নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

টারজান০০০০৭

টারজান০০০০৭ › বিস্তারিত পোস্টঃ

করোনা সাইকোলজিক্যাল গেমস : কাকে মারবেন , কাকে বাঁচাবেন ?

১৩ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:৩১

লকডাউনে বইসা বইসা আকাম ছাড়া ভালো কিছু মনে আসিতেছে না ! ঐযে কথায় আছে না -- অলস মস্তিস্ক স্তালিনের কারখানা ! তো হেই কারখানায় নানা জাতের যন্ত্রপাতি উৎপাদন হইতেছে ! কাল টাও আবার ডিজিটাল বিধায় যন্ত্রপাতিগুলানও সেইরাম ! পুরাই টাল ! আর টাল হইবেই বা না কেনু , সারা জীবনই দেখিয়াছি পাঠ্য বইয়ের বাইরে সারা দুনিয়ার বই পড়িতে ভালো লাগে ; নিজের কামের চাইতে সারা দুনিয়ার আকাম ভালো লাগে ! একারণেই কিনা বিশেষ অজ্ঞ হইতে পারলাম না ! বুদ্ধুজীবীও না ! বন্ধু মহলে বুদ্ধুজীবী ,বিশেষ অজ্ঞ , চুশীল সমাজ ইত্যদি শব্দ লইয়া বিরাট খাউজানী আছে ! ইহা সাধারণত উচ্চমার্গীয় গালি হিসেবে ব্যাবহৃত হয় ! তাই স্বপনেও কেহ ঐসব হইতে চায় না ! কেহ বলিলেও আতকাইয়া উঠিয়া নাউযুবিল্লাহ , আস্তাগফিরুল্লাহ কইয়া হেদাইয়া পরে ! একারণেই বুঝি বুদ্ধুজীবী হওয়া আর হইলো না ! মাগার বুদ্ধি তো থাইম্যা থাকে না ! তাই বন্ধু মহলে নিজেরে "বিশিষ্ট চিন্তক" হিসেবে পরিচয় দিতেছি ! বিশেষ অজ্ঞ না হইয়া "Jack of all trades , master of none" অর্থাৎ গোলআলু বা সবজান্তা শমসের বা চাটুকারদের ভাষায় 'বহুমুখী প্রতিভা' হইয়া উঠিতেছি ! একটা উদাহরণ দিলেই ফরিস্কার হইবেক ! কস্মিন কালেই আমার টেকি হইবার সম্ভাবনা নাই ! মাগার ডিজিটাল আমলে চোখ খুলিলেই খালি টেক আর টেক ! টেক টেক করিতে করিতে নিজেই কখন টেকি চিন্তায় চিন্তক হইয়া উঠিতেছি বুঝিয়া উঠিতেছি না !এই লকডাউনের সময়ে নিজের কারবারের জইন্য টেকি কাম করিতে করিতে হাপাইয়া উঠিলে পোলাপাইনের লগে গেইম খেইলা রিচার্জ করি ! গেইম নামাইতে গিয়া হঠাৎ মনে হইলো করোনা নিয়াও তো গেম বান্ধোন যায় ! অমনি কারখানার যন্ত্রপাতির কাম শুরু হইয়া গেলো ! বোস্টন ডাইনামিক্সের রোবটের চাইতেও ইহার বেগ দ্রুত ! রোবটের তো থামানোর বোতাম আছে , এই কারখানার যন্ত্রপাতির কোন বোতামই নাই ! ব্রেকবিহীন সাইকেলের মতন চাক্কায় পা ঘইষা থামাইতে হয় ! লকডাউনে সেই উফায়ও নাই ! এদিকে এলগোরিদম ,কোডিং, গেম ডেভেলপমেন্টের ক খ না জানিলেও যন্ত্রপাতি তো থাইম্যা নাই ! কি করা ! আচ্ছা যাউক ! যন্ত্রপাতি যখন থামিবেই না তখন গেমসের গল্পটা অন্তত তৈরী করি ! দেখি না কি হয় :

