নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

মনটা যদি তুষারের মতো...

আখেনাটেন

আমি আমাকে চিনব বলে বিনিদ্র রজনী কাটিয়েছি একা একা, পাই নি একটুও কূল-কিনারা কিংবা তার কেশমাত্র দেখা। এভাবেই না চিনতে চিনতেই কি মহাকালের পথে আঁচড় কাটবে শেষ রেখা?

আখেনাটেন › বিস্তারিত পোস্টঃ

একটি মশকীয় গোলটেবিল বৈঠক ও প্রজন্ম রক্ষার চুপিচুপি আলুচনা সভায় টিপ্পনীঃ ‘ছোটোলোকদের রক্তে আবার পুষ্টি’!!!!!!!!!! ;)

১২ ই মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৪:৫৮



মশককূলের বার্ষিক আলুচনা সভা বসেছে হোটেল প্যানপ্যাসিফিক সোনারগাঁও ভবনের পাশের হাতিরঝিলের পচা পানিতে।

সঞ্চালক ধাড়ী কিউলেক্সঃ প্রথমেই বক্তব্য রাখবেন হাতিরঝিলের পচা পানির রানী, মাদার অব মশকিউনিটি, মশকতন্ত্রের মানসকন্যা, খাতুনে ডক্টর, পচা পানির প্রক্টর, মাননীয় মশক সম্রাজ্ঞী চিকচিকেগুনগুনিয়া এডিস। যার নিপুণ কর্মদক্ষতায় আমরা এই পচা পানির ভাগাড় ঢাকা শহরে অতীব সুখে দিনযাপন করছি। (মনে হচ্ছে তেলের পাহাড় এভারেস্টের চূড়া ছুঁয়ে ফেলাবে কিউলেক্স মশাই)

‘জয় পচা পানির জয়’। ‘জয় ড্রেনের রানীর জয়’। (চারিদিকে উঠতিবয়সী ছাত্র মশককূলের শোরগোল। উঠতি এই মশার গুন্ডাবাহিনী নাকি ঢাকার পচা পানির বেশিরভাগই দখল নিয়ে নিয়েছে )

মাদার অব মশকিউনিটিঃ বন্ধুগণ, আপনারা জেনে খুশি হবেন যে আজকে ঢাকার প্রায় প্রতিটি খাল-ডোবা-নালা-ড্রেন আমাদের দখলে। শুধু বাকি কল্যাণপুরের দূর্গন্ধযুক্ত খালটা। শুনেছি ওখানে নাকি বিরোধীপার্টির মশারা ঘাঁটি গেড়েছে। ঐটাও আমরা অচিরেই দখল নিয়ে নিব। আমাদের কর্মী বাহিনী বিরোধীপার্টিকে ঢাকা ছাড়া করবে অচিরেই। ওদেরকে নিয়ে না ভাবলেও চলবে।

এখন আমাদের নিজেদের কর্মপন্থা ঠিক করতে হবে। কীভাবে আমাদের এই ঢাকার দিগ্বিজয় কেয়ামততক করা যায়? শুনছি শয়তান মনুষ্যকূল নতুন নতুন ফন্দি বের করছে আমাদের বিনাশ করতে। আপনারা ঘাবড়ে যাবেন না। আমাদের রিসার্স অ্যান্ড ডেভালপমেন্টে (বিরোধীমত নিধনে) আরো বিনিয়োগ করতে হবে। টেকসই উন্নয়ন ছাড়া নিজেদের অস্তিত্ব হুমকীর মুখে পড়বে। এই বছর বাজেটে অর্থমন্ত্রীকে বলছি যেন অতিরিক্ত বরাদ্দ রাখে এ খাতে।


পাশেই বয়সের ভারে ন্যুজ অর্থমন্ত্রী অ্যানোফিলিস (প্লাসমোডিয়াম ভাইভেক্স জীবাণুতে অাক্রান্ত) গভীর ঝিমানিতে প্রায় বেহুঁশ।

পাশ থেকে অর্থমন্ত্রীর বিরোধী একজন কিউলেক্স ফোঁড়ন কেটে বলল, ‘মাননীয় মশকতন্ত্রের মানসকন্যা, আমাদের হুজুরে আলা অর্থমন্ত্রী অ্যানোফিলিস মনে হয় কিছু শুনছেন না। উনি ঝিমাচ্ছেন। প্রতি মিটিং এ দেখি উনি খালি ঝিমান। ঝিমাতেই থাকেন’।

