নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সম্পাদক, শিল্প ও সাহিত্য বিষয়ক ত্রৈমাসিক \'মেঘফুল\'। প্রতিষ্ঠাতা স্বেচ্ছাসেবী মানবিক সংগঠন \'এক রঙ্গা এক ঘুড়ি\'।

নীলসাধু

আমি খুব সহজ এবং তার চেয়েও বেশী সাধারন একজন মানুষ । আইটি প্রফেশনাল হিসেবে কাজ করছি। টুকটাক ছাইপাশ কিছু লেখালেখির অভ্যাস আছে। মানুষকে ভালবাসি। বই সঙ্গে থাকলে আমার আর কিছু না হলেও হয়। ভালো লাগে ঘুরে বেড়াতে। ভালবাসি প্রকৃতি; অবারিত সবুজ প্রান্তর। বর্ষায় থৈ থৈ পানিতে দুকুল উপচেপরা নদী আমাকে টানে খুব। ব্যাক্তিগতভাবে বাউল, সাধক, সাধুদের প্রতি আমার দুর্বলতা আছে। তাই নামের শেষে সাধু। এই নামেই আমি লেখালেখি করি। আমার ব্লগে আসার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। শুভকামনা রইলো। ভালো থাকুন সবসময়। শুভ ব্লগিং। ই-মেইলঃ [email protected]

নীলসাধু › বিস্তারিত পোস্টঃ

আদিম সন্তরণে কাটে প্রণয়ের পুরো রাত!

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ রাত ১০:৩০

দোল পূর্ণিমার জ্যোৎস্না রাতে

অরণ্য জুড়ে ছড়িয়ে পড়ে

অপেক্ষায় থাকা রাতা জাগা পরিযায়ী পাখির বিবাগী ডাক!

আমি তবু জোছনার মালা হাতে রমণীর খুব কাছেই বসে থাকি।

নাক-ফুল ছুঁয়ে

চাঁদের আলোর ঝিলিক পড়ে আনত চোখে;

বিভব বিস্ময় নিয়ে দেখি

সেই চোখে একটি নদী তার সকল দুঃখের পসরা সাজিয়ে বসে আছে

অথচ এই চোখে উড়ে বেড়িয়েছে চৈত্রের মহুয়া মাখা দুপুরের শতেক প্রজাপতি!



নারকেলের চিরল পাতার ফাঁক গলে

চাঁদটা একসময় সাদা রঙের একটা টিপ হয়ে

রমণীর কপাল-জুড়ে আভা ছড়াতে থাকে! নক্ষত্রের মতন তার ঝুমকো দুল নেচে উঠে! বুনো শালিক এক ঝটকায় পাখা মেলে;

রমণী হাত বাড়িয়ে জোছনার মালাটি ধরতেই স্পষ্ট হতে থাকে বুকের জমিন;

বেভুলো পথিক খুব করে মনে করতে চায় সভ্যতার চেনা মানচিত্রের রেখাগুলো!



সপ্তর্ষির চোখ ফাঁকি দিয়ে এলোমেলো চৈতালী বাতাস

রমণীর নিরাভরণ শরীর-জুড়ে মেখে দিয়ে যায় মুকুলের কাচা ঘ্রাণ,

নতুন গজিয়ে উঠা পাতাদের মৃদু ফিসফাস

মথিত স্পর্শে নাচে যুগল কবুতর;

বিস্তৃত এলো-চুলে রাত পাশ ফিরে শোয়!



মদির রাত জুড়েই

জোছনার মালাটি আলো দিতে থাকে বেভুলো পথিক আর সিক্ত রমণীকে! শিশিরের ভেজা জলে আদিম সন্তরণে কাটে প্রণয়ের পুরো রাত!

মন্তব্য ২২ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (২২) মন্তব্য লিখুন

১| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ রাত ১০:৫৫

স্বপ্নবাজ অভি বলেছেন: সপ্তর্ষির চোখ ফাঁকি দিয়ে এলোমেলো চৈতালী বাতাস
রমণীর নিরাভরণ শরীর-জুড়ে মেখে দিয়ে যায় মুকুলের কাচা ঘ্রাণ,
নতুন গজিয়ে উঠা পাতাদের মৃদু ফিসফাস
মথিত স্পর্শে নাচে যুগল কবুতর;
বিস্তৃত এলো-চুলে রাত পাশ ফিরে শোয়!


