নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

টারজান০০০০৭

টারজান০০০০৭ › বিস্তারিত পোস্টঃ

বুদ্ধিজীবী মননের জটিলতা বনাম গাধার জল ঘোলা করিয়া খাওয়া !!!

৩০ শে নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১১:৩৮



১। গাধা রে কেন গাধা বলা হয় ইহা লইয়া আমার কৌতূহল আছে। বস্তুতঃ গাধার চেয়েও গাধা অনেক প্রাণী আছে এমনকি মানুষও আছে বলিয়া জানা যায় ! গাধা যদি এতই গাধা হইতো তাহা হইলে মেরিকার মতন দেশের ডেমোক্রেটিক দলের নির্বাচনী প্রতীক হইলো কেমনে ? নাকি তাহারাও অনেক বড় গাধা ?

এহহে ! গাধার কথা মনে হইলে আবার হীরক রাজার দেশের কথা মনে পরে ! গুপির সংগীত সাধনায় আপ্লুত হইয়া সেই গেরামের পাঁঠা বুদ্ধুজীবী তাহাকে পাম দিয়া বলিল , তাহার প্রতিভা গ্রামের কেহ মূল্যায়ন করিতে পারিতেছে না ! তাই রাজার বাড়ির সামনে ভোরবেলায় সংগীত চর্চা করিলে রাজামহাশয় তাহাকে মূল্যায়ন করিবেন , পুরস্কৃত করিবেন (গুপী শালা এমনই গাধা আছিল! আজব ! পাঁঠাদের কথা কেহ বিশ্বাস করে নাকি !! নাকি আমরা দর্শকরাই গাধা !! নাকি ছিঃ নেমা বলিয়াই !!!) গাধা গুপী পাঁঠাদের পামপট্টি বিশ্বাস করিয়া রাজপ্রাসাদের সামনে সূর্য ওঠার আগেই গলা সাধা শুরু করিল !! এহেন মধুর (!)সংগীত চর্চায় রাজামশায়ের ঘুম ভাঙিয়া গেল ! তিনি পেয়াদা পাঠাইয়া গুপীরে সসম্মানে (!) রাজদরবারে ডাকিলেন !যথারীতি গুপী তাহার সাধের তানপুরা লইয়া হাজির ! এইবার বুঝি রাজামশাই তাহারে সভাগায়ক বানাইবেন !!

রাজামশাই তানপুরা হাতে লইয়া দেখিলেন। অতঃপর জিজ্ঞাসা করিলেন , তৃতীয় সুর কি ?
গুপী উত্তর দিলো 'গা ' ! আচ্ছা ! রাজামশাই আবার জিজ্ঞাসা করিলেন, ষষ্ঠ সুর কি ? গুপী বলিল 'ধা' ! রাজামশাই তানপুরা আছাড় দিয়া হা হা করিয়া ভিলেনি হাসি দিয়া কহিলেন, এরে গাধার পিঠে চড়াইয়া রাজ্য হইতে বাহির করিয়া দাও !!!

এক গাধারে আরেক গাধার পিঠে চাপাইয়া বাহির করিয়া দেওয়া হইলো !!! পাঁঠারা হাসিতে লাগিল ! খালি গুপির বাপের চোখে পানি !!



গাধার গাধামীর কোন শেষ নাই ! তাই বলিয়া গাধারা কি কখনো বুদ্ধুজীবীদের মতন পাঁঠা হইতে চাহিবে না ? ইহা মানিয়া লওয়া যাইতে পারে নাকি মানিয়া লওয়া উচিত, আপনারাই বলুন ?

তো , এক গাধার শখ হইলো পাঁঠাদের মতন বুদ্ধুজীবী হইবে !! দিনের পর দিন গাধামী করিয়া বিরক্ত হইয়া গিয়াছে ! গাধা অবশ্য যার তার গাধা নহে ! ইহা হোজ্জা নাসিরুদ্দিনের গাধা ! হোজ্জা তো আর বুদ্ধুজীবী নহে, আসল পুরুষের মতন আসল বুদ্ধিজীবী !! যাহা হউক , গাধা কিনা, তাই হোজ্জারে পাঁঠা বুদ্ধুজীবী মনে করিয়া গাধা নিজেও পাঁঠা হইতে চাহিল (আমাদের পাঁঠা বুদ্ধুজীবীদের ব্রেইনচাইল্ডগুলো যেমন হইতে চাহে !!) হোজ্জা তখন গাধার পিঠে করিয়া গিন্নির জন্য লবন বহন করিতেছিলেন ! নদী পার হইতে গিয়া গাধার বুদ্ধি চাগাম দিয়া উঠিল ! গাধা মাঝ নদীতে গিয়া একখানা ডুব দিলো ! লবন গলিয়া পানি !! পিঠে হোজ্জা ছাড়া আর কোন বোঝা নাই ! কি বুদ্ধি !!

