নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সাহসী সত্য।এই নষ্ট দেশ-জাতি-সমাজ পরিবর্তনের প্রচেষ্টাকারী একজন যোদ্ধা।বাংলাদেশে পর্বত আরোহণের পথিকৃত।

অনল চৌধুরী

লেখক,সাংবাদিক,গবেষক,অনুবাদক,দার্শনিক,তাত্ত্বিক,সমাজ সংস্কারক,শিক্ষক ও সব অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী যোদ্ধা

অনল চৌধুরী › বিস্তারিত পোস্টঃ

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করা পশ্চিমাদের বিকৃতির আরেক রূপ

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ৩:৪১



পশ্চিমের জানোয়ারগুলি ইচ্ছাকৃতভাবে বারবার অন্য ধর্মের অনুসারীদের অনুভূতিতে আঘাত করে উত্তেজিত করার চেষ্টা করে।

কিন্ত নিজেদের ধর্মের বেলায় তাদের আচরণ এর সম্পূর্ণ বিপরীত।

১৯৮৮ সালে মার্টিন স্করসেস পরিচালিত হলিউড ছবি The Last Temptation of Chirst মুক্তির পর যিশুখ্রিষ্টকে অসন্মানের অভিযোগে অনেক এ্যামেরিকান বিক্ষোভ করে। ফলে সেদেশের অনেক প্রেক্ষাগৃহ ছবিটা প্রদর্শন করা হয়নি। এ্যামেরিকার কয়েকটা রাজ্য এবং গ্রীস, মেক্সিকো, চিলিসহ সহ অনেক দেশে ছবিটা নিষিদ্ধ করা হয়।

ছবিটা মুক্তির পর এামেরিকাসহ বিভিন্ন খ্রিষ্টান দেশে বিক্ষোভ প্রতিবাদ হয়। ফরাসীরা সবচেয়ে সহিংস প্রতিবাদ করেছিলো। ২২ অক্টোবর ক্যাথলিকদের একটা দল প্যারিসের সেন্ট মাইকেল প্রেক্ষাগৃহে মধ্যরাতের পর দাহ্য পদার্থ দিয়ে আগুন লাগিয়ে দেয়। এতে আগুনে পুড়ে ৪ জন মহিলাসহ ১৩ জন মারাত্বকভাবে আহত এবং প্রেক্ষাগৃহ ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

পরিচালক স্করসেসকে হত্যার হুমকি দেয়া হয় এবং তিনি দেহরক্ষী নিয়ে চলাফেরা করতে থাকেন। তখন তাদের মুক্ত চিন্তা, গণতন্ত্র কোথায় ছিলো?'Last Temptation' triggers unprecedented violence in France

অথচ এরা মানসিক বিকৃতির কারণে বারবার অন্য ধর্মের অুনুভূতিতে আঘাত করে।

ফরাসীরা অত্যন্ত ধুরন্ধর এবং ঠান্ডা মাথার খুনী-গণহত্যাকারী জাতি। ইংরেজরা যদি হুংকার দিয়ে মানুষ মারে তাহলে ফরাসীরা মারে গান গাইতে গাইতে। নিজেদের কূকর্ম ঢাকার জন্য বিরাট শিল্প-সংস্কৃতিমনা জাতি বলে পরিচয় দিতে চায় !!!

সাম্য স্বাধীনতা মৈত্রী-এসব বড় বড় বুলি ঝেড়ে মানুষকে ধোকা দিয়ে এরা বৃটিশদের মতোই সারা পৃথিবী দখল করতে চেয়েছিলো এরা। কিন্ত তাদের সাথে যুদ্ধে হেরে সেই পরিকল্পনা সফল হয়নি।

এদের মিথ্যাচার ও সন্ত্রাসী মানসিকতা প্রমাণ পাওয়া যায় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরও আফ্রিকার তিউনিসিয়া, আলজেরিয়া ও মরক্কোসহ বিভিন্ন দেশ দখলে রাখার জঘন্য অপচেষ্টা থেকে , যারা নিজেরাই নাৎসী জার্মানীর দখলে ছিলো।

বিশেষ করে আলজেরিয়ায় এদের বর্বরতা ছিলো মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানীদের মতোই। যে চার্লস দ্য গল হিটলারের বিরুদ্ধে স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধ করেছে, সেই আবার বড় সন্ত্রাসীর মতো আলজেরিয়ার স্বাধীনতা সংগ্রাম দমন করার চেষ্টা করেছে। তারপরও ফরাসী বর্বরদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে ১৯৬২ সালে দেশটা স্বাধীন হয়।

এখনো এরা নিয়মিতই আফ্রিকার বিভিন্ন দেশের আভ্যন্তরিণ বিষয়ে নির্লজ্জ হস্তক্ষেপ করে এমনকি সৈন্যও পাঠায়।

নাস্তিক বা আস্তিক হওয়া যেকোনো ব্যাক্তির ব্যাক্তিগত স্বাধীনতা। কোনো সভ্য দেশের আইনই এতে বাধা সৃষ্টি করতে পারে না।

বিভিন্ন ধর্মে উল্লেখিত বর্ণভেদ প্রথা, নারীর-পুরুষের অধিকারের বৈষম্য নিয়ে নিরপেক্ষ ও বিজ্ঞানসম্মত ভাবে অনেকেই সমালোচনা করে। কিন্ত্ সেজন্য নির্দিষ্ট কিছু ব্যাক্তি ছাড়া কেউ যুক্তিসঙ্গত সমালোচনার জন্য নাস্তিকদের উপর ক্রুদ্ধ হয়না। এছাড়া পূর্ব-পশ্চিম এমনকি অনেক আরব দেশেও ধর্মের মূলনীতি লংঘণ করে বিভিন্ন আইনও প্রণয়ণ করা হয়েছে।



তবে বিকৃতভাবে কোনো ধর্মের সন্মানিত কাউকে হেয় করা কোনো প্রকৃত জ্ঞানী নাস্তিকও সমর্থন করতে পারে না।


