নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

জীবন মানে যন্ত্রনা

ওমেরা

শালীনতাই সৌন্দর্য্য

ওমেরা › বিস্তারিত পোস্টঃ

**** চাঁদ সুন্দর ভাইয়া বকুনি দিলে দিক তবু এই পোষ্ট না দিলে আমার মনে শান্তি লাগে না ****

২৬ শে মে, ২০২০ দুপুর ১:৪২


রমজান শেষে কোলাহল মুক্ত, ব্যাস্ততাহীন, নিরিবিলি একটা ঈদও শেষ হল। আলহামদুল্লিলাহ!

গত কয়েকটা মাস ধরেই সারা বিশ্বের প্রতিটা মানুষ করোনার কারনে কষ্টে আছে , কেউ করোনাতে আক্রান্ত হয়ে কেউ আক্রান্ত হবার ভয়ে।অনেকেই নিকট আত্বীয়, দুরের আত্বীয় , বন্ধু বান্ধব হারিয়ে কষ্টে আছেন , অনেকেই , জব হারিয়ে , বাবসা হারিয়ে বেকার হয়ে আর্থিক কষ্টে আছেন। আমাদের দু:খ - কষ্টকে সময় কেয়ার করে না , সে চলে তার আপন গতিতে ,তার গতির ধারাবাহিকতায় আমরাও পার করে ফেল্লাম রামাদান ও ইদুল -ফিতর।
এমনি এক রামাদানের চৌদ্দ রোজায় আমার আম্মু অসুস্থ হয় , ঈদের এক সপ্তাহ আগেই আমরা জানতে পারি আম্মুর ক্যানসার একেবারে শেষ সময়ে কোন চিকিৎসা নেই। আমার আম্মু কোরবানী ঈদের দুই সপ্তাহ আগে মারা যান সে দুইটা ঈদটা ছিল আমাদের পরিবারের কাছে সব চেয়ে খারাপ সময়ের ঈদ, সেই ঈদ গুলোতে আমাদের বাসায় অনেক আত্নীয় স্বজন ছিল তবু মনে হত দুনিয়াতে আমার কেউ নেই, আমাদের বাসায় রান্না হত না, অনেক মজার মজার খাবার আসত আত্বীয়দের বাসা থেকে , কিন্ত এত এত মজার খাবারের স্বাদও মলিন হয়ে যেত আমাদের কষ্টের কাছে। তবে সে সময়টা শুধু আমাদের জন্যই খারাপ সময়ছিল , এবারের ঈদের সময়টা সবার জন্যই খারাপ ।
আব্বু আম্মুকে ছেড়ে ভাইয়া ভাবীর সাথে সুইডেনে আসার পর আমার এমনিতেই ভালো লাগত না, ঈদ গুলোতে আরো বেশী খুব মন খারাপ লাগত।
আব্বু, আম্মুকে যেমন মিস করতাম দেশের ঈদের আনন্দকে মিস করতাম । কত কিছু মনে পরত চাঁদরাতে সবাই মিলে রাত জেগে হাতে মেহেদী দেয়া, ঈদের দিন সকালে সব কাজিনেরা মিলে নতুন জামা কাপড় পরে এক বাসা থেকে আরেক বাসা ঘুরে বেরানো কত দুষ্টুমি কত মজা হত এসব মনে করে কত কেঁদেছি ।
সকালে ভাইয়া ভাবী নামাজ পড়তে যেত , আমি কখনো যাইনি , ভাইয়া ভাবী নামাজ পড়ে এলে তিনজনে মিলে একটু পোলাও টোলাও খেতাম এটাই হল ঈদ। খাওয়া শেষে ভাইয়া কাজে চলে যেত ।ভাবী টেলিফোনে দেশে কথা বলত আর আমি মন খারাপ করে শুয়ে থাকতাম । ভাইয়া ঈদের দিন তাড়াতাড়িই ফিরত বিকালে ভাইয়া ভাবীর সাথে ঘুরতে যেতাম।
সেসময় এখানে এত বাংলাদেশী ছিল না , যারা ছিল তাদের সাথে তখনো সম্পর্ক তেমন গভীর হয়নি তাই কারো বাসায় যাওয়া হত না,আমাদের বাসায়ও কেউ আসতো না !

ভাইয়া ভাবীর সংসারে নতুন অতিথী এল । এই নতুন অতিথীর জন্য আমিও জীবনে ছন্দ ফিরে পেলাম।সুইডেনে আমার ভালোলাগা শুরু হল
আস্তে আস্তে সময় অনেক হল, ভাইয়া ভাবীর পরিবার আরো বড় হল। ভাইয়া ভাবীর পরিচিতি বেড়েছে, রক্তের আত্বীয় না হলেও আত্বার আত্বীয় অনেক এখন । এদের নিয়ে ঈদের আনন্দ এখানেও এখন ভালই হয়।
পিচ্চি পোলাপাইনর কোলাহল, আর লোকজনের আসা যাওয়াতে ঈদের দিন গুলোতে বাসা বেশ গরমই থাকে।অবশ্য গত কয়েক বছর ধরেই ঈদ গুলো সামারে হচ্ছে ছুটি থাকলেও আমি সামারজব করি তাই ঈদের দিন বাসায় থাকতে পারি না।( ছুটি চাইলে নিতে পারি ইচ্ছা করেই নেই না , মানুষ জনের গ্যাদারিং আমার ভালো লাগে না)
ঈদের দিন বাসার সবাই কে কোন জ্রেস পরে নামাজে যাবে , কোন বেডে কোন বেডশিট লাগার, ঘর টর সাজানো গোছানো এসব আমিই করি , তাছাড়া প্রতিবার ঈদে কয়েক আইটেম মিষ্টির পরও ভাবীকে একটা ইস্পেশাল আইটেম তৈরী করে দিতে হয় যাতে উনার বান্বুবীদের চমক দিতে পারেন। জবের আগে পরে এগুলো করতে হয় তাই ঈদের আগের কয়েকদিন আমার বেশ ব্যাস্ততাই যায়। আবার ঈদের পরও প্যারা কম যায় না।

