নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

টারজান০০০০৭

টারজান০০০০৭ › বিস্তারিত পোস্টঃ

এই গরমে দাদাদের লইয়া কিছু চরম কৌতুক !! (Old Wine in a new bottle !!) ১৮+

১১ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:১১

বাংলাদেশ লইয়া চীন ও ভারতের রশি টানাটানি চলিতেছে। পাল্লা ভারতের দিকে বেশি হেলিয়া থাকিলেও ভারতের উদ্বেগ যায় না ! এতো প্রতিকূলতা সত্বেও যে জাতি এমন বিস্ময়কর অর্থনৈতিক উন্নতি , মানব সম্পদ উন্নয়ন করিতে পারে তাহারা যেকোন সময় মাইনকা চিপা হইতে বাহির হইতে চাহিবে ইহাই স্বাভাবিক ! তারউফরে চীনের ক্রমাগত অর্থনৈতিক বিনিয়োগে বাংলাদেশ চীনের দিকে হেলিয়া যায় কিনা উহা লইয়া বিরাট আশংকা আছে। তাই আগে হইতে সতর্ক করিতে উচ্চ পর্যায়ের এক প্রতিনিধিদল বাংলাদেশ সফরে আসিল ! ঠিক হইলো স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ আর মানব সম্পদ মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি আসিবেন আর তাহাদের সাথে আসিবেন বিরাট কোহলি ! যথারীতি বাংলাদেশ সুপ্রিমো সহ হাই প্রোফাইল নেতৃবৃন্দের সাথে সফল বৈঠকের পরে তাহারা বাহির হইলেন বাংলাদেশের অবস্থা সচক্ষে অবলোকন করার জন্য ! ঠিক হইলো অমিত শাহ আর স্মৃতি ইরানি যাইবেন তৈরী পোশাকের দোকানে। সেখানে গিয়া ক্রেতাদের আচরণ, পোশাকের মান আর দাম যাচাই করিবেন ! তৈরী পোশাকে বাংলাদেশের এতো উন্নতির কারণ কি তাহা বাহির করিতে চেষ্টা করিবেন !

আর কোহলি যাইবে বাংলাদেশ কাউন্টার ইন্টেলিজেন্সের প্রশিক্ষণ ক্যাম্পে ! ইন্টেলিজেন্স কমিউনিটিতে বিখ্যাত খেলোয়াড়, সাংস্কৃতিক কর্মীদের রিক্রুট করার রেওয়াজ আছে ! কোহলিকেও কাজে লাগানোর জন্য 'র' হইতে তাহাকে প্রশিক্ষণের জন্য পাঠানো হইয়াছে ! মুখে স্বীকার না করিলেও ট্যাকটিক্যাল প্রশিক্ষণে যে বাঙালি সেরা তাহা 'র' এর কর্তাব্যক্তিরা বিলক্ষণ জানেন ! তাই ঠিক হইয়াছে কোহলি কিংবদন্তি মাসুদ রানার অধীনে প্রশিক্ষণ লইবে ! প্রশিক্ষণ শেষে তাহাকে আলাদা রিপোর্টও করিতে হইবে ! নির্দিষ্ট দিনে সকলেই নিজ নিজ গন্তব্যে হাজির হইলো !

ক । অমিত শাহ ঘুরিতে ঘুরিতে যাইয়া হাজির হইলেন ব্লগার "বিবাহিত লালসালু"র দোকান ‘সাজগোজে’ ! নিজের পরিচয় গোপন করিয়া লালসালুর সাথে দরদাম করিতে লাগিলেন !

