নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

টারজান০০০০৭

টারজান০০০০৭ › বিস্তারিত পোস্টঃ

স্তালিনের রাশিয়ান বিশ্বকাপ দর্শন ! একটি দৈনিক "ইয়ের আলো" মতিবেদন !!! ১৮ +

১০ ই জুন, ২০১৮ রাত ১১:৫৯

রাশিয়া হইতে বিশেষ মতিবেদক !

স্তালিনের সর্বশেষ নিদান স্তালিন কহিলেন ইউরেকা ! পাইয়াছি ! :D ;) :P =p~অনুযায়ী পাঁঠারা নিজ নিজ বিচিতে কামড় দেওয়ার পরও যখন পাঁঠাদের অবস্থা দিনে দিনে খারাপই হইতে লাগিল, নতুন পাঁঠার উৎপাদনে ঘাটতি হইতে লাগিল, পাঁঠাদের প্রভু আজাজিল চিন্তায় পড়িলেন। ঘন ঘন হুড়কো দেওয়াতে স্তালিন , মাও , কিম ইল সুং, ক্যাস্ট্রো ,চে সবাই সমাধানের জন্য মাথা খুঁড়িতে লাগিল। কিন্তুক মাথায় হিছা মারিয়াও কোন বুদ্ধি আসিল না ! মোটরসাইকেলের অভিযাত্রী চে আর বুইড়া কদুদের সাথে থাকিতে চাহিল না , নারীকুল তাহার ছবি বুকে, পিঠে , মাথায় নিয়া ঘুরিতেছে , তাহাদের ডাকে সারা দেওয়ার মহান দায়িত্ব পালন করিতে কাস্ট্রোরে নিয়া মোটরসাইকেলের পিছন দিয়া ধোয়া বাহির করিতে করিতে পগার পার হইয়া গেল ! স্তালিন বিরক্তি নিয়া সেদিকে তাকাইয়া থাকিলেন ! মনে মনে কহিলেন , আজকালকার মাইয়াগুলারে তো চিনোনা চাঁন্দু ! যাওগা! তোমার ছবি বুকে নিয়া ঘুরিলে কি হইবে , ট্যাংকি মারিতে গেলে তোমার পিছন দিয়াও ধোঁয়া বাহির করিয়া ছাড়িবে ! মর্ত্যে থাকিলে চাঁন্দু তোমাদের দুইডারে গুলাগে পাঠাইয়া ডিম্ব থেরাপি হিসেবে উটপাখির ডিম্ ব্যবহার করা যায় কিনা এক্সপেরিমেন্ট করিতে বলিতাম ! যাহা হউক মরার পর তেমন কিছু করার নাই ! চে এখন ডাইনোসরের ডিমও হজম করিয়া ফেলিবে , কাস্ত্রোত সমকামীই ছিল ! উহারে কিসের ডিম্ দেওয়া যায় স্তালিন ভাবিয়া পাইলেন না ! হতাশ হইয়া , মাও আর কিমের দিকে তাকাইলেন !
কিম প্রস্তাব দিলেন, পুতিনের বিশ্বকাপ দেখিয়া আসা যায় !মাথাটারে বিনুদুনে ব্যাস্ত রাখিলে নতুন কোন উপায় আসিতে পারে !

আইডিয়া !!!! কিন্তু বিশ্বকাপতো এখনো শুরু হয় নাই ! মাও তাকাইলেন স্তালিনের দিকে, পাঁঠাকুল শিরোমনি কি বলেন !

যাওয়া যায় , স্তালিন কহিলেন ! বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচ গুলো অন্তত দেখিয়া আসা যায় ! পুতিন ছোকরা পাঁঠা সম্প্রদায় হইতে চলিয়া গেলেও পাঁঠাদের অনেক নিয়ম কানুনই অনুসরণ করে ! বিশেষ করিয়া জনগনরে কেমনে মাইনকা চিপায় রাখিতে হইবে পুতিন উহা আমা হইতেই শিখিয়াছে !

না না , আমা হইতে শিখিয়াছে, মাও প্রতিবাদ করিলেন !

