নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

কিচ্ছুটি বলার নাই.......

জটিল ভাই

ঝটট্রিল সব জটিলতা

জটিল ভাই › বিস্তারিত পোস্টঃ

বেকুবি প্রশ্ন | জ্ঞাণী সাবধান

১৫ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ৯:২৯


(ছবি নেট হতে)

বিসমিল্লাহি্'ররাহ্'মানিররাহিম।
আসসালামুআলাইকুম।

একটি মাসালা জানতে চাচ্ছি…..

বাংলা নতুন বছর শুরু হয়েছে। এদিকে আমাদের অনেকেই প্রবাসী রয়েছেন। এখন যদি কোনো বিদেশি কোনো প্রবাসীর প্রতি বন্ধুত্বতা আর ভালবাসার নিদর্শনস্বরূপ তার জন্যে পহেলা-বৈশাখে পান্তা-ইলিশের ব্যবস্থা করে দাওয়াত করে তবে নিঃসন্দেহে তা আনন্দের বিষয়। আর দাওয়াতে বাংলাদেশীদের সঙ্গে যদি বিদেশীরাও যোগদান করেন তবে নিঃসন্দেহে তা আরো আনন্দের। এখন এতো আয়োজনের সাথে একটু শরাবের ব্যবস্থা করলে তা নিশ্চই তেমন কিছু হবেনা। এতো আয়োজনের পর হয়তো তার একটা নামও দিয়ে দেওয়া যায়। যেমন- ফার্স্ট বোশেখ ফেস্টিভ্যাল। পরবর্তি বছর একই আয়োজন করা হলো পরিসর বড় করে। তাই পান্তা ইলিশের সাথে শরাব, ওয়েস্টার্ন মিউজিক, আর নারীর ব্যবস্থাও করা হলো। পরেরবার হয়তো আবারো ভালবাসার টানে আয়োজন আরো বড় পরিসরে করতে গিয়ে সেই দেশের অনেক কালচার যুক্ত করে উৎযাপন করা হলো। লোক বেশি হওয়াতে ইলিশের ঘাটতি পরায় সিলভারকার্প মাছ ব্যবহার করা হলো। পান্তাতে অনেকের এলার্জি থাকায় ফ্রাইড রাইসের ব্যবস্থা করা হলো। পরেরবার পরিসর আরো বিস্তৃত হলো আর এবার সেদেশের কালচারের সঙ্গে সেখানকার খাবার মিশিয়ে ফার্স্ট বোশেখ ফেস্টিভ্যাল উদযাপন করা হলো। সেক্ষেত্রে কি এটাকে বাঙ্গালি সংস্কৃতির প্রসার বলা হবে? নাকি অপসংস্কৃতির আগ্রাসন বলা হবে? বাংলা সংস্কৃতি উন্নয়ন হবে? নাকি ধ্বংস হবে? ঐতিহ্য রক্ষা পাবে? নাকি ঐতিহ্য হুমকির মুখে পরবে? আর যদি কেউ ইচ্ছেকৃত ছক কষে ভালবাসার নামে বাংলা সংস্কৃতিকে এমন দিকে ধাবিত করে আর তা দেখে দেশে এসে প্রবাসীরা বা মিডিয়ার মাধ্যমে দেশিরাই যদি পহেলা বৈশাখ এভাবে উদযাপন করা শুরু করে তখন কি তা ইতিহাস, ঐতিহ্যের ধারক-বাহক হিসেবে সম্মানিত হবে? খাবার আর আনন্দটাই মূখ্য? নাকি শুদ্ধ সংস্কৃতির চর্চা?