১. করোনা ভাইরাস বা কোভিদ ১৯ লইয়া সারাবিশ্ব পেরেশান ! নেতাদের ঘুম নাই ! জনগনের গালাগালির চোটে ঘুম ছুইটা যাইতাছে ! অবস্থা বেগতিক দেখিয়া লৌহ মানবদের লৌহ দণ্ডও গইল্যা পানি হইয়া যাইতাছে ! এই গলন ঠেকাইতে কি করন যায় ইহা লইয়া জাতিসংঘে রুদ্ধদ্বার বৈঠক চলিতেছে ! উপস্থিত আছেন সর্বজনাব
ক. ট্রাম্প
খ. পুতিন
গ. বরিস জনসন
ঘ। মোদী
ঙ. সিং পিং
চ। সূচি
ছ. নেতানিয়াহু
জ. আসাদ
ঝ। খামেনী
ঞ. কিম জং জুনিয়র
ত. ছি ছি
থ।যুবরাজ সালমান

এই বৈঠকে আপনার ভূমিকা হইবে ডাক্তারের। নেতাদের স্বাস্থ্যের দেখভালের জন্য আপনাকে প্রস্তুত রাখা হইয়াছে !
বৈঠক চলাকালীন হঠাৎ একজন নেতা মারাত্মক শ্বাসকষ্টে ভুগিতে শুরু করিলেন ! দেখা গেল তাহার সর্দি ,কাশি , হাঁচি , গলাব্যথা ছিল ! গুরুত্বপূর্ণ মিটিং বিধায় আসিতে বাধ্য হইয়াছেন ! বাকি নেতারা আতঙ্কে মনে মনে তাহাকে ননসেন্স ,উজবুক ইত্যাদি বিশেষণে ভূষিত করিলেও বাহিরে আহা উহু করিলেন ! গণস্বাস্থ্যের কিট দিয়া ১৫ মিনিটেই বাহির হইলো ওই নেতার করোনা ভাইরাস কান্ধে উইঠা নাচতাছে ! ওষুধ নাই , বিচি নামানোর মতন করোনা নামানো এতো সহজ নহে ! ওদিকে এই খবর মুন্নি সাহার কল্যানে বিদ্যুৎ বেগে সারা দুনিয়ায় ছড়াইয়া গেল ! নিউইয়র্ক এমনিতেই করোনার কারণে কু কু করতাছে ! মরার ভয়ে আর ট্রাম্পের ইতরামিতে নিউয়র্কবাসী এমনিতেই ক্ষিপ্ত ছিল ! এক্ষণে এই সংবাদ পাইয়া তাহারা তারস্বরে চেচাইতে লাগিলেন ! আইন সকলের জন্য সমান হইতে হইবেক ! নেতাদের সবাইরে ওই বৈঠকেই লকডাউন করা হউক ! তাহারাও ১৫ দিন কোয়ারিনটেনে থাকুক ! এমনকি কিছু বনের মোষ তাড়ানো পাবলিক যাইয়া নিরাপত্তা পরিষদের ভবনও সামাজিক দূরত্ব মানিয়া অবরোধ করিল ! সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় বহিয়া গেল। সকলেই একবাক্যে এই কোয়ারেন্টাইন কে সমর্থন করিল ! বিচি হারানোর হুমকিতে ভয় পাইয়া জাতিসংঘ মহাসচিব নিরুপায় হইয়া এই অবরোধ সমর্থন করিলেন ! আগে বিচি বাঁচুক , তারপর চাকুরী ! ব্যাপক চাপে কোয়ারিন্টিন কার্যকর হইলো ! মাগার খুব দ্রুতই পরিস্থিতি খারাপের দিকে চলিয়া গেলো ! সকলেই করোনা আক্রান্ত, ,তীব্র শ্বাসকষ্টে ভুগিতেছে ! অক্সিজেন দিয়াও লাভ হইতাছে না ! ভেন্টিলেটর জরুরি হইয়া পড়িয়াছে ! ভেন্টিলেটর অপ্রতুল হইলেও নেতা-খ্যাতা বইলা ১২ খানা ভেন্টিলেটরও জোগাড় হইলো ! এদিকে নেতাদের এখন-তখন অবস্থা ! এখনই ভেন্টিলেটর না দিলে তাহাদের মৃত্যুর সম্ভাবনা ১৬ আনা ! ভেন্টিলেটর সেট করিতে গিয়া দেখা গেল একটা ভেন্টি নষ্ট ! এখন নেতা হইলো ১২ জন ,ভেন্টি হইলো ১১ খানা ! যেহেতু এখনই ভেন্টি না দিলে কাউকেই বাঁচানো যাইবে না , আর ভেন্টি জোগাড় করিতেও সময় লাগিবে তাই অবধারিত ভাবে একজন মারা যাইবে ! গেমের নায়ক হিসেবে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা একমাত্র আপনার। আপনি এখন কাহাকে মারিবেন ? এবং কেন ?