পশ্চিমারা শুধু ইসলাম না, সুযোগ পেলেই পূর্বের বিভিন্ন ধর্মকেই অপমাণিত করেছে। হিন্দু ধর্মের দেব-দেবীর নাম অনুযায়ী মদের নামকরণ করেও তাদের দেব-দেবীকে হেয় করার চেষ্টা করেছে।

২০১৯ সালের ফ্রেব্রুয়ারীতে এ্যামেরিকার ভর্জিনিয়ার একটা উৎপাদক প্রতিষ্ঠান হিন্দু দেবতা হনুমানের নামে বিয়ার বানিয়ে পরে প্রতিবাদের কারণে ক্ষমা চেয়েছে।Brewery apologizes for beer sharing name with Hindu deity


১৮৮৮ সাল থেকেই ব্রাজিলের একটা প্রতিষ্ঠান হিন্দু দেবতা ব্রক্ষা'র নাম অনুযায়ী বিয়ার বানাচ্ছে, যার বিরুদ্ধেও এবছরের জুলাইতে খ্রিষ্টান, বৌদ্ধ, হিন্দু ও জৈন ধর্মের অনুসারীরা প্রতিবাদ করে এর নাম পরিবর্তনের দাবী করেছে। Campaign brewing to get Hindu god Brahma off popular beer

২০২০ সালের ইউক্রেনের আরেকটা প্রতিষ্ঠান হিন্দু দেবী কালীর নামে বিয়ার তৈরী শুরু করে। এর বিরুদ্ধেও প্রতিবাদ হয়।

Upset Hindus urge Ukraine brewery to withdraw beer named after goddess
তবে এই অপকর্মে চীনারাও কম যায়নি। তারাও ২০০৫ সাল থেকে লাকি বুদ্ধা নামে একটা বিয়ার তৈরী শুরু করে, যদিও চীনের ১৫% লোক এবং এশিয়ার অনেক দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষ বৌদ্ধ ধর্মের অনুসারী।


চীনাদের অনুসরণ করে ফ্লোরিডার একটা প্রতিষ্ঠানও ২০১০ থেকে ফান্কি বুদ্ধা নামে বিয়ার বানায়।

অথচ এরা কখনোই নিজেদের ধর্মের পবিত্র ব্যাক্তিদের এভাবে অসন্মানিত করেনা।

মুলত বিজ্ঞান-প্রযুক্তিতে উন্নত হলেও এসব দেশের বেশীরভাগ মানুষ প্রচন্ড বর্ণবাদী এবং এবং সন্ত্রাসী মানসিকতাসম্পন্ন।

এজন্যই এ্যামেরিকা-বৃটেন-ফ্রান্স-ক্যানাডাসহ ইউরোপ ও এ্যামেরিকার বিভিন্ন দেশে একের পর এক স্বাধীন দেশ দখল, বোমা মেরে ধ্বংস এবং সেসব দেশে অবাধে গণহত্যা ও লুটপাট চালালেও তাদের জনগণ এগুলির কোনো প্রতিবাদ না করে সমর্থন করে।

অন্য ধর্মের পবিত্র ও সন্মানিত বলে বিবেচিতদের বিভিন্নভাবে হেয় করাও এদের এই বিকৃতি ও সন্ত্রাসী মানসিকতারই আরেকটা রুপ।

এরা সম্পূর্ণ ধ্বংস না হওয়া পর্যন্ত এদের বর্বরতা থেকে পৃথিবীর মানুষ রক্ষা পাবে না।

মন্তব্য ৭২ টি রেটিং +৪/-০

মন্তব্য (৭২) মন্তব্য লিখুন

১| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৪:৪৬

এ আর ১৫ বলেছেন:


বুঝলাম তারা সব ধর্মকে ব্যাঙ্গ করে, এর জন্য ঐ সব ধর্মের মানুষ খুন করতে গিয়েছে বুঝলাম তারা সব ধর্মকে ব্যাঙ্গ করে, এর জন্য ঐ সব ধর্মের মানুষ খুন করতে গিয়েছে

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৫:৩৩

অনল চৌধুরী বলেছেন: সাদারাই দেশে দেশে খুন করতে গেছে।
ইংরেজরা ভারতে মেরেছে ১০০ কোটি।
এ্যামেরিকাই ৭৩ বছরে ৩ কোটি লোক মেরেছে।
করোনার কারণে খুনাখুনি বন্ধ আছে।
গেলে আবার শুরু করবে।

২| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৪:৪৯

এ আর ১৫ বলেছেন:
তারা নাকি নিজ ধর্মকে ব্যাঙ্গ করে না, এই দাবি কোরছেন তাহোলে উপরের ছবিটা কি? তারা কি জেসাসের ক্রুশ বিদ্ধতা নিয়ে কার্টুন আকেনি?
অন্য ধর্মকে সবচেয়ে বেশি গালাগালি হয় ওয়াজ মহফিলে

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৪:৫২

অনল চৌধুরী বলেছেন: নিজের ধর্মকে যা ইচ্ছা বলুক, কিন্ত অন্য ধর্মকে গালি দেয়া অসভ্যতা।
যিশু খ্রিষ্টকে এক ইহুদীরা ছাড়া অন্য ধর্মের অনুসারীরাও সন্মান করে।

৩| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৪:৫৫

চাঁদগাজী বলেছেন:



আপনি দার্শনিক মানুষ, এসব ছোটখাট ব্যাপার নিয়ে সময় নষ্ট করছেন কেন?

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৫:২৯

অনল চৌধুরী বলেছেন: দার্শনিককে দেশ-জাতি-সমাজ এবং বিশ্বের সব বিষয় নিয়ে ভাবতে এবং মত প্রকাশ করতে হয়।
এভাবে সাম্প্রদায়িক উস্কানী দেয়া ছোটো বিষয় হলো কিভাবে?

৪| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৫:৩৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


ধর্মে দর্শন আছে?