হোজ্জা আবার ফিরিয়া লবন লইলেন !! গাধা পাঁঠাদের মতন আবারো একই আকাম করিল ! ডুব দিয়া লবণের ভার কমাইল ! হোজ্জা দেখিলেন মহা মুশকিল !! মাগার হোজ্জা হইলেন আসল পুরুষ ! বুদ্ধুজীবী নহেন, বুদ্ধিজীবী ! হোজ্জা ফিরিয়া তুলা লইলেন ! আকারে বিরাট হইলেও ওজনে হালকা ! গাধার তো ইতোমধ্যে মাছি মারা কেরানির মতন মাছি নকল করার অভ্যাস হইয়া গিয়াছে ! মাগার গাধাতো আর বাগধারা জানে না (proverb জানিতে পারে , বুদ্ধুজীবী কিনা !) :

"বারেবারে ঘুঘু তুমি খেয়ে যাও ধান ,
এইবার ঘুঘু তোমার বধিব পরান !!"

যথারীতি গাধা বিরাট গাধামি কইরা ডুব দিয়া চমকিয়া উঠিল ! বহুকষ্টে বাড়ি পৌঁছিয়া প্রতিজ্ঞা করিল , আর কখনো গাধামি করিবে না, সরি, পাঁঠামি করিবে না !! গাধাই থাকিয়া যাইবে !

তো , গাধা গাধাই থাকুক ইহাই ভালো, গাধা পাঁঠা হইয়া গেলে বিরাট বিফদ , জাতির জাতীয় বিফর্জয় !!



এতক্ষন ভূমিকা শুনিলেন , সংগ্রামী বন্ধুগন , এখন আমি আমার সং ক্ষিপ্ত বক্তব্য উপস্থাপন করিতেছি !! এটুকু বলিতেই অডিয়েন্স ভাগিয়া গেলেও আপনারা ভাগিয়েন না !! সাথে থাকিয়েন !

বলিতেছিলাম, গাধার কথা ! গাধা নাকি জল ঘোলা করিয়া খায় ! এই বাগধারার সপক্ষে কোন প্রমান আমি পাইলাম না ! এমন নিরীহ , পরোপকারী, মেরিকার ডেমোক্র্যাট দলীয় প্রতীকের প্রাণীর নামে ইহা চালু হইলো কেমনে বুঝিলাম না ! গুগল মামুরে জিগাইলাম ইহা সত্যি কিনা। গুগল কহিল, ব্লগার মহিউদ্দিন বলিয়াছেন, 'গাধা পানি সম্পর্কে খুব সচেতন, তাই পরিষ্কার পানি অপরিহার্য !' তাইলে এই প্রবাদের জন্ম হইলো কিভাবে ?

উপায়ন্তর না দেখিয়া এক গাধারেই জিজ্ঞাসা করিলাম , ব্যাপারখানা কি বলতো দেখি ?

গাধা কহিল, আগে গাধবৃন্দ পরিষ্কার জল ই পান করিত ! সমস্যা শুরু হইলো যখন এক গাধার পশ্চিমা মনিব তাহারে পার্টিতে লইয়া গেল ! সেখানে সকলে পানি বাদ দিয়া ককটেল বানাইয়া পানীয় খাইতেছিলো ! ইহাতে গাধারও মগজ বিগড়াইয়া গেল ! সে পশ্চিমা মনিবের গাধা ! দেশি মনিবের গাধার মতন পানি পান করিলে তাহার ইজ্জত পাংচার হইয়া যাইবে ! তাহারও ককটেল চাই !! ফেরার পথে যখন গাধার পিপাসা পাইলো , পুকুরের টলটলে পরিষ্কার পানিও তাহার রুচিলোনা ! পশ্চিমা মনিব পড়িলেন বিপদে ! গাধার ককটেল বানাইবেন কি দিয়া ? উপায় না দেখিয়া কাদায় ঘুটা দিলেন ! ইহাতে পানি ঘোলা হইয়া গেল ! গাধারে কহিলেন, এই দেখো তোমার ককটেল !! গাধা মনের সুখে ঘোলাজল ককটেল মনে করিয়া খাইলো ! সেই হতে গাধা জল ঘোলা কইরা খায় !!



২। যাহারা বুদ্ধিজীবী , ব্রেনওয়ার্ক অধিক পরিমানে করেন তাহারা নাকি অধিক প্রেশারে একসময় গাধা হইয়া যান !! আমার দুই শ্রদ্ধেয় শিক্ষকের দুই সুপুত্র (!)আমার ক্লাসমেট এবং ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিল ! তাহাদের মধ্যে একজন আবার আমার প্রতিবেশী। তাহার পিতা আমার শ্রদ্ধেয় শিক্ষক ! জিজ্ঞাসা করিলাম, স্যার কেমন আছেন। কথা প্রসঙ্গে সে বলিয়া ফেলিল, শিক্ষকেরা ব্রেন ওয়ার্ক করিতে করিতে বয়সকালে এমনিতেই মাথা খারাপ হইয়া যায়, ব্রেন আর কাজ করে না! (ব্রেন ডাল হইলেই না শিক্ষকেরা শিক্ষার্থীদের গাধা বলেন !) ! আমি বিস্মিত হইলাম , শঙ্কিতও হইলাম, মেজাজও খ্রাফ হইলো।
একেতো শিক্ষক , তারউপর তোর জন্মদাতা বাপ্ ! এমন কথা তোর মুখে কেমনে আসে !! ভাবিলাম বুঝি গুল মারিতেছে ! দেখি , না , সিরিয়াস ! বলিয়া আবার হাসিও দিলো !

