নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সাহসী সত্য।এই নষ্ট দেশ-জাতি-সমাজ পরিবর্তনের প্রচেষ্টাকারী একজন যোদ্ধা।বাংলাদেশে পর্বত আরোহণের পথিকৃত।

অনল চৌধুরী

লেখক,সাংবাদিক,গবেষক,অনুবাদক,দার্শনিক,তাত্ত্বিক,সমাজ সংস্কারক,শিক্ষক ও সব অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী যোদ্ধা

অনল চৌধুরী › বিস্তারিত পোস্টঃ

ব্যার্থ অভিভাবকদের সন্তান পালনের দায়িত্ব দেয়া অনুচিত

১০ ই মে, ২০২১ রাত ৩:৪৬


বাবা-মা খারাপ না হলে ব্যাতিক্রম ছাড়া কোন ছেলে -মেয়ে খারাপ হয়না

ছোটরা বড়দের কাছ থেকে যা শেখে,তাই করে।

বিগত ৩০ বছরের পর্যবেক্ষণে লক্ষ্য করেছি,প্রতিটা সন্ত্রাসী ও মাদকসেবীর মাদকাসক্ত হওয়ার একমাত্র কারণ অভিভাবকদের অবহেলা।

বেশীরভাগ ক্ষেত্রে শাসনহীনতা আর কিছু ক্ষেত্রে অতিশাসন।

পরিবারে অশান্তি এর বড় একটা কারণ। বাবা-মা’র ঝগড়া বিবাদ দেখে অতিষ্ঠ হয়ে বিরাট একটা অংশ শান্তির খোজে নেশায় আসক্ত হয়।

অভিভাবকরা নিজেরাই বিভিন্ন ধরণের অপরাধের সাথে জড়িত থাকলে সন্তানরা ভালো হবে-একমাত্র নির্বোধরাই এমন ধারণা আশা করতে পারে।

চোর,ঘুষখোর,দুর্নীতিবাজ,মদখোর,লম্পট আর পরকিয়াকারীদের ছেলে-মেয়েরা কি সাধু হবে?

কোনো যুক্তিতে কি এমন আশা করা যায় ?

এরাই সন্ত্রাসী, চাদাবাজ, ধর্ষকসহ সবধরণের অপরাধী হয়।

এদের মধ্যে কোনো সভ্যতা বা ভদ্রতাজ্ঞানও থাকে না।

পরিবার থেকে কোনো নৈতিক শিক্ষা অর্জন না করার ফলে এরা শিক্ষক-মুরুব্বি-জ্ঞানী-গূণী ও সন্মানিত ব্যাক্তি-সবাইকেই এরা নিজের স্তরে নামিয়ে এনে আনন্দ পায়।

এরাই রাস্তায়, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও বিপনী বিতানগুলির সামনে মেয়েদের উত্যক্ত করে।

সুযোগ পেলে ধর্ষণের মতো ঘটনাও ঘটায়।

এমনকি যেসব সন্তান ডিগ্রিধারী হয়ে বড় পদে গিয়ে চোর-ঘুৃষখোর-দুর্নীতিবাজ হয়, তাদের সৎ-নীতিবান করে গড়ে তুলতে না পারাও সম্পূর্ণ অভিভাবকদেরই ব্যার্থতা।

এছাড়া অনেক অভিভাবক চরম অত্যাচারী। এরা নিজেদের স্বার্থে পৃথিবীতে সন্তান জন্ম দিয়ে তাদের উপর চরম অত্যাচার করে এবং নিজেদের সব ইচ্ছা-অনিচ্ছা তাদের উপর চাপিয়ে দেয়।

এদের কাছে সন্তান হচ্ছে ভবিষ্যতের অর্থনৈতিক নিরাপত্তা।

এইসব অভিভাবকদের কারণে অগণিত সন্তানের জীবন ধ্বংস হয়েছে।

সুতরাং সন্ত্রাস,মাদক সেবনসহ সবধরণের নীতিহীন কাজের জন্য ছোটদের দায়ী করার পরিবর্তে আগে তাদের অপরাধী বাবা-মা’কে শাস্তি দেয়া প্রয়োজন।