বি. দ্রঃ এই গেমে যেহেতু কোয়ারিন্টিনে কাহারা থাকিবেন তাহা নির্বাচনের সুযোগ আছে তাই আন্তর্জাতিক নেতাদের বাদ দিয়া ম্যাংগোপিপল যদি আমাগো রাজনীতিজীবীদের নির্বাচন করে তাইলে গেমের গল্পকার হিসেবে টারজানের কুনু দায় থাকিবে না ! ডিম্বথেরাপি যাহা দেওয়ার তাহা যিনি গেম ডেভেলপ করিবেন , আর যিনি খেলিবেন তাঁহাদেরই প্রাপ্য হইবেক !

২.ধরা যাক বাড়িতে সদস্য সংখ্যা ৬ জন। বাবা-মা , স্বামী-স্ত্রী , ছেলে-মেয়ে ! লকডাউন মানিয়া সর্বোচ্চ সতর্কতা সত্বেও বাড়ির কর্তা ব্যাতিত সকলেই করোনায় আক্রান্ত হইয়া মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে ! অক্সিজেনে কাজ হইতেছে না ! ভেন্টিলেটর লাগিবে ! ব্যাপক চেষ্টা-তদবির করিয়া একখানা ভেন্টিলেটর জোগাড় হইলো ! বাড়ির কর্তা হিসেবে আপনি কাকে বাঁচাবেন ? কেন ?

বি. দ্রঃ এই গেমের বর্ণনা করিতে গিয়া আমার বুক কাঁপিয়া উঠিল। ইহা সত্যিকারের সাইকোলজিকাল গেম। আমি স্বপ্নেও এমন পরিস্থিতিতে কেহ পড়ুক ইহা চাহিনা। আল্লাহ আমাদের হেফাজত করুন ,আমিন !

মন্তব্য ১০ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (১০) মন্তব্য লিখুন

১| ১৩ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১০:০৭

রাজীব নুর বলেছেন: আপনার মাথা আউলায়ে গেছে।
টানা ১০ ঘন্টা ঘুম দেন।

১৩ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১০:১২

টারজান০০০০৭ বলেছেন: খ্রাফ বলেন নাই ! :( লকডাউনে মাথাও লক হইয়া গিয়াছে ! লকডাউন না খুলিলে এই লক খুলিবে মনে হইতাছে না ! তা আপনি কারে মারিবেন কৈলেন না তো ?

২| ১৩ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১১:০৩

নেওয়াজ আলি বলেছেন: মুসলিম হিসাবে আল্লাহকে বিশ্বাস করি এবং তার সব কাজ বিশ্বাস করি

১৩ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১১:১২

টারজান০০০০৭ বলেছেন: আলহামদুলিল্লাহ , আমিও করি ! ধন্যবাদ !