বুদ্ধিজীবীদের গাধামি (আসলে অন্যমনস্কতা পড়িতে পারেন !) লইয়া সত্যি -মিথ্যা অনেক কৌতুক আছে ! ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক নামকরা শিক্ষক নাকি একবার পাজামা মনে করিয়া স্ত্রীর পেটিকোট পড়িয়া আসিয়াছিলেন !!!

এইরে ! শিক্ষকের অন্যমনস্কতা লইয়া একখানা কৌতুক মনে পড়িল !

জীববিজ্ঞান প্রাক্টিক্যাল ক্লাসে শিক্ষক ছাত্রদের বলিলেন , এইযে দেখিতেছ, আমার হাতে এইটা একখানা ব্যাঙ, এখন আমি ইহা কাটিয়া দেখাইবো !

ছাত্ররা কহিল, স্যার আপনার হাতেতো ব্যাঙ নহে। আলুর চপ মনে হইতেছে !

ইয়া মাবুদ , আমি তাইলে কি দিয়া নাস্তা করিলাম, শিক্ষক হাহাকার করিয়া উঠিলেন !!!

সক্রেটিসের কথা না বলিলে বুদ্ধিজীবীদের অন্যমনস্কতা অসুম্পূর্ণ থাকিবে !!

সক্রেটিসের বউ সকালবেলায় তাহাকে তৈল আনিতে বলিলেন ! সক্রেটিস শিশি লইয়া বাহির হইলেন ! পথে প্রিয় ছাত্রদের পাইয়া সব ভুলিয়া গেলেন ! দর্শন লইয়া আলোচনা শুরু করিলেন ! বহুক্ষণ পরে মনে হইলো , হায় হায় ! বউ না তৈল কিনিতে বলিয়াছিলেন !!

আকাশে তাকাইয়া দেখিলেন, নাহ, বেলা বেশি হয় নাই ! তাড়াতাড়ি তৈল লইয়া বাড়ি ফিরিলেন !! কিন্তু দজ্জাল বউ অগ্নিমূর্তি !! সক্রেটিস বুঝিতে পারিতেছেন না, কি ত্রুটি হইলো ! তৈল আনিতে বলিয়াছে তৈল আনিয়াছি ! বেলাও তো বেশি হয় নাই !! একথা গিন্নিকে বলিতেই ঝংকার শুনিতে হইলো , মিনসে !! তৈল আনিতে গিয়াছো কাল সকালে ,লইয়া আসিয়াছ আজ সকালে !!! এহেন ভুলোমনা , অন্যমনস্ক হইলে গিন্নি তেলে বেগুন হইবে নাতো জলে বেগুন হইবে নাকি ?

আর্কিমিডিসের ইউরেকা আরও সরেস ! আবিষ্কারের আনন্দে আর্কিমিডিস কাপড় ছাড়াই রাস্তায় নামিয়া আসিয়াছিলেন ! নিচে যে 'ফুলোকি দোকান' খোলা তাহা খেয়াল ছিল না, এতই অন্যমনস্ক ছিলেন ! আবার ভাইবেন না তিনি সানি লিওনির মতন দরিদ্র বিধায় কাপড় ছিলো না ! তিনি এতো দরিদ্র ছিলেন না একথা হলপ করিয়া বলিতে পারি !

৩। বুদ্ধিজীবীদের অন্যমনস্কতা খারাপ নহে। বরং ইহা তাহাদের চিন্তার গভীরতাকে প্রকাশ করে ! কিন্তু চিন্তা বেশি গভীর হইয়া যদি মননে জটিলতা তৈরী হয় তখনই পরিস্থিতি জটিল হইয়া পরে।

বুদ্ধিজীবী মননের জটিলতা লইয়াও অনেক জটিলতা আছে ! ইহারা সহজ জিনিসকে সহজে গ্রহণ করিতে পারেনা ! সহজ জিনিসের মধ্যেও জটিলতা না থাকিলে ইহাদের কাছে গ্রহণযোগ্য হয় না ! আইনস্টাইনের একটা কৌতুক প্রচলিত আছে !!

আইনস্টাইনের বউ একবার খুব সাজুগুজু করিয়া জিজ্ঞাসা করিলেন , বলতো আমাকে কেমন লাগিতেছে ?

আইনস্টাইন বলিলেন , tanC/sinC

বউ বলিলেন , মানে ?

আইনস্টাইন বলিলেন :
tanC/sinC
= (sinC/cosC )/sin C
= 1/cosC
= secC

(অংক সঠিক হইয়াছে কিনা জানা নাই ! শৈশবের অংক সব ভুলিয়া গিয়াছি , এমনকি লসাগু , কশাগু কিছুই মনে নাই ! ব্লগে কোন অঙ্কবিদ থাকিলে আওয়াজ দিয়েন !!)

আইনস্টাইন ইহা নিতান্তই মজা করিয়া বলিয়াছিলেন সন্দেহ নাই ! তবে তাহার চিন্তার গভীরতা ইহাতে চাপা থাকে না !!