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৫:৪১

অনল চৌধুরী বলেছেন: জরথুস্ত্র, কনফুসিয়াস, লাওৎসে, বুদ্ধ পড়লে বুঝবেন, তাদের দর্শন গ্রীকদের চেয়ে উন্নত ছিলো কিনা।

৫| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৫:৪৫

চাঁদগাজী বলেছেন:



আমি পড়ে বুঝতে চাচ্ছি না, আপনি দার্শনিক মানুষ, আপনাকে প্রশ্ন করছি, "ধর্মে দর্শন আছে? " পারলে উত্তর দেন, না পারলে অফ যান, কি পড়তে হবে, কি বুঝতে হবে, সেগুলো উত্তর নয়।

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৬:০২

অনল চৌধুরী বলেছেন: ধর্ম জিনিসটাই একটা দর্শন।
সব ধর্ম প্রচারকই একেকজন দার্শনিক।
The Buddha (also known as Siddhartha Gotama or Siddhārtha Gautama)[note 3] was a philosopher, mendicant, meditator, spiritual teacher, and religious leader who lived in Ancient India (c. 5th to 4th century BCE).
https://en.wikipedia.org/wiki/Gautama_Buddha

৬| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৫:৪৫

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:

অন্য ধর্মকে সবচেয়ে বেশি গালাগালি হয় ওয়াজ মহফিলে.।


খুবই সত্য কথা বলেছেন।

কিন্তু এই জন্য অন্য ধর্মের মানুষ কিন্তু যে ওয়াজ করেছে তাকে খুন করতে আসে না।‌ চেচনিয়ার যুবকটির ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ করেছে।



যেই প্লেটে খায় আবার সেই প্লেটেই আবার হাগে।

আফসোস!

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৫:৫৫

অনল চৌধুরী বলেছেন: অশিক্ষিতদের কথা আলোচনার অযোগ্য।
কিন্ত বিরাট শিক্ষিত-সংস্কৃতিবান নামধারী ফরাসীরা এসব জংলী আচরণ করে কেনো?

৭| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৫:৫০

চাঁদগাজী বলেছেন:


লেখক বলেছেন, " জরথুস্ত্র, কনফুসিয়াস, লাওৎসে, বুদ্ধ পড়লে বুঝবেন, তাদের দর্শন গ্রীকদের চেয়ে উন্নত ছিলো কিনা। "

-গ্রীকদের কথায় আসি: সক্রেট, প্লুটো, এরিষ্টেটল কি ধর্ম প্রচার করেছিলেন, নাকি রাষ্ট, সমাজ বিজ্ঞান ও নেচারেল সায়েন্স নিয়ে কাজ করেছিলেন?

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৫:৫৬

অনল চৌধুরী বলেছেন: যাদের নাম বলেছি, তাদের মধ্যেও এক বিজ্ঞান ছাড়া অ্ন্য সব দর্শন ছিলো।

৮| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৫:৫০

চাঁদগাজী বলেছেন:



আপনি কি বাংগালীদের সক্রেটিস?

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৫:৫৭

অনল চৌধুরী বলেছেন: প্রত্যেকেই তার যোগ্যতা অনুযায়ী জায়গায় থাকবে।

৯| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৬:০০

চাঁদগাজী বলেছেন:



লেখক বলেছেন, " ধর্ম জিনিসটাই একটা দর্শণ। "

-ধর্ম লজিক্যালী প্রমাণিত নয়; যাহা প্রমাণ করা যায় না, উহা বিজ্ঞান নয়; দর্শন হচ্ছে সব বিজ্ঞানের মা। সুতরাং, ধর্ম দর্শন নয়।

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৬:০৬

অনল চৌধুরী বলেছেন: আপনি বললে হবে না।
সমাজবিজ্ঞানীরা তাদের দার্শনিক আখ্যা দিয়েছেন।জরথুস্ত্র,কনফুসিয়াস একইসাথে দার্শনিক ও ধর্ম প্রচারক ছিলেন।
পড়েন :১।https://en.wikipedia.org/wiki/Gautama_Buddha
২।https://en.wikipedia.org/wiki/Confucius

১০| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৬:০৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনি বলেছেন, "পড়েন :১।https://en.wikipedia.org/wiki/Gautama_Buddha
২।https://en.wikipedia.org/wiki/Confucius "

-ওগুলো কি কোন দার্শনিকের লেখা? এখানে বারট্রান্ড রাসেলের মতো কেহ লিখেছেন?

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৬:২১

অনল চৌধুরী বলেছেন: রাসেলের চেয়ে তারা এখনো অনেক প্রভাবশালী।

১১| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৬:১২

এ আর ১৫ বলেছেন:
 সাদারাই দেশে দেশে খুন করতে গেছে।
ইংরেজরা ভারতে মেরেছে ১০০ কোটি।
এ্যামেরিকাই ৭৩ বছরে ৩ কোটি লোক মেরেছে।
করোনার কারণে খুনাখুনি বন্ধ আছে।
,,,,,,,,,,, কবে কখন সাদারা ধর্ম কে নিয়ে কার্টুন আকার কারনে মানুষ হত্যা করেছে। সাদা বোলতে কি বোঝচ্ছেন? এটা তো বর্ণবাদি কমেন্ট। খ্রিস্টানরাই জেসাস কে নিয়ে অনেক ব্যাঙ্গ করে, তারা কিন্তু খুন করে না।
ইসলামকে নিয়ে ব্যাঙ্গ করলে খুন করতে হবে এমন কথা কোরানের কোথায় আছ্রে? বরং এড়িয়ে চলার কথা আছে এবং ব্যাঙ্গ বিদ্রুপকারির শাস্তি আল্লাহ নিজে দিবেন এবং সেটা আখেরাতে

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৬:২৫

অনল চৌধুরী বলেছেন: সাদা শব্দটা ওদের অভিধান থেকেই নেয়া।White people
https://en.wikipedia.org/wiki/White_people
আমার লেখায় কোথায় খুনাখুনির কথা পেলেন? আমি বলেছি, করোনার কারণে সাদাদের দেশে দেশে গণহত্যা বন্ধ আছে, যেটা গত ৫০০ বছরের মধ্যে এই প্রথম।
ফ্রান্সে যে সিনেমা হলে ১৩ জনতে পোড়ানো হয়েছিলো, ওরা মরলে কি সেটা খুন হতো না ?
ধর্মের কারণেই তো ইরাক,সিরিয়া, লিবিয়ায় কোটি কোটি মানুষকে মারছে।
ক্যানাডা- সুইডেন-নরওয়েতে হামলা করেনা কেনো?