তেমনি করে ইফতার একজন মুসলমানের ধর্মীয় সংস্কৃতির অংশ। এখন যদি ভালবাসা কিংবা গোপন কোনো অভিসন্ধি নিয়ে কোনো বিধর্মী বা ধর্মহীণ কিংবা ধর্মবিদ্বেষী ব্যক্তি কোনো ধর্মপ্রাণ বা ধর্মান্ধ বা কোনো বেকুব ধর্মপ্রেমী ব্যক্তিকে ইফতারের দাওয়াত করে ইফতার মাহফিলের পরিবর্তে জ্ঞাতে-অজ্ঞাতে পার্টির আয়োজন করে, আর গোপন অভিসন্ধিতে বা বেকুবি করে স্বাস্থ্যকর মনে করে ইফতারের খাবারে হারাম জিনিস ব্যবহার করে, ইফতারের মাঝে সাউন্ড সিস্টেম এরেঞ্জ করে সফট্ ড্রিংক্সের মতো করে সফট্ মিউজিক দেয়, বা ইচ্ছে করে ধর্ম বিরোধী কোনো কাজ করে বসে, সেই ইফতারের দাওয়াত কবুল বা প্রত্যাখানের মাসালা কি? সেক্ষেত্রে সম্পর্ক নাকি ধর্ম কোনটা বেশি প্রাধান্য পাবে? খাবারটা মূখ্য বিষয় হবে? নাকি দ্বীনের নির্দেশ?

ব্যক্তিগতভাবে নিয়ে তর্ক নয়, সামষ্টিকভাবে সঠিক মাসালা চাই।

আল্লাহ্ হাফিজ।

মন্তব্য ৪৮ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (৪৮) মন্তব্য লিখুন

১| ১৫ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১০:২৪

জিকোব্লগ বলেছেন:




পোস্ট দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি সবার নজরে আনার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

ব্লগে তো এক ধর্মবিদ্বেষী লোক ইফতারের দাওয়াত দিয়েছেই ।
কিন্তু ঐডা আবার চোরে না শোনে ধর্মের কাহিনী।

অনেকেই ঐডাকে সতর্ক করেছেন। মডু পর্যন্ত ঐডারে বহুবার সতর্ক করেছেন।
সম্প্রতিও মডু ঐডারে সতর্ক করেছেন। ( নিচে স্ক্রীনশট )



তারপরেও ঐডা বেহায়া। আর বেহায়া থেকে উহা হচ্ছে ব্লগীয় বিশ্ব বেহায়া এরশাদ।
যা ব্লগ মডু অনেক আগেই বলে দিয়েছেন।

ইসলাম ধর্মীয় পোস্ট দিয়ে উহা বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করে।
এইরকম বিভ্রান্তি সৃষ্টিকারীর জন্য ইসলামের সঠিক মাসালা আমার জানা নাই।

তবে আমার মতে ব্লগ কর্তৃপক্ষের ঐডার ধর্মীয় পোস্ট সরিয়ে নেওয়া উচিত।
বার বার একই ভুল করলে ঐডারে সুলাইমানি ব্যান করা উচিত।

শুভ ব্লগিং ।

১৫ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১১:৪৮

জটিল ভাই বলেছেন:
জাজাকাল্লাহ্। আপনার আলোচ্য বিষয়ে জানিনা আসলে কি এজেন্ডা নিয়ে এগুচ্ছে। তবে আমি সার্বিকভাবে লক্ষ্য করছি সম্ভবত আন্তর্জাতিকভাবেই এই নিয়ে বড় কোন এজেন্ডায় কাজ চলছে যা আমাদের সবার সংস্কৃতি আর ধর্মকেই বিপদে ফেলে দিবে বলে মনে হচ্ছে বিশ্বায়নের মোড়কে!

২| ১৫ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১০:৪৯

সোবুজ বলেছেন: ইসলামের বিরুদ্ধে যারা ষড়যন্ত্র করে তাদের বিরুদ্ধ জেহাদ করা ফরজ।

১৫ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১১:৩৩

জটিল ভাই বলেছেন:
নেতৃত্ব দিতে চাচ্ছেন?

৩| ১৫ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১০:৫৩

মোহাম্মাদ আব্দুলহাক বলেছেন: এমন পার্টিতে আমারে দাওয়াত দিলে আমি তার চৌদ্দ গোষ্ঠীর ভুষ্টিনাশ করব। X(

আপনি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় উপস্থাপন করেছেন। বর্তমানে এমন অহরহ হচ্ছে। ধর্মের নামে অধর্মাচরণ চলছে।

১৫ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১১:৩৬

জটিল ভাই বলেছেন:
জাজাকাল্লাহ্। অধর্মাচরণ আর অপসংস্কৃতি দুইটাই বেড়ে চলেছে। আর সমস্যা হচ্ছে যারা বাড়াচ্ছে তারা উভয়কেই টার্গেট করেছে। আর নিশ্চই জানেন দাঙ্গা বাঁধানোর এটাই মূলমন্ত্র। কিন্তু তবুও তাদের গায়ে সুশীলের খোলস.....

