নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

ভুয়া মফিজ

ভুয়া মফিজের সাথে ভুয়ামি না করাই ভালো...

ভুয়া মফিজ › বিস্তারিত পোস্টঃ

ছদ্মবেশী রম্য!!!

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ১০:৩৪



আমার ফেসবুকে একটা নামমাত্র একাউন্ট আছে। সেখানে যাওয়া হয় না বলতে গেলে। তবে ইউটিউবে সময় পেলেই ঢু মারি, বিভিন্ন রকমের ভিডিও দেখি। ভিডিওগুলোর মন্তব্যে নজর বুলানো আমার একটা অভ্যাস। সেখানে আশ্চর্য হয়ে একটা জিনিস খেয়াল করি। যখনই বাংলাদেশের কোন বিষয় সামনে আসে; সেটা হোক কোন অনুপ্রেরণাদায়ী কন্টেন্ট, কোন অর্জন অথবা কোন সমালোচনা করার মতো বিষয়; কিছু ভারতীয় নেটিজেন সেগুলোতে ঝাপ দিয়ে পড়ে।

সমালোচনা করার মতো বিষয় হলে তো কোন কথাই নাই, পুজার খুশী অনুভব করে তারা। অর্জনের বা অনুপ্রেরণার বিষয় হলেও সেটার খুত বের করার চেষ্টা থাকে। ‍কিংবা ইনিয়ে বিনিয়ে বলার চেষ্টা করে যে, এর জন্য ভারতের অবদান সবচাইতে বেশী। ভারত আমাদের পাশে না থাকলে আমরা এতিম…….ইত্যাদি ইত্যাদি। এ‘ছাড়াও তাদের মনে বাংলাদেশ সম্পর্কে যে বিদ্বেষ, ঘৃণার বিষবাষ্প লুকানো আছে, তা উগরে দেয়ার সর্বোচ্চ চেষ্টা করে। ইউটিউবের মতো মিডিয়াতে অশিক্ষিত-কুশিক্ষিতসহ বিভিন্ন ধরনের মানুষ আসে। তাদের কথাকে খুব একটা গুরুত্ব দেয়ার কিছু নাই। তবে এসব অশিক্ষিত-কুশিক্ষিতদের একটা প্রেতাত্মা যে ব্লগে এসেও হাজির হবে, সেটা কখনও ভাবি নাই।

বলছি ''গেছোদাদা'' নিকের এক ব্লগারের কথা। কয়েকদিন আগে এই ব্লগার রম্যের নামে একটা পোষ্ট দিয়েছিল, বাংলাদেশী সংবাদ পাঠিকা ও কমেন্টস !! শিরোনামে। সেখানে বুঝে হোক কিংবা না বুঝে, অনেকে বিনোদিত হয়েছেন। অনেকে 'রম্য' নামের এই ধরনের বিদ্বেষপূর্ণ লেখার বিরোধিতাও করেছেন। লেখায় মূলতঃ বাংলাদেশের মন্তব্যকারীদের বানান ভুল আর তাদের ইসলামী মানসিকতার বিষয়ে কটাক্ষ করা হয়েছে। মোটিভ বোঝার জন্য কমেন্ট করে বিষয়টা পরিস্কার হলো যে, ইতরামী করাই এর আসল উদ্দেশ্য। মনে হলো বিষয়টা নিয়ে দু'কলম লেখা উচিত। তাই এই পোষ্টের অবতারণা।

বোঝার সুবিধার জন্য একটা উদাহরন দেই আগে। মনে করেন আপনার পরিবারের একজন একটা অন্যায় করেছে, যেটার জন্য আপনি নিজেও বিব্রত এবং বিরক্ত। কিন্তু সেটা নিয়ে আপনার কোন প্রতিবেশী যদি খোচাখুচি করে, আপনাকে ছোট করার মানসিকতা দেখায় তাহলে কেমন হবে? আর সেইসব অন্যায় বা দোষ যদি আপনার সেই প্রতিবেশীর নিজের পরিবারেই বহুগুনে থাকে, তাহলেই বা কেমন হবে? এ'ক্ষেত্রে কমনসেন্স কি বলে? কমনসেন্স বলে যে, পরিবারের ভিতরে আপনি সেই অন্যায়ের বিরুদ্ধে যে পদক্ষেপই নেন না কেন; সেল্ফ ডিফেন্সের স্বাভাবিক প্রক্রিয়াতেই সেই বিষাক্ত প্রতিবেশীর কথাকে আপনি গুরুত্ব দিবেন না।

মূল বিষয়টা হলো, আমাদের দেশ বা দেশের মানুষ সম্পর্কে একজন ভিনদেশী যার কিনা নিজেদের দেশেই সমজাতীয় সমস্যার অন্ত নাই, তেমন কারো কাছ থেকে আমরা কোন নসিহত শুনতে চাই না। আমাদের সমস্যা আমরাই সামলাবো। যে কোন গঠনমূলক সমালোচনা আমরা শুনতে আগ্রহী, কিন্তু ব্যঙ্গ-বিদ্রুপ একেবারেই বরদাশত করবো না।

এই ব্লগার এতোদিন বিভিন্ন রকমের রম্য লিখতো; খুবই ভালো কথা। কিন্তু বাংলাদেশ নিয়ে তার যে চুলকানী, সেটা আর গোপন রাখতে পারলো না। আসলে খাউজানী-চুলকানী এমন একটা ব্যাপার যা কিনা বেশীদিন গোপন রাখা সম্ভবও না। একদিন না একদিন বের হয়ে আসবেই।