উন্নত দেশে সন্তান নির্যাতন একটা দন্ডনীয় অপরাধ, যার শাস্তি অভিভাবকত্ব হারানো ছাড়াও কারাদন্ড।
কিন্ত বাংলাদেশে ধর্মীয় কারনে পিতা-মাতা পূজার সংস্কৃতি চালু আছে। তাদের আইনের উর্দ্ধে ভাবা হয় এবং আজ পর্যন্ত সন্তান নির্যাতনের অপরাধে কোনো অভিভভাবক গ্রেফতার হয়েছে, শোনা যায়নি।

অত্যাচারী এং অপদার্থ অভিভাবকদের কাছ থেকে সন্তান নিয়ে রাষ্ট্রের তত্বাবধানে মানুষ করার জন্য এবং
শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে আইন প্রণয়ন বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত জরুরী।


উন্নত দেশে প্রায় শত বছর ধরে রাষ্ট্র সন্তান সন্তান পালনে ব্যার্থ অত্যাচারী বাবা-মা‘র কাছ থেকে সন্তান পালনের অধিকার কেড়ে নিয়ে নিজের তত্ত্বাবধানে এই দায়িত্ব পালন করছে

এর ফলে তাদের দেশের শিশুরা যেমন অপদার্থ অভিভাবকদের অত্যাচার থেকে রক্ষা পাচ্ছেে, একইভাবে নেশা থেকে মুক্ত হয়ে সুস্থ-স্বাভাবিক হয়ে বেড়ে উঠছে।

বাংলাদেশেও সৎ-নীতিবান ও ভদ্রতাজ্ঞানসম্প্ন্ন নাগরিক গড়ে তোলার জন্য অবিলম্বে এই পদ্ধতি চালু করা দরকার।

মন্তব্য ২২ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (২২) মন্তব্য লিখুন

১| ১০ ই মে, ২০২১ ভোর ৪:০৭

চাঁদগাজী বলেছেন:



ঢাকার মাদক ব্যবসায় বড় বড় মাফিয়াদের নাম আছে আপনার কাছে?

১০ ই মে, ২০২১ ভোর ৪:১১

অনল চৌধুরী বলেছেন: না।
কিন্ত সব এলাকাতেই এদের সিন্ডিকেটের লোকজন ব্যাবসা করে।
এদের ধরলে বলতে পারবে।

২| ১০ ই মে, ২০২১ ভোর ৪:৫৯

স্থিতধী বলেছেন: একজন খুব অভিজ্ঞ আইনজীবির মুখে শুনেছিলাম যে, তিনি তাঁর সুদীর্ঘ ক্যারিয়ারে অবৈধ উপায়ে সম্পদ উপার্জনকারী ব্যাক্তিদের ছেলেমেয়েদের কখনো মানুষ হতে দেখেন নি, মাদকাসক্ত হতে দেখেছেন অনেক।

একটা বই ছিলো বোধহয় আমাদের দেশে এসব বিষয়ে; " নষ্ট পূত্র কন্যাগণ" নামে সম্ভবত।

১০ ই মে, ২০২১ রাত ৯:০৪

অনল চৌধুরী বলেছেন: বাংলাদেশে যতো চিকিৎসক প্রকেশীশলী আর ব্যারিষ্টার-প্রায় সবই বড় বড় দুর্নীতিবাজদের ছেলে-মেয়ে।
বাবার অবৈধ টাকা দিয়ে এরা দেশের বাইরে পড়াশোনা করতে পারে। কিন্ত এদের মধ্যে কোনো বিবেক বা নৈতিকতাবোধ থাকে না।
এরা হয় একেকটা মানুষরুপী পশুতে।
এরশাদের চোর মেয়র নাজিউররে ছেলে আন্দালিব চুরি টাকায় ব্যারিষ্টার হয়ে বিরাট নেতা !!!!
আর খালেদার চোর মেয়র সাদেকের ছেলে ইশরাক লল্ডন ফেরত প্রকৌশলী, যে দুদকের সবচেয়ে কম বয়সী অসামী।
সাপের বাচ্চা সাপই হয়।
এরা চুরির টাকা নিয়ে বিদেশে থাকলে ও দেশের ভালো হতো । কিন্ত দেশে ফিরে এছেছে রাজনীতি করার নামে এদের মতোই আরো অগণিত চোর সৃষ্টির জন্য।