অশীতিপর অর্থমন্ত্রী অ্যানোফিলিস মাথা না তুলিয়েই চিবিয়ে চিবিয়ে উচ্চারণ করলেন, ‘রাবিশ’, ‘স্টুপিড’

একজন নিবেদিত কর্মীনেতা এডিস ভারাক্রান্ত মনে নাতিদীর্ঘ বক্তব্য রাখল, মাননীয় মশকরত্ন ইদানিং মশককূলের শিক্ষার চরম অবনমন ঘটেছে। কুশিক্ষিত মশারা সুশিক্ষার অভাবে মনুষ্যকূলের হাতে বেঘোরে প্রাণ দিচ্ছে। একটা উদাহরণ দিলে জিনিসটা পরিষ্কার হবে।

সেদিন আমাদের দ্রুতগামী এয়ারফোর্স বাহিনী নিয়ে টোটাল অ্যাটাকে গেলাম কড়াইল বস্তিতে। ওদের আমি পইপই করে বললাম পাশের গুলশান, বনানীতে যেন না যায় কামড়াকামড়ী করতে। কিন্তু কিছু অর্বাচীন নির্দেশ অমান্য করে সেখানের মনুষ্যজাত নাদুসনুদুস বাচ্চাগুলোকে কামড়াতে গিয়ে নিদারুনভাবে প্রাণ দিয়েছে। লোভে পাপ পাপে...কী করুণ মৃত্যু!!

আমাদের একটা স্ট্রাটেজি আছে যে শুধু বস্তির ভুখানাঙ্গা গরীব, মেসে-হোস্টেলে-হলে-খালে থাকা ছাত্র-ছাত্রী, মেসে থাকা বেকার ও ছাপোষা কর্মজীবী, চাঁদার দাপটে পাগলপ্রায় ছোটখাট ব্যবসায়ী, টেনেটুনে সংসার চালানো ভাড়া বাসাতে থাকা মনুষ্যকূলকে যত পারো কামড়াও। কামড়ে কামড়ে এদের আগা-পাছা লাল করে দাও। কখনো উঁচুতলার মানুষদের কামড়ানো যাবে না। কিন্তু এই সকল শিক্ষা এখনকার প্রশ্নফাঁস জেনারেশনেরা মানছে না। ফলে যা হবার তাই হচ্ছে। নির্বিচারে জান কুরবান হয়ে যাছে তাদের। আমাদের অস্তিত্বের জন্য হুমকী হয়ে যাচ্ছে এই শিক্ষার অধ:পতনে।

তাদের যদি সঠিক শিক্ষা থাকত তাহলে তারা জানত যে হাড়জিরজিরে গরীব ছোটলোক আর নাদুসনুদুস উচ্চআয়ের বড়লোকদের কামড়ানো এক কথা নয়। কারণ গরীবগুলোর আমাদের আক্রমন করার মতো অস্ত্রশস্ত্র কেনার সামর্থ নেই। যদিও কেনে তা বেশির ভাগই ভেজাল ও অকার্যকর। এগুলো আমাদের কোনো ক্ষতি করে না। আর ধনী মনুষ্যকূল কি সব অস্ত্রশস্ত্র আনে। আমরা সেখানে টিকতে পারি না। নগরপিতাও এদের নানা কায়দায় সুরক্ষা দেয় যা গরীব ছোটলোকগুলো এর ছিটেফোটাও পায় না। তাই ছোটলোকদের আবাসস্থলগুলো হচ্ছে ঝুঁকিমুক্ত এলাকা।


আরো কারণ আছে হুজুরানে মাদার অব মশকিউনিটি। গরীব ছোটলোকদের যতই কামড়ান হারামজাদারা (মাফ করবেন হুজুরান) মটকার মতো পড়ে পড়ে কামড় খেয়েই যাবে। সারাদিনের পরিশ্রমের শরীর ওদের। আমাদের থাপ্পড় দেওয়ার শক্তিও নেই। কামড় খেয়ে খেয়ে পাছা লাল হয়ে থাকতেই এদের আনন্দ। এদের জন্মই হয়েছে আমাদের কামড় খেয়ে লাল্টু হওয়ার জন্য। এই চরম সত্যটা আমাদের এখনকার প্রশ্নফাঁস জেনারেশন সঠিকভাবে পাচ্ছে না কুশিক্ষার দরূন। সস্তায় এত পুষ্টিকর রক্ত আর কোথায় পাবে তারা?