করোনার কল্যান বা অকল্যানেই হোক এবার অন্য রকম একটা ঈদ পার করলাম । এবারের ঈদের দিনটা বাসায়ই ছিলাম , ভাইয়া,ভাবী কোন বন্ধু বান্ধবী আসেনি, উনারাও কোথাও যেতে পারেননি কোন পোলাইনও আসেনি তাই আমি ছারা সবারই একটু মন খারাপ ছিল।

আমাদের এখানে মোটামুটি সবই খোলা থাকলেও তবে মসজিদ গুলো বন্ধ। তাই মসজিদগুলোতে ঈদের নামাজ হয়নি , ( দুই, এক জায়গায় হয়েছে শুনেছি) । তাই নামাজে যাওয়ার কোন তারাহুরা ছিল না,আমরা সবাই মিলে বাসায়ই নামাজ পড়েছি। বাসার সবাই মিলে একসাথে খাওয়া দাওয়া করেছি। পিচ্চি গুলোর সাথে দুষ্টামী করেছি, আমার আপুর সাথে অনেক কথা বলেছি।অসামাজিক মানুষ হিসাবে আমার কাছে ঈদটা পারফেক্ট লেগেছে।

ঈদ মানেই হাসি ঈদ মানেই খুশী , ঈদ মানেই খাওয়া আর খাওয়া।
১ : লাল মোহন


আচ্ছা এটার নাম লাল মোহন কেন, কেউ কি বলতে পারেন?

২ : রসগোল্লা

রসে টুবো টুবো তাই এটার নাম রসগোল্লা মেনে নিলাম।

৩ : চমচম

এটার নাম টমটম না হয়ে চমচম কেন হল?

৪: কাঁচাগোল্লা

এটার নামে যুক্তি আছে কাঁচা ছানা গোল করা হয় তাই এটা কাঁচা গোল্লা।

৫: কাটারী ভোগ


৬ : দ্ই


এক সাথে সবই আছে।


নিজের এ্যাডভাটজ তো অনেক হল এবার আমাদের রানীর পালা।
১ :

২ :

৩ :

চানাচুর — এটাও আমি বানিয়েছি ।


সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা , খানা তো খাওয়াতে পারলাম না, একটা গান শুনেন, আমি গান তেমন শুনি না তবেপিচ্চির গানটা ভালই লাগল
view this link

মন্তব্য ৬৪ টি রেটিং +৭/-০

মন্তব্য (৬৪) মন্তব্য লিখুন

১| ২৬ শে মে, ২০২০ দুপুর ১:৫৫

সাহাদাত উদরাজী বলেছেন: হেডিং এর সাথে ভিতরের অমিল লক্ষ করলাম। যাই হোক, আনন্দে দিন কাটুক। আপনার জন্য ভালবাসা, ঈদ মোবারক।

২৬ শে মে, ২০২০ দুপুর ২:০০

ওমেরা বলেছেন: আরে ভাইয়া জানেন তো চাঁদ সুন্দর ভাইয়া খাবারের ছবি পোষ্ট দিলে মাইন্ড করে , তাই এরকম হেডিং । ঈদের শুভেচ্ছা ও অনেক ধন্যবাদ আপনাকে ।

২| ২৬ শে মে, ২০২০ দুপুর ১:৫৬

সাহাদাত উদরাজী বলেছেন: ওহ আর একটা কথা, গাজী ভাইরে ভয় পাইলে চলবে না, তিনি মুলত ভেরী কুল একজন মানুষ। আমি তার ভয়কে জয় করেছি! হা হা হা.।.।

২৬ শে মে, ২০২০ দুপুর ২:০৪

ওমেরা বলেছেন: ভয় পেলে কি চাঁদ সুন্দর ভাইয়া বলি ! আমার উনাকে ভালই জানি, উনি উনার মতই আমি আমার মত ।

আপনি তো তাহলে কঠিন কাজ করেছেন , আবারো ধন্যবাদ আপনাকে।

৩| ২৬ শে মে, ২০২০ দুপুর ২:০৭

ইসিয়াক বলেছেন: চানাচুর গুলো দেখে তো জিভে জল চলে এলো।
সুন্দর পোস্ট

২৬ শে মে, ২০২০ দুপুর ২:২৬

ওমেরা বলেছেন: এগুলো কিন্ত আমি বানিয়েছি , টেষ্টি আছে । এগুলো ছবি খেতে পারবেন না আপনি দোকান থেকে একটু কিনে খেয়ে আমাকে বলবেন না হলে তাহলে আমার ভালো লাগবে ।
অনেক ধন্যবাদ ও ঈদের শুভেচ্ছা নিবেন।