১২| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৬:৩৯

চাঁদগাজী বলেছেন:



রেনেসাঁ ও ফরাসী বিপ্লব আধুনিক ইউরোপের জন্ম দিয়েছে; আধুনিক ইউরোপ হলো বর্তামান সভ্যতার প্রতীক। এশিয়ান ও আফ্রিকান ইমিগ্রেণটরা ইউরোপের সভ্যতাকে হত্যা করবে।

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:১৫

অনল চৌধুরী বলেছেন: আপনার মতো বিশ্বস্ত সেবক থাকতে সেটা পারবে না।

১৩| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৭:৩৫

নুরুলইসলা০৬০৪ বলেছেন: আপনার পোষ্টের প্রথম বাক্যটি খাঁটি মুসলমানী বাক্য।

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:১২

অনল চৌধুরী বলেছেন: আমার পুরো লেখা সব ধর্মের সন্মানিতদের অসন্মান করার বিরুদ্ধে ।

১৪| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৮:৩৭

অগ্নিবেশ বলেছেন: ধর্মানুনুভূতি

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:৩০

অনল চৌধুরী বলেছেন: নৈতিকতা ও অসভ্যতার বিরোধিতা।

১৫| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১০:৩১

নূর আলম হিরণ বলেছেন: ফ্রান্সের জনগন সরকার সবাই একযোগে ক্ষেপেছে কেন মুসলিমদের উপর? এর কারণ নিয়ে আগে আলোচনা করেন, কারণটি বের করুন। ফ্রান্সের বর্তমান সরকার কিন্তু উদারপন্থী সরকার। বর্তমান প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে কিন্তু সংখ্যা লঘুদের বেশি সুযোগ সুবিধা দেওয়ার বিস্তর অভিযোগ আছে, সে মানুষটিও কেন এমন কঠোর হয়ে গেল সেটা খুঁজে বের করুন।
ফ্রান্সকে বয়কটের পক্ষেত লোক আপনি?

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:৪০

অনল চৌধুরী বলেছেন: ফরাসীরা ইংরেজদের চেয়েও অনেকক্ষেত্রেই বেশী বর্বর দেশ দখলকারী ছিলো। এদের অতীত ইতিহাস তার প্রমাণ। এখনো সেই স্বভাব যায়নি।
আমি ফ্রান্সকে বয়কটের না, এ্যামেরিকা বৃটেন ফ্রান্স সহ সব সন্ত্রাসী গণহত্যা ও দেশ দখলকারীদের পৃথিবী থেকে নির্মূলের সমর্থক।

১৬| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১২:০৩

রাশিয়া বলেছেন: @ হিরণ, ফ্রান্সের জনগণ মুসলিমদের উপর ক্ষেপবে কেন? তারা কি করেছে? মুসলিমরা অন্য ধর্মের অনুসারীদের চেয়েও অনেক সংবেদনশীল - এটা জানার পরেও ফ্রান্সের মিডিয়া একের পর এক তাদের উস্কানি দিয়ে যাচ্ছে। সবার তো সহ্য ক্ষমতা একরকম না। তাই কেউ কেউ চরমপন্থা বেছে নিচ্ছে জীবনের ঝুঁকি সত্তেও। কিন্তু আপামর মুসলিম জনগন তো কোন দোষ করেনি!

হ্যাঁ, অন্য ধর্মের দেবে দেবীদের নিয়েও কৌতুক হয়। কিন্তু বেশিরভাগ প্রটেস্ট্যান্ট খ্রিস্টান তো ধর্মই মানেনা। তাই তাদের কাছে নিজ ধর্মও অনেকটাই ফানি। কিন্তু ইসলাম সেরকম নয়। এই ধর্মে বলা আছে, নবী (স) কে আপনজনের চেয়েও বেশি ভালোবাসতে, ভক্তি করতে, সম্মান করতে। তাই অন্য কেউ যদি সেই সম্মানিত বা ভালোবাসার মানুষকে অপমান করে, গায়ে লাগারই তো কথা।

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:৩৩

অনল চৌধুরী বলেছেন: নূর আলম হিরণ, সংস্কৃতি ও ধর্মে উপর আক্রমণের মাধ্যমে অন্যান্য জাতি-গোষ্ঠীকে দমন করে রাখার জন্য পশ্চিমাদের নষ্ট পরিকল্পনা কি আপনার অজানা?

১৭| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১২:২৫

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন:

আপনি বলেছেন- ''সম্পূর্ণ ধ্বংস না হওয়া পর্যন্ত এদের বর্বরতা থেকে পৃথিবীর মানুষ রক্ষা পাবে না।''

কারো ধ্বংস কামনা করা উগ্রপন্থা।

আমাদের বলা উচিৎ - ''তারা এই অন্যায় কাজ থেকে বিরত থেকে সুপথে ফিরে আসুক।'''

ধন্যবাদ।

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:২২

অনল চৌধুরী বলেছেন: ১৯৭১ পাকিরা ধ্বংস না হলে বাংলাদেশ কি স্বাধীন হতো?
করোনার কারণে সন্ত্রাসী এ্যামেরিকা-ইউরোপের এই শোচনীয় অবস্থা না হলে এর ইরানসহ অন্য দেশেও হামলা ,গণহত্যা চালাতো।
সুতরাং নীরিহদের রক্ষার জন্য পাপিষ্ঠদের ধ্বংস হওয়া জরুরী।

১৮| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১২:৩৩

রাজীব নুর বলেছেন: দুনিয়াতে যত ক্যাচাল আছে, এর মধ্যে সবচেয়ে বিশ্রী ক্যাচাল ধর্ম নিয়ে।

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:৩৬

অনল চৌধুরী বলেছেন: এতে ইন্ধন দেয় পশ্চিমারা।
রাজাকার,লাদেন তালেবান, বাগদাদী আইএস-সবই তো ওদের সৃষ্টি।