আমা হইতেও শিখিতে পারে , কিম মিন মিন করিয়া কহিলেন ! আফটার অল আমার দেশেই কম্যুনিজম এখনো আদি আকৃতিতেই রহিয়াছে ! জনগনরে কেমনে পুন্দাইয়া মাইনকা চিপায় রাখিতে হয় তাহা উত্তর কোরিয়া দেখাইয়া দিতেছে !

কি যে কও না কিম মিয়া !! তোমার মাথাটা গেছে ! দ্বিতীয় মহাযুদ্ধে দুই কোটি জনগণ পোঙ্গামারা খাইছে আমার নেতৃত্বে।তারপর আমি কয়েক কোটিরে পাঠাইয়াছি সাইবেরিয়ায় , গুলাগে ! পুরো চেচেন জাতিরে আমি নির্বাসনে পাঠাইয়া অর্ধেক করিয়া দিয়াছিলাম ! জনগনরে পুন্দাইয়া মাইনকা চিপায় রাখিতে আমার চাইতে কে ভালো পারিয়াছে !!!!

মাও খুক খুক করিয়া কাশিয়া স্তালিনের দৃষ্টি আকর্ষণ করিলেন, আমার মনে হয় কমরেড, জনগনরে পুন্দানোর ব্যাপারে আমিই সেরা ! মানলাম ইতিহাসে আপ্নেরেই সেরা বলা হয় ,তবে আমার অর্জনের তুলনা নাই !

কেন,কেন ?

মহাযুদ্ধে জাপানীগো কাছে পোঙ্গামারা খাওয়া , গৃহযুদ্ধ , সাংস্কৃতিক বিপ্লব , কমিউন সিস্টেমে দুর্ভিক্ষে কোটি কোটি মানুষের মৃত্যু , এমনকি মানুষ মানুষকে খাইলেও জাতির কাছে আমার দেবতার স্থান একটুও টলে নাই ! কমরেড স্তালিন , ক্রুশ্চেভ আসিয়া তো আপনারে এক্কেবারে উলঙ্গ করিয়া দিয়াছে !

স্তালিন সভয়ে নিজের দিকে তাকাইয়া দেখিলেন প্যান্ট ঠিকই আছে ! তাহা হইলে বেজন্মা মাও রূপকার্থে তাহাকে ন্যাংটা বলিয়াছে !মনে মনে কহিলেন , মর্ত্যে থাকিলে স্ট্রটস্কির মতন তোরেও পরপারে পাঠাইতাম !!

কিম কহিলেন , কমরেড মাও, আপনি বোধহয় ভুল বলিতেছেন ! চীনে কেহ আপনারে কমরেড স্তালিনের মতন ন্যাংটা না করিলেও দেবতার সম্মান কেবলমাত্র উত্তর কোরিয়াতেই আমাকে ও আমার পোলারে দেওয়া হয়। এই জায়গায় আমরা অনেক আগাইয়া আছি ! আপনাদের পরে চিনে কম্যুনিজমের ক আছে , রাশিয়াতে তাহাও নাই !

না না ! পুন্দানীটুকু ঠিকই আছে ! পুতিন আর শির এখন গলায় গলায় পিরিত, স্তালিন কহিলেন !

একারণেই বুঝি আমার নাতিরে শি আর পুতিন তেমন সহযোগিতা করিতেছে না , কিম আর রাগ সহ্য করিতে পারিলেন না !!

আইচ্ছা যাউক ! বিশ্বাসে মিলায় বস্তু তর্কে বহুদূর ! চলুন কমরেড তর্ক বাদ দিয়া আমরা রাশিয়ার বিশ্বকাপ দেখিয়া আসি ! মাও কহিলেন !

আপনি বোধহয় জানেন না কমরেড স্তালিন , আজ রাশিয়াতে আন্তর্জাতিক পাঁঠা সম্মেলনে পুতিন , শি আমার নাতি সহ দুনিয়ার তাবৎ পাঁঠা একত্রিত হইবে।নিজেদের মধ্যে তর্ক না করিয়া আমরা ঐখানে উপস্থিত হইতে পারি ! আমাদের নিয়া পরবর্তী প্রজন্মের পাঁঠারা কি বলিতেছে উহা শুনিলেই আমাদের অবস্থা জানা যাইবে ! কিম কহিলেন !

