নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

স্টিগমা

রাফিন জয়

স্টিগমা

রাফিন জয় › বিস্তারিত পোস্টঃ

বাজেট আর শুভঙ্করের ফাঁকি।

১২ ই জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১২



বাজেট মানেই এখন শুভঙ্করের ফাঁকি। উন্নয়ের জোয়ারে ভাসতে থাকা মর্কট জনগণ উন্নয়ন মানেই বুঝে শুধু দৃশ্যমান অবকাঠামো। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, গবেষণা ছাইপাঁশ তারা বুঝে না। বিশাল বাজেট হচ্ছে, সবচেয়ে বড় বাজেট কার্জকর ইত্যাদি ইত্যাদি বলে যারা প্রশান্তির ঢেঁকুর তুলছেন, তারা কি জানেন যে বাজেটের কতো শতাংশ বরাদ্দ কোন খাতে যাচ্ছে? প্যান্ডেমিক করোনায় অর্থমন্ত্রি যে মুখে ফেনা তুলে বললেন মহামারী করোনার কারণে হতে যাচ্ছে ভিন্ন ধরণের বাজেট, সেই ভিন্নতাটা কী? স্বাস্থ্য খাতে বেশি নজর দিয়ে বাজেট বৃদ্ধি করবেন? তো কোথায়? এবারের স্বাস্থ্য খাত প্রস্তাবিত মোট বাজেটের ৭.২ শতাংশ, মানে এপ্রক্সিম্যাটলি ২৯ হাজার কোটি টাকা। যা গতবারের চাইতে ৩ হাজার কোটি টাকার মতো বেড়েছে। গতবারের বাজেট ছিলো ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা। অন্যদিকে ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেট ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার। চোখে ধুলো লাগছে? লাগারই কথা। মোট বাজেটের কাছে স্বাস্থ্য খাত অবহেলাতেই পড়ে আছে। তো চলুন দেখে নেই কোন খাতে সবচে বেশি বরাদ্দ রয়েছে,
সামাজিক অবকাঠামো খাতে বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে ১ লাখ ৫৫ হাজার ৫৩৬ কোটি টাকা, যা মোট বরাদ্দের ২৭ দশমিক ৩৮ শতাংশ। যা গতবারের শংশোধিত বাজেটে ছিলো ১ লাখ ৩৯ হাজার ৫০৮। [সোর্সঃ The Daily Star]

বাজেটের দ্বিতীয় বৃহৎ বরাদ্দ প্রতিরক্ষা খাতে। ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের জন্য ৩৪ হাজার ৮৪২ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাবনা আনা হয়েছে। এই বরাদ্দ ২০১৯-২০ অর্থবছরের মূল বরাদ্দের চেয়ে দুই হাজার ৩২২ কোটি টাকা বেশি। [সোর্সঃ Dhaka Tribute]

এই বাজেটে কর-শুল্কের প্রভাব বুঝতে শুরু করবেন কয়েকদিনের মধ্যে। নিত্যপ্রয়োজনীয় সব পণ্যের দাম বাড়বে, মোবাইল ফোনের বিল বাড়বে, ইন্টারনেট খরচ বাড়বে। আর এই বিশাল বাজেটের টাকা রাষ্ট্র পাবে আপনার পকেট থেকেই। আপনার প্রত্যেকদিনের খরচ থেকে। যা রক্তচোষা জোঁকের মতো আপনার রক্ত খাবে আপনি জানবেনও না।

এখানে সবচেয়ে বেশি সাফারার হবে মধ্যবিত্ত, নিম্নমধ্যবিত্ত আর নিম্ন আয়ের মানুষেরা। কারণ রাজস্ব আয় মূলত পরোক্ষ করের উপরেই চলে। প্রত্যক্ষ করের মাঝে পরোক্ষ কর নিহিত অনেকটা। এই বিষয়ে বুঝতে হলে একটু হলেও অর্থনীতি পড়াশোনা করেন বা বুঝতে চান। এখন আমাদের বিলাসবহুল বাজেট না, দকার এফিশিয়েন্ট আর ইফেক্টিভে বাজেট।

