নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সম্পাদক, শিল্প ও সাহিত্য বিষয়ক ত্রৈমাসিক \'মেঘফুল\'। প্রতিষ্ঠাতা স্বেচ্ছাসেবী মানবিক সংগঠন \'এক রঙ্গা এক ঘুড়ি\'।

নীলসাধু

আমি খুব সহজ এবং তার চেয়েও বেশী সাধারন একজন মানুষ । আইটি প্রফেশনাল হিসেবে কাজ করছি। টুকটাক ছাইপাশ কিছু লেখালেখির অভ্যাস আছে। মানুষকে ভালবাসি। বই সঙ্গে থাকলে আমার আর কিছু না হলেও হয়। ভালো লাগে ঘুরে বেড়াতে। ভালবাসি প্রকৃতি; অবারিত সবুজ প্রান্তর। বর্ষায় থৈ থৈ পানিতে দুকুল উপচেপরা নদী আমাকে টানে খুব। ব্যাক্তিগতভাবে বাউল, সাধক, সাধুদের প্রতি আমার দুর্বলতা আছে। তাই নামের শেষে সাধু। এই নামেই আমি লেখালেখি করি। আমার ব্লগে আসার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। শুভকামনা রইলো। ভালো থাকুন সবসময়। শুভ ব্লগিং। ই-মেইলঃ [email protected]

নীলসাধু › বিস্তারিত পোস্টঃ

ঘুড়ি ফল উৎসব ২০১৮

০৭ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:০৫



ঢাকা মহানগরীর সুবিধা বঞ্চিত পথ শিশুদের নিয়ে অনেক সংগঠন কাজ করেন। ব্যক্তি উদ্যোগেও অনেকে নানা কার্যক্রম পরিচালনা করেন; এ ছাড়া রয়েছে NGO/DONOR সহ সরকারি নানা উদ্যোগ। কিন্তু আমরা স্বেচ্ছাসেবী মানবিক মানুষের সংগঠন 'এক রঙ্গা এক ঘুড়ি' থেকে 'ফল উৎসব' নামে যে আয়োজনটি করে আসছি তেমন কিছু চোখে পড়েনি। মধু মাসে তাদের অনেকেরই সামর্থ্যে কুলায় না বলে লিচু, আম জাম, কাঁঠাল, তাল আনারস এসব কিনে খেতে দেখিনি। তাই ঘুড়ি থেকে আমরা উদ্যোগ নিয়েছিলাম এমন আয়োজনের।

গত কয়েক বছর আমরা নির্দিষ্ট একটি দিনে একটি পিক আপ ভর্তি করে ফল মুল নিয়ে বেড়িয়ে পড়ি। পথের শিশুদের পাশাপাশি নানা পার্ক, স্টেশন, এখানে সেখানে ঘুরতে থাকা শিশুদের নিয়ে আমরা এসব ফলমূল খাই। কিছু দিয়ে আসি যেন পরে খেতে পারে।
ঢাকায় দুস্থ অসহায় বৃদ্ধ বৃদ্ধাও রয়েছে প্রচুর তাইও শিশুদের পাশাপাশি তাদের জন্যেও এই আয়োজন থাকে।

আমরা NGO নই, বড় কোণ প্রতিষ্ঠানও নই। বলা যায় সামান্য ফেসবুক গ্রুপ থেকেই এমন মানবিক কাজে যুক্ত হওয়া। এসব আয়োজনের তহবিল সাধারণত আমরা নিজেরাই যোগার করি। কিছুটা অংশ বন্ধু বান্ধব সহ শুভাকাঙ্ক্ষীদের বলে কয়ে নেই। এভাবেই আমরা ১১ বছর ধরে কাজ করে আসছি।

আগামী ২৯ তারিখ শুক্রবার আমরা পথে নামছি।
সঙ্গে থাকবে' পিক আপ ভর্তি আম জাম কাঁঠাল লিচু আনারস সহ মধুমাসের ফলমূল।
পুরো দিন ঢাকা মহানগরীর এখানে সেখানে ঘুরবো। শিশু সহ দুস্থ অসহায় বৃদ্ধ বৃদ্ধাদের নিয়ে মধু মাসের ফলমূল খাবো এবং খাওয়াবো। ইচ্ছে করলে যুক্ত হতে পারেন আপনি/আপনারাও।

কার্যক্রমে সহায়তা জমা দেবার শেষ তারিখ:
২৮ জুন ২০১৮

বিতরণ:
২৯ জুন, ২০১৮

বিকাশ একাউন্ট নাম্বার:
০১৭১১৩১০৪৭৬ [ঘুড়ির পারসোনাল নাম্বার]
০১৯৮১২৩৬৯৮৯ [ইকু - পারসোনাল নাম্বার]
০১৭৯৯০৪৪৭২৩ [মেহেদী তুষার - পারসোনাল নাম্বার]
০১৯৯৫৫২৯৬৫৪ [বিকাশ মার্চেন্ট একাউন্ট]
০১৯১৪৮৭৪৭০১৬ [ডাচ বাংলা রকেট]


ব্যাংক একাউন্ট:
Ek Ronga Ek Ghuri
AC: 0210035776
Janata Bank
Dhanmondi Corporate Branch
Dhaka, Bangladesh


যে কোন প্রয়োজনে 'এক রঙ্গা এক ঘুড়ি'র স্বেচ্ছাসেবী ইকবাল মাহমুদ ইকু (০১৯৮১২৩৬৯৮৯) এবং মেহেদী হাসান তুষার (০১৭৯৯০৪৪৭২৩) এর সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

যোগ দিতে পারেন আমাদের সাথে।
.
.
.

এক রঙ্গা এক ঘুড়ি || স্বেচ্ছাসেবী মানবিক মানুষের সংগঠন


গত বছরের আয়োজন নিয়ে ব্লগ পোষ্ট
http://www.somewhereinblog.net/blog/neelsadhoo/30196412

মন্তব্য ৮ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (৮) মন্তব্য লিখুন

১| ০৭ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:৩৬

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: দারুন উদ্যোগ!

কিন্তু রমজানের সারাদিন ফলমুল খেলে কেমন দেখায় না ;) :P

প্রান্তিকদের জন্য বিধান অবশ্য শিথিলযোগ্য :)
চলুক মহতী আয়োজন। মহত হৃদয়ের মানুষদের আল্লাহ দীর্ঘয়ু করুন এবং আরো বেশী সামর্থ্যবান করুন।

++++

০৭ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:০৬

নীলসাধু বলেছেন: ঈদের পর আয়োজন।
রমজানের কারণে আয়োজনের তারিখ পিছিয়ে জুন ২৯ করা হয়েছে এবছর।

শুভেচ্ছা :)

২| ০৭ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:৫৩

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: এটা তো খুব সুন্দর একটা কাজ।

০৭ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:০৬

নীলসাধু বলেছেন: আন্তরিক ধন্যবাদ :)

৩| ০৭ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:৫৫

রাজীব নুর বলেছেন: ভেরি গুড।

০৭ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:০৬

নীলসাধু বলেছেন: থ্যাংকু!

৪| ০৭ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:১৭

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: তারিখটাই খেয়াল করিনি :P :``>> :-B

সরি সরি সরি

দারুন হবে । শুক্রবার ছুটি থাকে যদি পারি তো ফোন দেবার ইচ্ছে রইল :)

৫| ০৭ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:৩৭

লাবণ্য ২ বলেছেন: ভালো লাগল।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.