নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

টারজান০০০০৭

টারজান০০০০৭ › বিস্তারিত পোস্টঃ

জবাবে ব্লগার আল্পনা তালুকদারের "বাবার বিয়ে এবং একটি জঘণ্য অপরাধ"

২৯ শে জুলাই, ২০১৭ সকাল ১০:০৪

অর্থাৎ হুমায়ূন আহমেদ বিয়ে না করে শাওনের সাথে পরকীয়া চালিয়ে গেলে কারো তেমন আপত্তি হতনা, যেমন গোপনে বিবাহিত পুরুষরা পতিতালয়ে গেলে, কাজের মেয়ের সাথে সেক্স করলে বা পরকীয়া করলে কারো কিছু বলার থাকেনা।
খুব তিক্ত সত্য কথা বলেছেন ! আমাদের সমাজের এই ডাবল স্ট্যান্ডার্ড আমার একদমই সহ্য হয় না !
ইসলামে বহুবিবাহের অনুমতি আছে শর্ত সাপেক্ষে ! যে শর্ত গুলো মানা খুব উঁচুদরের প্রাক্টিসিং মুসলিম ছাড়া মেনে চলা খুব কঠিন ! একারণে আমাদের আকাবেরিনদেরও এখন একাধিক বিয়ে করতে দেখা যায় না !
যতদূর জানি আমাদের শ্রদ্ধেয় আকাবেরিন (আধ্যাত্বিক ও ধর্মীয় পথপ্রদর্শক ) হজরত মাওলানা থানভী (রঃ) দ্বিতীয় বিবাহ করিয়াছিলেন এবং তিনি নিষ্ঠার সাথে সমতা রক্ষা করিয়া চলিতেন ! তবে সেই তিনিই সমতা রক্ষা করা কঠিন বিধায় তাহার শিষ্যদের পারতপক্ষে একাধিক বিবাহে নিরুৎসাহিত করিয়াছেন !
এক বন্ধু আরেক বন্ধুকে বলল, "দোস্ত শোন। তোকে একটা গল্প বলি। এক ভদ্রলোকের দুই বৌ ছিল..."। বন্ধুকে থামিয়ে দিয়ে অপর বন্ধু বলল,"দূর! ভদ্রলোকের আবার দুই বৌ হয় নাকি?"

তবে কি আমাদের নবী রাসূল গণ (আঃ) , সাহাবী (রাঃ) গণ , আকাবেরিন গন ভদ্রলোক ছিলেন না ? যে এই কৌতুক আবিষ্কার করিয়াছে তাহাকে থাপড়াইয়া গাল ফাটাইয়া দেওয়া উচিত !

এখনকার পরকীয়ায় অভ্যস্ত ভদ্দরনোকদের কথা অবশ্য আলাদা। এই সমাজের চোখে ধোয়া তুলসীপাতা থাকিতে তাহারা পরকীয়া করে , বেশ্যালয়ে গমন করে তবুও তাহাদের ভদ্দরনোক স্টেটাস ধূলিস্যাৎ হয় না ! ইহা আমাদের সমাজের সমস্যা ! পাশ্চ্যাতের চশমা পড়া বুদ্ধুজীবী , লেখক , এনজিও কর্মীদের দিনের পর দিন অপপ্রচারণায় আমাদের সমাজের এই ডাবল স্ট্যান্ডার্ড তৈরী হইয়াছে ! লাথি মারি এই সমাজের মুখে !

একাধিক বিবাহের প্রয়োজন আছে বৈকি ! ইসলামে এমনি এমনি অনুমোদন দেয় নাই ! সুষ্ঠূ সমাজ নির্মাণে ইহার প্রয়োজন আছেও বটে !

রোমান সাম্রাজ্যে পরুষের গড় আয়ু ছিল মাত্র ২০ বছর ! একাধিক বিবাহের আইন না থাকিলে পরকীয়া আর অবাধ যৌন সঙ্গম ছাড়া কোনো উপায় কি ছিল ?

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে ইউরোপের অর্ধেক পুরুষের মৃর্ত্যু হয়। অর্থাৎ নারী ও পুরুষের অনুপাত ছিল ২: ১। অথচ দ্বিতীয় বিবাহে নিষেধাজ্ঞা ছিল ! ফলাফল , রক্ষণশীল ইউরোপের অবাধ যৌনতা , পরকীয়ার পথে অগ্রসরতা ! এমনকি একজন পিয়নের ২o হাজার অবৈধ সন্তানের পিতা হওয়া। জী ! ইহা টেস্ট টিউব বেবি নহে ! অবৈধ সঙ্গমের ফল ! ডিএনএ টেস্টেই প্রমাণিত হইয়াছে ! গণহারে ডিএনএ টেস্ট করিলে নাজানি ফলাফল কি ভয়াবহ হইবে !