লিখতে গেলে বানান ভুল হতেই পারে, অথবা সঠিক বানান সম্পর্কে ধারনা না-ই থাকতে পারে। এই ব্লগেই অনেক নামকরা ব্লগারের এই সমস্যা আছে। কিন্তু লেখার পেছনে আবেগটাই মুখ্য। নিজের ভাব প্রকাশে মানুষ তার সর্বোচ্চ চেষ্টাই করে সব সময়। সেটাকে খাটো করে দেখার কোন অবকাশ নাই। নাকি এই আলোচ্য ব্লগার মনে করে, তাদের দেশের সবাই উচ্চ শিক্ষিত! তাদের কোন বানান ভুল হয় না!!! অন্যদিকে ধর্মীয় বা জাতীয়তাবোধ থেকে যে উগ্রতার জন্ম, সেটাও কম-বেশী সব দেশেই আছে। কিন্তু যেই দেশের ক্ষমতায় একটা ধর্মীয় উগ্রবাদী গোষ্ঠী, সেই দেশের একজন যদি আরেক দেশের একই বিষয় নিয়ে খোচাখুচি করে, সেটা কতোটুকু শোভনীয়? কিছু মানুষ বিদ্বেষে এতোটা অন্ধ হয় কিভাবে? আর এতোটা কম আক্কেলেরই বা হয় কিভাবে? আমার বুঝে আসে না।

এই ব্লগেই আমরা ওপার বাংলার পদাতিক চৌধুরির মতো একজন অতি সজ্জন ব্লগার পেয়েছি। উনার মতো একজন সর্বজনপ্রিয় ব্লগারকে দেখে কি কিছুই শেখা যায় না? অবশ্য যাদের মনে সব সময়ে ''কি হনুরে'' ভাব খেলা করে, তারা শিখবেই বা কিভাবে? শেখার মানসিকতা গড়ে ওঠে একটা নির্দিষ্ট পরিমানের শিক্ষা থাকলে। সেই 'পরিমান' অর্জন করাটাও একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

কোনটা রম্য আর কোনটা আমাদের দেশের প্রতি ভিনদেশী একজনের হিংসা উগরে দেয়া, সেটা বোঝা আমাদের অনেকের জন্যই জরুরী। যাই হোক, যাদের গায়ে পড়ে দাদাগিরি করার খায়েশ আছে তাদের বলছি,

Get a life. We don't give a shit of who you are and what you are!!!

পেট ভর্তি বিদ্বেষ নিয়ে ওইপাড়েই মোচড়াইতে থাকেন। সেটাই ভালো হবে।

ছবিসূত্র।

মন্তব্য ৪২ টি রেটিং +১৬/-০

মন্তব্য (৪২) মন্তব্য লিখুন

১| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ১০:৪৯

আরোগ্য বলেছেন: এহন কাজকামে ব্যস্ত। পরে আমুনি।

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ১১:২৩

ভুয়া মফিজ বলেছেন: হ..............কাজকাম আগে। ব্যস্ততা কমুক আগে। জানানোর লাইগা শুকরিয়া। :)

২| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ১১:০৯

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: আমিও তো মন্তব্য করছিলাম। এসব মন্তব্যের ব্যাপারে আমারও মন খারাপ হয় । ফেসবুকে সংবাদের কোনো লিংকে যেসব মন্তব্য সব আবোল তাবোল । দেখে বিরক্ত হই।

আমি উনার পোস্টের গভীরতা বুঝি নি :(

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ১১:২৬

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আমি উনার পোস্টের গভীরতা বুঝি নি সেইটা সমস্যা না। এমনটা হইতেই পারে। আসলে এইসব কমেন্ট দেখলে আমিও বিরক্ত হই, কিন্তু একটু গভীরভাবে চিন্তা করলেই বোঝা যায় অনেক কিছু। সবচেয়ে বড় কথা, দাদাগিরি আমার কাছে অসহ্য। এসব দেখলে সেই চালুনি আর সুইয়ের গল্প মনে পড়ে যায়।

৩| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ১১:১৮

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: আমি আশ্চর্য হয়েছি আমাদের নিজেদের মধ্যকার কিছু আহাম্মকের বেইমানি দেখে। এ আহাম্মকদের নিজের দেশের প্রতি নেই একবিন্দু ভালোবাসা, মমত্ববোধ। এইসব আহাম্মকেরা বুঝতে পারে না কোনটা আমাদের জাতির আঁতে ঘা দেয়। যেখানে বাংলাদেশকে খাটো করার জন্য কিছু প্রতিবাদমূলক মন্তব্য আছে, কিছু বেইমান লাফ দিয়ে সেখানে গিয়ে তার সাথে হাত মেলালো - হা ভাই, আপনার রম্য খুব ভালো। চিন্তা করতে পারছেন?

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ১১:৩৩

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আমি আশ্চর্য হয়েছি আমাদের নিজেদের মধ্যকার কিছু আহাম্মকের বেইমানি দেখে। এ আর আশ্চর্যের কি খলিল ভাই। ভাদা, পাদা টার্মগুলোর উদ্ভব তো এমনি এমনি হয় নাই। এদের নতজানু নীতির শেকড় অনেক গভীরে। এসবের মুলোৎপাটন করা দুঃসাধ্য ব্যাপার।

আত্মসন্মানবোধ, দেশপ্রেম ইত্যাদি যে কতোটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, সেটা এদের বোঝাবে কে?