স্তালিন কহিলেন , উত্তম প্রস্তাব !! চলো হে , দেরি করিও না ! আমার আবার এখন পর্যন্ত কোষ্ঠ পরিষ্কার হয় নাই !

কেন কমরেড , হাভানা হইতে চুরুট কি এখন আর আসে না , কিম যাইতে যাইতে শুধাইলেন !
নিমক হারাম কাস্ত্রো ! স্তালিন পেটে হাত রাখিয়া কোকাইতে কোকাইতে অগ্রসর হইলেন !! মাও মুচকি মুচকি হাসিয়া তাহাদের অনুসরণ করিলেন !!

রাশিয়াতে নামিয়া তিন বুইড়ার বিস্ময় আর বাঁধ মানে না ! ঘুরিয়া ঘুরিয়া তাহারা স্টেডিয়ামগুলো দেখিলেন , রাশিয়ার চোখ ধাঁধানো উন্নয়ন দেখিলেন ! উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হইবে যে স্টেডিয়ামে উহাতে যাইয়া দেখিলেন পুতিন , শি আর কিম জুনিয়র আসিয়াছে !!পুতিন কন্ডোম উড়াইয়া অনুষ্ঠান উদ্বোধন করিবেন !



তাহারা গিয়া আলোচনা শুনিতে লাগিলেন ! তিন বুইড়া মরিয়া ভুত হইয়া যাওয়ায় পুতিনেরা তাহাদের দেখিতে পাইতেছেনা। কিন্তু তাহারা সব দেখিতে পাইতেছে !

আলোচনার এক পর্যায়ে কিম জন তাহার বাপ্ দাদার প্রশংসার আতিশয্যে বলিয়া বসিলেন , আমার দাদার ব্যাক্তিত্বের সাথে কাহারো তুলনা হইতে পারে না ! তিনি এতো বড় ব্যাক্তিত্বের অধিকারী ছিলেন যে তাহার সম্মুখে সকলকেই লিলিপুট মনে হইত ! তিনি স্টেডিয়ামের বাহির হইতেই খেলা দেখিতে পারিতেন !!



----সাব্বাস ! বাঘের বাচ্চা ! দেখিতে হইবে না নাতি খানা কাহার !!!!!কিম সিনিয়র গর্বের সাথে স্তালিন ও মাওয়ের দিকে তাকাইলেন !

এতবড় চাপা শির সহ্য হইল না ! মনে মনে কহিল , ব্যাটা , চীন যদি তোর বাপ্-দাদারে সাহায্য না করিত তাহা হইলে আমেরিকানদের টয়লেট সাফ করিয়া দিন কাটাইতি, এখন আসছিস চাপা পিটাইতে ! কিন্তু এতবড় চাপাতো সহ্য করা যায় না !! খুক খুক করিয়া কাশিয়া কহিল, কমরেড কিম জন , আপনার বুঝি ভুল হইতেছে ! কমরেড কিম সিনিয়র মহান ছিলেন ইহাতে সন্দেহ নাই , তবে তিনি ছিলেন মাওয়ের ছোটভাই স্বরূপ ! মাওয়ের ব্যাক্তিত্ব এমন বিশাল ছিল যেন আলাদিনের দৈত্য ! তিনি যদি নিজ বাড়িতে থাকিয়াই সোজা হইয়া দাড়াইতেন ইহাতেই স্টেডিয়ামের খেলা দেখিতে পারিতেন !!



---- শির চাপা শুনিয়া মাও মুচকি হাসিলেন ! মনে মনে বলিলেন ,মার্ দিয়া কেল্লা , ইহাকেই বলে হেকমতে চীন !

পুতিন পড়িলেন মহা ফাঁপরে ! দেশে এখন ধজঃভঙ্গ গণতন্ত্র চালু হইয়াছে ! স্তালিন , লেলিনের প্রশস্তি গাওয়া ঠিক হইবে কিনা বুঝিতে পারিতেছেন না ! তবে কম্যুনিজমের তীর্থস্থানে আসিয়া এতবড় চাপা হজম হইল না ! অনেক ভাবিয়া শির দিকে তাকাইয়া বলিলেন, আমাদের স্তালিনের ব্যাক্তিত্ব এতই বড় ছিল যে...