৩| ১০ ই মে, ২০২১ সকাল ৯:২৭

জটিল ভাই বলেছেন: টপিক ও লিখাটা অনেক ভালো লাগলো। তবে সমাজ আর সঙ্গদোষেও অনেক ভালোঘরের সন্তানও খারাপ হয়। তাই এইখানেও সংস্কার দরকার........

১০ ই মে, ২০২১ রাত ৯:০৯

অনল চৌধুরী বলেছেন: ধন্যবাদ।

সঙ্গদোষে অনেকেই যে খারাপ হয় , সেটা আমিও দেখেছি। কিন্ত খারাপ করে তারাই যাদের অভিভাবকরা খারাপ।

আর যারা নিজেরাও দূর্বল, তাদেরও খারাপ জিনিস ভালো লাগে।

১৯৯০ এ শেষে দেশে ফেন্সিডিল আসার পর আমার প্রায় সব বন্ধুই সিগারেটের সাথে সাথে এতেও আসক্ত হয়ে পড়েছিলো। কিন্ত আমি হইনি।

আমি তখন শীতের দিনেও সকাল ৫:৩০ মিনিটে রমনা উদ্যানে গিয়ে শরীরচর্চা করতাম।

৪| ১০ ই মে, ২০২১ সকাল ১০:৫৫

শূন্য সারমর্ম বলেছেন: সন্তান পালনের নিয়মনীতির আইন পাস দরকার পার্লামেন্টে।

১০ ই মে, ২০২১ রাত ৮:৩৩

অনল চৌধুরী বলেছেন: এরা পিতা-মাতাকে খরচ দেয়ার আইন করেছে।
কিন্ত অত্যাচারী এং অপদার্থ অভিভাবকদের কাছ থেকে সন্মান নিয়ে রাষ্ট্রের তত্বাবধানে মানুষ করা আইন করেনি।
শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে আইন অত্যন্ত জরুরী।

৫| ১০ ই মে, ২০২১ সকাল ১০:৫৭

নুরহোসেন নুর বলেছেন: যারা বেড়ে উঠেছে হারাম খেয়ে তারা সন্তানকে কি শিখাবে?

১০ ই মে, ২০২১ রাত ৯:১০

অনল চৌধুরী বলেছেন: হারাম খেয়ে হারামী হয়েছে আর হবে।

৬| ১০ ই মে, ২০২১ দুপুর ১:২৪

সাহাদাত উদরাজী বলেছেন: বিবাহের ব্যাপারটাই যদি না থাকত! বিবাহটাই যত নষ্টের গোড়া! :)

১০ ই মে, ২০২১ রাত ৮:২৯

অনল চৌধুরী বলেছেন: উন্নত দেশে বিয়ে ছাড়াও সন্তান জন্ম নেয়।
তারা তাদের দেশের জন্য ভালো হয়েই বেড়ে উঠছে।
বিয়ে করা বাংলাদেশেও বাধ্যতামূলক না। ব্যাক্তিগত ইচ্ছাধীন।
তবে বিয়ে করেও সেসব দেশে অনেকে ম্বেচ্ছায় সন্তানহীন থাকে।
এজন্য রাশিয়া আর জাপানের জনসংখ্যা দিন দিন কমে যাচ্ছে।
আর বিয়ে করুক বা না করুক, কেউ যদি সন্তান দিতে চায়, তাকে অবশ্যই তাদের সভ্য করে গড়ে তুলতে হবে।
না হলে দোষটা তাদের উপরই পড়বে।