পরিপুর্ণ , স্নিগ্ধ একটা কবিতা, কবি !
মুগ্ধপাঠ !

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ রাত ১১:০২

নীলসাধু বলেছেন: ধন্যবাদ।
ভালোবাসা জানবেন।



শুভকামনা নিরন্তর। সুন্দর হোক সময়!

২| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ রাত ১১:২৩

ফাতিন আরফি বলেছেন: চমৎকার নীল দা, আপনার প্রেমের কবিতাগুলো অনেক অনেক হৃদয়স্পর্সী।


ভালো লাগা জানিয়ে গেলাম।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ রাত ১১:৪১

নীলসাধু বলেছেন:
শুভেচ্ছা সুপ্রিয় কবি ফাতিন
ভালোবাসা জেনো।

শুভকামনা নিরন্তর

৩| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ রাত ১১:২৯

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: মুগ্ধপাঠ! অনেক ভালো লাগল।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ রাত ১১:৪২

নীলসাধু বলেছেন:
শুভেচ্ছা সুপ্রিয় কাল্পনিক ভালোবাসা
আশা করছি কুশলে কাটছে দিন

শুভকামনা নিরন্তর

৪| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ রাত ১১:৫০

এহসান সাবির বলেছেন: কবিতা কি অদ্ভুত রসায়ন...............

ভালোলাগা রইল।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ দুপুর ১:৩৫

নীলসাধু বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই

মন্তব্যে ভালো লাগা রইল।
সুন্দর থাকুন।

৫| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ রাত ১১:৫৯

একজন আরমান বলেছেন:
নারকেলের চিরল পাতার ফাঁক গলে
চাঁদটা একসময় সাদা রঙের একটা টিপ হয়ে
রমণীর কপাল-জুড়ে আভা ছড়াতে থাকে! নক্ষত্রের মতন তার ঝুমকো দুল নেচে উঠে!


আপনার কবিতায় দারুণ, দুর্দান্ত, অসাধারণ বিশেষণগুলিও খুব ছোট মনে হয়।

শুভকামনা নীল'দা।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ দুপুর ১:৩৭

নীলসাধু বলেছেন: শুভেচ্ছা সুপ্রিয় আরমান।
ভালোবাসা রইল।

সুন্দর কাটুক আগামীর দিনগুলো :)

৬| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ রাত ১২:০৩

স্নিগ্ধ শোভন বলেছেন: সুন্দর লাগল ++++++

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ দুপুর ১:৩০

নীলসাধু বলেছেন: শুভেচ্ছা নিরন্তর।

৭| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ রাত ১:২৮

দিকভ্রান্ত*পথিক বলেছেন: বেশ লাগলো! শুভকামনা!!

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ দুপুর ১:২৯

নীলসাধু বলেছেন: ধন্যবাদ।
শুভেচ্ছা আপনার জন্য!
ভালো থাকবেন।

৮| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ দুপুর ১২:১০

লাবনী আক্তার বলেছেন: চমৎকার লিখেছেন।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ দুপুর ১২:৫৪

নীলসাধু বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে।

ভালো থাকবেন। শুভেছা রইল

৯| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ সন্ধ্যা ৭:২৫

না পারভীন বলেছেন: বাহ , বেশ সুন্দর ।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ রাত ৮:০৬

নীলসাধু বলেছেন: ধন্যবাদ!

শুভেচ্ছা রইল।
ভালোত থাকবেন। :)

১০| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ রাত ১১:১৬

কান্ডারি অথর্ব বলেছেন:



নারকেলের চিরল পাতার ফাঁক গলে
চাঁদটা একসময় সাদা রঙের একটা টিপ হয়ে
রমণীর কপাল-জুড়ে আভা ছড়াতে থাকে! নক্ষত্রের মতন তার ঝুমকো দুল নেচে উঠে!



চমৎকার +++++

০৪ ঠা এপ্রিল, ২০১৫ দুপুর ১:০৭

নীলসাধু বলেছেন: শুভেচ্ছা ভালোবাসা রইল।

১১| ১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৩ বিকাল ৫:০০

সুমন কর বলেছেন: ভাল লাগল।

০৪ ঠা এপ্রিল, ২০১৫ দুপুর ১:০৮

নীলসাধু বলেছেন: ধন্যবাদ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.