যে .. শি আর কিম জুনিয়র জিজ্ঞাসু দৃষ্টিতে পুতিনের দিকে তাকাইলেন।

মাও যখন নিজ বাড়িতে সোজা হইয়া দাড়াইতেন , তাহার মাথাতে নরম নরম কি যেন অনুভব করিতেন........

এটুকু বলিতেই শি ক্ষেপিয়া গেলেন। মাও এতো বড় ছিলেন , তাহার মাথার উপর নরম নরম কি থাকিবে ? আর থাকিলেই বা কি ?

উহা ছিল স্তালিনের বিচি !!!! পুতিন নাটকীয় ভাবে বলিলেন ! তাহা হইলে ভাবিয়া দেখুন কমরেড , স্তালিন কত বড় ছিলেন !!!!!!

------- ইহা শুনিয়া আনন্দের আতিশয্যে স্তালিন আর থাকিতে পারিলেন না ! অকস্মাৎ দৃশ্যমান হইয়া পুতিনকে বলিলেন, আয় ব্যাটা, আমার মাইনকা চিপায় আয় ! তুইই আমার সত্যিকারের অনুসারী !!!!!!!!!

(আকাশজোড়া বিরাট দানবের মতন স্তালিন হঠাৎ দৃশ্যমান হইয়া তাহার চাপা সত্যে প্রমাণিত করায় পুতিন ভীমড়ি খাইলেন অতঃপর স্তালিনের জাম্বো সাইজের জোড়া কাঁঠাল দেখিয়া শি , কিম জন সহকারে উপস্হিত সকলেই মূর্ছা গেলেন ! পাঁঠাদের দেশসমূহে সেন্সর থাকায় এই সংবাদ প্রকাশিত হইলনা ! বাংলাদেশে সংবাদপত্র স্বাধীন হওয়ায় শুধুমাত্র আমাদের দৈনিক "ইয়ের আলো" পত্রিকায় ইহা প্রকাশিত হইল ! অবশ্য ভারতের বাংলাভাষী জনপ্রিয় পত্রিকা দৈনিক "সোনাগাছি বাজারে " উহা প্রকাশ হওয়ার কথা থাকিলেও উহার বিশেষ প্রতিবেদক মূর্ছা যাওয়ার পর হইতেই 'ইহা আমি কি দেখিলাম ' এই বুলি জপিতে লাগিয়াছিলেন , উহা আর থামে নাই ! শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ভারতের সব হাসপাতালে ফেল মারিয়া উনি এখন পাবনার হেমায়েতপুরে ভর্তি বলিয়া জানা যায় ! )

সূত্র : দৈনিক ইয়ের আলো !

সুন্দরবন
০.০.২০১৮

সতর্কতা : রোজা রাখিয়া এই পোস্ট পড়িয়া কাহারো রোজা ভাঙিয়া গেলে পোস্টদাতা দায়ী হইবে না ! ইহার দায় পুরোপুরি বিশেষ মতিবেদকের !!!

মন্তব্য ১২ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (১২) মন্তব্য লিখুন

১| ১১ ই জুন, ২০১৮ রাত ৩:২২

প্রজ্জলিত মেশকাত বলেছেন: সেন্স অফ হিউমার খুব ভালো। অসাধারণ রম্য রচনা। ভাল লেগেছে।

১১ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৮:২৩

টারজান০০০০৭ বলেছেন: ধন্যবাদ ! ভালো লাগিয়াছে জানিয়া প্রীত হইলাম !

২| ১১ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৯:১৯

রাজীব নুর বলেছেন: শুভ সকাল। সবার জন্য দিনটি মঙ্গলময় হোক।

১১ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৯:২১

টারজান০০০০৭ বলেছেন: আমিন !!

৩| ১১ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৯:২৪

আ.আ.আজাদ বলেছেন: চমৎকার হইছে।

১১ ই জুন, ২০১৮ সকাল ৯:৩৫

টারজান০০০০৭ বলেছেন: ধন্যবাদ ! এক বরাহশাবক আমাদের নবী সা. রে নিয়া অবমাননাকর পোস্ট দিয়াছে ! মডু আবার তাহারে প্রথম পাতায় এক্সেস দিয়াছে ! সকলের কাছে রিপোর্ট করার অনুরোধ রইল !!