৪| ২৬ শে মে, ২০২০ দুপুর ২:০৯

কাজী আবু ইউসুফ (রিফাত) বলেছেন: আপু ডায়েটে থেকে এমন জিনিস দেখে অনেক লোভ হচ্ছে।

২৬ শে মে, ২০২০ দুপুর ২:৩০

ওমেরা বলেছেন: সপ্তাহে একদিন মাসে চারদিন খেলে কিছু হবে না । আমি সারা রমজানে কোন মিষ্টি খাইনি ঈদের দিন খেয়েছি । আবার অনেক দিন খাব না ।
ঈদের শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ আপনাকে ।

৫| ২৬ শে মে, ২০২০ দুপুর ২:১৩

ইসিয়াক বলেছেন:


আপু,
লাল মোহনের ছবি এ্যড হয়নি।

২৬ শে মে, ২০২০ দুপুর ২:৩২

ওমেরা বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ আপনাকে খেয়াল করার জন্য , এখন এড করে দিয়েছি।

৬| ২৬ শে মে, ২০২০ দুপুর ২:২০

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: ঈদ মোবারক।

২৬ শে মে, ২০২০ দুপুর ২:৩৩

ওমেরা বলেছেন: আপনাকেও ঈদ মোবারক ।

৭| ২৬ শে মে, ২০২০ দুপুর ২:২২

স্বপ্নের শঙ্খচিল বলেছেন: অসামাজিক মানুষ হিসাবে আমার কাছে ঈদটা পারফেক্ট লেগেছে।
..............................................................................................
দেশের সবাই এখন তাহলে অসামাজিক,
চাঁদ সুন্দর ভাইয়া এক্সপ্লেইন মি,
চিনলাম না ।

২৬ শে মে, ২০২০ দুপুর ২:৪৭

ওমেরা বলেছেন: টিচার বোর্ডে অংক ছাত্রদের বুঝাচ্ছে , আর বলছে কেউ না বুঝলে আমাকে প্রশ্ন করতে পারো
অংক শেষ করে টিচার ছাত্রদের প্রশ্ন করে তোমরা সবাই বুঝেছ ?
একজন ছাত্র বলে আমি বুঝিনি। টিচার তখন বলে বাকী সবাই ?
সবাই বলে বুঝেছি । তখন টিচার বলে , তোরা সবাই বুঝলি ওকেন বুঝল না !! ওকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দে ——- :D

সবাই করোনার কারনে বাধ্য হয়ে হয়ত সাময়িক আমি সব সময় — তবে এটা কোন ভালো গুন না ।

অনেক ধন্যবাদ আপনাকে ।

৮| ২৬ শে মে, ২০২০ দুপুর ২:৫৬

মিরোরডডল বলেছেন: ওমেরা আপু এতো গুন তোমার । মিষ্টিগুলো সেইরকম লুক হয়েছে ।
লালমোহন মনে হয় আমাদের মোহনলাল (শায়রী) তিনি প্রথম বানিয়েছিলেন , তাই হয়তোবা এরকম নাম :)

২৬ শে মে, ২০২০ বিকাল ৩:০৪

ওমেরা বলেছেন: আরে আপু যার নাম বেগুন তারও নাকি অনেক গুন। এমনি তে দেশী রান্না আমি তেমন পারি না ,তবে দ্ই মিষ্টি সমচা , সিংগারা এসব খাবার ভালো পারি ( নিজের প্রশংসা নিজেরই করতে হয় )
ঈদের শুভেচ্ছা সাথে অনেক ধন্যবাদ আপু ।

৯| ২৬ শে মে, ২০২০ বিকাল ৩:২৯

নেওয়াজ আলি বলেছেন: এই অভাবে খাদ্য দেখলে দাওয়াত নিতে লোড হবে। ঈদ মোবারক

২৬ শে মে, ২০২০ বিকাল ৪:৪২

ওমেরা বলেছেন: আহারে। —— দাওয়াত দিলেও নিতে পারবেন না । খাজনার চেয়ে বাজনা বেশী হয়ে যাবে । ঈদের শুভেচ্ছা অনেক ধন্যবাদও ।

১০| ২৬ শে মে, ২০২০ বিকাল ৩:৩৫

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:



বোনরে ঈদ মোবারক।
আমাদের দেশে মিষ্টির সকল কারিগর হিন্দু ছিলেন। আর মিষ্টির নাম তাদেরই দেয়া। যেহেতু লাল মোহন মিষ্টির নাম ধারণা করা যেতে পারে কারিগরের নাম ছিলো লাল মোহন



আমাদের ঈদের দিনের রান্না। সামুদ্রিক ছুরি মাছের শুটকি ভুনা।

২৬ শে মে, ২০২০ বিকাল ৪:৫২

ওমেরা বলেছেন: আমিও সেরকমই ধারনা করেছি। ভাইয়া আপনাদের বাড়ি কি চট্টগ্রাম ? লইট্টা শুঁটকি দেখেছি, ছুরি মাছ দেখিনি কখনো। ঈদের শুভেচ্ছা নিবেন ভাইয়া।

১১| ২৬ শে মে, ২০২০ বিকাল ৩:৩৮

চাঁদগাজী বলেছেন:



আপনি পড়ালেখা করেছেন, ঘর সাজাতে পারেন, রান্নাবান্না পারেন, এখন আপনাকে জীবন শুরু করতে হবে। সুইডেন করোনাকে ভয় পায়নি, স্বাভাবিকভাবে নিয়েছে, আপনিও স্বাভাবিকভাবে পদক্ষেপ নেন। ভালো থাকুন, করোনাকে পরাজিত করা হবে।

