা--সৎ কর্ম আর চুরি-ঘুষ-দুর্নীতি--নকল-সন্ত্রাস-মদ-মাদক খাওয়াপরচর্চা-পরশ্রীকাতরতা এবং ব্যাভিচার থেকে বিরত থাকাই প্রকৃত ধর্ম।
এসব কয়জন মানে?
আমি এখনো ৯৮% মানি।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.