৪| ১৫ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১১:১২

জ্যাকেল বলেছেন: হুমম। এইসকল বিষয়ে জনসাধারণ, আপামর মুসলমান জনগণকে সরব হওয়া লাগবেই। আর পহেলা বৈশাখ আমাদের শত বছরের ঐতিহ্য। এখানে নানান কিসিমের ফাউ জিনিস এডড করিয়া আমাদের সংষ্কৃতির বারোটা বাজানো হইতেছে উহার ব্যাপারেও জোরালো ভুমিকা রাখা দরকার।

১৫ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১১:৩৯

জটিল ভাই বলেছেন:
জাজাকাল্লাহ্। যথার্থ বলেছেন প্রিয় ভাই। এসব আমাদের ধর্ম আর সংস্কৃতি উভয়ের জন্যেই হুমকি। কিন্তু এরচাইতে বড় সমস্যা আমাদের বুঝার আর ঐক্যের। আল্লাহ্ আমাদের উত্তম বুঝ দান করুন। আমিন।

৫| ১৫ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১১:৩৭

প্রতিদিন বাংলা বলেছেন: নববর্ষের রোল মডেল বৈশাখী ফেসটি বা ফস্টি ও বলা যাবে
অংশ গ্রহণ নিজ নিজ বিষয়

১৫ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১১:৪৩

জটিল ভাই বলেছেন:
সে কলুন। তবে মূল আলোচনা এটা নয় প্রিয় ভাই। ধর্ম আর সংস্কৃতিতে ইচ্ছেমাফিক বিষয়ঙুক্ত করে আসলে কি করা হচ্ছে সেটা জানাই মূল বিষয়। আপনার পোস্ট বুঝতে সমস্যা হওয়ায় আন্তরিকভাবে দুঃখিত।

৬| ১৫ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১১:৪৬

মোহাম্মাদ আব্দুলহাক বলেছেন: দোষ কিন্তু আমাদের, জুম্মার নামাজ পড়েই আমরা পর হয়ে যাই :( আমরা কবে যে এক হব, কবে যে আমরা প্রকৃত ইমানদার হব :(

১৫ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১১:৫৪

জটিল ভাই বলেছেন:
অবশ্যই প্রিয় ভাই। এতে কোনো সন্দেহ নেই। ঐতিহাসিক বেশিভাগ পরাজয়ের পিছনে রয়েছে নিজের মানুষের বিশ্বাসঘাতকতা। তাই ইসলামও বলে, কফিরের চাইতে মুনাফিক বেশি ভয়ানক। আর এই মুনাফিকতার মূলে লোভ যা আমাদের ঐক্য বিনষ্ট করে সবারই ক্ষতি করে চলেছে। কিন্তু অন্যের ক্ষতি করতে যেয়ে আমরা নিজের ক্ষতি সচক্ষে দেখছি না! এটাই আফসোস :(

৭| ১৫ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১১:৫৭

প্রতিদিন বাংলা বলেছেন: যেটা বুঝেছি তা হলো:-
সংস্কৃতি ও ধর্মকে আধুনিকতা বা মোডিফাইয়ে জড়ানোর ফলে যে বিকৃত রুচি প্রতিষ্ঠা পাচ্ছে......
তাই আমি নিজ বিশ্বাসে ওগুলো পায়ে ঠেলে দিয়ে ,তাদের পথে তাদের উৎসাহ /নিরুৎসাহ করতেই -

প্রতিদিন বাংলা বলেছেন: নববর্ষের রোল মডেল বৈশাখী ফেসটি বা ফস্টি ও বলা যাবে
অংশ গ্রহণ নিজ নিজ বিষয়
(আমার বুঝায় ভুল হলে দুঃখিত)

১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১২:০৫

জটিল ভাই বলেছেন:
এবার আপনার মতামত পূর্ণতা পেলো প্রিয় ভাই। আমি ঠিক এটা নিয়েই বলেছি। কিন্তু তাদের মতো করে তাদের উৎসাহিত/নিরুৎসাহিত করার চাইতে তাদের বাঁধা দেওয়া খি উচিৎ নয়? তাদের একজনের জন্য কি আরো দশজন নষ্ট হবে না?