পাঁশ থেকে এক মন্ত্রী এডিস ফিস ফিস করে বলল, ‘ছোটোলোকদের রক্তে আবার পুষ্টি’!!

আর উঁচুতলার লোকদের কামড়ালে এরা নগর পিতাকে বলে আমাদের বিনাশে উঠে পড়ে লাগে। রানীমা আপনি তো নিশ্চয় জানেন, একবার এরা পচা পানির খাল ডোবাতে আমাদের চরম শত্রু লাখ লাখ পেটমোটা খাদক মৎস্য ছেড়ে দিয়েছিল। ওদের কামড়ালে এরকম নানারকম খতরনক উদ্যোগ নিবে। তাই নাংগাভুখা গরীবদের কামড়ানো কি উচিত নয়?

মশকরানী টিয়াপাখির মতো চোখ তুলে শিক্ষামন্ত্রী এডিসের দিকে দৃষ্টি নিক্ষেপ করলেন।



হুজুরে মস্তিস্ক ছিলছিলা শিক্ষামন্ত্রী এডিস (চিকুঙ্গুনিয়ার জীবাণুবাহী) আমতা আমতা করে বললেন, মাননীয় হুজুরান, এইগুলা ষড়যন্ত্র। চারিদিকে শিক্ষার উন্নয়নের জোয়ার বয়ে চলেছে। সেই জোয়ারে আমাদের লার্ভা-পিউপাগুলোও সাঁতার কাটছে। আর প্রশ্নফাঁসের কথা বলছে তা আগেও তো হয়েছে। এখন এতো এ নিয়ে হৈ চৈ ক্যান? বিরোধীপার্টির দুইজন ডেঙ্গুক্রান্ত এডিসকে ধরে ডিমপড়া দিলে সত্য উন্মোচন হত।

ছিলছিলা শিক্ষামন্ত্রী এডিসের কথায় মশককূলের মানসকন্যা ২০০% সায় দিয়ে প্রশংসার বন্যায় ভাসিয়ে দিয়ে বললেন, এগুলো বিরোধীপার্টির কূটতন্ত্র। কান না দিলেও চলবে। আগে বাড়ো আর দেশের ছোটলোকগুলোকে কামড়ে লালে লাল করে দাও। চিকুঙ্গুনিয়া, ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়া-ফাইলেরিয়াতে ছোটোলোকদের মাটিতে শোয়ায়ে দাও। একটাও যেন আমাদের বিপক্ষে না দাঁড়াতে পারে। ভয় ঢুকায়ে দাও। জয় পচা পানি।

মিটিং শেষে চলে যাওয়ার সময় ‘মাদার অব মশকিউনিটি’ মৃদ স্বরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হুলো কিউলেক্সকে বললেন ‘চারজনকে ডিমপড়ার ব্যবস্থা কর’।

গুন্ডা-পান্ডা ছাত্র-শিক্ষক মশককূল (ক্লাসে থাকার চাইতে ইনারা এখন রানী মশার জনসভাতে থাকতে পছন্দ করে বেশি) গলার রগ ফুলিয়ে শ্লোগান দিতে লাগল, ‘জয় পচা পানির রানিমাতার জয়’। ‘জয় মশকতন্ত্রের মানসকন্যার জয়’।

ওদিকে শুনছি কল্যানপুরের পচা খালে বিরোধীপার্টির মশারাও মিটিং ডেকেছে। সেখানে নাকি বিরোধীনেত্রী ডুঙ্গিডেঙ্গু এডিসকে তাদের সেনাপতি অ্যানোফিলিস (ভাইভেক্স জীবাণুবাহী) উনাকে ‘মাদার অব মশোক্রেসী’তে ভূষিত করেছে। এ কথা শুনে একজন সেলিব্রেটি ব্লগার এডিস মশা মন্তব্য ছুঁড়ল, ‘উঁইপোকার পেছনে নরম হলে কি হবে মুখটা বেশ শক্ত’
মশককূল জিন্দাবাদ।