যেখানে বাংলাদেশকে খাটো করার জন্য কিছু প্রতিবাদমূলক মন্তব্য আছে, কিছু বেইমান লাফ দিয়ে সেখানে গিয়ে তার সাথে হাত মেলালো - হা ভাই, আপনার রম্য খুব ভালো। এসব দেখে রাগ হয়, খুবই রাগ হয়। দাদা দেখলেই তেল মারতে মারতে এরা নিজেদের আত্মপরিচয়ও ভুলে যায়। এমনই এদের কারিশমা!! দাদাদের পদধুলি নেয়ার জন্য এরা সবকিছু ছেড়ে দিতে পারে। দালালীর কি মাহাত্ম্য!!! :-B

৪| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ১১:৫০

গেঁয়ো ভূত বলেছেন:


এব্যাপারে আমার অভিজ্ঞতা একদম বিপরীত। ফেবুতে আমার ফ্রেইন্ড লিস্ট ওপারের যে কয়জন আছেন তাঁরা প্রত্যেকেই মানবিক গুণাবলী সম্পন্ন মানুষ, বাকিদের খবর রাখিনা। আমাদের আমিন পার্টিরাও কিন্তু সব সময় একটা মারমূখী অবস্থানে থাকে।

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ১১:৫৮

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আপনার অভিজ্ঞতা বিপরীত হতেই পারে। পোষ্টেই বলেছি, আমাদের প্রিয় ব্লগার পদাতিক চৌধুরীর কথা। সবাই যে আমিন পার্টি তা না। আপনাকে ক্রমাগত উত্যক্ত করতে থাকলে আপনি কি করবেন? দেশ নিয়ে বিদ্রুপ সহ্য করা অনেকের জন্যই কঠিন। ফলে অনেকেই আক্রমনাত্মক হয়ে ওঠে।

৫| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ১১:৫১

জুল ভার্ন বলেছেন: আমি সোনাগাছি দাদার পোস্টে বমিও করিনা। +

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ১১:৫৯

ভুয়া মফিজ বলেছেন: উচিত কাজ করেন। আমিও করি না, শুধু সেই পোষ্টে প্রতিবাদ করতে গিয়েছিলাম। অভিজ্ঞতা ভয়াবহ। আমাদের কিছু দেশী ভাইদের কার্যকলাপ দেখে মুগ্ধ হয়েছি!!! B:-/

৬| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ দুপুর ১২:৪৮

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: রম্যের উদ্দেশ্য লোক হাসানো বা নিপাট বিনোদন। কিন্তু কোনো অবস্থাতেই কাউকে আঘাত করে সেট করা সমীচিন নয়। হয়তো অনিচ্ছাতেই এমন ঘটনা কখনোবা ঘটতে পারে। সেক্ষেত্রে ফ্রাকশন অফ সেকেন্ডের মধ্যে নিজেকে ক্ষমা চেয়ে বিষয়টির নিষ্পত্তি করা সঙ্গত বলে আমার ব্যক্তিগত অভিমত।আর তা যদি না হয় তাহলে ধরেই নিতে হবে রম্যের আড়ালে উস্কানি বিদ্রুপ যে কারো উদ্দেশ্য।

তবে এই পোস্টের শেষে নিজেকে এমন অভিধায় চিহ্নিত করায় বিব্রত বোধ করছি। আমাদের প্রত্যেকেরই কমবেশি সেন্স অফ হিউমার আছে বা থাকে। আমরা বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে সেটা ব্যবহার করি। এখন কথা হলো কোথায় করি? হ্যাঁ আমি যাদেরকে হেয় জ্ঞান করি সেখানে হিউমার দেখাতে মন চায় না। কিন্তু যাদেরকে সুপিরিয়র ভাবি সেখানে আবার ষোলআনা হিউমার দেখিয়ে থাকি। কাজেই বলার যে পোস্টের শেষ অংশে আমার নামটি উল্লেখ না করলেই বেশি ভালো হতো।
ভালো থাকবেন।
সবশেষে বলার বাংলা ভাষার গর্ব বাংলা ব্লগ। সেটা কিন্তু বাঁচিয়ে রেখেছে ঢাকা কেন্দ্রিক সামহোয়্যার ইন ব্লগ। কলকাতা থেকে হাজার বছরেও এরকম একটা ব্লগ তৈরি করা কখনোই সম্ভব নয়।

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ দুপুর ২:৫৪

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আপনি প্রথম প্যারাতে যেটা বলেছেন সেটাই হলো একজন মানুষের স্ট্যান্ডার্ড এ্যক্ট। আর যদি তার মনের মধ্যে কোন বিষ থাকে তাহলেই সে অন্যথা করবে। এ'ক্ষেত্রে সেটাই হয়েছে। মনের অজান্তে আমরা অনেক কিছুই করি; কিন্তু জেনে-শুনে কোন কিছু করলে তা শোধরানোর কোন ইচ্ছাই থাকে না।