৮| ১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১২:০৮

সোবুজ বলেছেন: ফরজ কাজে নেতৃত্ব দেয়ার প্রয়োজন নাই।সতস্ফুর্ত হয়ে করতে হবে।

১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১২:১৪

জটিল ভাই বলেছেন:
সেইক্ষেত্রে আপনার সহোদরেরা আপনাকে জঙ্গী বলবে না?

৯| ১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১২:১১

ভুয়া মফিজ বলেছেন: যুক্তিসঙ্গত পোষ্ট।

১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১২:১৭

জটিল ভাই বলেছেন:
জাজাকাল্লাহ্। আপনার মন্তব্য পেয়ে অনেক ভাল লাগলো প্রিয় ভাই। তা এখন কেমন আছেন ভাই?

১০| ১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১২:২০

প্রতিদিন বাংলা বলেছেন: লেখক বলেছেন:
এবার আপনার মতামত পূর্ণতা পেলো প্রিয় ভাই। আমি ঠিক এটা নিয়েই বলেছি। কিন্তু তাদের মতো করে তাদের উৎসাহিত/নিরুৎসাহিত করার চাইতে তাদের বাঁধা দেওয়া খি উচিৎ নয়? তাদের একজনের জন্য কি আরো দশজন নষ্ট হবে না?
......
বাধা দেয়ার নিয়ম হলো -প্রথমে উপেক্ষা করা /তুচ্ছ ভাবা
অন্যথায় তারা প্রচার পাবে উৎসাহ পাবে।
তবে অতিরিক্ত হয়ে গেলে -
সয় দেয়া যাবেনা "ধরে মার খা" (যা হবে দেখা যাবে)

১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১২:২৭

জটিল ভাই বলেছেন:
মনে হচ্ছে তুচ্ছ ভাবার সময়টা পার হয়ে গেছে। আবার ধর মার খা-এর মত কিছু হয়নি। সর্বোপরি এখন যেটা দরকার মনে হচ্ছে তা হলো, সয়ে না থেকে প্রতিরোধ গড়ে বুঝানো। নরম ভ্ষায় কাজ না হলে ভাষা উচ্চ করা। তাই বলে অভদ্র ভাষা ব্যবহার নয়।

১১| ১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১২:২১

ভুয়া মফিজ বলেছেন: ফ্যানটাসটিক! ইফতারের জন্য আরো ৪৫ মিনিট অপেক্ষা করতে হবে, তাই ক্ষুধায় কিছুটা কাতর!!

১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১২:৩২

জটিল ভাই বলেছেন:
হা হা হা.... আর আমরা সাহ্'রীর প্রস্তুতি নিবো। তা এক কাজ করতে পারেনতো। একখানা বেকুবি বুদ্ধি দেই। প্রতিদিন সাহ্'রী করে বাংলাদেশে এসে ইফতার করবেন। তাতে সাহ্'রী টু ইফতারের সময়ের গ্যাপ কিছুটা হলেও কমে আসবে =p~

১২| ১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১২:৩৭

সোবুজ বলেছেন: জঙ্গী বললে ক্ষতি নাই।সরকার ধরলে লটকিয়ে দিতে পারে।

১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১২:৪২

জটিল ভাই বলেছেন:
সেইজন্যে আপনার সহোদরেরা সাহায্য করবে না?

১৩| ১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১২:৩৯

মোহাম্মাদ আব্দুলহাক বলেছেন: ব্লগে আমরা এক হলে, মিলেমিশে সুস্থ ব্লগিং করলে গোপনে অনিষ্টকারীদের বড়াবড় মাথার মাঝখানে ঠাঠা পড়বে।

কিন্তু আক্ষেপের বিষয় হলো, আমরা জনপ্রিয়তার জন্য মরিয়া :(

১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১২:৪৩

জটিল ভাই বলেছেন:
একদম ঠিক বলেছেন প্রিয় ভাই। এই জনপ্রিয়তাটাই লোভ। আর সেই লোভ হতেই জন্ম নেয় মুনাফিকি!

