নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সম্পাদক, শিল্প ও সাহিত্য বিষয়ক ত্রৈমাসিক \'মেঘফুল\'। প্রতিষ্ঠাতা স্বেচ্ছাসেবী মানবিক সংগঠন \'এক রঙ্গা এক ঘুড়ি\'।

নীলসাধু

আমি খুব সহজ এবং তার চেয়েও বেশী সাধারন একজন মানুষ । আইটি প্রফেশনাল হিসেবে কাজ করছি। টুকটাক ছাইপাশ কিছু লেখালেখির অভ্যাস আছে। মানুষকে ভালবাসি। বই সঙ্গে থাকলে আমার আর কিছু না হলেও হয়। ভালো লাগে ঘুরে বেড়াতে। ভালবাসি প্রকৃতি; অবারিত সবুজ প্রান্তর। বর্ষায় থৈ থৈ পানিতে দুকুল উপচেপরা নদী আমাকে টানে খুব। ব্যাক্তিগতভাবে বাউল, সাধক, সাধুদের প্রতি আমার দুর্বলতা আছে। তাই নামের শেষে সাধু। এই নামেই আমি লেখালেখি করি। আমার ব্লগে আসার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। শুভকামনা রইলো। ভালো থাকুন সবসময়। শুভ ব্লগিং। ই-মেইলঃ [email protected]

নীলসাধু › বিস্তারিত পোস্টঃ

সবুজ শুদ্ধ সুন্দর আবেগী সহজ সরল মানুষের দেশটি কোথায় হারিয়ে গেলো!!

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৮ দুপুর ২:১২



পরিবহন শ্রমিকদের প্রতিরোধ করতে হবে এখনই!
বাসে ধর্ষণ এবং ধর্ষণ প্রচেষ্টার বেশ কিছু খবরে শঙ্কা প্রকাশ করার দিন শেষ হয়েছে বলে মনে করি আমি। এখন প্রয়োজন প্রতিরোধ। আগে মাঝে মধ্যে এমন খবর দেখা গেলেও গত কয়েক মাসে এই হার বেড়েছে বলে মনে হচ্ছে। এখন প্রতি সপ্তাহেই এমন একটি খবর দেখছি যেখানে পরিবহন শ্রমিক, বাসের হেল্পার বাস ড্রাইভারের যোগসাজশে এমন ঘটনা ঘটছে।

কি অস্বাভাবিক বিষয় কিন্তু অবলীলায় আমাদের এই শহরেই ঘটে যাচ্ছে। আইনের যথাযথ প্রয়োগ নিশ্চিতের পাশাপাশি দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করতে ব্যর্থ হলে এই প্রবণতা আরও বাড়বে। অপরাধীরা ভেবে নেবে এটা আর এমন কি! আমারতো মনে হচ্ছে এখনই অবস্থা কিছুটা সেই পর্যায়ে চলে গেছে
নাহলে তাদের এই সাহস এলো কোথা থেকে?

আইন কানুন শাস্তি এসবের পাশাপাশি সচেতনতামূলক প্রচারণা এবং তাদেরকে এ হেন জঘন্য কাজ হতে বিরত রাখতে আরও যা করা প্রয়োজন সে সব পদক্ষেপ নেবার জন্য সংশ্লিষ্ট মহলের প্রতি আহবান জানাই।

এভাবে প্রতিটি ক্ষেত্রে আমরা কেন শুধু নীচের দিকেই নামছি এটাও ভাবনার বিষয়!
দু দিন আগে দেখলাম পরকীয়া মত্ত রমণী তার প্রেমিকের যোগসাজশে তার নিজের সন্তানের গায়েই কেরোসিন ঢেলে দিয়ে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে।
কি ভয়ংকর ঘটনা।
অধঃপতনে এতো সুখ আমাদের না দেখলে কেউ বিশ্বাস করবে না। আমরা যেন অধঃপতিত হতে পেরেই সুখী।
ছি ছি!

সন্তান হত্যা করছে তার পিতা মাতাকে। মা/বাবা হত্যা করছে নিজ সন্তানকে।
এ কোন অন্ধকার সময়ের মধ্যে পড়ে গেলাম আমরা?
এ কোন বাংলাদেশ?

সবুজ শুদ্ধ সুন্দর
আবেগী সহজ সরল মানুষের দেশটি কোথায় হারিয়ে গেলো!!

মন্তব্য ১৫ টি রেটিং +৪/-০

মন্তব্য (১৫) মন্তব্য লিখুন

১| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৮ দুপুর ২:৩২

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: মানুষ দিনদিন আত্মকেন্দ্রিক হয়ে পড়ছে। এসব অপকর্মের পেছনে আত্মকেন্দ্রিকতার ভূমিকা বেশ লক্ষণীয়। আগের মানুষ অনিচ্ছাসত্ত্বে আশেপাশের মানুষদের সাথে মিশতো। কোনো কাজ করবার পূর্বে পরিবার, সমাজের প্রতিক্রিয়া কী বা কেমন হতে পারে ভাবতো। এখন বাধ্য হয়ে কারো সাথে উঠাবসা করতে হয় না। ফলে সমালোচনা, ভালোমন্দ নিয়ে অতো ভাবছে না। যার যা ইচ্ছে করছে....