আপনাকে বিব্রত করার জন্য আপনার নাম নেই নাই। আপনি ছাড়া ওপার বাংলার কোন নিপাট ভদ্রলোকের সাথে আমার পরিচয় নাই। তাই বাধ্য হয়ে আপনার নাম নিতে হয়েছে। তাছাড়া, এই ব্লগের সবাই আপনাকে চিনে। যদিও শুরুতে কেউ কেউ আপনাকে গুপ্তচরের ভূমিকায় দেখার চেষ্টা করেছিল, তবে তা অচিরেই ব্যর্থতায় পর্যবসিত হয়েছে। :P

আপনে বেশী চেইতা গেলে জানায়েন, আপনের নাম ডিলিট কইরা দিমুনে। :)

সবশেষে বলার বাংলা ভাষার গর্ব বাংলা ব্লগ। সেটা কিন্তু বাঁচিয়ে রেখেছে ঢাকা কেন্দ্রিক সামহোয়্যার ইন ব্লগ। কলকাতা থেকে হাজার বছরেও এরকম একটা ব্লগ তৈরি করা কখনোই সম্ভব নয়। বেশ কয়েক বছর আগে চেষ্টা করলে হয়তো বা হতে পারতো, তবে অন্ততঃ এখন যে আর সম্ভব না, এটা নিশ্চিত।

৭| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ দুপুর ১:৪২

স্বাধীন বাংলা ৭১ বলেছেন: ভুয়া মফিজ ভাই, আপনার পোষ্ট আমি বুঝতে পেরেছি। আপনি বলিতে চাহিয়াছেন একদুজন রামছাগলের জন্য সবাইকে হেয় করা ঠিক নয়।
কে ভারতের ব্লগার কে বাংলাদেশের ব্লগার সেডি বড কথা নহে। গেছো দার পোস্টে চাঁদে সাইদীকে দেখা হুজুরগো নারী সংবাদ পাঠিকার পোষ্টে আহামক্কী মন্তব্যগুলো রম্য হিসেবে তুলে ধরা হয়েছে।য়াহাম্মক কমেন্টার আর সমস্ত বাংলাদেশ এক নহে।আমিন ভাইগো নিয়ে মোরাও ট্রোল করিয়া থাকি। ব্লগার সোনাবিজ দেখলুম ওই পূষ্টে যারা মন্তব্য করেছে তাদের বেইমান বলছে।ব্লগার জুলভার্ণ কচ্ছে হেয় গেছোর পূষ্টে বমিও করেনা।মডু প্রত্তম পাতা থিকা পূষ্ট সরায়নাই। কোন বলগার পোষ্ট করিলে অন্যন্য ব্লগার তাহাতে কমেন্ট করিবেক।ইখানে বেইমানির কি হুলো?কাড়ো পোষ্টে জুলভানের মত হাই প্রফাইল বলগার মন্তব্য নাই করিতে পারে।উহা অহংকার করে বলে অসম্মান করা অনুচিত।
ভাল থাকা হক।

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ দুপুর ২:৫৫

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আপনি আমার পোষ্ট বুঝতে পেরেছেন বললেও কে ভারতের ব্লগার কে বাংলাদেশের ব্লগার সেডি বড কথা নহে........আমিন ভাইগো নিয়ে মোরাও ট্রোল করিয়া থাকি আপনার মন্তব্যের এই পার্টটুকু পড়ে বুঝলাম, আপনি কিছুই বোঝেন নাই। আফসোস। আরও আফসোসের বিষয় হলো, নিজেকে লুকানোর জন্য আপনার বাংলা ভাষা নিয়ে সার্কাস্টিক কসরৎ দেখা। এইসব বাদ দেন।

সোনাবীজ ভাই আর জুলভার্ন ভাই উচিত কথাই বলেছেন। আপনি মন্তব্যে বাকী যা বলেছেন, তাতে আমার ধারনা আরও পোক্ত হয়েছে যে, আপনি আসলেও কিছু বোঝেন নাই, কিংবা বোঝার চেষ্টাও করেন নাই। আদৌ সম্পূর্ণ পোষ্ট ঠিকমতো পড়েছেন কিনা আমার সন্দেহ আছে।

আপনারও ভাল থাকা হক:)

৮| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ বিকাল ৪:০৯

আরোগ্য বলেছেন: হ্যায় যে ভারতীয় প্রোডাক্ট, আমি তো আজকাই জানলাম। আমি জানতাম ভারতীয় শুধু একজনই আছে ব্লগে যার কাছ থেইক্যা বাংলাদেশী সৌরভ পাওয়া যায় B-) । বাকী প্রতিবেশী গো লেইগা চোখ কান খোলা রাখন লাগবো #:-S


আচ্ছা বাংলাদেশ তো ভারতের পেট থেইক্কাই বাইর অইছে তাইলে এহন ওরা কেল্লেইগা সৎ মার রহম আচরণ করে। আমরা তো আম আর ইলিশ না খায়া ওগো পেটে দেই। B:-)

২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ৭:৪১

ভুয়া মফিজ বলেছেন: ভারতীয় প্রোডাক্ট সবই যে দুর্গন্ধ ছড়ায় তা না, তয় আমার অভিজ্ঞতা এই ক্ষেত্রে তেমন একটা সুবিধার না। আসলে এরা আমাগো থিকা বেশী পাইতে পাইতে আর খাইতে খাইতে মাথায় উইঠা গ্যাছে। এহন নামানো কঠিন, তয় চেষ্টা চালাইতে হইবো। এইগুলারে আমি তেমন একটা সমস্যা মনে করি না। সমস্যা হইলো আমাগো দেশী ভাদাগুলি। এইগুলার কোন দেশপ্রেম আর আত্মসন্মান তো নাই-ই, চক্ষুলজ্জাও নাই। বড়ই আফসোসের বিষয়!!! :(

৯| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ বিকাল ৪:১৯

নাহল তরকারি বলেছেন: তারা অখন্ড ভারত বানাতে চায়।

২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ৭:৪২

ভুয়া মফিজ বলেছেন: পাগলের সুখ মনে মনে, রাইত হইলে তারা গনে!!!