ছোটোলোক মুর্দাবাদ।

মন্তব্য ৫০ টি রেটিং +১০/-০

মন্তব্য (৫০) মন্তব্য লিখুন

১| ১২ ই মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৫:২৪

শাহরিয়ার কবীর বলেছেন: চিকুনগুনিয়ার রোগের মশা হল বড় সন্ত্রাসী ;
যারে একবার কামড়ে দিছে তার কাছে আগে জিগায় আসি
আপনার অনুভূতি কী!!! :-B


রম্য ভাল লেগেছে।। :P

১২ ই মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৫:২৯

আখেনাটেন বলেছেন: শাহরিয়ার কবীর বলেছেন: চিকুনগুনিয়ার রোগের মশা হল বড় সন্ত্রাসী ;
যারে একবার কামড়ে দিছে তার কাছে আগে জিগায় আসি
আপনার অনুভূতি কী!!!
--হা হা হা; দেশের সব ছোটোলোকগুলো কী চিকুনগুনিয়াই অাক্রান্ত নয়?

আপনার কি মনে হয়?

২| ১২ ই মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৫:২৪

রাজীব নুর বলেছেন: সুন্দর বিনোদন।

১২ ই মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৫:৩১

আখেনাটেন বলেছেন: ছোটোলোকদের পশ্চাদদেশ লাল হওয়াতে শুধু বিনুদুনটাই দেখলেন মাননীয় ব্লগার।

বেশ বেশ।

৩| ১২ ই মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৫:২৮

শাহরিয়ার কবীর বলেছেন: এডিস মশা আর দেশে নাই
এখন চলে চিকুনগুনিয়া মশাদের আমল।। :P

মশা মারতে কামান.....

১২ ই মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৫:৩৩

আখেনাটেন বলেছেন: হা হা হা; এডিসরা এখন কল্যাণপুরের খালের চিপায় বসে কামানের গোলার অপেক্ষা করছে।

৪| ১২ ই মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৫:৩০

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: সব প্রাণী নাকি মানুষের উপকারের জন্য সৃষ্টি, মশা নামক এই আপদটা মানুষের কি উপকার করে তা সৃষ্টিকর্তাই জানে।

১২ ই মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৫:৩৬

আখেনাটেন বলেছেন: মস্তবড় সত্য কথা বলেছেন ভাইজান।

চিন্তা করছি এদের বিরুদ্ধে মামলা করলে ক্যামন হয়? উপকারই না থাকলে দুনিয়াতে থাকারই বা কি দরকার? :D

৫| ১২ ই মার্চ, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:০০

Biniamin Piash বলেছেন: অন্তর্নিহিত ভাবটা যথাযথভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন। খুবই ভালো লেগেছে আপনার লেখাটা। অসাধারণ রূপক গল্প।

১২ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ১০:৫৫

আখেনাটেন বলেছেন: খুশি হলাম আপনার সুন্দর শব্দগুচ্ছে।

ভালো থাকুন।

শুভেচ্ছা নিরন্তর।

৬| ১২ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ৮:৩৬

সোহানী বলেছেন: আমি কিন্তু কিছুই বঝি নাই............. ;)

দেশ এগিলে চলছে সগৈাড়বে সাথে মশক বাহিনী নিয়ে...................... :P

১২ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ১০:৫৭

আখেনাটেন বলেছেন: দেশ এগিলে চলছে সগৈাড়বে সাথে মশক বাহিনী নিয়ে.... -- আমরাও সাথে আছি। না থাকলে পাছে আবার লালে লাল করে দেয় যদি। :P

৭| ১২ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ৯:৩২

আহমেদ জী এস বলেছেন: আখেনাটেন ,




আখেরে একটা নাচন দিলেন ? :)
ওউউউউ ........... উই গট ইট... আমরা পাইয়াছি , তাহকে পাইয়াছি । মশার কামড়ে চলমান রাজনীতির পাছা লালে লাল হওয়া দেখিতে পাইয়াছি .................... !:#P

১২ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ১১:০০

আখেনাটেন বলেছেন: হা হা হা।

ছোটোলোকেরা তো লালে লাল হওয়াতেই অারাম পাচ্ছে। :P

৮| ১২ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ৯:৫০

সুমন কর বলেছেন: অন্তর্নিহিত বক্তব্যগুলো আসলেই চিন্তার বিষয় !!
রম্য আরো একটু সাবলীল হলে পাঠকরা বেশি মজা পেত।

