নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

টারজান০০০০৭

টারজান০০০০৭ › বিস্তারিত পোস্টঃ

স্তালিন কহিলেন ইউরেকা ! পাইয়াছি ! :D ;) :P =p~

১২ ই এপ্রিল, ২০১৭ রাত ১০:৪৮

কওমি মাদ্রাসার সনদের সরকারি স্বীকৃতি এবং হাইকোর্টের মূর্তি অপসারণের পক্ষে মত দিয়া আওয়ামী সরকার পাঁঠাদের এমন হতাশ করিয়াছেন যে তাহাদের বিচি প্রক্রিয়াকরণ ছাড়াই ছোট হইয়া যাইতেছিলো ! তাহাদের আহাজারিতে আকাশ , বাতাস কালো হইয়া যাইতাছে দেখিয়া সবচেয়ে বড় বিচিওয়ালা পাঁঠা ইবলিশের কাছে সমাধান প্রার্থনা করিলেন ! ইবলিশ তাহার যোগ্য শিষ্যবৃন্দ মেও , লেলিন , স্তালিন , হোজ্জাকে ডাকিয়া মর্তে পাঠাইলেন ! মর্তে নামিয়া তাহারা দেখিলেন কুস্তি প্রতিযোগিতা চলিতেছে ।

প্রথম রাউন্ড থেকেই দশাসই এক জার্মান সবাইকে হারাইতেছে । কেউ তার সাথে লড়িয়া জিতিতে পারিতেছে না। এক সময় সবাইকে হারাইতে হারাইতে সে পৌঁছিয়া গেলো ফাইনালে।

সেইখানে মগাচীপও গিয়াছে লড়িতে! মগাচীপও ফাইনালে উঠিয়াছে ।

ফাইনাল শুরুর আগে মগাচীপের বয়ফ্রেন্ড বলিল , “ডার্লিং মগাচীপ! ফাইনালে উঠিয়েছো, তাহাতেই আমরা খুশী। জার্মানটার সাথে ত পারিবেনা। হারামজাদার ” মাইনকা চিপা” থেইকা দূরে থাইক্যা ফাইট করিও”

মগাচীপ রিংয়ে ঢুকিয়াছে । কিছুক্ষন দূরে দূরে থাকিয়া নিজের পশ্চাৎদেশ বাচাইয়াছে । কিন্তু শেষ পর্যন্ত পারে নাই।
জার্মানটার হাতে খাইয়াছে ধরা। জার্মানটা মাইনকা চিপা দিয়ে ধরিয়াছে । মগাচীপের বয়ফ্রেন্ড কহিল , আরে মগাচীপ কি কহিলাম তোমারে …দুরে দূরে থাক। এইটা বলে বেচারা মাথা নিচু করিয়া ফেলিয়াছে । হার এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র । একটু পরেই বিকট এক চিৎকার। বয়ফ্রেন্ড অবাক হইয়া মাথা তুলিল । কি হইয়াছে ?

হইয়াছে জবর কান্ড। মগাচীপ জার্মানটারে চাপিয়া ধরিয়াছে । জার্মানটা একটু ধাপাধাপি করিয়া হার মানিয়া লইলো।

পুরষ্কার নেয়া শেষে বয়ফ্রেন্ড মগাচীপরে জিগাইলো, রিং এ কি হইয়াছিল প্রিয় ? জিতিলে কেমন করিয়া ?
মগাচীপ কহিল- ডার্লিং ! তোমার কথা শুনিয়া দূরে দূরেই থাকিতে চাহিয়াছিলাম । কিন্তু ক্যামনে জানি মাইনকার চিপায় পড়িয়া গেলাম। চিপার চোটে মনে হইতেছিলো দম বন্ধ হইয়া যাইবে …জ্ঞান হারানোর ঠিক আগে আগে দেখিলাম মুখের সামনে দুইটা বিচি ঝুলিতেছে …আমি ভাবিলাম হারিয়া ত যাইতাছি…দেই শালার বিচি কামরাইয়া। গলাটা বাড়াইয়া দিলাম একটা কামড়। তুমি বিশ্বাস করিতে পরিবেনা , নিজের বিচিতে নিজের কামড় পড়িলে কি দানবের মত এনার্জি পাওয়া যায় !