১৯| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ২:১৭

নেওয়াজ আলি বলেছেন: মুসলিম বিশ্ব বিন লাদেন কনস্ট্রাকশন গ্রুপের কোন গগনচুম্বী দালানের পৃষ্ঠদেশ বরাবর যীশুখৃষ্টের ব্যঙ্গচিত্র ঝোলায়, যদি যীশুর কুশপুত্তলিকা পোড়ায় সেটা নাসারাদের জন্য উপযুক্ত একটা থাপ্পড় হতো, ধর্মীয় অনুভূতির আঘাত বুঝতে পারতো তারা।কিন্তু ইসলাম প্রতিহিংসা পরায়ন ধর্ম নয়, ইসলাম অন্যদের ছোট করা সাপোর্ট করেনা।

ইতালি এবং ফ্রান্স করোনার ঠ্যালা সামাল দিতে পারছেনা এর ভেতর দিয়েও মুসলিমদের পিছু লাগা ছাড়েনি, কী মারাত্মক ইহুদী নাসারা! অভিশপ্ত শয়তানের দোসর তাব্বাদ ইয়াদা আবি লাহাবিউ ওয়াতাব্ব,,,

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:১০

অনল চৌধুরী বলেছেন: এমন কোনো মুসলমান কি আছেন, যিনি যিশু বা মোজেস কে সন্মান করেন না বা তাদের কখনো অপমাণ অপদস্থ করে আনন্দ পান?
অন্য ধর্মের সন্মানিতদের হেয় করার মতো অসভ্যতা করে খ্রিষ্টান জঙ্গীগুলি।

২০| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ২:৪৯

মিরোরডডল বলেছেন:



জানোয়ারগুলি ???? সিরিয়াসলি !!!
বাহ চমৎকার ! এই যদি হয় একজন শিক্ষকের ভাষা ....
তার কাছ থেকে আর কি এক্সপেক্ট করা যায় !






২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:৪৭

অনল চৌধুরী বলেছেন: Is there any other names of Pigs?
শিক্ষক দরকার হলে অস্ত্র হাতে যুদ্ধও করে
You stop preaching and continue serving the white devils and bruts like their most obedient, as Gaji and Aliana are doing

২১| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:৪২

মিরোরডডল বলেছেন:



That’s exactly your true colour man. Look at you.
The person who doesn’t have any respect in his own religion and calling other people pig or জানোয়ার, how can he even deserve to talk about other religion or nation!!!

Fix yourself first before you fixing our country, nation or others. I wont be surprise if you delete all my comments because that’s only one thing you’re capable of.



২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:৫২

অনল চৌধুরী বলেছেন: You are a complete mad, a psycho.
Only thing U r doing is quarrel.
Read all your comments and consult with a Psychiatrist।

২২| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:০৯

মিরোরডডল বলেছেন:



Yes man, you’re so right.
I’ll go for a psychiatrist and you must do an anger management course.
Deal :)



২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:১৫

অনল চৌধুরী বলেছেন: And how do u know what`s my religion and I hv no respect for it?
Hv u got your degree in witchcraft?
I hv only one religion and it is HUMANITY.

২৩| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:২৫

নতুন বলেছেন: ফ্রান্সের পিআর পাইলে যাবেন তো?

যারা বর্তমানে ফেসবুকে বয়কট ফ্রান্স পোস্টকরতেছে তারা কিন্তু ভিসা পাইলেই ফুরুত করে উড়াল দেবে।

উর্গপন্হা ধমান্ধতা থেকে জন্মনেয়। কাটুন দেখানোর জন্য একজন মানুষকে হত্যা করা কোন ধর্মের কাজ?

এই রকমের মূর্খদের কারনেই সারা বিশ্বে ইসলামের বদনাম হচ্ছে। এইটা শান্তির ধর্ম?

২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:২৮

অনল চৌধুরী বলেছেন: আমি কি ভিক্ষুক যে দয়া করে পাওয়া রাজনৈতিক আশ্রয় নিয়ে অন্য দেশে যেতে হবে?
আমি আমার নিজের সম্পদ দিয়ে পৃথিবীর যেকোনো্ দেশে সেকেন্ড হোম সুবিধা নিতে পারি।

২৪| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:৪৭

মিরোরডডল বলেছেন:



Wow!! What a wonderful thing, your religion is humanity!!! So good to know Anol.

Does humanity talk about scolding people, call animal, killing for killing as revenge, showing pride, being aggressive, arrogant, hostile and selfish?

No its not.

Humanity talks about love and compassion, being caring and loving, showing your kindness, being cool and calm. Even though other doing wrong, forgive them and offering them help with patience, grace and elegancy. Bottom line is love people not hate.

Now you ask yourself, if humanity is your religion, what you’re doing man?
I don’t need your answer. You keep it with yourself.
I’m done. No more deal with you. Cause I gotta go to the psychiatrist :)



২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৫:১২

অনল চৌধুরী বলেছেন: What`s your real problem ?
From my experience with the relations of many girls of different ages, I noticed that they act abnormal like u after break-up as u hv been doing for last 7 months.
You never comment anything related to the post but always attack personally and try to make quarrel।
That`s why I suggested u to consult with a with a psychiatrist.
Do u know that as per the laws and ethics of every country, supporting a crime means committing a crime ?
What r u doing?
U have never condemn the brutal act of that asshole Marco`s stupid comment that ignited the anger of the muslims all over the world.
You even asked me about my religious belief which is considered as very indecent in all civil society.
You are talking the way as if the muslims started this at the beginning !!!
You are preaching me the meaning of humanity?
You want me to be calm with those blood thirsty devils who hv killed millions of innocents all over the world for looting their wealth?
My humanity teach me to protest against all the crimes and the criminals. Even to kill if necessary.
What would u do if anyone tried to hurt you? Hug him or kill him before he do that ?
That`s what I am doing. Trying to protect the mankind from the imperialist killers by eliminating them from earth.
As it is not possible with nuclear bomb, so with pen.
And this your last warning.
If you do that type of abnormal act again, WILL BLOCK U FOREVER.