১০| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ বিকাল ৫:২৪

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: স্বাধীন বাংলা ৭১ বলেছেন: ব্লগার সোনাবিজ দেখলুম ওই পূষ্টে যারা মন্তব্য করেছে তাদের বেইমান বলছে। সবাইকে একচাপা বলা হয়েছে, এটা ঠিক না। কমেন্টগুলো পড়লেই বোঝা যাবে এই রাজাকারী কাজগুলো কে করেছে। ভুয়া মফিজসহ ২/৩ ব্লগার মাত্র ওটার প্রতিবাদ করেছেন। সবাই যে ব্যাপারটা শুরু ধরতে পেরেছেন, তাও না। এমনকি লেখকও হয়ত বুঝতে পারেন নি, এটা সার্বিকভাবে একটা দেশকে হেয় করা হচ্ছে। বাংলাদেশের প্রশ্নে যখন ২/৩ জন ব্লগার ঐ কন্টেন্টের প্রতিবাদ করছিল, তখন লাফ দিয়ে কেউ এসে যদি ঐ পোস্টদাতার সাথে হাত মিলিয়ে গদগদ হয়ে বলে, আপনি খুব ভালো রম্য লেখেন, তখন এটা হয় চরম আহাম্মকি, নির্বুদ্ধিতা, আর এ কাজটা একান্তই বেইমানি ও রাজাকারির পর্যায়ে পড়ে। ব্যাপারটা সহজ হয়ে যেত, লেখক যদি নিজের ভুল বুঝতে পেরে নরম স্বরে কথা বলতেন। তিনি বরং আরো চ্যাটাং চ্যাটাং উত্তর দিতে থাকলেন, যা তিনি ঠিক করেন নি।

২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ৭:৪৩

ভুয়া মফিজ বলেছেন: চমৎকার ব্যাখ্যা!! :)

১১| ২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ১২:২৭

গেছো দাদা বলেছেন: একটাই মন্তব্য করার আছে। সামু ব্লগ ছাগু দিয়ে অনেকটাই ভর্তি। এদের বেশিরভাগেরই সেন্স অব হিউমার বলে কিছু নেই। তবুও এদেরকে আমার পোষ্টে স্বাগতম। ধন্যবাদ।

২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ৭:৪৩

ভুয়া মফিজ বলেছেন: দেশী ছাগু তাও আমি সহ্য করতে পারি কিন্তু ভিনদেশী গো-মূত্র সেবনকারী একেবারেই পারি না। এটা আমার একটা অক্ষমতা। =p~

সংবিধিবদ্ধ সতর্কীকরণঃ আমার পোষ্টে আমি কোন ল্যাদানো এলাউ করি না। ভবিষ্যতে ফালতু মন্তব্য করতে আসলে ব্লগীয় গলাধাক্কা অর্থাৎ মন্তব্য মুছে দেয়ার মতো ঘটনা ঘটতে পারে। সেইজন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না।

১২| ২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ১২:৩৭

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: ওইসব মন্তব্য পড়ে ভিনদেশীরাও হাসে। নিজেরা তো হাসিই। তবে আপনার পোস্ট পড়ে মনে হলো নিজের ছাগল সারাদিন ম্যা ম্যা করলেও ভালো।

২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ৭:৪৪

ভুয়া মফিজ বলেছেন: তবে আপনার পোস্ট পড়ে মনে হলো নিজের ছাগল সারাদিন ম্যা ম্যা করলেও ভালো। ঠিকই ধরেছেন। সেইজন্যই আপনার মন্তব্যটা আপনার আগের মন্তব্যটার চাইতে আমার কাছে বেশী পছন্দনীয়!!!

১৩| ২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ ভোর ৬:৫৭

সোহানী বলেছেন: হাঁ, আমি তার কিছু পোস্টে এরকম কিছু দেখে তার পোস্ট পড়া বন্ধ করেছি। আপনাকে ধন্যবাদ ভদ্রলোককে সামনে এনেছেন বলে।

আমি লিখবো ভাবছিলাম কিন্তু তার পোস্ট পড়ে তার রেফারেন্স দিতে হতো। আবার তার পোস্ট পড়ার মতো রুচি হয়নি তাই লিখিনি।

ঠিক একইভাবে আমার ফেসবুকে কিছু উজবুক এসে জুটেছিল। তারাও কিছু হলেই হুমকি ধামকি দেয়া শুরু করে। এক ছাগলতো রীতিমত ট্রেথও দিয়েছিল। B-))