২৬ শে মে, ২০২০ বিকাল ৫:১২

ওমেরা বলেছেন: এই তো আমার চাঁদ সুন্দর ভাইয়া কত সুন্দর কথা বলেছেন।
ভাইয়া আল্লাহ মানুষকে সৃষ্টি করেছেন, আর দিয়েছেন জ্ঞান ও বিবেক । এই কারনেই মানুষ অন্য সব মাখলুকাত থেকে শ্রেষ্ট ।আল্লাহ পৃথিবী সৃষ্টি করেছেন মানুষের জন্য , মানুষই এখানে রাজত্ব করবে, অন্য কোন মাখলুক মানুষের সাময়িক ক্ষতি করতে পারে যতক্ষন সঠিক পথ খুঁজে বের করতে মানুষের সময় লাগবে ততক্ষন। কিন্ত মানুষ আল্লাহর দেয়া জ্ঞানের মাধ্যমেই তাকে পরাজিত করবেই।
করোনা পরাজিত হবেই ।
ঈদের শুভেচ্ছা আর অনেক ধন্যবাদ চাঁদ সুন্দর ভাইয়া।

১২| ২৬ শে মে, ২০২০ বিকাল ৩:৪৬

রাজীব নুর বলেছেন: বাহ !!!
বাঙ্গালীর খাওয়া দাওয়া একটা আনন্দের অংশ। বিশেষ দিন মানেই ভালো মন্দ খাওয়া।

পিচ্চির ঈদের গানটাও ভালো লাগলো।

২৬ শে মে, ২০২০ বিকাল ৫:১৪

ওমেরা বলেছেন: আপনি তো শুধু ভাইয়াদেরটাই খেলেন তাদের খাওয়ালেন না।ঈদ মানেই খাওয়া দাওয়া ।

ধন্যবাদ।

১৩| ২৬ শে মে, ২০২০ বিকাল ৪:০০

চাঁদগাজী বলেছেন:



ঈদের শুভেচ্ছা রলো, ভালো থাকুন।

২৬ শে মে, ২০২০ বিকাল ৫:১৮

ওমেরা বলেছেন: ঈদ শুভেচ্ছা অনেক খুশী হয়েছি ভাইয়া । আপনি ভালো থাকুন ।

১৪| ২৬ শে মে, ২০২০ বিকাল ৪:৫৮

ভুয়া মফিজ বলেছেন: চানাচুর তো সেইরকমের হয়েছে! স্টেডিয়ামের বাইরে বা যে কোনও পাবলিক গ্যাদারিংয়ে চানাচুর মাখা বিক্রি করতে পারেন। ভালো চলবে। B-)

আপনাকে অনেক অনেক ঈদের শুভেচ্ছা। ঈদ মোবারক।

২৬ শে মে, ২০২০ বিকাল ৫:২৩

ওমেরা বলেছেন: আমার ভাইয়াও মাঝে মাঝে দুষ্টামী করে বলে লিখা পড়া শিখে কি হবে তার চেয়ে তোকে একটা মিষ্টির দোকান দিয়ে দেই ভালো ইনকাম করতে পারবি। :D
আপনিও সেইরাম বল্লেন ।
ঈদের শুভেচ্ছা সাথে এত ————- গুলান ধন্যবাদ ভাইয়া।

১৫| ২৬ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:১৭

ঢাবিয়ান বলেছেন: ঈদ মোবারক। মিষ্টিগুলো আপনি বানিয়েছেন??? দোকানের মিষ্টিও দেখতে এত সুন্দর হয় না। খেতে না জানি কত্ত মজা।

২৬ শে মে, ২০২০ রাত ১১:৪৪

ওমেরা বলেছেন: জী আমি বানিয়েছি , খেতেও মজা আর ভেজাল মুক্ত।
হায় হায় — ভাইয়া এমন করে প্রশংসা করলেন আমি তো খুশীতে গদ গদ হয়ে গেলাম ।
ঈদ মোবারক সাথে অনেকগুলো ধন্যবাদ।

১৬| ২৬ শে মে, ২০২০ রাত ১০:১১

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
হোম কোয়ারান্টা্ইন চলছে।
ঈদটা কাটলো ঘরে। এমন সময়
এমন মুখরোচক খাবার দেখলে
লোভ সম্বরণ করা দায় হয়ে পড়ে।
তবুও কাটুক সবার ঈদ আনন্দে।
শিরোনাম কোন চান্দের ভয়ে জড়সড়
তা বুঝতে না পারেলেও গাজীসাবের
প্রতিমন্তব্যে খোলসা হলো!!

২৬ শে মে, ২০২০ রাত ১১:৫০

ওমেরা বলেছেন: এগুলো আপনার স্বাস্থের জন্য ভালো না , মিষ্টি তো আপনার খাওয়াই যাবে না তাই
লোভ লাগলেও আপনাকে আমি এসব খেতে দিতে পারব না ভাইয়া । সরি ভাইয়া ।

ঈদ- মোবারক ভাইয়া ।

১৭| ২৬ শে মে, ২০২০ রাত ১০:৫২

শের শায়রী বলেছেন: ঈদ মোবারক বোন। রান্না শুধু আপনিই পারেন না, আমিও পারি, দেখেন কি সুন্দর পানি রান্না করছি :-B আমার দৌড় অবশ্য ওই পানি রান্না পর্যন্ত, তাও তো পারি এক দম তো অকর্মন্য না কি বলেন? আমিও এনজয় করছি কিছুটা অসামাজিক হিসাবে কোথাও যেতে হয় নি বলে :D এখন আমার রান্নার ছবি দেখেন