হালে ইরিত্রিয়াতে সরকার আইন করিয়াছে প্রত্যেক পুরুষকে কমপক্ষে দুইটি বিবাহ করিতে হইবে ! ইরাকের জনৈক নারী এমপিও একই দাবি করিয়াছেন ! কারণ পুরুষের অনুপাতে নারীর সংখ্যা বাড়িয়া গিয়াছে।

পুরো আফ্রিকায় একাধিক বিবাহের প্রচলন খুব জোরে শোরে আছে। যেহেতু খিষ্টান এবং কালো একারণে তাহাদের নিয়া পশ্চিমা বিশ্বের এবং তাহাদের ঘেটুপুত্র কন্যাদের ইহাতে মাথাব্যাথা নাই! থাকিলে তাহাদের প্রতি আফ্রিকানরা পশ্চাৎদেশ দেখাইয়া বলিত তোমাদের অবাধ যৌনতা , পরকীয়ার নোংরা সংস্কৃতি নিয়া তোমরা থাকো , আমাদের সংষ্কৃতিতে তোমাদের নোংরা নাক প্রবেশ করাইয়োনা !

তাহারা পারে শুধু আরব ও মুসলমানদের বহুবিবাহের সংস্কৃতি নিয়া তাহাদের বিচি দোলাইতে !

একাধিক বিবাহে সন্তানদের যে কষ্ট , তাহা আমাদের সংষ্কৃতি ও পিতার অযোগ্যতার ফল ! আরবে বহুবিবাহ এখনো জোরেশোরে চালু আছে। তাহাদের সংষ্কৃতিতে ইহা গ্রহণযোগ্যও বটে। এমনকি স্ত্রীরাও নিজেরাই স্বামীকে বিবাহ করিতে উৎসাহিত করেন এমন নজির হরহামেশা দেখা যায় ! একজন নববধূ বিবাহের আসরে তাহার তিন বান্ধবীকে বিবাহ করিতে হইবে এমন শর্ত প্রদানের সংবাদও দেখা যায়। তাহাদের পুরুষদের আর্থিক , শারীরিক সামর্থও আছে ! তাহারা সমতা রক্ষার চেষ্টাও করেন। তাহাদের সমাজে ইহা গ্রহণযোগ্যও বটে ! তাই তাহাদের সন্তানদের এমন কষ্ট , অপমান সহ্য করিতে হয় না। আমাদের দেশে সহ্য করিতে হয় কারণ আমাদের সমাজে একাধিক বিবাহ কবিরা গোনাহ মনে করা হয়। তাই একাধিক বিবাহ মুখরোচক সংবাদ , সমাজে আলোচনার বিষয়বস্তু ! অথচ বিবাহ না করিয়া পতিতালয় গমন বা পরকীয়া আলোচনার বিষয়বস্তু নহে !

নারী ও পুরুষের শারীরিক সক্ষমতার পার্থক্যও একাধিক বিবাহ জায়েজ হওয়ার কারণ। একজন নারীর যৌন সক্ষমতা মেনোপজের সাথে সাথে শেষ হইয়া যায় বা কমিয়া যায়। অথচ পুরুষের সক্ষমতা এমনকি বয়োবৃদ্ধ অবস্থাতেও থাকে ! এই অবস্থায় নিজেকে নিয়ন্ত্রণ না করিতে পারিলে পরকীয়া , পতিতালয় গমন অথবা বহুবিবাহ ছাড়া আর কি উপায় আছে ? ডান্ডা বাঁধিয়া রাখিবে ?
সমকামিতাকে আমাদের বুদ্ধুজীবীরা প্রাকৃতিক বিষয় বলিয়া থাকেন। ইহা কি প্রাকৃতিক বিষয় নহে ?

পুরুষের বহুবিবাহের কারণে যেসমস্ত সন্তানেরা সাফার করেন তাহাদের জন্য আমার সমবেদনা! এই ভন্ড সমাজ তাহাদের এই কষ্ট ও অপমান উপহার দিয়েছে ! বহু পুরুষের প্রয়োজন থাকিলেও সন্তানদের মুখের দিকে তাকাইয়া , সমাজের টিটকারীর ভয়ে নরক যন্ত্রনা ভোগ করেন। পুরুষের এই স্যাক্রিফাইস সমাজের , নারীর , ভদ্দরনোক বুদ্ধুজীবীদের , নারীবাদীদের চোখে পড়িবে না ! তাহাদের চোখে পড়িবে হুমায়ুন আহমেদ কেন পতিতালয় না গিয়া , পরকীয়া না করিয়া বিবাহ করিলেন !