১২ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ১১:০৬

আখেনাটেন বলেছেন: অন্তর্নিহিত বক্তব্যগুলো আসলেই চিন্তার বিষয় !! -- চিন্তা কম করলেই মনে হয় লালে লাল হওয়া থেকে ঝুঁকিমুক্ত থাকা যাবে। :D

স্যাটায়ারগুলোতে মনে হয় একটু রসের চেয়ে কষ বেশি থাকে। তবে আরো সাবলীল হতে পারত। হঠাৎ মনে হওয়াতে লিখে ফেলা। পরিমার্জিত হলে হয়তবা আর একটু গোছানো হত।

সুন্দর মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ ব্লগার সুমন কর। ভালো থাকুন। মশা থেকে দূরে থাকুন। :P

৯| ১২ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ১০:৩২

নীলপরি বলেছেন: আপনার কল্পনাশক্তি অসাধারণ । খুব ভালো লাগলো ।

১২ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ১১:০৮

আখেনাটেন বলেছেন: প্রশংসাটুকু লুফে নিলাম ব্লগার নীলপরি।

লেখাটুকু ভালো লেগেছে জেনে অাপ্লুত হলাম।

ভালো থাকুন। মরটিন বুস্টার পাশে রাখুন। :D

১০| ১২ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ১১:৫৫

মাহমুদুর রহমান সুজন বলেছেন: সকল ইউনিভারসিটিতে একেকটি ডিজিটাল ল্যাব চাই মশকদের উন্নয়নের জন্য।

১৩ ই মার্চ, ২০১৮ দুপুর ১২:৪৪

আখেনাটেন বলেছেন: সকল ইউনিভারসিটিতে একেকটি ডিজিটাল ল্যাব চাই মশকদের উন্নয়নের জন্য। -- এখনও বাকী আছে; সোনার মশকছাত্রকূল গোটা ভার্সিটিই তো ডিজিটাল ল্যাব বানিয়েছে নিজেদের উন্নয়নের স্বার্থে। :)

মন্তব্যের জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

১১| ১৩ ই মার্চ, ২০১৮ সকাল ৯:৪৬

মোস্তফা সোহেল বলেছেন: রম্য ভাল লেগেছে ভাইয়া।

১৩ ই মার্চ, ২০১৮ দুপুর ১২:৫৪

আখেনাটেন বলেছেন: ধন্যবাদ ব্লগার মোস্তফা সোহেল।

ভালো থাকুন।

১২| ১৩ ই মার্চ, ২০১৮ দুপুর ১২:০৬

সামিয়া বলেছেন: হাহাহা মজার পোস্ট :D

১৩ ই মার্চ, ২০১৮ দুপুর ১২:৫৫

আখেনাটেন বলেছেন: পড়ে ভালো লেগেছে জেনে খুশি হলাম।

শুভকামনা ব্লগার সামিয়া।

১৩| ১৩ ই মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৩:৫৯

নীল আকাশ বলেছেন: আপনার কল্পনাশক্তি অতুলনীয় । দারুন লিখেছেন । মাদার অফ মসকিউনিটি। মসককুলের মানষ কন্যা। চরম । ১০ এ ১০০।

১৩ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ১০:৫০

আখেনাটেন বলেছেন: 'মাদার অব মশোক্রেসী'র পক্ষ থেকে এক গামলা শুভেচ্ছা রইল আপনার এই সুন্দর মন্তব্যের জন্য ব্লগার নীলআকা৩৯। :D

ভালো থাকুন। সাথে মরটিন বুস্টার রাখুন।

১৪| ১৩ ই মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৫:১৩

প্রামানিক বলেছেন: চিকন গুনিয়ায় আমারে কাইত কইরা ফালাইছে ভাই, কাজেই মশারে ডরাই।

১৩ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ১১:৩৮

আখেনাটেন বলেছেন: চিকন গুনিয়ায় আমারে কাইত কইরা ফালাইছে ভাই, কাজেই মশারে ডরাই। -- হা হা হা; মশারে কে ডরায় না। কার এত বুকের পাঠা?