২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ৭:৪৪

ভুয়া মফিজ বলেছেন: এই লোকরে ভদ্রলোক বইলা একটা ফৌজদারী অপরাধ করছেন। হ্যার পোষ্ট আমি কোনকালেই পড়ি না, তয় এইবার মনের ভুলে ঢুইকা টের পাইছি, অনেকেই ক্যান পড়ে না। আপনে লেখলে নিচ্চিত আমার থিকা ভালো লেখতে পারতেন। মিস করলাম। ফাটা কপাল এরেই কয়!!! :(

ফেসবুকে হুমকি-ধামকি দিলে সেইগুলারে সম্ভবতঃ ছাগল কয় না, রামছাগল কয়। :P

১৪| ২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ৯:৩৪

নতুন নকিব বলেছেন:



সবশেষে বলার বাংলা ভাষার গর্ব বাংলা ব্লগ। সেটা কিন্তু বাঁচিয়ে রেখেছে ঢাকা কেন্দ্রিক সামহোয়্যার ইন ব্লগ। কলকাতা থেকে হাজার বছরেও এরকম একটা ব্লগ তৈরি করা কখনোই সম্ভব নয়।

-পদাতিক ভাইয়ের কথাটা খুবই গুরুত্ব বহন করে। এমন একটি ব্লগকে বাঁচিয়ে রাখতে আমাদের সবারই চিন্তা-ভাবনা ও উদ্যোগ থাকা উচিত।

পোস্ট দিয়ে না জানালে হয়তো বিষয়টি জানা হতো না। কারণ, ইদানিং ব্লগে তেমন একটা আসা হয় না। পোস্ট দেয়া, পাঠ করা, মন্তব্য করা- সবকিছু থেকেই কিছুটা দূরে। তবে তাকে আমি একটু আধটু আগে থেকেই জানতাম। তার লেখা থেকেই তাকে চিনেছিলাম।

কোন দেশ, জাতি বা জনপদের মানুষকে অসম্মান করার মাঝে সম্মানের কিছু নেই। সম্মান পেতে হলে আগে দিতে হয়। সবচেয়ে বড় কথা, ধর্মীয় উগ্রবাদিতায় আপাদমস্তক নিমজ্জিত ইর্ষাকাতর একটি দল দীর্ঘসময় যাবত ক্ষমতা কুক্ষিগত করে রেখে যে দেশটির সংখ্যালঘু ধর্মীয় সম্প্রদায়গুলোর (বিশেষ করে মুসলিমদের) মানবিক, ধর্মীয় এবং সামাজিক অনেক অধিকার কেড়ে নিতে যেখানে সামান্য ভাবনা চিন্তা করে না, অন্য ধর্মাবলম্বীগণের উপাসনালয় ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিয়ে আদালতকে কুক্ষিগত করে নিজেদের পছন্দের রায় প্রকাশ করে সেসব স্থানে অন্যবিধ স্থাপনা বানাতে যাদের অন্তর কাঁপে না-কাঁদে না, নিজেদের ধর্মীয় বিশ্বাসের দোহাই দিয়ে সামান্য পশু জবাই করার দায়ে অন্য ধর্মের মানুষ পিটিয়ে হত্যা করতে যারা একটুও বিব্রতবোধ করেন না, শুধুমাত্র ধর্মীয় পরিচয়ের ভিন্নতার কারণে যারা মানুষের নাগরিক অধিকার পর্যন্ত কেড়ে নেয়ার মত অপকর্ম করতেও দ্বিধাবোধ করেন না - সেই দেশের লোকেরা কি না রম্যের নামে আমাদের দেশের মানুষদের উপদেশ বিতরন করতে চান! তাদের দেশে এমনতরো উদাহরণ ভুরি ভুরি রয়েছে যা এর চেয়ে বরং বহু গুন সরেস! তাই বলি, অন্যের পশ্চাদ্দেশে অঙুলি প্রবিষ্ট করে পুলক অনুভব করার চেয়ে তাদের বরং নিজেদের সেসব অপকর্ম আর কুকীর্তি নিয়ে বগল বাজানো আর উল্লাস করাই শ্রেয়!

যাক, প্রতিবেশীদের প্রতি সদয় হওয়াই ভালো। আমরা তাদের প্রতি সবসময় সহৃদয়তাই দেখাতে চাই। আমার দেশের আম, ইলিশ থেকে শুরু করে কোন জিনিষ তাদের রেখে আমরা মুখে দিই, বলুন! ইসলামের প্রকৃত শিক্ষাও তো এটাই। তাছাড়া, বেশি কিছু বললে কারও কারও আবার মন খারাপও হতে পারে। কারও মন খারাপ করে দিতে মন সায় দেয় না।

অনেক অনেক শুভকামনা জানবেন।

২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ১১:৫৩

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আমাদের এই ব্লগে আমরা যে কাউকেই স্বাগতঃ জানাই। বিদেশী বাঙ্গালী হলে আরো বেশী। কিন্তু তাই বলে দাদা....দাদা রবে গলে পড়ার কিছু নাই। আমাদেরই কিছু লোকজনের কারনে এরা মাথায় উঠে বসে, বসে বড়ই খায়, আবার বড়ইয়ের বিচিটাও আমাদের মাথায় ফেলতে চায়। এইসব লোককে ঝেড়ে ফেলতে হবে। এরা দুই দেশের সম্পর্ককে বিষাক্ত করতে বিরাট ভূমিকা পালন করে। খারাপ লাগে এটা দেখে যে, এই সব রম্যের নামে বস্তাপচা লেখা পড়েও অনেকে হাততালি দেয়। অবশ্য কেন দেয় সেটা আমি খুব ভালো করেই জানি। আপাততঃ বিতং করে কিছু বলতে চাই না। তবে যেদিন ধরবো..............!!!