৭| ১০ ই মে, ২০২১ দুপুর ২:০৮

রাজীব নুর বলেছেন: এই দেশ নিয়ে আশা ভরসা ছেড়ে দিন। এই দেশ, দেশের মানুষ নষ্ট হয়ে গেছে।
যদি বাকি জীবনটা আনন্দ নিয়ে বেঁচে থাকতে চান, তাহলে উন্নত কোনো দেশে চলে যান। আমি নিজেই সেই চেষ্টা করছি। দোয়া প্রার্থী।

১০ ই মে, ২০২১ রাত ৮:৩৮

অনল চৌধুরী বলেছেন: এই ইচ্ছা থাকলে আরো ২৭ বছর আগেই পারতাম। লড়াই করে দেশ জাতি পরিবর্তন করবো ভেবে যাইনি।
এখন বলতে বাধ্য হচ্ছি, বিরাট ভুল করেছি। স্বেচ্ছায় নিজেদের নষ্ট করা নোংরা আর নষ্ট এই জাতি সংশোধণের অযোগ্য।
ধ্বংসই এদের নিয়তি।
আপনি কোথায় যেতে চাচ্ছেন?
এ্যামেরিকা, ইংল্যাড বা ফ্রান্স ছাড়া অন্য দেশ হলে আমিই যাবো্ ।
চলেন, সমমনা আরো কয়েকজনকেও নিয়ে যাই।
ব্লগাররা একসাথে থাকলে লেখালেখি আর বাংলা ভাষার চর্চাটা থাকবে।

৮| ১০ ই মে, ২০২১ দুপুর ২:৫৩

শায়মা বলেছেন: অনলভাইয়ু!!!!!!!!!!

একদম সত্য কথা।

যে গাছের ফল কিছুটা হলেও সেই স্বভাব বহন করবেই।
বংশগতি ও পরিবেশ নামেও একটা ব্যপার আছে। বংশ বা জিন যে বৈশিষ্ট্যগুলি বহন করে পরিবেশও চরিত্রে প্রভাব ফেলে। কাজেই অবৈধ লোকজনের ছেলেমেয়রাও তো জন্মের পর থেকে সেই পরিবেশেই থাকে কাজেই সোহায় সোহাগা!

১০ ই মে, ২০২১ রাত ৮:৩০

অনল চৌধুরী বলেছেন: ভালো লোকের ছেলে-মেয়ে কেনোদিন খারাপ হয়না, আর খারাপের গুলিও কোনোদিন ভালো হয় না।

৯| ১১ ই মে, ২০২১ রাত ১২:৪৩

রাজীব নুর বলেছেন: আমার প্রথম পছন্দ কানাডা, দ্বিতীয় পছন্দ আমস্টারডাম, তৃতীয় পছন্দ আমেরিকা, চতুর্থ পছন্দ জার্মানী।

১১ ই মে, ২০২১ ভোর ৪:০৯

অনল চৌধুরী বলেছেন: হল্যান্ড (আমস্টারডাম) আর জার্মানী যাওয়া যায়।
ক্যানাডা যদি সন্ত্রাস ছাড়ে, তাহলে সেটাও ভালো।

১০| ১৫ ই মে, ২০২১ রাত ২:৫২

আমি সাজিদ বলেছেন: ভালো লেখা হয়েছে। প্লাস।

১৫ ই মে, ২০২১ রাত ৩:১৩

অনল চৌধুরী বলেছেন: ধন্যবাদ।
আপনি পেশায় চিকিৎসক না ফার্মাসিষ্ট?

১১| ১৫ ই মে, ২০২১ সকাল ১১:১১

আমি সাজিদ বলেছেন: আপনার যেটা মনে হয় সেটাই।

১৬ ই মে, ২০২১ রাত ৩:১২

অনল চৌধুরী বলেছেন: আমার মনে হলে হবে না। কারণ ধারণা ভুলও হতে পারে।
পেশা জানাতে অসুবিধা কি?

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.