পরিশেষে আবারো বলি , আমাদের আকাবির থানভী (রঃ) এর উপদেশ আমি সমর্থন করি ! তবে একথাও প্রণিধানযোগ্য , বহুবিবাহ হালাল , কবিরা গোনাহ নহে ! যাহারা ইহা কবিরা গোনাহ মনে করেন , খারাপ মনে করেন , তাহারাও কবিরা গোনাহ করিতেছেন , ইসলামের একটি হালাল বিধানকে হারাম মনে করিতেছেন ! আর যেসমস্ত বুদ্ধুজীবী , লেখক, এনজিও কর্মী , সমাজকর্মী এই হালাল কে হারাম বানানোর চেষ্টা করিয়াছেন বা করিতেছেন তাহাদের বিচার আজ নহে কাল !

বাবার বিয়ে এবং একটি জঘণ্য অপরাধ

মন্তব্য ৮ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (৮) মন্তব্য লিখুন

১| ৩০ শে জুলাই, ২০১৭ সকাল ৮:৪২

আবু মুছা আল আজাদ বলেছেন: আল্পনা তালুকদারের "বাবার বিয়ে এবং একটি জঘণ্য অপরাধ" অনেকে জেনেও লেখে আবার অনেকে না জেনেও লেখে এই আরকি।

তবে ন্যাচারডলি কিছূ মানুষের প্রয়োজন হতেই পারে একাধিক বিয়ের আর এটা মানুষ নামক যন্ত্রের মালিক সম্মতি বা ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। বাট এর বাইরেও আরেকটি ব্যাক্তি বা গ্রুপ সৃষ্টির প্রথম থেকৈই অাছে আর তাহল স্যাাটান, শয়তান,আযাযিল,ডেভিল।
এখন পুরা পৃথিবীর যাদের নিয়ন্ত্রনে তাদের পথ বা মতবাদ হল ইনভারশন বা ইশ্বারের ঠিক উল্টো বা বিপরিদ। ফলে যেখানে ইশ্বর বহুবিবাহ সমর্তন সেখানে এরা অসমর্থন বা নিন্দা, যেখানে ব্যাভিচারকে অবৈধ সেখানে এরা বৈধ ও উৎসাহ দিয়েছে নারী-পুরুষ যেখানে বিয়ে করবে সেখানে ্রএরা সমকামীতাকে সমর্থকন দেয় এরকমই প্রতি ক্ষেত্রে চলছে।

৩০ শে জুলাই, ২০১৭ সকাল ৯:১১

টারজান০০০০৭ বলেছেন: ধন্যবাদ ! আমার মনের কথাটাই লিখেছেন। এটার উপর পোস্ট দেওয়ার ইচ্ছা আছে।

২| ০৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:৫৭

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: মানুষের ব্যক্তি স্বাধীনতা থাকা উচিত।

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৭ সকাল ১১:৫২

টারজান০০০০৭ বলেছেন: জী ! অবশ্যই ! তবে ব্যাক্তি স্বাধীনতাতো শুধু ভন্ডদের পতিতালয়ে যাওয়ার জন্যই রহিয়াছে ! ম্যাংগো পিপলের বহুবিবাহের জন্য নাই !

৩| ১১ ই জুন, ২০১৮ রাত ৩:৪৮

প্রজ্জলিত মেশকাত বলেছেন: আপনার এজেন্ডা বুঝতে একটু দেরি হইছে। আপনি অনেক ভূল তথ্য দেন। রোমান সাম্রাজ্যে পুরুষের গড় আয়ু ছিল ২০ বছর!! এটা কি এলএসডি নিয়ে বের করছেন!!

১১ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৮:১৫

টারজান০০০০৭ বলেছেন: আমার তথ্যগত ভুলের কোন রেফারেন্স দিতে পারেন ? ব্লগে আমি রিসার্চ পেপার লিখিতে আসি নাই ! যাহা লিখিয়াছি , আমার পড়া হইতেই লিখিয়াছি !

আমার এজেন্ডা বুঝিতে হইলে পিউবিক হেয়ার ঠিকমত গজাইতে হইবে !

৪| ১২ ই জুন, ২০১৮ রাত ১:৩৫

প্রজ্জলিত মেশকাত বলেছেন: আপনার পিউবিক হেয়ার ৫ ফুট লম্বা!!! আসলে আপনি একটা ফ্যানাটিক, জংগী, খুনি এবং সাইকো।

১২ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৫:৫৫

টারজান০০০০৭ বলেছেন: আপনার পিউবিক হেয়ার ৫ ফুট লম্বা!!!

হইলে মন্দ হইত না ! প্রায়ই পাঁঠা বাঁধিয়া রাখার জন্য দড়ির সংকট পরে ! উহা দিয়া বাধা যাইত ! :D

আসলে আপনি একটা ফ্যানাটিক, জংগী, খুনি এবং সাইকো।

ইহাতো পাঁঠাদের পুরোন কৌশল ! মারা খাইয়া হজম করিতে না পারিয়া সবাইরে গংগী ট্যাগ লাগাইয়া ইজ্জত বাচাইতে চায় ! এই কৌশলে আর কাজ হয় না ! নতুন কিছু ভাবুন ! :-P

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.