কুটিকালে নিউটনরে লইয়াও একখানা কৌতুক শুনিয়াছিলাম ! তাহাকে নাকি কে একবার জিজ্ঞাসা করিয়াছিল তিন আর দুইয়ে কত হয় ! তিনি বিস্তর অংক কষিয়া জবাব দিয়াছিলেন পাঁচ এর একটু কম ! বলা বাহুল্য ইহা নিতান্তই কৌতুক ! মননের জটিলতার কারণেইতো ম্যাংগোপিপল যেখানে আপেল পড়িলে খাইতে শুরু করিবে , নিউটন উহা হইতে মাধ্যাকর্ষণের সূত্র বাহির করিতে বসিলেন !

যাহা হউক মনন জটিল হইলে বা ক্রিটিকাল থিংকার হইলে ভালো কিছু হইতে পারে, কিন্তু অতিমাত্রায় জটিল হইলে স্বাভাবিক চিন্তাশক্তি রোহিত হইয়া যায় ! নিউটন অল্পকিছুকাল বিজ্ঞানসাধনা করিয়া বাকি জীবন উদ্ভট অতীন্দ্রিয়বাদ, আলকেমি লইয়া জীবন পার করিয়াছেন !!

৪। মননের জটিলতা যখন সীমা অতিক্রম করিয়া ফেলে মানুষ তখন বুদ্ধুজীবী হইয়া যায় ! সহজ জিনিস আর সহজে গ্রহণ করিতে পারেনা। গাধার মতন জল ঘোলা না করিয়া খাইতে পারে না।

যে জাতির পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা ঈমানের অঙ্গ , মননের জটিলতা সীমা অতিক্রম করিলেই তাহাদের কে হাইজিন শিখিতে হয় এমন জাতি হইতে যাহারা দীর্ঘকাল গোসল কি জিনিস তাহাই জানিতোনা !

মননের জটিলতা সীমা অতিক্রম করিলেই কেবল খাওয়ার আগের সহজ সুন্নত হাত ধোয়া গ্রহণযোগ্য না হইয়া পশ্চিমা 'হাত ধোয়া ' কর্মসূচি গ্রহণযোগ্য হইয়া থাকে !!

একই কারণে জাকাত/ছদকা গ্রহনযোগ্য , কার্যকর হিসেবে স্বীকৃতি না পাইয়া পশ্চিমা বিশ্বের সোশ্যাল সিকিউরিটি ,দারিদ্র বিমোচন কর্মসূচি মহান হইয়া থাকে !

পশ্চিমা বিশ্ব ককটেল না বানাইয়া দিলে টলটলে পানি আমাদের কাছে ভালো লাগে না , কাদা না মিশ্রিত করিলে উহা জাতে ওঠে না !!

৪. প্রাক ইসলামী যুগে সেই জমানার বুদ্ধিজীবী, মানবাধিকার কর্মী ,মহামতিগণ মিলিয়া 'হিলফুল ফুজুল' গঠন করিয়াছিলেন যাহাদের মধ্যে আমাদের রাসূল স. ও ছিলেন। তিনি তখনও নবি হন নাই। অথচ ইসলামের আবির্ভাবের পরে ইহাদের অধিকাংশেরই ইসলাম কবুলের সৌভাগ্য হয় নাই ! মননের জটিলতার কারণেই কিনা সহজ-সরল ইসলাম তাহাদের পছন্দ হয় নাই, কে জানে !

এতো জ্ঞানী আবুল হাকাম অহংকার ,জাত্যাভিমান আর মননের জটিলতার কারণেই কিনা হেদায়েত বঞ্চিত হইয়াছে, আবু জেহেলে পরিণত হইয়াছে জানিনা ! বদরের যুদ্ধে প্রতিপক্ষের সর্বাধিনায়ক ওৎবাকে স্বয়ং আল্লামা শিবলী নুমানী র. মহামতি বলিয়াছেন , যাহার হেদায়েত পাওয়ার সৌভাগ্য হয় নাই ! তাহার ছেলে সাহাবী হুজাইফা রা. বড় আশা করিয়াছিলেন তাহার মতন বুদ্ধিমান , মহৎপ্রাণ হেদায়েত পাইবেন , পান নাই।


৫. পক্ষান্তরে, যে আবু হুরাইরা রা. এতই সরল ছিলেন যে , প্রথমবার গমের আটা খাইয়া নিজের হাত দেখিতেছিলেন যে মোটা হইতেছেন কিনা ,কারণ শুনিয়াছিলেন গমের আটা খাইলে শরীর মোটা হয় , সেই তিনিই কিনা ইসলামের দৌলত পাইয়া আমিরুল মুমিনীন ফিল হাদিস বনিয়া যান , একটি দেশের গভর্নর বনিয়া যান।

নিতান্তই কিশোরী আয়েশা রা. ইসলামের ছোয়ায় বিরাট পান্ডিত্য লাভ করেন।বড় ফকীহ বনিয়া যান।বড় বড় সাহাবী রা. তাহার কাছ হইতে ইলমী সমাধান লইতেন।

যে ওমর রা. ভেড়া গুনিয়া আনিতে ভুল করিতেন তিনিই কিনা ইসলামের স্পর্শে অর্ধজাহানের বাদশা বনিয়া যান।