অমিত শাহ : দাদা, একখানা আন্ডারপ্যান্ট দেখান তো ?
লালসালু : এটা নিয়ে যান দাদা, আমাগো টারজান এই ব্র্যান্ড পরেন। পুরাই এয়ার কন্ডিশনার ! দাম মাত্র ১০০ টাকা ।
অমিত শাহ : আরেকটু কমের মধ্যে দেখান না, দাদা ।
লালসালু : তবে এটা দেখুন দাদা, বেসম্ভবরে সম্ভব করা সুপারম্যান পড়েন। খুব আরাম, মাত্র ৭০ টাকা। আপনি ধুতির উফরেও পড়িতে পারিবেন !
অমিত শাহ : দাদা আরেকটু কম, বোঝেন ই তো।
লালসালু : তবে এটা নিন দাদা, স্পাইডার ম্যান পড়েন। মাত্র ৫০ টাকা। মাথায়ও পড়িতে পারিবেন !
অমিত শাহ : আরেকটু কম দাদা ।। ... ...আরেকটু...............
লালসালু : তবে এক কাজ করুন দাদা, ধুতিটা খুলে রঙ করিয়ে নিন ।

অমিত শাহ রিপোর্ট লিখিলেন :


১. অর্থনৈতিক সাশ্রয়ের জন্য ভারতীয়রা আন্ডারপ্যান্ট না পড়িয়া রং করিলে বিপুল পরিমান অর্থ সাশ্রয় হইবে ! ইহা অর্থনৈতিক সংকট হইতে উত্তরণে বিরাট ভূমিকা রাখিবে ! সাশ্রয়ী অর্থ দিয়া মঙ্গল গ্রহে পায়খানা বানানো যাইতে পারে !!

২. রং অবশ্য গেরুয়া রঙের হইতে হইবে ! দেশপ্রেমের প্রতীক হিসাবে ইহা রাজনীতিতে ব্যবহার করা যাইতে পারে ! বিজেপি সমর্থকদের জন্য ইহা আবশ্যক করিতে হইবে ! যাহারা রঙ না করিয়া আন্ডু পড়িবে তাহাদের দেশদ্রোহী হিসেবে চিহ্নিত করিতে হইবে ! পরবর্তী ভোটের প্রচারণার মূল ভিত্তি ইহাই হইতে পারে !

বি. দ্র. টারজানের নেঙটিকে আন্ডু বলা যাইবে কিনা ইহাতে অবশ্য সরকারি ও বিরোধী দলীয় রাজনীতিজীবীবৃন্দ, বুদ্ধুজীবিবৃন্দ, ব্লগারবৃন্দ একমত হইতে পারেন নাই !


খ। অতঃপর স্মৃতি ইরানি যাইয়া হাজির হইলেন সাজগোজে ! নিজের পরিচয় গোপন করিয়া লালসালুর সাথে দরদাম করিতে লাগিলেন ! লালসালু কিন্তুক স্মৃতিরে চিনিয়া ফেলিল ! না বুঝিবার ভান করিয়া ধড়িবাজ লালসালুও দরদাম চালাইতে লাগিলেন !!!


স্মৃতি : দাদা , সস্তার ভিতরে ভালো দেখে ব্রা দেখান তো ?।

লালসালু : এইটা নেন দিদি, মাত্র ১০০ টাকা। ওয়ান্ডার ওম্যান এই ব্র্যান্ডের ব্রা পড়ে ! এইডা পইড়া কাশ্মীরে যুদ্ধেও যাইতে পারিবেন ! বুলেট ভি ঠেকাইয়া দিব !

স্মৃতি : আর একটু কমে নাই, দাদা?

লালসালু : তাইলে এইটা নেন দিদি, মাত্র ৭০ টাকা !! সানি লিওনি এই ব্র্যান্ডের ব্রা পড়ে ! এইটা পইড়া কাশ্মীরে গেলে গোলাগুলি বন্ধ হইয়া যাইব ! পাকি , ইন্ডিয়ান কেহই চোখ ফেরাইতে পারব না , যুদ্ধ তো দূরের কথা ! এমনকি অজিত দোভালও চাইয়া থাকব !!

স্মৃতি : আর একটু কম দেখান না , দাদা !