২৭ শে মে, ২০২০ রাত ১১:২৬

ওমেরা বলেছেন: ভাইয়া আপনার কমেন্ট পড়ে আমি হাসতে হাসতে শেষ।পানি ছাড়া তো কিছুই রান্না করা যায় না । তাই পানি রান্না করতে পারলে
সবই হবে ।
পানি রান্নার ছবি খুব সুন্দর হয়েছে ভাইয়া।

ধন্যবাদ ও ঈদ মোবারক।

১৮| ২৬ শে মে, ২০২০ রাত ১০:৫৩

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: ঈদ মোবারক। এতগুলো মিষ্টির সমাগম থেকে অনুমেয় আপনারা মিষ্টি ভালোবাসেন। ছবি দেখে যা বুঝেছি লালমোহনে এপারে গোলাপ জাম বলে। যদিও এই জাম গোলাপী নয়। এরকমই দেখতে রংটা আরেকটু কড়া হলে তাকে মালপোয়া বলে। আবার সাইজে ছোট গোলাকার হৃষ্টপুষ্ট বাইরেটা কালো,স্বাদে একটু তেতো মিষ্টি লর্ড ক্যানিং এর মিসেস খুব পছন্দ করতেন। তা থেকে নামকরণ হয়েছে ল্যাডি ক্যানিং।
বর্তমান বিশ্বের আতঙ্কের আরেক নাম করোনা। তারমধ্যেও সুইডেন বেশ সন্তোষজনক অবস্থায় আছে। খুব ভালো খবর। তবুও আপু সাবধানে থাকবেন।


শুভেচ্ছা নিয়েন।

২৮ শে মে, ২০২০ রাত ১:১৩

ওমেরা বলেছেন: আমাদের বাসার বাচ্চারা মিষ্টি খায়, আমি একটুও খাই না , ভাইয়া , ভাবীও খুব কম খায়।
আমিও তো গোলাপজামও বানাতে পারি , আমাদের গোলাপ জামের ভিতরটা গোলাপীই হয়, উপরটা লাল লাল কালো।
একবার বানিয়ে দেখাব।
আল্লাহর উপর ভরষা করে সাবধানেই আছি।দোওয়া করবেন ভাইয়া।
ধন্যবাদ অনেক।

১৯| ২৬ শে মে, ২০২০ রাত ১১:৩০

রাজীব নুর বলেছেন: ঈদের দিন বড় ভাইয়ের কাছে খেলাম।
২য় দিন ছোট ভাইয়ের কাছে।
৩য় দিন। মানে আগামীকাল খাওয়া তিন তলার ভাড়াটিয়া। হা হা হা--- বেশ যাচ্ছে দিনকাল।


চানাচূর যে ঘরে বানানো যায়- এটা আপনার বানানো চানাচূর দেখে জানলাম।

২৮ শে মে, ২০২০ রাত ১১:১৮

ওমেরা বলেছেন: শুধু খেতে হয় না খাওয়াতেও হয় বুঝেছেন ভাইয়া।জী সুইডেনে এসে কত কিছুই বানাতে হল এখানে না এলে কখনো এগুলো করতে হত না।
আবারো ধন্যবাদ।

২০| ২৭ শে মে, ২০২০ রাত ১২:২৪

শায়মা বলেছেন: তুমি এবার সব মিষ্টির রেসিপি দিয়ে আমাদেরকে শিখাবে আপুনিমনি!!!

২৮ শে মে, ২০২০ রাত ১১:৩৪

ওমেরা বলেছেন: হা হা হা এত গুনী আপুটা বলে কি !! আমি আমার চেয়ে অনেক বেশী জানেন আপনাকে আমি কি রেসেপি দিব আপু।
ধন্যবাদ আপু।

২১| ২৭ শে মে, ২০২০ সকাল ৮:৫৪

স্বপ্নের শঙ্খচিল বলেছেন: চাঁদ সুন্দর ভাইয়া করোনা ভয়ে ভীত,
সব মিষ্টি পাঠান খেয়ে একটু সাহস সন্চয় করি !!!

.........................................................................

২৮ শে মে, ২০২০ রাত ১১:৩৯

ওমেরা বলেছেন: খেয়ে আসবো কেন দাদা আপনি তো আবার না খেয়ে যেতে দিবেন না,তাই দিয়েও খেতে হবে না।
মিষ্টি খেলে সাহস বাড়ে না শরীর বাড়ে তাই না খাওয়ার ভালো।

ধন্যবাদ।

২২| ২৭ শে মে, ২০২০ সকাল ১০:৫৭

দেশ প্রেমিক বাঙালী বলেছেন: রসগোল্লা দেখে বড্ড খেতে ইচ্ছে করছে।

২৮ শে মে, ২০২০ রাত ১১:৪১

ওমেরা বলেছেন: তাহলে হাপুস হুপুস করে কয়েকটা গিলে ফেলুন, আমরা চোখ বন্ধ করে রেখেছি।

অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

২৩| ২৭ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩১

মাআইপা বলেছেন: মিষ্টির গন্ধে চলে এলাম।
ঈদ মোবারক
প্রতিটা আইটেম চমৎকার হয়েছে আর মিষ্টির কালার দুর্দান্ত।

২৮ শে মে, ২০২০ রাত ১১:৪৫

ওমেরা বলেছেন: ওরে —- বাবা আপনি বেঁচে আছেন তাহলে । আলহামদুল্লিলাহ!