১৪| ১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১২:৪৮

জিকোব্লগ বলেছেন:



আপনি বলেছেন :
জাজাকাল্লাহ্। আপনার আলোচ্য বিষয়ে জানিনা আসলে কি এজেন্ডা নিয়ে এগুচ্ছে।

- ব্লগীয় এজেন্ডা হচ্ছে ইসলাম বিদ্বেষী রাজীব নুরের ইফতারের দাওয়াতে। বোঝার জন্য
সেই পোস্টে মিরোরডডলের মন্তব্য উল্লেখযোগ্য:



আপনি বলেছেন : ''তবে আমি সার্বিকভাবে লক্ষ্য করছি সম্ভবত আন্তর্জাতিকভাবেই এই
নিয়ে বড় কোন এজেন্ডায় কাজ চলছে যা আমাদের সবার সংস্কৃতি আর ধর্মকেই বিপদে
ফেলে দিবে বলে মনে হচ্ছে বিশ্বায়নের মোড়কে!'' - সহমত

১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১২:৫৭

জটিল ভাই বলেছেন:
ধন্যবাদ প্রিয় ভাই। মন্তব্যের স্ক্রিনসট যেই ব্যক্তির পোস্টে সেই ব্যক্তির মনে আসলে কি এজেন্ডা আছে, মানে সে কি এজেন্ডা নিয়ে এসব কাজ করে চলেছে তা নিয়ে আমার সন্দেহ। আবার আপনি যাহার মন্তব্য স্ক্রিনসটের মাধ্যমে দিলেন সেই ব্যক্তিও আমায় বিশেষ কারণে বিশেষ পর্যবেক্ষণে রেখেছেন। এই ব্লগে বড় ধরণের খেলা চলছে যা আন্তর্জাতিক এজেন্ডা হতে কোন অংশে কম নয়। আর কে যে কোন মেরুতে অবস্থান করছে সেটা বুঝা বড্ড মুশকিল। এখানের অনেকেই দিনে কুককুরুকুক, আর রাতে ঢোকঢোক =p~

১৫| ১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১:০০

মোহাম্মাদ আব্দুলহাক বলেছেন: সুস্থতা এবং সফলতার দোয়া কাম্য।

১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১:১১

জটিল ভাই বলেছেন:
জাজাকাল্লাহ্। আল্লাহ্ আমাদেরকে রহমত করুন। আমিন।

১৬| ১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১:৩৬

সোবুজ বলেছেন: আমার কোন সাহোদর নাই।সহোদর বলতে বলতে মুখে ফেনা তুলে ফেলছেন।

১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১:৩৭

জটিল ভাই বলেছেন:
তো তারা কারা?

১৭| ১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১:৫৩

জিকোব্লগ বলেছেন:



সোবুজ হচ্ছে নুরুলইসলা০৬০৪ এর মাল্টি। ব্যান খাওয়ার
পরেও এইডা বার বার আসে ইসলাম বিদ্বেষী মন্তব্য নিয়ে।

১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১০:৩৪

জটিল ভাই বলেছেন:
কামাল১৮-এর কথা মনে আছে?

১৮| ১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ সকাল ৯:০১

জুল ভার্ন বলেছেন: পোস্ট এবং সবার মন্তব্য পড়লাম।

১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১০:৩৬

জটিল ভাই বলেছেন:
জাজাকাল্লাহ্। সবার মন্তব্যই কি আপনার মন্তব্য প্রিয় ভাই?

১৯| ১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ সকাল ১০:৪০

অপু তানভীর বলেছেন: ব্যাপার খানা কী পরিমান হাস্যকর এবং ভণ্ডামি একবার কল্পনা করে দেখুন!
এটার সামঞ্জস্য উদাহরণ হচ্ছে জামাত শিবির যখন স্বাধীনতা দিবস পালন করে তখন কেমন দেখায়, এটাও তেমনই দেখাচ্ছে।


@জিকোব্লগ
মাল্টি কেবল একটা না, আরও দুইটা নিকের পেছনে লোক একই। আপনার তো ধরে ফেলার কথা।

১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১০:৩৮

জটিল ভাই বলেছেন:
জাজাকাল্লাহ্। এইজন্যেইতো এতো রঙ্গে ভরা বঙ্গদেশ। সুন্দর বলেছেন প্রিয় ভাই। আর মাল্টি ছাড়া পল্টি খাওয়ার কোনো পথ আছে কি? =p~