লালসালু : তাইলে এইটা নেন , মাত্র ৫০টাকা !! প্রিয়াঙ্কা চোপড়া এই ব্র্যান্ডের ব্রা পড়ে ! মা কি কছম, এইটা পইড়া গেলে কাশ্মীরি পোলাপাইন ঢিল ছোড়া বন্ধ কইরা দিবে !! বাচ্চা পোলা নিক যেমনে বশ হইছে , পোলাপাইনও বশ হইয়া যাইবে !

স্মৃতি : নাহ্ বেশী হইয়া গেল ! আরেকটু কম দেখান না দাদা !!

লালসালু : ওই মদন ! ম্যাডাম রে আইসক্রিম এর দুইটা খালি কাপ আর একটুকরা সুতা দিয়া দে !

স্মৃতি ইরানি রিপোর্ট লিখিলেন :

১. অর্থনৈতিক সাশ্রয়ের জন্য ভারতীয়রা ব্রা না পড়িয়া আইসক্রিমের কাপ পড়িলে বিপুল পরিমান অর্থ সাশ্রয় হইবে ! ইহা অর্থনৈতিক সংকট হইতে উত্তরণে বিরাট ভূমিকা রাখিবে ! সাশ্রয়ী অর্থ দিয়া "বাহুবাল-৩" বানানো যাইতে পারে !!

২. আইসক্রিমের কাপ অবশ্যই গেরুয়া রঙের হইতে হইবে ! দেশপ্রেমের প্রতীক হিসাবে ইহা রাজনীতিতে ব্যবহার করা যাইতে পারে ! বিজেপি সমর্থকদের জন্য ইহা আবশ্যক করিতে হইবে ! যাহারা কাপড়ের ব্রা পড়িবে বা অন্য রংয়ের কাপ পড়িবে তাহাদের দেশদ্রোহী হিসেবে চিহ্নিত করিতে হইবে ! পরবর্তী ভোটের প্রচারণার মূল ভিত্তি ইহাই হইতে পারে !

৩. আইসক্রিমের কাপের মাপ অবশ্যই ব্রার মাপের হইতে হইবে !


গ। অতঃপর কোহলি বিসিআই ট্রেনিং ক্যাম্পে হাজির হইলো ! ইন্সট্রাক্টর ছিলেন স্বয়ং মাসুদ রানা ! কোহলি তাহারে চিনে না বিধায় স্বভাবসুলভ ভাব লইতে লাগিল !

সৌজন্যের খাতিরে রানা কোহলির কুশল জিজ্ঞাসা করিলেন ! কেমন আছো কোহলি ?

কোহলি : (ভাব লইয়া ) আছি বেশ। দু'আঙুলে ভারত রে নাচাইতাছি।

রানা : কস কি ! ভারতরে নাচাইতাছোস !! খাড়া , তোর ইয়ে বাইর করতাছি! অতঃপর , ইন্সট্রাক্টরের স্বভাবসুল গরম মেজাজ সামলাইয়া মনে মনে এই বেয়াদবরে একখানা শিক্ষা দেওয়ার মনস্থ করিলেন ! তবে মুখে কিছু না বলিয়া কোহলিরে ট্রেনিংয়ে ডাকিলেন ! তাহার সাথে ট্রেনিং নিতেছে গিলটি মিয়া ! রানা ঠিক করিলেন দুইজনের ভিতরে প্রতিযোগিতা লাগাইবেন ! ঠোঁটের কোনে ঈষৎ হাসি লইয়া কোহলির চৌদ্দ পুরুষ সম্পর্কিত গালি দিয়া তাহাকে ময়দানে যাইতে কইলেন ! রানার কমান্ড আর গালি শুনিয়া কোহলির প্যান্ট এমনিতেই নামিয়া যাইতেছিলো ! এক্ষণে কি করিতে হইবে শুনিয়া প্যান্ট আর কোমরে উঠিতেই চাহে না!

-----------বয়েজ , ওই তাল গাছের মাথায় একখানা কাউয়ার বাসা আছে ! কাউয়ার পেটের নিচে আন্ডাও আছে ! লুঙ্গি/ধুতি পইড়া গাছে উইঠ্যা কাউয়ার পেটের নিচ হইতে আন্ডা লইয়া আসিতে হইবে ! কাউয়া উড়িলে ফেল !