করোনা সময়ে লুকিয়ে থাকতে হয় না , সবাই তো টেনশনে থাকে, ঘন ঘন ব্লগে আসবেন ।

অনেক ——— অনেক ধন্যবাদ । ভালো থাকবেন।

২৪| ২৮ শে মে, ২০২০ রাত ১:৪৪

কাছের-মানুষ বলেছেন: ওয়াও আপনার রান্নার হাত চমৎকার ওমেরা। মিষ্টিগুলো দেখতে লোভনীয়। আমি অভিভূত।

২৮ শে মে, ২০২০ রাত ১১:৫৬

ওমেরা বলেছেন: না ,না ভাইয়া আমি ভাত মাছ রান্না করতে পারি না, অবশ্য কখনো চেষ্টাও করিনি। মিষ্টি টিষ্টি , সিংগার , সমুচা এসব ভালই পারি , চেষ্টা করে করে ।
অনেক ধন্যবাদ কিন্ত মিষ্টি খাওয়াতে পারছি না বলে দুঃখিত ভাইয়া।

২৫| ২৮ শে মে, ২০২০ সকাল ৭:৫৮

ডঃ এম এ আলী বলেছেন:



ভালই বলেছেন করোনার কল্যানেই হোক আর অকল্যানেই হোক এবার অন্য রকম একটা ঈদ পার করা হয়েছে ।
আমিও করোনার হাত হতে নতুন জীবন পেয়ে হাসপাতাল হতে ঘরে ফিরে তা গৃহকোনে বন্দি হলেও যে আনন্দ অনুভব
করছি তা ভাষায় বোজানো বেশ কষ্টকর । সকলের দোয়ায় ঈদের দিন কয়েকের মধ্যে শারিরিক দুর্বলতা অনেকটা কমে
আসায় ঈদের দিনটি আমার কাছে বেশ আনন্দদায়ক ও ফলপ্রসু হিসাবেই দেখা দিয়েছে।

লকডাওনের কারণে গৃহে অবস্থান করে পরিবারের সদস্যদেরকে অন্য সময়ের তুলনায় অনেক বেশী সময় দিতে পেরেছি।
টিভিতে ও অনলাইনে অনেক সুন্দর সুন্দর বিনোদন মুলক অনুষ্ঠান উপভোগ করতে পেরেছি। খানা দানার মেনুতেও ছিল
বেশ বৈচিত্র। দেশ বিদেশে ছড়ানো ছিটানু বন্ধু বান্ধব ,পরিচিতজন ও ছোট বড় সকল আত্মীয় সজনের সাথে ভিডিও কলে
ঈদের শুভেচ্ছা ও কুশল বিনিময় করেছি । করোনা আক্রান্তের কারণে বেশ কিছুদিন সামুতে বিচরণ করতে পারিনি বলে
অনেকের মুল্যবান লেখা দেখতে পরিনি । আজ মিস হওয়া অনেকের লেখা পাঠ করতে পেরেছি।অএকের পোষ্টে বেশ কিছু মন্ত্যব্যও করতে পেরেছি। আমার অনুপস্থিতির সময়ে আমার অনেক পোষ্টে করা পাঠকের বেশ কিছু মন্তব্যের জবাব দিয়েছি। সবমিলিয়ে এবারের ঈদটি বেশ আনন্দদায়ক ও ফলপ্রসুই হয়েছে আমার কাছে ।

আপনার পোষ্টে দেখলাম লালমোহন মিষ্টি আর চমচমের নামকরনের ইতিহাস জানতে চেয়েছেন ।
লালমোহন মিষ্টির নাম করনের প্রসঙ্গটি সে অনেক দিন আগের কথা ।সেই ১৯৪৭ সনের দিকে সে সময়কার দেশ বিভাজনের
( ভারতের বাংলা মুলুকের পুর্ব বঙ্গ বর্তমান বাংলাদেশে এবং ভারতের পশ্চিম বঙ্গ) সময় ভিটে জমির সঙ্গে ছেড়ে আসতে হয়েছিল মিষ্টির দোকানও। নতুন দেশে এসে মাথা গোঁজার জায়গা পেয়েছিলেন ঠিকই, কিন্তু দোকান করতে পারেননি।
ভাঁড়ে করে রসগোল্লা বেচতে শুরু করেন। শুধুমাত্র রসগোল্লা বেচে এলাকার প্রতিষ্ঠিত ময়রাদের ফাঁকে জায়গা করে নেওয়া চাট্টিখানি কথা নয়। ঢাকা থেকে আসা ‘মণি ঘোষ’ও পারেননি। তাই ভাবনা শুরু হল অন্য সৃষ্টির। আর তার থেকেই উঠে
এল ছানা এবং ক্ষীর মিশিয়ে রসে ভেজে তৈরি লাল বড়ো তুলতুলে মিষ্টি। চামচ দিয়ে তুলতে গেলেই তার শরীর ভেঙে
ভুস ভুস করে রস বের হতে থাকে। জ্বিহ্বের ছোঁয়া মাত্র গলতে শুরু করে। অনেকে বললেন নরম পান্তুয়া। মণিবাবু
ভালবেসে নাম রাখলেন ‘লালমোহন’। বাকিটা ইতিহাস। মণীন্দ্রনাথ ঘোষ বেঁচে নেই। রয়ে গিয়েছে তাঁর সৃষ্টি।
ফুলবাড়ির লালমোহন। এটা এখন দেখা যায় বিশ্বের বহুদেশ সহ সুইডেনেও পাড়ি জমিয়েছে ।