২৫| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৫:১৩

মিরোরডডল বলেছেন:



@ একলব্য২১

Thank you so much for your voice.

আমি কিন্তু সারপ্রাইজ না উনি সাইকো বলেছেন সেজন্য । কারণ ওনার কাছ থেকে এর চেয়ে বেটার কিছু এক্সপেক্ট করিনা ।

Look at his profile what he said about him.
‘লেখক,সাংবাদিক,গবেষক,অনুবাদক,দার্শনিক,তাত্ত্বিক,সমাজ সংস্কারক,শিক্ষক ও সব অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী যোদ্ধা’
ওনার মতো সর্বগুণে গুণান্বিত একজন মানুষ যদি সারাক্ষন মার মার, কাট কাট, জ্বালাও আগুন, মেরে ফেলো, খুনের বিনিময়ে খুন, এরকম এগ্রেসিভ মুডে থাকে তাহলে হবে ।

ওনার পারপাস হয়তো ভালো, কিছু পোষ্টে হয়তো ভালো সাবজেক্ট নিয়েই লেখে কিন্তু ট্র্যাকের বাইরে চলে যায় । এক্সট্রিমলি এক্সট্রিমিস্ট । সাবজেক্ট এড্রেস না করে সবকিছুতে জেনারেলাইজড করে ফেলে । লজিক্যাল রিপ্লাই না দিয়ে ভীষণ রকম এগ্রেসিভ হয়ে যায় । এনিওয়ে, অনেক কথা বলে ফেললাম । থ্যাংক ইউ ।


২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৬:৪৮

অনল চৌধুরী বলেছেন: ওনার মতো সর্বগুণে গুণান্বিত একজন মানুষ যদি সারাক্ষন মার মার, কাট কাট, জ্বালাও আগুন, মেরে ফেলো, খুনের বিনিময়ে খুন, এরকম এগ্রেসিভ মুডে থাকে তাহলে হবে - এধরণের মিথ্যার পর আর কোনো কথা চলে না।
কবে কোথায় কাকে অকারণে এসব বলা হয়েছে?
সাবজেক্ট এড্রেস না করে সবকিছুতে জেনারেলাইজড করে ফেলে । লজিক্যাল রিপ্লাই না দিয়ে ভীষণ রকম এগ্রেসিভ হয়ে যায়- নিজের বৈশিষ্ট অন্যের উপর চাপানো অত্যন্ত বাজে স্বভাব।
কেউ যখন কোন লেখার ব্যাপারে মন্তব্য না করে ব্যাক্তিগত আক্রমণ করে আর অপ্রাসঙ্গিক কথাবার্তা বলে, সেটা সবাই দেখছে। And above all, psycho is better than SLOB !!!!

২৬| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৫:২৪

ঢাবিয়ান বলেছেন: গতকাল রোববার আরব বিশ্বের সবচেয়ে বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ সৌদি আরবে হ্যাশট্যাগের মাধ্যমে ফ্রান্সের ফরাসি বহুজাতিক খুচরা বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান ক্যারফুর বয়কটের আহ্বান জানানো হয়। জর্ডান ও কাতারেও একইভাবে ফরাসি পণ্য বয়কটের আহ্বান জানানো হয়।

অহিংস আন্দোলন যদি ঐক্যবদ্ধভাবে করা যায় তবে এর সাফল্য অনিবার্য। আরব বিশ্বকে বহুকাল পর ঐক্যবদ্ধ হয়ে একটা প্রতিবাদ করতে দেখলাম। এই অবস্থায় মুসলিমপ্রধান দেশগুলোকে পণ্য বয়কট না করার আহ্বান ফ্রান্সের।




২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৪:০১

অনল চৌধুরী বলেছেন: আরব এবং বিশ্বের সব দেশের মুসলমানরা একত্রিত হলে এখনো মাত্র ১ দিনে সব পশ্চিমা সন্ত্রাসীদের সোজা করে ফেলতে পারে।
সেটা ওরাও জানে।এজন্যই তারা যাতে এক না হতে পারে, এজণ্য বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে।
তারাও এর ফাদে পা দিয়ে নিজেরাই নিজেদের মধ্যে লড়াই করে মরছে।

২৭| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ৯:৩০

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: এসেছিলাম পোস্টের বিষয় দেখতে। আপনি নিজের বক্তব্য তুলে ধরেছেন।‌ মুসলিম বিশ্ব মোটামুটি ফ্রান্সের এই কাজকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে বিরোধিতা করেছে। ফ্রান্সের আর্থিক ক্ষতির সমুহ সম্ভাবনা আছে। কিন্তু পাশাপাশি আরেকটি বিষয় খুব খারাপ লেগেছে। আপনি বিষয়বস্তু ছেড়ে একজন সম্মানীয় ব্লগার @ মিরোরডডলকে যেভাবে ব্যক্তিগত আক্রমণ করলেন বিষয়টি একেবারেই নিন্দনীয়। আমাদের পরিচয় লেখালেখির মাধ্যমে। আমি জানি উনি একজন নারী ব্লগার। আপনি শিক্ষক মানুষ। এমন মানুষের মুখের ভাষা এটা হতে পারে না। আপনাকেও এমন করে লেখার জন্য দুঃখিত।

হিংসা বিদ্বেষ আমাদের মন থেকে মুছে যাক। মানবতার জয় হোক।

২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৪:০৪

অনল চৌধুরী বলেছেন: আপনি সব না জেনেই মিররডল প্রীতি দেখাচ্ছেন।
তাকে যে আমি এখনো ব্লক করিনি, সেটা তার সৌভাগ্য।
সে, নতুন এরা কোনোসময় লেখা নিয়ে মন্তব্য না করে সবময় চরম রুচিহীনের মতো ব্যাক্তিগতভাবে আক্রমণ করে কথা বলে।
এবং এটা দীর্ঘদিন ধরেই করছে।
যেসব বিষয় নিয়ে কথা বলার মতো বিন্দুমাত্র জ্ঞান বা যোগ্যতা তাদের নাই।
সুতরাং এছাড়া আর উপায় কি?
তারা লেখার বিষয় নিয়ে মত প্রকাশ করলে আমি উত্তর দিতাম, যেটা করেনা।
আপনার সব লেখায় আমি গিয়ে এরকম করলে আপনি আমাকে উন্মাদ ছাড়া কি বলবেন????
তারা যে এতোবড় একটা ঘটনার প্রতিবাদ না করে এক সমর্থন করেছ, এটা কি আপনি বুঝতে পারছেন না?