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৮ রাত ৮:৩৪

নীলসাধু বলেছেন: ধন্যবাদ।
এটা ঠিক বলেছেন। আসলেই আমরা আত্মকেন্দ্রিক হয়ে পড়েছি। নিজেরটা ছাড়া আর কিছু দেখি না ভাবি না বলি না। নিজ গুহায় বসবাস।

২| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৮ দুপুর ২:৪২

মো: নিজাম উদ্দিন মন্ডল বলেছেন:

মানুষ সার্টিফিকেট অর্জন করছে, কিন্তু মানবতা ও প্রকৃত মনুষত্ত্ব থেকে দুরে চলে যাচ্ছে।।

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৮ রাত ৮:৩৫

নীলসাধু বলেছেন: জ্বি।
ইতিহাস ঐতিহ্য কিন্তু বলে আমরা অতিথিপরায়ন বন্ধুবৎসল আমুদে জাতি ছিলাম। আর এখন কি এক অবস্থা। অধঃপতনের দিকে যাচ্ছি শুধু। প্রকৃত মানুষ আর নেই - চারপাশে দেখে তাই মনে হয়।

৩| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৮ দুপুর ২:৫৩

মোস্তফা সোহেল বলেছেন: সত্যি বাংলার মানুষ এখন আর সেই আগের মত সহজ-সরল নেই।

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৮ রাত ৮:৩৬

নীলসাধু বলেছেন: হুম। আফসোস।
তবে আমরা কি পারি না মানবিক একটি বাংলাদেশ গড়ে তুলতে?

৪| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৮ বিকাল ৩:২৭

ফকির আবদুল মালেক বলেছেন: আবেগী সহজ সরল মানুষগুলি অপরাধপ্রবণ হয়ে উঠছে, কেন? এ কারণ খুজতে হবে সকলে মিলে, প্রতিরোধ করতে হবে এ আগ্রাসন। কিভাবে?

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৮ রাত ৮:৩৯

নীলসাধু বলেছেন: জ্বি এটা গুরুত্ত্বপূর্ণ কথা বলেছেন। কেন হলো এমন। কেন মানুষগুলো বদলে গেলো।


ধন্যবাদ মালেক ভাই।

৫| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৮ বিকাল ৩:৩৬

রাজীব নুর বলেছেন: মানুষ হয়ে পড়েছে নিষ্ঠুর। তাদের মধ্যে কোনো মায়া মমতা দেখি না।
কেউ রাস্তায় মাথা ঘুরে পড়ে গেলে ধরে না।

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৮ রাত ৮:৩৭

নীলসাধু বলেছেন: হুম। সেই পরিবেশ আন্তরিকতা মায়া আর দেখা যায় না। মানুষ এখন অনেকটাই একা।
তার মাঝে মানবিক বোধ বুদ্ধি চিন্তা চেতনা যেন আর একেবারেই নেই।

৬| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:০২

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: একক পরিবার
ব্যাক্তিকেন্দ্রীকতা
অর্থগৃধ্নুতা
ধর্মহীনতা
অবাধ ভোগী জীবন বোধের বিস্তার
নীতি নৈতিকতাকে পাশ কাটিয়ে চলা
মুক্তবাজার অর্থনীতির বিষফল
অর্থই সাফল্যের মাপকাঠি চেতনার বিকাশ
মুক্ত মিডিয়ায় নগ্নতা, বহুগামিতা, পরকীয়ার ব্যাপক প্রচার
অপরাধ বিষয়ক অনুষ্ঠান গুলো দেখে দেখে অবচেতনেই অপরাধের বহুমাত্রিক ভাবনার উত্থান
নেশার যথেচ্ছার ছড়িয়ে পরা,
ক্ষমতার বলয়ে থাকলে নিরাপত্তার আশ্বাস
বিচারের দীর্ঘসূত্রিতা বা বিচার না হবার ভরসা

সব মিলেমিশে এক গহন অন্ধকারে হাটছে স্ব-দেশ!
মুক্তির আলো চাই।

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৮ রাত ৮:৩৮

নীলসাধু বলেছেন: ধন্যবাদ।
অনেক কিছু উঠে এসেছে আপনার মন্তব্যে। যা বাস্তবতা।

অবশ্যই আলো চাই আমরা। আমাদের বাংলাদেশ হবে শুদ্ধ সুন্দর মানবিক বাংলাদেশ।

৭| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৮ রাত ৯:৪৭

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: আসলেই অবাক লাগে। এই দেশের মানুষগুলো কত দ্রুতই না নিজেদের অধঃপতন ঘটালো! সরকার ও প্রশাসনের কাছে একটাই কামনা, এসব সামাজিক অপরাধের যেন দ্রুত ও কঠোর শাস্তি হয়। তবেই একটা পরিবর্তন হতে পারে...

৮| ১৭ ই এপ্রিল, ২০১৮ দুপুর ২:০৮

মাহমুদুর রহমান সুজন বলেছেন: নৈতিকতার অবনতি যেনো এখন মিছিল। পরিবার থেকে এই উদ্দ্যেগ নেওয়া দরকার আমার সন্তান আমার পরিবারের যাবতীয় সুখ দু:খ ভাগা ভাগি করে একে অপরকে সহযোগীতা করা চাই। কাউন্সিল করা ধরকার। একজন কখন হীনকাজগুলো করে যখন তার মনুষ্য বোধটুকু লোপ পায়।

৯| ১৯ শে এপ্রিল, ২০১৮ রাত ১১:৪৫

মো: হাসানূর রহমান রিজভী বলেছেন: সামাজিক মূল্যবোধের অভাব এবং আইনের নিষ্ক্রিয়তা অপরাধ প্রবণ জাতি হয়ে উঠতে আমাদের সহযোগিতা করছে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.