তাহাদের সরলতা , সহজ বিষয় সহজে গ্রহণের যোগ্যতা তাহাদের ইসলাম কবুলে অগ্রগামী করিয়াছে (হেদায়েত অবশ্যই আল্লাহ্পাকের হাতে )।

৬। ব্লগের বুদ্ধিজীবীদের ভিড়ে মাঝে মাঝে মনে হয় ,আমিও কি বুদ্ধিজীবী হইতেছি নাকি !! আল্লাহর পানাহ !! আমিতো বনের রাজা টারজানের মতন সহজ সরলই থাকিতে চাই , চাই মননের জটিলতা যেন সহজকে , সরলকে গ্রহণ করিতে বাধা না হয় ! পানিকে পানি হিসেবেই পান করিতে চাই ,ককটেল নহে !! সরল রেলপথ ধরিয়া গন্তব্যে পৌঁছিতে চাই , আঁকাবাঁকা নদীপথে নহে !!

মন্তব্য ৪৮ টি রেটিং +৫/-০

মন্তব্য (৪৮) মন্তব্য লিখুন

১| ৩০ শে নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১১:৫০

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: :D

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:৩৪

টারজান০০০০৭ বলেছেন: আপনিতো মশায় হাড় কিপ্টে !! এতো কষ্ট করিয়া এতো বড় পোস্ট দিলাম আর আপনি কিনা একখানা দাঁত কেলানো ইমোজি দিয়া পগার পার !!

আইটি পার্সনগুলো শব্দ ও বাক্যে কেপ্পন হয় জানিতাম ! তাই বলিয়া এমন !! শেম ! শেম ! :P

২| ৩০ শে নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১১:৫৭

রাজীব নুর বলেছেন: ভাগ্য ভালো আমি বুদ্ধিজীবি নই।

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:৪১

টারজান০০০০৭ বলেছেন: এক তালপাতার সেপাই জলহস্তী সদৃশ ব্যক্তিরে জিজ্ঞাসা করিল, মশায় আপনার নাম কি ?

জলহস্তী বলিল , চিকন মিয়া ! আপনার নাম কি ?

আমার নাম 'নাই মিয়া '! সেপাই কহিল !!

এইটা আবার কেমন নাম ? জলহস্তী শ্রাগ করিল !

সেপাই কহিল , আপনার নাম যদি চিকন মিয়া হয় , তাইলে আমি নিজেরে খুঁজিয়া পাইতেছি না ! তাই আমার নাম 'নাই মিয়া' !

আপনি যদি বুদ্ধিজীবী না হন , তাইলে........................ :D

৩| ৩০ শে নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১১:৫৮

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: গাধার গাধাগিরির সঙ্গে গুপিগাইন, সক্রেটিস ,আর্কিমিডিস ,জীবন বিজ্ঞানের শিক্ষক সবারই ঘটনাগুলো পড়ে অত্যন্ত আনন্দ পেলাম। রসবোধ যুক্ত পোস্টটিতে, প্লাস++

শুভকামনা জানবেন।

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:৪৪

টারজান০০০০৭ বলেছেন: আপনাকে আনন্দ দিতে পারিয়া আমিও আনন্দিত ! ভালো থাকিবেন !

৪| ০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১২:০১

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনি বলেছেন, "যেই ওমর (রা: ) ভেঁড়া গুণিয়া আনিতে ভুল করিতেন, জানতেন না, তিনিই কিনা ইসলামের স্পর্শে আধা জাহানের বাদশ বনিয়া যান"

-ইসলাম কি ধর্ম শিখায়েছেন, নাকি রাজত্ন্ত্রের উপর বেশী নজর দিয়েছিলেন?
-আরেকটা ব্যাপর, আধা জাহানের বাদশ হওয়ার উনাকে প্রাণও দিতে হয়েছে; আপনার মতে বাদশা হয়ে, শেষে পরাণ হারানোটা কি রকম ব্যাপার?

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৫৩

টারজান০০০০৭ বলেছেন: আপনি বলেছেন, "যেই ওমর (রা: ) ভেঁড়া গুণিয়া আনিতে ভুল করিতেন, জানতেন না, তিনিই কিনা ইসলামের স্পর্শে আধা জাহানের বাদশ বনিয়া যান"

ভুল কোট করিয়াছেন , আবার পড়ুন। ওমর রা. ইসলামের স্পর্শে এমনই আলোকিত হন যে তাহার বুদ্ধিমত্তা, সুবিচার , সুশাসন, দূরদর্শিতা প্রবাদতুল্য।

-ইসলাম কি ধর্ম শিখায়েছেন, নাকি রাজত্ন্ত্রের উপর বেশী নজর দিয়েছিলেন?

ইসলামের আদর্শ শাসন ব্যবস্থা হইলো খেলাফতে রাশেদা। খেলাফত ও রাজতন্ত্র যোজন যোজন তফাৎ। ইসলাম কি শিখায়েছে ইহাতো একবাক্যে বলা সম্ভব নহে। শুধু এটুকু বলা যায় , মানুষ হইয়া মানুষের বা অন্যকিছুর বন্দেগী হইতে একমাত্র আল্লাহ পাকের বন্দেগীর শিক্ষাই ইসলাম দিয়া থাকে।

-আরেকটা ব্যাপর, আধা জাহানের বাদশ হওয়ার উনাকে প্রাণও দিতে হয়েছে; আপনার মতে বাদশা হয়ে, শেষে পরাণ হারানোটা কি রকম ব্যাপার?

