নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমি বিশুদ্ধ কোন মানব নই, তুমি তোমার মত করে শুদ্ধ করে নিও আমায়

ডার্ক ম্যান

...

ডার্ক ম্যান › বিস্তারিত পোস্টঃ

বই নিয়ে কথা ঃ খ্যাতির লাগিয়া

১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:১৭

আমি কোন ধরনের রিভিউতে কখনো পারদর্শী নয়। বই নিয়ে আলোচনা করার চেষ্টাও বৃথা । তবে বইয়ের প্রচারণা চালাতে আপত্তি নেই।
বইয়ের নামঃ খ্যাতির লাগিয়া
লেখকঃ খলিল মাহমুদ

খ্যাতির লাগিয়া হতে কিছু কথা ঃ
প্রত্যেকটা মানুষই কবি। মানুষ ছন্দোবদ্ধভাবে কথা বলতে পছন্দ করে। বক্তা অনর্গল কথা বলে যাচ্ছেন , কথার শ্রীবৃদ্ধির জন্য হটাৎ দু-চার ছত্র কবিতা কিনবা ছড়া আবৃত্তি করলেন , মানুষ মজা পেয়ে হাততালি দিয়ে উঠলো । কবি মাত্রই ভাবুক। এমন কেউ কি আছেন যিনি কোনদিন কিছু ভাবেননি ? কবি মাত্রই স্বপ্নচারী । এমন কি কোন মানুষ খুঁজে পাবেন , যিনি সুখের স্বপ্ন দেখতে দেখতে উজ্জ্বল হয়ে ওঠেননি ? তারপরও কি আমরা সব মানুষকে কবি বলি ? না, বলি না। কারণ, আমরা সব মানুষের নাম জানি না। কারণ বাজারে সব মানুষেরই একটি করে কবিতার বই বের হয়নি। আচ্ছা, যিনি বলেন যে আমি খুব প্রচারবিমুখ কবি, বলতে পারেন কি তিনি তাঁর কবিতার বইটি কেন ছাপেন , বা ছেপেছেন ? একটি বই বের হওয়া মানেই তো জনসমক্ষে তাঁর প্রচার ছড়িয়ে পড়া । বস্তুত আমরা যাদের নাম শুনি কিংবা জানি তাঁরা কেউ কিন্তু প্রচারবিমুখ নন, হলে আমরা তাঁদের নামই শুনতাম না ।

খ্যাতির মোহ কার না আছে? আমারও আছে, আপনাদেরও আছে ।
খ্যাতির কি কোন বিড়ম্বনা আছে ? আমার মনে হয় , নেই। লোকে যেটাকে খ্যাতির বিড়ম্বনা বলে আসলে ওটাই সুখ । বিশ্ব- বিখাত তারকরা যখন সর্বসাধারণের মাঝে বের হোন , এক নজর দেখার জন্য ভক্তরা তাদের জেঁকে ধরেন । এই জেঁকে ধরাটা অনেক সময় অপ্রতিরোধ্য হয়ে ওঠে । পত্র পত্রিকায় সেটা খবর হয়ে বেরোয় । তারকাদের খ্যাতি আরো জোরশে বাড়তে থাকে।এমন এক তারকা দৈবাৎ একদিন রাস্তায় বের হয়ে দেখেন তাঁর দিকে কেউ ফিরেও তাকাচ্ছে না , তাহলে সেটাই তাঁর জন্য মৃত্যুর সমতুল্য হয়ে দাঁড়াবে । এমন মৃত্যু কোন কোন তারকাই চাইবেন না ; চাইবেন ভক্তদের বিড়ম্বনা , তাতেই পরম সুখ। ভক্তদের মাঝে যুগ যুগ বেঁচে থাকতে চাইবেন । যেমন রবীন্দ্রনাথও চেয়েছিলেন । বাংলা তেরশো সালেই তিনি ভেবেছিলেন যে চৌদ্দশো সাল অব্দি তিনি হয়তো বাঁচবেন না , কিন্তু মনে প্রাণে তিনি চেয়েছিলেন চৌদ্দ সালেও যেন তাঁর ভক্তরা তাঁকে মনে রাখেন । কিন্তু খ্যাতির স্থায়িত্ব সম্পর্কে তিনি অত্যন্ত সচেতন ছিলেন , এ ব্যাপারে তিনি দারুণ বিচক্ষণতার পরিচয় দিয়েছিলেন । তিনি জানতেন যে , একশত বৎসরের বেশি তাঁর ভক্তগণ হয়তো তাঁকে মনে রাখবেন না , তাই তিনি তার চেয়েও বেশি আশা করেন নি । যদি করতেন তাহলে তেরশো সালে বসে '১৪০০ সাল' এর পরিবর্তে তিনি '২৩০০ সাল' লিখতেন--- আজি হতে শত যুগ পরে------