কোহলি : ছোহ ! এইডা একখানা কাজ হইলো !! আনুশকারে কতজনের তলা হইতে বাইর করলাম , কেউ কি টের পাইছে ! এ আর এমন কি !! ছোহ !! তয় ধুতি পইড়া গাছে ওঠা ---- কেমুন কেমুন জানি লাগে !
রানার দাবড়ানি খাইয়া কোহলি আর চিন্তা করার সময় পাইলো না ! ধুতিখানা পড়িয়া তর তর কইরা গাছে উঠিয়া গেলো এবং কাউয়ার পেটের তলা হইতে আন্ডাও লইয়া আসিল, কাউয়া টেরও পাইলো না !!

নামিয়া , বুকের ছাতি ৮০ ইঞ্চি ফুলাইয়া, ভাব দেখাইয়া তৃপ্তির স্বরে বলিল : এই যে বস , কাউয়ার পেটের তলা হইতে আন্ডা লইয়া আসিয়াছি , কাউয়া টেরই পায় নাই , বইসা আছে !

গিলটি মিয়া : খাড়াও মিয়া ! বসের লগে ভাব লওনের আগে আমার কথা হুইন্যা লও !! তুমি ভারত রে দুই আঙুলে ঘুরাও ঠিকই। গাছে উইঠা কাউয়া না উড়ায়া কাউয়ার পেটের তলা থেইকা আন্ডা ভি লইয়া আইছো ঠিকই। মগর উঠোনের টাইমে আমি যে দুই আঙুলে তোমার ধুতি খুইল্যা রাইখা দিছি তুমি হালায় টেরই পাইলা না। নিচে চায়া দেহো পুরা সুন্দরবন দেহা যাইতাছে !!

কোহলি রিপোর্ট লিখিল :

১. বাঙালীর প্রশিক্ষণ বিদঘুটে মনে হইলেও অতিশয় উন্নতমানের !
২. ইহারা অত্যন্ত কৌশলী, কৌশলে পরাস্ত করিতে সিদ্ধহস্ত !
৩. ইহাদের সাথে দিগ্ গারি না করিয়া দূরে থাকাই ভালো ! দিগ্ গারি করিলে ইজ্জত-সম্মান হারাইবার আশংকা আছে , মায় পরনের কাপড়ও !!

মন্তব্য ২৮ টি রেটিং +৪/-০

মন্তব্য (২৮) মন্তব্য লিখুন

১| ১১ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:৩৮

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: এই মহা দুঃসময়ে বনের রাজা টারজান কোথায়?

১১ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:৪৩

টারজান০০০০৭ বলেছেন: গরমে মাথা নষ্ট , তাই চরমে উঠিয়া গিয়াছি !!

বন্যেরা বনে সুন্দর বিধায় টারজানও বনেই রহিয়াছে !!!

২| ১১ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:৩৯

ইসিয়াক বলেছেন: হাসতে হাসতে মাথা খারাপের অবস্থা !!!!!!!!!!!!!

১১ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:৪৫

টারজান০০০০৭ বলেছেন: বাইরে !! এই দুঃসময়ে মাথা খ্রাফ হইলে কেহ হেমায়েতপুর লইবে না !!

মাথা ভালো রাখিতে সান্ডার তৈল মাখিতে পারেন !!!

৩| ১১ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:৪৫

মা.হাসান বলেছেন:

ভারতীয়দের বুদ্ধি তীক্ষ্ণ। নকল রোধে বিহারের এক পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীদের শুধু আন্ডি পরে পরীক্ষা দিতে হয়। গেরুয়া রঙে রাঙানোর ব্যবস্থা থাকলে আরো ভালো হতো। লিংক নীচে ।

https://www.hindustantimes.com/india/candidates-asked-to-appear-for-army-recruitment-exam-in-their-underwear/story-pSKhn0Ldp28DEUmKlDcAUJ.html

১১ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:৪৯

টারজান০০০০৭ বলেছেন: ভবিষ্যতে তাহাই দেখিবেন আশা করা যায় !! তাহাদের ভোগান্তিও কম হইবে , বদ্ধ স্থানে হাওয়া বাতাসও চলাচল করিবে ! লালসালু সেইরাম বুদ্ধি দিয়াছে !