৩| ১৪ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:৩৬

মা.হাসান বলেছেন: লকডাউনে বইসা বইসা আকাম ছাড়া ভালো কিছু মনে আসিতেছে না।
লক ডাউন না থাকিলে টারজানের মাথায় তাইলে 'কাম' থাকে। ব্যফক প্রীত হইলাম ।

হেই কারখানায় নানা যন্ত্রপাতি উৎপাদন হইতেছে।
উৎপাদন যন্ত্রপাতিতেই সীমাবদ্ধ থাক।

গেমে আরেকটা চ্যাপ্টার দিতে পারেন। ধরা যাক সকলেরি পরিবার বাজার করিতে বৈলো। পলি ব্যাগ আছে এগারো খানা। বাদ দিবেন কাকে?

ঝংগলে মনে হয় আকাম ছাড়া করিবার বিশেষ কিছু নাই।

এই রমজানে এই নাচিজ কে দোয়ায় স্মরণ করিবার দরখাস্ত দিয়া গেলাম।

১৪ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১০:২৪

টারজান০০০০৭ বলেছেন: লকডাউনে বইসা বইসা আকাম ছাড়া ভালো কিছু মনে আসিতেছে না।
লক ডাউন না থাকিলে টারজানের মাথায় তাইলে 'কাম' থাকে। ব্যফক প্রীত হইলাম ।


স্তালিনের ভ্যাকুয়াম তত্ব অনুসারে কাম না থাকিলে আকাম হইবেই ! যেহেতু অন্যসময় আকামের সময় থাকে না ,তাই কামে ডুইবা থাকি (এই কাম কিন্তু সেই কাম না ভাইডি !)


হেই কারখানায় নানা যন্ত্রপাতি উৎপাদন হইতেছে।
উৎপাদন যন্ত্রপাতিতেই সীমাবদ্ধ থাক।


খালি উৎপাদন হইলে হইবেক ? মার্কেটিং করিতে হইবেক না ? বেচাবিক্রি না হইলে তো মাথায় হাত পড়িবে !

গেমে আরেকটা চ্যাপ্টার দিতে পারেন। ধরা যাক সকলেরি পরিবার বাজার করিতে বৈলো। পলি ব্যাগ আছে এগারো খানা। বাদ দিবেন কাকে?
ধুর ! এই ম্যাড়মেড়ে গেম কেহ খাইবে না ! কোথায় রাষ্ট্রনেতাদের মারার থ্রিল আর কোথায় বাজার সদাই ! আইয়ুব খান হইতে কি খিলি পানে নামা যায় ! কি যে কন না !!

ঝংগলে মনে হয় আকাম ছাড়া করিবার বিশেষ কিছু নাই।
কামতো আছে ! মাগার লক হইয়া কাম তো করবার পারতাছি না ! তাই বান্দরদের মস্তিস্কও এখন স্তালিনের কারখানা ! উহা সাম্লাইতেই ......
এই রমজানে এই নাচিজ কে দোয়ায় স্মরণ করিবার দরখাস্ত দিয়া গেলাম।
আল্লাহ খাইর করুন , হেদায়েত নসিব করুন, আমিন !

৪| ১৪ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:৩৮

মা.হাসান বলেছেন: ১২ জনের টিম সিলেকশন অসাধারণ হইয়াছে। আপসুস, গেঁয়ো যোগী ভিখ পায় না।

১৪ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১০:২৯

টারজান০০০০৭ বলেছেন: আমিও তো হেইয়াই কই, এতো কষ্ট কইরা টিম সিলেকশন করিলাম , কেহ খাইলো না ! সিলিকন ভ্যালিতে থাকিলে পাবাজিরে ডাউন খাওয়াইয়া দিতাম ! কেহ চিনলো না ভাইডি ! :((

৫| ১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ সকাল ৯:০৩

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: B-))

১৬ ই এপ্রিল, ২০২০ দুপুর ১২:৩২

টারজান০০০০৭ বলেছেন: কিরে ভাই , আপনি তো টেকি। দেখেন তো গেম ডেভেলপ করিতে পারেন কিনা ?

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.