সুহৃদ রহমান নামক মাঝ বয়সী নবীন লেখকের প্রথম বই প্রকাশের ঘটনাকে কেন্দ্র করে উপন্যাসের কাহিনী গড়ে উঠেছে । সুহৃদ রহমান যখন প্রকাশকের কাছে যান পাণ্ডুলিপি নিয়ে তখন ভেবেছিলেন প্রকাশক নিজের খরচে বইটি ছাপাবেন । কিন্তু প্রকাশক তাকে বলেন, নবীন লেখকদের বই বের করতে হয় লেখকের অর্থায়নে । পাঁচ হাজার বই ছাপানোর অভিপ্রায় থাকলেও শেষমেশ ৫০০তে স্থির হন।
নবীন লেখকদের শুধু নিজের টাকায় বই প্রকাশ নয় বরং নিজের বইয়ের বিক্রিও নিজেকে করতে হয়।

মন্তব্য ৮ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (৮) মন্তব্য লিখুন

১| ১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৪০

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: উপন্যাসটি আমি পড়েছি। নবীন লেখকের বই প্রকাশের বাসনা ও সাফল্য। আর সেটার জন্য পরবর্তীতে লেখকের আত্মীয় , বন্ধু সমাজে অভিজ্ঞতা, লেখকের স্ত্রীরও খ্যাতির লোভে স্বামীীকে সহয়োগিতা করা। আর অর্থায়নের বিষয়টিতো আপনি তুলে ধরলেন। সবমিলিয়ে আমার ভীষণ ভালো লেগেছিল। আপনার আজকের রিভিউটিও বেশ ভালো লাগলো। ++

আমাদের শ্রদ্ধেয় ব্লগার সোনাবীজ স্যারকে অভিনন্দন।

আপনাকে ধন্যবাদ।

দুজনকেই বিনম্র শ্রদ্ধা ও শুভকামনা রইল।

১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:২৬

ডার্ক ম্যান বলেছেন: আমি সঠিকভাবে রিভিউ তুলে ধরতে পারি না

২| ১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৫৬

শায়মা বলেছেন: এই বইটি আমার মজাই লেগেছে পড়ে।

সত্য সব সময় তিতা নয় মাঝে মাঝে মজারও....

১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:২৯

ডার্ক ম্যান বলেছেন: কি খবর আপু তোমার । তোমার জন্য আজীবন দুটো লাইন বরাদ্দ
ছিলাম না কোন কালে মমিন
শুধুমাত্র তোমার ভালোবাসায় হয়েছিলাম চার্মিং

৩| ১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:৪৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমি পারদর্শী "নই" আমরা পারদ্শী "নই"
আপনি পারদ্শী "নন" আপনারা পারদ্শী "নন"
সে পারদ্শী "নয়" তাহারা পারদ্শী "নয়"

১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:৩০

ডার্ক ম্যান বলেছেন: 8-| B:-) :-/

৪| ১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:১২

রাজীব নুর বলেছেন: খলিল ভাইকে জানার জন্য, বুঝার জন্য- একটাই পথ। বই পড়া। লেখকের বই পড়া।
মানূষকে চিনতে হলে। বুঝতে হলে- তার লেখা পড়লেই হয়।

আমি খলিল ভাই এর বই পড়বো।

১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:৩৩

ডার্ক ম্যান বলেছেন: লেখা পড়ে মানুষকে চেনা যায় না । আমি একজনের লেখা পড়ে ধোঁকা খেয়েছি ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.