৪| ১১ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১১:০৯

রাজীব নুর বলেছেন: আমার কেন হাসি পায় না বলেন তো। আমি তো খুব হাসতে চাই।

১১ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১১:১৪

টারজান০০০০৭ বলেছেন: হাসি ছাড়া মানুষ কেমনে থাকে ! সত্যিই যদি কোনকিছুতেই হাসিতে না পারেন তাহা হইলে ডাক্তার দেখান ! ভাল লক্ষণ নহে !

৫| ১১ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১১:৪৯

গেছো দাদা বলেছেন: হা হা হা । একজন ভারতীয় হয়েও আপনার পোষ্ট পড়ে মজাই লাগলো । । ধন্যবাদ।

১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ৭:০৫

টারজান০০০০৭ বলেছেন: সত্যি কথা বলিতে কি , এই পোস্ট আপনাকেই উৎসর্গ করিব বলিয়া ভাবিয়াছিলাম ! আমার গত পোস্টে আপনার মন্তব্য দেখিয়া আপনার তরফ হইতে আপত্তি আসিবে বলিয়া আশংকা ছিল ! ভারত বিরোধিতা আর হিন্দু বিরোধিতা যে এক নহে ইহার উপরে আলাদা পোস্ট দেওয়ারও ইচ্ছা ছিল। সময়ের অভাবে পারিতেছি না !

ভুল না বোঝার জন্য ধন্যবাদ !

৬| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১২:০২

শাহিন-৯৯ বলেছেন:



ওরা ধুতি পরিয়াও চান্দে যাওয়ার চেষ্টা করিতেছে আর আমরা প্যান্ট পরিয়াও তাহাদের পেঁয়াজ খাওয়ার জন্য হা করিয়ে থাকি তাহলে বুদ্ধিমান কারা?

১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ৭:২৯

টারজান০০০০৭ বলেছেন: শুধু মাত্র বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, অর্থনীতি আর সামরিক শক্তিতে বলীয়ান হইলেই যদি কোন জাতিকে সভ্য, অগ্রগামী ধরা হয় তাহা হইলে হিটলারের জার্মানি সবচেয়ে সভ্য ছিল , অনুসরণীয় ছিল ! মোদী-অমিতের আজকের ভারত হিটলারের ভারতেই পরিণত হইতেছে !

নির্বাচনের সুযোগ থাকা সত্ত্বেও যে জাতি মোদী-অমিতের মতন পিশাচদের নির্বাচিত করে আপনি কি তাহাদের বুদ্ধিমান বলিবেন শুধুমাত্র বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির অগ্রগতির জন্য ?

একটা রাষ্ট্র তখনই কল্যাণ রাষ্ট্র হয় যখন উহার নাগরিকেরা মানবাধিকারের সাথে , নিরাপত্তার সাথে , ধর্মীয় স্বাধীনতার সাথে বাস করিতে পারে ! নচেৎ সকল উন্নতি বেকার !

৭| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ দুপুর ১২:৩৯

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: হাসি ছাড়া মানুষ কেমনে থাকে ! সত্যিই যদি কোনকিছুতেই হাসিতে না পারেন তাহা হইলে ডাক্তার দেখান ! ভাল লক্ষণ নহে !

কোন ডাক্তার দেখাবো??
মনোরোগ বিশেষজ্ঞ?? নাকি যে কোনো ডাক্তার দেখালেই হবে।

১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ দুপুর ২:৩৯

টারজান০০০০৭ বলেছেন: মনে যদি রোগ থাকে তাহলে তো মনের ডাক্তারই দেখাইতে হইবে ! তবে মনে হইতাছে মানসিকভাবে আপনি খুবই স্ট্রং ! শুধু শুধুই উফদেশ দিলাম মনে হইতাছে !!

