নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সাহসী সত্য।এই নষ্ট দেশ-জাতি-সমাজ পরিবর্তনের প্রচেষ্টাকারী একজন যোদ্ধা।বাংলাদেশে পর্বত আরোহণের পথিকৃত।

অনল চৌধুরী

লেখক,সাংবাদিক,গবেষক,অনুবাদক,দার্শনিক,তাত্ত্বিক,সমাজ সংস্কারক,শিক্ষক ও সব অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী যোদ্ধা

অনল চৌধুরী › বিস্তারিত পোস্টঃ

ব্যাতিক্রম ছাড়া প্রতিটা সরকারী কর্মচারীই ঘুষখোর-দুর্নীতিবাজ

০৭ ই আগস্ট, ২০২০ রাত ৩:৪৩

পুলিশ সদস্যরা বিপথে যায় কীভাবে?
পুলিশের গুলিতে টেনাফে এক সাবেক সেনা কর্মকর্তার মৃত্যুর পর এদেশের হুজুগে জনগণ পুরানো অভ্যাসমতো এমন আচরণ শুরু করেছে যেনো তারা ছাড়া এদেশের অন্যান্য সব বিভাগের কর্মচারীরা সাধু !!!!

কিন্ত সত্য হচ্ছে যে,শুধু পুলিশ না,হাতে গোণা ২/১ জন ছাড়া প্রতিটা সরকারী কর্মচারী ঘুষখোর-দুর্নীতিবাজ ।তারা আবার তাদের সামনে একথা বললে খুব অপমাণ বোধ করে এবং মন্তব্যকারীর উপর ক্ষেপে যায়। ভাবটা এমন যে চুরি করা অন্যায় না,চোরকে চোর বলাই অন্যায় !!!

তারা যদি জাননেই চুরি করা অপরাধ,তাহলে তারা এসব করে কেনো?

সচিব-বিচারক-জেলা প্রশাসকসহ সরকারী সব স্তরের কর্মচারীরাই যে জনগণের চাকর,এটা কেউই মনে রাখে না।

তাদের বেশীরভাগের আচরণ দেখে মনে হয়,তারাই দেশের মালিক আর জনগণ তাদের প্রজা।তাই তারা নিজেদের ইচ্ছামতো বিভিন্ন অপকর্ম করছে।

তাদের কোনো জবাবহিতাও নাই।

অধিকাংশ ক্ষেত্রে কোনো সরকারী কর্মচারীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হলে তদন্ত প্রতিবেদনে তাদের পক্ষে লেখা হয় যে,অভিযোগের পক্ষে কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি এবং অভিযোগ মিথ্যা,ভিত্তিহীন ও উদ্দ্যেশ্য প্রণোদিত।

আমি নিজে ২০০২ সাল থেকে যতোগুলি সরকারী চিকিৎসক,শিক্ষক,পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়েছি একই উত্তর পেয়েছি।এভাবে স্ব-গোত্রীয়রা অভিযোগকারীকেই অপরাধী বানিয়ে নিজেদের পেশার অপরাধীদের রক্ষা করে এবং তাদের আরো বড় অপরাধ করতে অপরাধে উৎসাহ দেয়।

শুধু টেকনাফের ওসি বা এস আই না, সরকারী কর্মচারীদের মধ্যে অনেক খুনী আছে,যারা খুন করেও কোনো শাস্তি না পেয়েই মহানন্দে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

এদের মধ্যে এক মহিলাও আছে।

সরকারী কর্মচারী অন্য কোনো পেশায় জড়িত হওয়া ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও নিষেধ থাকলেও দুই সরকারী কর্মচারী যোগাযোগ মাধ্যমে ঘোষণা দিয়ে প্রকাশ্যে ব্যবসা করছে।

মনে হয় ,দেশটা তাদের বাপ-দাদার কেনা সম্পত্তি,তাই তারা খুনের মতো বড় অপরাধ করেও ফাসীতে ঝোলার পরিবর্তে আনন্দ করছে।

গত ১২ বছরে বেতন ২০০ গুণ বাড়ানো,৫% সুদে বাড়ি বানানোর বা ফ্ল্যাট কেনার জন্য ঋণ,ফ্ল্যাট কিনতে সরকারি কর্মচারীরা ঋণ পাবেন ৫% সুদেউপ-সচিব থেকে তার উপরের সবর জন্য গাড়ি কিনতে ৩০ লাখ টাকা ঋণপ্রদান এবং গাড়ি পালার জন্য মাসে নগদ ৫০ হাজার টাকা সরকারি টাকায় কেনা গাড়ি নিয়ে আমলাদের তেলেসমাতিএবং মোবাইল ফোন কিনতে ৭৫ হাজার টাক এমনকি তাদের মোবাইল কিনতে ৭৫ হাজার টাকা পাবেনমোবাইল বিল দেয়ার মতো জনগণের করের টাকায় এতো জমিদারী সব সুযোগের পরও তাদের আচরণের একবিন্দু পরিবর্তনও হয়নি। তাই এদের অনেক প্রকাশ্য রাস্তায় তাাদের মালিক জনগণকে মারধর,কান ধরে উঠ-বস করানো এমনকি তাদের হত্যা করার মতো ধৃষ্টতাও দেখায়।