ধন্যবাদ প্রামানিক ভাই মন্তব্যের জন্য।



১৫| ১৩ ই মার্চ, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:০৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


বেকুব জাতিদের জীবনের সবদিকই বিশৃংখল থাকে

১৩ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ১১:৩৯

আখেনাটেন বলেছেন: জাতির এই বেকুবি কবে নিরসন হবে? কোন লক্ষণ কি দেখা যাচ্ছে?

১৬| ১৩ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ৯:৩৭

রুদ্র নাহিদ বলেছেন: অসাধারণ লেখা। সূক্ষ্মভাবে দেশের সার্বিক অবস্থা তুলে ধরেছেন। আরেক পর্ব লেখেন। আরেকটু সাবধানে থাকবেন মশরা আপনার উপর অতর্কিত হামলা না করলেই হয়।

১৩ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ১১:৪৪

আখেনাটেন বলেছেন: অনেকের কিন্তু এ লেখা ভালো লাগবে না। আপনার ভালো লেগেছে কারণ আপনিও দেশ নিয়ে ভাবছেন। সবাই দেশের মঙ্গল কামনা করলে মশা-মাছিরা এমনিতেই বিলীন হয়ে যাবে

ধন্যবাদ রুদ্র নাহিদ।

ভালো থাকুন।

১৭| ১৩ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ১০:০১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: শোনেন আমি কিন্তু কিচ্ছু বুঝি নাই কিসের আড়ালে কি কইতে চাইছেন :||
৫৭ থুক্কু ৩২ আমি গুনতে জানি /:)

উস্তাদ শেষ রাইতে আবার ও থুক্কু শেষে যা দিলেন একদম উস্তাদী ছবি :P

১৩ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ১১:৪৯

আখেনাটেন বলেছেন: হা হা হা। ৩২ এর চিন্তায় তো মুখের জবান পেটেই থাকছে। কিছুই বাহির না হলে তো মনে হয় পেট ফেটে যাবে চাপে। তাই কিছু উগরে দিলাম। :(

মশক বাহিনী লালে লাল করার জন্য আসলে কি আর করার আছে? :((

ধন্যবাদ মনিরাপা। ভালো থাকুন। কয়েল জ্বালিয়ে রাখুন। :P

১৮| ১৩ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ১১:৫৫

শাহিন বিন রফিক বলেছেন: সেই রকম লেখা একখানা। 10 out of 10

১৮ ই মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৫:৪৩

আখেনাটেন বলেছেন: খুশি হলুম।

ধন্যবাদ ব্লগার শাহিন বিন রফিক।

ভালো থাকুন।

১৯| ১৪ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ১:২০

ওমেরা বলেছেন: মশকরানী রাজনীতি বেশ ভাল বুঝে। ভাল লাগল রম্যর আড়ালের কম্য।

১৮ ই মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৫:৪৪

আখেনাটেন বলেছেন: ধন্যবাদ ওমেরা।

২০| ১৪ ই মার্চ, ২০১৮ ভোর ৫:৫৪

মলাসইলমুইনা বলেছেন: লেখা ভালো লাগলো | আমাদের দেশের মশাগুলোর উৎপাত যদি শেষ করা যেত এদের চিৎকাত করে দিয়ে !

১৮ ই মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৫:৪৬

আখেনাটেন বলেছেন: আমাদের দেশের মশাগুলোর উৎপাত যদি শেষ করা যেত এদের চিৎকাত করে দিয়ে ! -- এ শেষ হবার নয়। বছরের পর বছর এদের প্যাঁনপ্যাঁনানি ও হুল ফুটানো বেড়েই চলেছে।

মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ ব্লগার মলাসইলমুইনা।

২১| ১৫ ই মার্চ, ২০১৮ দুপুর ১:৪৩

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
মশককূল যদি জানতে পারে তাদের নিয়ে আবার রম্য হচ্ছে তবে কিন্তু

তারা আরও সচেতন হবে আরও বিষা্কত হুল ফুটাবে। আপনিও ছাড় পাবেন না। হা। হা। হা......................