৮| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ দুপুর ১২:৪১

নীল আকাশ বলেছেন: বেশ কিছুদিন পরে আজকে আপনার লেখা পড়ে হাসলাম।
এভাবে এদের ধুতি খুলে ছেড়ে দিলে যে দেশের চলমান গনতন্ত্র ভীষন লজ্জা পাবে।
তবে এইধরনের পোস্টের ব্যাপারে সাবধান। রাডার কিন্তু খুব শীঘ্রই বসিতেছে।

১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ দুপুর ২:৪৬

টারজান০০০০৭ বলেছেন: ধুতি তো আমি খুলি নাই , মাইরি !! গিলটি মিয়া খুলিয়াছে ! ধরা খাইলে হ্যাতেই খাইব !

আপনিও ভয় দেখাইতেছেন ! কি মুশকিল !!! আমরা প্রাণ খুলিয়া পাকিদের গালি দিলাম , আমেরিকারে গালি দিলাম , রাশিয়ারে গালি দিলাম , চীনরে গালি দিলাম, আরবদের গালি দিলাম ! আর ভারত রে গালি দিতে পারুম না !!!! এইডা কুনু কথা হইলো !!!!

স্বাধীনতা তুমি ভারতরে গালি দেওয়ার অবারিত দুয়ার .....................

৯| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ দুপুর ১২:৫১

অনিকেত বৈরাগী তূর্য্য বলেছেন: আসলেই কি এত কম দামে ব্রা পাওয়া যায়? বিশ্বাস হয় না, যদিও কখনো কেনা হয় নি।
যাহোক, ছিয়াত্তর এবং পঞ্চাশের মনন্তরের একটা প্রভাব ভারতীয়দের মধ্যে এখনও রয়ে গেছে বলেই মনে হয় আমার। ওদের এই কিপ্টেমিকে হয়ত হিসেবিও বলা যেতে পারে। চাঁদগাজী সাহেব একবার বলেছিলেন, আমাদের দেশের মানুষ একসময় না খেয়ে মরত; এখন খেতে খেতে মরে।
এত খেয়ে কাজ কী? একটু সাশ্রয়ী হলেই তো ভালো।
এটা ঠিক যে বিজেপির নীচতা সারাবিশ্বেব্যাপীই নিন্দিত হচ্ছে। ওদের উত্থানে ভারতীয়দের দায়ী করার পাশাপাশি এটাও মনে রাখতে হবে, কংগ্রেস ভারতকে চুষে খেয়ে ফেলেছিল। সে ক্ষেত্রে ভারতীয়দের আর কি বিকল্প ছিল? বিএনপি-জামাতের শাসনামলে দেশের কি অবস্থা হয়েছিল এটা নিশ্চয়ই আপনার অজানা নয়। জনগণ বাধ্য হয়েই আওয়ামীলীগকে ক্ষমতায় এনেছিল। এখন আওয়ামীলীগের সময়ে দেশের এই অবস্থায় দেশের মানুষকে দায়ী করা যাবে না যে তারা কেন আওয়ামীলীগকে ক্ষমতায় এনেছিল। বিকল্প তো ছিল না।

১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:০১

টারজান০০০০৭ বলেছেন: আসলেই কি এত কম দামে ব্রা পাওয়া যায়? বিশ্বাস হয় না, যদিও কখনো কেনা হয় নি।

এ বিষয়ে নারী ব্লগার মহিয়সী বৃন্দ আপনারে সহায়তা করিতে পারে ! আমার পোস্টে ইহাদের অবশ্য কদাচিৎ দেখা যায় ! আফনে সরাসরি লালসালুরেও জিগাইতে পারেন !!

টেনশন নিয়েন না, এখন জীবিত আছেন , বিবাহিত হইলেই সব জানিয়া যাইবেন , এমনকি না জানিতে চাহিলেও !