প্রতিটা সরকারী প্রতিষ্ঠানে ঘুষখোর-দুর্নীতিবাজ-অপরাধীদের তালিকা করে ছবিসহ না ঝোলানো পর্যন্ত এদের স্বভাবের কোনো পরিবর্তন হবেও না। এদের প্রদত্ব এসব সুবিধা বাতিল করতে হবে এবং এদের বাসে করে কর্মস্থলে যাতায়াতের ব্যবস্থা করতে হবে।একইসাথে এদের কারাগারে পাঠানো,সব সম্পদ বাজেয়াপ্ত করা এবং এদের ছেলে-মেয়েদেরও সরকারী চাকরী লাভের সুযোগ থেকে বঞ্চিত করতে হবে।

মন্তব্য ২০ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (২০) মন্তব্য লিখুন

১| ০৭ ই আগস্ট, ২০২০ ভোর ৫:৫১

চাঁদগাজী বলেছেন:



গত ৫০ বছর ক্রমেই এগুলো ঘটতে ঘটতে এখানে এসেছে; বাংগালীরা সরকারী চাকুরী পেলে, বেশীরভাগ সময় ব্যয় করে নিজের ফ্যামেলীর ভালো জন্য, সরকারী কাজে সময় দেয় না।

০৭ ই আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:১৮

অনল চৌধুরী বলেছেন: অপরাধের শাস্তি না হলে অপরাধীরা উৎসাহিত হবে, এটাই স্বাভাবিক।

২| ০৭ ই আগস্ট, ২০২০ সকাল ১১:০৩

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: কিছু অংশ দুইবার কপি-পেস্ট হয়েছে।

সরকার অফিসের কিছু কিছু জায়গায় ঘুষের সুযোগ নেই নাই তারা ঘুষ খেতে পারে না। যে সব অফিসে সুযোগ আছে তাদের ৯৫% দুর্নীতিতে জড়িত। ভালো মানুষ খুব কম আছে। অনেকে সুযোগ না পেয়ে ভালো অনেকে সত্যিই ভালো। সরকার গণতান্ত্রিক ভাবে না আসলে তারা আমলা, পুলিশ এদের উপর নির্ভর করে চলে।

০৭ ই আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:২৪

অনল চৌধুরী বলেছেন: ধন্যবাদ ।ঠিক করেছি।

স্বাস্থ্য,শিক্ষা,পুলিশ,বিচার বিভাগ,কাষ্টমস, রাজস্ব,পূর্ত,-রাজউক- এসব বিভাগ সবসময়ই চরম দুর্নীতিগ্রস্ত।
প্রতিদিন দুর্নীতি বাড়া ছাড়া কমার কোনো লক্ষণ নাই। এজন্যই বেতন বাড়ানো অর্থহীন বলেছি।

৩| ০৭ ই আগস্ট, ২০২০ সকাল ১১:১৩

ঢাবিয়ান বলেছেন: সরকারী কর্মচারী এখন দুই প্রকার। এক প্রকার হচ্ছে যারা দুর্নিতির সাথে জড়িয়ে প্রবল ক্ষমতাবান হয়ে শুধু অডেল টাকা পয়সা কামানো নয়, সকল উচ্চপদ্গুলোরও দখল নিয়েছে। আরেক প্রকার হচ্ছে যারা জান ও পেট বাচাঁতে বোবা কালা সেজে নিরবে কো্নমতে কাজ করে যাচ্ছে।

০৭ ই আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:৩৪

অনল চৌধুরী বলেছেন: এখন আর বোবা -কালা সরকারী কর্মচারী কম।বেশীর ভাগই উগ্র স্বভাবের দুর্নীতিবাজ আর কিছু নম্র স্বভাবের।কিন্ত দুইদলই ঘুষখায় আর দুর্নীতি করে।

৪| ০৭ ই আগস্ট, ২০২০ সকাল ১১:১৯

মুজিব রহমান বলেছেন: একটা অন্যায়ের প্রতিবাদ হওয়া অবশ্যই না হওয়ার চেয়ে ভাল।

০৭ ই আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:৩৫

অনল চৌধুরী বলেছেন: তনু হত্যার প্রতিবাদ কি সবাই করেছে? এতোদিনেও তার হত্যার বিচার হয়নি কেনো? সে একজন মাধারণ পরিবারের মেয়ে ছিলো,সেজন্যই তো!!!!