++++

১৮ ই মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৫:৪৯

আখেনাটেন বলেছেন: মশককূল যদি জানতে পারে তাদের নিয়ে আবার রম্য হচ্ছে তবে কিন্তু -- ভয়ের কথা। :((

কিছু না বললে, না করলে তো মশাদের উৎপাত দিন দিন বেড়েই যাবে ভয়ঙ্করভাবে...।

মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ মো: মাইদুল সরকার।

২২| ১৭ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ২:৫২

জাহিদ অনিক বলেছেন:

সায়টায়ার হিসেবে ঠিক আছে।
তবে সুমন দা যেমন বলেছেন, রম্য আরো একটু সাবলীল হলে পাঠকরা বেশি মজা পেত।

১৮ ই মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৫:৫১

আখেনাটেন বলেছেন: ঠিক বলেছেন।

রম্য হিসেবে লিখলে হয়ত আর একটু রস দেওয়া যেত।

ভালো থাকুন ব্লগার জাহিদ অনিক।

২৩| ১৮ ই মার্চ, ২০১৮ রাত ১০:৪৮

ডঃ এম এ আলী বলেছেন:
মশকীয় গোলটোবিলে অনেক চমৎকার আলোচনা দেখে বেশ মঝা পাওয়া গেল ।
এবার মশককুল ধংস করে ডেঙ্গু আর চিকনবুনিয়া দমন না হয়ে আর যায় কোথায়!!!!
মারহাবা গুণী সব বিশেষজ্ঞ আর মন্ত্রীকুলের !!!! X(

যদিও crazy শুনায়, তথাপি উল্লেখ করা যায় যে জৈবপ্রযুক্তি কোম্পানী Oxitec has been breeding and releasing millions of mosquitoes in dengue hot spots, to keep the deadly disease in check. কোম্পানীটি ব্রাজিলে প্রতি সপ্তাহে ৮০০০০০ জেনিটিকেলী মডিফাইড মশা জন্ম দিয়ে ছড়িয়ে দিচ্ছে । সিংগাপুরও নাকি এই প্রযুক্তি ব্যবহার করছে । প্রযুক্তিটি কিভাবে কাজ করে তা এই বৈঠকে আলোচনা করার লক্ষ্যে আলোচকদের সুবিধার্থে নীচে দেয়া হল । জানিনা মহাজ্ঞানী আলোচকগন বিষয়টি কিভাবে নেন ।

অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইল

২১ শে মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৪:৪৪

আখেনাটেন বলেছেন: মশকীয় গোলটোবিলে অনেক চমৎকার আলোচনা দেখে বেশ মঝা পাওয়া গেল ।
এবার মশককুল ধংস করে ডেঙ্গু আর চিকনবুনিয়া দমন না হয়ে আর যায় কোথায়!!!!
মারহাবা গুণী সব বিশেষজ্ঞ আর মন্ত্রীকুলের !!!! X(
-- হা হা হা। মশককূলেরা কী রোগ বিস্তার থেকে আমাদের নিস্তার দিবে?

হ্যাঁ, টেকনোলজির উন্নতিতে হয়তবা একদিন এই সব মশারা দেশছাড়া হবে কিংবা হুল ফুটাতে পারবে না।
এখন কথা হচ্ছে অাসল মশারা না হয় বায়োটেকের কারসাজিতে কুপোকাত হলো; কিন্তু নকল মশারা কোন টেকের কারসাজিতে কুপোকাত করা যেতে পারে? :(

আপনার চিরাচরিত চমৎকার মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা রইল প্রিয় ব্লগার।

ভালো থাকুন নিরন্তর। আপনার শরীর এখন কেমন?

২৪| ১৯ শে মার্চ, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৪০

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:

বেশ উপভোগ্য রম্য,
ধন্যবাদ লেখক।

২১ শে মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৪:৪৫

আখেনাটেন বলেছেন: লেখা ভালো লেগেছে জেনে খুশি হলাম।

মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা রইল নূরু ভাই।

ভালো থাকুন।

২৫| ০১ লা এপ্রিল, ২০১৮ সকাল ১০:১৯

ভূত গোয়েন্দা বলেছেন: ভালো ছিলো ধন্যবাদ লেখা লেখির জন্য নতুন একটি ব্লগ খোলা হয়েছে যারা লিখতে পছন্দ করেন কন্ট্রিবিউট করবেন সবাই হরর গল্প আর অনন্য বাংলা গল্প

০১ লা এপ্রিল, ২০১৮ বিকাল ৩:৩৪

আখেনাটেন বলেছেন: ধন্যবাদ।

তবে এখানেই লেখালেখি করে হাত পাকালে আপনার পাঠক ওখানেও পাবেন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.