আসলে পরিসংখ্যান দেখলেই বোঝা যায় ধর্মীয় সম্প্রীতি কোথায় বেশী। সেই ব্যাখ্যা বিশ্লেষনে যাবো না। সময় পেলে কোন একদিন চেষ্টা থাকবে এটা নিয়ে লেখার।

প্রতিবেশীদের প্রতি সদয় হওয়াই ভালো। আমরা তাদের প্রতি সবসময় সহৃদয়তাই দেখাতে চাই। আমার দেশের আম, ইলিশ থেকে শুরু করে কোন জিনিষ তাদের রেখে আমরা মুখে দিই, বলুন! ইসলামের প্রকৃত শিক্ষাও তো এটাই। সেটাই। কিন্তু সমস্যা বাধে তখন, যখন এটাকে তারা তাদের অধিকার মনে করে। X(

১৫| ২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ১০:২৪

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: বাংলাদেশের মানুষের প্রতি হিংসা, বিদ্বেষ, ব্যাঙ্গকে উনি রম্য বলে চালানোর চেষ্টা করছেন। নিজেকে অনেক বড় রম্য লেখক মনে করছেন। আপনি দাঁত ভাঙ্গা জবাব দিয়েছেন। এজন্য ধন্যবাদ আপনাকে।

২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ১১:৫৪

ভুয়া মফিজ বলেছেন: এই লোকের বাংলাদেশী বিদ্বেষ নতুন না। আগেও সে বাংলাদেশ নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করেছে, কিন্তু কেউ কোন প্রতিবাদই করে নাই। ফলে এর গলা আরও লম্বা হয়েছে। আমার কাছে বেশ কিছু স্ক্রীণশট আছে। একটা স্যাম্পল দিলাম, দেখেন। এর ধারনা বাংলাদেশ একটা ধর্মবর্বর দেশ! কতোবড় ইডিয়েট বুঝতে পারছেন!!!

১৬| ২৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ৯:৫৬

জহিরুল ইসলাম সেতু বলেছেন: সামুতে আজকাল কুর্দনমার্কা হুজুররাও ওয়াজ করতে শুরু করেছে!
শেম! শেম!!

২৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ১১:২৯

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আপনার মতো দালাল গোনার টাইম নাই। নর্তন-কুর্দন অন্য জায়গায় গিয়া করেন।

মাইন্ড ইয়োর ওউন বিজনেস।

১৭| ০১ লা অক্টোবর, ২০২২ বিকাল ৩:৩৭

জহিরুল ইসলাম সেতু বলেছেন: আমাকে দালাল বলার ধৃষ্ঠতা আপনার মতো উগ্রবাদীরাই কেবল দেখাতে পারে। যারা শিক্ষা-রুচিবোধ-ভব্যতার ধার ধারে না, যুক্তি ও শালীনতা জানে না, ধর্ম যতোটা না বুঝে তারচে বেশি ধর্মপ্রেম দেখায়। আপনার মতো হুজুরদের পক্ষেই অসভ্য আচরণ সম্ভব, আমি অবাক হইনি।

০২ রা অক্টোবর, ২০২২ দুপুর ২:১৬

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আপনার মন্তব্য অনুসারে আমি উগ্রবাদী, শিক্ষা-রুচিবোধ-ভব্যতার ধার ধারি না, যুক্তি ও শালীনতা জানি না, ধর্ম কম বুঝি কিন্তু ধর্মপ্রেম বেশী দেখাই.......তাইতো? ওয়েল, অভিযোগগুলো যেহেতু আপনার, কাজেই আশা করা যায়, এসব সমস্যা আপনার মধ্যে নাই। তা এই রকমের শিক্ষা-রুচিবোধ-ভব্যতার ধারক-বাহক, শালীন এবং যুক্তিবাদী, ধর্ম বেশী বোঝা একজন মহামানব ১৬ নং মন্তব্যটা কিভাবে করলো? আর ধর্ম সম্পর্কে আপনার গেয়ান তো ''ইশ্বর একটা ভার্চুয়াল কনসেপ্ট'' এর মধ্যেই সীমাবদ্ধ, তাই না? হিপোক্র্যাসির একটা সীমা থাকা উচিত, নয় কি!!!

তবে শেষে যেটা বলেছেন, ''আমার মতো হুজুর'' এই কথাটায় আমার ঘোরতর আপত্তি আছে। আমাদের মহানবী (সাঃ)কে হুজুরে পাক (সাঃ) বলেও সন্মানীত করা হয়। সাধারনভাবে এবং উনার একজন অনুসারী হিসাবে এটা আমার জন্য সন্মানের, তবে এর যোগ্য আমি না। সেই পর্যায়ে এখনও পৌছাতে পারি নাই। অত্যন্ত আফসোসের কথা! তবে, দোয়া রাখবেন যেন পরিস্থিতির উন্নতি হয়!!! :-B