৫| ০৭ ই আগস্ট, ২০২০ দুপুর ১২:০০

রাজীব নুর বলেছেন: এই দেশ পচে গলে গেছে।
পরিত্রানের উপায় নাই। সুন্দরভাবে বাঁচতে হলে এই দেশ ছেড়ে পালাতে হবে।

০৭ ই আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:৩৬

অনল চৌধুরী বলেছেন: বারবার বলেছি,জনগণ চাইলে মাত্র ১ দিনেই সব পাল্টে যাবে।
না চাইলে কেয়ামত পর্যন্ত পাল্টাবে না।

৬| ০৭ ই আগস্ট, ২০২০ দুপুর ২:৪০

ভুয়া মফিজ বলেছেন: কথা পুরাই সত্য বলেছেন। তবে লেখাটা আংশিকভাবে দুইবার এসেছে, ঠিক করে ফেলুন।

০৭ ই আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:৩৭

অনল চৌধুরী বলেছেন: ধন্যবাদ।
ঠিক করেছি।

৭| ০৭ ই আগস্ট, ২০২০ দুপুর ২:৪৩

অপু তানভীর বলেছেন: কথাটা আরও ভাল ভাবে বললে ব্যতিক্রম ছাড়া এদেশের সব মানুষ হচ্ছে দুর্নীতি গ্রস্থ। কেবল সরকারী কর্মচারিদের কথা বলে লাভ কি ! সরকারী বেসরকারী ব্যবসায়ী সুযোগ পেলে কেউ দূর্নীতি করতে ছাড়ে না ! যারা ভাল তারা সুযোগের অভাবে ভাল !

০৭ ই আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:৪২

অনল চৌধুরী বলেছেন: এটাতো অবশ্যই।তবে সরকারী কর্মচারীরা যেহেতু দেশ চালায় আর জনগণের করের টাকা থেকে বেতন পায়,তাই তাদের দায়িত্ব অনেক বেশী।
একজন ব্যাবসায়ী জিনিসের দাম ১০-২০০ টাকা বেশী রাখলে জনগণ শুধু আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে।কিন্ত একজন সরকারী কর্মচারী দুর্নীতি করলে পুরো দেশ সবদিক দিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

৮| ০৭ ই আগস্ট, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:১০

কবিতা পড়ার প্রহর বলেছেন: যারা ভাল তারা সুযোগের অভাবে ভাল ! অপু তানভীর ভাই ঠিক বলেছেন।

০৭ ই আগস্ট, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৩৭

অনল চৌধুরী বলেছেন: বেশীরভাগ কিন্ত সবাই না।
যতোদিন পৃথিবী থাকবে,ততোদিন ভালো লোকও থাকবে , সংখ্যায় যতোই কম হোক না কেনো।

৯| ০৭ ই আগস্ট, ২০২০ রাত ১০:৪৯

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
সুযোগের অভাবে অনেকেই এখনও সৎ আছে।

০৮ ই আগস্ট, ২০২০ রাত ৩:২৫

অনল চৌধুরী বলেছেন: সুযোগ পেলেও কোনো দুর্নীতি বা অপরাধ করেন না,এমন লোকও আছেন।
আমি গর্বে সাথে নিজের নাম বলতে পারি,যে জীবনে কোনোদিন চুরি-দুর্নীতি বা পরীক্ষায় নকল করেনি।কোনো মেয়ের অসন্মান করেনি।
বরং গত প্রায় তিন দশক ধরে দেশে ন্যায় প্রতিষ্ঠার জন্য লেখালেখি এবং কাজের মাধ্যমে চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েও লড়াই করছে।

১০| ০৮ ই আগস্ট, ২০২০ রাত ১০:১৩

প্রবালরক বলেছেন: ঘুষ খাননা বা খেতে চাননা বলে অনেকে চরম হয়রানীর শিকার হন।

এমনকি লাশ হয়ে যাবার উদাহরনও আছে।

০৯ ই আগস্ট, ২০২০ রাত ২:৫৩

অনল চৌধুরী বলেছেন: একজন নীতিবান ব্যাক্তি যদি একা ১০ জন দুর্নীতিবাজের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেন,তখন তাকে মরতেই হয়,যেমন মরেছেন গাজীপুর সিটি করপোরেশনের প্রকৌশলী।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.