৪| ১১ ই জুন, ২০১৮ সকাল ১০:৪৩

নাজিম সৌরভ বলেছেন: কমরেড টারজানের লিখিত বিশেষ মতিবেদন পড়িয়া টিকিতে না পারিয়া নাজিম লগ ইন করিয়া একখান মন্তব্য রাখিতে বাধ্য হইল ।
জয় বোটকা বিচিগণ,
জয় মতিবেদক,
জয় ইয়ের আলো,
:D

১১ ই জুন, ২০১৮ সকাল ১০:৪৭

টারজান০০০০৭ বলেছেন: আমি একেতো লর্ড টারজান , তাহার উপর ০০০০৭ ! আমারে কমরেড বলিলে কিন্তুক ইয়া ঢিয়া !!!!!!!!!!!! ;)

৫| ১১ ই জুন, ২০১৮ সকাল ১০:৫০

নাজিম সৌরভ বলেছেন: ওরে খাইছে! তাইলে কি বলিয়া আপনারে স্মরণ করব জনাব ?

১১ ই জুন, ২০১৮ সকাল ১০:৫৯

টারজান০০০০৭ বলেছেন: আমি বনের রাজা টারজান ও ও ও ও ও ও ও ও ও ও ও ও ও ও ও ও ও ও :D

৬| ১১ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ১২:৫৮

সাহসী সন্তান বলেছেন: অচল্লিল পুস্ট। মতিবেদকের ভ্যান ছাই... =p~

তবে আপনারে ধইন্যা বিষয়টা সামনে নিয়ে আসার জন্য। তাছাড়া আপনি পাঁঠা, বিচি এই সব শব্দগুলাকে ব্লগে প্রায় শিল্পের পর্যায়ে নিয়া গেছেন! গুরুদেব লোক ছাড়া এইগুলা সহজে কেউ পারে না। গোনাহ্ কাটা দোয়া জানেন নিশ্চই? ;)

বিনোদন ভাল হইছে! শুভ কামনা জানবেন!

১১ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:৪৮

টারজান০০০০৭ বলেছেন: অচল্লিল পুস্ট।

রোজা ঠিক আছে তো ?

মতিবেদকের ভ্যান ছাই... =p~

আমিও চাই !! মতিবেদক মিথ্যা ছঙবাদ ছাপাইয়া পাঁঠাদের বিরাট অবমাননা করিয়াছে !! পাঁঠাকুলের অনশন আন্ডুলনে নিঃশর্ত সমর্থন দিতেছি !!! পাঁঠাদের নিয়ে চুদুর বুদুর চইলতো ন !!

তবে আপনারে ধইন্যা বিষয়টা সামনে নিয়ে আসার জন্য। তাছাড়া আপনি পাঁঠা, বিচি এই সব শব্দগুলাকে ব্লগে প্রায় শিল্পের পর্যায়ে নিয়ে গেছেন! গুরুদেব লোক ছাড়া এইগুলা সহজে কেউ পারে না।

ভাবছি পাঁঠাদের নিয়া নতুন সাহিত্য বিভাগ খুলিব ! উহার নাম হইবে পাঁঠাসাহিত্য !! উহাতে পাঁঠাদের নিয়া সাহিত্য রচনা হইবে !! উহাদের জন্ম , বাড়িয়া ওঠা , বিচি গজানো , বিচি বড় হওয়ার কষ্টকর অনুভূতি , বিচি প্রদর্শনের সহজ উপায় , গ্যালারি , অন্তর্জালের ঠিকানা , অসহ্য হইয়া গেলে বিচি হইতে ভারমুক্ত হওয়ার যুগান্তকারী উপায় ইত্যাদি থাকিবে !!!


গোনাহ্ কাটা দোয়া জানেন নিশ্চই? ;)

জানিতো ! তবে পাঁঠাদের বিচি ফেলাইলে গোনাহ হয় কিনা জানিনা !!

বিনোদন ভাল হইছে! শুভ কামনা জানবেন!

ধইন্যবাদ !! আবার আসিবেন !

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.