বাদশা হইলে কি পরান হারাইবে না ? সকলেরই মৃত্যু হইবে। তাহারও হইয়াছে।

৫| ০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১২:১৪

রাফা বলেছেন: বিভিন্ন উপমার মাধ্যমে ভালো উপদেশমূলক পোষ্ট।এখন আর মনে হয়না অধিক সংখ্যক ব্লগার সম্পুর্ণ পোষ্ট পড়িয়া মন্তব্য করেন।সরল পথই উত্তম পথ।কিন্তু বর্তমান যুগে সরলতাকে নির্বুদ্ধিতা মনে করে জ্ঞানপাপীরা।

তবুও আমি সরল পথেরই অনুসারি,ইহাতে যে যাই মনে করুক বা বলুক।

ধন্যবাদ,টারজান০০০০৭।

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:৪৮

টারজান০০০০৭ বলেছেন: ধন্যবাদ।বুদ্ধি বেচিয়া খাইতে হয় বিধায় ভয় জাগে , আউট অফ বক্স চিন্তা করিতে করিতে বক্সের ভিতরের সহজ জিনিসটা যেন নজর হইতে বাদ না পরে ! সহজ জিনিস সহজে গ্রহণের যোগ্যতা যেন হারিয়ে না যায় ! :(

৬| ০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১:৫০

নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন বলেছেন: দারুণ সব উপমা, ভালোই লাগলো, যদিও লম্বা পোষ্টের কারণে মাঝামাঝি এসে ছেড়ে ছেড়ে পড়েছি।

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:৫১

টারজান০০০০৭ বলেছেন: বকতে বকতে বক্তা হয় , আমিও বুঝি লিখতে লিখতে লিক্তা হইয়া যাইতেছি ! লিখতে বসিলে বকরীর লাদির মতন লিখা বাহির হইতেই থাকে ! মনে থাকে না , পাঠকের ধৈর্যচ্যুতি ঘটে !! :(

ধন্যবাদ।

৭| ০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৩:৩৮

মা.হাসান বলেছেন: দীর্ঘকাল আপনার পোস্ট না পাইয়া অনুমান করিতেছিলাম জঙ্গলী পাঁঠা খাশিকরণে ব্যস্ত আছেন। বুদ্ধুজীবী খাশিকরণে ব্যাপৃত হইয়েন না, উহাদের গাত্রে গন্ধভাদুলীর ন্যায় সুগন্ধ বিদ্যমান, ফরাসী গন্ধদ্রব্য প্রস্তুতকারীগন নিয়মিত তাহাদের নিকট হইতে কাঁচামাল সংগ্রহ করেন, সামুর কতিপয় ব্লগারও মাঝেমাঝে আমাদের মাঝে ঐ সৌরভ বিলাইয়া থাকেন। তাহাদের অমৃত বাণীতে বড়ই বিনোদন পাই । জাতিকে এই বিনোদন হইতে বঞ্চিত করিবেন না।
ভালো থাকিবেন। মা জননী জেনের জন্য ভক্তিপূর্ণ প্রনাম।

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:৫৬

টারজান০০০০৭ বলেছেন: মডু আমার ছুরি -কাঁচি জব্দ করিয়াছে !! এখন আর ইয়ে নামাইতে পারিতেছি না !! :(

এই পোস্ট লিখিতে গিয়া জেনের ঝাড়ি খাইতে হইয়াছে !! কি যে দিনকাল পড়িল ! বনের রাজা টারজানের উপর জেন্ এখন ছড়ি ঘুড়ায় !! শেম ! শেম ! :((

৮| ০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৭:৩৪

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন:
আপনার পোস্টে গাধারাও নিশ্চিন্তে লাঞ্চিত হইবে! কিন্তু বুদ্ধিজীবীর এক বিরাট মহল ইহাকে ব্যবহার করিবেন বিপক্ষ দলের ক্ষেত্রে!

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৫:০৩

টারজান০০০০৭ বলেছেন: উহু ! আমি প্রমান করিয়াছি গাধাদের চাইতেও বড় গাধা আছে ! সুতরাং গাধারা সম্মানিত বোধ করিয়াছে !! অন্ততঃ শ্রেষ্ঠ গাধা হইতে তাহাদের নাম কাটা গিয়াছে ইহা তাহাদের জন্য বিরাট স্বস্তির বিষয় !

আত্মঘাতী গোল কোথায় দিলাম বলুনতো ?

৯| ০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:২২

জুন বলেছেন: বিখ্যাত সাহিত্যিক প্রমথ নাথ বিশীর ফ্লেভারে লেখা ফিচারটি পড়িয়া প্রান খুলিয়া হাসিলাম টারজান।
বিজ্ঞরা যথার্থই বলিয়া থাকে গাধারা জল ঘোলা করিয়া খায় =p~

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৫:০৮

টারজান০০০০৭ বলেছেন: ওরে বাবারে !! কোথায় আইয়ুব খান , আর কোথায় খিলি পান !!