২০| ১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ সকাল ১০:৫৬

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: ১। শুদ্ধ সংস্কৃতি বোঝার মত এবং মানার মত বাঙালি হাজারে ১ জন। তাই খাওয়া আর আনন্দটাই পাবলিকের জন্য মুখ্য হয়ে গেছে। বাঙালিকে শঙ্কর জাতি বলা হয়। তাই বাঙালিও মনে হয় শঙ্কর সংস্কৃতির প্রতি আগ্রহী বেশী। যদিও শুদ্ধ সংস্কৃতি চর্চাই মুখ্য হওয়া উচিত ছিল।

২। ইফতারের ক্ষেত্রে খাবারটাই এখন মুখ্য, দ্বীনের নির্দেশ গৌণ। দ্বীনের নির্দেশ মানতে গেলে ইফতার পার্টিতে হালাল অর্থে বানানো বা কেনা ইফতারি পাওয়া দুষ্কর হয়ে যাবে। যদিও প্রকৃত মাসালা হোল আগে দ্বীনের নির্দেশ মানা।

১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১০:৪৩

জটিল ভাই বলেছেন:
মন্তব্যটি অনেক ভালো লাগলো প্রিয় ভাই। জাজাকাল্লাহ্।

২১| ১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ সকাল ১১:০৮

রানার ব্লগ বলেছেন: বাড়ির ইফতার স্বাস্থ্য সম্মত । বাড়িতেই ইফতার করুন !!!! দাওয়াত দিলেই যেতে হবে এমন তো না ।

১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১০:৪০

জটিল ভাই বলেছেন:
আচ্ছা। জাজাকাল্লাহ্।

২২| ১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ বিকাল ৩:০৭

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: দ্বীনের নিৰ্দেশ এবং দুনিয়ার অন্য যে কোনো বিষয়, যদি একটি আরেকটির বিরুদ্ধে যায় তবে আপনি দ্বীনের নির্দেশই মানতে বাধ্য (যদি আপনি ঈমানদার হন)। আমি মনে করি আমার এই মতটি সঠিক।

ভালো থাকবেন প্রিয় ভাই, শুভকামনা।

১৬ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১০:৪২

জটিল ভাই বলেছেন:
আপনার মতটি যথার্থ মনে হচ্ছে প্রিয় ভাই। জাজাকাল্লাহ্।

২৩| ১৭ ই এপ্রিল, ২০২২ সকাল ১০:০৫

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: উচিত কইলে কেহ দেখিতে পারিবে না
আমাকেও মানুষ দেখিতে পারে না :( বাস্তবেও অনলাইনেও

ভূঁয়া মিথ্যুকদের সঙ্গ দেয়ার মানুষের অভাব নাই,

১৭ ই এপ্রিল, ২০২২ বিকাল ৩:০৪

জটিল ভাই বলেছেন:
মানুষের পাত্তার দরকার নেই। আল্লাহ্ পাত্তা দিলেই হলো। জাজাকাল্লাহ্।

২৪| ১৭ ই এপ্রিল, ২০২২ সকাল ১০:৪৮

জিকোব্লগ বলেছেন:



লেখক বলেছেন: কামাল১৮-এর কথা মনে আছে?

কথা মনে ছিল কিন্তু যথাযথ নিকটা মনে করতে পারছিলাম না।

একটা সময় এই লোক বামদের ব্যানারও প্রোফাইল পিক বানিয়েছিল।


বোঝাই যাচ্ছে এই লোক ইসলাম বিদ্বেষী মোটিভে ব্লগে জুতা স্যান্ডেলের
বারি খেয়ে হলেও বিভ্রান্তি ছড়াতে এসেছে।

নমরুদের মস্তিষ্কে মশাটি যেমনি কামড়াতো, ইসলাম শব্দ শুনলেই এই
লোকের মাথায় তেমনি কামড় ধরে। আর এই জন্যেই এর জুতা স্যান্ডেলের
বারি খাওয়ার লাগে। লোকটার ভালোর জন্যেই এরে জুতা স্যান্ডেলের বারি
দেন, তবুও যদি এর মস্তিষ্কে মশাটা কামড়ানো বন্ধ করে।

১৭ ই এপ্রিল, ২০২২ বিকাল ৩:০৫

জটিল ভাই বলেছেন:
মাল্টিনিকগুলোর পেছনে তাহারও বিশেষ অবদান রহিয়াছে বোধ করি।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.