উপরে মন্তব্যের ঘরে ঠাকুরমাহমুদ ঠিকই বলেছের কারিগরের নামেই এর নাম হয়েছে লালমোহন ।

এবার আসি চমচমের নামকরন প্রসঙ্গে । উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশের টাঙ্গাইল জেলার পোড়াবাড়ি নামক স্থানটি এই সুস্বাদু মিষ্টির জন্মস্থান বলে এটি পোড়াবাড়ির চমচম নামেই স্বমহিমায় মহিমান্বিত।

পোড়াবাড়ির চমচম সম্পর্কে ইতিহাস ঘেঁটে যতটা জানা যায়- বৃটিশ শাসন আমলে দশরথ গৌড় নামের এক ব্যক্তি টাঙ্গাইলের যমুনা নদীর তীরবর্তী পোড়াবাড়িতে এসে বসতি গড়েন।

আসাম থেকে এসে দশরথ গৌড় যমুনার সুস্বাদু মৃদু পানি ও এখানকার গরুর খাঁটি দুধ দিয়ে প্রথম তৈরি করেন এক ধরনের বিশেষ মিষ্টি। লম্বাটে আকৃতির এ মিষ্টির নাম দেন তিনি চমচম। তার তৈরি চমচম এতটাই পরিচিতি পায় যে এটা এখন বিশ্বের বহুদেশ সহ সুইডেনেও পারি জমিয়েছে । এই চমচম মিষ্টির নাম কিন্তু এর কারিগরের নামে হয়নি কারিগরই দিয়েছেন এর নাম। কেন এইনাম দিয়েছেনা তা আজো সকলের কাছে অজানাই রয়ে গেছে ।

অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইল

২৯ শে মে, ২০২০ রাত ১২:১৫

ওমেরা বলেছেন: ভাইয়া আপনি প্রকৃত একজন জ্ঞানি মানুষ। কত কিছু জানেন । আর আপনাদের মত জ্ঞানীদের পাশে থাকার জন্যই ব্লগে আসি । আপনার কমেন্ট থেকে কত কিছু চমচম, লাল মোহনের ইতিহাস।
আপনার ঈদ সব মিলিয়ে ভালো কেটেছে জেনে ভালো লাগলে আর করোনা থেকে আল্লাহ আপনাকে সুস্থ্য করেছেন এটাই আলহামদুল্লিলাহ।
আল্লাহ আপনাকে ভালো রাখুন।

এটা আমার বানানো একেবারে আপনার দেয়া ছবির মত হয়েছে না ভাইয়া?

২৬| ২৯ শে মে, ২০২০ রাত ১২:১৮

কথার ফুলঝুরি! বলেছেন: আপু সেদিন দেখেছি সোহানী আপুর খাবার নিয়ে পোস্ট আর আজ আপনার :#) আমিও এই লকডাউনে অনেক কিছু নতুন নতুন রান্না করেছি এখন তো আপনাদের দুজন কে দেখে আমারও খুব ইচ্ছে হচ্ছে একদিন আমার রান্না গুলো নিয়ে লিখতে :D

ডিমের কোরমা আমার ভীষণ পছন্দ B-) আপনার ডিমের কোরমা দেখে কিন্তু আমার লোভ লেগেছে খুব ।
একদিন দই চেষ্টা করেছিলাম কিন্তু ফেল্টু মেরেছি =p~

২৯ শে মে, ২০২০ রাত ১২:৪১

ওমেরা বলেছেন: আপু এখনো দেরী করছেন কেন তারাতারি দেন। আমি ব্লগিংয়ের শুরু থেকেই প্রতি ঈদে খাবারের পোষ্ট দেই। আপনিও দিবেন। রান্না তো একটা আর্ট আর এর মূল্যও কোন কাজের চেয়ে কম নয়।
আহারে —- আপু খাওয়াতে তো পারছি না সরি আপু।

দ্ই মিষ্টির চেয়ে অনেক সহজ আরো একবার, দুইবার চেষ্টা করেন হয়ে যাবে আপু।

ভালো থাকুন আপু । আপনার পোষ্টের অপেক্ষায় থাকলাম আপু।

২৭| ২৯ শে মে, ২০২০ রাত ৮:৪৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: ওমেরা,




চমচমের মতো মিষ্টি লেখা, ঈদ নিয়ে মনের সত্যিকারের অনুভূতির অকপট স্বাদে ভরা।

৩০ শে মে, ২০২০ রাত ২:২৩

ওমেরা বলেছেন: তাহলে আপনাকে চমচমের মতই মিষ্টি ধন্যবাদ ভাইয়া।

২৮| ৩০ শে মে, ২০২০ রাত ১১:২১

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন:

উত্তম বৈ কী! আমারা বাঙালিরা লকডাউন কালে কোন নিরাপত্তার তোয়াক্কা না করে যেমন ঈদের জামাত করেছি, তেমনই করেছি প্রাণ খোলে কোলাকুলি। ইদের দিনে কোলাকুলি ও হ্যান্ডশিক করন ফরজ (যদিও সুন্নত হওয়ার ব্যপারেও যথেষ্ট শক্ত কোন হাদিস নেই)। আপনারা কী আমাদের মত সাহসী আছেন?