দুঃখের বিষয় হইলো , গাধা কেন জল ঘোলা করিয়া খায় ইহার উত্তর কোন মনুষ্য গাধা দিতে পারিল না ! একেবারে নিজ্যস গাধাকেই ইহার উত্তর দিতে হইলো !

ধন্যবাদ জুন ! (এখন অবশ্য ডিসেম্বর !!) :D

১০| ০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:৪৩

পদ্ম পুকুর বলেছেন: বুদ্ধিস্বল্পতা হেতু পুরো পোস্ট গলধকরণ করিয়াও পুরোপুরি বুঝিতে সক্ষম হইলাম না। গাধাই রহিয়া গেলাম.. B:-)

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৫:৫১

টারজান০০০০৭ বলেছেন: সর্বনাশ !! পাঠক যদি না বুঝিতে পারে তাহা হইলে পাঠক না লেখক কে গাধা ইহা নির্ণয় করা মুশকিল !! :(

অবশ্য গাধার মূল্য ডেমোক্র্যাটরা যেভাবে আসমানে তুলিয়াছে তাহাতে মনুষ্য প্রজাতিই এখন গাধা হইতে চাইতেছে ! প্রতিযোগিতায় পারিবেন না ! সুতরাং এখনই ক্ষ্যান্ত দেন ! ;)

কাহু বলেন আমারও মগজ কম !! ইহাতেই খুশি , কারণ কম হইলেও খুলির মধ্যেই আছে ,বাহির হইয়া অন্য দেশে যায় নাই !! :P

গাধা কেন জল ঘোলা করিয়া খায় আর ৪ নম্বর পয়েন্ট ভালো করিয়া পড়েন ! আশা করি পরিষ্কার হইবে।

১১| ০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:২৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: টারজান০০০০৭,




গাধাদের নিয়া "গাধাপিডিয়া" পাঠ করিয়া একুনে ১টা বাদে হরেক কিসিমের ০০০০৭খানা গাধা দর্শন হইলো। ইহাতে
টারজান মারজানকেও গাধা বলিয়া ভ্রম হইতেছে কারন যে বুদ্ধি লইয়া বুদ্ধিজীবী মননের জটিলতার প্যাঁচ খুলিয়া তিনি গাধাকাহিনী বয়ান করিলেন তাহাতে আমার মগজের ৫০০ গ্রাম ঘিলুও সেই প্যাঁচের দড়িতে আটকাইয়া সব কিছু ঘোলা করিয়া
অতিমাত্রায় জটিল করিয়া ফেলাইলো। তাহাতে আমার গোল্ডেন-এ প্লাস ( ঘিলু ঘোলা করা সাবজেক্ট ) পাপ্তি হইয়া বুদ্ধিজীবি হইতে গাধাত্বে উত্তরণ ঘটিলো! যেমন আমাদের বুদ্ধিজীবিদের নবুয়ৎ প্রাপ্তি ঘটিয়া থাকে তেমন করিয়াই! :P

বুঝিয়া পাইতেছিনা, আমিও কি জল বেশী ঘোলা করিয়া ফেলিলাম ?
বুঝিয়া কাজ নাই, আমাদের তামাম গাধা জনগণ ওরফে গর্ধবেরা এই অমৃতবৎ ঘোলাজলের ককটেল সুরুৎ সুরুৎ করিয়া পান করিয়া আসলি গাধার মতো দাঁত খিঁচাইয়া চীরটাকাল হাসিয়া যাইবেন। ;)

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:১৩

টারজান০০০০৭ বলেছেন: আপনার মন্তব্য পড়িয়া আমার সরল মাথাও প্যাচ লাগিয়া গড়ল হইয়া গেল !! ব্লগার গড়লরে ডাকিয়া এখন প্যাচ ছুটাইতে হইবে !! :(

গাধাতো দর্শন করিলেন, টিকেট কাটিয়াছেন কি ? বিনা টিকেটে গাধা দর্শন দণ্ডনীয় অপরাধ !!

এই জন্যইতো জাতির উন্নতি হইলো না ! :((

১২| ০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৪৮

মাহিরাহি বলেছেন: ব্লগের বুদ্ধিজীবিরা ব্লগে এত শ্রম দেয় কিসের জন্য?

জাতিকে উদ্ধারের জন্য, না কি নিজেকে উদ্ধারের জন্য?

স্বার্থপরতাটা কোথায়?

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:১৬

টারজান০০০০৭ বলেছেন: নিঃসন্দেহে নিজেকে উদ্ধারের জন্য ! কথায় আছে না , আপনি বাঁচিলে বাপের নাম !! আগে না নিজেরে উদ্ধার , তাহার পরে দেশ উদ্ধার ! :)

১৩| ০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:২৪

জেকলেট বলেছেন: অনেক দিন পর একটা সুন্দর পোষ্ট পড়লাম

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:১৯

টারজান০০০০৭ বলেছেন: বলেন কি ! আমিও তাইলে অনেকদিন পরে সুন্দর পোস্ট লিখিলাম ! ধন্যবাদ !