স্তালিন কহিলেন ইউরেকা ! পাইয়াছি !
পাঁঠাসকল ! তোমরা সবাই নিজের বিচিতে কামড় দাও !

মন্তব্য ১১ টি রেটিং +৪/-০

মন্তব্য (১১) মন্তব্য লিখুন

১| ১২ ই এপ্রিল, ২০১৭ রাত ১১:০১

টারজান০০০০৭ বলেছেন: :D ;) :P :> :-P =p~

২| ১৩ ই এপ্রিল, ২০১৭ সকাল ৮:০৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


পোস্টে সব পাঠকের জন্য কিছু না কিছু থাকা দরকার।

১৩ ই এপ্রিল, ২০১৭ সকাল ৯:১৪

টারজান০০০০৭ বলেছেন: আস্তে আস্তে শিখিব আংকেল ! আপনাদের গাইডেন্সের প্রয়োজন আছে।

৩| ১৩ ই এপ্রিল, ২০১৭ সকাল ১০:১৯

আখেনাটেন বলেছেন: হা হা হা...আপনার মনে হয় পাঁঠা খুব প্রিয় প্রাণী। এ নিয়ে আপনার বিস্তর গবেষণা দেখে ভালোই লাগে। এট লিস্ট সারাদিনের কর্মব্যস্ত দিনের শেষে এক চিলতে হাসি তো হাসা যায়। :P :P

চলুক এই পাঁঠা ও বিচির কাহিনিকাব্য নিরন্তর...। ;)

১৩ ই এপ্রিল, ২০১৭ সকাল ১০:২৭

টারজান০০০০৭ বলেছেন: ছাগু এবং পাঁঠা বাঙালি জাতির কাছে বিশেষ আদরণীয়।উহাদের কারণে ব্লগে বিনুদুনের অভাব নাই। :D কচি পাঁঠা আবার আমাদের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের কাছে বিশেষ কদর পায়। :)
জাতির বৃহত্তর কল্যাণের স্বার্থে আমি আবার উহাদের বিচি ফালানোর মহান দায়িত্ব কাঁধে নিয়াছি ! ;) (পয়সা নাই , কাবিখা হইলেও চলতো ! :( )

৪| ১৩ ই এপ্রিল, ২০১৭ সকাল ১০:৩৬

রওশন জমির বলেছেন:
এখনই অন্ধ বন্ধ করো না- অনুসারে ক্ষান্তি দেওয়ার পক্ষে নই। বরং ষাঁড়ের বিচি নিয়েও এমন একটি লেখা পড়তে চাই। তবে এখন নয়, আরো পরে, অনেক পরে। কারণ, দিল্লি হনুজ দুরস্ত!

১৩ ই এপ্রিল, ২০১৭ সকাল ১০:৪২

টারজান০০০০৭ বলেছেন: আপনি একটা লেখেন না ভাইছাব ! আপনার লেখা নিঃস্বন্দেহে গবেষণা ধর্মী হবে।পাঁঠার কদর আরো বাড়িবে ! :D

৫| ১৪ ই এপ্রিল, ২০১৭ রাত ২:৩৫

ডঃ এম এ আলী বলেছেন:

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৭ রাত ১০:০৪

টারজান০০০০৭ বলেছেন: ধন্যবাদ আলী ভাই।

৬| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৭ সকাল ১১:০৮

লেখা পাগলা বলেছেন: ভালা হইছে :P

২০ শে এপ্রিল, ২০১৭ সকাল ১১:২৩

টারজান০০০০৭ বলেছেন: ধন্যবাদ ! পাগলের কাছ থেইকা বিরাট কমপ্লিমেন্ট !

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.