ওমেরাপু, লকডাউনের মাধ্যমে যেখানে আপনারা করোনার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছেন সেখানে আমরা লকডাউনকে করেছি মিলন উৎসবের মাধ্যম হিসেবে। আপনারা হয়তো আর কিছুদিন পর স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে যেতে পারবেন কিন্তু আমরা দিনদিন আরো নিচের দিকে নেমে যাবো মৃতদের মিছিল নিয়ে। দেশের অর্থনৈতিক, সামাজিক সহ সার্বিক বিষয় মাথায় আসলে ইদ আর আনন্দময় থাকে না। তারপরও সর্বোচ্চ চেষ্টায় ইদকে আনন্দের সাথে কাটানোর চেষ্টা করেছি।

আপনি ভালো আছেন তো?
ঈদ মোবারক।

০২ রা জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১১

ওমেরা বলেছেন: আমরা তো শুধু আপনাদের না সারা বিশ্বের চেয়ে সাহসী !! আমরাই একমাত্র করোনার ভয়ে ভীত না হয়ে লকডাউন ছারা করোনার সাথে বসবাস করছি। আমাদের এখানে করোনার গতি মোটামুটি একই রকম আছে মাঝামাঝি পর্যায়ে তবে তবে মৃত্যুর হার ইমারজেন্সি কেইস কিছুটা কমেছে।
আলহামদুল্লিলাহ ! আল্লাহ এখনো ভালো রেখেছেন করোনা সময়ে।

আপনাকে ধন্যবাদ।

২৯| ০১ লা জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২০

জুন বলেছেন: মিস্টি দেখে খুব খেতে ইচ্ছে করছে ওমেরা তার উপর আপনার নিজের হাতে ঘরে বানানো। এখনতো বাইরের কেনা খাবারের কথা কল্পনাও করা যায় না :((
দেরীতে হলেও ঈদের শুভেচ্ছা এই স্পেশাল ঈদ সুন্দর লেখায় :)
+

০২ রা জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩৪

ওমেরা বলেছেন: আমি তো আপু আপনাদের মত সুন্দর লিখা লিখতে পারি না তাই হাবি যাবি পোষ্ট দেই , মিষ্টি মিষ্টি লাগে তাই বেশী খাওয়া ঠিক না একটু একটু খাবেন আপু ।হি হি হি
ভেজাল টেজাল যাই হোক আপু কিনতে পাওয়া গেলে এত ঝামেলা আমাকে করতে হত না ।
গত ঈদ ও আগামী ইদের অগ্রিম শুভেচ্ছা রইলো আপু।

৩০| ০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৮:১২

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ও আল্লাহ !! এত এতগুণ !!!
তোমার বাসায় গেলে তাহলে আমি মিষ্টি খেতে খেতে ই শহীদ হয়ে যাবো।

লেট ঈদ শুভেচ্ছা ওমেরা ! ভালোবাসা নিও ।

০২ রা জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৪১

ওমেরা বলেছেন: আপুনি গুনের খবর জানলেন এখন তো আপনার দায়িত্ব বেড়ে গেল ! :D :D

মিষ্টি যত খেতে চান খাওয়াবো আপুনি শহীদ হবেন শুধু রক্তে একটু সুগার বাড়রে তাতে কিছু হবে না ।
অনেক অনেক ধন্যবাদ আপুনি।

৩১| ০৩ রা জুন, ২০২০ দুপুর ২:১০

মুক্তা নীল বলেছেন:
ওমেরা আপা ,
এমন চমৎকার পোস্টের জন্য আপনাকে মিষ্টিময় শুভেচ্ছা।
মিষ্টিগুলো দেখে লোভ সামলাতে পারছিনা খেতে ইচ্ছে করছে।
দেরিতে হলেও ঈদের শুভেচ্ছা জানবেন ।

০৩ রা জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:১৫

ওমেরা বলেছেন: আরে —- মুক্তা আপু কেমন আছেন ? আপু তাহলে একটু খেয়েই বলেন কেমন হয়েছে :D
অনেক অনেক ধন্যবাদ আপু।

৩২| ০৩ রা জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১৬

আমি সাজিদ বলেছেন: নরডিক দেশগুলো কেমন? ওদের মধ্যে কি রেসিস্ট খুব বেশী? বাংলাদেশ কতোটা মিস করেন? শুরুতে যখন সুইডেন গেলেন তখন যেমন মিস করতেন দেশকে, এখনও কি একইরকম মিস করেন?

০৪ ঠা জুন, ২০২০ রাত ২:১১

ওমেরা বলেছেন: নরডিক দেশগুলো ভালোই , সুন্দর , নিরিবিলি, শাস্ত পরিবেশ , রাজনৈতিক রাজনৈতিক বিশৃঙ্খলা নেই, জান,মালের নিরাপত্তা আছে। রেসিস্ট কম বেশী সব জায়গায়ই আছে তবে ডানমার্কে বেশী।যত দিন আমার আম্মু বেঁচেছিল তখন খুব বেশী মিস করতাম এমন কোন দিন ছিল না আমি কান্না করি নাই , ইচ্ছা ছিল লিখা পড়া শেষ হলে দেশে চলে যাব । আম্মু মারা যাবার পর এখন দেশের চেয়ে এখানেই বেশী ভালো লাগে , দেশকে এখন আর মিস করি না, তবে দেশের জন্য মায়া লাগে ।

অনেক ধন্যবাদ আপনাকে ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.