যাহোক, ছিয়াত্তর এবং পঞ্চাশের মনন্তরের একটা প্রভাব ভারতীয়দের মধ্যে এখনও রয়ে গেছে বলেই মনে হয় আমার। ওদের এই কিপ্টেমিকে হয়ত হিসেবিও বলা যেতে পারে। চাঁদগাজী সাহেব একবার বলেছিলেন, আমাদের দেশের মানুষ একসময় না খেয়ে মরত; এখন খেতে খেতে মরে।

যেটাই হোক , ওদের সংস্কৃতি, স্বভাবটাই আমাদের হইতে ভিন্ন ! ছিয়াত্তর এবং পঞ্চাশের মন্বন্তর তো আমাদেরও হইয়াছিল ! আমাদের এখানে অমন সংস্কৃতির প্রচলন হয় নাই কেন ?

খাওয়া বিদেশিরাও তো কম খায় না ! স্থূলতা উহাদের ভিতরেই বেশি ! আমিতো দেখি তাহাদের মুখ চলিতেই থাকে ! আমাদের সমস্যা হইলো আমরা অনিয়ন্ত্রিত খাই ! অন্যদের কি বলি ,গরুর মাংস , ইলিশ মাছ পাইলে আমি নিজেই তো থামিতে পারি না !

এত খেয়ে কাজ কী? একটু সাশ্রয়ী হলেই তো ভালো।

আরে , খাওয়া আর ঘুমের চেয়ে প্রিয় কিছু হইতে পারে নাকি ! নতুন বউও পুরান হইয়া যাইবে , খাওয়া আর ঘুম হইবে না !!! হে হে হে !

এটা ঠিক যে বিজেপির নীচতা সারাবিশ্বেব্যাপীই নিন্দিত হচ্ছে। ওদের উত্থানে ভারতীয়দের দায়ী করার পাশাপাশি এটাও মনে রাখতে হবে, কংগ্রেস ভারতকে চুষে খেয়ে ফেলেছিল। সে ক্ষেত্রে ভারতীয়দের আর কি বিকল্প ছিল?

কংগ্রেস চোর হইলেও বংশ ভালো ছিল , তাই পশ্চিমা হিপোক্রাটদের মতন ঢাইকা-ঢুইকা খাইতো ! বিজেপি নিতান্তই চামার , চক্ষু-লজ্জাহীন ! কংগ্রেস দেশবাসীরে বুঙ্গা বুঙ্গা দিতাছিলো বিধায় দেশবাসী ভাবিল এর চাইতে মউতই ভালো !তাই বিজেপিরে উঠাইলো ! মাগার বিজেপি আইসা এখন মউত পর্যন্ত বুঙ্গা বুঙ্গা দিতাছে ! মারা খা ! মোদী হইলো ভারতের হিটলার ! সে ভারতকে অর্থনৈতিক,সামরিক, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির পরাশক্তি হয়তো বানাইতে পারিবে ,তবে হিটলার যেমন জাতিরে লইয়াই ধ্বংস হইয়াছে , ভারতও মোদিরে লইয়াই ধ্বংস হইবে ! মোদির ভারত হিটলারের জার্মানির মতনই এক অমানুষের রাষ্ট্র , ইহার সব লক্ষণ আজ স্পষ্ট !

বিএনপি-জামাতের শাসনামলে দেশের কি অবস্থা হয়েছিল এটা নিশ্চয়ই আপনার অজানা নয়। জনগণ বাধ্য হয়েই আওয়ামীলীগকে ক্ষমতায় এনেছিল। এখন আওয়ামীলীগের সময়ে দেশের এই অবস্থায় দেশের মানুষকে দায়ী করা যাবে না যে তারা কেন আওয়ামীলীগকে ক্ষমতায় এনেছিল। বিকল্প তো ছিল না।

