নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

ঢাবিয়ান

ঢাবিয়ান › বিস্তারিত পোস্টঃ

অবশেষে র‌্যাংকিং পেলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়!

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২৩

এক নিউজ পোর্টালে উপড়ের শিরোনামটা দেখতে পেয়ে খুশি হয়ে ভাবলাম যে যাক শেষ পর্যন্ত সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের কাতারে আবার সামিল হতে পেরেছে।কিন্ত ভেতরের খবরে গিয়ে দেখি র‌্যাংকিং ১০০০+ তাও আবার সেটা ঠিক কত নাম্বারে তা জানানো হয়নিএই তালিকায় তিনশ থেকে শুরু করে এক হাজারের মধ্যে রয়েছে ভারতের ৩৬টি বিশ্ববিদ্যালয় , পাকিস্তানের ৭টি বিশ্ববিদ্যালয়।

অথচ ২০১৬ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ছিলো ৬শ থেকে আটশর মধ্যে। তবে এর বছর দুই পরেই এটির অবস্থান হঠাৎই নেমে যায়। কেন এই অধঃপতন তার কারন কি অনুসন্ধান করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকবৃন্দ? না করেননি। উলটো ঢাবি অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত অভিযোগ করেন, ' র‌্যাংকিং প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের ৪৫ হাজার ডলারের আর্থিক দাবি মেটাতে না পারায় র‌্যাংকিং এ যুক্ত হতে পারেনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। অথচ টাইমস হায়ার এডুকেশন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে জানা গেলো, সংস্থাটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে কোন আর্থিক দাবি করেনি, বরং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে ৯ বার ইমেইলে তাগাদা দিয়েও সাড়া পায়নি টাইমস হায়ার এডুকেশন কর্তৃপক্ষ। (সুত্র প্রিয় ডট কম )

তারপরেও বিদেশে অবস্থানরত প্রাক্তন কিছু শিক্ষার্থীর অদম্য প্রচেষ্টায় এটলিস্ট ১০০০+ র‌্যাংকিং এ নাম ঢোকাতে সমর্থ হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। অথচ ৫০০ র মাঝে যাওয়ার মত ক্ষমতা আছে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের। বিদেশের নামকরা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি করা প্রচুর শিক্ষক এখনো এই বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করছে।প্রথমালোয় এসেছে যে '' আগের বছরগুলোর তুলনায় গবেষণা, উদ্ধৃতি এবং আয়- এই তিনটি খাতে উন্নতি হলেও ২০১৬ সালের পর থেকে ব্যাপকহারে নেমে গেছে শিক্ষার পরিবেশের গ্রাফ চিত্র।


এক ডাকসু নির্বাচনই অবস্য যথেষ্ঠ ঢাবির শিক্ষার পরিবেশ এর গ্রাফ এক ধাক্কায় নীচে নামানোর জন্য। শিক্ষকদের হাতে নাতে ভোট ডাকাতির যে সব চিত্র সোস্যাল মিডিয়ায় এসেছে ,তাতো শুধু আমরা নই, বিদেশীরাও দেখেছে। দলীয় রাজনীতি বিশ্ববিদ্যালয়ে আগেও ছিল কিন্ত এখনকার মত নোংরা ও কদর্য কখনই ছিল না। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার পরিবেশের গ্রাফ এর অধঃপতনের দায় এককভাবে এর কিছু নীতিহীন, বিবেকশূন্য শিক্ষকমন্ডলীর।

মন্তব্য ২০ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (২০) মন্তব্য লিখুন

১| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৪০

রাজীব নুর বলেছেন: আমাদের দেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছেলে মেয়েরা চাকরীর ক্ষেত্রে ভালো করে। কিন্তু মানের দিক থেকে কেন যে উন্নত হচ্ছে না !!!

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩৪

ঢাবিয়ান বলেছেন: বিদেশে উচ্চশিক্ষা শেষে ভাল চাকুরি নিয়ে , সেখানে সেটেল হওয়া প্রবাসীর মধ্যেও ঢাবির শিক্ষার্থীই বেশী। আমি নিজে এই প্রতিষ্ঠানের সাবেক শিক্ষার্থী হিসেবে জানি যে প্রচুর ভাল শিক্ষক আছে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে যারা নিরবে শিক্ষাদান করে যাচ্ছে। রিসার্চ হচ্ছে, বিদেশী ইউনিভার্সেসিটির শিক্ষকদের আমন্ত্রন জানিয়ে সেই সব রিসার্চের এর বিষয়ে সেমিনার হচ্ছে ,অনেকের গবেশনাপত্র বিদেশের রিসার্চ জার্নালে নিয়মিত ছাপা হচ্ছে। কিন্ত মুশকিল হচ্ছে এইসব শিক্ষকদের হাতে কোন ক্ষমতা নেই। কতিপয় বিবেকশূন্য শিক্ষক যাদের হাতে রয়েছে প্রসাশনিক ক্ষমতা, তাদের কারনে শিক্ষার পরিবেশের গ্রাফ দিনকে দিন নীচে নামছে।

২| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:০০

চাঁদগাজী বলেছেন:



এখন থেকে আমরা আপনাকে দাম দেবো।

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩৫

ঢাবিয়ান বলেছেন: অন্যের মতামতের দাম দিলে আপনার জন্যই ভাল। তাহলে আর ঘন ঘন ব্যান খেতে হবে না।

৩| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১৫

আরোগ্য বলেছেন: ভাগ্যিস হাজারের মধ্যে আছে। শিক্ষা ব্যবস্হার যে গতি তাতে আগামীতে কোথায় নামবে কে জানে।