২৮| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ১০:৩৪

রাশিয়া বলেছেন: মুসলিমরা কখনোই যীশু মা মোসেসের অবমাননা করবেনা, কারণ এরাও তাদের নবী। কিন্তু মুসলিম কখনও কৃষ্ণ বুদ্ধ বা সন্ত পল কেও অপমান করতে পারবেনা - তাতে স্পষ্ট গুনাহ হবে। মুসলিমগণ তা করবেনা কারণ তাঁদের পাপের ভয় আছে। কিন্তু ইউরোপিয়ানরা পাপ পূণ্যের কোন তোয়াক্কা করেনা বলেই নবীজী (স) কে অপমান করতে তাঁদের বাধেনা।

২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৪:০৬

অনল চৌধুরী বলেছেন: পৃথিবীতে এতো বিষয় থাকতে এরা কোনো উদ্দেশ্য ছাড়া এসব করছে না।
এদের উদ্দেশ্যও সবাই জানে। করোনাতে তো অর্থনীতির ১২টা বেজেছে। এখন নতনু নতুন দেশ দখল করে তাদের সম্পদ লুটের দুর্বুদ্ধি করছে।

২৯| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ১০:৩৮

নূর আলম হিরণ বলেছেন: ধর্য্য রাখতে হবে, সামান্য কয়েকটা কমেন্টে এমন উত্তেজিত হয়ে গেলে চলবে প্রিয় ব্লগার? এসব উত্তেজনা থেকেই কিন্তু সে বালকটি ঐ শিক্ষকের গলা কেটেছে!

২৮ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ৩:৫৮

অনল চৌধুরী বলেছেন: কবি নজরুলের বিদ্রোহী কবিতা পড়েন।
আমি সেইদিন হবো শান্ত ........................
তার আগে পর্যন্ত অশান্তই থাকবো।

৩০| ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ১১:১২

পঞ্চগড়ের বাসিন্দা বলেছেন: ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করা পশ্চিমাদের বিকৃতির যেমন আরেক রূপ তেমনি এটা মুসলিম সমাজের ভেতর লুকিয়ে থাকা মুনাফিকদের চিহ্নিত করতে সাহায্য করে

২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৪:০৯

অনল চৌধুরী বলেছেন: ধার্মিক হোক বা না হোক, একজেন প্রকৃত সৎ-নীতিবান মানুষের দায়িত্ব, যেকোনো অন্যায়ের প্রতিবাদ করা।
এখানেই অনেকে সেটা না করে নির্লজ্জভাবে পশ্চিমাদের পক্ষে ওকালতি করছে।

৩১| ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ১:০২

মরুর ধুলি বলেছেন: ইয়াহুদি-নাছারাগণ কখনোই মুসলমানের বন্ধু হতে পারে না। এটা মহাপবিত্র আল কুরানের বাণী। আর আমরা সামান্য সুযোগ সুবিধার জন্য ইয়াহুদি নাছারা তথা বিজাতীয়দের অনুকরণ অনুসরণ নিদ্বিধায় করে যাই। আমরা সুন্নতের পাবন্দি করি না। চোখের সামনে চলে যাওয়া অন্যায় দেখেও চুপ করে থাকি। সিংহের জাতি মুসলমান আজ দিন দিন দুর্বল হয়ে পড়ছে। কারণ মুসলমানের ঘরে এখন বিজাতীয় সংস্কৃতির চর্চা বিদ্যমান। বিজাতীয় সংস্কৃতি ও তাদের অনুসরণ বাদ দিয়ে নিজ ধর্মানুযায়ী চললে মুসলমানের বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না।

২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ৩:৫৫

অনল চৌধুরী বলেছেন: প্রথমদিকে ইহুদীরা খ্রীষ্টানদেরও দেখতে পারতো না। যিশুকে তো তারাই বর্বর অত্যাচার করে মেরেছে। ফলে খ্রীষ্টানরাও ইহুদীদের ঘৃণা করতে শুরু করে। শেক্সপিয়রের শাইলক চরিত্র প্রমাণ করে, মধ্যযুগে তারা ইহুদীদের কি চোখে দেখতো।

পরে মুসলিমদের বিরুদ্ধে দুই দল এক হয়। মুসলমানদের মধ্যে বিভেদ আর তাদের দূর্বলতার সুযোগ নিয়ে খৃষ্টান চক্র ইসরাইল সৃষ্টি করে চরম ক্ষতি সাধন করে, যার ফল এখনো তারা ভুগছে।

৩২| ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৯:২৬

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন:


লেখক বলেছেন: ১৯৭১ পাকিরা ধ্বংস না হলে বাংলাদেশ কি স্বাধীন হতো?
করোনার কারণে সন্ত্রাসী এ্যামেরিকা-ইউরোপের এই শোচনীয় অবস্থা না হলে এর ইরানসহ অন্য দেশেও হামলা ,গণহত্যা চালাতো।
সুতরাং নীরিহদের রক্ষার জন্য পাপিষ্ঠদের ধ্বংস হওয়া জরুরী।

===========================================

আপনি 'সম্পূর্ণ' ধ্বংস হয়ার কথা বলেছেন। এর প্রতিবাদ করেছি আমি।

আপনি একটি গ্রুপের কাজ দিয়ে পুরো জাতিকে দোষারোপ করছেন। আপনার এই কথারও প্রতিবাদ করছি।

যদি কয়েক জনের কাজ দিয়ে পুরো জাতিকে দোষী করা যেতো, তাহলে খোদাতায়ালা কবেই আরব জাতিকে ধ্বংস করে দিতেন।

ধন্যবাদ।

২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৩১

অনল চৌধুরী বলেছেন: বৃটেন, ফ্রান্স. এ্যামেরিকার সংখ্যাগরিষ্ঠ লোক তাদের সব অপরাধ অপকর্মের সমর্থক।
এজন্যই তারা দেশে দেশে দেশ তাদের দেশের হামলা গণহত্যা লুটপাটের কোনো প্রতিবাদ করে না।
সুতরাং তাদের বর্বরতাকে ‘‘কিছু লােকের কাজ ’’ বলে এড়িয়ে যাওয়ার কােন সুযোগ নাই।

৩৩| ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৫:৫১

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:

সেই সময় কোন শিল্পী কর্তৃক নবীজির কোন ছবি কি আঁকা হয়েছিল।
তাহলে এখন যে সমস্ত কার্টুন আঁকা হচ্ছে সেই সমস্ত কার্টুন যে নবীজির তারা কিভাবে বুঝতে পারলেন?