আমাদের আওয়ামী-বিএনপির চরিত্রগত কোন পার্থক্য নাই ! মানুষের ইহাদের প্রতি কোন বিশ্বাসও নাই ! তাই সুযোগ পাইলেই একটারে নামাইয়া আরেকটারে ওঠায় ! বাকি রইলো জামাতি আর বামাতী ! ইহারা জাতির মস্তিষ্কের ক্যান্সার ! আমাদের বুদ্ধুজীবী সম্প্রদায় ইহাদের মধ্য হইতেই আসিয়াছে বিধায় জাতি পুঙ্গামারা খাইতেছে , মায় বিম্পি আওমীলিগও !! আমরা বিকল্প হিসেবে কখনও জামাতী বা বামাতীদের বাছিয়া লই নাই ! ইহারা গুঁড়াকৃমি হিসাবে বিম্পি-আওমীলীগের ইয়েতে প্রবেশ করিয়াছে ! সুযোগ পাইয়াও ভারতীয়দের বিকল্প হিসেবে বিজেপিকে বাছিয়া নেওয়ার মতন আমরা কখনই জামাতিদের বাছিয়া লইতাম ইহা না নিশ্চিত !

১০| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ বিকাল ৪:৫৭

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: অসাধারন! অনেক হাসলাম। বিশেষ করে আনুশকারে কত জনের তলা হইতে বাইর করলাম দুর্দান্ত।

ধন্যবাদ টারজান০০০০৭।

১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:৩২

টারজান০০০০৭ বলেছেন: আনুস্কারে তলা হইতে বাহির করার এক্সপেরিয়েন্স ছিল বইলাইতো কাউয়ার তলা হইতে ডিম্ বাহির করিতে পারিয়াছে ! হে হে হে !
আপনারে গাজীয় শুভেচ্ছা !!

১১| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩১

রাকু হাসান বলেছেন:


অনন্ত দয়া করে শিরোনামে ১৮ + লেখা বাদ দিন।

১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:৩৪

টারজান০০০০৭ বলেছেন: কি করব বলুন , কে জানি আমার পোস্টে একবার লাগাইতে কৈয়াছিলো , ১৮+ উপাদানও আছে যে ! না লাগাইলে আবার কে কি বলে ! কোনদিকে যাই !!

১২| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: দিগ্ গারি করিলে ইজ্জত-সম্মান হারাইবার আশংকা আছে , মায় পরনের কাপড়ও !! কথা সইত্য !!

১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:৩৮

টারজান০০০০৭ বলেছেন: কোহলি হারাইয়াই না বুঝিল ! অবস্থা দর্শনে মনে হইতাছে অন্যেরা না হারাইলে বুঝিবে না !

১৩| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৮:১১

পুলক ঢালী বলেছেন: হা হা হা দারুন মজা পেলাম। তবে টারজান জঙ্গল ছেড়ে লোকালয়ে কিভাবে এলো?? এই রহস্য ভেদ করার জন্য কি করা যায় ভাবছি গিল্টি মিঞাঁকে হায়ার করবো ? নাহ্ গিল্টি মিঞাঁর অভ্যাস খারাপ সব লিয়ে আসবে। :D

১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:৪১

টারজান০০০০৭ বলেছেন: গিলটি মিয়ারে লাগাইতে পারেন ! সে বড়জোর টারজানের নেংটি লইয়া যাইতে পারে !! জঙ্গলে উহা না থাকিলেই বরং প্রকৃতির সাথে একাত্ম হওয়া যাইবেক !!! হে হে হে !

১৪| ১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:১০

ঢাবিয়ান বলেছেন: নির্বাচনের সুযোগ থাকা সত্ত্বেও যে জাতি মোদী-অমিতের মতন পিশাচদের নির্বাচিত করে আপনি কি তাহাদের বুদ্ধিমান বলিবেন শুধুমাত্র বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির অগ্রগতির জন্য ?

দারুন একটা কথা বলেছেন।

+++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++

১২ ই অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:৪৪

টারজান০০০০৭ বলেছেন: ভারতীয়রা অমার্জনীয় অপরাধ করিয়াছে ! ইহার খেসারত তাহাদের হিটলারের জার্মানির মতনই দিতে হইবে !

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.