তবে কষ্টের বিষয় এই যে আমাদের দেশের বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থি আর বুদ্ধিজীবী সুশীলেরা এখানে একদম চুপ। এরা শুভঙ্করের ফাঁকি বুঝেনা নাকি বুঝতে চায়না কী জানি! উই হেইট পলিটিক্স অ্যান্ড উই ফাক পলিটিক্স নামের এলিটিজম ছাইড়া একটু রাজনৈতিক সচেতন হন। এই সচেতন হতে বলার যথেষ্ট কারণ আছে। যদি আপনারা সচেতন হন, তো আমাদেরও নিষ্কৃতি হয়। আমার বাবা-মা কোন কোটিপতি না। সংখ্যাগরিষ্ঠেরই এক।

মন্তব্য ১০ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (১০) মন্তব্য লিখুন

১| ১২ ই জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনি অসুখী যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষারথীরা চুপ; ওরা কি বাজেট বুঝে? আপনি বুঝেন কিনা?

১৩ ই জুন, ২০২০ রাত ৮:০১

রাফিন জয় বলেছেন: আমার পয়েন্ট ভিউ ধরতে পারেননি। বোঝাতে চেয়েছিলাম তারা বুঝে। তবে বোকা দেয়ালের মতো দাঁড়িয়ে থাকে। বলতে চায়না।

২| ১২ ই জুন, ২০২০ রাত ৯:৪২

নুরুলইসলা০৬০৪ বলেছেন: সরকার আগে খরচের হিসেব করে আয়ের চিন্তা করে,আমরা আগে আয়করে খরচের হিসাব করি।

১৩ ই জুন, ২০২০ রাত ৯:৪৫

রাফিন জয় বলেছেন: ব্যয়ের উপরেই নির্ভর করে বাজেট করা হয়। তবে জটিল সমীকরণ দাঁড়ায় যখন স্বেচ্ছায় ব্যয় বাড়ানো হয়।

৩| ১২ ই জুন, ২০২০ রাত ১০:৩০

নেওয়াজ আলি বলেছেন: লাভ কি বাজেটে । গুদামে চাল আর খাটের নিচে তেল । উনারাই রাখবে।

৪| ১২ ই জুন, ২০২০ রাত ১১:৫৯

রাজীব নুর বলেছেন: দরিদ্র দেশে বাজেট হচ্ছে এটাই বেশি। সব মন্ত্রনালয় বরাদ্দ পাবে। ভাগবাটোয়ারা কত ভাগ হবে কে জানে!

১৩ ই জুন, ২০২০ রাত ৯:৪১

রাফিন জয় বলেছেন: সর্ষের মধ্যে ভূত।

৫| ১৩ ই জুন, ২০২০ রাত ৮:১৬

সরলপাঠ বলেছেন: আপনি সঠিক ভাবেই আপনার উদ্যেগ প্রকাশ করেছেন - আসলেই এই বাজেট মধ্যভিত্ত প্রাইভেট চাকুরেদের জন্যে বা তাদের পরিবারের জন্যে কঠিন ভার হবে।

তবে কিছু মহা পণ্ডিত ঊজবুক অন্যেরা বাজেট বুঝে কিনা প্রশ্ন তোলে।

১৩ ই জুন, ২০২০ রাত ৯:৩৭

রাফিন জয় বলেছেন: শেষের কথাটা কী আমাকে বললেন? চাঁদগাজীও এমন প্রশ্ন তুলেছিলো। আমি কিন্তু আমার পার্স্পেক্টিভ ক্লিয়ার করেছি।

৬| ১৪ ই জুন, ২০২০ রাত ১২:০৪

সরলপাঠ বলেছেন: রাফিন জয় - ভাই, আপনাকে বলিনি। যারা আপনি বাজেট বুঝেন কিনা প্রশ্ন তুলেছে তাদেরকে বলেছি।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.