২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৩৩

অনল চৌধুরী বলেছেন: বিজ্ঞ ব্লগার হয়ে যদি এধরণের হাস্যকর কথা বলেন , তাহলে উত্তর কি দেবো?
কাকে কি বলা বা করা হচ্ছে সেটা তো সবাই বুঝতে পারে।

৩৪| ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২৭

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন:

লেখক বলেছেন: বৃটেন, ফ্রান্স. এ্যামেরিকার সংখ্যাগরিষ্ঠ লোক তাদের সব অপরাধ অপকর্মের সমর্থক।
এজন্যই তারা দেশে দেশে দেশ তাদের দেশের হামলা গণহত্যা লুটপাটের কোনো প্রতিবাদ করে না।
সুতরাং তাদের বর্বরতাকে ‘‘কিছু লােকের কাজ ’’ বলে এড়িয়ে যাওয়ার কােন সুযোগ নাই।

==================================================================

ঐসব দেশে সংখ্যাগরিষ্ঠ লোক তাদের সব অপরাধ অপকর্মের সমর্থক!!!! এই তথ্য আপনি কোথায় পেলেন!!! সরকারের পক্ষে ভোট দেওয়া মানে এই নয় যে তাদের খারাপ কাজকেও মানুষ সমর্থন করে।

আর, তর্কের খাতিরে যদি ধরেও নিই যে সেসব দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ লোক সরকারগুলোর সব অপরাধ অপকর্মের সমর্থক, তাহলে, সংখ্যাগরিষ্ঠের জন্যে সংখ্যালঘুদের শাস্তি পেতে হবে কেন????!!!!!!!! এটা তো অন্যায়।

আপনি পুরো জাতিকে এক কাতারে ফেলে সংখ্যালঘুদেরও অপরাধী বানিয়ে ছাড়ছেন!!!

খুব খারাপ তত্ত্ব আপনার।

২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ৯:০০

অনল চৌধুরী বলেছেন: কোনো দেশের দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষ সেই দেশের অপরাধের প্রতিবাদ করলে কোনো সরকার সেটা করতে পারে না।
একটা বিমানে ৫০০ জন খুনী এ্যামেরিকান সৈন্য আর ২ জন নীরিহ বিমানচালক ভিয়েতনাম, ইরাক বা লিবিয়ায় হামলা করতে যাওয়ার সময় যদি বিস্ফোরণে বিমান ধ্বংস হয়ে সবাই মরে, তাহলে আপনি কি খুনীদের মরার জন্য দু;খপ্রকাশ করবেন না নীরিহদের মরার জন্য কান্নাকাটি করবেন?
সব সন্ত্রাসী দেশের ক্ষেত্রেই একই দৃষ্টান্ত প্রযোজ্য।।
অতি মানবতাবাদী সাজতে চাওয়া সত্যিকারের মানবতার জন্য ক্ষতিকর।

৩৫| ২৮ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১১:১৩

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন:

নীরিহ সাধারণ মানুষকে হত্যার লাইসেন্স নিচ্ছেন এই রকম খোঁড়া যুক্তি দিয়ে!!!

৫০০ জন খুনী এমেরিকানকে যে বহন করবে, সেও খুনী, যদি সে জেনে-শুনে নিয়ে যায় যুদ্ধের ময়দানে।

আমি মানবতাবাদী? জী, অবশ্যই।

২৯ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৪:০০

অনল চৌধুরী বলেছেন: ‘‘৫০০ জন খুনী এমেরিকানকে যে বহন করবে, সেও খুনী, যদি সে জেনে-শুনে নিয়ে যায় যুদ্ধের ময়দানে’’- সেটাই যদি মনে করেন, তাহলে যারা নিজেদের করের টাকা দিয়ে এই খুনীদের এদের বেতন আর অস্ত্র কিনে দেয় এবং এসব করতে বাধা দেয় না তারা কেনো অপরাধী হবে না?
নিজের স্বার্থ ক্ষুন্ন হলে এই জনগণ ঠিকই রাস্তায় নেমে সরকারের নীতির প্রতিবাদ করে।
সুতরাং দেশে দেশে হামলা, লুটপাট আর গণহত্যার প্রতিবাদ না করা দেশগুলির প্রতিটার জনগণ তাদের সরকারের নীতির সরাসরি সমর্থক এবং মদদদাতা।
‘‘নীরিহ সাধারণ মানুষকে হত্যার লাইসেন্স নিচ্ছেন এই রকম খোঁড়া যুক্তি দিয়ে!!!- ’’ কোন যুক্তি কেমন সেটা বোঝার মতো বয়স, জ্ঞান-বুদ্ধি বা অভিজ্ঞতা কি এখনো হয়েছে??????

৩৬| ২৯ শে নভেম্বর, ২০২০ ভোর ৫:৩৪

ফটিকলাল বলেছেন: নিম্নমানের জঘন্য মানসিকতার পোস্ট এটি

৩০ শে নভেম্বর, ২০২০ রাত ৩:২৭

অনল চৌধুরী বলেছেন: আপনি কি গেরুয়া জঙ্গী-বজরঙ্গীদের ভাড়াটে?
তাহলেও তো খুশী হওয়ার কথা কারণ এই লেখায় তাদের দেবতাদের সন্মানও রক্ষা করতে চাওয়া হয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.