১৪| ০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:৫৪

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: আহারে......
আমি ত্রিকোণমিতি ভালোই বুঝি ;)

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:৫৯

টারজান০০০০৭ বলেছেন: অংক সঠিক হইয়াছে কিনা জলদি বলেন !! :D

১৫| ০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৫:০২

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: হবে না মানে.....
কোনো মাইয়ারে বইলাই দেহেন না B-))

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৫:০৯

টারজান০০০০৭ বলেছেন: আস্তে !! জেন্ শুনিলে শুধু আমার নহে ,আপনারও খবর আছে !! :(

১৬| ০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৫:১১

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: তাইলে কাইলি জেনR রে কন ;)

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:২৩

টারজান০০০০৭ বলেছেন: ওরে বাবারে ! দেশি ঠাকুর ছাড়ি , বিদেশী কুকুর ধরিতে বলিতেছেন ! এক রামে হয় না , আবার সুগ্রীবরে ডাকিতে কহিতেছেন !! টারজানরে কি রাজ্যছাড়া করিতে চান ? X((

১৭| ০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৩৪

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: =p~ =p~ =p~
বিদেশী কুকুর ;)

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৫৪

টারজান০০০০৭ বলেছেন: :-P

১৮| ০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:১৩

কি করি আজ ভেবে না পাই বলেছেন: বুঝলা দোস্ত, তুমি আমি গাধা বলিয়াই বোলগ মারি আর অনি শালা...........
অকাট্যের চানক্য মেলা হৈয়াছে, তুমি আমি কাটিয়া আঁটি বাধিয়াছি, চলো এলা কুটিল হই /:)

০৩ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৯:৫৩

টারজান০০০০৭ বলেছেন: সমস্যা কি ? অনির ভাবনার চিন্তা কি শেষ হয় নাই ?

অকাট্যের মেলায় না ঘুইরা আটি বাঁধাই উত্তম মনে হইতেছে ! আফসুস কইরো না দুস্ত !!

১৯| ০১ লা ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:১৬

কি করি আজ ভেবে না পাই বলেছেন: একমাত্র গাধারাই সানি লিওনির দারিদ্রতা লৈয়া উপহাস করে X((

০৩ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:১৬

টারজান০০০০৭ বলেছেন: দুঃখিত ! এতো বড় ভুল কেমনে হইলো বুঝতাছি না !! :(

সানি লিওনির জন্যই বুঝি নজরুল লিখিয়াছিলেন , "হে দারিদ্র্য , তুমি মোরে করিয়াছ মহান ..........."
তাই সানি লিওনি দরিদ্র হইলেও মহান হইবে !! ;)

এতবড় ভুল করার জন্য করজোড়ে ক্ষমাপ্রার্থী !! :((

২০| ০৩ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:২৪

অনিকেত বৈরাগী তূর্য্য বলেছেন: শেষদিকটা একটু বেশিই ধর্মাশ্রয়ী হয়ে গেল। যাহোক, গাধা বৃত্তান্ত ভালোই লিখেছেন।

০৩ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:৩৭

টারজান০০০০৭ বলেছেন: শেষ দিকেতো ধর্মেরই আশ্রয় লইতে হয়। ইহা ছাড়া মানুষের আর কোন আশ্রয় আছে ?

দেখেন না, নামকরা কমরেডরাও শেষ দিকে আসিয়া আল্লাহর ঘর জিয়ারত করিয়া আসিলেন ! এখলাসের সহিত হইলে আল্লাহ কবুলও করিবেন।

সারাজীবন মানবতা , অসাম্প্রদায়িকতার গান গাহিয়া শেষদিকে আসিয়াই ভুপেন হাজারিকা বিজেপির টিকেটে দাঁড়াইলেন।

তাই শেষদিকে আমি আর কোথায় যাইবো ? আমাকে ও তো তাহার কাছেই ফিরিয়া যাইতে হইবে !

ধন্যবাদ।

২১| ১১ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:০২

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: একটা কোবতে লিকেচি B-)
দেকলে ভালা হয় B-))

১১ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:০৭

টারজান০০০০৭ বলেছেন: কোবতে আমি ভালো বুঝি নারে ভাউ ! এ বিষয়ে আমি প্লেটোর সমর্থক !
এক জীবনানন্দ ছাড়া কাহারো কবিতা মনে ধরে নাই !

চালায়া যান।

২২| ১১ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:১০

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: একটু পড়লে কি হয় B:-)

নাকি কাইলি জেনR থুক্কু জেন আফা কোবতে পড়া পছন্দ করে না :||

১১ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:৩০

টারজান০০০০৭ বলেছেন: পড়েছি তো ! আপনার গদ্য লেখার হাত ভালো।

জেন্ আমার কম্পুতে বসাই পছন্দ করে না , সতীন মনে করে !! :(

২৩| ১১ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:০০

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: জেন আফা ঠিকই করে.....
কম্পুতে আপনি আবার কিনা কি দেখেন B-))

১২ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:২০

টারজান০০০০৭ বলেছেন: নারে ভাউ , সুময় কই ! জঙ্গলের চিপা চাপায় কাম (লেখালেখি, আকাম নহে ) সাইরা ফেলি !

২৪| ১২ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:১০

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: কোন কাম বুঝলাম ;)

১২ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:১৩

টারজান০০০০৭ বলেছেন: ইহা কেলির কাম নহে, কাজের কাম !! :P

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.