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪০

ঢাবিয়ান বলেছেন: হাজারের মধ্যে নাই। বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বায়ত্বশাষন প্রতিষ্ঠিত না হলে, আগামীতে ২০০০ এর নিচে নামলেও অবাক হবার কিছু নাই।

৪| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে কেহ র‌্যাংকিং'এ রাখে না; আপনার মতামতের মুল্য আমি কিভাবে দেবো বলেন? আজকে থেকে দিতে হবে, হয়তো।

৫| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৮

জগতারন বলেছেন:
বিশ্ববিদ্যালয় র‌্যাংকিং কী?
তা-ই আমাদের দেশের অনেকে জানে না।
আশা করি এ ব্যাপারে আরেকবার ব্লগার চাঁদগাজী সাহেব বুঝিয়ে লিখলে ভালো হতো।

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:১৮

ঢাবিয়ান বলেছেন: উনার ও কি জানা আছে ?

৬| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৮

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: ঢাবি অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত প্রমাণ করুক র‌্যাংকিং প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ৪৫ হাজার ডলার আর্থিক দাবি করেছে, র‌্যাংকিং প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ সরকার মামরা করে দিবে। অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত তিনি কোথায়? এই কথাতো তার প্রমাণ করতে হবে। মুখের কথা বলে দিলেতো হবে না, দেশের সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠানের সম্পর্কে এমন কথা বলে র‌্যাংকিং প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান পার পেয়ে যাবে - তার বিরুদ্ধে মিলিয়ন ডলারের মামলা হবে, অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত তিনি কোথায়?

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:২৯

ঢাবিয়ান বলেছেন: তিনি পরবর্তীতে তার বক্তব্য প্র্রত্যাহার করেছেন।

৭| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৯

হাফিজ বিন শামসী বলেছেন:
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের র্যাংকিং থেকেও বেশি গুরুত্ব বাংলাদেশের মানুষের মানবিকতার র্যাংকিং। আগে মানবতার র্যাঙ্কিং বাড়ানোর প্রয়োজন। মানবতায় র্যাকিং যদি ভাল হয় তাহলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের র্যাকিং উপরে উঠে আসবে।

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:৩৬

ঢাবিয়ান বলেছেন: যে সব খবরে আমাদের পত্রিকার পাতা ভরা থাকে, তাতে মানবতার র্যাাংকিং হলে উলটো দিক থেকে আমাদের শীীর্সে যাবার সম্ভাবনা আছে।

৮| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:২৩

মা.হাসান বলেছেন: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের র‌্যাংকিং নিয়ে আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র চলছে যার পিছনে বিএনপি জামাত জড়িত বলে সন্দেহ করছি। র‌্যাংকিঙের বিষয়টি টাইমস হায়ার এডুকেশনের মতো বিতর্কিত প্রতিষ্ঠানের কাছে ছেড়ে না দিয়ে ছাত্রলীগের কাছে অথবা সিআরআই এর কাছে ছেড়ে দিলে ওনারা নিরপেক্ষ ভাবে যাচাই করলে দেখা যাবে গত দশ বছরে ঢাকা সহ দেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের র‌্যাংকিঙে অভাবনিয় উন্নতি হয়েছে। বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অন্তত প্রথম ৫০টা বাংলাদেশে থাকার কথা। টাইমসের র‌্যাংকিঙকে পাত্তা দেয়ার দরকার নাই।

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:৫১

ঢাবিয়ান বলেছেন: নির্ঘাত টাইমস র্য্যাাংকিং ষঢ়যন্ত্রের অংশ হিসেবে যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ডকে ১ নাম্বারে স্থান দিয়েছে প্রাচ্যের অক্সফোর্ড ঢাাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম কেটে দিয়ে :)

৯| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:৪৩

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: প্রাচ্যের অক্সফোর্ডের এ অবস্থা মেনে নেয়ার মত নয়। শিক্ষকবৃন্দের ডেডিকেশনের অভাব । রাজনীতি নোংরা চর্চা এটির বারোটা বাজিয়ে দিলো। তবুতো র‌্যাংকিং এ আছে ।

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:০৩

ঢাবিয়ান বলেছেন: মেধাবী শিক্ষার্থী আছে, উচ্চ যোগ্যতাা সম্পন্ন শিক্ষক আছে , ভাল আর্থিক বরাদ্দও আছে। কিন্ত আসল জিনিষটাই নাই যার নাম বিশ্ববিদ্যাালয়ের স্বায়ত্বশাষন। দেশের কুৎসিত রাাজনীতির প্রভাব থেকে মুক্ত হতে না পারলে কোনদিনই এর পুর্বের রেপুটেশন ফিরে আসবে না।

১০| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:৪৭

শাহাদাৎ হোসাইন (সত্যের ছায়া) বলেছেন: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিঙ্গারার খুব নামডাক আছে। সেজন্য র‍্যাংকিং এ উন্নতি করতে পারছেনা।

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:০৬

ঢাবিয়ান বলেছেন: দশ টাকার চা সিঙ্গারার ব্যপারটা টাইমস র‍্যাংকিং এর বিবেচনা করা উচিৎৎ ছিল :)

১১| ২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩৬

খায়রুল আহসান বলেছেন: শিক্ষায় র‍্যাঙ্কিং না থাকলে কি হবে, ছা, ছপ আর ছমুছাতে তো ১ নম্বরেই নাম আছে!!!! :)

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.