দালাল বলাতে আপনার কষ্ট লাগলো দেখে খুবই আশ্চর্য হলাম। ইসলাম বিদ্বেষী মনোভাব পোষণ করতে করতে আপনাদের এমন অবস্থা হয়েছে যে......কে, কোথায়, কিভাবে দেশকে অপমান করছে সেটাও গুলে খেয়ে ফেলেছেন। দাদারা বললে তো সেই কথা বিনা প্রতিবাদেই মেনে নিতে হবে, কি বলেন? আর সেখানে যদি একটু ইসলাম বিদ্বেষের চাটনী থাকে, তাহলে তো কথাই নাই। একেবারে অমৃত!!! দেশ আগে, নাকি দাদা আগে? অবশ্যই দাদা।

যাই হোক, আপনার মন্তব্যের উত্তর দেয়ার মতো ফালতু কাজে বেশ কিছুটা সময় নষ্ট করলাম। আপনি বরং নাচতে থাকেন। এভাবে বিনা পয়সার নৃত্য দেখতে ভালোই লাগে। আবার আসার অনুরোধ রইলো। বিনোদন চলুক!!!

১৮| ০২ রা অক্টোবর, ২০২২ দুপুর ১২:৪২

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন: বাংলাদেশী বিদ্বেষ পোনকারী মনোভাব শেষ পর্যন্ত ধরা পড়ল উক্ত রম্যতে।

০২ রা অক্টোবর, ২০২২ দুপুর ২:১৭

ভুয়া মফিজ বলেছেন:
-------
কথায় আছে না........দূর্জনের ছলের অভাব হয় না!! বাংলাদেশের প্রতি হিংসা আর বিদ্বেষ প্রকাশের জন্য কতো রকমের যে ছলচাতুরীর আশ্রয় নেয়া লাগে!! আবার এইসব তথাকথিত রম্যে হাততালি দেয়ার মতো দেশী ভাইদের নৃত্য দেখেও মনে প্রচুর আনন্দ হয়। ''দাদা প্রেম'' আসলেই খুব বড় একটা ব্যাপার!!! =p~

১৯| ০৬ ই অক্টোবর, ২০২২ সন্ধ্যা ৭:৫৪

মুক্তা নীল বলেছেন:
উক্ত ব্লগার সম্পর্কে সঠিক কথাই বলেছেন আপনি । এই গেছোদাদা প্রায় সময়েই আমাদের কালচার কে নিয়ে ডমিনেট করে
লিখে ।

১৮ ই অক্টোবর, ২০২২ সন্ধ্যা ৭:৫১

ভুয়া মফিজ বলেছেন: প্রথমেই স্যরি। আপনার মন্তব্যটা দেখেছি অনেক পরে, আর বিরাট ব্যস্ততায় দিন কাটছে। উত্তর দিতে দেরী হওয়ায় ওয়ান্স এগেইন দুঃখিত।

এই গেছোদাদা প্রায় সময়েই আমাদের কালচার কে নিয়ে ডমিনেট করে লিখে ঠিক বলেছেন। তারপরেও কিছু ব্লগার এর এসব অখাদ্য কৌতুকে বুঝে কিংবা না বুঝে হাততালি দেয়। দেশের প্রতি ভালোবাসা কিংবা আত্মসন্মানবোধের কোন বালাই নাই কিছু কিছু মানুষের মধ্যে। আবার দালাল বললেও রাগ করে! বড়ই অবাক হই দেখে!!

২০| ১৮ ই অক্টোবর, ২০২২ রাত ৮:০২

অপ্‌সরা বলেছেন: রম্য : বাংলাদেশি নাটক ! এই পোস্টটা দেখার পর থেকেই আমার মনে হলো একের পর এক বাংলাদেশের নাটক সংবাদ পাঠিকা সবাইকেই গেছো ভাইয়ার হিংসা লাগছে।

অথচ পদাতিক ভাইয়া এমনই একজন আমি কলকাতায় গেলে ভাইয়ার বাসায় বেড়াতে যেতে চাই।

১৮ ই অক্টোবর, ২০২২ রাত ৯:৩৭

ভুয়া মফিজ বলেছেন: শুধু বাংলাদেশের নাটক, সংবাদ পাঠিকা না; এই জিনিসটার বাংলাদেশের সবকিছুতেই হিংসা আছে। পেটে এতো হিংসা থাকলে পেট খারাপ হয় না? =p~

অথচ পদাতিক ভাইয়া এমনই একজন আমি কলকাতায় গেলে ভাইয়ার বাসায় বেড়াতে যেতে চাই জেনুইন রাজকন্যা আর ভুয়া রাজপুত্র একসাথে গেলে কেমন হয়? বাসার দরজায় নক করে একসাথে চিৎকার করে বলবো......সারপ্রাইজ!!! :-B

২১| ১৮ ই অক্টোবর, ২০২২ রাত ৯:৩৯

অপ্‌সরা বলেছেন: একদম খুব ভালো হয় তারপর দুজন মিলে পদাতিক ভাইয়াকে সঙ্গে নিয়ে গেছোভাইয়ার সন্ধানে বের হবো।

দেখি তার কত হিংসা! :)

১৮ ই অক্টোবর, ২০২২ রাত ১০:৩০

ভুয়া মফিজ বলেছেন: নাহ........তোমার সাথে যাওয়া যাবে না। লক্ষণ সুবিধার না। আমাকে বিপদে ফেলার বুদ্ধি!!! B:-)

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.